Home » Tag Archives: মহামারি করোনাভাইরাস

Tag Archives: মহামারি করোনাভাইরাস

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলছে ১৮ অক্টোবর

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে র্দীঘদিন বন্ধ থাকার পর আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) হলগুলো খুলে দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে এতথ্য জানা যায়। এর আগে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভা শেষে সিন্ডিকেটের সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস একথা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, হলে ওঠার আগে আবাসিক শিক্ষার্থীদের পরিচয়পত্র, টিকা গ্রহণের সনদ/রেজিস্ট্রেশন কার্ডের ফটোকপি স্ব স্ব হলে জমা দিতে হবে।

উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেনে সভাপতিত্বে সিন্ডিকেট সভাটি হয়। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খোলার ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ইউজিসির নির্দেশনা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের হলসহ সার্বিক অন্য প্রস্তুতি পর্যালোচনা করে হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

একই দিনে মাস্টার্স ও স্নাতক ৪র্থ বর্ষ এবং ২৬ অক্টোবর থেকে অন্যান্য বর্ষের আবাসিক শিক্ষার্থীরা পর্যায়ক্রমে হলে উঠতে পারবেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

২০শে অক্টোবরের পর শুরু হতে পারে ঢাবির ক্লাস

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণে কারণে র্দীঘ বিরতির পর অবশেষে শিক্ষার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্ট্রাল লাইব্রেরি ও সায়েন্স লাইব্রেরি। একইদিন চালু হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হল, বিভাগ এবং ইনস্টিটিউটের লাইব্রেরি ও সেমিনার।

ওদিকে আগামী ৫ই অক্টোবর অনার্স শেষ বর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য খুলছে আবাসিক হলগুলো। আগামী মাসের শেষ সপ্তাহে ক্লাস শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সূত্র।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ এখনো সুস্পষ্ট কোনো দিনক্ষণ জানায়নি। সব শিক্ষার্থী টিকার আওতায় এলেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

যেসব শিক্ষার্থী এখনো টিকার আওতায় আসেনি বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে তাদের টিকা প্রদানের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে, সরকারের অনুমোদন পেলেই শুরু হবে টিকা প্রদান কার্যক্রম। দূর্গাপূজার ছুটি, সাপ্তাহিক ছুটি, ঈদেমিলাদুননবীর ছুটির কারণে ১৯শে অক্টোবরের আগে ক্লাস শুরুর সম্ভাবনা কম। এরপর ক্লাস চালুর ঘোষণা আসতে পারে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সারাবিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়ালো ৪৭ লাখ

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ও উপর্সগ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাবিশ্বে সাড়ে ৬ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এ নিয়ে বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪৭ লাখের বেশি মানুষ মারা গেলেন।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য মতে, রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪৭ লাখ ৪৪ জন। আর এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ২২ কোটি ৮৯ লাখ ৩৫ হাজার ৪১২ জনের। সুস্থ হয়েছেন ২০ কোটি ৫৫ লাখ ২২ হাজার ৩০ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬ হাজার ৭৬৪ জন। শনাক্ত হয়েছে ৪ লাখ ১৬ হাজার ৭৮৪ জনের।

করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ কোটি ২৮ লাখ ৬৬ হাজার ৮০৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৬ লাখ ৯১ হাজার ৫৬২ জন মানুষ মারা গেছেন।

এছাড়া, ভারতে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৩৪ লাখ ৪৭ হাজার ১০ জনের। মারা গেছেন ৪ লাখ ৪৪ হাজার ৮৬৯ জন।

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৭ হাজার ১৮২ জন। এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৪১ হাজার ৩০০ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১৪ লাখ ৯৮ হাজার ৬৫৪ জন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

পর্যায়ক্রমে খুলছে বিশ্ববিদ্যালয়, বাড়ছে নিরাপত্তা

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে র্দীঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর ক্যাম্পাস খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

পর্যায়ক্রমে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়েরও ক্যাম্পাস খুলে দিয়ে সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে জোরেশোরে প্রস্তুতি নিচ্ছে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা ও সংকট তৈরি হওয়ার আশঙ্কা করছে সংশ্লিষ্টরা। সম্ভাব্য এসব সংকট মোকাবিলায় উপাচার্যদের সঙ্গে সম্প্রতি বৈঠক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

উপাচার্যদের সঙ্গে ইউজিসির বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার পর ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসিটিভি) বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ক্যাম্পাসে যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে বিশেষ নিরাপত্তা ও নজরদারি বাড়ানোর বিষয়েও সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার পর সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য কর্তৃপক্ষ ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো (শিক্ষার্থীদের পদচারণা বেশি হয়) সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনবে। তাছাড়া ক্যাম্পাসে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে নিরাপত্তা সংশ্লিষ্টদের কড়া নজরদারি থাকবে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও চলাচলের স্বাধীনতা যাতে বিঘ্ন না হয়, সেদিকেও নজর রাখবে কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, ইউজিসি থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর নজরদারি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পুনরায় চালু হওয়ার পর যেন কোনো ধরনের ‘অরাজক পরিস্থিতি’ তৈরি না হয়, সেজন্য এ চিঠিতে নির্দেশনা দেওয়ার সুপারিশ করা হয়।

একইসঙ্গে সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কোনো ধরনের জঙ্গি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে কি-না, সে ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানোর জন্য ইউজিসিকে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

কৃষকদের পাশে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে থমকে যাওয়া গ্রামীণ অর্থনীতির স্থবিরতা পুনরুজ্জীবিত করার লক্ষ্যে দারিদ্র্য ও অসহায় কৃষকদের পাশে কৃষি উপকরণ নিয়ে দাঁড়াচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা।

রাবির স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নবজাগরণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ‘টেকসই কৃষি প্রকল্প-২০২১’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় পর্যায়ক্রমে তিন জেলার ৭ উপজেলার প্রান্তিক কৃষকদের কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হবে।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) এ কর্মসূচির অংশ হিসেবে ফরিদপুরের বোয়ারমারি ইউনিয়নের পূর্বভাটদী গ্রামের ২০ কৃষকের মাঝে সার বিতরণ করা হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে অভিভাবকদের ভিড় না করতে নির্দেশনা চট্টগ্রাম ডিসির

সম্প্রতি মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ কিছুটা কমার ফলে খুলে দেয়া হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠা। এরই ধারাবাহিকতায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে অভিভাবকদের ভিড় না করতে নির্দেশনা দিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি)।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জেলা প্রশাসন থেকে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

প্রতিষ্ঠানের ভেতর শিক্ষার্থীদের ভিড় এড়ানোর জন্য সব প্রবেশপথ উন্মুক্ত এবং যেসব প্রতিষ্ঠানে একটি প্রবেশপথ রয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠানে একাধিক প্রবেশপথের ব্যবস্থা করতে হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রবেশপথে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মচারীদের নিয়মিত তাপমাত্রা পরিমাপ ও পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে।

প্রতিষ্ঠানের সব ভবন যথাযথভাবে পরিষ্কার রাখতে হবে। কোনো শিক্ষার্থী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক আইসোলেশন ও উপযুক্ত চিকিৎসা নিশ্চিতে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি তিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা ১৩ নভেম্বর

মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় এর আগে দুই দফা ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছিল।

তবে করোনার পরিস্থিতি কিছুটা কমার ফলে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দেশের সরকারি তিন প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির সদস্যসচিব ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মইনুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি হ্রাস পাওয়ায় ভর্তি পরীক্ষার নতুন তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এ ভর্তি পরীক্ষা আগামী ১৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সারাদেশে করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১ জনের মৃত্যু

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ও উপর্সগ নিয়ে সারাদেশে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৭ হাজার ৫৮ জন।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৯০১ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৩৬ হাজার ৩৪১ জন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৮৭৩ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৪ লাখ ৯০ হাজার ৫৪১ জন। এ পর্যন্ত মোট ৯৩ লাখ ৩২ হাজার ৪৬০টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১৬.৪৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে ৫১ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে নারী ১৯ জন এবং পুরুষ ৩২ জন। এ সময়ের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। চট্টগ্রাম বিভাগে ১১ জন মারা গেছেন। রাজশাহীতে ৪, খুলনায় ৫, বরিশালে ৩, সিলেটে ৫ ও ময়মনসিংহে ৩ জন মারা গেছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

অসংখ্য বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর ১২ সেপ্টেম্বর সরকার দেশের সব প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছে।

এদিন সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয় অঙ্গন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হলেও অসংখ্য বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তথা কিন্ডারগার্টেন শিক্ষার্থীশূন্য ছিল। কারণ করোনাভাইরাসের কারণে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের অধিকাংশ অন্যত্র চলে যাওয়া, শিক্ষকদের বেতন দিতে না পারা, বাড়িভাড়া মেটাতে না পারাসহ বেশ কিছু কারণে এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষক-কর্মচারীরা এখন চরম আর্থিক সংকটে দিন কাটাচ্ছেন। বাঁচার জন্য অনেকে অন্য পেশা বেছে নিয়েছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রস্তুত ‘আইসোলেশন রুম’

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে র্দীঘ ১৮ মাস বন্ধের পর স্কুল-কলেজ খুলেছে আজ। এরই ধারাবাহিকতায় শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে ‘আইসোলেশন রুম’ প্রস্তুত করে রেখেছে রাজধানীর উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, স্কুলের নিচতলার একটি রুমের দরজার সামনে লেখা ‘আইসোলেশন রুম’। দরজা খুলেই দেখা যায়, একপাশে একটি বেড রাখা। অন্য পাশে একটি টেবিল ও চেয়ার রাখা, যেখানে বসবেন চিকিৎসক। এছাড়া অসুস্থ হলে আনা-নেওয়ার জন্য রয়েছে হুইলচেয়ার।

বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ জহুরা বেগম বলেন, শিক্ষার্থীদের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। তারপরও কোনো শিক্ষার্থী যদি অসুস্থতাবোধ করে তাদের দ্রুত আইসোলেশনে নেওয়ার ব্যবস্থা হিসেবে আলাদা রুমে বেড স্থাপন করেছি।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা যেন কোনো ধরনের সমস্যায় না পড়ে তার জন্য গেটে প্রবেশ করা থেকে শুরু করে স্কুল থেকে বের হওয়া পর্যন্ত, বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাই তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করবেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আজ শিক্ষার্থীরা ফিরছে প্রিয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে র্দীঘ ১৮ মাস বন্ধ থাকার পর আজ থেকে খুলছে দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শুরু হচ্ছে পাঠদান। আবারও প্রাণচাঞ্চল্যে মুখর হবে স্কুল-কলেজ।

চলতি বছরের শুরুতে এসএসসি ও এইচএসসি এবং সমমানের পরীক্ষা আয়োজনের কথা থাকলেও এখনো তা সম্ভব হয়নি। এছাড়া অন্যান্য পাবলিক পরীক্ষারও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এসব বিষয় বিবেচনা করে আজ থেকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘দেশে করোনার সংক্রমণ দ্রুত কমে যাচ্ছে। জুলাই মাসের তুলনায় সংক্রমণ ৭০ শতাংশ কমেছে। ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হবে। প্রথমদিন চার-পাঁচ ঘণ্টা ক্লাস হবে। পর্যায়ক্রমে এ ক্লাসের সংখ্যা বাড়বে। শ্রেণিকক্ষে পাঠদানকালে শিক্ষার্থী-শিক্ষকসহ সবাইকে মাস্ক পরিধান করতে হবে।’

পরে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই) থেকে আলাদাভাবে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনাসহ বেশকিছু সতর্কতা ও সচেতনতামূলক নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনার কারণে শ্রীলঙ্কায় নারীদের দেরিতে সন্তান নেওয়ার আহ্বান

মহামারি করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে চার মাসে ৪০ জন গর্ভবতী নারীমারা যাওয়ার কারণে নারীদের দেরিতে সন্তান নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে শ্রীলঙ্কার সরকার। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই আহ্বান জানিয়েছে।

গত মে মাসে শ্রীলঙ্কায় প্রথম করোনা আক্রান্ত গর্ভবর্তী নারীর মৃত্যুর তথ্য রেকর্ড করা হয়। মধ্য এপ্রিলে স্থানীয় নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে বিধিনিষেধ শিথিল করার দেশটিতে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ বেড়ে চলছে।

হেলথ প্রমোশন ব্যুরোর পরিচালক চিত্রমালি ডি সিলভা বলেছেন, ‘সাধারণত বছরে ৯০ থেকে ১০০টি মাতৃমৃত্যু হয়ে থাকে। কিন্তু করোনার ৩য় ঢেউ শুরুর পর শুধুমাত্র কোভিডেই ৪১ গর্ভবতী নারীর মৃত্যু হয়েছে।’

সরকারের প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ হর্ষ আতাপাত্তু জানিয়েছেন, তিনি নবদম্পতিসহ যারা সন্তান নেওয়ার চেষ্টা করছেন করোনার এর ঝুঁকির কারণে তাদেরকে অন্তত ১ বছর দেরি করার আহ্বান জানাচ্ছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্কুল খোলার পর মানতে হবে যে ১৬ নির্দেশনা

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে র্দীঘ দেড় বছর বন্ধ থাকার পর আগামী ১২ সেপ্টেম্বর স্কুল-কলেজ খুলতে যাচ্ছে। প্রাথমিক বিদ‌্যালয়গুলো খোলার পর সেসব কীভাবে চলবে, সে বিষয়ে শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) ১৬ দফা নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

নির্দেশনাগুলো হলো-

দৈনিক সমাবেশ বন্ধ থাকবে। শিক্ষার্থীরা শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে নিজেদের আসনে বসে হালকা শারীরিক কসরৎ (পিটি) করবে।

শিক্ষার্থীরা জিগজ্যাগ তথা জেড বিন্যাসে বসবে। শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে একই শ্রেণিকে একাধিক গ্রুপে ভাগ করে একাধিক কক্ষে ও একাধিক শিক্ষকের সহায়তায় পাঠদান চালাতে হবে।

পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্রাক-প্রাথমিকের শ্রেণি কার্যযক্রম বন্ধ থাকবে।

৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শ্রেণি কার্যক্রম সপ্তাহে ৬ দিন চলবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অন্য শ্রেণির শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে এক দিন আসবে।

একই দিনে একই সময়ে সর্বোচ্চ দুটি শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসার ব্যবস্থা রেখে টিফিন বিরতি ছাড়া শ্রেণি কার্যক্রম চলবে। সর্বোচ্চ ৩ ঘণ্টার মধ্যে শ্রেণি কার্যক্রম শেষ করতে হবে।

শ্রেণিকক্ষ এবং শিক্ষার্থীর সংখ্যা বিবেচনায় রেখে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে একাধিক শিফট কিংবা সপ্তাহের একেক দিন একেক শ্রেণির বা সর্বোচ্চ দুটি শ্রেণির পাঠদানের ব্যবস্থা রেখে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ হালনাগাদ পাঠ্যসূচি অনুসরণ করবে।

শ্রেণি কার্যক্রমে গ্রুপ ওয়ার্ক ও পেয়ার ওয়ার্কের মতো সম্ভাব্য স্বাস্থ্যঝুঁকি সৃষ্টিকারী শিখনকাজ আপতত বাদ রাখতে হবে।

শিক্ষকরা মাস্ক পরেই ক্লাস নেবেন। শিক্ষার্থীদেরও মাস্ক পরা নিশ্চিত করবেন তিনি।

ক্লাস শেষে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারিবদ্ধভাবে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয় ত্যাগ নিশ্চিত করতে হবে। সব শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার্থীদের একত্রে শ্রেণিকক্ষ ত্যাগ করতে দেওয়া যাবে না। শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে একের পর এক কক্ষের শিক্ষার্থী বিদ্যালয় ত্যাগ করবে।

একধিক শিফটে ক্লাস চললে আগের শিফট ও পরের শিফটের ক্লাস শুরুর মাঝে অন্তত ৩০ মিনিটের বিরতি রাখতে হবে।

শিক্ষার্থীরা যার যার পানির বোতল নিয়ে বিদ্যালয়ে আসবে।

শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের পাশাপাশি ঘরে বসে শিখি, বাংলাদেশ বেতার ও সংসদ টেলিভিশনে পাঠদান কার্যক্রম, গুগলমিটের মাধ্যমে অনলাইন পাঠদান কার্যক্রম ক্লাস রুটিনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে অব্যাহত রাখতে হবে।

যে শিক্ষার্থী নিজের বা পরিবারের সদস্যদের করোনা লক্ষণ বা সংক্রমণের কারণে বিদ্যালয়ে আসতে পারবে না, তারা ঘরে বসে শিখি এবং অনলাইন পাঠদানে অংশ নেবে।

এ কারণে ওই শিক্ষার্থীকে ক্লাসে অনুপস্থিত গণ্য করা যাবে না।

কোনো এলাকায় করোনা সংক্রমণের হার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নির্দেশিত বিপৎসীমা পার হলে উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি তাৎক্ষণিকভাবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসনকে অবহিত করে সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে গত ২৩ সেপ্টেম্বর জারি করা নির্দেশিকা প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রতিপালন করতে হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্কুল খুলতে গোপালগঞ্জের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোতে প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে র্দীঘ প্রায় দেড় বছর পর আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে ক্লাস চালু করতে গোপালগঞ্জের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোতে প্রস্তুতি সম্পন্ন প্রায়। শ্রেণিকক্ষ, অফিসকক্ষসহ বিদ্যালয় চত্বরে চলছে শেষ মুহূর্তের পরিচ্ছন্নতার কাজ। চলছে বেঞ্চ সাজিয়ে রাখার কাজ।

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও প্রাথমিক চিকিৎসার জন্যও নেওয়া হয়েছে প্রস্তুতি। দীর্ঘ দিন পর বিদ্যালয় খুলে দেওয়ায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে শহরের বেশ কয়েকটি স্কুলে গিয়ে দেখা গেছে এমন প্রস্তুতির দৃশ্য।

গোপালগঞ্জ জেলার ১২শ’র বেশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকায় এসব বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষের বেঞ্চ, চেয়ার, টেবিল, ব্লাকবোর্ড, অফিস রুম ও খেলার মাঠসহ বিভিন্ন জায়গায় জমেছে ধুলাবালি ও আবর্জনার স্তুপ।

জেলার ৮৬২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২০৩টি মাধ্যমিক ও ৮৯টি মাদ্রাসা ও শতাধিক কিন্ডারগার্ডেন স্কুল এখন ক্লাস নিতে প্রস্তুত।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আবারও বন্ধ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, আমেরিকা আর আমাদের দেশ এক নয়। করোনা সংক্রমণ হলে অবশ্যই শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করবে, আমরাও সেই ধরনের পরামর্শ দেবো।

স্কুল খোলার পর যুক্তরাষ্ট্রের করোনার সংক্রমণ বেড়েছে। আমাদের এখানেও সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে কিনা শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী শুক্রবার রাজধানীর তিতুমীর কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের সরকারি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ডেন্টাল ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা পরিদর্শন করেন।

তিনি বলেন, এখনো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) থেকে অনুমতি আসেনি। ডব্লিউএইচও অনুমতি দিলে শিশুদের টিকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। শিশুদের করোনা আক্রান্তের হার কম।

টিকা পাওয়া সাপেক্ষে গণটিকা কার্যক্রম চলমান থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, এ মাসেই চীন থেকে দুই কোটি টিকা পাওয়া যাবে। প্রতি সপ্তাহে ৫০ লাখ ডোজ করে টিকা আসবে আগামী তিন মাসে। কোভ্যাক্স থেকে ১০ কোটি টিকা কেনা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter