নিউজ

এবার শিক্ষা অফিসার দ্বারা শিক্ষিকা ধর্ষন!

মাদারীপুর প্রতিনিধি,১ মে: মাদারীপুর সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. তোফায়েল হোসেনের বিরুদ্ধে এক শিক্ষিকাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা  হলেও গ্রেফতার হয়নি সেই শিক্ষা অফিসার।


এদিকে মামলা করার কারণে শিক্ষিকার চাকুরি খেয়ে ফেলার হুমকি দিচ্ছে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষা অফিসার তোফায়েল।

মামলার নথি ও সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেলে মাদারীপুর সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসে অফিসিয়াল কাজে যান ওই শিক্ষিকা। এসময় ওই শিক্ষিকার কয়েকটি ছবি তুলেন তোফায়েল। ছবি তোলার কারণ জিজ্ঞেস করলে তোফায়েল ওই শিক্ষিকাকে পাশের আরেকটি নির্জন কক্ষে নিয়ে যায়। এ সময় ওই ছবির সাথে অশালীন ছবি যুক্ত করে ইন্টারেনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে কুপ্রস্তাব দেন। পরে জোরপূর্বক ওই শিক্ষিকার শালীলতাহানীর চেষ্টা করেন। ধস্তাধস্তিতে শিক্ষিকার পরিধেয় বোখরা ছিড়ে যায়। এই ঘটনার পরে শিক্ষিকা চিৎকার শুরু করলে তাকে ছেড়ে দেয়। Read More »

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

দিনে শিক্ষক রাতে চোর, ইংরেজিতে পারদর্শী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ৩০ এপ্রিল ২০১৯:

দিনে ইংরেজির শিক্ষক। রাতে মোবাইল চোর। এমবিএ ডিগ্রিধারী শিক্ষক কাম চোরকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর প্রথমে তার তুখোড় ইংরেজি শুনে কিছুটা ভড়কে যায় পুলিশও। কিন্তু তার এই বিশেষ দক্ষতার আড়ালে যে লুকিয়ে আছে অন্য চরিত্র তা বেরিয়ে আসে জিজ্ঞাসাবাদে। তার বাড়ি থেকে ৭২টি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে।

এমবিএ ডিগ্রি থাকা সত্ত্বেও ভালো ব্তেনের চাকরি পায়নি ভারতের নয়াদিল্লির বাসিন্দা মোহাম্মদ সাজিদ নামের এই যুবক। বাধ্য হয়ে বিলাসবহুল জীবন-যাপনের স্বপ্নে বিভোর হয়ে অপরাধ জগতে নাম লেখান তিনি। দিনে পাড়ার ছেলে-মেয়েদের ইংরেজি প্রাইভেট পড়াতেন তিনি। আর রাতের আঁধার নামলেই শুরু হতো চুরি। Read More »

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

৫ ধাপে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের তারিখ ঘোষনা

ডেস্ক,২৯ এপ্রিল: ৫ ধাপে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের তারিখ ঘোষনা করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

জানা গেছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাজস্ব খাতভুক্ত ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮’ জেলাওয়ারী প্রার্থী সংখ্যা ও পরীক্ষা আয়োজনের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে।

৫ ধাপে সব জেলায় নিয়োগ পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। প্রথম ধাপের পরীক্ষা আগামী ১০ মে। এ ধাপে মোট ১৬টি জেলায় ৩ লাখ ৯৬ হাজার ৪৪০ পরীক্ষার্থী রয়েছে। দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা হবে ১৭ মে (শুক্রবার)। এ ধাপে মোট ২৩ জেলায় ৪ লাখ ৩৬ হাজার ২ প্রার্থী। তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৪ মে (শুক্রবার)। এ ধাপে মোট ২৩ জেলায় ৪ লাখ ৮৪ হাজার ১৪০ প্রার্থী। চতুর্থ ধাপের নিয়োগ পরীক্ষা ৩১ মে (শুক্রবার)। এ ধাপে মোট ১৯টি জেলায় ৫ লাখ ৩১ হাজার ৯৫১ প্রার্থী। এছাড়াও পঞ্চম বা শেষ ধাপে ১৪ জুন (শুক্রবার) শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ধাপে ২০ জেলায় ৫ লাখ ৫৩ হাজার ৬৪ নিয়োগ প্রার্থী রয়েছেন বলে জানা গেছে। Read More »

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সরকারী ছুটি বিধিমালা পরিবর্তন হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৮ এপ্রিল: সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিদেশি সংস্থায় চাকরির জন্য লিয়েন ছুটির শর্ত কঠোর করা হচ্ছে। একনাগাড়ে বা বিচ্ছিন্নভাবে তারা সর্বোচ্চ পাঁচ বছর লিয়েনে ছুটি নিতে পারবেন। এর বেশি লিয়েনে থাকলে পাঁচ বছর পূর্তির দিন থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত হবেন। লিয়েন ছুটি শেষে কোনো কর্মকর্তা এক বছর সরকারি চাকরি না করে দ্বিতীয়বার এ ছুটিতে যেতে পারবেন না।

এসব বিধান যুক্ত করে বিদ্যমান `বৈদেশিক চাকরিতে বাংলাদেশি নাগরিকদের নিয়োগ সম্পর্কিত নীতি ও পদ্ধতি` সংশোধনী চূড়ান্ত করছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। শিগগিরই নতুন নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে।

এ ব্যাপারে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব শিক্ষাবার্তাকে বলেন, বিদ্যমান নীতিমালায় কিছু অস্পষ্টতা রয়েছে। এ সুযোগে সরকারি কর্মকর্তাদের লিয়েন ছুটি নেওয়ার প্রবণতাও বেড়ে গেছে। এতে সরকারি কাজকর্ম নানাভাবে ব্যাহত হচ্ছে। তাই বিদ্যমান নীতিমালার অস্পষ্টতা দূর করে নতুন নীতিমালা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, লিয়েন সংরক্ষণ বা লিয়েনে ছুটি নিয়ে কোনো কর্মকর্তা বিদেশি সংস্থায় চাকরি করে পরে আবার আগের সরকারি চাকরিতে যোগ দিতে পারেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

উপজেলা পর্যায়ে স্থাপন হচ্ছে ৩২৯ টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৬ এপ্রিল: দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে কারিগরি শিক্ষায় বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার অংশ হিসেবে উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এগুলো স্থাপনে ব্যয় হবে ২০ হাজার ৮৮৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। অনুমোদন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে এ সংক্রান্ত প্রকল্পটি নিয়ে আগামী সোমবার প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) বৈঠকে বসছে পরিকল্পনা কমিশন।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে পিইসি সভায় সভাপতিত্ব করবেন কমিশনের আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সদস্য আবুল কালাম আজাদ।
এরপর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (এননেক) বৈঠকে অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০২৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর।

পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা যুগান্তরকে জানান, ‘উপজেলা পর্যায়ে ৩৮৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন (দ্বিতীয় পর্যায়)’ শীর্ষক প্রস্তাবিত এ প্রকল্পটি চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বরাদ্দহীনভাবে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

তবে এর আগে হাতে নেয়া ‘১০০টি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন’ নামের প্রথম পর্যায়ের প্রকল্পটি বাস্তবায়নের অগ্রগতি ভালো নয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রস্তাবিত প্রকল্পটি সময়মতো বাস্তবায়নে ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত বিষয়গুলোতে আগে থেকেই সতর্ক থাকার জন্য পিইসি সভায় তাগিদ দেয়া হতে পারে।

কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মো. জাহাঙ্গীর আলম বৃহস্পতিবার জানান, প্রথম পর্যায়ে জমির জটিলতাই হচ্ছে মুখ্য। তবে আমরা এরইমধ্যে ৯৫টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপনে জমি অধিগ্রহণ করেছি। ৫টির অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া চলছে।

প্রস্তাবিত প্রকল্পটি যাতে এ সংক্রান্ত জটিলতায় না পড়ে সেজন্য আগে থেকেই ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম এগিয়ে রাখা হচ্ছে। যাতে প্রকল্পটি অনুমোদন পেলেই বেশ কিছু স্থানে ভবন নির্মাণ শুরু করতে পারা যায়।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রস্তাবিত প্রকল্পভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোতে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি একটি করে কারিগরি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। সেই সঙ্গে এসএসসি (ভোকেশনাল) ও এইচএসসি (ভোকেশনাল) কোর্স চালু করার মাধ্যমে দেশব্যাপী কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার সম্প্রসারণ করা হবে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

যেসব মোবাইলসিম বন্ধ হচ্ছে শুক্রবার

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৫ এপ্রিল: বৃহস্পতিবার মধ্যরাত (জিরো আওয়ার) থেকে বন্ধ হচ্ছে ২০ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৭টি মোবাইল সিম।যেসব সিম তিনমাসের অধিক সময় ধরে বন্ধ আছে সেগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আবার একজনের নামে একাধিক সিম থাকলে এবং তা চালু থাকলেও তা বন্ধ হতে পারে বলে জানিয়েছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

নির্ধারিত সংখ্যকের বেশি যেসব মোবাইল সিম ব্যক্তির নামে নিবন্ধন হয়েছে সেগুলো বন্ধ করে দিতে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি দেশের সব মোবাইল অপারেটরকে নির্দেশনা দিয়েছে।

বিটিআরসি`র নির্দেশনা ছিল, একই জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) ১৫টির বেশি নিবন্ধিত সিম রাখা যাবে না। কিন্তু বিটিআরসি দেখেছে একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে এভাবে নিবন্ধন হওয়ার সিমের সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এজন্য অতিরিক্ত সিম কমিয়ে ফেলতে বিটিআরসি তৈরি করেছে ‘সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং প্ল্যাটফর্ম’।

এ ব্যাপারে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক বলেন, ‘নিরাপদে মোবাইল সিম ব্যবহারে এ প্রচেষ্টা আরও গ্রাহকবান্ধব হবে এবং এই খাত অধিকতর সুশৃঙ্খল হবে। আশা করছি, এর ফলে জনসাধারণ নির্বিঘ্নে উন্নত টেলিযোগাযোগ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।’

বিটিআরসি সূত্রে জানা যায়, আজ রাতের (রাত ১২টা) জিরো আওয়ার থেকে সিমগুলো বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু হবে। সব সিম বন্ধ হতে ৭-৮ ঘণ্টা সময় লেগে যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১২ জুন সরকার একজন গ্রাহকের বিপরীতে ২০টি সিম নির্ধারণ করে দেয়। পরে এই সংখ্যা কমিয়ে ৫টি করা হলেও সেই সিদ্ধান্তও পরিবর্তন হয়। সর্বশেষ ২০১৭ সালে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে ১৫টি সিম নিবন্ধনের জন্য নির্ধারণ করা হয়।

জানা গেছে, ২০ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৭টি সিমের মধ্যে গ্রামীণফোনের সিম সংখ্যা চার লাখ ৬১ হাজার ২৬১, বাংলালিংকের চার লাখ ৫৫ হাজার ৮৩১, রবি‘র চার লাখ ১৯ হাজার ২০২, টেলিটকের চার লাখ ৮৭ হাজার ৮৯২ ও এয়ারটেলের রয়েছে দুই লাখ ২৫ হাজার ৭৬১টি সিম।

বিটিআরসি‘র তথ্যমতে, অন্তত এক লাখ জাতীয় পরিচয়পত্রের ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত নির্দেশনা মানা হয়নি। এই সংখ্যক জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে ১৫টির বেশি সিম নিবন্ধন করা হয়েছে।

এদিকে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর সংগঠন অ্যামটব সিম বন্ধ করতে সরকারের কাছে আরও দুই মাস সময় (২৬ জুন পর্যন্ত) চেয়ে আবেদন করেছে। অ্যামটব মহাসচিব ব্রি. জে. (অব.) এস এম ফরহাদ স্বাক্ষরিত ওই আবেদনে সিম বন্ধ হলে গ্রাহকদের চারটি সমস্যা হবে উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলো হলো, সিম বন্ধ হলে সংশ্লিষ্ট নম্বরের বিপরীতে খোলা মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব (মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস) বন্ধ হয়ে যাবে, অনলাইন লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংক হিসাব বা ক্রেডিট কার্ড ক্ষতিগ্রস্ত হবে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের (বিশেষত ফেসবুক) আইডি নিষ্ক্রিয় হবে এবং ওটিপি-ওভার দ্য টপ (বিভিন্ন অ্যাপসভিত্তিক যোগাযোগ ব্যবস্থা) বাধাগ্রস্ত হবে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিকে দুই শিক্ষিকার মারামারি! কি শিখবে শিশুরা

সিলেট  প্রতিনিধিঃ  সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় স্কুল চলাকালীন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষিকার মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে দুজনই আহত হয়েছেন।

ডেস্কঃ

বুধবার দুপুরে উপজেলার খলাছড়া ইউনিয়নের ডিগ্রি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। মারামারির ঘটনায় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খাদেজা বেগম চৌধুরী ও সহকারী শিক্ষিকা হাসনা বেগমের মধ্যে বেশ কয়েক দিন থেকে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ নিয়ে উভয়ই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন।

বুধবার দুপুরে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা চৌধুরীর সঙ্গে সহকারী শিক্ষিকা হাসনা বেগমের কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে দুজন মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন। এতে আহত হন দুজনই।

এসময় এলাকাবাসী দ্রুত জকিগঞ্জ থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা প্রধান শিক্ষিকা খাদেজা বেগমকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। পাশাপাশি হাসনা বেগমকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেন।

সহকারী শিক্ষিকা হাসনা বেগম বলেন, ‘আমি প্রধান শিক্ষিকার বিরুদ্ধে আগে শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলাম। তদন্তে আমার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। বুধবার আমি বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে হাজিরা দিতে গেলে প্রধান শিক্ষিকা আমাকে হাজিরা দিতে দেননি। এর প্রতিবাদ করলে আমাকে মারপিট করেন তিনি।’

প্রধান শিক্ষিকা খাদিজা বেগম বলেন, সহকারী শিক্ষিকা হাসনা বেগম গত ১৭ এপ্রিল ছুটি ছাড়াই স্কুলে অনুপস্থিত থাকেন। ২৩ এপ্রিল একইভাবে অনুমতি না নিয়ে তিনি বিদ্যালয় ছুটির পূর্বেই বিদ্যালয় ত্যাগ করেন। আমি শিক্ষক হাজিরা খাতায় তার অনুপস্থিত দেই। বুধবার হাজিরা খাতায় হাসনা বেগম অনুপস্থিতি দেখে অফিস কক্ষের টেবিল থেকে আমার মোবাইলটি কেড়ে নেন। কারণ জানতে চাইলে তিনি আমাকে বেধড়ক মারপিট করেন।

এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, সহকারী শিক্ষিকা ক্লাস ফাঁকি দিয়ে নিজের ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থেকে নিজের ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান বিউটি পার্লারে সময় দেন সহকারী শিক্ষিকা।

জকিগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, মারামারির খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানোর আগেই মারামারি থেমে যায়। আহত দুই শিক্ষিকা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বিরেন্দ্র চন্দ্র দাস বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমাকে টেলিফোনে মারামারির ঘটনাটি জানিয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে খতিয়ে দেখা হবে।

জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজন কুমার সিংহ বলেন, শিক্ষকদের এ ধরনের দ্বন্দ্ব অপ্রত্যাশিত। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে এর প্রভাব পড়বে। বিষয়টি তদন্ত করে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

বাংলাদেশ জার্নাল/টিপিবি

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষা কর্মকর্তার সামনেই শিক্ষককে পেটালেন স্কুল সভাপতি!

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনার বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-জগন্নাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়টির সভাপতির বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকালে বেড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বিদ্যালয়টির সভাপতি হাজী নূর ইসলাম বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রধান শিক্ষক শামীম আকতারের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের দায়িত্বরত উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু সাঈদের কাছে অভিযোগ দেন। তিনি দুজনকে নিয়ে বসে বিষয়টি সমাধান করার সিদ্ধান্ত নেন। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ সকালে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হন। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক শামীম আকতার নিজের ব্যাখ্যা দেওয়ার একপর্যায়ে সভাপতি তার ওপর চড়াও হন। তিনি ওই প্রধান শিক্ষককে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন এবং আশেপাশের আসবাবপত্র দিয়েও আঘাত করেন। ঘটনার আকস্মিকতায় উপস্থিত সবাই হতভম্ব হয়ে যান।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী প্রধান শিক্ষক শামীম আকতার বলেন, ‘আমি আমার বক্তব্য তুলে ধরার সাথে সাথেই সভাপতি আমার ওপর আক্রমণ করেন এবং মারধর করেন।’

সভাপতি হাজী নূর ইসলাম বলেন, ‘তর্ক-বিতর্ক চলাকালীন সামান্য ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে।’

এ বিষয়ে বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের কপি বেড়া মডেল থানায় এবং উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। তদন্তে সত্যতা প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

এমপিওর দাবিতে কাল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও

ডেস্ক,২৪ এপ্রিল : এমপিওভুক্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ঘোরাও করবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পরিচালিত বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স কোর্সেও নন-এমপিও শিক্ষকরা।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের আহ্বায়ক নেকবর হোসাইনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. মোহরাব আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিক্ষুব্ধ শিক্ষকরা বলেন, উচ্চ শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে ও গ্রামাঞ্চলে গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য সরকার ১৯৯৩ সালে বেসরকারি কলেজ সমূহে অনার্স-মাস্টার্স কোর্স চালু করা হয়। কিন্তু দীর্ঘ ২৭ বছরেও উচ্চ শিক্ষাদানে নিয়োজিত এই সকল শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করা হয়নি।

শিক্ষকরা বলেন, শুধুমাত্র নীতিমালার দোহাই দিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো কালক্ষেপন করছে। এতে ন্যায্য বেতন-ভাতা বঞ্চিত হয়ে শিক্ষকেরা মানবেতর জীবনযাপন করছে। এতে উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়ন মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এমপিওভুক্তির ঘোষণা দাবি করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

উল্লেখ্য, টানা দ্বিতীয় দিনের মত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশের পাশাপাশি সংশ্ল্ষ্টি দপ্তরগুলোতে দেনদরবার করছেন বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা। তারা দাবি আদায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা হতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘেরাও কর্মসূচি পালন করবে। আগামীতে অনশন কর্মসূচী পালনের পরিকল্পনা রয়েছে বলেও তারা জানান।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর প্রস্তাব সংসদে উঠছে কাল

ডেস্ক,২৩ এপ্রিল:   সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ এবং অবসরের বয়স ৬২ করার প্রস্তাব আগামীকাল একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনে উঠছে। বিকাল ৫ টায় অধিবেশন শুরু হবে।

গত ৩ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এ অধিবেশন আহ্বান করেন। সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ অধিবেশন আহ্বান করেন রাষ্ট্রপতি। তবে এই অধিবেশন কতদিন চলবে তা জানা যায়নি। অধিবেশন শুরুর এক ঘণ্টা আগে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে এ অধিবেশন পাঁচ কার্যদিবস চলতে পারে। Read More »

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ায় অধ্যক্ষকে দায়িত্ব হস্তান্তরের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ এপ্রিল:

বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ার কারণে ঢাকা সেনানিবাসের বিএন কলেজের অধ্যক্ষ মো. মোসলেহ উদ্দিনকে দায়িত্ব হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। ১৮ এপ্রিল অধ্যক্ষকে অধিদপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

চিঠিতে মো. মোসলেহ উদ্দিনকে অধ্যক্ষ পদের দায়িত্ব উপাধ্যক্ষ বা জ্যেষ্ঠ শিক্ষককে হস্তান্তর করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, বয়স ৬০ বছর হলেও এখনও অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব পালন করছেন অধ্যক্ষ মো. মোসলেহ উদ্দিন। কিন্তু গেল ১২ জুন জারি করা এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো ২০১৮ এর ১১.৬ অনুচ্ছেদে বলা হয়, বয়স ৬০ পূর্ণ হলে কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা সহকারী প্রধান বা শিক্ষক-কর্মচারীকে কোনো অবস্থাতেই পুনঃনিয়োগ বা চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া যাবে না।

এছাড়া, ২০১৮ সালের ১ আগস্ট ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের জারি করা এক নির্দেশনায় বলা হয়, বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ার পর অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ নেই। এর প্রেক্ষিতে মো. মোসলেহ উদ্দিনের অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব পালন করার সুযোগ নেই।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

৫ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ এপ্রিল:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত হওয়া সরকারি সাত কলেজে সেশনজট নিরসন, ক্রটিপূণ্য ফল সংশোধন এবং ফল প্রকাশের দীর্ঘসূত্রিতা দূর করাসহ নানা সমস্যা সমাধানের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

৫ দফা দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় ঢাকা কলেজের সামনে থেকে মানববন্ধন শুরু করে শিক্ষার্থীরা, যা নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাবের পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। এরপর সড়ক আটকিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে তারা।

এ সময় তারা সাত কলেজের নানা সমস্যা তুলে ধরে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। ‘গণহারে আর ফেল নয়, যথাযথ রেজাল্ট চাই’, ‘শিক্ষা কোনো পণ্য নয়, শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা নয়’, ‘গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’, ‘বন্ধ করো অনাচার, সাত কলেজের আবদার’, ‘নিচ্ছো টাকা দিচ্ছ বাশ, সময় শেষে সর্বনাশ’-এসব স্লোগান দেয়া হয় বিক্ষোভে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ঢাবির অধিভুক্ত হ্ওয়ার পর দীর্ঘ ৯ মাস সাত কলেজের কার্যক্রম বন্ধ থাকে। তারপর মানববন্ধন, অনশন কর্মসূচি সর্বশেষ সিদ্দিকের (তিতুমির কলের শিক্ষার্থী) চোঁখের বিনিময়ে ঢাবি আমাদের কার্যক্রম ধীরগতিতে শুরু করে। প্রায় ২ বছর ২ মাস অতিবাহিত হলেও সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা কোনো সুফল ভোগ করতে পারছে না।

শিক্ষার্থীদের দাবি, পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তারা। সবশেষ পরীক্ষায় ঢাকা কলেজ বাংলা বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ২১৬ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সব বিষয়ে পাশ করেছেন মাত্র ৩ জন। ক্যামেস্টিতে ৪৮ জনের মধ্যে ৪০ জন অকৃতকার্য হয়েছেন।

তবিবুর নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ঢাবি আমাদের যে মান অনুযায়ী পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করে সেই মান অনুযায়ী ক্লাসে পড়ানো হয় না। এমনও বিষয় আছে পাঁচটির বেশি ক্লাস হয় না। নানা অজুহাতে ক্লাস বন্ধ থাকে।

শিক্ষার্থী আনোয়ার হোসেন বলেন, আমাদের সমস্যা গুলো নিয়ে কলেজের শিক্ষকদের কাছে গেলে উনারা বলেন, ঢাবি তোমাদের সব কার্যক্রম করছে, আর ঢাবির প্রশাসনিক ভবনে গেলে বলে সাত কলেজের শিক্ষকরা সভা করে সকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এভাবেই শিক্ষাথীরা দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয়।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

আবার প্রাথমিকে নিয়োগ হচ্ছে পুল শিক্ষক

অনলাইন ডেস্ক,২২ এপ্রিল:

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো শিক্ষক সংকটে ধুকছে। সারাদেশের প্রায় শতভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকের অভাব রয়েছে। নিয়মিত শিক্ষক সংকট ছাড়াও কর্মরত শিক্ষকরা নানা ছুটিতে থাকায় পাঠদান মারাত্মক বিঘ্নিত হচ্ছে। এ থেকে উত্তরণে বর্তমানে কর্মরত শিক্ষকদের ২০ শতাংশ তথা প্রায় ৭০ হাজার ‘পুল টিচার’ নিয়োগের পরিকল্পনা করছে সরকার।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে উন্নীত করার ঘোষণা দিয়েছেন। বর্তমানে যারা প্রাথমি স্তরের শিক্ষার্থী তাদেরকে গুনগত শিক্ষা দিতে ব্যর্থ হলে এটা অর্জন করা সম্ভব হবে না। প্রশিক্ষণ ছাড়াও শিক্ষকরা নানা ধরনের ছুটিতে থাকায় বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক সংকট থাকে। পাঠদান নিশ্চিত করতে আপদকালীন ২০ শতাংশ রিজার্ভ টিচার নিয়োগ দেওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছি।’

Read More »

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে সাময়িক বরখাস্ত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি,২২ এপ্রিল : মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. মাশহুদ করিমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। নানা অপকর্ম, অনৈতিক সম্পর্ক ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে তার স্ত্রী জেসমিন আক্তার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বরাবর অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে  তাকে বরখাস্ত করা হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে চলতি বছরের মার্চ মাসের ৩১ তারিখ রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো.আকরাম-আল-হোসেন স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে মাশহুদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। জেসমিন আক্তার জানান, ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসের ২৩ তারিখ মানিকগঞ্জের  হরিরামপুর উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার মাশহুদ করিম এর সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তারা দু’জনই তালাকপ্রাপ্ত ছিল। বিয়ের কিছুদিন পর জানতে পারে তার একটি ছেলে আছে এবং পূর্বের স্ত্রীর সঙ্গে তার যোগাযোগ  আছে।

পরে তিনি আরও জানতে পারেন আগের চাকরিস্থলে বাড়িওয়ালার স্ত্রীর সঙ্গে  মাশহুদের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়েদের সঙ্গে তার পরকিয়া প্রেমে সম্পর্ক রয়েছে। এসব বিষয়ে বাঁধা দিলে সে তাকে ভিন্নভাবে শরীরিক নির্যাতন করতো। এছাড়াও তাকে ডিভোর্স দেওয়ার হুমকি দেয়। পরে গত ২০১৮ সালের আগস্ট মাসের ২৫ তারিখে তাকে ডিভোর্স দেয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) জোৎস্না খাতুন বলেন, ‘ওই উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সাময়িক বরখাস্তকালীন সময় তিনি প্রচলিত বিধি মোতাবেক  খোরাকি ভাতা পাবেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

৩৬ হাজার নিয়োগ:জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ডেস্কঃ  শিগগিরই বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ৩৬ হাজার শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। বার্তা সংস্থা ইউএনবির সঙ্গে এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এ তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

অবিলম্বে খালি পদ পূরণের জন্য মন্ত্রণালয়ের আবেদনপত্র অনুমোদন করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আশা করছি, আমরা খুব শিগগির খালি পদগুলো পূরণ করতে সক্ষম হব।

জনপ্রশাসনের গতিশীলতা ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ বলেন, আমরা নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রশাসনের গতিশীলতা আনতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।

জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রশাসনের দ্বারা মানুষ প্রায়ই হয়রানির শিকার হচ্ছে— এমন অভিযোগের ব্যাপারে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, জনসাধারণের প্রশাসন গঠনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। জনগণকে দ্রুত সেবা দেওয়ার লক্ষ্য পূরণের জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমি দেখেছি যে, সাধারণ মানুষ সরকারি অফিসে যেতে পারেন না। এমনকি তাঁরা সরকারি অফিসে গেলেও যথাযথ সম্মান পান না। এ পদ্ধতিতে বেশ কয়েকটি ত্রুটি রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা জনসাধারণের কল্যাণভিত্তিক প্রশাসন গড়ে তুলতে চাই।

এসব ব্যাপারে সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ। এ ছাড়া এ ব্যাপারে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে তৃণমূল কর্মকর্তাদের কাছে বার্তা পাঠানো হয়েছে বলেও জানান ফরহাদ।

তিনি বলেন, আমরা মনে করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছি যে, জনগণ সব ক্ষমতার উৎস এবং প্রশাসনকে সেবা দেওয়ার জন্যই কাজ করতে হবে।

প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত করার জন্য গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০ বছর ধরে মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের নির্দেশ দিয়েছেন। আমি সেই নীতিই অনুসরণ করছি।

বঙ্গবন্ধুর বক্তব্যকে স্মরণ করে ফরহাদ বলেন, যারা সেবা চান, তারা আমাদের ভাইবোনদের মতো, আমাদের আত্মীয়স্বজনদের মতো। তাদের প্রাপ্য সম্মান দিতে হবে। সরকার এই লক্ষ্য পূরণের জন্যই কাজ বলে জানান ফরহাদ। জনসাধারণের সেবা বাড়বে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা সমৃদ্ধ হতে চাই, পৃথকভাবে না বরং একসঙ্গে। আমরা জনপ্রশাসনকে জনগণের বন্ধুত্বপূর্ণ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। ভবিষ্যতে এটি আন্তর্জাতিক মানের হবে। আমরা যদি দক্ষতার সঙ্গে আমাদের কর্মকর্তাদেরকে গড়ে তুলতে পারি, তাহলে মানুষ তাঁদের সেবা থেকে বঞ্চিত হবে না।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এই লক্ষ্য পূরণ হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। ফরহাদ হোসেন জানান, জনগণের দুর্ভোগ সম্পর্কে জানতে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের প্রশাসনকে সাপ্তাহিক শুনানি রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা মানুষের পছন্দমতো সেবা দেওয়ার চেষ্টা করছি।

ফরহাদ আরো বলেন, সরকার প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সুশাসন নিশ্চিত করতে চায়। সুশাসন মানে জনগণের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা এবং জনসাধারণের কর্মচারী হিসেবে তাদের মতো করে সেবা দেওয়া।

প্রতিমন্ত্রি ফরহাদ বলেন, জনগণের সেবা করার জন্য আমি আমার যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter