Home » নিউজ (page 40)

নিউজ

চুয়াডাঙ্গা ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রকে হত্যার প্রতিবাদে ঘাতকের ফাঁসীর দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সমাবেশ

mail.google.comচুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র মাহফুজের হত্যার প্রতিবাদে ঘাতকের গ্রেফতার ও ফাঁসীর দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ছাত্র সংসদের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ থেকে ৮ম শ্রেনীর ছাত্র মাহফুজ আলম সজীবের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসীর দাবি জানানো হয়। সমাবেশে সজীবের আতœার রুহের মাগফিরাত কামনায় নিরবতা পালন করা হয়। বক্তব্য দেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিমোহন বিশ্বাসসহ অন্যরা।

প্রসংগত ২৯ জুলাই জেলার দামুড়হুদা উপজেলা চত্বরে বৃক্ষ মেলা দেখতে এসে অপহৃত হন মাহফুজ আলম সজীব। তার মুক্তিপণ বাবদ মোবাইল ফোনে ২০ লাখ টাকা দাবি করা হয়। তার পর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। পরে ৩১ আগষ্ট বুধবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-পুলিশ সদস্যরা চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সিএন্ডবি পাড়ার কোরবান আলির বাড়ির পায়খানার সেপটিক ট্যাংক থেকে সজীবের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহতের মামা চুয়াডাঙ্গা আলোকদিয়া ইউপির ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রকিব উদ্দিনসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছেন । পুলিশ বাড়ি মালিক কোরবান আলীসহ ৩ জনকে আটক করেছে।

চাকুরীসহ রাশিয়াতে উচ্চ-শিক্ষার সুযোগ নিয়ে এলো এইবেলা পরিবার

mmmm1ঢাকাঃ বাংলাদেশী ছাত্রছাত্রীদের জন্য রাশিয়াতে পার্টটাইম চাকরীর নিশ্চয়তা দিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ করে দিতে রাশিয়া-বাংলাদেশ শিক্ষা ও সংস্কৃতি কেন্দ্র এবং এইবেলা’র মধ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

বুধবার দুপুরে এ চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়া-বাংলাদেশ শিক্ষা ও সংস্কৃতি কেন্দ্রের চিফ কাউন্সেলর ডঃ মাভলুদা বালা এবং ডঃ অশোক গুপ্ত এবং এইবেলা লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর, সুকৃতি কুমার মণ্ডল।

এই চুক্তির ফলে বাংলাদেশ থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের কোন ছাত্রছাত্রী যদি রাশিয়াসহ এনআইএস অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোতে উচ্চশিক্ষা গ্রহন করতে যেতে চায় তাহলে এইবেলা পরিবার তাদেরকে ব্যাংকিং সাপোর্ট সহ সকল ধরনের সহযোগিতা করবে।

শিক্ষকের নির্যাতনে হাসপাতালে শিক্ষার্থী

17-62-300x169ডেস্ক:
ভোলার চর কুকরি-মুকরি আমিনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে অমানবিক নির্যাতন করেছে বিদ্যালয়ের বদলি শিক্ষক জোনায়েদ। বদলি এই শিক্ষক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মাকসুদা বেগমের স্বামী।
নির্যাতনের শিকার শিশুটির নাম মুজাহিদ। তার বয়স ৬ বছর। আহত শিশু মোজাহিদ চরফ্যাশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
মঙ্গলবার এই ঘটনা ঘটে। আমিনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবেন বলে জানিয়েছেন।
জানা গেছে, তাকে নির্দয়ভাবে বেত্রাঘাত করা হয়। পরে সে বাড়ি ফিরলে তার স্বজনরা তাকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করায়। বর্তমানে সেখানে ওই শিক্ষার্থীর চিকিৎসা চলছে।
এ ব্যাপারে আহত শিশুর বাবা আব্দুল মোতালেব চরফ্যাশন থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
এদিকে ঘটনা প্রকাশ না করার জন্য আহত শিক্ষার্থীর স্বজনদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে নির্যাতনকারী শিক্ষকের আত্মীয়-স্বজনরা।
নির্যাতনকারী শিক্ষকের বক্তব্য জানতে চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকে ওই শিক্ষক গা ঢাকা দিয়েছে।

‘প্রধানমন্ত্রী একটি সমৃদ্ধ দেশ গঠনের লক্ষে কাজ করছেন’ – শিক্ষামন্ত্রী

সিলেট: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তে অর্জিত বাংলাদেশে আজ সকল ধর্মের অধিকার নিশ্চিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি অসাম্প্রদায়িক ও ক্ষুধামুক্ত সমৃদ্ধ দেশ গঠনের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন ।
বৃহস্পতিবার বিয়ানীবাজার পৌরশহরের সুপতলায় বাসুদেব অঙ্গনে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
নুরুল ইসলাম নাহিদ আরো বলেন, ইতোমধ্যে বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। দেশের মানুষের চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, স্বাস্থ্যসেবাসহ সার্বিক উন্নয়ন তরান্বিত হয়েছে। কিছু কুচক্রিমহল ইর্ষা করছে। এক্ষেত্রে আমাদের সকলকে সচেতন হতে হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রে পরিণত করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার সর্বাত্বক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। দেশের মানুষের চাহিদার কথা বিবেচনা করে নতুন নতুন রাস্তাঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতাল নির্মাণ করা হয়েছে।
পরে মন্ত্রী একটি বাড়ি একটি খামার এবং পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক বিয়ানীবাজারের নবনির্মিত ভবন, ভূমিহীন-অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের বাসস্থান নির্মাণ প্রকল্পে নির্মিত ৪টি বাড়ির উদ্বোধন করেন।
সকাল ১১টায় বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বিয়ানীবাজার প্রশাসন আয়োজিত বিয়ানীবাজার উপজেলার সকল শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, ইমাম, সুশীলসমাজ সহ সর্বস্তরের জনগণের অংশগ্রহণে জঙ্গি-সন্ত্রান ও নাশকতা প্রতিরোধ সমাবেশে যোগ দেন।
সমাবেশে বক্তৃতায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস উন্নয়নের বিরোধি কার্যক্রম। যারা মানুষের শান্তি ও দেশের উন্নয়ন চায় তারা কখনো জঙ্গিবাদকে সমর্থন করে না। ইসলাম শান্তির ধর্ম, ইসলামে জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাসুম মিয়ার পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক কর্নেল মো. নেয়ামুল কবির, বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ দ্বারকেশ চন্দ্র নাথ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা শিব্বির আহমদ ও রোকসানা লিমা প্রমুখ।

সুনামগঞ্জে শিক্ষককের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, সুনামগঞ্জ ॥ সুনামগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহজাহান মিয়ার উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। সোমবার দুপুরে শহরের ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় ঘন্টা ব্যাপি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন এইচ এমপি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইনছান মিয়া, সতীশ চন্দ্র উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম, সুনামগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাসিমা বেগম প্রমুখ। এ সময় বক্তারা সহকারী শিক্ষক শাহজাহান মিয়ার উপর হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে এসে শাস্তি প্রদানের দাবি জানান। না হলে এ ভাবে আরো শিক্ষকরা সন্ত্রাসী হামলার শিকার হবেন।

প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় সাধারন সম্পাদক পলাতক

সারা দেশে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির অস্তিত্ব সংকটে

bptaনিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রতারণার অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় দণ্ডপ্রাপ্ত বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম তোতা এখন পলাতক। তার  বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন খোজরোজ কিতাব মহলের স্বত্ত্বাধীকারী মাওলানা আবদুল মালেক। ফলে সারা দেশে প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি অস্তিত্ব হুমকির মুখে।

কারাদণ্ড হলেই বরখাস্ত হওয়ার বিধান থাকলেও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে কৌশলে বরখাস্ত এড়িয়ে যাচ্ছেন ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর করা ওই আবেদনে বলা হয়, ঢাকা মেট্রােপলিটন ম্যাজিট্রেট আদালত-২৯, দণ্ডবিধির ৪২০ ধারা অনুযায়ী অর্থ আত্মসাতের কারণে আনোয়ারুল ইসলাম তোতাকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ৩ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

২০১৫ খ্রিষ্টাব্দের ২৭ সেপ্টেম্বর আদালত এ আদেশ দেন। চাকরিবিধি অনুযায়ী ওই তারিখ থেকেই তোতাকে চাকরিচ্যুত করার নিয়ম থাকলেও তাকে নিয়মিত বেতনভাতাদি প্রদান করা হচ্ছে বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ২৩ মার্চে করা আবেদনে এখনও পর্যন্ত আদালতের রায় কার্যকরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোনো রকম আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়নি বলেও অভিযোগ করেন আবদুল মালেক।

জানা গেছে, ঢাকার পুস্তক প্রকাশক খোশরোজ কিতাব মহলের কাছ থেকে শিক্ষা উপকরণ নিয়ে তা স্কুলে স্কুলে বিক্রি করতেন আনোয়ারুল। বিনিময়ে মোটা অংকের কমিশন পেতেন খোশরোজ কিতাব মহলের কাছ থেকে। দৈনিকশিক্ষার হাতে থাকা আদালতের আদেশের কপিতে দেখা যায়, খোশরোজ কিতাব মহলের মালিক মহিউদ্দিন আহম্মেদের কাছ থেকে মামলার আসামি আনোয়ারুল তার ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ২৮ লাখ টাকা নেয়। ২০০৮ সালের ১ নভেম্বর আনোয়ারুল ইসলাম তোতা ১৬ লাখ টাকা পরিশোধ করেন। কিন্তু বাকি ১১ লাখ টাকা সময়মতো পরিশোধ না করায় জড়িত খোশরোজ কিতাব মহলের প্রতিনিধি ও অবসরপ্রাপ্ত সরকারি প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক আ কা ফলজুল হক আনোয়ারুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

এদিকে শিক্ষক সমাজের কেন্দ্রিয় নেতা জানান, সারা দেশে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক আলাদা আলাদা সমিতি গড়ায় প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির অস্তিত্ব হুমকির মুখে। যদিও দু-বছর আগে সমিতির মেয়াদ শেষ হওয়ায় আর কোন কার্যক্রম না থাকায় সারা দেশে সহকারী শিক্ষকদের একমাত্র সংগঠন প্রাথমিক শিক্ষক সমাজের ছায়াতলে সকলকে আসার আমন্ত্রন জানিয়েছে শিক্ষক সমাজের সভাপতি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারুল ইসলাম তোতা  জানান, এটি সম্পূর্ণ একটি মিথ্যা মামলা। এটি তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। এ মামলার রায়ের বিরুদ্ধে আদালতে আাপিল করেছেন বলে জানান তিনি। বরখাস্ত এড়াচ্ছেন কীভাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আল্লাহর অসীম রহমতে’।

 

প্রধান শিক্ষকের স্ত্রীকে নিয়োগ দেওয়ায় এলাকাবাসীর প্রতিবাদ

1জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলায় চিনাডুলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে এক সহকারী শিক্ষিকাকে বাদ দিয়ে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষকের স্ত্রীকে নিয়োগ দেওয়ায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসী। শনিবার দুপুরে এ প্রতিবাদের অংশ হিসেবে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে স্কুলের শিক্ষার্থী,অভিভাবকসহ এলাকাবাসী। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের কক্ষসহ সকল শ্রেণিকক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চিনাডুলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়টিতে ২০০৪ সালে শাহানা বেগম সহকারী শিক্ষিকার পদে যোগদান করেন। ২০১০ সালে বিদ্যালয়টি এমপিও ভুক্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত বিনা বেতনে তিনি চাকরি করেন এবং এখনও তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। সম্প্রতি বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক মো. রুহুল আমীন আনছারী কৌশলে শাহানা বেগমের নাম বাদ দিয়ে তার স্ত্রী মোছা.ফারজানা বেগমের নাম এমপিওভুক্ত করান।

বিষয়টি জানার পর বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। শনিবার দুপুরে তারা বিদ্যালয়ের সামনে ইসলামপুর-মাহামুদপুর সড়ক অবরোধ করে মানববন্ধন ও প্রধান শিক্ষকের কুশপুত্তলিকা দাহ করেন। এ সময় তারা প্রধান শিক্ষককে দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে তার শাস্তি ও শাহানা বেগমকে সহকারী শিক্ষিকার পদে পুনরায় নিয়োগ দেওয়ার দাবি জানান। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- বিদ্যালয়টির সাবেক প্রধান শিক্ষক দৌলতুজ্জামান, নূরুন্নবী, সাইদুর রহমান, জহুরুল ইসলাম প্রমুখ।

প্রধান শিক্ষকের কুশপুত্তলিকা দাহ

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক রুহুল আমীন আনছারী বলেন, ২০১৫ সালের ১ আগস্ট শাহানা বেগম সহকারী শিক্ষিকার পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তবে এ কথা অস্বীকার করে শাহানা বেগম এখনও নিজেকে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিক হিসেবে দাবি করেন।

শাহানা বেগম বলেন, মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকায় প্রধান শিক্ষক কৌশলে তার স্বাক্ষর জালসই করে ভুয়া পদত্যাগ দেখিয়ে প্রধান শিক্ষকের স্ত্রীকে এমপিওভুক্তি করেছেন।

৮৪৮ কলেজে সবাই পাস, ২৫টিতে সবাই ফেল : শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা : এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার শতভাগ শিক্ষার্থী পাসের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা গতবারের চেয়ে ২৮৫টি কমেছে, সেইসঙ্গে কমেছে কেউ পাস করেনি এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এ বছর ২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেওয়ার পর শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ তার বক্তব্যে এ তথ্য জানান। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আটটি সাধারণ বোর্ড, মাদ্রাসা এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে ৮ হাজার ৩৪৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন শিক্ষার্থী এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেয়। গত বছর শূন্য পাশ করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ৩৫টি।

গত বছরের তুলনায় এবার শূন্য পাশ করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কমে ২৫টিতে এসেছে। উল্লেখ্য, এবার সারা দেশে আটটি সাধারণ শিক্ষাবোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডে এইচএসসি পরীক্ষায় পাসের গড় হার ৭৪ দশমিক ৭০। কলেজ বোর্ডগুলোর ফলাফলে পাসের হার ৭২.৪৭ শতাংশ। মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৮৮ দশমিক ১৯ শতাংশ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে এবার পাসের হার ৮৪ দশমিক ৫৭ শতাংশ। শিক্ষামন্ত্রী  নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, গতবারের তুলনায় এবার পাসের হার বেশি।

গত বছরের তুলনায় এবার পাসের হার বৃদ্ধি পেয়েছে ৫ দশমিক ১০ শতাংশ। এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫৮ হাজার ২৭৬ জন। এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ৩ এপ্রিল শুরু হয়ে শেষ হয় ২২ জুন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ম অনুযায়ী, ৬০ দিনের মধ্যে ফল ঘোষণার কথা। সেই নিয়ম রক্ষার চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ। এবার পরীক্ষায় আটটি সাধারণ শিক্ষাবোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডে মোট ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। গত বছরের তুলনায় এ বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৪৪ জন।

মেডিকেলের অনুপস্থিত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের খোঁজ চায় সরকার

sarkar-দেশের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে নিরাপত্তা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোতে দীর্ঘদিন অনুপস্থিত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সম্পর্কে খোঁজ নেওয়ার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে। এ সম্পর্কিত একটি দিক নির্দেশনা জারি করতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।
রোববার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেকের সভাপতিত্বে হাসপাতালে নিরাপত্তা জোরদারকরণ সংক্রান্ত এক জরুরি সভায় এ নির্দেশনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোহাম্মদ নূরুল হক, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ওয়াহিদ হোসেন ছাড়াও মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের পরিচালকরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।
চলমান পরিস্থিতিতে হাসপাতালগুলোর নিরাপত্তা যেন কোনোভাবেই বিঘিœত না হয়, কোনোভাবেই যেন কোনো ধরনের অঘটন না ঘটে সেদিকে সতর্ক থাকার জন্য সভায় সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়। সব হাসপাতালে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেক্টর, সিসিটিভি স্থাপনের জন্যেও হাসপাতালের পরিচালকদের বলা হয়েছে। এ ছাড়াও হাসপাতালগুলোতে নিরাপত্তা কর্মী বৃদ্ধির জন্যও বলা হয়েছে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগ দিতে বলা হয়েছে এবং সরকারি হাসপাতালগুলোতে পুলিশ ও আনসার সদস্যের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্যে উদ্যোগ নেওয়া হবে। এ ছাড়া সব হাসপাতালেই রোগীর সঙ্গে আসা বা রোগীকে দেখতে আসা দর্শনার্থীদের প্রতি বাড়তি সতর্ক থাকার জন্যেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।- এনটিভি

প্রশ্ন ফাঁস ও রেজাল্ট জালিয়াতে চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার

quesনিজস্ব প্রতিবেদক:এসএসসি, এইচএসসিসহ বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষা, নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও পরীক্ষার ফলাফল পরিবর্তনের নামে গুজব ছড়ানো এবং বোর্ড চেয়ারম্যান-কর্মকর্তাদের ফোন নাম্বার সফটওয়ারের মাধ্যমে ক্লোনিং করে অভিনব প্রতারণা চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।
রোববার দুপুরে মিন্টো রোডের ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে যুগ্ম-পুলিশ কমিশনার মো. আব্দুল বাতেন আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।
তিনি জানান, শনিবার রাজধানীর শাহাবা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা হল- মো. আল-রাবীত ওরফে শুভ, মো. রিয়াজ ভূইয়া, মো. মেহেদী হাসান, মো. নজরুল ইসলাম ওরফে রাজু ও মো. আসাদুজ্জামান ওরফে গালিব। তাদের কাছ থেকে জালিয়াতির কাজে ব্যবহৃত মোবাইল, ল্যাপটপ ও বিভিন্ন রকম সফটওয়্যার উদ্ধার করা হয়েছে।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে যুগ্ম কমিশনার জানান, তারা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইনে ভূয়া পেজ খুলে এসএসসি, এইচএসসি সহ বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও ফলাফল পরিবর্তনের নামে গুজব ছড়িয়ে প্রতারণা করছিল। এছাড়া তারা ম্যাজিক কল ও ম্যাজিক এসএমএস নামক নিজস্ব উদ্ভাবিত সফটওয়্যার ব্যবহার করে পাবলিক পরীক্ষাসহ বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল ও প্রশ্নপত্র ফাঁসের নামে প্রতারণা করে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন করছিল।
তিনি আরো জানান, এসব কাজে তারা অনেক সময় ভিওআইপি কল প্রযুক্তি ব্যবহার করত। এসব কর্মকান্ড সরকারের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন করে।
এ ঘটনায় রমনা থানায় মামলা হয়েছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

৩৪তম বিসিএসে উত্তীর্ণ আরও ৪৬০ জনকে নিয়োগের সুপারিশ

pscনিজস্ব প্রতিবেদক: ৩৪তম বিসিএসে উত্তীর্ণ আরও ৪৬০ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করেছে সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। তাদের মধ্যে ৪৫০ জন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে এবং ১০ জন পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ে নিয়োগ পেয়েছেন।

রোববার বিকেলে পিএসসির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

নিয়োগ পাওয়া প্রার্থীদের মধ্যে ইংরেজির সহকারী শিক্ষক হিসেবে ৯৮ জন, গণিতের ৭৩ জন, জীববিজ্ঞানের ৫০ জন, ভৌতবিজ্ঞানের ৪৯ জন, সামাজিক বিজ্ঞানের ৪৮ জন, ব্যবসায় শিক্ষায় ৪৮ জন, ইসলাম শিক্ষায় ২৫ জন, কৃষিশিক্ষায় ২৪ জন, ভূগোলে ২৩ জন, বাংলায় ১১ জন এবং চারুকলায় একজনকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে।

এ ছাড়া পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শক হিসেবে সাতজন, জুনিয়র কেমিস্ট হিসেবে দুজনকে ও সহকারী বায়োকেমিস্ট হিসেবে একজনকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে।

পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ৩৪তম বিসিএসে উত্তীর্ণ কিন্তু ক্যাডার বা নন ক্যাডারের প্রথম শ্রেণির পদে সুপারিশ করা যায়নি—এমন ৪৬০ জনকে আজকে দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। ৩৪তম বিসিএস থেকে এ নিয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে ১ হাজার ৫১৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হলো। এর আগে প্রথম শ্রেণির নন ক্যাডার পদে ৪০৯ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর আগে অতীতে কোনো বিসিএস থেকে নন ক্যাডারে এত বিপুলসংখ্যক প্রার্থীকে নিয়োগ হয়নি।

শেরপুরে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

এম. সুরুজ্জামান, শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুর সরকারি কলেজে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নিয়ে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৪ আগস্ট রবিবার দুপুরে কলেজ মিলনায়তনে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. ছারওয়ার জাহানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারি অধ্যাপক শিব শংকর কারুয়ার সঞ্চালনায়, এতে সভাপতিত্ব করেন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. একেএম রিয়াজুল হাসান। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, শেরপুর পৌরসভার মেয়র গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কলেজের উপাধ্যক্ষ মোঃ সারোয়ার জাহান, কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুর রশিদ, ডাঃ সেকান্দর আলী কলেজের অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলাম মুকুল, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুনায়েদ নুরানী মনি প্রমুখ।

এসময় প্রধান অতিথি হুইপ আতিক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডাকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সমগ্র জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে একাত্তরে জাতি যেমন ঐক্যবদ্ধ হয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল, ঠিক তেমনি এবারও তারা জঙ্গিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়েছে। সেই আন্দোলনে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদেরও অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

আলোচনা শেষে জাতীয় শিশু বিতর্ক প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। এতে শেরপুর সরকারি কলেজের সকল শিক্ষক-কর্মকর্তা, বিভিন্ন শ্রেণির প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

খুলতে শুরু করেছে রাজধানীর ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো

sch-550x304-1রিমু: রাজধানীর ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো খুলতে শুরু করেছে। নিরাপত্তার কারণে অনেক দিন বন্ধ থাকার পর আজই খুলেছে বেশ কয়েকটি স্কুল।
সোমবার স্কলাস্টিকা, সানিডেল, সী ব্রিজ, প্লে পেনসহ বেশ কয়েকটি স্কুল খুলেছে। গেল সপ্তাহেই খুলেছে আগাখান। তবে টার্কিশ হোপ, মাস্টারমাইন্ডসহ কিছু স্কুল এখনও খোলেনি। শিগগিরই সেগুলো খুলে যাবার কথা রয়েছে।
গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পর পেরিয়ে গেছে এক মাসেরও বেশি সময়। অথচ নিরাপত্তার অজুহাতে এখনও খোলা হয়নি রাজধানীর বেশির ভাগ ইংরেজি মাধ্যম স্কুল। তাই টানা বাসায় থেকে শিশু কিশোররা হাঁপিয়ে উঠেছে বলে জানান অভিভাবকরা। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ শিক্ষা জীবন নিয়েও শঙ্কিত তারা।
নামকরা ইংরেজি মাধ্যম স্কুলগুলো বন্ধ রাখার কোনো যৌক্তিক কারণ জানা নেই ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলস এসোসিয়েশনেরও।
মূলত গত মাসে দেশে পরপর দুইটি ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা পরই নিরাপত্তার কথা বলে এইসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। যার ফলে এইসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবন কিছুটা হলেও বিঘিœত হচ্ছে। তাই সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবনের কথা বিবেচনা করে দ্রুতই এইসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ, সরকার উভয়কে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া উচিত।
এদিকে প্রথম সারির বেশির ভাগ ইংরেজি মাধ্যম স্কুল বন্ধ থাকলেও কিছু স্কুলের ক্লাসসহ সব কার্যক্রম চলছে স্বাভাবিক ভাবেই।
একাডেমিয়া ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. কুতুব উদ্দিন বলেন, ‘বর্তমান সরকার যেভাবে আমাদের নিরাপত্তা দিচ্ছে সেখানে আমাদের আতঙ্ক হওয়ার কিছু দেখছি না। আমরা আমাদের সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই আমরা ক্লাস পরিচালনা করছি।’
উল্লেখ্য দেশে এ মুহূর্তে তিন শতাধিক ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়াশুনা করছে তিন লক্ষাধিক শিক্ষার্থী।
সূত্র: সময় টিভি ও ইন্ডিপেনডেন্ট

শ্যামল কান্তি ও সেলিম ওসমান ঘটনার শিকার

অনলাইন ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জে স্কুলশিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনায় পুলিশের দাখিল করা তদন্ত প্রতিবেদনে সুনির্দিষ্টভাবে কাউকে দায়ী করা হয়নি।

 ‘শ্যামল কান্তি ও সেলিম ওসমান ঘটনার শিকার’

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেদিন পিয়ার সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনা ছিল আকস্মিক। ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত ও স্থানীয় সংসদ সদস্য এ কে এম সেলিম ওসমান উভয়ই উদ্ভুত ঘটনার শিকার।

নারায়ণগঞ্জে স্কুলশিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনায় সাধারণ ডায়েরির (জিডি) তদন্ত প্রতিবেদনটি রবিবার বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশীষ রঞ্জন দাসের হাইকোর্ট বেঞ্চে দাখিল করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু এটি দাখিল করেন।

এ বিষয়ে আদেশের জন্য আগামী ১০ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত।

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, যেহেতু ঘটনাটি আকস্মিক এবং শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত ও সাংসদ সেলিম ওসমান উভয়ই ঘটনার শিকার, সেহেতু কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে কাহারও কোনো কোনরূপ অভিযোগ নাই। কেউ কোনরূপ জবানবন্দীও দেয়নি। তাই এ বিষয়ে কাহারও বিরুদ্ধে কোনোরূপ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি।

অপরদিকে রিটের পক্ষের আইনজীবী এম কে রহমান বলেন, পুলিশের দাখিলকৃত এ প্রতিবেদন গ্রহণযোগ্য নয়। এই প্রতিবেদনের বিষয়ে আদালত প্রশ্ন রেখে বলেছেন, গণমাধ্যমে ঘটনার বর্ণনা এসেছে। এটা কে বা কারা ঘটিয়েছে ও মাস্টার মাইন্ডে কারা ছিল তদন্তে তা আনতে হবে না?

এরআগে গত ৩ আগস্ট প্রতিবেদনটি নারায়ণগঞ্জের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জমা দেওয়ার পর তা নথিভুক্ত হয়েছে। এরপর সেটি হাইকোর্টে আসে।

গত ১৪ মে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে বিদ্যালয়ের ভেতরে অবরুদ্ধ করে মারধর করা হলে তিনি আহত হন। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে তাকে কান ধরে ওঠ-বস করানো হয়।

এ ঘটনায় স্থানীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে গত ১৮ মে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই ঘটনায় কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা সংশ্লিষ্টদের জানানোর নির্দেশও দেন।

সাবেক অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এম কে রহমান ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মহসিন রশিদ পত্রিকায় প্রকাশিত শিক্ষকের কান ধরে উঠবস করার ঘটনায় প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করেন। এরপর আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই রুল জারি করেন।

রুলের প্রেক্ষিতে ৯ জুন প্রশাসন প্রতিবেদন জমা দিলেও নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) প্রতিবেদন জমা দিতে দুই মাস সময় চান। সময় আবেদনে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, এই ঘটনায় করা জিডির প্রেক্ষিতে পুলিশী তদন্ত চলছে। এ অবস্থায় নতুন তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া সম্ভব নয়।

আদালত সেই আবেদন মঞ্জুর করে ৪ আগস্ট পুলিশকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেন। আর এ বিষয়ে শুনানির জন্য ৭ আগস্ট দিন নির্ধারণ করা হয়। সেই প্রেক্ষিতেই এবার জিডির তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হল।

পল্লী বিকাশ কেন্দ্রে চাকরি

ঢাকা : পিকেএসএফের অর্থায়নে পল্লী বিকাশ কেন্দ্রের ২টি পদে ৭০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২০ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম: শাখা ব্যবস্থাপক (ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম)
পদসংখ্যা: ২০ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতকোত্তর
অভিজ্ঞতা: ন্যূনতম ০২ বছর
বেতন: ২০,০০০-২২,০০০ টাকা।

পদের নাম: ফিল্ড অফিসার (ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম)
পদসংখ্যা: ৫০ জন
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক
বেতন: ১০,০০০-১২,০০০ টাকা।

কর্মস্থল: কিশোরগঞ্জ, গাজীপুর ও নরসিংদী

আবেদনের ঠিকানা: প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, পল্লী বিকাশ কেন্দ্র, ২৭/সি, আসাদ এভিনিউ, ২য় তলা, ব্লক- ই, মোহম্মদপুর, ঢাকা- ১২০৭ অথবা ই-মেইল mostakim@pbk-bd.org ঠিকানায় পাঠাতে পারবেন।

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter