টপ খবর

মরলে ৫ লাখ, পঙ্গু হলে ২ লাখ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাকুরিরত অবস্থায় সরকারের কর্মকর্তা বা কর্মচারি মৃত্যুবরণ করলে তার পরিবারের সদস্যকে ৫ লাখ টাকা অনুদান দেবে সরকার। গুরুতর আহত হয়ে কেউ স্থায়ী অক্ষম হলে তাকে ২ লাখ টাকা দেয়া হবে।

সোমবার এই নীতিমালাGovt-logo-TMর আলোকে কমিশন কর্মকর্তাদের কাছে অনুদান পাওয়ার ফরম পাঠানো হয়েছে।

সকল সরকারি চাকুরিজীবী ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকর্তাকর্মচারি এ সুযোগ পাবেন। একইসঙ্গে প্রেষণে, শিক্ষা ছুটিতে, প্রশিক্ষণে ও সাময়িক বরখাস্তকালীন সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা একই সুবিধা পাবেন। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত নীতিমালা অনুমোদন করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি বিরোধীজোটের হামলায় নিহত পুলিশ সদস্যসহ অন্যান্য যেসব কর্মকর্তা নিহত হয়েছে বা পঙ্গু হয়েছেন সেসব কর্মকর্তাকর্মচারির পরিবারের সদস্যরা এ সুবিধা পাবেন। তবে যেসব প্রতিষ্ঠানের সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারি এ ধরনের আর্থিক সুবিধা পাচ্ছেন তারা এ নীতিমালার আওতায় সুযোগ সুবিধা পাবেন না।

নীতিমালা অনুযায়ী সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারি, সকল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান যেমনবাংলাদেশ জাতীয় সংসদ সচিবালয়, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়, বাংলদেশ সুপ্রিম কোর্ট, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়, মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় এবং বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন সচিবালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা আর্থিক অনুদান পাবেন। অনুদান পাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্ধারিত নিয়মে আবেদন করতে হবে।

এ সংক্রান্ত পাওয়া আবেদন যাচাইবাছাই করার জন্য নির্দিষ্ট কমিটি গঠন করা হবে। ওই কমিটির সুপারিশের আলোকে অনুদান দেয়া হবে। স্থায়ী অক্ষমতার জন্য অনুদান পেতে হলে সরকার কর্তৃক গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রত্যয়নপত্র জমা দিতে হবে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

জেএসসি-জেডিসি: পাসের হার, জিপিএ-৫ দুটোই বেড়েছে

বিশ্ব দাবায় দশম রাউন্ডে ফাহাদের জয়

টানা তিন ম্যাচ জেতার পর চতুর্থ রাউন্ডে হারে ফাহাদ। এরপর আবার টানা তিনটি জয়ের পর অষ্টম রাউন্ডে হেরে ও নবম রাউন্ডে ড্র করে পিছিয়ে পড়ে ফাহাদ। ১১ রাউন্ডের এই প্রতিযোগিতা শেষ হবে শনিবার।

শুরুতে বাংলাদেশ থেকে এ প্রতিযোগিতার বিভিন্ন বয়স বিভাগে চার জনের খেলার কথা থাকলেও ফেডারেশনের আর্থিক সংকটের কারণে যেতে পেরেছে কেবল ফাহাদ।

ফাহাদ মাত্র ১০ বছর বয়সে দেশের সর্বকনিষ্ঠ ফিদে মাস্টার হয়। জাতীয় সাব-জুনিয়র চ্যাম্পিয়নও হয়েছে চতুর্থ শ্রেনীতে পড়ুয়া এই দাবাড়ু।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

জেএসসি ও জেডিসির ফল প্রকাশ রবিবার

নিজস্ব সংবাদদাতা : জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে রবিবার।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র জনসংযোগ কর্মকর্তা সুবোধ চন্দ্র ঢালী শনিবার বলেন, রবিবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফল তুলে দেওয়া হবে।

এরপর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করবেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, বেলা ২টায় দেশের শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট সকল পরীক্ষা কেন্দ্র/শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ই-মেইল/ওয়েব মেইল) এবং এসএমএস এর মাধ্যমে একযোগে ফল প্রকাশ করা হবে।

এছাড়া কেন্দ্র সচিবদের কাছ থেকে সংশ্লিষ্jsc-jdcট পরীক্ষা কেন্দ্রের আওতাধীন সকল প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা ফল সংগ্রহ করতে পারবেন।

পরীক্ষার ফল নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে সংগ্রহ করার পাশাপাশি পরীক্ষার্থীরা মোবাইলে এসএমএস, শিক্ষাবোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট (www.educationboardresults.gov.bd) এবং সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফল সংগ্রহ করা যাবে।

মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে ফল পেতে যেকোনো মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে JSC লিখে একটি স্পেস দিয়ে নিজ বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। মাদ্রাসার ক্ষেত্রে JSC-এর পরিবর্তে JDC লিখতে হবে।

এছাড়া ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ৩০ ডিসেম্বর থেকে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, এবারের জেএসসি-জেডিসিতে ১৯ লাখ দুই হাজার ৭৪৬ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রক্রিয়া: শেষ হবে কবে?

পরীক্ষার্থীদের প্রশ্ন: পরীক্ষা কবে শেষ হবে, কবে নাগাদ তারা ভর্তি হতে পারবেন।অবরোধের ফাঁকে ১২টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হলেও তারা শিক্ষার্থী ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু করতে পারেনি। ফলে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো দীর্ঘমেয়াদি সেশনজটের মুখে পড়তে যাচ্ছেন। সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে জানুয়ারিতে ক্লাস শুরু করে।কিন্তু অবরোধের কারণে এবছর দফায় দফায় ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতের ফলে জানুয়ারিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় admisson_testদেখা দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সেশনজটের আশঙ্কার মধ্যে শিক্ষামন্ত্রী বলছেন, “যেভাবেই হোক এটা পুষিয়ে নিতে হবে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন কৌশল নেয়া হবে।”বারবার ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতের ফলে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরাও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

বিরোধী দলের অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণার পরে ‘অনিবার্য’ কারণ দেখিয়ে কোন কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় দুই থেকে পাঁচ দফা ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করেছে।গত ১০ থেকে ১৪ নভেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও অবরোধ কারণে পঞ্চমবারের মতো পিছিয়ে তা ১০ থেকে ১৪ জানুয়ারি নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

দুইবার স্থগিতের পরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা ১৭-২৯ ডিসেম্বর হওয়ার কথা থাকলেও তৃতীয় দফা তা স্থগিত করা হয়েছে। ৭-৯ ডিসেম্বর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত রয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৪-১৯ নভেম্বর পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও আরো দুই দফা পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেও তা স্থগিত করা হয়েছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘এইচ’ ও ‘জি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চারবার পিছিয়েছে। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পিছিয়েছে দুইবার।এছাড়া রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে।

অবরোধের কারণে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি এবং চিটাগং ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স ইউনিভার্সিটির ভর্তি পরীক্ষাও নিতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এদিকে ঢাকা এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হলেও ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ করতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুয়েটের ভর্তি কার্যক্রম ৩০ নভেম্বর শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত রয়েছে। রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল ১৪ ডিসেম্বর, কিন্তু গত ১০ ডিসেম্বর তা স্থগিত করা হয়।

এছাড়া হাজি মোহাম্মদ দানেশ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি, চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বি’ ইউনিটের ছাড়া অন্য ইউনিটে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে।

অন্যদিকে ভর্তি পরীক্ষা শেষ হলেও খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিটি এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অবরোধের কারণে ভর্তি কার্ক্রম স্থগিত রয়েছে।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শুধু ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া পুরোপুরি শেষ হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য (পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়) অধ্যাপক আতফুল হাই শিবলী মনে করছেন একের পর এক পরীক্ষা স্থগিত হওয়ায় ক্লাস শুরু হতে দেরি হবে, বাড়বে সেশনজট।

যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে সেশনজট ছিল না সেখানেও সেশনজট শুরু হবে জানিয়ে  তিনি বলেন, “আমাদের কিছুই করার নেই।”

আগামীতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে কি না জানতে চাইলে যশোর এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, “এ ধরনের চিন্তাভাবনা এখন আর কেউ করছেন না।”

অবরোধের কারণে বারবার ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন সিরাজগঞ্জের শিক্ষার্থী আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি দিতে ঢাকায় এসেও পরীক্ষা দিতে পারেননি।

“আমি যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন করেছি সেখানে কবে পরীক্ষা হবে কেউ বলতে পারছে না।”

অবরোধের কারণে ভর্তি পরীক্ষা না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সেশনজটের সৃষ্টি হবে বলে মনে করছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদও।

তিনি বলেন, “বিরোধী দল ক্ষমতা ছাড়া অন্যকিছু দেখছে না। তবে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে নানা কৌশল চালাতে হবে।”

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালেয়ের সেশনজটও কমে আসছিল জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “এভাবে চালাতে পারলে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সেশনজট কমিয়ে আনা যেত। তবে ভবিষ্যতে তা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করা হবে।”

বিরোধী দলের ধারাবাহিক অবরোধের কর্মসূচিতে ক্ষোভ জানিয়ে এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক রেজাউল করিম বলেন, “আমরা এমন রাজনৈতিক কর্মসূচি চাই না। আমাদের সন্তানদের অনেক ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে।”

যেভাবেই হোক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানান তিনি।

 

‘চাকরিতে ঢোকার বয়স বাড়ছে না’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আব্দুস সোহবান সিকদার মঙ্গলবার Govt-logo-TM বলেন, “সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর কোনো চিন্তা-ভাবনা আপাতত সরকারের নেই।”

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো আলোচনাও হয়নি- জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারি চাকরিতে অবসরের বয়সসীমা আবারো বাড়ানোর কোনো সম্ভাবনাও নেই।

অবসরের বয়স বাড়ানো নিয়ে কিছু পত্রিকায় ভুল তথ্য পরিবেশিত হয়েছে বলেও দাবি করেন এই জ্যেষ্ঠ সচিব।

সরকারি চাকরিতে অবসরের বয়সসীমা দুই বছর বাড়ানোর পর চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর দাবি জানান সরকারি চাকরি প্রত্যাশীরা। এনিয়ে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় কর্মসূচিও পালন করেন তারা।

২০১১ সালের ১৯ ডিসেম্বর মন্ত্রিসভার অনুমোদন নিয়ে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের চাকরির বয়স ৫৭ থেকে ৫৯ বছর করা হয়। তবে অধ্যাদেশ জারির কারণে তা ২০১১ সালের ২৬ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হচ্ছে।

এর আগে ২০১০ সালে মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বয়স ৫৯-এ উন্নীত করা হয়।

এছাড়া গত বছরের ২১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়সসীমা এক বছর বাড়িয়ে ৬০ বছর করার ঘোষণা দেন।

পিএসসির নতুন চেয়ারম্যান ইকরাম আহমেদ

ঢাকা; PSC-Ikram-edসোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়, পিএসসির সদস্যপদ থেকে পদত্যাগসাপেক্ষে তার এই নতুন নিয়োগ কার্যকর হবে।

সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ইকরাম আহমেদকে চেয়ারম্যান পদে নিয়োগ দিয়েছেন বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়।

২০১১ সালের ২৩ নভেম্বর থেকে আহমেদুল হক সরকারি কর্মকমিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তার মেয়াদ গত ১৯ ডিসেম্বর শেষ হয়।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

এসএসসির প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা চেয়ে চিঠি

প্রতিবেদক : অস্থির রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে আসন্ন এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা নিয়ে বিচলিত সরকার। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো এবং সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সব জেলা প্রশাসককে চিঠি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা চেয়ে এ চিঠি পাঠায়।

এর আগে আন্তঃশিক্ষাবোর্ড প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছিল। চিঠির অনুলিপি সরকারি মুদ্রণালয় বিজি প্রেসের মহাপরিচালককেও দেয়া হয়েছে। জেএসসি ও পিএসসির প্রশ্ন ফাঁসের মতো ঘটনা যাতে এসএসসি ও সমমানের ক্ষেত্রে না ঘটে সেজন্যই কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।

এদিকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফল ৩০ অথবা ৩১ ডিসেম্বর প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৪ সালের MOEএসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। ইতিমধ্যে পরীক্ষার বেশিরভাগ প্রস্তুতি শেষ হওয়ার পথে। শেষ মুহূর্তে প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা চাইল শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ।

প্রশ্নপত্রের নিরাপত্তা চেয়ে চিঠি দেয়ার ঘটনা এই প্রথম বলে শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানরা দাবি করেছেন। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা একে রুটিন ওয়ার্ক বলে মন্তব্য করেছেন।

চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিজি প্রেস থেকে সংশ্লিষ্ট ট্রেজারি অথবা পরীক্ষা কেন্দ্র এলাকার থানার ভল্ট বা ব্যাংকের ভল্টে রাখা হয়। কিন্তু বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে উপজেলা পর্যায়ের ভল্টগুলোতে প্রশ্নপত্র যথাযথ নিরাপদে ও গোপনীয়তার সঙ্গে সংরক্ষণ এবং পরীক্ষার সূচি অনুযায়ী কেন্দ্রগুলোতে সুষ্ঠুভাবে প্রশ্ন সরবরাহের জন্য সংশ্লিষ্টদের সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

দর্শনায় প্রদীপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের শুভ উদ্ভোধন ঘোষনা

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দর্শনায় লিটিল এনজেলস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল কর্তৃক আয়োজিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ ও স্কুলের ইংলিশ মিডিয়াম শাখা শুভ উদ্ভোধন ঘোষনা করা হয়। little pict
গতকাল রবিবার সকাল ১০ টাই প্রদিপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে লিটিল এনজেলস ইন্টাঃ স্কুল এর ইংলিশ মিডিয়াম শাখা এর শুভ উদ্ভোধন করেন চুয়াডাঙ্গা-২ এর মাননীয় সাংসদ জনাব আলী আজগার টগর। উপজেলা শিক্ষা অফিসার নুরজাহান এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ এর মাননীয় সাংসদ জনাব আলী আজগার টগর, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব আজাদুল ইসলাম আজাদ, পৌর মেয়র জনাব মহিদুল ইসলাম,মদনা-পারকেষ্টপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব এ এস এম জাকারিয়া আলম, আখচাষি সমবায় সমিতির সভাপতি আশাদুল হক, হাউলি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী শাহ মিন্টু ,দর্শনা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক পিপুল এবং সাবেক ছাত্রনেতা হাবিবুর রহমান বুলেট।
প্রধান অতিথি তার বক্তবে বলেন উপজেলায় এটিই হবে প্রথম ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল যেখান থেকে শিশুরা মাতৃভাষার পাশাপাশি আন্তজার্তিক ভাষা ইংরেজি ভাষায় আয়ত্ব করতে পারবে। এক্ষেত্রে জেলার শিক্ষার মান উন্নয়নে স্কুলটি গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করবে। ক্লাসের পড়া ক্লাসেই শেষ এই স্লোগানকে সামনে ধরে স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক স্বরূপ দাস।আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরনি অনুষ্ঠান শুরু হয় । পরে স্কুলের অধ্যক্ষ বিকাশ কুমার তত্বাবধানে অতিথিদের আপ্যাযনের দায়িত্বে ছিলেন স্কুলের মানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দ ও অভিভাবকবৃন্দ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম বর্ষে ভর্তির কার্যক্রম স্থগিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি: ruet_5928_12487হরতাল-অবরোধের কারণে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের ভর্তির কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক শহীদ উজ জামান জানিয়েছেন, ১৪ ডিসেম্বর মেধাক্রম অনুযায়ী প্রথম বর্ষে ছাত্রছাত্রীদের ভর্তি করার কথা ছিল। অনিবার্য কারণে ভর্তির এই কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। ভর্তির পরবর্তী তারিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের নোটিশ বোর্ডে এবং (www.ruet.ac.bd) ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে।

গত ১৬ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা হয়। এ বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৯০টি আসনে ভর্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত তিন হাজার ১৪ জন শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ করা হয়। এ ছাড়া আর্কিটেকচার বিভাগে ৩০ সিটে ভর্তির জন্য ১২৪ জনকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হয়। ১৪ ডিসেম্বর মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তির তারিখ নির্ধারিত ছিল।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

এবার ১৩৪ রানের হার ভারতের

ক্রীড়া ডেস্ক: দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও বড় ব্যবধানে হারের স্বাদ পেল ভারত। প্রথম ওয়ানডেতে ১৪১ রানে হারের পর আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ভারত হেরেছে ১৩৪ রানে। এক ম্যাচ হাতে রেখেই ২-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ জিতে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। জয়ের জন্য ২৮১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৪ ওভার বাকি থাকতেই ভারতের ইনিংস গুটিয়ে গেছে ১৪৬ রানে। ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৬ রানের ইনিংসটি এসেছে সুরেশ রায়নার ব্যাট থেকে।

ডেল স্টেইন, লনওয়াবো ততসোবে ও মরনে মরকেলের দারুণ বোলিংয়ের মুখে শুরু থেকেই রানের চাকা ঘোরাতে হিমশিম খেয়েছে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ৯ ওভারের মধ্যে মাত্র ৩৪ রানেই চার উইকেট হারানোর পরই হার প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল ভারতের। রানের খাতা না খুলেই সাজঘরে ফিরতে হয়েছে শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলিকে। পঞ্চম উইকেটে ৪০ রানের জুটি গড়ে কিছুটা ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ও সুরেশ রায়না। কিন্তু ২০তম ওভারে দলীয় ৭৪ রানের মাথায় এই প্রতিরোধ গুঁড়িয়ে দেন ভারনন ফিল্যান্ডার। ১৯ রান করে ফিরে যান ধোনি। দুই ওভার পরে রায়নাকে সাজঘরমুখী করে ভারতের শেষ আশাটাও নস্যাত্ করে দেন মরকেল। শেষ চারটি উইকেট নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন ততসোবে ও স্টেইন।

৭ ওভার বল করে মাত্র ১৭ রানের বিনিময়ে তিনটি উইকেট নিয়েছেন স্টেইন। চারটি উইকেট গেছে ততসোবের ঝুলিতে। মরকেল পেয়েছেন দুটি উইকেট।
এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার কুইনটন ডি কক ও হাশিম আমলার শতকে ভর করে স্কোর বোর্ডে ২৮০ রান জমা করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ফের পেছালো রাবির ভর্তি পরীক্ষা

রাবি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বষের্র ভর্তি পরীক্ষা আবারও পিছিয়ে আগামী ২৫ ডিruসেম্বর করা হয়েছে। চলবে আগামী ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর প্রশাসক অধ্যাপক ইলিয়াছ হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

এ নিয়ে রাবির ভর্তি পরীক্ষা দু’বার পেছানো হলো।

অধ্যাপক ইলিয়াছ হোসেন শিক্ষাবার্তাকে বলেন, আগামী ৫ থেকে ৯ ডিসেম্বর ভর্তি পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও তা অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করা হয়েছে। যা আগামী ২৫ থেকে ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তি পরীক্ষার বিস্তারিত সময়সূচি পরবর্তীতে জানানো হবে। ভর্তি পরীক্ষার নতুন সময়সূচি ও আসন বিন্যাসসহ প্রয়োজনীয় তথ্যাদি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট www.admission.ru.ac.bd থেকে জানা যাবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১০ থেকে ১৪ নভেম্বর রাবির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। ওই সময় ১৮ দলীয় জোট হরতাল দেওয়ায় তা পরিবর্তন করে ৫ থেকে ৯ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়। তবে পুনঃনির্ধারিত সময়ে আবারও ১৮ দলীয় জোটের অবরোধ কর্মসূচি দেওয়ায় ভর্তি পরীক্ষা ফের পেছানো হলো।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

কোচিং ব্যবসার আড়ালে…

নিজস্ব প্রতিবেদক :কোচিং ব্যবসার আড়ালে ডিজিটাল জালিয়াতি ও প্রশ্ন ফাঁস করে যাচ্ছেন ভার্সিটি ভর্তি কোচিং সেন্টার ইউসিসি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)-এর ভিসি ও সিনেটের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ইউসিসির জড়ির থাকার কথা জানিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্ষিক সিনেট অধিবেশনে বিভিন্ন প্রমাণসহ তিনি এ কথা বলেন।

তিনি জানিয়েছেন,“ভর্তি পরীক্ষার জালিয়াতিতে ইউসিসি কোচিং সেন্টার জড়িত, আটককৃত শিক্ষার্থীরা পুলিশকে এ তথ্য জানিয়েছে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনা তুলে ধরে বলেন,“বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি চলাকালে নয়টি কেন্দ্র থেকে ১৪ জনকে আটক করা হয়। তারা বিশেষ ক্যালকুলেটরের মাধ্যমে পরীক্ষার হলে জালিয়াতির চেষ্টা করে। এ সময় তাদের আটক করে পুলিশে দেয়া হয়।”

আরেফিন সিদ্দিক শিক্ষাবার্তাকে বলেন,“আটককৃত শিক্ষার্থীরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইউসিসি কোচিং সেন্টার নাম বলেন।” সিনেট অধিবেশনে তাদের জবানবন্দির ভিডিও চিত্র দেখানো হয়েছে।

আরেফিন সিদ্দিক বলেন,“বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভর্তি পরীক্ষা জালিয়াতি হচ্ছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ হচ্ছে। এই জালিয়াতি রোধে আমরা সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।”

এদিকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি সরাসরি স্বীকার না করলেও ঘুরিয়ে স্বীকার করেছে ইউসিসি কর্তৃপক্ষ। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,”কোচিং সেন্টারে ৪শ শিক্ষক পড়ান। তাদের যে কেউ এটা করতে পারেন। সেজন্য কোচিং সেন্টার দায়ী নয়।”

কোচিং সেন্টারের শিক্ষক জড়িত থাকলে কোচিং সেন্টার কি দায় এড়াতে পারে- এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,“অবশ্যই দায় এড়াতে পারে না। তবে আমরাও জড়িত শিক্ষকদের খুঁজে বের করবো।”

কামাল পাটোয়ারী বলেন,“সরকার তদন্ত করতে পারে, আমরা তাদের সাহায্য করব। ইউসিসি’ও জানতে চায় কোন ব্যাক্তি এই ঘৃর্নিত কাজটি করেছে। আমরা শুনতে পেরেছি মাসুম নামের একজন শিক্ষক প্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িত। আমরা তাকে খুঁজছি। তবে জানতে পেরেছি, এই নামে কোন শিক্ষক বর্তমানে আমাদের কোচিং সেন্টারে নেই।”

ইতোমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে রাজধানীর শাহবাগ, নিউমার্কেটসহ ছয়টি থানায় ১৩টি মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রশ্নপত্র ফাঁস ছাড়াও ছাত্র নির্যাতেনের অভিযোগ রয়েছে ইউসিসি’ucc_coching_introর বিরুদ্ধে।

কেবল প্রশ্নপত্র ফাঁস নয়, গত বছরের এপ্রিলে প্রতিষ্ঠানের ‘বদনাম’ করায় এক ছাত্রকে পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে। নির্যাতিত ছাত্র রকিবুল তখন অভিযোগ করেছিল, ‘ইউসিসির মান ভালো নয়’ বলায় ওই ছাত্রকে নির্যাতন করা হয়েছে। সে কোচিং সেন্টারটির ফার্মগেটের ইন্দিরা রোডের প্রধান ক্যাম্পাসে কোচিং করতেন।

ছাত্রটি আরো জানিয়েছিল, ইউসিসির পরিচালক কামাল উদ্দীন পাটোয়ারীসহ ওই কোচিং সেন্টারের কয়েকজন শিক্ষক তাকে নির্যাতন করে। এ ঘটনায় শেরেবাংলা নগর থানায় একটি অভিযোগও দায়ের হয়েছিল।

এবার প্রশ্নপত্র ফাঁসের জালিয়াতির সাথে জড়িত আটক শিক্ষার্থীরা অধিকাংশ ইউসিসিতে কোচিং করত। তারা ইউসিসির শিক্ষকদের সঙ্গে চুক্তি করে জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছে বলে জানা গেছে। শেখ বোরহান উদ্দিন কলেজ থেকে আটক সাদিয়া সুলতানা শিক্ষাবার্তাকে জানান,ইউসিসির মাসুম নামের এক শিক্ষকের সঙ্গে চার লাখ টাকায় তার সাথে চুক্তি হয়। বিনিময়ে তিনি আমাকে ঢাবিতে চান্স পাইয়ে দেয়ার নিশ্চয়তা দেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

এসএসসি ফরম পূরণ অতিরিক্ত টাকা নিলে বিদ্যালয় ও প্রধান শিক্ষকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ- জেলা প্রশাসক

শিক্ষাবার্তা.কম,চুয়াডাঙ্গা,১৪নভেম্বর: চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন বলেছেন ‘২০১৪ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে যেসকল বিদ্যালয় বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত ফি নিচ্ছে সেই সকল বিদ্যালয় পরিদর্শন করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত বিদ্যালয় ও প্রধান শিক্ষকদের তালিকা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পাঠানো হবে।’

এদিকে, সভা শেষে দুপুরে চুয়াডাঙ্গা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের একদল এসএসসি পরীক্ষার্থী ফরম ফিলাপে অতিরিক্ত ফি আদায় করছে এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট লিখিত অভিযোগে দিয়েছে। জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসেন তাৎক্ষণিকভাবে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আবুল আমিনকে বিষয়টি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। অভিযোগে বলা হয়েছে, বোর্ড নির্ধারিত ফির চেয়ে বিজ্ঞান বিভাগে দু হাজার ৪৮৫ টাকা ও ব্যবসা ও মানবিক শাখার জন্য দু হাজার ৩৮৫ টাকা করে ফি আদায় করছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। যা শিক্ষার্থীদের পরিবারের পক্ষে ব্যয়ভার বহন সম্ভব নয়। সেকারণে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে।

গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা উন্নয়ন ও সমন্বয় কমিটির সভায় সভাপতির বক্ত্যবে জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসেন এসব কথা বলেন। সভার সঞ্চালক ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মল্লিক সাঈদ মাহবুব। সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কবীরুল হাসান, জেলার সিভিল সার্জন ডা. খন্দকার মিজানুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আমিন, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদুর রহমান, বিএডিসির যুগ্মপরিচালক আব্দুল মালেক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা খন্দকার আলাউদ্দিন আল আজাদসহ সরকারি সকল দফতরের প্রধানরা।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ভারত-বাংলাদেশ আঞ্চলিক পাসপোর্ট নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত

শিক্ষাবার্তাbd india_12088 ডেস্ক : ভারত-বাংলাদেশ আঞ্চলিক পাসপোর্ট নবায়ন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে কলকাতার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নতুন করে পাসপোর্ট নবায়ন না করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বুধবার ভারতীয় অনলাইন এনডিটিভির অনলাইন ভার্সনে এ খবর প্রকাশ করেছে।

ত্রিপুরা রাজ্যের এক মুখপাত্র জানান, ১৫ নভেম্বরের পর কোনো পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ করা হবে না এবং ৩০ নভেম্বরের পর কোনো নতুন পাসপোর্ট দেওয়া হবে না।

এর ফলে সীমান্তবর্তী আটটি রাজ্য তার নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমণে যে বিশেষ সুবিধা দিচ্ছিল তা বন্ধ হয়ে যাবে।

এ ব্যাপারে আগরতলার একজন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, বাংলাদেশিদের অনেকেই ভুয়া কাগজপত্র এবং অবৈধ উপায়ে সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করে। এই অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতেই এই সিদ্ধান্ত।

কলকাতা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের (আরপিও) বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসের ২৮ তারিখ বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে এ বিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তি মোতাবেক আগামী ৩০ নভেম্বর পরবর্তীতে আর কোনো নতুন পাসপোর্ট নবায়ন বা দেওয়া হবে না।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter