Home » Tag Archives: প্রাথমিক

Tag Archives: প্রাথমিক

প্রাথমিকের শিক্ষক দম্পতির করোনায় মৃত্যু

লালমনিরহাট প্রতিনিধি,২৬ জুন:
স্বামীর পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে লালমনিরহাটের সদর উপজেলার সাকোয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা উম্মে কুলছুম হ্যাপী (৪৯) মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) রাতে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় এ শিক্ষিকার মৃত্যু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ৮ জুন এ শিক্ষিকার স্বামী জিয়াউল হায়দার মন্ডল (৫৪) ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তার স্বামীও কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার দক্ষিণ মরানদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষকদের শূন্যপদের তথ্য চেয়েছে অধিদপ্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ জুন, ২০২০

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য চেয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ৩০ জুনের মধ্যে যেসব শিক্ষক পদ শূন্য হবে তার তথ্য সংগ্রহ করে আগামী ২ জুলাইয়ের মধ্যে ইমেইল অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ-সংক্রান্ত চিঠি সব জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়। একই সাথে প্রধান শিক্ষক এবং সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য পাঠাতে দুইটি পৃথক পাঠানো হয়েছে শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

জানা গেছে, প্রধান শিক্ষকদের শূন্যপদের তথ্য দেয়ার ছকে উপজেলার নাম উল্লেখ করে অনুমোদিত পদের সংখ্যা, ৬৫ শতাংশ পদোন্নতি যোগ্য পদের সংখ্যা, পদোন্নতি প্রাপ্ত শিক্ষকদের সংখ্যা, চলতি দায়িত্ব প্রাপ্ত শিক্ষকদের সংখ্যা, ৩৫ শতাংশ হিসেবে সরাসরি নিয়োগ যোগ্য পদের সংখ্য ও প্রধান শিক্ষকদের মুখ শূন্য পদের সংখ্যা মন্তব্যসহ উল্লেখ করে অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে।

অপরদিকে সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের তথ্য দেয়ার ছকে উপজেলার নাম উল্লেখ করে সহকারী শিক্ষকদের শূন্য পদের সংখ্যা, চলতি দায়িত্ব প্রদানের জন্য শূন্য পদের সংখ্যা এবং মোট শূন্য পদের সংখ্যা মন্তব্যসহ পূরণ করে অধিদপ্তরের পাঠাতে বলা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলছে না

ডেস্ক,২ জুনঃ
দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক কার্যক্রম সীমিত আকারে চালু করার বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো খোলা হবে না। পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রাথমিকের ছুটি আরও বাড়বে।
মঙ্গলবার (২ জুন) বিকালে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ।
তিনি বলেন, চলমান করোনা পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে ভয়াবহ হয়ে উঠছে। যদিও শিক্ষা মন্ত্রণালয় অফিসের কাজ করার জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দিয়েছে। তবে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো বন্ধ থাকবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে ছুটি আরো বাড়বে।
ডিপিই মহাপরিচালক বলেন, আমাদের বিদ্যালয়গুলোতে তেমন কোন প্রশাসনিক কাজ নেই। যে কাজগুলো আছে সেগুলো শিক্ষকরা বাসা থেকেই করছেন। এছাড়া বিদ্যালয়ে জরুরি কোন কাজ থাকলে সেটি প্রধান শিক্ষক এবং পিয়ন গিয়ে সেরে আসছেন। নতুন করে বিদ্যালয় খোলার ঘোষণা দিয়ে শিক্ষকদের বিপদে ফেলতে চাই না।
মো. ফসিউল্লাহ বলেন, ইতোমধ্যেই আমাদের ৫৫ জন শিক্ষক-কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যদি অফিস খোলার ঘোষণা দেই, তাহলে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তাছাড়া শিক্ষক-কর্মচারীদের যাতায়াতের বিষয় আছে। তাই পরিস্থিতি ঠিক না হলে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো বন্ধই থাকবে।
তিনি বলেন, আমাদের ওই রকম অফিস নেই, এমনকি অফিসে স্টাফও নেই। তাই বিদ্যালয় খোলার প্রয়োজন নেই। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ৬ জুন পর্যন্ত বিদ্যালয় বন্ধ আছে। ৬ তারিখের পর ছুটি আরো কতদিন বাড়ানো হবে- সেই বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার ফল যাবে মোবাইলে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৯ মে:
করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সংসদ টিভির মাধ্যমে পাঠদান অব্যাহত রেখেছে সরকার। তবে পরীক্ষা না হওয়ায় দীর্ঘ মেয়াদি সেশনজটের শঙ্কা তৈরি হয়েছে। শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে ঘরে বসেই সাময়িক পরীক্ষা নেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আর তার ফল মোবাইলের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতি আরও দীর্ঘ হলেও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাময়িক পরীক্ষা নেয়া হবে। শিক্ষার্থীরা যেন নিজ বাড়িতে থেকেই এই পরীক্ষা দিতে পারে সেই লক্ষ্যে কাজ করছে মন্ত্রণালয়। এ জন্য বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষকরা প্রশ্ন তৈরি করে স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি পাঠাবেন। আর খাতা মূল্যায়ন করে মুঠোফোনের মাধ্যমে ফলাফল পাঠিয়ে দেয়া হবে। সংসদ টিভির মাধ্যমে যে পাঠদান দেয়া হয়েছে সেখান থেকেই প্রশ্ন করা হবে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘গত ১৫ থেকে ২৪ এপ্রিলের মধ্যে প্রাথমিকের প্রথম সাময়িক পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়। দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা আগামী ৯ আগস্ট থেকে শুরু করার কথা থাকলেও তা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ কারণে শিক্ষার্থীরা যাতে বাসায় বসে পরীক্ষা দিতে পারে সে ব্যবস্থা করা হতে পারে।’

পরীক্ষার প্রশ্ন এবং খাতা মূল্যায়ন সম্পর্কে আকরাম-আল-হোসেন আরও বলেন, টেলিভিশনে যেসব বিষয়ে পাঠদান হয়েছে তার ওপর ভিত্তি করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা তাদের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশ্ন প্রণয়ন করবেন। সেসব প্রশ্ন নির্ধারিত ভলেন্টিয়ারদের (স্বেচ্ছাসেবী) মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বাড়ি পাঠানো হবে। ভলেন্টিয়ারদের মাধ্যমে উত্তরপত্রগুলো শিক্ষকদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে। শিক্ষকরা খাতা মূল্যায়ন করে মোবাইল এসএমএসের মাধ্যমে সাময়িক পরীক্ষার ফলাফল জানিয়ে দেবেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনাকালে দায়িত্ব পালন করা শিক্ষক-কর্মকর্তাদের স্বীকৃতি দেয়া হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১১ মে, ২০২০

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ঝুঁকি নিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের সাথে দায়িত্ব পালন করা শিক্ষক-কর্মকর্তাদের বিশেষ স্বীকৃতি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ। রোববার (১০ মে) রাতে দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মহাপরিচালক বলেন, করোনার ক্রান্তিকালে যেসব কর্মকর্তা এবং শিক্ষক ঝুঁকি নিয়ে জনগনের সেবায় নিয়োজিত ছিলেন তাদের স্বীকৃতি দেয়া হবে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে তাদের অভিনন্দন ও সম্মাননা জানানো হবে। এছাড়া তাদের ‘বিশেষ স্বীকৃতির’ ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া পরবর্তী সময় চাকরি করে তাদের বিশেষ অগ্রাধিকার দেয়ার চিন্তাও রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তাদের কাজের স্বীকৃতি আমরা দিতে চাই। এজন্য তাদের তালিকা সংগ্রহ করে ডাটাবেজ তৈরি করার কাজ শুরু হয়েছে। অধিদপ্তর থেকে দায়িত্ব পালন করা শিক্ষক-কর্মকর্তাদের তালিকা সংগ্রহ শুরু হয়েছে। এছাড়া পরবর্তীতে সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে যদি করোনা কালে দায়িত্ব পালন করা কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শিক্ষকদের তালিকা চাওয়া হয় তা হলেও এসব শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের তথ্য পাঠানো যাবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিকের প্রথম সাময়িক পরীক্ষা বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক,১১ এপ্রিল:
করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম সাময়িক পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)।

শনিবার (১১ এপ্রিল) বিষয়টি নিশ্চিত করে ডিপিই’র মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ লেন, আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে ২৪ এপ্রিলের মধ্যে প্রাথমিকের প্রথম সাময়িক পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় তা বাতিল করা হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির জন্য আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ সময় পর্যন্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। সিলেবাস অনুযায়ী আগামী ১৫ থেকে ২৪ এপ্রিলের মধ্যে প্রাথমিকের প্রথম সাময়িক পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও এমন পরিস্থিতিতে পরীক্ষা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীরা সুস্থ থাকলে এ পরীক্ষা পরে আয়োজন করা হবে।

মহাপরিচালক আরো বলেন, ইতোমধ্যে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সংসদ টেলিভিশনে ও ওয়েবপোর্টালে পাঠদান সম্প্রচার করা হচ্ছে। কিছু শিক্ষার্থী এ সুবিধা থেকে পিছিয়ে থাকায় আগামী ২৫ এপ্রিলের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে কিছুদিন ক্লাস নিয়ে সময় সমন্বয় করে প্রথম সাময়িক পরীক্ষা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিকের ক্লাস শুরু ৫ এপ্রিল

নিজস্ব প্রতিবেদক,২এপ্রিলঃ
করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে স্কুল বন্ধ থাকায় আগামী ৫ এপ্রিল থেকে টেলিভিশনে শুরু হবে প্রাথমিক স্তরের তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঠদান। সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনের মাধ্যমে ওইদিন রেকর্ডিং ক্লাস সম্প্রচার করা হবে। পরবর্তী সময়ে বিটিভিতেও এসব ক্লাস সম্প্রচার করার চিন্তা সরকারের আছে বলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল হোসেন জানিয়েছেন।
সচিব বলেন, প্রাক-প্রাথমিক থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির শিশুদের ডিজিটাল পাঠদানের জন্যও কনটেন্ট প্রস্তুত করছি। টিভিতে এই পাঠদান কার্যক্রম স্থায়ী করার চিন্তা করছি। এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্প কাজ করছে।
জানা গেছে, প্রাথমিকের শিশুদের জন্য পাঠদানের লেকচার রাজধানীতে দুটি স্টুডিওতে রেকর্ডিং করা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার এই রেকর্ডিং কার্যক্রম শুরু হবে। উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, ব্যানবেইস, বিয়ামসহ রাজধানীতে অনেক সরকারি স্টুডিও খালি পড়ে থাকলেও বেসরকারি স্টুডিওতে এই ক্লাস রেকর্ডিং করার উদ্যোগের সমালোচনা হয়েছে।
এ ব্যাপারে সচিব বলেন, আর কোনো স্টুডিও পাওয়া যায়নি বলে আমরা ওই স্টুডিও বাছাই করেছি।
এদিকে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে টিভিতে শুরু হয়েছে মাধ্যদিমকের পাঠদান। গত ২৯ মার্চ সকাল থেকে সংসদ টিভিতে ‘আমার ঘরে আমার ক্লাস’ শিরোনামে মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের ক্লাস সম্প্রচার শুরু হয়েছে। এসব ক্লাস শিক্ষকদেরও দেখা নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। অধিদপ্তর থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পাঠদানের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনে নির্দিষ্ট একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী পাঠদান চলমান আছে। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা কে পাঠদান দেখার জন্য নির্দেশনা দেয়া হল।
জানা গেছে, টেলিভিশনে মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের জন্য পরিচালিত বিষয়ভিত্তিক ক্লাস দেখলেই কাজ শেষ নয়। টিভিতে প্রচারিত প্রতিটি ক্লাসের পর দেয়া হবে বাড়ির কাজ। আর প্রতিটি বিষয়ের আলাদা খাতায় সেই বাড়ির কাজ শেষ করতে হবে। করোনার তা-ব শেষ হলে যখন স্কুল খোলা হবে তখন শিক্ষকদের সেই বাড়ির কাজের খাতা দেখাতে হবে। বাড়ির কাজের প্রাপ্ত নম্বর ধারাবাহিক মূল্যায়নের অংশ হিসেবে বিবেচিত হবে। যতদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ততদিনই টেলিভিশনের মাধ্যমে পাঠদান কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter