Home » এসএসসি প্রস্তুতি » গণিতে সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্ন করার উপরে কিছু টিপস

গণিতে সৃজনশীল পদ্ধতিতে প্রশ্ন করার উপরে কিছু টিপস

আলমগীর হোসেন:
গণিতে সৃজনশীল প্রশ্ন প্রণয়নে সেকেন্ডারী এডুকেশন সেক্টর ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (এসইএসডিপি) কর্তৃক আয়োজিত কারিকুলাম বিস্তরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ ২০১৩ এবং ২০১৭ইং এর মাধ্যমে যে ম্যাসেজ পেয়েছি, সেই ম্যাসেজগুলো নিম্নে তুলে ধরা হলো: একটি সৃজনশীল প্রশ্ন তৈরিতে একটি নতুন পরিস্থিতিযুক্ত মৌলিক, আকর্ষণীয় ও সংক্ষিপ্ত উদ্দীপক থাকবে, উদ্দীপক কখনো পাঠ্যপুস্তক থেকে নেয়া যাবে না। উদ্দীপক সংশ্লিষ্ট তিনটি (ক,খ,গ) প্রশ্ন থাকবে যার মান হবে ক নং এর জন্য ২,খ নং এর জন্য ৪,গ নং এর জন্য ৪, সর্বোমোট ১০ নম্বর। ক নং এর উত্তর হবে উদ্দীপকনির্ভর অথবা যে অধ্যায় থেকে উদ্দীপক নেয়া হয়েছে সেই অধ্যায় সংশ্নিষ্ট। ক অংশের উত্তরের জন্য ২টি ধাপ থাকবে, প্রতিটি ধাপের নম্বর ১। সৃজনশীল প্রশ্নের ২য় অংশের (খ নং) কাঠিন্যের স্তর মধ্যম মানের হবে।এ অংশের উত্তর উদ্দীপকের উপর নির্ভরশীল হবে এবং উত্তরের ক্ষেত্রে ৪টি ধাপ থাকা বাস্থনীয়। সৃজনশীল প্রশ্নের ৩য় (গ নং)অংশটি তুলনামূলক কঠিন স্তরের এবং এই অংশের উত্তরও সরাসরি নির্ভরশীল। এখানেও উত্তরে ৪টি ধাপ থাকা বাঞ্ছনীয়। প্রশ্নগুলো এমন ভাবে হবে যেন কোন প্রশ্নের উত্তর পুনরাবৃত্তি না ঘটে। ক অংশের নম্বর দুই ধাপে, ২ অথবা ১ পেতে পারে। খ ও গ অংশে ৪টি ধাপে, ৪ অথবা ৩ অথবা ২ অথবা ১ অথবা নম্বর পেতে পাওে অর্থাৎ প্রতিটি ধাপের নম্বর ১।নম্বর কখনো ভগ্নাংশে দেয়া যাবে না। কোন অংশ ভুল হলে নম্বর কাটা যাবে কিন্তু ঐ ভুল তথ্য ব্যবহার করে পরবর্তী অংশের প্রক্রিয়াগতভাবে ঠিক থাকলে সেই অংশের জন্য পূর্ণ নম্বর পাবে। অথ্যাৎ একই ভুলের জন্য একাধিকবার দন্ড দেয়া যাবে না। গণিতে উত্তরপত্র মূল্যায়নে বাক্য গঠন, ভাষাশৈলীর উপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়া যাবে না। ১১টি প্রশ্নই লিখিত হতে পাওে আবার ১১টিই হতে পাওে সারণী, গ্রাফ/লেখচিত্র, ছবি অথবা ডায়াগ্রাম অথবা এগুলোর সমন্তিতরূপ। এক বা একাধিক অধ্যায়ের আলোকে উদ্দীপক তৈরি হতে পারে। প্রশ্নে কোন নতুন তথ্য সংযোজন করা যাবে না অর্থ্যাৎ সকল তথ্যই উদ্দীপকে দেয়া থাকবে। কিন্তু ছাত্রছাত্রীরা জানায়, গণিত বিষয়টি সৃজনশীল করা হয়েছে। প্রচলিত নিয়মের চেয়ে বেশি অংক কওে দেখাতে হচ্ছে। ফলে সে অনুযায়ী সময় বাড়ানো হয়নি। এ কারণে নির্দেশিত সময়ে সকল প্রশ্নের উত্তর দিতে সকল ছাত্রছাত্রীদেও হিমশিম খেতে হয়। তারা বলেন, গণিত বিষয়টি সব সময়ের জন্য কঠিন। আর এখন সৃজনশীল করার কারণে আমরা গাইড বইয়ের সহযোগিতা নিয়েও অধিকাংশ অংকের সমাধান করতে পারছি না।
ছাত্রছাত্রীরা বলেন, উচ্চবিত্ত পরিবারের ছাত্রছাত্রীরা গ্রাইভেট টিউটরের সহযোগিতা নিয়ে গণিত পারলেও দরিদ্র পরিবারের ছেলেমেয়েরা সেটা পাওে না। ফলে তাদেও ফলাফল আশানুরূপ হয় না। শুধু গণিতের কারণেই জে.এস.সি ২০১৭ পরিক্ষায় মোট ফেলের ৮০ ভাগ শিক্ষার্থী ফেল করেছে। (চলবে)

মোঃ আলমগীর হোসেন,
সহকারি শিক্ষক (গণিত)
চুয়াডাঙ্গা একাডেমী।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather
Advertisements

About chief editor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

“প্রাইমারি সহকারী নিয়োগ পরীক্ষার Shortcut সাজেশন!!!

বাংলা সাহিত্যঃ ✬ বাংলা উপন্যাস – বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ✬ বাংলা সনেট – মাইকেল মধূ সূদন দত্ত ✬ আধুনিক বাংলা নাটক – মাইকেল মধূ সূদন দত্ত ✬ বাংলা গদ্য সাহিত্য – ...

যা পড়লে প্রাইমারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন কমন পাবেন

★ এশিয়ার বর্ষীয়ান নেতাদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থান – ৪র্থ, ৭০ বছর ★ স্বাস্থ্যসেবার মান ও সহজপ্রাপ্যতার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান – ১৩৩ তম ★ এশিয়া পাওয়ার ইনডেক্সে বাংলাদেশের অবস্থান ...

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাঃ গত ৩মাসের কারেন্ট এফেয়ার্স এবং পত্রিকা থেকে সংগৃহীত গুরুত্বপূর্ণ সাম্প্রতিক MCQ প্রশ্নোত্তর

০১. বাংলাদেশে সর্বশেষ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়,,,, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ ০২. ২০১৮ সালের product of the year ঘোষনা করা হয়- ওষুধ শিল্পকে। ০৩. বাংলাদেশে 4G চালু হয়- ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। ...

সাধারন জ্ঞান

১ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ১১তম আইপিএল-এ সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেন কোন বােলার? অ্যান্ড্রু টাই। ২ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত আইপিএল এ সর্বোচ্চ রান করেন কোন খেলােয়াড়? কেন উইলিয়ামসন (৭৩৫)। ৩ ২০১৮ ...

hit counter