Home » টপ খবর » প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকরা সাক্ষাত চান

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষকরা সাক্ষাত চান

অনলাইন ডেস্ক,১৪ নভেম্বর:

প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকদের ১১তম, সহকারী প্রধান শিক্ষকদের ১২তম এবং সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১৩তম গ্রেড নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। এটি একধরনের প্রহসন বলে মনে করছেন তারা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করতে চান । প্রধান শিক্ষকরা জানিয়েছেন, তাদের সাথে এক ধরনের প্রহসন করা হয়েছে। তারা আগেও ১১তম গ্রেড পেয়েছেন আবার এখনও ১১ তম গ্রেডের সুপারিশ করেছে। যা হাস্যকর।

সুত্র জানায়,প্রধান শিক্ষকদের ১০তম ও সহকারী শিক্ষকদের ১২তম গ্রেডের প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে নাকচ করে দেয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে প্রাগম অর্থ মন্ত্রনালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে । নতুনভাবে আলোচনার মাধ্যমে প্রধানদের ১১তম ও সহকারী প্রধানদের ১২তম এবং সহকারী শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডের জন্য প্রস্তাব পাঠাতে বলা হয়। তার ভিত্তিতে প্রাগম প্রস্তাব পাঠাই। সেটি তারা লিখিতভাবে সম্মতি জানিয়েছে, এখন বাকি আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে প্রজ্ঞাপন জারি হবে।

প্রাগম সচিব বলেন, আন্দোলনকারী শিক্ষকদের সঙ্গে আমাদের দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। তারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। আমরা তাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছি। সমাপনী পরীক্ষার পর এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে।

প্রাথমিকের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং প্রশিক্ষণবিহীন সহকারী শিক্ষকরা বেতন বৈষম্য নিরসনে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিলেন। এ দাবিতে আসন্ন প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষাও বয়কটের হুমকি দিয়েছিলেন তারা। পরে বেতন বৈষম্য নিরসনে গত ২৮ অক্টোবর অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

গত ৭ নভেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায়। চিঠিতে এখন থেকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন) জাতীয় বেতন স্কেল-২০১৫ এর ১১তম গ্রেডে (১২৫০০-৩০২৩০ টাকা) এবং সহকারী শিক্ষক (প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং প্রশিক্ষণবিহীন) ১৩তম গ্রেডে (১১০০০-২৬৫৯০ টাকা) বেতন পাবেন বলে উল্লেখ করা হয়।

কিন্তু নতুন এ বেতন স্কেল প্রত্যাখ্যান করেন বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয প্রধান শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় সিনিয়ার যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও চুয়াডাঙ্গা জেলার সাধারন সম্পাদক স্বরুপ দাস। তিনি বলেন, ‘এটি একধরনের প্রহসন। আমরা আগেও ১১তম গ্রেড পেয়ে আসছি। আবার কিভাবে আমাদের ১১তম গ্রেডের সুপারিশ করা হয় তা বোধগম্য নয়। তাছারা প্রধান শিক্ষকদের ৯/৩/১৪ থেকে ১৪/১২/২০১৫ ইং তারিখ পর্যন্ত টাইমস্কেল আটকিয়ে আছে। যা দ্রুত সমাধানের দাবী জানান।


Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather
Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather
Advertisements

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শোক সংবাদ, শোক সংবাদ, শোক সংবাদ

ডেস্ক: চট্রগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার বারমাসিয়া চা বাগানের সাবেক টি প্ল্যান্টার শম্ভু প্রসাদ ভট্টাচার্য গত ০৩/৭/২০২০ দিবাগত রাত ১’২০ ঘটিকায় বার্ধক্যজনিত রোগে ইহধাম ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল প্রায় ...

বিশ্ববিদ্যালয়ে শতাধিক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন তরুণের

নিউজ ডেস্ক,৪ জুলাই: বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক নারী শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি এবং নানাভাবে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে মিশরের ২২ বছর বয়সী এক তরুণের বিরুদ্ধে। মিশর সরকার এরই মধ্যে ওই তরুণের বিরুদ্ধে তদন্ত চালানোর ...

পরীক্ষা ছাড়াই দ্বিতীয় বর্ষে উত্তীর্ণ কলেজ শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ জুলাই: করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বন্ধ রয়েছে দেশের কলেজগুলো। এই সময়ে একাদশ শ্রেণির শিক্ষাবর্ষ শেষ হলেও প্রথমবর্ষের পরীক্ষা নেয়া যায়নি। এদিকে সেশনের সময় চলে যাওয়ায় একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে ...

dpe-gov-shikkha

ঈদুল আজহার আগেই প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের ‘কিডস অ্যালাউন্স

নিজস্ব প্রতিবেদক,২ জুলাই: করোনাকালে প্রাথমিক শিক্ষায় নতুন কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের কাজও শুরু করে দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। নতুন সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে রয়েছে করোনাকালে মোবাইল ফোনের জুম অ্যাপস ...

hit counter