নিউজ

সরকারি কর্মচারিদের জন্য বেশি দামের পোষাক

আনিসুর রহমান তপন : ১৬ থেকে ২০তম গ্রেডের সরকারি কর্মচারিরা এখন থেকে আরো বেশি দামের পোষাক ও আনুষাঙ্গিক দ্রব্যাদি পাবেন। আগে একজন কর্মচারি পোষাকের জন্য দেড় হাজার টাকা পেলেও এখন তা উন্নীত করে আড়াই হাজার টাকা বরাদ্ধ করে আদেশ জারি করেছে সরকার।

সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা পরিপত্রে বলা হয়েছে, গ্রীষ্মকালের পোশাক হিসেবে পুরুষ কর্মচারীরা প্রতি দুই বছরের জন্য এক সেট ফুল সাফারি বাবদ ২ হাজার ৫শ টাকা এবং এক সেট হাফ সাফারী সেট মজুরীসহ ২ হাজার ৫শ করে পাবেন। এরআগে এ জন্য ১ হাজার ৬শ টাকা বরাদ্ধ ছিল। প্রতি বছর ১ হাজার ৮শ টাকা দামের এক জোড়া কালো অক্সফোর্ড জুতা পাবেন কর্মচারিরা। আগে যা ছিল ১ হাজার টাকা। ১০০ টাকার পরিবর্তে কর্মচারীরা এখন পাবেন ১৫০ টাকার দুই জোড়া কালো মোজা। কর্মচারিরা প্রতি বছরের জন্য ৩শ টাকা দামের কালো রংয়ের একটি ছাতা পাবেন। এছাড়া পরিপত্র অনুযায়ী, শীতকালীন পোষাক ও শার্ট পাবেন পুরুষ কর্মচারিরা।

সরকারি নারী কর্মচারীরা দুই বছরের জন্য গ্রীষ্মকালীন পোশাক হিসেবে ৫ হাজার টাকা দামের দুটি জর্জেট ও দুটি সুতি শাড়িসহ ব্লাউজ, পেটিকোট পাবেন। আগে ৪টি শাড়ি, ব্লাউজ পেটিকোটের জন্য মোট ২ হাজার ৫০০ টাকা পেতেন তারা।

নারীরা প্রতি বছরের জন্য এক হাজার ৮০০ টাকা মূল্যের দুই জোড়া জুতা পাবেন। আর ১৫০ টাকার দুই জোড়া মোজা পাবেন। আগে জুতার জন্য ৯০০ টাকা ও মোজার জন্য ১০০ টাকা পেতেন। নারীরা প্রতি বছরের জন্য ৩’শ টাকা দামের একটি রঙিন ছাতা পাবেন। যা আগে ২০০ টাকা ছিল। এছাড়া অন্যান্য ঋতুভিত্তিক পোশাকের ক্ষেত্রে পুরুষদেও মতো নারীরাও নির্ধারিত বরাদ্ধ পাবেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তাসহ ‘নিখোঁজ’ তিনজন ডিবিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২১ জানুয়ারী : গত দু’দিনে রাজধানী থেকে শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তাসহ নিখোঁজ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগের একটি দল রাজধানীর গুলশান ও বসিলা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন, মো. খালেদ হাসান মতিন, মো. নাসিরুদ্দিন ও মো. মোতালেব হোসেন।

ডিবি পুলিশ সূত্রে জানানো হয়, ২১ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের রিসিভ ও ডেসপাস শাখার উচ্চমান সহকারী মো. নাসিরুদ্দিনকে এক লাখ ত্রিশ হাজার টাকাসহ গুলশান এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তী সময়ে তার সঙ্গে যোগাযোগের সূত্রধরে মোতালেব হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

অপর এক অভিযানে লেকহেড স্কুলের মো. খালেদ হাসান মতিনকে গুলশান এলাকা হতে গ্রেফতার করা হয়।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাত ১১টা থেকে রাজধানীর বনানী এলাকা থেকে নিখোঁজ হন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মচারী নাসির উদ্দিন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গ্রহণ ও বিতরণ শাখার উচ্চমান সহকারী।

এ ঘটনায় রাজধানীর বনানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন নাসিরের শ্বশুর আব্দুল মান্নান।

শনিবার বিকেল ৪টায় গুলশান-১ এর ১৩৫ নম্বর রোডে অবস্থিত লেকহেড গ্রামার স্কুলের সামনে থেকে মতিন নিখোঁজ হন।

শনিবার সন্ধ্যায় গুলশান থানায় এ জিডি করেন মতিনের অফিসের স্টাফ ইদ্রিস আলী। জিডি নম্বর-১৩৭৮।

সর্বশেষ শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মোতালেব হোসেনকে তুলে নেয়ারর অভিযোগে হাজারীবাগ থানায় জিডি করা হয়।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়, শনিবার বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর বছিলা থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তুলে নিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে থানা পুলিশ জানায়, বছিলা ব্রিজের কাছে মোতালেব হোসেনের বাড়ি নির্মাণের কাজ চলছে। গতকাল বিকেলে তিনি নির্মাণ কাজ দেখতে যান। এ সময় তিন-চারজন নির্মাণাধীন ভবনের নিরাপত্তারক্ষীর কাছে মোতালেব সম্পর্কে জানতে চায়। মোতালেব ছাদে আছেন জানার পর তারা সেখানে যায়। বাড়ি ভাড়া নেয়ার কথা বলে তাকে নিচে নামিয়ে এনে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায় তারা। মোতালেবের গ্রামের বাড়ি ঝালকাঠি। রাজধানীর গ্রিন রোডে সরকারি স্টাফ কোয়ার্টারে তিনি থাকতেন।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আব্দুল মতিন জানান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গ্রহণ ও বিতরণ শাখার উচ্চমান সহকারী নাসিরের কাছে নগদ এক লাখ ৩০ হাজার টাকা পাওয়া গেছে।

আর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে নানা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মোতালেব ও নাসিরুদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খালেদ হাসান মতিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে জঙ্গিবাদে অর্থায়নের অভিযোগে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

বনানী থেকে শিক্ষা কর্মকর্তা নিখোঁজ

ডেস্ক এডিটর: রাজধানীর বনানী থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব নাসির উদ্দিন (৫৫) নিখোঁজ হয়েছেন। তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উচ্চমান সহকারী হিসেবে কর্মরত।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) বিকালে বনানী এলাকা থেকে তিনি নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় নিখোঁজের আত্মীয় আবদুল মান্নান খান বাদী হয়ে বনানী থানায় একটি জিডি করেছেন।

অভিযোগে বলা হয়, নাসির উদ্দিন কনকর্ড লেক সিটির বৈকালী ভবনের বসবাস করতেন। সকালে বাসা থেকে বের হন। দুপুরে তার স্ত্রী নিশাত জাহানের সাথে মোবাইলে কথা হয়। বিকেল থেকে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজের এক আত্মীয় অভিযোগ করেন, কনকর্ড লেক সিটির কামরুজ্জামান মাহবুব নামে এক ব্যক্তি তাকে মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়েছিলেন। নিখোঁজের ঘটনায় জিডি হয়েছে বলে জানা যায়।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

‘দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত তথ্য প্রযুক্তি বাধ্যতামূলক করবো’

জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল: ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, শিশুদের প্রোগ্রামার বানানোর কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত তথ্য প্রযুক্তি বাধ্যতামূলক করবো। আমার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ এবং জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গড়ে তোলা।

শুক্রবার সন্ধ্যায় টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় বেলায়েত হোসেন বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কর্মের প্রতিযোগিতায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমরা কৃষি প্রধান দেশ ছিলাম। সেই কৃষি প্রধান দেশকে শিল্প বিপ্লবে রুপান্তর করতে পারিনি। এর মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় শিল্প বিপ্লব সম্পন্ন হয়ে গেছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে আমরা আছি। যদি চতুর্থ শিল্প বিপ্লব ধরতে না পারি তাহলে আমাদের পক্ষে জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গড়া প্রায় অসম্ভব হয়ে যাবে।

বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ.টি ইমাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় এমপি খন্দকার আব্দুল বাতেন, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমীন, পুলিশ সুপার মাহবুব আলম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন দেলদুয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস.এম ফেরদৌস আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিন প্রমুখ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

শনিবার থেকে অনশনে যাবেন বেসরকারি শিক্ষকরা

তরিকুল ইসলাম সুমন : বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়কণের দাবিতে শিক্ষক লিয়াঁজো ফোরাম প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে। আগামী শনিবার থেকে তারা আমরণ অনশন শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন আন্দোলন লিয়াঁজো ফোরামের আহ্বায়ক মো. আব্দুল খালেক। আব্দুল খালেক বলেন, ১২ জানুয়ারির মধ্যে জাতীয়করণের দাবি আদায় না হলে ১৩ জানুয়ারি থেকে তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন শুরু করবেন।

আব্দুল খালেক আরও জানান, সারা দেশে ২৭ হাজারের মতো মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সাড়ে ৪ লাখ শিক্ষক কর্মরত। জাতীয়করণের আওতায় না থাকায় তারা সুযোগ সুবিধা বঞ্চিত। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত এ আন্দোলন চলবে। এদিকে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদরাসা শিক্ষকরদের ৪ দিনের চলমান অনশনে এ পর্যন্ত ৭৪ জন অসুস্থ হয়েছেন। এদের মধ্যে ৩ জন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলে জানিয়েছেন মাদরাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি ক্বারী রুহুল আমিন চৌধুরী। রুহুল আমিন চৌধুরী আরো বলেন, আমাদের কাছে এখনো সরকারিকরণ সংক্রান্ত কোনো সংবাদ আসেনি। সরকারি কোনো কর্মকর্তাও আনেনি। তবে কোনো আশ্বাস না আসা পর্যন্ত এ আমরণ অনশন চলবে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

জীবননগর হাবিবপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাপস ও শিক্ষিকা শিউলীর প্রেম কাহিনী

জীবননগর ব্যুরো: জীবননগর উপজেলার বহুল আলোচিত হাবিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার পাল ও সহকারী শিক্ষিকা শিউলীর মধ্যে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দুজনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ ও অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরত এলাকাবাসী গত সোমবার স্কুলের সামনে ঝাড়ু মিছিল করেছে। অভিযুক্ত শিক্ষকদ্বয় বিদ্যালয়ে আসছেন এমন খবরের ভিত্তিতে এলাকাবাসী এ ঝাড়– মিছিল করে বলে জানা গেছে।
প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার পাল ও সহকারী শিক্ষিকা শিউলী খাতুনের মধ্যে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ এনে এলাকাবাসী তাদেরকে বিদ্যালয় থেকে অপসারণের দাবিতে আন্দোলনে নামে। স্কুলের শিক্ষার্থীরাও তাদের সাথে যোগ দিয়ে মানববন্ধন ও ক্লাস বর্জন করে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয় সংশ্লিষ্ট দফতরে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কর্তৃক তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের দুজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার পাল দীর্ঘদিন স্কুলে না গেলেও সহকারী শিক্ষীকা শিউলী খাতুন গত ২১ ডিসেম্বর স্কুলে যোগদান করেন। তারপর আর তিনি স্কুলে যায়নি। এ অবস্থায় এলাকাবাসী সংবাদ পায় গতকাল সোমবার প্রধান শিক্ষক তাপস ও সহকারী শিক্ষিকা শিউলী স্কুলে আসছেন। সংবাদ শুনে তাদেরকে প্রতিহত করতে স্কুলের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যগণ লাঠি ও ঝাড়ু নিয়ে মিছিল করেন এবং সড়কের ওপর অবস্থান গ্রহণ করেন বলে এলাকাসূত্রে জানা গেছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

এবার আমরণ অনশনে মাদ্রাসা শিক্ষকরা!

ডেস্ক: বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের নিবন্ধনভুক্ত সব স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবিতে অবস্থান ধর্মঘট করছেন ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা।

আজ সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শিক্ষকরা অবস্থান নিয়ে অবিলম্বে ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণ করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানান। সেইসঙ্গে আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে দাবি আদায় না হলে আমরণ অনশনের ঘোষণাও দেন তাঁরা।

বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কাজী রুহুল আমিন চৌধুরী বলেন, ‘আজকে আমরা ৩৪ বছর ধরে এই বেতন-ভাতা থেকে বঞ্চিত। ৫০ হাজার শিক্ষক ৩৪ বছর ধরে একটি পয়সাও বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। আগামীকালকে ১০টা পর্যন্ত যদি আমাদের কাছে কোনো কিছু না আসে, তাহলে আমাদের সিদ্ধান্ত, আগামীকালকে ১১টা থেকে আমাদের আমরণ অনশন চলবে।’

অবস্থান নেওয়া শিক্ষকরা বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে মাদ্রাসায় কাজ করেও তাঁরা তাঁদের প্রাপ্য বেতন ভাতা বুঝে পাননি। তাঁরা অভিযোগ করে বলেন, প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকরা যেভাবে পাঠদান করেন, একইভাবে তাঁরাও শিক্ষার্থীদের পাঠদান করেন। তা ছাড়া প্রাইমারি স্কুল যে মন্ত্রণালয়ের অধীনে, তাঁরাও সেই মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করেন। অথচ প্রাইমারি স্কুলের আগে রেজিস্ট্রেশন পেলেও তাঁরা এখনো তাদের প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করতে পারেননি। অবিলম্বে তাদের প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ না করলে আমরণ অনশনের হুমকি দেন মাদ্রাসা শিক্ষকরা।

বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা কেন্দ্রীয় কমিটির মহাসচিব কাজী মোখলেসুর রহমান বলেন, ‘প্রাইমারি এবং ইবতেদায়ি মাদ্রাসা একই প্রতিষ্ঠান। একই মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত, পরিচালিত। ওরা যেমন সমাপনী পরীক্ষায় গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে অংশগ্রহণ করে, আমাদের স্বতন্ত্র মাদ্রাসাগুলোও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়। এ জন্য আমরা জাতীয়করণের দাবি করছি।’

এর আগে এমপিওভুক্তির দাবিতে প্রেসক্লাবের সামনে অনশনে বসেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। কয়েক দিন অনশন চলার পরে প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসে অনশন ভাঙেন শিক্ষকরা।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

রাষ্ট্রায়ত্ত ৩ ব্যাংকের পরীক্ষা স্থগিত

ডেস্ক: রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী ও জনতা ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পদে আগামী শুক্রবারের নিয়োগ পরীক্ষার কার্যক্রম স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।একই সঙ্গে নিয়োগ পরীক্ষা কেন বাতিল করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে এক রিটের শুনানি নিয়ে রোববার হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট রাশিদুল হক খোকন। তার সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট তানজিম আল ইসলাম।শুনানি শেষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট রাশিদুল হক খোকন এ তথ্য জানান।

আগামী শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির অধীনে সমন্বিতভাবে এসব ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল।এর আগে বগুড়ার আসাদুজ্জামান, কুমিল্লার আবু বকরসহ ২৮ জন পরীক্ষার্থী নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

চুয়াডাঙ্গায় আজ সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার আজ শনিবার মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৫.৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

গত ৪ দিন ধরে হাড়কাঁপানো তীব্র শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

বুধবার বিকাল থেকে পারদের তাপমাত্রা নামতে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার দেশের সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৬.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস। শুক্রবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে দেয়া হয়েছে ৭ হাজার কম্বল।

হঠাৎ করে তীব্র থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহে জেলার কয়েক লাখ মানুষ চরম বিপাকে পড়েছে। গরীবেরা রাস্তার ধারে খড়-কুটো জ্বেলে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। ঘন কুয়াশার আড়ালে ঢাকা পড়েছে গোটা এলাকা। ফলে জীবনযাত্রা প্রায় অচল হয়ে পড়েছে। প্রচন্ড ঠান্ডার কারণে খুব প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বাইরে বের হচ্ছেন না। শীতে পশু পাখি যবুথুবু হয়ে পড়েছে। চাহিদা থাকায় গরম কাপড়ের দোকানে বেচাকেনা বেড়ে গেছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

মেধাবীদের দীর্ঘ মেয়াদী ভিসা দিচ্ছে চীন

অনলাইন ডেস্ক ॥ বিদেশ থেকে সেরা মেধাবীদের আকৃষ্ট করতে চীন দীর্ঘ মেয়াদী ভিসা দেয়া শুরু করেছে যাতে তারা সেখানে কাজ করতে পারেন। চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানাচ্ছে এই মাল্টি এন্ট্রি ভিসা পাঁচ থেকে দশ বছর মেয়াদী।

বিশেষ করে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, উদ্যোক্তা এবং বিজ্ঞানীদের আকৃষ্ট করতে চাইছে দেশটি।

চীন তার অর্থনৈতিক এবং সামাজিক উন্নয়নের জন্য যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে তা বাস্তবায়নে বিদেশ থেকে সেরা মেধাবীদের আকৃষ্ট করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে।

এই দীর্ঘমেয়াদী ভিসা দেয়ার উদ্যোগ যখন প্রথম নেয়া হয়েছিল, তখন চীন বলেছিল প্রায় ৫০ হাজার বিদেশি এর সুযোগ পাবে।

কারা আবেদন করতে পারবেন:

চীনের এই দীর্ঘমেয়াদী ভিসার আবেদন অনলাইনেই করা যায়। চীন সরকার বলছে, এর জন্য কোন ফি নেয়া হয় না এবং খুব দ্রুত এসব আবেদন বিবেচনা করা হয়।

যাদের ভিসা দেয়া হবে তারা একদফায় একটানা ১৮০ দিন করে চীনে থাকতে পারবেন । তারা তাদের স্ত্রী এবং ছেলে-মেয়েদের চীনে আনতে পারবেন।

২০১৬ সালে চীন একটি সূচক প্রকাশ করেছিল যেখানে দেশটিতে কোন ধরণের বিদেশি কর্মী দরকার তা চিহ্ণিত করা হয়েছিল।

সেখানে অদক্ষ কর্মীর সংখ্যা কমিয়ে মেধাবী বিদেশি কর্মীদেরই বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়।

চীনা সরকারের একটি দলিলে এই সেরা মেধাবীদের তালিকায় যাদের কথা উল্লেখ করা আছে তাদের মধ্যে আছে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী, সফল অলিম্পিক অ্যাথলীট এবং সঙ্গীত বা শিল্পকলার বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিচালকরা।

শীর্ষ বিজ্ঞানী, বড় বড় আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকরাও এই তালিকায় আছেন।

সূত্র ॥ বিবিসি

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসে শিক্ষকদের অনশন প্রত্যাহার

ডেস্কঃ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে আশ্বাস পাওয়ার পর আমরণ অনশন কর্মসূচি স্থগিত করেছেন নন-এমপিও শিক্ষকেরা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একজন কর্মকর্তা আজ দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে এই আশ্বাসের কথা জানান। এরপর শিক্ষকেরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন।

এমপিওভুক্তির দাবিতে নন এমপিও শিক্ষকেরা গত রোববার থেকে প্রেস ক্লাবের সামনে আমরণ কর্মসূচি চালিয়ে আসছেন। আজ ছিল কর্মসূচির ৬ষ্ঠ দিন। এর আগে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষকদের দাবি মেনে নেওয়ার ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছিলেন। তবে শিক্ষকেরা তাঁর আশ্বাসে ভরসা রাখতে পারেননি। তাঁরা চেয়েছেন আশ্বাস আসতে হবে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সিলেটে পরীক্ষায় সন্তান দ্বিতীয় হওয়ায় শিক্ষক পেটালেন বাবা!

সিলেট প্রতিনিধি,২জানুয়ারী: সিলেটে চতুর্থ শ্রেণীর এক ছাত্রী বার্ষিক পরীক্ষায় দ্বিতীয় স্থান পাওয়ায় এক শিক্ষককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন মেয়েটির বাবা। সোমবার (০১ জানুয়ারি) জকিগঞ্জ উপজেলার গোটারগ্রাম ত্রিমোহনীতে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, স্থানীয় হাড়িকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী নাঈমা হক লস্করের রোল ছিল এক। গেল বার্ষিক পরীক্ষায় সে দ্বিতীয় হয়। এনিয়ে গত রোববার তার বাবা বদরুল হক লস্কর বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষকদের প্রতি উত্তেজিত হয়ে ওঠেন। এ বিষয়ে গত সোমবার শিক্ষকরা বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোস্তাক আহমদ লস্করের কাছে বিচার দেন। তখন সেখানে থাকা বদরুল হক লস্কর বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবু সালমান শিব্বিরকে পিটিয়ে আহত করেন।

সহকারী শিক্ষক আবু সালমান শিব্বির বলেন, জনসম্মুখে আমাকে পিটুনি দিয়েছেন বদরুল হক লস্কর। বিষয়টি মীমাংসার জন্য বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি চেষ্টা করছে।

অভিযুক্ত বদরুল হক লস্কর বলেন, আমি বিদ্যালয়ের লেখাপড়ার মান নিয়ে কথা বললে ওই শিক্ষক আমার উপর রাগান্বিত হয়ে খারাপ আচরণ করেন। তিনি আমাকে ঘুষি মারলে আমিও শিক্ষককে পাল্টা জবাব দেই।

হাড়িকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহজাহান আলম বলেন, শিক্ষক আবু সালমান শিব্বির জনসম্মুখে লাঞ্ছিত হয়েছেন। এ ঘটনা দুঃখজনক।

জকিগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি আব্দুস শহীদ তাপাদার বলেন, আমরা শিক্ষকের উপর নির্যাতনকারী অভিভাবকের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

জকিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার কাজী সাইফুল ইসলাম বলেন, আমি অফিসের কাজে ঢাকায় রয়েছি। ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা করছেন এলাকার বিশিষ্টজনরা। সম্মানজনকভাবে সমাধান না হলে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

বিনিশার আত্মহত্যার রহস্য উদঘাটনে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ঢাকা: রাজধানীর ভাটারায় পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজের নেপালি শিক্ষার্থী বিনিশার আত্মহত্যাকে রহস্যজনক বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশে অবস্থানরত  অন্য নেপালি শিক্ষার্থীরা। আর এই রহস্য উদঘাটনের দাবিতে বিক্ষোভ করছেন তারা।

ঢাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত নেপালি শিক্ষার্থীরা শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) সকাল থেকে পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজে জড়ো হয়ে এ  বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন  করছেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরা আত্মহত্যার রহস্য উদঘাটন করে সঠিক বিচারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

এর আগে ২১ ডিসেম্বর একই দাবিতে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেন কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন ডাক্তাররা।

শিক্ষার্থীরা জানান, পরীক্ষায় খারাপ কিংবা যে কোনো ভুলের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের কাছ থেকে বাড়তি অর্থ আদায় করেন। এ আতঙ্কের কারণেই বিনিশা আত্মহত্যা করেছেন।

এদিকে, পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজ কর্তৃপক্ষ বিনা নোটিশে ফাইনাল অ্যাসেসমেন্টসহ সকল ধরণের পরীক্ষা এবং ক্লাশ বন্ধ করেছে। শিক্ষার্থীদের হোস্টেল ত্যাগে বাধ্য করেছে।

গত ১৯ ডিসেম্বর টার্ম-২ পরীক্ষা চলাকালীন অবস্থায় হল থেকে বেরিয়ে হোস্টেলের নিজ কক্ষে গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন বিনিশা। খবর পেয়ে ওই দিনই দুপুরে ঝুলন্ত অবস্থায় বিনিশার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ভাটারা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ডিএনসিসি এলাকায় চলছে ভিটামিন ‘এ প্লাস’ ক্যাম্পেইন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় সকাল থেকে চলছে ভিটামিন ‘এ প্লাস’ ক্যাম্পেইন। এ ক্যাম্পেইনের আওতায় মোট ১ হাজার ৪৯৯টি কেন্দ্রে ৪ লাখ ৭৫ হাজার ৫৪৬ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

শনিবার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্যানেল মেয়র মো. ওসমান গণি মহাখালীর আমতলীতে এ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন।

ক্যাম্পেইনের অধীনে শনিবার ডিএনসিসির পাঁচটি অঞ্চলের আওতাধীন ৩৬টি ওয়ার্ডের ১ হাজার ৪৯৯টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ৬৮ হাজার ৭৬৯ জন শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী ৪ লাখ ৬৭ হাজার শিশুকে ১টি করে লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে।

এ ছাড়া প্রত্যেক শিশুর অভিভাবককে শিশুদের সুষম খাবার খাওয়ানোর ব্যাপারে সচেতন করা হচ্ছে। এ কর্মসূচি বাস্তবায়নে ২ হাজার ৯৯৮ জন স্বাস্থ্যকর্মী, ১৮৩ জন প্রথম সারির এবং ১০৩ জন দ্বিতীয় সারির সুপারভাইজার কাজ করছেন।

সার্বিক কার্যক্রম মনিটরিং করছেন ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এবং আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তারা।

ভিটামিন ‘এ প্লাস’ ক্যাম্পেইন শতভাগ সফল করার জন্য প্যানেল মেয়র মো. ওসমান গণি ডিএনসিসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান এবং সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. নাসির, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেসবাহুল ইসলাম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাকির হাসান, অঞ্চল-৩ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেমায়েত হোসেন প্রমুখ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির দরকার নেই : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ ডিসেম্বর: সম্প্রতি ছাত্রলীগের স্কুল কমিটি করার ঘোষণার সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘স্কুল কমিটির ধারণাটা সঠিক হয়নি। কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র রাজনীতি থাকবে, থাকতে হবে। কিছু কিছু বিশৃঙ্খলা যা ঘটে সে ব্যাপারে ছাত্রলীগকে সতর্ক থাকতে হবে। এটা নির্বাচনের বছর। যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা না ঘটে। কেউ কেউ অপকর্ম করবে আর সেটার দায় নেবে দল? সেটা হয় না। তাই বলি স্কুল পর্যায়ের কমিটি করার দরকার নেই।’

শনিবার দুপুরে বাংলা একাডেমিতে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বিজয় দিবস ও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা এখন দরকার নাই। এখন সমালোচনা ডেকে আনার দরকার নেই স্কুল কমিটি করে। ছেলে-মেয়েরা পিঠে বই পুস্তকের বোঝা নিয়ে যেন মরুভূমির পথ বেয়ে চলছে। বাচ্চাগুলোকে দেখলে এমনই মনে হয়। তারপর আবার রাজনীতির আরেক বোঝা! দরকার নেই এসবের।

অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘এ ধরনের আলোচনা সভাগুলো ঘরোয়া সেমিনার ধরনের না হওয়াই ভালো। এমন আলোচনা সভা বটতলায় হওয়া ভালো। কারণ, এমন মিলনায়তনে একটি হল শাখা ছাত্রলীগের কমিটির নেতা-কর্মীদের স্থান সংকুলান হয় না। এছাড়া যারা প্রতিদিন একই কথা শুনে অভ্যস্থ, তাদের বাদ দিয়ে ছাত্রলীগের প্রতি যেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা আগ্রহী হয়—সে জন্য বটতলায় এসব অনুষ্ঠান হলে ভালো।’

কাদের বলেন, ‘ছাত্রলীগের গুণগত গভীরতা নিয়ে কিছু কিছু জায়গায় আমার প্রশ্ন আছে।’

বিএনপির নেতারা বিভিন্ন সময় বলে আসছে দেশে আইনের শাসন নাই। এ বক্তব্যের সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, অনেক ছাত্রলীগের ছেলে আছে এখন জেলে। কারো কারো যাবজ্জীবন জেল হয়েছে। কারো ফাঁসি পর্যন্ত হয়েছে। কিন্তু বিএনপির আমলে তাদের দলের কোনো নেতাকর্মীর বিচার হয়েছে?

তিনি বলেন, ‘আমাদের লোকেরা অপকর্ম করে। সেই অপকর্মের ফলও ভোগ করতে হয়। একজন মন্ত্রীর ছেলে হয়ে জেলে। এমপি কারাগারে। আরেক এমপি আদালত থেকে জামিন নিয়ে আছেন। দুই মন্ত্রীকে দুদকের মামলায় কোর্টে গিয়ে হাজিরা দিতে হয়। বিএনপির আমলে কি এসব কখনো হয়েছে? কোনো বিচার হয়নি। কিন্তু আমরা কোনো অপরাধীকেই ছাড় দেব না।’

এ সময় রংপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে আসা সংবাদের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কত রকমের লেখা-লেখি। কেউ কেউ আদা-জল খেয়ে রাজনীতিক কারণে নেমে পড়েছে আমাদের বিরুদ্ধে। সেটা আমরা বুঝি। আমরা বুঝি প্রথম পাতা শেষ পাতা সরকারের বিরুদ্ধে দিচ্ছে। সবই বুঝি।’

কাদের বলেন, কুমিল্লায় আমরা যখন ৩৫ হাজার ভোট আগের চেয়ে বেশি পেলাম সেটা কিন্তু কেউ লেখেনি। আবার নারায়ণগঞ্জে আমরা দেড়গুণ বেশি ভোট পেয়ে জিতেছি। সেটাও লিখেনি। এখন রংপুরের মেয়র আমরা হেরেছি। কাউন্সিলরে প্রথম হয়েছি। সেটাও কেউ বলেনি। আমরা হারলাম কোথায়?

নির্বাচন কমিশনের প্রতি বিএনপি অনাস্থা প্রকাশের সমালোচনা করে তিনি বলেন, কুমিল্লায় আস্থা ছিল। রংপুরে নেই। কেমনে আপনাদের টেনে তুলবে? আপনারা তো ২য়ও হন নাই। হয়ে গেলেন তৃতীয়। তৃতীয়ককে টেনে তুলবে কিভাবে। নির্বাচন কমিশনের কী এটা দায়িত্ব? তাহলে তো আগামী নির্বাচনে তিনশত আসনই আপনাদের দিতে হবে। নির্বাচন কমিশনের প্রতি আস্থা অর্জনের জন্য।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter