Home » Tag Archives: টাইমস্কেল

Tag Archives: টাইমস্কেল

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকরা চান টাইমস্কেল

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৬ জুন:
সরকারি কর্মচারীদের জন্য অষ্টম বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের পর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের বেতনে সৃষ্ট বৈষম্য দূর করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতি। তারা বলেন, কেবল দশম গ্রেড ও ৯-৩-১৪ হতে ১৪-১২-২০১৫ খ্রী: পর্যন্ত টাইম স্কেল দিলেই এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

আজ (২৬-৬-২০২১ ইং) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আয়োজনে বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে ভার্চুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আরো পড়ুন

ঈদ পর্যন্ত বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব মো.জাকির হোসেন মহোদয়, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় সচিব গোলাম মোহাম্মদ হাছিবুল আলম মহোদয়, সভাপতিত্ব করের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মাননীয় মহাপরিচালক জনাব আলমগীর মোহাম্মদ মনসুরুল আলম মহোদয়।

আরো উপস্থিত ছিলেন সকল বিভাগীয় উপ-পরিচালক মহোদয়গণ, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মহোদয়গণ ও বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জনাব রিয়াজ পারবেজ,সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলবম, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জনাব স্বরুপ দাস, সহ সভাপতি জনাব মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন,প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবুল কাশেম সহ ১৩টি শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ। আজ মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় শিক্ষদের দাবি দাওয়া সমূহ মনোযোগ সহকারে শোনেন এবং আন্তঃমন্ত্রণালয়ের মিটিং করে সমস্যা সমাধান করা হবে বলে শিক্ষক নেতৃবৃন্দকে আশ্বস্ত করেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পাচ্ছেন না জাতীয়করণ করা প্রাথমিক শিক্ষকরা

‌নিজস্ব প্রতি‌বেদক,২৯ সে‌প্টেম্বরঃ
সরকারি হওয়ার দিন থেকেই চাকরিকাল গণনা ধরেই টাইম স্কেল দেওয়ার চূড়ান্ত নির্দেশনা দিয়েছে অর্থ বিভাগ। ফলে চাকরির শুরু থেকে পঞ্চাশ শতাংশ চাকরিকাল হিসেবে কোনও সুবিধা পাচ্ছেন না নব্য জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। আর যারা ৫০ শতাংশ চাকরিকাল ধরে টাইম স্কেল নিয়েছেন তাদের অতিরিক্ত টাকাও ফেরত দিতে হবে।
অর্থ মন্ত্রণালয় গত ২৪ সেপ্টেম্বর এ সংক্রান্ত পত্র প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবর পাঠিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ থেকে পাঠানো চিঠি হিসাব মহাপরিদর্শকের কাছেও পাঠানো হয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান সরকারের সময় তিন দফায় ২৬ হাজার ১৯৩টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হয়। প্রথম দফায় ২০১৩ সালে এবং আরও দুই ধাপে ২০১৪ সালের মধ্যে জাতীয়করণ করা হয়। জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আত্তীকৃত প্রাথমিক শিক্ষকরা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরির শুরুর সময় থেকে চাকরিকাল অর্ধেক গণনা করে টাইম স্কেল-সিলেকশন গ্রেড দাবি করে আসছিলেন।

২০১৫ সালের জাতীয় পে-স্কেল অনুযায়ী চাকরির ১০ বছরে এবং পরবর্তী ৮ বছরের উচ্চতর গ্রেড নির্ধারণ করে সরকার। সেই হিসেবে জাতীয়করণের পর থেকে কোনও শিক্ষকের ১০ বছর পূর্ণ হয়নি। ফলে চাকরির শুরু থেকে চাকরিকাল গণনা না করলে সিলেকশন গ্রেড পাবেন না কোনও শিক্ষক। এই কারণে জাতীয়করণের আগে চাকরির শুরু সময় থেকে চাকরিকাল গণনা করে টাইম স্কেল/সিলেকশন গ্রেড দাবি করেন শিক্ষকরা। এই দাবিতে উচ্চ আদালতে অনেকগুলো মামলাও করেছেন তারা। মামলাগুলো চলমান রয়েছে।

অর্থ বিভাগের উপ-সচিব রওনক আফরোজা সুমা স্বাক্ষরিত গত ২৪ সেপ্টেম্বরের চিঠিতে জানানো হয়, জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জাতীয়করণের আগের চাকরিকাল গণনা করে টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড প্রদানের কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়নি। অর্থ বিভাগের ২০১৮ সালের ১ ডিসেম্বর ১৫৫ নম্বর স্মারকের সংশ্লিষ্ট অনুচ্ছেদ আলোচ্য ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক নয়। ফলে এ সংক্রান্ত পত্রালাপে আরও সতর্কতা অবলম্বনের প্রয়োজনীয়তা ছিল। অর্থ বিভাগের জারি করা গত ১২ আগস্টের সিদ্ধান্ত সঠিক আছে। বিধায় সেই অনুযায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অর্থ বিভাগের গত ১২ আগস্টের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, জাতীয়করণ করা বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (চাকরির শর্তাদি নির্ধারণ) বিধিমালা, ২০১৩ -এর বিধি ২(গ) উল্লেখিত ‘কার্যকর চাকরিকাল’ একই বিধিমালার বিধি ১০-এ উল্লিখিত শুধু পেনশন গণনার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। অর্থ বিভাগের সম্মতি গ্রহণ না করে উল্লিখিত বিধিমালার ২(গ), ৯ এবং ১০ এর ব্যত্যয় ঘটিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ২০১৪ সালের ৫ জুন জারি করা পরিপত্রের টাইম স্কেল গণনা সংক্রান্ত ৩.০১ অনুচ্ছেদ বিধিসম্মত নয়। বিধায় এ সংক্রান্ত মঞ্জুর আদেশ সংশোধনপূর্বক অতিরিক্ত প্রদানকৃত অর্থ কর্মচারীদের কাছ থেকে আদায়যোগ্য।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, উল্লিখিত বিষয়ে আর্থিক সংশ্লেষ ছিল বিধায় অর্থ বিভাগের সম্মতি ছাড়া হিসাবরক্ষণ অফিসগুলো টাইম স্কেল প্রদান সংক্রান্ত বিল পাস করা জিএফআর বিধি ৫০ এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। বিধায় মহা হিসাব নিয়ন্ত্রককে দায়ী কর্মচারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অতিরিক্ত পরিশোধিত বিধি মোতাবেক আদায়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হলো।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল জটিলতা নিরসণের আশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক,৬ আগস্ট:

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড এবং সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন দেওয়ার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে চলেছে আন্দোলন। তবে সে দাবি মেনে না নিলেও প্রধান শিক্ষকদের এখন ১১তম গ্রেডে বেতন দিচ্ছে সরকার। আর সহকারী শিক্ষকরা পাচ্ছেন ১৩তম গ্রেডে। তবে গত বছর তাদেরকে এই নতুন ধাপে বেতন দেওয়া হলেও নতুন করে সমস্যার আবর্তে জড়িয়ে পড়েছেন শিক্ষকরা।

জানা গেছে, নতুন বেতন স্কেল নির্ধারণের পর প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকরা টাইমস্কেল জটিলতার সমাধান পেতে চলেছে। তবে পদোন্নতি, শ্রান্তি-বিনোদন ভাতা, চাকরি স্থায়ীকরন নিয়ে জটিলতাসহ নানা কারণে তাদের মধ্যে ক্ষোভ দানা বাঁধছে। অপরদিকে সহকারী শিক্ষকদের নতুন গ্রেডে বেতন কমে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এছাড়া গ্রেডসহ আরও কিছু জটিলতা থাকার কারণে ক্ষুব্ধ সহকারী শিক্ষকরাও।

এ নিয়ে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক টাইমস্কেল বঞ্চিত গ্রুপের আহবায়ক স্বরুপ ‍দাস গণমাধ্যমকে বলেন,টাইমস্কেল নিয়ে প্রাথমিক ও গনশিক্ষামন্ত্রনালয় ও অর্থ মন্ত্রনালয়ের মধ্যে আলোচনা চলছে। ইতিমধ্যে বরফ গলতে শুরু হয়েছে। আমরা যোগাযোগ অব্যহত রেখেছি। আশা করছি দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।

উল্লেখ্য এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম আল হোসেন বলেছেন,গতকাল আমরা অর্থমন্ত্রনালয়ের সাথে বৈঠক করেছি। প্রধান শিক্ষকরা যাতে টাইমস্কেল পাই সে ব্যাপারে সব ডকুমেন্টসহ অর্থ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিবের সাথে আলোচনা করেছি।
এ ব্যাপারে অর্থ মন্ত্রণালয়ের পরামর্শমতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter