Home » টপ খবর (page 3)

টপ খবর

সাধারণ ফ্লুর সঙ্গে করোনার মিল-অমিল জেনে নিন

প্রথম আলো ডেস্ক,২১ মার্চ:
মৌসুম বদলের এ সময়টায় দেশে সাধারণ ফ্লু বা ইনফ্লুয়েঞ্জার প্রকোপ দেখা দেওয়ার আশঙ্কা থাকে। এর সঙ্গে এ বছর যোগ হয়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে হওয়া কোভিড-১৯ রোগ। কাজেই সাধারণ সর্দি-কাশি বা ফ্লুতেও উৎকণ্ঠা রয়েছে অনেকের। সত্যি বলতে কি, করোনার সংক্রমণের সঙ্গে সাধারণ ফ্লু বা ইনফ্লুয়েঞ্জার অনেক মিল আছে। আবার অমিলও আছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গত মঙ্গলবার করোনা ও সাধারণ ফ্লুর মিল-অমিল নিয়ে তথ্য প্রকাশ করেছে।

মিল কোথায়

করোনা ও ইনফ্লুয়েঞ্জা—দুটোই শ্বাসতন্ত্রের রোগ। দুটোর সংক্রমণ ছড়ায়ও একইভাবে—ড্রপলেট (মুখ বা নাকনিঃসৃত তরল কণা), বিভিন্ন বস্তু আর সংস্পর্শের মাধ্যমে। তাই দুটোকেই প্রতিরোধ করার উপায়ও এক। হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার মেনে চলা, বারবার হাত ধোয়া এবং সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলার মাধ্যমেই কেবল রোগ প্রতিরোধ সম্ভব। দুটো সংক্রমণের উপসর্গেও মিল আছে—সাধারণ মৃদু সর্দি-কাশি-জ্বর থেকে শুরু করে তীব্র সংক্রমণ, নিউমোনিয়া বা শ্বাসতন্ত্রের প্রদাহ হয়ে রেসপিরেটরি ফেইলিউর, একাধিক অঙ্গ বিকল বা মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

অমিল

ইনফ্লুয়েঞ্জার ইনকিউবেশন পিরিয়ড (ভাইরাসের সংস্পর্শে আসা থেকে রোগ উপসর্গ প্রকাশ হওয়ার) এবং মিডিয়ান সিরিয়াল ইন্টারভেল (এক ব্যক্তি থেকে আরেক ব্যক্তিতে ছড়ানোর সময়) কোভিড-১৯-এর চেয়ে কম। কোভিড-১৯-এর সিরিয়াল ইন্টারভেল পাঁচ-ছয় দিন, ইনফ্লুয়েঞ্জার তিন দিন। এর অর্থ, কোভিড-১৯-এর চেয়েও দ্রুত ছড়ায় ইনফ্লুয়েঞ্জা। তবে করোনাভাইরাস অপেক্ষাকৃত অনেক বেশি মানুষের মধ্যে সংক্রমণ ঘটাতে পারে।

ইনফ্লুয়েঞ্জার মূল শিকার শিশুরা। তবে প্রাথমিক তথ্য-উপাত্ত অনুযায়ী, বয়স্ক ও ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের তুলনায় শূন্য থেকে ৯ বছর বয়সী শিশুদের মধ্যে করোনার সংক্রমণ প্রায় হয় না বললেই চলে। রোগের তীব্রতায়ও বড় ধরনের পার্থক্য আছে। কোভিড-১৯ সংক্রমণের ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রে মৃদু উপসর্গ দেখা দেয়, যা এমনিতেই সেরে যায়। ১৫ শতাংশ ক্ষেত্রে উপসর্গ তীব্র মাত্রার। এমন ক্ষেত্রে রোগীকে অক্সিজেন দেওয়া লাগে। মাত্র ৫ শতাংশ ক্ষেত্রে মারাত্মক জটিলতা দেখা দেয়। এ ক্ষেত্রে রোগীর ভেন্টিলেটর দরকার হয়। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বৈশ্বিক মহামারি শেষ না হওয়া পর্যন্ত এই হার নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

ইনফ্লুয়েঞ্জায় শুধু শিশুরাই নয়, অন্তঃসত্ত্বা নারী, বয়স্ক ও রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম, এমন ব্যক্তিরা ঝুঁকিতে থাকে। কোভিড-১৯-এ এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ঝুঁকিতে দেখা গেছে ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের। এ ছাড়া ডায়াবেটিস, হৃদ্‌রোগ, কিডনি জটিলতাসহ অন্যান্য দীর্ঘমেয়াদি সমস্যায় আক্রান্ত এবং যাদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম, তারাও ঝুঁকিতে রয়েছে। কোভিড-১৯-এ মৃত্যুহার এ পর্যন্ত ৩-৪ শতাংশ। ইনফ্লুয়েঞ্জায় মৃত্যুহার শূন্য দশমিক ১ শতাংশ। করোনার কার্যকর ওষুধ বা প্রতিষেধক এখন পর্যন্ত উদ্ভাবিত হয়নি। তবে ইনফ্লুয়েঞ্জার কার্যকর টিকা আছে।

যা করবেন

যদি সর্দি-কাশি-জ্বর দেখা দেয়, আপনার করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার কোনো ইতিহাস বা ঝুঁকি না থাকে এবং আপনি যদি ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের তালিকায় না থাকেন, তাহলে উদ্বিগ্ন হবেন না। জ্বরের জন্য প্যারাসিটামল, প্রচুর পানি ও তরল পান, পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ আর বিশ্রামই আপনার চিকিৎসা। তবে যদি জ্বর পাঁচ-সাত দিনেও না সারে, শ্বাসকষ্ট দেখা দেয় বা রোগীর দ্রুত অবস্থার অবনতি ঘটে, তাহলে চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। আর যদি আপনি ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তি হন, সম্প্রতি বিদেশফেরত বা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে গিয়ে থাকেন, তবে উপসর্গ দেখা দেওয়ামাত্র সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা সংস্থা আইইডিসিআরের হটলাইনে যোগাযোগ করুন।

মেডিসিন বিশেষজ্ঞ

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষক ও অভিভাবকের প্রতি মহাপরিচালকের খোলা চিঠি

প্রিয় শিক্ষার্থী, সন্মানিত শিক্ষক ও অভিভাবক,

করোনা ভাইরাসে আতংকিত নয়, প্রতিরোধ করবো।
এর লক্ষণ ও প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে জানবো এবং অপরকে জানাবো।

বারবার সাবান দিয়ে হাত ধুবো। প্রতিবার কমপক্ষে বিশ সেকেন্ড করে। হাত দিয়ে নাক, মুখ, চোখ স্পর্শ করবো না ।

এখন স্কুল বন্ধ। স্কুল বন্ধ থাকলেও আমরা রুটিন করে
পড়ালেখা করবো। পাশাপাশি মা-বাবাকে কাজে সাহায্য করবো। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হবোনা। কোন সমাবেশে যোগ দিবো না।

আমরা শিশু ও শিক্ষার্থীদের প্রতি খেয়াল রাখবো, বেশী বেশী যত্ন নিবো।

সতর্কতার মাধ্যমে আমি নিজেকে, আমার পরিবারকে,
সমাজকে এবং জাতিকে সুরক্ষিত রাখবো।

সর্দি-কাশি-জ্বর হলে বা লক্ষণ দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করবো।

আপনাদেরই
মো. ফসিউল্লাহ্
মহাপরিচালক,
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্বাস্থ্য বিভাগের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল

ডেস্ক,২০ মার্চ:
করোনা প্রতিরোধের প্রস্তুতি হিসেবে স্বাস্থ্য বিভাগের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের প্রস্তুতি বিষয় জানাতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ক‌রোনা থে‌কে বাঁচার উপায় বল‌লেন ডাঃএস কে

ডাঃএসকে ঃ
ক‌রোনা বা কো‌ভিন-১৯ এমন এক‌টি ভাইরাস যার কোন প্র‌তি‌ষেধক এখন বের হয়‌নি। ভাইরাস‌টি শরী‌রে প্র‌বেশ কর‌লে শরী‌রের নিজস্ব রোগ প্র‌তি‌রোধ ক্ষমতা বা এ‌ন্টিব‌ডি দি‌য়ে ক‌রোনা ভাইরা‌সের বিরু‌দ্ধে যুদ্ধ কর‌তে হয়। যার শরী‌রের এ‌ন্টিব‌ডি যতটা স‌ক্রিয় সে ততটা ভালভা‌বে করোনা ভাইরা‌সের বিরু‌দ্ধে যুদ্ধ ক‌রে সুস্থ থাক‌তে পা‌রে। তাই প্রথম কাজ হ‌চ্ছে আপনার এ‌ন্টিব‌ডি‌কে স‌ক্রিয় করা। প্র‌তি‌টি ভাইরা‌সের জন্য শরী‌রে নিজস্ব এ‌ন্টিব‌ডি থা‌কে। কিন্তু ক‌রোনা ভাইরা‌সের জন্য কোন এ‌ন্টিব‌ডি আমা‌দের শরী‌রে নেই।

কোনো এন্টিজেন দেহে আক্রমণ করলে রক্তস্রোতে এন্টিবডি নিঃসৃত হয়। এগুলো পরস্পরের রেসিপ্টর সাইটে যুক্ত হয় এবং এন্টিজেন নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। এক প্রাণীর এন্টিবডি অপর প্রাণীর দেহে এন্টিজেন হিসেবে শণাক্ত হয়ে থাকে।
৫ ধর‌নের এন্টিবডির মাধ্য‌মে শরী‌রে রোগ প্র‌তি‌রোধ কর‌তে পা‌নে। IgA, IgE, IgG, IgM এবং IgD.
এন্টিজেন সক্রিয় হলে রোগের উপসর্গ দেখা দেয়।

আসুন জে‌নে নিই কিভা‌বে আপনার এ‌ন্টিব‌ডি‌কে স‌ক্রিয় কর‌বেন?

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে এবং এ‌ন্টিব‌ডি‌কে স‌ক্রিয় কর‌তে (Arsenicum album,Oscillococcinum, Allium cepa) (Calcarea Carbonica 30-1 dose, Phosphorus – 1 dose,Lycopodium 30-1 dose) ক‌ম্বি‌নেশন কার্যকা‌রি ভূমিকা পালন কর‌বে। আপ‌নি এই কম্বি‌নেশন‌টি ১৪ দিন সেব‌নে আপনার শরী‌রের এ‌ন্টিব‌ডি ক‌রোনা ভাইরা‌সের বিরু‌দ্ধে যুদ্ধ কর‌তে পার‌বে।

বায়ুর মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এই রোগ সংক্রমণ প্রতিরোধে নিয়মিত গরম পানি ও সাবান দিয়ে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড হাত-মুখ ধোয়া, অকারণে নাকে মুখে হাত না দেওয়া, বাইরে বের হলে মাস্ক ব্যবহার কর‌তে হ‌বে। তাছাড়া আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলতে হ‌বে।
প্র‌য়োজন ছারা কেউ ঘর থে‌কে বের হ‌বেন না।
নিয়‌মিত yoga করতে হ‌বে।
তাছাড়া শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে স্বাস্থ্যকর খাবার এবং ব্যায়াম করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
WHO এবং স্বাস্থ্য অ‌ধিদপ্ত‌রের নিয়ম মানা আবশ্যক। যাদের এন্টিব‌ডি স‌ক্রিয় কর‌তে চান তারা আমার ক‌ম্বি‌নেশনটা সেবন কর‌তে পা‌রেন।
সম্পূর্ন বিনামূ‌ল্যে আমার ক‌ম্বি‌নেশন‌টি দেয়া হ‌বে ।
‌মে‌ডি‌সি‌নের জন্য যোগা‌যো‌গ

ডাঃএসকে দাস
এমএস‌সি,‌ডিএইচএমএস(ঢাকা)
বাসাঃ দর্শনা পুরাতন বাজার,দর্শনা,চুয়াডাঙ্গা
‌বিঃ দ্রঃ আমার এ ক‌ম্বি‌নেশন মে‌ডি‌সিন‌টি আপনার এ‌ন্টিব‌ডি‌কে স‌ক্রিয় কর‌বে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লোহাগাড়ায় কোচিং সেন্টারকে ১ লাখ টাকা জরিমানা

ডেস্ক,১৯ মার্চঃ
চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার বটতলী স্কুল রোড়ে অবস্থিত একটি কোচিং সেন্টারে অভিযান চালিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। বুধবার (১৮ মার্চ) বিকেলে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌছিফ আহমেদ।

এসময় ওই কোচিং সেন্টার থেকে ৩ শিক্ষককে আটক এবং এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: তৌছিফ আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধের নির্দেশ থাকলেও তা অমান্য করে কোচিং সেন্টার চালু রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

তাই গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কোচিং সেন্টারে অভিযান চালিয়ে হাতেনাতে তিন শিক্ষককে আটক করে পেনালকোড ১৮৬০ এর ২৬৯ ধারা অনুযায়ী ১ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

তিনি আরও বলেন, যে সব কোচিং সেন্টার সরকারী নির্দেশনা অমান্য করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঢাবির শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ,

ঢাবি হতে,১৯ মার্চঃ
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় আবাসিক হলগুলো খালি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিন্ডিকেট৷

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সিন্ডিকেটের এক জরুরি সভা থেকে আগামীকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়া করোনা–পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের ছুটি তিন দিন বাড়ানো হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের সদস্য ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রথম আলোকে সিন্ডিকেট সভার এসব সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে আজ দুপুর ১২টার দিকে এই সভা বসে।

এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ১৬ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ১৮ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল। সিন্ডিকেট সভায় এই ছুটি তিন দিন বাড়িয়ে ৩১ মার্চ করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হল প্রাধ্যক্ষদের বিষয়টি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া করোনার প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয়গুলোর (উপাচার্য, সহ-উপাচার্য কার্যালয়) কার্যক্রম সীমিত রাখা এবং অন্য সব কার্যালয় বন্ধ রাখতে বলেছে সিন্ডিকেট।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়লে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার তথ্য সমন্বয় করতে সিন্ডিকেট সভা থেকে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘করোনা রেসপন্স কমিটি’। এই কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের ডিন শাহরিয়ার নবীকে। সদস্যসচিব করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রের প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা সারওয়ার জাহানকে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

খুলনায় নির্দেশ অমান্য করে কোচিং চালানোয় জরিমানা

খুলনা প্রতিনিধি,১৯ মার্চঃ
দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। তবে সরকারি সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে খুলনায় কিছু প্রতিষ্ঠানে চলছে পাঠদান, খোলা রয়েছে কোচিং সেন্টারও।

এমন খবর পেয়ে মহানগরীর সাউথ সেন্ট্রাল রোড, আহসান আহমেদ রোড, পিটিআই মোড়, বয়রা সহ কয়েকটি স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছে কর্তৃপক্ষ। বুধবার (১৮ মার্চ) বিকেলে অভিযানে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে খুলনার কিছু কোচিং সেন্টার খোলা পাওয়া যায়।

এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমান ও মো. রাশেদুল ইসলাম।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মিজানুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের নির্দেশনা অনুযায়ী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এসময় সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ও নিবন্ধন না থাকায় শহরের সপ্তর্ষী বিদ্যাপীঠ ও ইন্টার এইড কোচিংকে আর্থিক দণ্ড দেওয়া হয়।

পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত কোচিং খোলা রাখবে না এই শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। অভিযানে জেলার আনসার ব্যাটালিয়ন সদস্যরা অংশ নেয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনার ছুটিতে স্কুলে পিকনিক, প্রধান শিক্ষক আটক

ডেস্ক,১৯ মার্চঃ
করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বার্ষিক ভোজনের আয়োজন করায় প্রধান শিক্ষক নিরাঞ্জন প্রামাণিককে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) দুপুর ১টায় শিরোইল কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ে অভিযান চালিয়ে সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (ট্রেজারি শাখা) মো. আব্দুল মালেক তাকে আটক করেন। এসময় বার্ষিক ভোজন বন্ধ করে স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বার্ষিক ভোজন উপলক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির মাঠে চান্দুয়া দিয়ে ঘেরা হয়েছে। এছাড়া স্কুলের ভেতরে চলছে রান্নার কাজ। শিক্ষার্থীরা মাঠে হই হুল্লর করছে।

শিমলা নামের এক শিক্ষার্থী জানায়, ‘ভর্তির সময় বার্ষিক ভোজনের জন্য তাদের থেকে সাড়ে ৩০০ করে চাঁদা নেয়া হয়েছে। তার অংশ হিসেবে এই আয়োজন।’

করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ, তার পরেও কেন স্কুলে এসেছ? এমন প্রশ্নের উত্তরে কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, ‘ক্লাসে স্যাররা (শিক্ষক) বলেছে পিকনিকে (বার্ষিক ভোজন) আসতে। তাই আমরা এসেছি।’

সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট (ট্রেজারী শাখা) মো. আব্দুল মালেক বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক নিরাঞ্জন প্রামাণিককে ডিসি অফিসে আনা হয়েছে। বিষয়টি দেখা হচ্ছে।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঢাকা মেডিকেলের চার চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টিনে

প্রথম আলো ডেস্কঃ
করোনাভাইরাস সতর্কতায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। আজ বুধবার ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সকালে গাজীপুরে কোয়ারেন্টিনে থাকা একজনের নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হওয়ার তথ্য জানানো হয়েছে। গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম ও গাজীপুরের সিভিল সার্জন মো. খায়রুজ্জামান ইতালিফেরত একজনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তাঁরা জানান, গাজীপুরের কোয়ারেন্টিন থেকে ঢাকার উত্তরায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে আটজনকে পাঠানো হয়। তাঁদের সবার শরীরে জ্বর ছিল। তাঁদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর একজনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) গতকাল মঙ্গলবার জানায়, দেশে মোট ১০ জন কোভিড–১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে।

গাজীপুরে আক্রান্ত ব্যক্তিকে নিয়ে এই সংখ্যা দাঁড়াল ১১ জনে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনায় বাংলাদেশে প্রথম মৃত্যু: আইইডিসিআর

ডেস্কঃ
বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তি মারা গেছেন। এই প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে কোনো ব্যক্তির মৃত্যু হলো। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা আজ বুধবার নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানিয়েছেন।

বিস্তারিত আসছে…

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রতি গণশিক্ষা সচিবের ‘আকুতি’

মোঃ আকরাম আল হোসেন,১৭ মার্চ:

বাংলাদেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক কোটি চল্লিশ লক্ষ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকমন্ডলিকে নিরাপদ রাখার জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। একই সাথে বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনও ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এই সময় সকল শিক্ষকমন্ডলি এবং শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করতে পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা যাতে এই বৈশ্বিক দুর্যোগময় সময়ে বাড়ির বাহিরে বের না হয় সেটি নিশ্চিত করার জন্য স্ব স্ব বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সহকারি শিক্ষক, এস, এম, সির সভাপতি, সদস্যবৃন্দকে শিক্ষার্থীদের মা-বাবাকে বিশেষভাবে সচেতন করা ও অনুরোধ করার জন্য আহবান করছি।

নিজে নিরাপদ থাকুন এবং প্রিয় শিক্ষার্থীদের নিরাপদ রাখার ব্যাপারে যত্নবান হউন। মায়েদের ফোন নম্বর থাকলে এই সময়ে ফোনে তাদেরকে সচেতন করুন। ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন।

মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নিকট প্রার্থনা করুন তিনি যেন আমাদের এই চরম বিপদ থেকে রক্ষা করেন। সবাই বেশি বেশি তওবা পড়ি যাতে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আমাদের ক্ষমা করে দেন। আমার এই বার্তাটি সকল সহকর্মীর নিকট পৌছে দেবেন।

আপনাদেরই

মোঃ আকরাম আল হোসেন

সচিব
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চালু হলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ‘সমন্বিত নিয়ন্ত্রণ কক্ষ’

ডেস্ক,১৭ মার্চ:

দেশে নতুন করে ২ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটার খবরের মধ্যেই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নতুন ভবনে কভিড-১৯ সমন্বিত নিয়ন্ত্রণ কক্ষের যাত্রা শুরু হল।

মঙ্গলবার দুপুরে নিয়ন্ত্রণ কক্ষে উপস্থিত হয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, যারা সংক্রামক ব্যাধি আইন ভায়োলেট করবে, দেশের মানুষকে বিপদে ফেলবে, আরো অনেককে সংক্রমিত করবে, তাদের জরিমানা করা হবে। তা আদায়ও করা হচ্ছে। যদি তারা বেশি অপরাধ করে, তাদের প্রয়োজনে জেলে দেওয়া হবে। আইনে সে ধরনের কথা বলা হয়েছে।

এ নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে সারা দেশের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে। হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন ঠিকঠাক মানা হচ্ছে কি না, সারা দেশে আইসোলেশনে থাকা রোগীদের সবশেষ অবস্থা কেমন- সব কিছু সেখান থেকে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

বিশ্বে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ইতোমধ্যে ১ লাখ ৮০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে, মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজারের বেশি মানুষের।

বাংলাদেশে মঙ্গলবার আরও দুজনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ার কথা জানিয়েছে আইইডিসিআর, তাতে আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দশ জনে।

সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইনে সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণে সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা দিলে বা নির্দেশনা না মানলে সর্বোচ্চ তিন মাসের জেল ও ৫০ হাজার টাকার শাস্তির বিধান রয়েছে। আর মিথ্যা বা ভুল তথ্য দিলে সর্বোচ্চ ২ মাসের কারাদণ্ড বা ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড হতে পারে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিকে রোজার ছুটি কমছে

ডেস্ক,১৭ মার্চ:

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১৮ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে গ্রীষ্মের ছুটি ও রোজার ছুটি কমে আসতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গনশিক্ষামন্ত্রী জাকির হোসেন ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সোমবার এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ বছরের অন্যান্য ছুটির ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, ‘গ্রীষ্মের ছুটি, রোজার ছুটির সঙ্গে প্রয়োজনে এ (করোনা) ছুটিকে সমন্বয় করা হবে। তখন ছুটি কমে আসতে পারে।’

এছাড়া তিনি আরও বলেছেন, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। করোনার সংক্রমণ যাতে না ছড়ায়, তাই এ সিদ্ধান্ত। কিন্তু শিক্ষার্থীরা যদি ঘরের বাইরে যায়, তাহলে এ সিদ্ধান্ত কাজে আসবে না। তাই তাদের ঘরের মধ্যে রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

মন্ত্রী আরও জানান, ৩১ মার্চ পর্যন্ত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিতব্য সব পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। এছাড় ১৮ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। একইসঙ্গে বন্ধ থাকবে দেশের সকল কোচিং সেন্টার।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শরীরের ভিতর কী ভাবে ঢোকে করোনা? কোন পথে চালায় আক্রমণ?

ডেস্কঃ
বিশ্ব জুড়েই ত্রাস সৃষ্টি করেছে করোনা গ্রুপের কোভিড-১৯ ভাইরাস। রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এই ভাইরাস রোধে নানা সতর্কতামূলক প্রচার চলছে। তার পরেও এই ভাইরাস সম্পর্কে ও ভাইরাস থেকে তৈরি হওয়া অসুখ নিয়ে এখনও নানা বিভ্রান্তি রয়েছে। এই ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে কী কী কার্যকলাপ ঘটায়, কোন কোন অংশে থাবা বসায় তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা।

তবে শরীরের ভিতর এর কারিকুরি কী, তা বোঝার আগে শরীরে এই ভাইরাস কী ভাবে প্রবেশ করে তা জানা দরকার। ন্যাশভিল-এর ভ্যান্ডারবিল্ট বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ উইলিয়াম শ্যাফনারের মতে, রোগাক্রান্ত মানুষের হাঁচি-কাশির ড্রপলেট বায়ুতে ঘুরে বেড়ায়। রোগীর কাছাকাছি থাকা সুস্থ মানুষের নাক, মুখ ও চোখের মাধ্যমে তার শরীরে প্রবেশ করে এই ড্রপলেট। শরীরে এসেই ভাইরাসের অণুগুলো দ্রুত নাসাপথের পিছন দিকে বা গলার ভিতরের দিকে মিউকাস মেমব্রেনের ভিতরে গিয়ে সেখানকার কোষে হানা দেয়। সেই কোষই তখন হয়ে যায় গ্রাহক বা রিসেপ্টর কোষ।

করোনাভাইরাসের দেহতল থেকে উঠে আসা বা স্পাইকের আকারে অবস্থান করা প্রোটিনকণাগুলো কোষের আস্তরণকে আঁকড়ে ধরে ভাইরাসের জিনগত উপাদানকে সুস্থ মানুষটির দেহকোষে প্রবেশ করতে সাহায্য করে। ভাইরাসের এই জিনগত উপাদানগুলি কোষের বিপাক ক্ষমতার উপর একপ্রকার দখল নিয়ে কোষকে নির্দেশ দেয় ‘ভুলভাল’ কাজ করার জন্য। ‘ভুলভাল’ কাজ মানে? কোষকে নিয়ন্ত্রণ করেই সে তাকে দিয়ে সেই ভাইরাসের বৃদ্ধি ও বেড়ে ওঠায় সাহায্য করতে কোষকে বাধ্য করে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিকে সকল ধরনের প্রশিক্ষন স্থগিত

ডেস্ক,১৬ মার্চঃ
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলসহ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিসভা। পাশাপাশি প্রাথমিকে সকল ধরনের প্রশিক্ষন স্থগিত করা হয়েছে।
১৭ মার্চ থেকে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। আজ ১৬ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পরে দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক ব্রিফিংয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান। তিনি বলেন, প্রাক-প্রাথমিক থেকে উচ্চ শিক্ষা এবং কোচিং সেন্টারগুলোও ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, স্কুল-কলেজ বন্ধ মানে পড়াশোনা বন্ধ নয়, বাইরে ঘোরাঘুরি নয়। তিনি শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাড়ীতে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter