Home » Tag Archives: ছুটি

Tag Archives: ছুটি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি আবারও বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৯ জুন ২০২১:
দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং ইবতেদায়ি ও কওমি মাদ্রাসায় চলমান ছুটি আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে ।

আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সারা দেশে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। লকডাউনও কার্যকর হয়েছে। শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তার বিবেচনায় এবং কোভিড ১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে পরামর্শক্রমে এই ছুটি বৃদ্ধি করা হয়েছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী ছুটি ছিল ৩০ জুন পর্যন্ত ।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদ পর্যন্ত বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৭ জুন, ২০২১
করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে প্রায় দেড় বছর ধরে। এ অবস্থায় আগামী ৩০ জুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা থাকলেও করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় যথাসময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব হচ্ছে না। ঈদ পর্যন্ত বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি।

আরো পড়ুন

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকরা চান টাইমস্কেল

এদিকে করোনার ঊর্ধ্বগতিতে সোমবার (২৮ জুন) থেকে আসছে কঠোর লকডাউন। এ অবস্থায় ফের অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে যথাসময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা।
শিক্ষামন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘করোনা সংক্রমণের হার ক্রমেই বাড়ছে। আজকেই (গতকাল) ২১ শতাংশের বেশি ছিল। ৫ শতাংশের নিচে না আসলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হচ্ছে না। ৩০ জুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই। তবে পরিস্থিতি বুঝে শিক্ষামন্ত্রী সিদ্ধান্ত জানাবেন। এর জন্য কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি কর্মচারীদের নতুন ছুটির নিয়মাবলী

বাংলাদেশের সরকারি কর্মচারীদের ছুটির নিয়মাবলী অনেকেই হয়ত জানেন না। এবার জেনে নিন-

(১) কোন কর্মচারী নিম্নবর্ণিত যে কোন ধরণের ছুটি পাবেন, যথাঃ
(ক) পূর্ণ বেতনে ছুটি;
(খ) অর্ধ বেতনে ছুটি;
(গ) বিনা বেতনে অস্বাভাবিক ছুটি
(ঘ) বিশেষ অক্ষমতাজনিত ছুটি
(ঙ) সংগরোধ ছুটি (Quarantine Leave);
(চ) প্রসূতি ছুটি (Maternity Leave);
(ছ) অধ্যয়ন ছুটি (Study Leave); এবং
(জ) নৈমিত্তিক ছুটি (Casual Leave) ।
(২) উপযুক্ত কর্তৃপক্ষ কোন কর্মচারীকে বিশেষ অক্ষমতাজনিত ছুটি ও অধ্যয়ন ছুটি ব্যতীত অন্যবিধ ছুটি মঞ্জুর করতে পারেন এবং ইহা বন্ধের দিনের সাথে সংযুক্ত করেও প্রদান করা যেতে পারে।
Read More »

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ৬ আগষ্ট পর্যন্ত

 

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৫ জুন:

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে স্কুল-কলেজসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানো হয়েছে। আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

সোমবার (১৫ জুন) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়েরের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষার্থীদের সার্বিক সুরক্ষা ও নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৭ মার্চ থেকে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এরপর দফায় দফায় ছুটি বাড়িয়ে ১৫ জুন অর্থাৎ সোমবার পর্যন্ত করা হয়।

মাঝে ১ জুন দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক, রক্ষণাবেক্ষণ জাতীয় কর্মকাণ্ড এবং শিক্ষার্থী ভর্তির অনুমোদন দেয়া হয়। আর ছুটি আজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকায় তা বাড়ানো হলো ৬ আগস্ট পর্যন্ত।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, করোনা মহামারি আকারে ধারণ করায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে শিক্ষার্থীদের হুমকির মধ্যে ফেলা হবে না। প্রতিদিন সংসদ টিভিতে ক্লাস সম্প্রচার করা হচ্ছে, বাসায় বসে তারা পাঠগ্রহণ চালিয়ে যাবে। বর্তমানে শিক্ষার্থীদের বাসায় রেখে কীভাবে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব সে বিষয়েও চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে ১৫ জুন পর্যন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৭ মে, ২০২০
চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সাধারণ ছুটি আর বাড়ছেনা। আগামী ৩১ মে থেকে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস-আদালতে কাজ করতে হবে। তবে বয়স্ক এবং গর্ভবতী নারীরা এর আওতামুক্ত থাকবেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে। আজ বুধবার বিকেলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এ সময়ে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস-আদালতে কাজ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে বয়স্ক এবং গর্ভবতী নারীদের অফিসে আসতে হবে না। সেইসঙ্গে গণপরিবহনও চলবেনা। স্কুল, কলেজসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ১৫ জুন পর্যন্ত আপাতত বাড়ানো হবে।
সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজে যোগ দেয়ার জন্য আসতে হবে উল্লেখ করে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী জানান, ইতোমধ্যেই নির্দেশনায় প্রধানমন্ত্রীর সাইন হয়েছে। কাল বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। দোকানপাট সকাল ১০ টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানকে নিজস্ব পরিবহনে কর্মীদের আনা নেয়া করতে হবে। বয়স্ক,অসুস্থ ও অন্ত:স্বত্ত্ব নারীরা কর্মক্ষেত্রে যাবেন না। গণপরিবহন,যাত্রীবাহী রেল ও নৌযান চলবে না। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিমান চলাচল করতে পারবে। ১৫ জুন পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে,অনলাইনে ক্লাস চলবে। গণজমায়েত,সভা,সমাবেশ নিষিদ্ধ। ধর্মীয় উপাসনালয় খোলা থাকবে। এক জেলা থেকে অন্য জেলায় চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সাধারণ ছুটি ঈদ পর্যন্ত বাড়তে পারে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১২ মে, ২০২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে চলমান সাধারণ ছুটি আরও এক দফা বাড়তে পারে। আগামী ১৭ থেকে ২৬ মে পর্যন্ত অর্থাৎ ঈদ পর্যন্ত ছুটি বাড়ানোর ঘোষণা আসতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

করোনার কারণে সরকার প্রথমে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে। পরে আরও ছয় দফায় ছুটি বাড়িয়ে ১৬ মে পর্যন্ত করা হয়। কিন্তু দেশে এখনও করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির উন্নতি নেই, বরং দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, পরিস্থিতি যা, তাতে ছুটি আরও বাড়বে-এটাই স্বাভাবিক। তিনি আরও বলেন, ১৬ মে ও ঈদের ছুটির মাঝখানে কর্মদিবস মাত্র চারটি- ১৭, ১৮, ১৯, ২০ মে।

তিনি বলেন, ২১ মে শবে কদরের ছুটি। এরপর ২২ ও ২৩ মে সাপ্তাহিক ছুটি। আবার ২৪ মে (রোববার) থেকে শুরু ঈদের ছুটি। ২৫ ও ২৬ মে’ও (সোম ও মঙ্গলবার) ঈদের ছুটি থাকবে। সরকারি ছুটির তালিকায় এভাবেই নির্ধারিত আছে। তবে রমজান মাস ২৯ দিনে শেষ হলে ঈদের ছুটি থাকবে ২৩, ২৪ ও ২৫ মে (শনি, রবি ও সোম)।

তাই এবারের ছুটি আগামী ২৬ মে পর্যন্ত বর্ধিত হতে পারে বলে মনে করছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। তবে ১৬ মে’র পর ছুটি বাড়বে কি বাড়বে না কিংবা ছুটি বাড়লেও কতদিন বাড়বে সেটা প্রধানমন্ত্রীর ওপর নির্ভর করছে।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘ছুটির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত আমরা এখনও পাইনি। দু-একদিনের মধ্যেই এটি আমরা জানতে পারব। তখনই জানা যাবে ছুটির বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে সরকার।’

ইতোমধ্যে জরুরি সেবা সংশ্লিষ্ট সরকারি অফিস সীমিত পরিসরে খুলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মানা সাপেক্ষে দোকান, শপিংমল, কারখানা, গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিসহ অন্যান্য শিল্প ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সীমিত আকারে খুলে দেয়া হয়েছে। তবে বন্ধ রয়েছে গণপরিবহন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সাধারণ ছুটি আরও বাড়তে পারে

প্রথম আলো:
করোনা–পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে না আসায় সাধারণ ছুটি আরও বাড়াতে যাচ্ছে সরকার। এ বিষয়ে আগামীকাল বুধবার ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

ছুটি বাড়ানো হচ্ছে কি না, জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন আজ মঙ্গলবার ইউএনবিকে বলেন, ‘অবশ্যই! এখনো অফিস খুলে দেওয়ার সময় আসেনি। এখন করোনার চূড়ান্ত সময় যাচ্ছে।’
অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘ছুটি বর্ধিত বিষয়ে এখনো কোনো নির্দেশনা আসেনি। আগামীকাল (বুধবার) হয়তো নির্দেশনা আসতে পারে।
প্রতিমন্ত্রী জানান, এবার বর্ধিত ছুটি ঘোষণা হলে তাতে কিছু নতুন নির্দেশনা থাকতে পারে। তবে বিষয়টি চূড়ান্তভাবে বলা যাবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসার পর।

তবে একই বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে জনপ্রশাসনসচিব শেখ ইউসুফ হারুন ইউএনবিকে বলেন, ‘এখনো ছুটি বর্ধিত করার বিষয়ে কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি।’

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রথম দফায় গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি অফিসে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। দ্বিতীয় দফায় তা ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত এবং তৃতীয় দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

তবে সাধারণ ছুটির মধ্যেই সীমিত আকারে খোলা রয়েছে ব্যাংকগুলো। পাশাপাশি নিত্যপণ্য, ওষুধসহ জরুরি সেবাগুলো খোলা রয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছুটি কমছে !

ডেস্ক,২১ এপ্রিল:
করোনাভাইরাসের প্রকোপে সসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমনকি অফিস আদালত কয়েক দফায় ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার।

আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সব অফিস আদালত বন্ধ থাকবে। জরুরি প্রয়োজনে সীমিত আকারে ব্যাংক, আর জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। এবার একাডেমিক কালেন্ডার অনুযায়ী ঐচ্ছিক শিক্ষা ছুটি সীমিত করার কথা ভাবছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

যার ফলে ঈদ উল আজহার ছুটি ১৫ দিন কমিয়ে তা ১০ দিন ও দুর্গাপুজার ছুটি সাত দিন কমিয়ে তিন দিন করা হতে পারে। সেই সঙ্গে শ্রেণিকক্ষে ক্লাসের সময় ৪০ মিনিটের পরিবর্তে এক ঘণ্টা করা হবে।

আজ মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় শিক্ষা সচিব মাহাবুব হোসেনের সঙ্গে সারাদেশের ১০টি শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, সিনিয়র সিস্টেম অ্যানালিস্টসহ সংশ্লিষ্টদের ভিডিও কনফারেন্সে এই সম্ভাব্য সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মিটিং শেষে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোকবুল হোসেন রাজশাহী প্রতিনিধিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘এই ছুটিগুলো আমরা সমন্বয় করতে পারি। এ বিষয়ে একটি আলোচনা হয়েছে। ছুটিগুলো সমন্বয় করলে আমাদের যে সময়টা চলে গেছে, সেই সময়টা কাভার হবে। বিষয়টি আলোচনা হয়েছে। এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। বিষয়টি স্টাডি করে ওয়ার্কআউট করে আমরা সচিব মহোদয়কে দেবো তারপর উনারা সিদ্ধান্ত নেবেন।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদ পর্যন্ত বাড়ছে সরকারি ছুটি!

ডেস্ক,১৮ এপ্রিল:

করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধে আবারও সরকারি ছুটি বাড়ানোর আভাস মিলেছে। আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়তে পারে বলে জানা গেছে। এর আগে চতুর্থ ধাপে বাড়ানো সাধারণ ছুটি আগামী ২৫ এপ্রিল শেষ হবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্র জানায়, করোনায় দেশে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে বাড়ার সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। এমন অবস্থায় এখনই অফিস আদালত খুলে কোনো ধরনের ঝুঁকি নেবে না সরকার। তাই পুনরায় সাধারণ ছুটি বাড়ানোর বিষয়টি সরকারের ভাবনায় আছে। দু-একদিনের মধ্যেই হয়তো প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি নিয়ে ছুটি বাড়াবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। কারণ গত বৃহস্পতিবার সারাদেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। ফলে ছুটি বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুণ গণমাধ্যমকে বলেন, পরিস্থিতি তো এখনো স্বাভাবিক হলো না। ছুটি বাড়লেও বাড়তে পারে। তবে এ মুহূর্তে কিছু বলতে পারছি না। এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

তবে দায়িত্বশীল অনেক কর্মকর্তাই জানিয়েছেন, ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়বে। এটা অনেকটা নিশ্চিত। পরিস্থিতি বিবেচনায় এর পরও ছুটি বাড়ানো হতে পারে। কেউ কেউ এ-ও বলছেন, দেশ স্থবির হয়ে গেছে। দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে। তবু ছুটি বাড়বে। কারণ মানুষকে বাঁচানোই সরকারের প্রথম চ্যালেঞ্জ। প্রয়োজনে ঈদুল ফিতর পর্যন্ত বাড়তে পারে সাধারণ ছুটি।

প্রসঙ্গত, করোনা মোকাবিলায় প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি দেওয়া হয়েছিল। এর পর ছুটি বাড়িয়ে তা ১১ এপ্রিল করা হয়। এর পর আবারও তৃতীয় দফা ছুটি বাড়িয়ে করা হয় ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় চতুর্থ ধাপে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত!

ডেস্ক
দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। এই প্রাণঘাতী ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে সাধারণ ছুটি বাড়িয়ে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়েছে। একইসঙ্গে বাড়ানো হয়েছে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটিও।

|আরো খবর
জাপানে জরুরি অবস্থা জারি
বস্তিবাসীদের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন রাকুল প্রীত
ফের বাবা হচ্ছেন সাকিব
করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় আসছে রমজান ও ঈদুল ফিতরের ছুটি সমন্বয় করে উদ্ভুত পরিস্থিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ৩০ মে পর্যন্ত দীর্ঘায়িত হচ্ছে। দুই একদিনের মধ্যে এমন ঘোষণা আসতে পারে। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় ক্ষতি পুষিয়ে নিতে নানা ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।

এর আগেও দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঈদুল ফিতরের পর খোলার সিদ্ধান্ত নেয়ার বিষয়ে গণভবনে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে বলেও জানা গেছে। এদিকে ঘোষিত সাধারণ ছুটি পহেলা বৈশাখের ছুটি সঙ্গে সমন্বয় করে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দীর্ঘায়িত হয়েছে। আবার এর ১০ দিন পর শুরু হচ্ছে পবিত্র রমজান। ফলে রমজান এবং ঈদুল ফিতরের ছুটি সমন্বয় করে আগামী ৩০ মে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খোলার সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

এছাড়া রমজানের আগে আবাসিক শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসলে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পাশাপাশি বন্ধ করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের আবাসিক হলগুলোও। এতে করে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে ফিরে গিয়েছেন। এখন যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু করা হয়, তাহলে সকল শিক্ষার্থীই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে ফিরে আসবে, এতে করে ঝুঁকি আরও বেড়ে যেতে পারে। তাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঈদুল ফিতরের পরে খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেছেন, এই পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একবারে ঈদের পর খোলার ঘোষণা দেয়ার চিন্তাভাবনা চলছে। কেননা ২৪ এপ্রিল রোজার ছুটি শুরু হয়ে যাবে। এদিকে সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ। বিদ্যমান শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী, ২৪ এপ্রিল রোজার ছুটি শুরু। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটলেও ১৪ এপ্রিলের পর রোজার ছুটির আগ পর্যন্ত কর্মদিবস আছে মাত্র ৬টি।

এ ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, আমাদের এখনকার অগ্রাধিকার হচ্ছে বিদ্যমান পরিস্থিতি থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা। এরপর পরিস্থিতির উন্নতি হলে ক্ষয়ক্ষতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী কর্মসূচি নির্ধারণ করা হবে।

এর আগে গণভবনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি দীর্ঘায়িত করার জন্য একটি বৈঠকে অনানুষ্ঠিক আলোচনার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল, খাদ্যমন্ত্রী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী, ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রীসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তারা এতে উপস্থিত থাকার কথা ছিল।

আর করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি দীর্ঘায়িত হলে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা যাতে ব্যাহত না হয় এর জন্য ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের পাঠদানের ভিডিও ক্লাস বাংলাদেশ সংসদ টেলিভিশনে সমপ্রচার করা হচ্ছে। ছুটির পর ক্লাস খুললে টিভির ক্লাসের মূল্যায়ন নেয়া হবে জানায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর।

এর অংশ হিসেবে গত ২৯ মার্চ থেকে মাধ্যমিক স্তরের পাঠদান চলছে সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনে। একই টিভিতে আজ দুপুর ২টায় শুরু হচ্ছে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পাঠদান। শিশু থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ৬টি শ্রেণির ২০ মিনিট করে আলাদা পাঠদান করা হবে।

পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদেরও অনলাইনে লেখাপড়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কোনো শিক্ষক চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় কানেকটিভি ‘বিডিরেন’ ব্যবহার করে লেকচার দিতে পারছেন।

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের এই মুহূর্তের অগ্রাধিকার হচ্ছে মহামারী মোকাবেলা। আমাদের অনেক ছাত্রছাত্রী দেশ-জাতির সেবায় নিয়োজিত। তাই এ মুহূর্তে লেখাপড়ার চেয়ে পরিস্থিতি মোকাবেলা করা জরুরি। দুর্যোগ শেষ হলে আমরা লেখাপড়ার ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য করণীয় নির্ধারণ করব।

এদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে ইতোমধ্যে সাধারণ ছুটি তিন দফা বাড়িয়ে ১৪ এপ্রিল করা হয়েছে। এ পরিস্থিতি আর কতদিন স্থায়ী থাকবে, তা কেউ বলতে পারছেন না।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষনা।

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৪এপ্রিলঃ
দেশে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে অঘোষিত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল আরও তিন দিন। জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন রোববার দুপুরে সরকারি এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আগে ১১ তারিখ পর্যন্ত ছুটি ছিল। নতুন করে ১২ ও ১৩ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ১৪ এপ্রিল আগে থেকেই নির্বাহী আদেশে ছুটি (বাংলা নববর্ষের) ছিল, সেই ছুটিও এর সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত হবে। অর্থাৎ, নতুন করে ‘ছুটি’ বাড়ায় এখন তা বলবৎ থাকবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে!

বাংলা নিউজ,ঢাকা,৪ এপ্রিল: 

দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ছুটি বাড়ানো হবে কি-না, তা করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছেন সরকারের সংশ্লিষ্টরা।
তারা বলছেন, পরিস্থিতির অবনতি হলে শিক্ষার্থীদের বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া ঠিক হবে না। ছুটি বাড়ানো হতে পারে সেই পরিস্থিতি দেখে। তবে সেই সিদ্ধান্তের জন্য আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হতে পারে। পরিস্থিতি বিরূপ হলে সরকারের শীর্ষপর্যায় থেকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসবে।

গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ থাকা দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি শেষ হবে আগামী ৯ এপ্রিল। এরইমধ্যে গুঞ্জন উঠেছে এই ছুটি রোজা ও ঈদের ছুটির সঙ্গে সংযুক্ত হবে।

সরকারের শীর্ষপর্যায়ের সিদ্ধান্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো প্রথমে ৩১ মার্চ এবং পরে তা বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত নেওয়া হয়। আর সাধারণ ছুটি ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছিল। যা পরে বাড়িয়ে সাপ্তাহিক ছুটিসহ ১১ এপ্রিল পর্যন্ত নেওয়া হয়েছে।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষায় এই ছুটি বাড়ানো হলেও এরইমধ্যে শনিবার (০৪ এপ্রিল) পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৭০ জন। আর মৃত্যু হয়েছে আটজনের।

প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু করে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক এবং উচ্চশিক্ষা স্তরের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখায় শিক্ষাপঞ্জিও এলোমেলো হয়ে গেছে। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের ঝুঁকির বিষয়টিও মাথায় রাখছেন শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানোর বিষয়টি সরকারের শীর্ষপর্যায় থেকে আসবে বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ।

তিনি বলেন, আমার ব্যক্তিগত মত হলো এই পরিস্থিতির মধ্য থেকে বের না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা ঠিক হবে না। এছাড়া ঈদের ছুটিও আসছে। সরকার নিশ্চয় সবদিক বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবে।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুললে হল-ডরমেন্টরিগুলোও খুলে দিতে হবে। তখন একটা ঝুঁকি থেকেই যায়।

ছুটির মধ্যে করোনা সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ এলাকার মানুষকে সচেতন করারও পরামর্শ দিয়েছেন ইউজিসি চেয়ারম্যান।

নতুন করে একদিনেই নয় রোগী বাড়ায় পরিস্থিতি উদ্বেগজনক বলে মনে করছেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দ্বিতীয় দফার ছুটি শেষ না হতেই ঈদ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটির গুঞ্জন নিয়ে মহাপরিচালক বলেন, পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে পদক্ষেপ নেবে সরকার।

করোনার ছুটির মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জন্য গত ২৯ মার্চ থেকে সংসদ টেলিভিশনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। যতদিন প্রয়োজন এই ক্লাস নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মাউশি মহাপরিচালক।

ছুটি আর বাড়ানো হবে কি-না, জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, পরিস্থিতি তো খারাপের দিকে যাচ্ছে।

ছুটি বাড়ানো হবে কি-না, জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে সব। ৫ থেকে ৭ তারিখের দিকে বোঝা যাবে।

‘আগে তো জীবন। তারপর পড়াশোনা। দুর্যোগ মোকাবিলার জন্য সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে। দুর্যোগ কেটে গেলে একমাসেই পুষিয়ে নেওয়া যাবে।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি চাকরিজীবীদের কর্মস্থলে থাকতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২২ মার্চঃ
করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধ এবং এই অবস্থায় যেকোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সহযোগিতার জন্য পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত দেশের বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সব সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে উপস্থিতি থাকতে হবে।

আজ রোববার এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক পত্রে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter