Home » নিউজ (page 4)

নিউজ

আজ ব্যাংকে যাচ্ছে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বোনাসের টাকা

ডেস্ক,২২ জুলাই:

বেসরকারি এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুল আজহার উৎসব বোনাসের সরকারি আদেশে জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই টাকা আজ বুধবার (২২ জুলাই) সরকারি সোনালী, রূপালী, জনতা, অগ্রণী ব্যাংকে পাঠানো হবে।

এর আগে গত সোমবার জিও জারি করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) পরিচালক (প্রশাসন) শাহেদুল খবির চৌধুরী বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ বোনাসের জিও বা সরকারি আদেশ জারি হয়েছে। আজ (বুধবার) অর্থ নির্ধারিত চারটি ব্যাংকে পাঠানো হবে। ঈদের আগেই শিক্ষক-কর্মচারীরা বোনাসের অর্থ হাতে পাবেন বলে জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, শিক্ষকদের ঈদুল আজহার উৎসব ভাতা দেয়ার প্রস্তাব অধিদপ্তর থেকে পাঠানো হয়েছিল। সেই প্রস্তাবে অনুমোদনও দেয়া হয়েছে। এখন বোনাসের চেক ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হচ্ছে। এমপিও শিক্ষকরা প্রচলিত বিধি অনুসারে বোনাস ভাতা পাবেন।

জানা গেছে, আগামী ১ আগস্ট সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। তাই জুলাই মাসের বেতন অনুসারে উৎসব ভাতা পাচ্ছেন শিক্ষকরা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আরও বাড়তে পারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি, অনিশ্চিত এইচএসসি পরীক্ষাও

ডেস্ক,২২ জুলাই:

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে টানা বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কয়েক দফা বাড়ানোর পর সরকারের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ থাকবে প্রতিষ্ঠানগুলো। কিন্তু এরপর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে কি না, সে বিষয়ে এখনেও সিদ্ধান্ত নেয়নি মন্ত্রণালয়। তবে সহসাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে না বলে ইতিমধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের সাংবাদিকদেরকে এ তথ্য জানিয়েছেন। এছাড়া এইচএসসি পরীক্ষা নিয়েও এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ঈদের ছুটির পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্তে যেতে পারেনি মন্ত্রণালয়। তবে ৬ আগস্টের আগেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করে ছুটির বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

মোহাম্মদ আবুল খায়ের বলেন, ‘সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা না করে সিদ্ধান্তে নেবে না মন্ত্রণালয়। তাছাড়া ৬ আগস্ট আসতে এখনও কিছুদিন সময় বাকি আছে। ঈদের পর বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।’

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে গত ১৭ মার্চ থেকে শুরু হওয়া ছুটি বাড়ানো হয়েছে ৬ আগস্ট পর্যন্ত। এই পরিস্থিতির মধ্যে ৯ আগস্ট থেকে অনলাইনে একাদশে ভর্তির আবেদন আহবান করা হয়েছে। আবেদনের শেষ সময় ৮ সেপ্টেম্বর। সব প্রক্রিয়া শেষ করতে সময় লাগবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি জানিয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হবে। অন্তত দুই সপ্তাহ সময় দিয়ে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লেজিসলেটিভ সচিব নরেন দাসের মৃত্যু

ডেস্ক,২১ জুলাইঃ
সরকারের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব নরেন দাস করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয় বলে তার একান্ত সচিব তরফদার মাহমুদুর রহমান জানান।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “আত্মীয়-স্বজনরা হাসপাতালের পথে রয়েছেন। তারা আসার পর তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

সচিব নরেন দাস

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় গত ৫ জুলাই রাতে নরেনকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।
গত ৭ জুলাই নমুনা পরীক্ষা করা হলে নরেন দাসের সঙ্গে তার স্ত্রীরও কোভিড-১৯ ‘পজিটিভ’ আসে।

মাহমুদুর জানান, নরেন দাসের স্ত্রী এখন সুস্থ্য হয়ে উঠছেন, তার দ্বিতীয় পরীক্ষার ফল ‘নেগেটিভ’ এসেছে।

২০১৯ সালের ৩ নভেম্বর থেকে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন নরেন দাস। এর আগে তিনি এ বিভাগের অতিরিক্ত সচিবের (ড্রাফটিং) দায়িত্বে ছিলেন।

নরেন দাসের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এক শোকবার্তায় তিনি প্রয়াত সচিবের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

আইন কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হকও লেজিসলেটিভ সচিব নরেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে নরেন দাস ছিলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হকের ছাত্র।

লেজিসলেটিভ সচিবের মৃত্যুতে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ারও শোক জানিয়েছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

পবিত্র ঈদুল আজহা ১ আগষ্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা
বাংলাদেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে বাংলাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে ১ আগষ্ট। আজ চাঁদ দেখা না যাওয়ায় জিলহজ শুরু হবে আগামী বৃহস্পতিবার।

আজ মঙ্গলবার চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিতর্কের মুখে পদত্যাগ করলেন স্বাস্থ্যের ডিজি

ডেস্স্বাক,২১ জুলাইঃ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) আবুল কালাম আজাদ পদত্যাগ করেছেন। আজ মঙ্গলবার জনপ্রশাসন সচিবের কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আবুল কালাম আজাদের পদত্যাগপত্র গৃহীতের বিষয়টি প্রজ্ঞাপন আকারের জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্যখাতের নানা অনিয়ম নিয়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যে তিনি পদত্যাগ করলেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিএড স্কেল পাওয়ার ১০ বছর পর উচ্চতর গ্রেড পাবেন শিক্ষকরা

ডেস্ক,২১ জুলাইঃ

বিএড স্কেল পাওয়ার ১০ বছর পূর্তিতে উচ্চতর গ্রেড পাবেন এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। আর বিএড স্কেল শিক্ষাগত ডিগ্রির জন্য অর্জিত হলেও উচ্চতর গ্রেড হিসেবে গণ্য হবে। তবে, শিক্ষকরা চাকরিতে দুইটির বেশি উচ্চতর গ্রেড পাবেন না। এসব তথ্য জানিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে পাঠানো স্পষ্টীকরণ চিঠির জবাব দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। তাই, এমপিও নীতিমালায় শিক্ষকদের দুইটি উচ্চতর গ্রেড পাওয়ার কথা বলা হলেও দ্বিতীয় উচ্চতর গ্রেড নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি কর্মচারীদের পেনশন সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,২০ জুলাই:

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদের পর আন্দোলনে নামছে ৩৫ প্রত্যাশীরা

শিক্ষাবার্তা ডেস্ক,১৮ জুলাই:

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার দাবিতে ফের আন্দোলনে নামছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ। দাবি আদায়ে সরকারকে নতুনভাবে আল্টিমেটামও দিয়েছে সংগঠনটি। দাবি না মানলে ঈদুল আজহার পর শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে তারা।

এ বিষয়ে অনুষ্ঠানিকভাবে জানাতে আগামী সোমবার (২০ জুলাই) ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েসন (ক্রাব) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ (কেন্দ্রীয় কমিটি)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংগঠনটির মুখপাত্র ইমতিয়াজ হোসেন।

তিনি বলেন, সেশনজট, রাজনৈতিক অস্থিরতা, নিয়োগের ক্ষেত্রে কালক্ষেপণ ও বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে অনেকের চাকরিতে আবেদনের বয়স শেষ হয়ে গেছে। সবকিছু বিবেচনায় সরকারের উচিত চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছর করা।

ইমতিয়াজ হোসেন বলেন, আমরা দাবি আদায়ে সরকারকে ২৮ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছি। এর মধ্যে আমাদের দাবি মানা না হলে ঈদুল আজহার পর দেশের আপামর ছাত্র সমাজকে সাথে নিয়ে আমরা শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি পালন করব। আমাদের কর্মপরিকল্পনা জানাতে আগামী ২০ জুলাই সংবাদ সম্মেলন ডেকেছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে বেসরকারি চাকরিতেও ৩০ বছরের পর প্রবেশ করা যাচ্ছে না। আমাদের দাবি সেখানেও যেন বয়সসীমা উঠিয়ে দেয়া হয়। ৩০ এর বাধ্যবাধকতা থাকায় আমরা অনেক মেধাবীদের হারাচ্ছি। তারা বিদেশে চলে যাচ্ছে। ফলে মেধার পাচার হচ্ছে। সরকারের অবশ্যই এদিকে নজর দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, টানা কয়েক বছর ধরে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ করার দাবিতে আন্দোলন করছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ। তবে জাতীয় সংসদে কণ্ঠভোটে নাকচ হয়েছে ৩৫-এর সব চাওয়া-পাওয়া। তারপরও আন্দোলন থেকে সরে আসেননি আন্দোলনকারীরা। সাংগঠনিকভাবে কিছুটা গুছিয়ে উঠে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন তারা। এ প্রক্রিয়ায় রয়েছেন আন্দোলনকারীদের সংগঠক এম এ আলী, ফেরদৌস জিন্নাহ লেলিন, সঞ্জয় দাসসহ আরও অনেকে।

জানা গেছে, সম্প্রতি কোটা সংস্কার আন্দোলন সফলতার মুখ দেখলেও এখনো চলছে ‘৩৫ চাই’ আন্দোলন। ২০১৯ সালে কয়েক দফা কর্মসূচি পালন ও পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটেছে গ্রেফতারের ঘটনাও। এরইমধ্যে তাদের মধ্যে নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব ও মতবিরোধ দেখা দেওয়ায় আন্দোলন কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েছিলো।

গত বছরের ২৫ এপ্রিল চাকরি প্রত্যাশীদের বহুল কাঙ্ক্ষিত চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার প্রস্তাব জাতীয় সংসদে ওঠে। তবে তা নাকচ করে দিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, পড়াশোনা শেষ করার পর একজন ছাত্র অন্তত সাত বছর সময় পেয়েছে। এটা অনেক সময়। তাছাড়া এর আগে চাকরির বয়স ২৫ বছর ছিল, সেখান থেকে ২৭ ও পরবর্তীতে ৩০ বছর করা হয়। সে হিসেবে এখন বাড়ানোর যৌক্তিকতা নেই।

এ সময় তিনি প্রস্তাব উত্থাপনকারী সংসদ সদস্যকে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার আহবান জানান এবং প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। কিন্তু বগুড়া-৭ আসনের সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম বাবলু সেটি প্রত্যাহারে রাজি না হলে কণ্ঠভোটের আয়োজন করা হয়। কণ্ঠভোটে প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দেন সংসদ সদস্যরা। মূলত প্রস্তাবটি পাস না হওয়াতেই তীব্র হতাশ হয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সাহেদ এরমধ্যেও ঢাকায় যাওয়া আসা করেছেন : র‌্যাবের ব্রিফিং

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৫ জুলাই, ২০২০
রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম নিজেকে যতোই ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টা করুক না কেন, সে মূলত চতুর ধুরন্ধর, অর্থলিপ্সু। বুধবার (১৫ জুলাই) এই পলাতক আসামিকে আটকের পরে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন। তিনি এসময় তার বিরুদ্ধে প্রতারণার কিছু অভিযোগ তুলে ধরেন এবং কীভাবে তাকে ধরা সম্ভব হলো সেসব নিয়ে কথা বলেন।

বুধবার সকাল ৯টায় সাতক্ষীরা থেকে ঢাকায় আনার পর সাহেদকে প্রথমে র‌্যাব সদর দপ্তরে নেয়া হয়। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে নিয়ে র‌্যাব রাজধানীর উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের ২০ নম্বর সড়কের ৬২ নম্বর বাসায় অভিযান চালায়। সিএইচএল বায়তুল এহসান নামের এই বহুতল ভবনের পঞ্চম তলায় সাহেদ করিমের একটি গোপন অফিস আছে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তারা। আইন বিষয়ে কোনও ডিগ্রি না থাকলেও এটি ছিল তার ল চেম্বার। অভিযানে সেখান থেকে জাল টাকা উদ্ধার করা হয়।

পরে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজের তথ্যের ভিত্তিতেই সাহেদের অবস্থান জেনে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার ভোর ৫টার দিকে সাহেদ করিমকে সাতক্ষীরায় গ্রেপ্তার করা হয়। নৌপথে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন তিনি। যেন কেউ চিনতে না পারে সেজন্য বোরকা পরে নৌকায় করে নদী পার হওয়ার চেষ্টা করছিলেন। তবে র‌্যাবের নজরদারির কারণে এমন কিছু করতে পারেননি তিনি। গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আজ সকাল নটার দিকে র‌্যাবের হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। এসময় কর্মকর্তারা জানান, গোঁফ কেটে চেহারা পালটিয়ে পাগলের বেশ নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন সাহেদ।

মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সে নিজেকে কখনও অবসরপ্রাপ্ত কখনও চাকরিরত সেনা কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিতো। কখনও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব পরিচয় দিতো এবং সুকৌশলে ছবি তুলে সেটা ব্যবহার করতো। এমনকি তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, সাহেদ বালু,পাথর ব্যবসায়ীদের ভুয়া লাইসেন্স দিয়ে প্রতারিত করেছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লকডাউনে বিয়ে করে করোনায় প্রাণ গেল শিক্ষিকার

ডেস্ক | ১৫ জুলাই, ২০২০

লকডাউনের মধ্যেই বিয়ে করেছিলেন। সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক সবকিছু মেনেই বিয়ের অনুষ্ঠান হয়েছিল। কিন্তু এক মাসের মধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলো ভারতের হুগলির চন্দননগরের এক স্কুলশিক্ষিকার। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) বিকালে ব্যান্ডেল ইএসআই হাসপাতালে মৃত্যু হয় সৌমি সাহা নামে ওই শিক্ষিকার।

মৃতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছু দিন ধরেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন সৌমি। চিকিৎসার জন্য গত কয়েক দিন আগে চন্দননগর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। জ্বর ও শ্বাষকষ্টের জন্য তাকে ব্যান্ডেল ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হলে গত শনিবার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এর পর তাকে করোনা চিকিৎসার জন্য শ্রীরামপুরের শ্রমজিবী হাসপাতালে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় স্থানান্তর করা সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে ওই শিক্ষিকার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চন্দননগর মুন্সিপুকুর এলাকার বাসিন্দা বছর চৌত্রিশের এই শিক্ষিকা পোলবার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ছিলেন। গত ১৪ জুন চন্দনগরেরই যুবক প্রসূন ঘটকের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। প্রসূন কর্মসূত্রে মুম্বাইয়ে থাকতেন। বিয়ের জন্য সেই সময় মুম্বাই থেকে গাড়িতে করে চন্দননগরে ফেরেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সহজ শর্তে ঋণের দাবিতে কিন্ডারগার্টেন মালিকদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৫ জুলাই, ২০২০

করোনাভাইরাসের দুঃসময় উত্তরণে কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের অনুদান ও মালিকদের সহজ শর্তে ঋণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক-মালিকরা। বুধবার (১৫ জুলাই) সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে এ মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সমিতির সভাপতি এম এ সিদ্দিক মিয়া, মহাসচিব শেখ মিজানুর রহমান, প্রধান পৃষ্ঠপোষক আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সী, উপদেষ্টা জি এইচ ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব খান মোজাম্মেল হক মিঠু ও এম এ তুহিন, হাজী আব্দুল লতিফ ভূঁইয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের গভার্নিং বডির সভাপতি মো. আব্দুল রাকিব ভূঁইয়া, বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক শিক্ষা গবেষণা পরিষদের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বেসরকারি প্রাথমিক স্কুল মালিক পরিষদের সভাপতি মো. মজিবুর রহমান, রূপগঞ্জ উপজেলা কিন্ডারগার্টেন ও শিক্ষা উন্নয়ন সমিতির মহাসচিব সালেহ আহমেদ, মাস্ট এডুকেশন ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আল আমিন ভূঁইয়া, বাংলাদেশ নিউ চিলড্রেন ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনে মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বর্তমানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে পুরো বিশ্বের মতো আমরাও দিশেহারা। এ জন্য দেশের অর্থনীতির টালমাটাল অবস্থার মতো কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর অবস্থাও শোচনীয়। গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো বেসরকারি উদ্যোগে নিজস্ব অর্থায়ন প্রতিষ্ঠিত প্রায় ৬৫ হাজার কিন্ডারগার্টেন স্কুল বন্ধ হয়ে আছে। বর্তমানে দেশে কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রায় ১ কোটির অধিক কোমলমতি শিশু কিশোর শিক্ষা লাভের সুযোগ পাচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠানে ১০ লক্ষাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকা-কর্মচারী কর্মরত আছেন, এর সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে তাদের পরিবারবর্গ।

বক্তারা বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় লকডাউনের কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষক-শিক্ষিকারা প্রাইভেট টিউশন করতে পারছে না। প্রায় ৯৫ শতাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত। বাড়ি ভাড়া শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন, বিদ্যুৎ ও পানি বিল পরিশোধ করতে হয় ছাত্র-ছাত্রীদের মাসিক টিউশন ফি থেকে। স্কুল বন্ধ থাকার কারণে অর্থনৈতিকভাবে নিদারুণ কষ্টে দিনাতিপাত করছে। কোনো শিক্ষক না পারে কারো কাছে হাত পাততে, না পারে লাইনে দাঁড়িয়ে সাহায্যে নিতে। তাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত প্রণোদনায় কিন্ডারগার্টেনগুলোকে অন্তর্ভুক্তকরণের দাবি করে আসছে।

বাংলাদেশ বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে প্রণোদনার দাবিতে গত ৩ মে জেলা প্রশাসকদের কাছে আবেদন করা হয়। গত ৬ জুন ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিট (সাগর-রুনী মিলনায়তনে) সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষকদের দুর্দশার কথা তুলে ধরা হয়। কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো কখনোই কোনো সরকারি অনুদান পায় না এবং পাওয়ার জন্য আবেদনও করেন নাই। কিন্তু বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে স্কুলসমূহ বন্ধ থাকাতে শিক্ষক-শিক্ষিকদের অবস্থা শোচনীয় বিধায় প্রধানমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন সেক্টরে ও প্রতিষ্ঠানে যে আর্থিক প্রণোদনা এবং সহযোগিতায় হাত প্রসারিত করেছেন, তেমনি আজ চরম দুর্দিনে প্রধানমন্ত্রী কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষকদের পাশে থাকবেন বলে আশা প্রকাশ করেন বক্তারা।

এসময় করোনাভাইরাসের এ দুঃসময় উত্তরণে কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর সাহায্যার্থে প্রণোদনার ব্যবস্থা যা বা সহজ শর্তে ঋণ হিসেবে দেয়া, কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক-শিক্ষিকা-কর্মচারীদের জন্য রেশন কার্ডের ব্যবস্থা করা, স্কুলগুলোর জন্য অনুদান প্রদান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হার কমে গেলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়া, সহজ শর্তে কিন্ডারগার্টেন স্কুলসমূহকে নিবন্ধনের আওতায় আনা ও প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষার মতো নিজ স্কুলের নামে জেএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়াসহ ৬ দফা দাবি তুলে ধরেন তারা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ডা. সাবরিনা ৩ দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৩ জুলাই, ২০২০

করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা না করেই রিপোর্ট ডেলিভারি দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফকে ৩ দিনের রিমান্ডে দিয়েছেন আদালত।

সোমবার তাকে আদালতে হাজির করে চারদিনের রিমান্ডে চেয়েছিল পুলিশ। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনুর রহমান তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গতকাল (রোববার) দুপুরে আলোচিত চিকিৎসক সাবরিনাকে তেজগাঁও বিভাগীয় উপ-পুলিশ (ডিসি) কার্যালয়ে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

যেভাবে এলো ডা. সাবরিনার নাম
গতকাল জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ডিসি মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ বলেন, ২২ জুন জেকেজির সাবেক গ্রাফিক্স ডিজাইনার হুমায়ুন কবীর হিরু ও তার স্ত্রী তানজীন পাটোয়ারীকে আটক করে পুলিশ। হিরু আমাদের জানায়, সে ভুয়া করোনা সার্টিফিকেটের ডিজাইন তৈরি করতো। এই ভয়ানক তথ্য জানার পর আমরা তাকে জিজ্ঞেস করি এর সাথে কারা জড়িত। সে স্বীকার করেছে, কোর্টেও ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে যে ভুয়া রিপোর্টের সাথে জেকেজি গ্রুপের লোকজন জড়িত। ডিসি হারুন বলেন, তখন জেকেজির সিইও আরিফুলসহ চারজনকে আটক করি। গ্রেফতার সিইওকে আমরা জিজ্ঞেস করি, ‘এই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান কে?’ উত্তরে তিনি বলেন, ‘চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা চৌধুরী।’ এরপর একে একে ছয়জনই এক উত্তর দিলেন।

কে এই ডা. সাবরিনা

ডা. সাবরিনা জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক। পুলিশ বলছে, সাবরিনা জেকেজির চেয়ারম্যান। তবে সাবরিনা নিজেকে জেকেজির ‘চেয়ারম্যান নয়’ বরং প্রতিষ্ঠানটির ‘কোভিড-১৯ বিষয়ক পরামর্শক’ দাবি করেছেন।

দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, সাবরিনা আরিফের চতুর্থ স্ত্রী। তার প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রী রাশিয়া ও লন্ডনে থাকেন। তৃতীয় স্ত্রীর সঙ্গে তালাক হয়েছে তার। চতুর্থ স্ত্রী ডা. সাবরিনার কারণেই করোনার নমুনা সংগ্রহের কাজ পায় জেকেজি হেলথকেয়ার। প্রথমে তিতুমীর কলেজ মাঠে স্যাম্পল কালেকশন বুথ স্থাপনের অনুমতি মিললেও প্রভাব খাটিয়ে ঢাকার অন্য এলাকা এবং অনেক জেলা থেকেও নমুনা সংগ্রহ করছিলেন তারা।

সূত্র আরও জানায়, ঢাকা, নায়ায়ণগঞ্জ, নরসিংদী ও গাজীপুরসহ বিভিন্ন স্থানে ৪৪টি বুথ স্থাপন করেছিল সাবরিনা-আরিফ দম্পতির জেকেজি প্রতিষ্ঠান। নমুনা সংগ্রহের জন্য মাঠকর্মী নিয়োগ দেয়া ছিল। তাদের হটলাইন নম্বরে রোগীরা ফোন দিলে মাঠকর্মীরা বাড়ি গিয়েও নমুনা সংগ্রহ করতেন। আবার অনেককে জেকেজির বুথের ঠিকানা দেয়া হতো। এভাবে কর্মীরা প্রতিদিন গড়ে ৫০০ মানুষের নমুনা সংগ্রহ করতো।

পরে তাদের গুলশানের একটি ভবনের ১৫ তলার অফিসের একটি ল্যাপটপ থেকে ভুয়া সনদ দিত। ওই ল্যাপটপ থেকে জেকেজির কর্মীরা রাতদিন শুধু জাল রিপোর্ট তৈরির কাজ করতো। প্রতিটা সনদের জন্য নেয়া হতো পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত। বিদেশিদের কাছ থেকে নেয়া হতো ১০০ ডলার। যদিও শর্ত ছিল বিনামূল্যে নমুনা সংগ্রহ করে সরকার নির্ধারিত ল্যাবে পাঠাতে হবে। কিন্তু তারা সব ধরনের শর্তভঙ্গ করে পরীক্ষা ছাড়াই রিপোর্ট দিত।

এদিকে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে ডা. সাবরিনাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়। রোববার (১২ জুলাই) মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আব্দুল মান্নান স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত এক অফিস আদেশ জারি করা হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মাদরাসা শিক্ষকদের জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৩ জুলাই, ২০২০
মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের জুন (২০২০) মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে। অনুদান বণ্টনকারী রাষ্ট্রায়াত্ত চারটি ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। শিক্ষকরা আগামী ১৯ জুলাই পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন। সোমবার (১৩ জুলাই) মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মাদরাসার এমপিও আদেশের স্মারক নম্বর ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.২০-২৯৬ তারিখ: ১৩-৭-২০২০

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

১০ দফা দাবিতে কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের অবস্থান কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৮ জুলাই, ২০২০
শিক্ষা উদ্যোক্তাদের জন্য প্রণোদনা দেয়াসহ ১০ দফা দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন কিন্ডারগার্টেন অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা। বুধবার (৮ জুলাই) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচিতে অংশ নেন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষক ও কর্মচারীরা। এছাড়া সারাদেশে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে বলেও জানান নেতারা।

অবস্থান কর্মসূচিতে শিক্ষকরা বলেন, শিক্ষকরা বলেন, বর্তমান করোনাভাইরাসের কারণে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর অবস্থাও শোচনীয়। সরকার যদি প্রণোদনা না দেয় তাহলে ৭৫ ভাগ কিন্ডারগার্টের স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে বলেও জানান তারা।

এসময় শিক্ষকরা আরও বলেন, এরই মধ্যে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। অনেকেই মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কেউবা চাকরি হারিয়ে হকার বা কাঁচা সবজি বিক্রি করে জীবন যাপন করছেন। এছাড়া অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত হওয়ায় বাড়ি ভাড়া, শিক্ষকদের বেতন দিতে না পারায় আর্থিক চাপের মুখে পড়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। এই দু:সময়ে সহজ শর্তে ঋণ ও বিশেষ প্রণোদনাসহ সংকট মোকাবিলায় সব ধরণের সহায়তার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

অবস্থান কর্মসূচিতে ১০ দফা দাবি পেশ করেন শিক্ষকরা। শিক্ষকদের দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, শিক্ষা উদ্যোক্তাদের জন্য প্রণোদনা বা সহজ শর্তে ঋণ দেয়া, করোনা সংকটে দুর্ভোগ পড়া কিন্ডারগার্টেন স্কুল শিক্ষকদের জন্য বিশেষ অনুদান দেয়া, কর্মহীন হয়ে পড়া কিন্ডারগার্টেন স্কুল শিক্ষক পরিবারকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা, ৬ লাখ শিক্ষিত বেকার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টিকারী কিন্ডারগাটের্ন স্কুলগুলোকে টিকিয়ে রাখতে সরকারের সহযোগিতা, শিক্ষকদের অর্থ কষ্ট লাঘবে সরকারি প্রণোদনা, কেজি স্কুলকে সহজ প্রক্রিয়া নিবন্ধন দেয়া, কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সমস্যাকে জাতীয় সমস্যা হিসেবে বিবেচনা করা, প্রাথমিক শিক্ষায় অতুলনীয় অবদানের জন্য কিন্ডারগার্টেনকে গুরুত্ব দেয়া এবং যেকোন আপতকালীন সংকট মোকাবেলায় সহযোগীতা দেয়া।

অবস্থান কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা ফোরামের সভাপতি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা এসএম শফিউর রহমান দুলু, বিশিষ্ট কবি মোহন রায়হান। এসোসিয়েশনের কো চেয়ারম্যান মো. আব্দুল বাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. আব্দুল মাজেদ, ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব ফারুক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক হামিদুর রহমানসহ অনেকে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

অভিযোগ প্রমাণ হলে পাপুলের সংসদ সদস্য পদ বাতিল : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৮ জুলাই, ২০২০

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেপ্তার সংসদ সদস্য শহিদ ইসলাম পাপুলের বিষয়ে সরকার তদন্ত করছে। তিনি কুয়েতের নাগরিক বলে প্রমাণ পেলে তার আসন শূন্য হবে, বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (৮ জুলাই), জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর পর্বে শ্রমিকদের ফেরত না পাঠাতে অনুরোধ জানিয়ে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানদের চিঠি দেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এসময় করোনার ফলে সংকটে পড়া প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে মানবপাচারে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, বিভিন্ন দেশে করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া বাংলাদেশিদের জন্য সরকার দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ এবং কূটনৈতিক উদ্যোগ অব্যাহত রাখছে যাতে তারা পরিস্থিতি অনুকূলে আসলে আবার কাজ ফিরতে পারেন।

সংসদ নেত্রী জানান, প্রবাসীদের জন্য ২ হাজার কোটি টাকা তহবিল গঠন করা হয়েছে ওয়েজ আর্নাস কল্যাণ বোর্ডের মাধ্যমে। তারপরও কাউকে বাধ্য হয়ে দেশে ফিরতে হলে তাদের জন্য ঋণ সহায়তার ব্যবস্থা করছে সরকার।

মেয়াদ শেষ হলে প্রবাসী শ্রমিকরা পাসপোর্ট নিয়ে যাতে হয়রানির শিকার না হন তারও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রবাসীদের ২ শতাংশ প্রণোদনা দেবার ফলে বৈধ চ্যানেলে রেমিটেন্স আসা বেড়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter