Home » টপ খবর (page 3)

টপ খবর

পবিত্র ঈদুল আজহার সম্ভাব্য তারিখ ৩১ জুলাই

ডেস্ক | ২৮ জুন, ২০২০

ঈদুল আজহা, মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুই ঈদের মধ্যে একটি। যেহেতু আরবি মাস চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল, তাই চাঁদ দেখা ছাড়া নিশ্চিত করে ঈদের তারিখ বলা যায় না। তবে এবারে ঈদুল আজহা ৩১ জুলাই অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আরবি জিলহজ মাসের ১০ তারিখ পবিত্র ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হয়, তবে তার পরের দুই দিন অর্থাৎ ১১ ও ১২ জিলহজেও পশু কোরবানি করার বিধান রয়েছে। মহান আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টি বিধানের লক্ষ্যে পশু কোরবানি করার ঘটনাটির প্রকৃত তাৎপর্য হলো আল্লাহর সন্তুষ্টি কামনা করে সমস্ত লোভ-লালসা, হিংসা-বিদ্বেষ, ক্রোধ, স্বার্থপরতা তথা ভেতরের পশুত্ব ত্যাগের মধ্য দিয়ে আত্মশুদ্ধি অর্জনের প্রয়াস।

এই ঈদ ত্যাগের মহিমায় চিরভাস্বর। কোরবানির ঈদ নামে পরিচিত এই উৎসব শুরুর বেশ আগে থেকেই একধরনের আনন্দের পরিবেশ সৃষ্টি হয়। কোরবানির পশু কেনাবেচার জন্য সারা দেশে জমে ওঠে পশুর হাট। পশু কেনার পর তার যত্ন-পরিচর্যা চলে, এবং সবাই মহান আল্লাহর উদ্দেশে তা কোরবানি করার জন্য অপেক্ষায় থাকে। তবে এবারে করোনা মহামারির জন্য ভিন্ন পরিস্থিতিতে আসছে ঈদুল আজহা।

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি আগামী ২১ জুলাই ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে বৈঠক বসবে। সেদিন (২১ জুলাই) সন্ধ্যায় যদি বাংলাদেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যায় তবে ২২ জুলাই পবিত্র জিলহজ মাস গণনা শুরু হবে। ৩১ জুলাই শুক্রবার পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। এছাড়া টাইমঅ্যান্ডডেট ডটকম-এ ঈদের এই তারিখরটির কথা বলা হয়েছে।

আর যদি ২১ জুলাই সন্ধ্যায় পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা না যায় তবে ২৩ জুলাই পবিত্র জিলহজ মাস শুরু হবে। আর ঈদুল আজহা পালিত হবে একদিন পর অর্থাৎ ১ আগস্ট।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বকেয়া বেতন-বোনাসের জিও জারি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৬ জুন, ২০২০
নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া ৪ হাজার ৯২০ জন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতা ছাড়ের সরকারি আদেশ (জিও) জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। এদের মধ্যে স্কুলের ৩ হাজার ১৯৯ জন এবং কলেজের ১ হাজার ৭২১ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, খুব তাড়াতাড়ি শিক্ষকদের বকেয়াসহ বেতন ভাতার চেক ছাড় হবে। বকেয়া দুটি ঈদ বোনাস, বৈশাখী ভাতা ও গত বছরের জুলাই থেকে চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত বেতন একসঙ্গে পাচ্ছেন নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। গত ১৮ জুন এমপিও কমিটির বিশেষ সভায় তাদের এমপিওভুক্ত করা হয়। তারা দ্বিতীয় দফায় অনলাইনে এমপিওভুক্তির আবেদন করেছিলেন।

জানা যায়, স্কুল-কলেজের শিক্ষক কর্মচারীদের বকেয়া বেতন ও বোনাস দেয়ার জিও জারি হয়েছে। শিক্ষক-কর্মচারীরা ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত বকেয়া বেতন পাবেন। আর গত আগস্টে অনুষ্ঠিত ঈদুল আযহা আর গত ২৫ মে অনুষ্ঠিত ঈদুল ফিতরের ঈদ বোনাস পাচ্ছেন শিক্ষকরা। এছাড়া গত এপ্রিল মাসে দেয়া বৈশাখী ভাতা টাকা বাবদ পাবেন তারা। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে জিওর কপি গেলেই চেক ব্যাংকে পাঠনো হবে।

শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র আরও জানায়, খুব শিগগিরই নতুন এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন বোনাসের চেক ছাড় করা হবে।

গত ২৯ এপ্রিল নতুন এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত ১ হাজার ৬৫১টি প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্তভাবে ১ হাজার ৬৩৩টি তালিকা প্রকাশ করা হয়। এমপিওভুক্তির জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৯৯১টি মাধ্যমিক স্কুল, ৪৩০টি নিম্ন মাধ্যমিক স্কুল, ৬৮টি স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ৯২টি উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ এবং ৫২টি ডিগ্রি কলেজ রয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বুয়েটের নতুন উপাচার্য সত্য প্রসাদ মজুমদার

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ জুন, ২০২০
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদারকে প্রতিষ্ঠানটির উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

বুয়েট অধ্যাদেশ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি এই অধ্যাপককে চার বছরের জন্য উপাচার্য নিয়োগ দিয়েছেন জানিয়ে বৃহস্পতিবার আদেশ জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

উপাচার্য হিসেবে তিনি বর্তমান পদের সমপরিমান বেতন-ভাতা এবং বিধি অনুযায়ী পদ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সুবিধা ভোগ করবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে তাকে সার্বক্ষণিক ক্যাম্পাসে অবস্থান করতে হবে।

রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে যে কোনো সময় এই নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন বলেও আদেশে বলা হয়েছে।

২০১৬ সালের ২২ জুন বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সাইফুল ইসলামকে চার বছরের জন্য প্রতিষ্ঠানটির উপাচার্য নিয়োগ দিয়েছিল সরকার।

এই অধ্যাপকের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ওই পদে অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদারকে নিয়োগ দেওয়া হল।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঢাকাসহ ৯ জেলায় নতুন ডিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৫ জুন:

ঢাকাসহ দেশের নয়টি জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এর মধ্যে বর্তমান দুজন ডিসিকে এক জেলা থেকে আরেক জেলায় বদলি করা হয়েছে। বাকিগুলোতে প্রশাসন ক্যাডারের উপসচিব পর্যায়ের সাতজন কর্মকর্তাকে নতুন করে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছে।

ঢাকার জেলা প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম। এছাড়া, মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনিকে টাঙ্গাইলে, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. মহিদুল ইসলাম চৌধুরীকে মেহেরপুরে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মীর নাহিদ আহসানকে মৌলভীবাজারে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. তমিজুল ইসলাম খানকে যাশোরে, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. খোরশেদ আলম খানকে নোয়াখালীতে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপসচিব আব্দুল জলিলকে রাজশাহীতে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক মো. জিয়াউল হককে বগুড়ায়, বিসিএস প্রশাসন অ্যাকাডেমির উপপরিচালক ড. রহিমা খাতুনকে মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মাসে ২ বার সব কলেজের অনলাইন ক্লাসের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ জুন, ২০২০

দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে গত ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং কোচিং বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় সংসদ টিভিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলছে। গত এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সব কলেজকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্নাতক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। কলেজগুলোর অনলাইন ক্লাসের তথ্য চেয়েছে শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রতি মাসের ১ তারিখ ও ১৬ তারিখ দুইবার কলেজের অন্যায় ক্লাসের তথ্য অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে আঞ্চলিক পরিচালকদের।

বুধবার (২৪ জুন) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ-সংক্রান্ত চিঠি আঞ্চলিক পরিচালকদের কাছে পাঠানো হয়।

অনলাইনে ক্লাসের তথ্য পাঠাতে নির্ধারিত দুটি ছক পাঠানো হয়েছে আঞ্চলিক পরিচালকদের কাছে। এগুলোর একটিতে প্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং অপরটিতে পরিচালক তথ্য পূরণ করবেন।

ছকে কোন কোন পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস নেয়া হচ্ছে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। আর ক্লাসের রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে কিনা সে তথ্য দিতে হবে। এছাড়া অনলাইনে ক্লাস শুরুর তারিখ, বিভাগভিত্তিক ক্লাসের সংখ্যা, অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী সংখ্যা ও শতকরা হার, অনলাইন ক্লাস পরিচালনার চ্যালেঞ্জগুলো এবং তার সমাধানের উপায় উল্লেখ করতে হবে ছকে। তথ্য পূরণ করার ছক প্রতি মাসের ১ ও ১৬ তারিখ ইমেইলে অধিদপ্তরে পাঠাতে হবে।

সরকারি কলেজগুলো অনলাইন ক্লাসের তথ্য ddgovtcollege1@gmail.com এবং বেসরকারি ও সদ্য সরকারি কত কলেজগুলোর অনলাইন ক্লাসের তথ্য ahowlader525@gmail.com ঠিকানায় পাঠাতে বলা হয়েছে আঞ্চলিক পরিচালকদের।

গত এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সব কলেজকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্নাতক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সে নির্দেশনা মানেনি অনেক কলেজ। তাই সব কলেজের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস করা নিশ্চিত করতে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে বলে সম্প্রতি জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

অধিদপ্তর বলছে, নির্দেশনা দেয়ার পরেও অনলাইনে ক্লাস শুরু না করা প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন বিরোধী। তাই সব কলেজকে আবারও অনলাইনে ক্লাস নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। আর ক্লাসগুলো নির্ধারিত জিমেইল আইডিতে আপলোড করতে বলা হয়েছে। নির্বাচিত ক্লাসগুলো শিক্ষা অধিদপ্তরের ইউটিউব চ্যানেলে প্রচারের করা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষকদের শূন্যপদের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ জুন, ২০২০

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য চেয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ৩০ জুনের মধ্যে যেসব শিক্ষক পদ শূন্য হবে তার তথ্য সংগ্রহ করে আগামী ২ জুলাইয়ের মধ্যে ইমেইল অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ-সংক্রান্ত চিঠি সব জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়। একই সাথে প্রধান শিক্ষক এবং সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য পাঠাতে দুইটি পৃথক পাঠানো হয়েছে শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

জানা গেছে, প্রধান শিক্ষকদের শূন্যপদের তথ্য দেয়ার ছকে উপজেলার নাম উল্লেখ করে অনুমোদিত পদের সংখ্যা, ৬৫ শতাংশ পদোন্নতি যোগ্য পদের সংখ্যা, পদোন্নতি প্রাপ্ত শিক্ষকদের সংখ্যা, চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত শিক্ষকদের সংখ্যা, ৩৫ শতাংশ হিসেবে সরাসরি নিয়োগ যোগ্য পদের সংখ্য ও প্রধান শিক্ষকদের মুখ শূন্য পদের সংখ্যা মন্তব্যসহ উল্লেখ করে অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে।

অপরদিকে সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য দেয়ার ছকে উপজেলার নাম উল্লেখ করে সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের সংখ্যা, চলতি দায়িত্ব প্রদানের জন্য শূন্য পদের সংখ্যা এবং মোট শূন্য পদের সংখ্যা মন্তব্যসহ পূরণ করে অধিদপ্তরের পাঠাতে বলা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

খুলনায় সুন্দরবন অনলাইন স্কুলের উদ্বোধন।।

লিপিকা পাত্র,খুলনা প্রতিনিধি:
করোনা ভাইরাস সক্রমনকালে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে গতকাল ২৪/০৬/২০২০ তারিখ বুধবার দুপুর সাড়ে বারোটায় খুলনায় সুন্দরবন অনলাইন স্কুলের উদ্বোধন করা হয়।

জুম এ‍্যাপের মাধ্যমে অনলাইনে খুলনা জেলার সুযোগ‍্য জেলা প্রশাসক জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন সুন্দরবন অনলাইন স্কুলের উদ্বোধন করেন।

তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এই অনলাইন স্কুলটি বিশেষ ভূমিকা রাখবে। তিনি স্কুলটি পরিচালনার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

সরকারের এটু আইতে (একসেস টু ইনফরমেশ ) শিক্ষা নিয়ে কাজ করা খুলনা জেলার চব্বিশ জন এ‍্যাম্বাসেডর শিক্ষকদের উদ‍্যোগে এ স্কুলটি চালু হচ্ছে। পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত আপাতত সপ্তাহে চারদিন দুটি করে ক্লাস নেওয়া হবে। ভবিষ্যতে এই সময়সীমা আরো বর্ধিত করা হবে।

অন‍্যান‍্যদের মধ্যে যুক্ত ছিলেন এটুআইএর প্রোগ্রাম কোঅর্ডিনেটর মোঃ কবির হোসেন,খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ‍্য অফিসার ম. জাভেদ এ‍্যাম্বাসেডরা। অনুষ্ঠানে এ‍্যাম্বসেডরদের পক্ষে দিক নির্দেশনা মূলক বক্তব্য দেন মোঃ সারাফুল ইসলাম এবং লিপিকা পাত্র।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সময়মতো তথ্য না পাওয়ায় সমাপনী পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২২ জুন, ২০২০
ডিজিটাল পদ্ধতিতে পাঠদানকে আরও কার্যকর করতে প্রাথমিকের সব শিক্ষার্থীর তথ্য চেয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। একই সাথে শিক্ষক ও অভিভাবকদের তথ্যও চাওয়া হয়েছিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কাছে। গত ২০ জুনের মধ্যে এসব তথ্য পাঠাতে বলা হলেও এখনো তা পায়নি গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। তাই, অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের তথ্য পাঠাতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে তাগিদ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় বলছে তথ্য না পাওয়ায় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা এবং অন্যান্য শ্রেণির সিলেবাস এবং মূল্যায়ন পদ্ধতির পরবর্তী কার্যক্রম নেয়া যাচ্ছে না।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিশেষ অনুদানের টাকা পেলেন ৬ সহস্রাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২১ জুন, ২০২০

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের বিশেষ অনুদানখাতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ৪ কোটি টাকা দিয়েছে সরকার। প্রায় ৬ হাজার শিক্ষার্থী, ৪০০জন শিক্ষক এবং ২৪০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এ টাকা পাবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়।

জানা গেছে, ৫ হাজার ৯৯১ জন শিক্ষার্থীকে এ অনুদানের টাকা দেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রত্যেকে ৫ হাজার করে এবং আলিম, কামিল, ফাযিল ও দিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের প্রত্যেককে ৬ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। এসব শিক্ষার্থীদের ৩ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া ২৪০টি মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেকটিকে ২৫ হাজার করে ৬০ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে এ খাত থেকে। আর ৪০০ জন শিক্ষককে ৪০ লাখ টাকা দেয় হয়েছে বিশেষ অনুদান বাবদ। তারা প্রত্যেকে ১০ হাজার করে টাকা পাবেন।

জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে এ টাকা দেয়া হবে। এ টাকা বিতরণের আগে অবশ্যই শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং প্রতিষ্ঠানের তথ্য যাচাই করে দেখতে বলা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক ও ছাত্রবৃন্দের জন্য বিশেষ অনুদান’ খাতে বরাদ্দ করা অর্থ থেকে এ টাকা দেয়া হবে।

কোন প্রতিষ্ঠান বা শিক্ষক-শিক্ষার্থীর নাম একাধিকবার থাকলে জেলা প্রশাসকরা ছাত্র-ছাত্রী নির্বাচন করে মঞ্জুরির টাকা দিতে পারবেন।

তালিকা-১
তালিকা দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

অলস পড়ে আছে প্রাথমিক উপবৃত্তির ১০০ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২০ জুন, ২০২০

প্রাথমিক স্তরের শিশুদের জন্য উপবৃত্তির টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিতরণের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের চরম অদক্ষতা ও অব্যবস্থাপনায় সরকারের ১০০ কোটিরও বেশি পরিমাণ টাকা অলসভাবে পড়ে আছে কয়েকবছর ধরে। শুধু শিওর ক্যাশই না মাঠ পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তারাও এর জন্য অনেকাংশে দায়ী। কোনো প্রতিযোগীতা ছাড়া শুধু তদবির করে ১ কোটি ৩০ লাখ প্রাথমিক শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা বিতরণের দায়িত্ব পেয়ে আসছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান শিওরক্যাশ। রুপালী ব্যাংকের সাথে চুক্তি সই করে তারা রুপালী ব্যাংকের শিওর ক্যাশ হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন।

জানা যায়, প্রকৃত অভিভাবকের নামে টাকা বরাদ্দ করা হয়নি। বেশ কয়েক বছর ধরে জমে জমে ১০০ কোটি টাকার বেশি পরিমাণ অর্থ ভুতুরে অভিভাবকদের ওইসব অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। এই অভিভাবকরা প্রকৃত সুবিধাভোগী না এটা সবাই জানলেও চুপচাপ রয়েছেন। উপবৃত্তির সুবিধাভোগী অভিভাবকদের তালিকা মাঠ পর্যায়ে উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা তৈরি করে থাকেন। সহায়তা করে শিওর ক্যাশ। পড়ে থাকা এই বিপুল অর্থ আগামী ২৫ জুনের মধ্যে অভিভাবকরা না তুলে নিলে তা সরকারি কোষাগারে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন ‘প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্পে’র (তৃতীয় পর্যায়) আওতায় সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ূয়া এক কোটি ৩০ লাখ শিশুকে নিয়মিত উপবৃত্তি দেওয়া হচ্ছে। এক কোটি ২১ লাখ পরিবার এই সুবিধা পাচ্ছে। প্রতি তিন মাসে এক কিস্তি হিসেবে বছরে মোট চার কিস্তিতে উপবৃত্তির অর্থ সংশ্নিষ্ট শিক্ষার্থীর অভিভাবকের মুঠোফোনে শিওর ক্যাশের মাধ্যমে পাঠানো হয়।

এ অবস্থায় ‘প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্পে’র পরিচালক অতিরিক্ত সচিব মো. ইউসুফ আলী ১৬ জুন সব উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে কড়া ভাষায় একটি চিঠি লিখেছেন। এতে তিনি বলেন, ‘স্বল্প সংখ্যক অভিভাবকের মোবাইল অ্যাকাউন্টে বিভিন্ন কিস্তিতে উপবৃত্তির অর্থ পাঠানো হলেও তা অলসভাবে ফেলে রাখা হয়েছে। অর্থাৎ এসব অ্যাকাউন্ট থেকে কোনো অর্থ তোলা হচ্ছে না। উল্লিখিত অ্যাকাউন্টগুলো প্রকৃত সুবিধাভোগী অভিভাবকদের নয় বলে প্রতীয়মান। আগামী ২৫ জুনের মধ্যে উত্তোলনের প্রয়োজনীয় নির্দেশ প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হলো। উল্লিখিত তারিখের পর অনুত্তোলিত অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা করা হবে। এরপর অভিভাবক কর্তৃক অনুত্তোলিত অর্থের আর কোনো দাবিনামা গ্রহণ করা হবে না।’

প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, শুধু গত বছরের জুন পর্যন্ত অনুত্তোলিত অর্থ ৫৭ কোটি টাকা। এ বছরের জুন পর্যন্ত মিলিয়ে তা ১০০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। তিন থেকে চার বছর পর্যন্ত কেউ কেউ উপবৃত্তির টাকা তোলেননি। তাই তারা আসলেই প্রাথমিকের অভিভাবক কিনা, তা নিয়ে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলেন, প্রকৃত অভিভাবকরাই শুধু উপবৃত্তির টাকা পাবেন। যদি তালিকায় সুবিধাভোগীর বাইরে কেউ থেকে থাকে, তার দায় সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের নিতে হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

‘নির্দেশনার পরেও অনলাইনে ক্লাস শুরু না করা প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অমান্য করার শামিল’

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৯ জুন:
দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে গত ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং কোচিং বন্ধ রয়েছে। এ অবস্থায় সংসদ টিভিতে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলছে। গত এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সব কলেজকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্নাতক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। কিন্তু সে নির্দেশনা মানেনি অনেক কলেজ। তাই সব কলেজের শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস করা নিশ্চিত করতে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

অধিদপ্তর বলছে, নির্দেশনা দেয়ার পরেও অনলাইনে ক্লাস শুরু না করা প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন বিরোধী। তাই সব কলেজকে আবারও অনলাইনে ক্লাস নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। আর ক্লাসগুলো নির্ধারিত জিমেইল আইডিতে আপলোড করতে বলা হয়েছে। নির্বাচিত ক্লাসগুলো শিক্ষা অধিদপ্তরের ইউটিউব চ্যানেলে প্রচারের করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এসব তথ্য জানিয়ে সব সরকারি কলেজে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে অনলাইনে ক্লাস গ্রহণের জন্য বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু অনেক কলেজ আজও তা অনুসরণ করেনি। যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন বিরোধী। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস নেয়ার উদ্যোগী ভূমিকা গ্রহণ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। ফলে শিক্ষার্থীরা যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেজন্য প্রচলিত কারিকুলাম ও সিলেবাস অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বিষয়ের অনলাইনে ক্লাস গ্রহণের জন্য পুনরায় আহ্বান জানানো হলো।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, অনলাইনে নেয়া ক্লাসগুলো প্রতিষ্ঠান প্রধানরা যচাই বাছাই করে (ddgovcollege1@gmail.com) আইডিতে আপলোড করবেন। আপলোড করা ক্লাসগুলো মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করবে। এতে করে দেশের সকল প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা উপকৃত হবে। প্রতিষ্ঠান প্রধানরা অনলাইনে ক্লাস গ্রহণকারী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের বিভাগীয় প্রধান ও বিভাগের শিক্ষকদের সহযোগিতা করবেন।

অনলাইনে ক্লাস নেয়ার জন্য কয়েকটি নির্দেশনা অনুসরণ করতে বলা হয়েছে কলেজগুলোকে। সেগুলো হলো, কোনো প্রকার ধর্মীয় উস্কানিমূলক, সাম্প্রদায়িক মনোভাবাপন্ন সংলাপ, ছবি বা কনটেন্ট ব্যবহার করা যাবে না। মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা বিরোধী কোনো কর্মকাণ্ড প্রচারণা, উপস্থাপন করা যাবে না। সরকার ও দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বিরোধী কোনো বক্তব্য, সংলাপ, সংলাপ, ছবি, কনটেন্টে ব্যবহার করা যাবে না।

এসব নির্দেশনা অনুসরণ না করা হলে প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং অনলাইনে ক্লাস নেয়া শিক্ষকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও বলা হয়েছে চিঠিতে। একই সাথে আমি বেশ কয়েকটি সরকারি কলেজকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের ২৪টি ক্লাস তৈরি করে আপলোড দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

নতুন স্কুল-কলেজের ৫ হাজার শিক্ষক এমপিওভুক্ত হচ্ছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৮ জুন:

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আরো প্রায় ৫ হাজার শিক্ষক-কর্মচারী এমপিওভুক্ত হয়েছেন।এর মধ্যে স্কুলের ৩ হাজার ১৯৯ জন এবং কলেজ শাখার এক হাজার ৭২১ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আয়োজিত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের এমপিও কমিটির সভায় এসব শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

নতুন এমপিওভুক্ত হওয়া স্কুলের ৩ হাজার ১৯৯ জন শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে বরিশাল অঞ্চলের ৮৬ জন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ২১৮ জন, কুমিল্লা অঞ্চলের ১৪০ জন, ঢাকা অঞ্চলের ৫৫৩ জন, খুলনা ৬৬৮ অঞ্চলের জন, ময়মনসিংহ অঞ্চলের ৬১০ জন, রাজশাহী অঞ্চলের ৩৭৯ জন, রংপুর অঞ্চলের ৩১৩ জন এবং সিলেট অঞ্চলের ৯২ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন।

কলেজ শাখার নতুন এমপিও পাওয়া এক হাজার ৭২১ জন শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে বরিশাল অঞ্চলের ১৪৪ জন, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৭৫ জন, কুমিল্লা অঞ্চলের ২৯ জন, ঢাকা অঞ্চলের ১৯১ জন, খুলনা অঞ্চলের ৪১৫ জন, ময়মনসিংহ অঞ্চলের ১০৫ জন, রাজশাহী অঞ্চলের ৩২০ জন, রংপুর অঞ্চলের ৩৭০ জন এবং সিলেট অঞ্চলের ৭২ জন শিক্ষক-কর্মচারী রয়েছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লালমনিরহাটে নবম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ

মোস্তাফিজুর রহমান, লালমনিরহাট,১৮ জুন:

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মিঠু মিয়া (২০) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গত বুধবার (১৭ জুন) বিকেলে আদিতমারী থানায় ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী (১৬) বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

অভিযুক্ত ধর্ষক মিঠু মিয়া লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের কর্নপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ’র ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের গন্ধমরুয়া সিংগিমারী গ্রামের এক স্কুল ছাত্রীর (১৬) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন মিঠু মিয়া। স্থানীয় মোগলহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনির এ ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে তার সাথে দৈহিক সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করে মিঠু। এতে ব্যর্থ হয়ে মঙ্গলবার (১৬ জুন) দিনগত রাতে কৌশলে স্কুল ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে মুখ খুলে গেলে মেয়েটির আত্নচিৎকারে বাড়ির লোকজন এসে অভিযুক্ত মিঠুকে আটকের চেষ্টা করে। এ সময় মেয়েটির ভাই ভাবিকে মারপিট করে লম্পট মিঠু পালিয়ে যায়।

ঘটনায় বিচার চেয়ে মেয়েটি বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে বুধবার (১৭ জুন) বিকেলে একটি মামলা দায়ের করে। মামলাটি নথিভূক্ত করে থানা পুলিশ।আদিতমারী থানার প‌রিদর্শক (ওসি) সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মিঠুর বিরুদ্ধে মামলা নথিভূক্ত করা হয়েছে। ধর্ষিতার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আজ(১৮ জুন) লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।অভিযুক্ত মিঠুকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ও‌সি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

৫ ডায়েরি উদ্ধার, সুশান্তের মৃত্যু তদন্তে নতুন মোড়

ডেস্ক,১৭ জুন্ : তিনদিন পরেও জট কাটল না বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতের অপমৃত্যুর। ময়নাতদন্ত এবং ভিসেরা রিপোর্ট অনুযায়ী, গলায় ফাঁস দেওয়ায় শ্বাসরোধে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। পাশাপাশি, পোশাগত শত্রুতাও একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না মহারাষ্ট্র প্রশাসন। যেহেতু ছয় মাসে সাতটি ছবি তাঁর হাত থেকে চলে গেছে।

অবসাদ না কাজের অভাব, দুইয়ের সাঁড়াশি চাপেই কি মাত্র ৩৪-এ ফুরিয়ে গেলেন প্রতিভাবান অভিনেতা? উত্তর খুঁজতে সুশান্তের ফ্ল্যাট থেকে পাঁচটি ডায়েরি হেফাজতে নিয়েছে মুম্বই পুলিশ। যা পড়ে জানার চেষ্টা চলছে, শেষ দিকে কতটা কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন ‘কাই পো চে’ অভিনেতা।

সেই সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে তাঁর কল লিস্ট। শেষ ১০ দিন অভিনেতা যাঁদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন তাঁদের তালিকা বানাচ্ছে প্রশাসন। খুব শিগগিরিই জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে ডাকা হবে তাঁদের বলে জানা গেছে। যদিও ইতিমধ্যই পুলিশ রেকর্ড করেছে অভিনেতার শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’র পরিচালক মুকেশ ছাবরা, ঘনিষ্ঠ বন্ধু বিকাশ গুপ্তা এবং বাঙালি প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বয়ান।

আরো পড়ুন: নাসিমকে নিয়ে কটূক্তি, এবার গ্রেপ্তার রাবি শিক্ষক

মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অভিনেতার ভাই এবং পটনার বিজেপি বিধায়ক নীরজ কুমার সিং ইতিমধ্যেই সুশান্তের মৃত্যু আত্মহত্যায় না পেশাগত চাপের বিষয়টি খতিয়ে দেখার আবেদন জানিয়েছেন। সমস্ত সংবাদমাধ্যম এবং নীরজের বক্তব্য পুর্নবিবেচনার নির্দেশ টুইটে দিয়ে বিষয়টিতে মান্যতা দেওয়ার পরেই এই পুলিশি পদক্ষেপ বলে ধারণা সুশান্তের ঘনিষ্ঠ মহলের।

বুধবার অভিনেতার অবসাদের জন্য স্বজনপোষণকে দোষী করে বিহারের মজফফরপুর জেলা আদালতে বলিউডের চার তারকা সালমান খান, করন জোহর, একতা কাপূর, সঞ্জয় লীলা বানশালীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন আইনজীবী সুধীর কুমার ওঝা।

সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওই আইনজীবীর দাবি, সুশান্তের কাছ থেকে শুধু সাতটি ছবি কেড়ে নেওয়া হয়েছিল তাই-ই নয়, তাঁর একাধিক ছবি আজও মুক্তি পায়নি। এই সমস্ত ঘটনার চাপ দিনের দিনের পর দিন নিতে পারেননি মাত্র ৩৪ বছরের অভিনেতা। এই ঘটনাগুলিই তাঁকে আত্মহননের মতো চরম পথ বেছে নিতে বাধ্য করেছে।

একই বিষয় নিতে সম্প্রতি টুইট করেছেন কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপম। তিনিও একই প্রশ্ন তুলেছেন, সুশান্তের মতো প্রতিভার হাত থেকে কী করে সাতটি ছবি চলে যায়! বলিউডের আসল চেহারা কি এতটাই ভয়াবহ? খবর: আনন্দবাজার।



Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

নাসিমকে নিয়ে কটূক্তি, এবার গ্রেপ্তার রাবি শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৭ জুন:

সদ্য প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে ফেসবুকে কটূক্তির অভিযোগে এবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কাজী জাহিদুর রহমান নামের ওই সহকারী অধ্যাপককে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

জানা গেছে, বুধবার (১৭ জুন) দিবাগত রাত ২টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কোয়ার্টারের বাসা খেকে গ্রেপ্তার করা হয় কাজী জাহিদুর রহমানকে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সাইন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের শিক্ষক।

আরো পড়ুন : স্নাতকে বৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের তথ্য পাঠাতে হবে ২১ জুনের মধ্যে

এর আগে রাজশাহীর সাগরপাড়ার বাসিন্দা অ্যাডভোকেট তাপস কুমার সাহা ওইদিন রাতেইমতিহার থানায় অভিযোগটি দায়ের করেন। রাবি শিক্ষককে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মতিহার থানা পুলিশের এএসআই আসাদুজ্জামান।

তিনি জানান, মোহাম্মদ নাসিমকে নিয়ে ফেসবুকেআপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার আইনের ২৫, ২৯ ও ৩১ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

জানা গেছে, কাজী জাহিদুর রহমান নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক। মোহাম্মদ নাসিম অসুস্থ হওয়ার পর তিনি ফেসবুকে নাসিমকে ইঙ্গিত করে স্বাস্থ্যখাত নিয়ে স্ট্যাটাস দেন। এতে স্বাস্থ্যখাতে নানা অনিয়মের কথা উল্লেখ করেন।

মোহাম্মদ নাসিম মারা যাওয়ার পর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) এক শিক্ষককেও একই ধরনের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর জাহিদুর রহমানের ফেসবুক স্ট্যাটাসগুলো সামনে আসে। এরপর তার শাস্তির দাবি জানান ছাত্রলীগের নেতাকর্মী এবং আওয়ামীপন্থী শিক্ষকরা। এর আগে স্ট্যাটাসের জেরে গত ১৬ জুন তাকে নড়াইল জেলা আওয়ামী লীগের পদ থেকেও বহিষ্কার করা হয়।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter