Home » Tag Archives: এইচএসসি

Tag Archives: এইচএসসি

এইচএসসি’র বিভাগ পরিবর্তনের সুযোগ রবিবার পর্যন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৮ জুলাই ২০২২: ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের বিষয়, গ্রুপ, শিফট, ভার্সন, ছবি পরিবর্তন এবং ভর্তি বাতিলের সুযোগ দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। এজন্য নির্ধারিত ফি পরিশোধ করে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

সম্প্রতি ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড থেকে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর আবু তালেব মো. মোয়াজ্জেম হোসেন।

আরো পড়ুনঃ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাঠে রাজনৈতিক সমাবেশ, লজ্জিত ও দুঃখিত শিক্ষামন্ত্রী

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০২১-২২শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের বিষয়, গ্রুপ, শিফট, ভার্সন, ছবি পরিবর্তন এবং ভর্তি বাতিল কার্যক্রম বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) থেকে শুরু হয়েছে। যা আগামী রবিবার (৩১ জুলাই) পর্যন্ত চলবে।

আরও পড়ুন: ঢাবির রোকেয়া হলে অমুসলিম ছাত্রীদের প্রার্থনা কক্ষ উদ্বোধন

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, এ কার্যক্রম সম্পূর্ণরূপে অনলাইনে সম্পন্ন করতে হবে। শিক্ষার্থীগণ স্ব স্ব কলেজে তার চাহিদা মোতাবেক আবেদন করলে কলেজ কর্তৃপক্ষ বোর্ডের ওয়েবসাইটে লগইন করে অনলাইনে শিক্ষার্থীর চাহিদা মোতাবেক সংশোধনী সম্পন্ন করবে।

এক্ষেত্রে কলেজ কর্তৃপক্ষ বোর্ডের প্রয়োজনীয় ফি শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে গ্রহণ করে সোনালী সেবার মাধ্যমে জমা দিবেন। অতঃপর বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে সংশোধনী কার্যকর হবে এবং সংশোধিত তথ্যাবলী কলেজ কর্তৃপক্ষ অনলাইনে দেখতে
পারবে।

এসএসসি ও এইচএসসির নতুন সিলেবাস প্রকাশ

ডেস্ক,১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২ঃ
২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে জুন মাসে। আর এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হবে আগস্ট মাসে। এটি নিশ্চিত করেছে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড। তবে চলতি বছর দুটি পাবলিক পরীক্ষায় বাংলা ২য় পত্র ও ইংরেজি প্রথম ও ২য় পত্রের পাঠ্যসূচি অধিকতর পরিমার্জন করে পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে।

রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ড ঢাকা এ বিষয়ে একটি অফিস আদেশ জারি করেছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) প্রফেসর তপন কুমার সরকার।

পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির আলোকে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করার জন্য জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডকে (এনসিটিবি) অনুরোধ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, এর আগে ৭ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দুই বিষয়ের পাঠ্যসূচি পুনর্বিন্যাস করা হয়।

নতুন পুনর্বিন্যাসে বাংলা দ্বিতীয়পত্রের ব্যাকরণ থেকে ১৫ নম্বর থাকবে। আর নির্মিতি হিসেবে থাকবে ৩৫ নম্বর। এছাড়াও ইংরেজি প্রথম পত্রে থাকছে ৫০ নম্বর। একই নম্বরে পরীক্ষা হবে ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রও।

নতুন সিলেবাসে কি কি আছে দেখতে ক্লিক করুন

এইচএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ঃ

আজ থেকে এইচএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ এনসিটিবির নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরহাদুল ইসলাম

যেসব পরীক্ষার্থী ফলে অসন্তুষ্ট হয়েছেন তারা ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনের সুযোগ পাবেন। ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন গ্রহণ শুরু। ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এসএমএসের মাধ্যমে করা যাবে।

শিক্ষা বোর্ড থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এতে বোর্ড বলছে, ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসির বিষয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২
২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তবে পরীক্ষার দিনক্ষণের বিষয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

|আরো খবর: ১২ ক্যাডেট কলেজে শতভাগ জিপিএ-৫

রোববার ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিক বা এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশের অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা কোন কোন বিষয়ে নেয়া হবে সেই ব্যাপারে ইতোমধ্যেই মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। কিছু সাবজেক্ট পরীক্ষার আওতায় আসছে না।

২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা কবে শুরু হবে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এ বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাইছি না। কারণ সবকিছু নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির উপর। দেখা যাচ্ছে আমরা একটি তারিখ ঘোষণা করলাম, পরে কোভিড সংক্রমণ বেড়ে গেলো। একারণে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সময় আসলেই চলতি বছরের পাবলিক পরীক্ষার তারিখ জানিয়ে দেয়া হবে।

জানা যায়, ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষাও অন্যান্য বছরের মতো হয়নি; পরীক্ষা হয় শুধু নৈর্বাচনিক বিষয়ে। আর আবশ্যিক বিষয়ে আগের পাবলিক পরীক্ষার সাবজেক্ট ম্যাপিং করে মূল্যায়নের মাধ্যমে নম্বর দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বাদ দেয়া হয় চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষাও।

এইচএসসির ফল প্রকাশ রোববার বেলা ১২টায়

নিজস্ব প্রতিবেদক,১২ ফেব্রয়ারী ২০২২ঃ
আগামীকাল রোববার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। দুপুর ১২টায় রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউটে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ফল ঘোষণা করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার শিক্ষামন্ত্রীর দপ্তর এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ২০২১ সালের এইচএসসি, আলিম, এইচএসসি ভোকেশনাল, এইচএসসি ব্যবসা ব্যবস্থাপনা ও ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হবে।

এর আগে এইচএসসি-সমমান পরীক্ষার ফলাফল ফেব্রুয়ারি মাসের ১২ থেকে ১৪ তারিখের প্রকাশ করতে চেয়েছিলো শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফলাফল প্রকাশে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সংক্রান্ত প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির পর এইচএসসি ফল প্রকাশের দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশের জন্য সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক আবু তালেব মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, অন্যান্য বারের মতই শিক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবে। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান, ওয়েবসাইট এমনকি মোবাইলেও ফলাফলের এসএমএস পাওয়া যাবে। শিক্ষার্থীরা কখন এসএমএস পাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সন্ধ্যা ৬ টার পর পরীক্ষার্থীদের মোবাইলে ফল পৌঁছে যাবে।

এর আগে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ ৩০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশের কথা জানিয়েছিলেন। তিনি বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের তিনটি বিষয়ের পরীক্ষা হলেও তাদের পত্র কিন্তু ছয়টি। তাই কিছুটা সময় লাগতে পারে।

গত বছরের ২ ডিসেম্বর প্রায় ১৪ লাখ শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। ওই দিন শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছিলেন, পরীক্ষা শেষ হওয়ার এক মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ করা হবে। এরপর গত ৩০ ডিসেম্বর এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শেষ হয়।

এদিকে আটটি সাধারণ শিক্ষাবোর্ডের ফল প্রার্থীরা মোবাইলের মাধ্যমে ফল পেতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর লিখে আবার স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২১ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানা যাবে।

মাদরাসা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে MAD স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২১ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল পাওয়া যাবে।

এছাড়া কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে TEC লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০২১ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানিয়ে দেয়া হবে।

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষাও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১৮ নভেম্বর ২০২১

আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষাও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

আরো খবরঃ স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে

তিনি বলেন, ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে পরীক্ষা নেওয়ার সুযোগ কিছুটা কম। সেক্ষেত্রে কিছুটা পেছাবে। কতটা পেছাবে, এটাও এ মুহূর্তে বলা খুব জটিল। কারণ সারাবিশ্বে করোনা আবার বাড়ছে। আমাদের এখানে পরপর দু বছরই কিন্তু মার্চ মাসের দিকেই করোনা বেড়েছিল।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আগামী মার্চ-এপ্রিলে কী অবস্থা হবে, তা আমরা বলতে পারছি না। সেজন্য পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়েই পরীক্ষার সময়সূচি নির্ধারণ করব।

বৈঠকে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক, আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাবকমিটির সভাপতি অধ্যাপক নেহাল আহমেদ অংশ নেন।

প্রকাশ হল এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের তালিকা

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে আসায় খুলে দেয়া হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এরই ধারাবাহিকতায় ১৪ নভেম্বর শুরু হবে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা আয়োজন হবে সেসব কেন্দ্রের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়।

জানা গেছে, এ বছরের এসএসসি ও সমমান এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হবে। এসএসসির তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা ১৪ নভেম্বর শুরু হয়ে শেষ হবে ২৩ নভেম্বর। এবার তত্ত্বীয় পরীক্ষা জেএসসির ফলাফল মূল্যায়ণ করে নম্বর ম্যাপিং করে নম্বর দেওয়া হবে। নৈর্বাচনিক তিন বিষয়ের তিন পরীক্ষা নেওয়া হবে।

এ পরীক্ষায় সময়, নম্বর ও প্রশ্ন সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। তিন বিষয়ের নম্বর যুক্ত করে এ বছর এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। তবে কারিগরিতে সব বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে। প্রতি বছর ফেব্রুয়ারির শুরুতে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়। কিন্তু করোনার কারণে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

অন্যদিকে, এইচএসসি পরীক্ষায় তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা ২ ডিসেম্বর শুরু হয়ে শেষ হবে ৩০ ডিসেম্বর।

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১১ অক্টোবর, ২০২১
চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষার্থীদের প্রতি বিষয়ে ৩২ নম্বরের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে শিক্ষার্থীদের। এরমধ্যে রচনামূলকে ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যত্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। আর মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের ৪৫ নম্বরের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। এরমধ্যে ৩০ নম্বর রচনামূলক পরীক্ষা ও ১৫ নম্বরের নৈর্ব্যাত্তিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। রচনামূলক ও নৈব্যক্তিকের নম্বরকে ১০০ নম্বরে রূপান্তর করে প্রাপ্ত নম্বরে রূপান্তর করে প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এসব তথ্য জানিয়ে রোববার (১০ অক্টোবর) এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন প্রকাশ করেছে ঢাকা বোর্ড।
এসএসসির নম্বর বিভাজন যেভাবে :

ঢাকা বোর্ড প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনা করে দেখা যায়, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উচ্চতরগণিত ও জীববিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষায় রচনামূলক অংশে শিক্ষার্থীদের মোট ৩২ নম্বরের পরীক্ষা হবে। এরমধ্যে রচনামূলকে ২০ নম্বর ও নৈর্ব্যত্তিকে ১২ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

আরো পড়ুনঃ যশকে বিয়ের করার কথা স্বীকার নুসরতের!

বিজ্ঞান বিভাগেরর বিষয়গুলোতে রচনামূলক অংশে ৮টি প্রশ্ন থাকলেও যেকোন দুইটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে শিক্ষার্থীদের। নম্বর ১০ করে ২০। আর নৈর্ব্যত্তিকে ২৫ টি প্রশ্নের মধ্যে ১২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। নৈর্ব্যাক্তিকে নম্বর ১২। এ ৩১ নম্বরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের।

বোর্ড বলছে, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যত্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এদিকে এসএসসির মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের মোট পরীক্ষার হবে ৪৫ নম্বরের। রচনামূলক অংশে ৩০ নম্বর ও নৈর্ব্যত্তিকে ১৫ নম্বরের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। এরমধ্যে রচনামূলক অংশে মোট ১১টি প্রশ্ন থাকলেও উত্তর করতে হবে যেকোন তিনটি প্রশ্ন। প্রতিটির মান ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যত্তিকে ৩০টি প্রশ্ন থাকলেও উত্তর দিতে হবে ১৫টি প্রশ্নের। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ নম্বর করে মোট নম্বর ১৫।

বোর্ড জানিয়েছে, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যত্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষা হবে ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট। এর মধ্যে রচনামূলকে ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট ও নৈর্ব্যত্তিকের জন্য সময় থাকবে ১৫ মিনিট।

এইচএসসির নম্বর বিভাজন যেভাবে :

এইচএসসি পরীক্ষার নম্বর বিভাজন পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বিজ্ঞান বিভাগের প্রতি পত্রের পরীক্ষা হবে মোট ৩২ নম্বরে। এরমধ্যে রচনামূলকে ২০ ও নৈব্যক্তিকে থাকবে ১২ নম্বর। রচনামূলক অংশে প্রতিটি পত্রে মোট ৮টি প্রশ্ন থাকবে। এরমধ্যে ২টি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যত্তিকে ২৫টি প্রশ্ন থাকবে, এরমধ্যে উত্তর করতে হবে ১২টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

বোর্ড বলছে, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ২০ নম্বরকে ৫০ নম্বরে ও নৈর্ব্যত্তিকের ১২ নম্বরকে ১৫ নম্বরে রূপান্তর করে শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

আর মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রতিটি পত্রের মোট পরীক্ষা হবে ৪৫ নম্বরে। এর মধ্যে রচনামূলকে থাকবে ৩০ নম্বর আর নৈর্ব্যত্তিকে থাকছে ১৫ নম্বর। রচনামূলক অংশে ১১টি প্রশ্ন থাকলেও উত্তর করতে হবে ৩টি প্রশ্নের। প্রতিটিতে ১০ নম্বর। আর নৈর্ব্যত্তিকে ৩০টি প্রশ্নের মধ্যে উত্তর করতে হবে ১৫টির। প্রতিটির মান ১ নম্বর।

মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের ৩০ নম্বরকে ৭০ নম্বরে ও নৈর্ব্যত্তিকের ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে শিক্ষার্থীদের মোট নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

এইচএসসি শেষে হবে প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে থাকায় সরকারি সকল নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করা হয়েছে। ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা শেষে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করতে চায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘ ১৭ মাস পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সচল হওয়ায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে এই নিয়োগের আবেদন কার্যক্রম শেষে তা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শেষ হয়েছে।

বর্তমানে প্রশ্নপত্র তৈরি, ওএমআর (উত্তরপত্র) তৈরির কাজ চলমান রয়েছে। অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের বড় নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হাওয়ায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরুর চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন সংবাদমাধ্যমকে বলেন, সকল নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আমাদের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করার চিন্তাভাবনাও করা হচ্ছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা শেষে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করা হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষক নিয়োগের জন্য ১৩ লাখের বেশি প্রার্থী আবেদন করেছেন। পরীক্ষা আয়োজনে আমরা প্রস্তুত আছি। আগামী বছরের জানুয়ারিতে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করতে প্রস্তুতি শুরু করা হবে।

পিএসসি ও জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে অনিশ্চয়তা

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর চলতি বছরের ১১ নভেম্বর এসএসসি ও সমমান এবং ২ ডিসেম্বর এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা হতে যাচ্ছে। তবে গতবারের মতো এবারের ৫ম ও ৮ম শ্রেণির সমাপনী ও জেএসসি পরীক্ষা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

প্রতি বছর সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ সংক্রান্ত প্রস্তুতি সারলেও এ বছর তেমন কিছু দেখা যাচ্ছে না।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, প্রতি বছর নভেম্বরের শুরুতে জেএসসি ও জেডিসি এবং একই মাসের শেষের দিকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা হয়। পরীক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে সেপ্টেম্বর মাস থেকেই কার্যক্রম শুরু হয়। পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি, কেন্দ্র নির্ধারণী নানাবিধ সিদ্ধান্ত হয়। এবার এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।

এদিকে গত ১২ সেপ্টেম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলেও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে প্রতিদিন সরাসরি পাঠদান করা হচ্ছে না। তাদের সপ্তাহে একদিন শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করা হচ্ছে।

তাছাড়া জাতীয় শিক্ষাক্রমের খসড়া রূপরেখা অনুযায়ী নতুন কারিকুলামে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। সব মিলিয়ে এবারের দুই সমাপনী বাতিল হতে পারে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে সরাসরি কিছু বলতে নারাজ বোর্ড সংশ্লিষ্টরা।

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ‘অটোপাস’ নিয়ে সুখবর

ডেস্ক,১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকার পর খুলেছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। খোলার পর এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজনের লক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পাঠদান চলছে। চলতি বছর এবং আগামী বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্লাস নিয়েও বেশকিছু নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।
এদিকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানিয়েছে, মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ না বাড়লে আগামী নভেম্বরে এসএসসি এবং ডিসেম্বরে এইচএসসি ও সমমমান পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। আর যদি সংক্রমণ বেড়ে যায়, তাহলে আবারও অটোপাসের দিকে যাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

আরো খবরঃ প্রাথমিকে সাপ্তাহিক ছুটি এক দিন এবং মাধ্যমিকে দুই দিন

সূত্র আরও জানিয়েছে, এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের তিনটি নৈর্বচনিক বিষয়ের উপর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে কোনো কারণে যদি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না হয় তাহলে সব বিষয়ের ফল দেয়া হবে ‘সাবজেক্ট ম্যাপিং’-এর মাধ্যমে। আর পরীক্ষা নেয়া গেলে নৈর্বাচনিক বাদে বাকি সব বিষয়ে গ্রেড দেয়া হবে সাবজেক্ট ম্যাপিং করে।
তবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে সেটি ধরেই শিক্ষা বোর্ডগুলোকে প্রস্তুতি নিতে বলেছে মন্ত্রণালয়। আবার করোনা বাড়লে বিকল্পও ভেবে রাখা হচ্ছে। এজন্য চলতি বছরের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্টের নম্বর অন্তর্ভুক্তির নির্দেশনা দিয়েছে মাউশি।
এ বিষয়ে মাউশি মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক গণমাধ্যমকে বলেন, দেশে চলমান করোনা সংক্রমণ বেড়ে গেলে চলতি বছরের এসএসসি এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় আবারও অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। সেজন্যই শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্টের নম্বর অন্তর্ভুক্তির নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
তবে আমরা পরীক্ষা আয়োজনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে রাখছি। যেন পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে দ্রুত পরীক্ষা নিয়ে নেয়া যায়।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের মার্চে দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৮ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এরপর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি দফায় দফায় বাড়ানো হয়। করোনার কারণে স্কুল-কলেজ খুলতে না পারায় ২০২০ সালে জেএসসি, এসএসসি এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অটোপাস দেয়া হয়।

শিক্ষার সব কোর্স পেতে ক্লিক করুন

সময় বাড়ানো হয়েছে এইচএসসি ফরম পূরণের

আবারও বাড়ানো হয়েছে চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের সময়। নতুন সময়সূচি অনুযায়ী ফরম পূরণ চলবে ২২ সেপ্টেম্বর। আর ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ফি পরিশোধ করা যাবে।

কোনো শিক্ষার্থী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ফরম পূরণে ব্যর্থ হলে এর দায়ভার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানকেই বহন করতে হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণের জন্য প্রতিষ্ঠান হতে এসএমএস পাঠানোর সময় ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে ২২ সেপ্টেম্বর করা হয়েছে। এসএমএস প্রাপ্তির পর শিক্ষার্থীদের ফি পরিশোধের সময় ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হলো।

এতে আরও বলা হয়, উল্লেখিত সময়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণে ব্যর্থ হলে দায়ভার ওই প্রতিষ্ঠান প্রধানকে বহন করতে হবে। গত ১২ আগস্ট থেকে এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষার ফরম পূরণ শুরু হয়।

ফরম পূরণের কার্যক্রম সম্পূর্ণ অনলাইনে হবে। কোনো অবস্থায় শিক্ষার্থী বা অভিভাবক সশরীরে প্রতিষ্ঠানে যেতে পারবেন না।

এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র তালিকা প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,৯ সেপ্টেম্বর:
২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র তালিকা প্রকাশ করেছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড।
বৃহস্পতিবার ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে কেন্দ্র ও কেন্দ্রের আওতাধীন কলেজগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়।

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গত বছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নিতে পারেনি সরকার। পরে শিক্ষার্থীদের ‘অটোপাস’ দেয় সরকার।
তবে চলতি বছর সরাসরি পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলে আসছে সরকার। আগামী ডিসেম্বরে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়ার সম্ভাব্য পরিকল্পনাও জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।
ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড জানিয়েছে, জেলা সদরে জেলা প্রশাসক ও উপজেলা সদরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এই পরীক্ষার কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

পরীক্ষাকেন্দ্রের কলেজ প্রধান বা জ্যেষ্ঠ কোন অধ্যাপক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

প্রকাশ করা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর কোন শ্রেণির ক্লাস কোনদিন হবে!

মহামারি করোনাভাইরাসের পরিস্থিতির মধ্যে ৩ ফুট দূরত্ব রেখে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের বসানো হবে। ২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তায় ৬ দিন, ২০২২ সালের পরীক্ষার্থীদের দুই দিন ও সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার অন্যান্যস্তরে ক্লাস নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (৭ সেপ্টেম্বর) স্কুল-কলেজের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করে একটি মৌলিক রুটিন প্রণয়ন করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। মঙ্গলবার বা বুধবার এটি মাউশির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হতে পারে।

জানা গেছে, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কবে কোনদিন কাদের ক্লাস নেওয়া হবে সে বিষয়ে একটি মৌলিক রুটিন তৈরি করা হয়েছে। এটি অনুসরণ করে সারাদেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি পাঠ পরিচালনা করতে হবে। শিক্ষকরা মৌলিক ক্লাস রুটিনকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। এটি অনুসরণ করে তারা ক্লাস করাতে সম্মতি প্রকাশ করেছেন।

স্কুল-কলেজে প্রভাতী শিফট সকাল সাড়ে ৭টায় শুরু হয়ে ১১টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত ও দিবা ১২টা ৪০ মিনিটে শুরু হয়ে ৪টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত চলবে। একটি শিফট শেষে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন কাজের জন্য এক থেকে দেড় ঘণ্টা বিরতি দিতে হবে।

শিক্ষার্থীদের প্রতিটি ক্লাস আগের নিয়মে ক্লাস ৪৫ মিনিটের পরিবর্তের ৪০ মিনিট করে নেওয়া হবে।

এবার সারাদেশে এইচএসসি পরীক্ষা দেবে ১৪ লাখ ৭ হাজার শিক্ষার্থী

মহামারি করোনার কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফরম পূরণ কার্যক্রম শেষ হয়েছে। এতে ১৪ লাখ ৭ হাজার ৬০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিতে আবেদন ও নির্ধারিত ফি জমা দিয়েছেন। সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) আন্তঃশিক্ষা বোর্ড থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কমিটির সভাপতি এসএম আমিরুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, গত বছরের চেয়ে এবার বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থী এইচএসসির ফরম পূরণ করেছেন। আগামী ডিসেম্বরের মাঝামাঝি পরীক্ষা আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু করা হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের কঠোর বিধিনিষেধের কারণে এবার কয়েক দফায় এইচএসসির ফরম পূরণ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। পরে ১২ আগস্ট থেকে ফরম পূরণ শুরু হয়ে ৪ সেপ্টেম্বর শেষ হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, এবার ঢাকা বোর্ডে ফরম পূরণ করেছেন ৩ লাখ ৭ হাজার ৪৭৮ জন। বরিশাল বোর্ডে ৬৬ হাজার ৯৭৮, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৯৬ হাজার ৮১২, কুমিল্লা বোর্ডে ১ লাখ ১৪ হাজার ৭১১, দিনাজপুর বোর্ডে ১ লাখ ১৩ হাজার ৩০৬, যশোর বোর্ডে ১ লাখ ২৮ হাজার ৪৫৬, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৬৯ হাজার ৩০৭, রাজশাহী বোর্ডে ১ লাখ ৪৬ হাজার ৪৬৯ ও সিলেট বোর্ডে ফরম পূরণ করেছেন ৬৬ হাজার ১০১ জন। এছাড়া মাদরাসা বোর্ডে ১ লাখ ১১ হাজার ১৩৭ ও কারিগরিতে ঢাকা বোর্ডে ফরম পূরণ করেছেন ১ লাখ ৮৬ হাজার ৩০৫ জন।

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter