Home » Tag Archives: আফগানিস্তান

Tag Archives: আফগানিস্তান

আফগানিস্তানে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার ঘোষণা না আসায় উদ্বেগে জাতিসংঘ

ডেস্ক:

মেয়েদের স্কুল যাওয়ার কোনো নির্দেশনা না আসায় আফগানিস্তানে নারীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। শনিবার থেকে দেশটিকে মাধ্যমিক স্কুল খোলা হলেও মেয়েদের স্কুলে যাওয়া বিষয়ে কোনো নির্দেশনা আসেনি।

জাতিসংঘ শিশু তহবিল বা ইউনিসেফ বলেছে, ‘সব বয়সী মেয়েদের জন্য আর দেরি না করে পুনরায় শিক্ষা শুরু করার সুযোগ দেওয়ার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ।
তালেবান নারীদের বিষয়ে কট্টরপন্থা থেকে সরে আসেনি তার আরেকটি প্রমাণ দেখা গেছে নারী মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করার মধ্য দিয়ে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, আফগানিস্তানে নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয় বন্ধ করে দিতে চাইছে তালেবান। এ মন্ত্রণালয়কে নীতিনৈতিকতা-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বদল করার চেষ্টা চলছে।
নারীবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নামফলক মুছে ফেলে বসানো হয়েছে নীতিনৈতিকতা-বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ফলক।

সম্পূর্ণ খবর পড়ুন>

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

তালেবানকে সহযোগিতার আহ্বান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর

আফগানিস্তানকে শান্তি ও স্থিতিশীলতার পথে নিয়ে যাওয়ার সবচেয়ে সেরা পন্থা হচ্ছে তালেবানের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়া এবং নারী অধিকার ও অন্তর্বর্তী সরকারের মতো বিষয়গুলোতে উৎসাহিত করার আহ্বান জানয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

বুধবার ইমরান খান তার নিজস্ব বাসভবনে সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন। তালেবান ক্ষমতায় আসার পর এই প্রথম পাকপ্রধানমন্ত্রী আফগানিস্তান ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিলেন।

ইমরান খান বলেছেন, ‘তালেবানের হাতে পুরো আফগানিস্তানের দখল রয়েছে এবং তারা যদি এখন একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকারের দিকে কাজ করতে পারে, সব উপদলকে একত্রিত করতে পারে, তাহলে ৪০ বছর পর আফগানিস্তান শান্তি ফিরে পাবে। তবে তারা যদি ভুল পথে যায়, যেটি নিয়ে আমরা সত্যিকারার্থে উদ্বিগ্ন, তাহলে এটি বিশৃঙ্খলার দিকে যেতে পারে। তাহলে সবচেয়ে বড় মানবিক সংকট, একটি বিশাল শরণার্থী সমস্যা তৈরি হতে পারে।’

তিনি দাবি করেন, সংকট এড়াতে তালেবান আন্তর্জাতিক সহযোগিতা চাইছে। এই সহযোগিতার মাধ্যমে তালেবানকে সঠিক পথে নিয়ে যাওয়া যেতে পারে। তবে কোনো বাহিরের শক্তির মাধ্যমে আফগানিস্তানকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না বলেও সতর্ক করেন পাকপ্রধানমন্ত্রী।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আফগানিস্তানে তালেবান স্টাইলে হবে নারী শিক্ষা

সম্প্রতি আফগানিস্তানের ক্ষমতা নিয়েছেন তালেবানরা। এরই মধ্যে নতুন বিধিনিষেধ ও নিয়ম কানুন চালু করেছে তালেবানরা। তার মধ্যে একটি হচ্ছে আফগানিস্তানে ছেলে ও মেয়ে শিক্ষার্থীর আলাদাভাবে শিক্ষাদানের ব্যবস্থা। মেয়ে শিক্ষার্থীদের জন‌্য ইসলামসম্মত পোশাক ও নিয়ম কানুনও চালু করা হবে।

দেশটির উচ্চশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী আবদুল বাকি হাক্কানি ইঙ্গিত দিয়েছেন যে মেয়েদের লেখাপড়া করতে দেওয়া হবে, কিন্তু একসঙ্গে পুরুষের পাশাপাশি নয়।

তালেবান ক্ষমতায় আসার পর বলেছিলো, তারা নারীদের শিক্ষা বা চাকরিতে বাধা দেবে না। কিন্তু পরে তারা জনস্বাস্থ্য ছাড়া অন্য সব ক্ষেত্রে কর্মরত নারীদের নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নত না হওয়া পর্যন্ত কাজে না আসার নির্দেশ দেয়।

রোববার কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে তালেবানের পতাকা ওড়ানো হয়। এরপরই শিক্ষা সংক্রান্ত নীতি ঘোষণা করলো তালেবান। গত একমাস আগে আফগানিস্তানে ক্ষমতা দখল করে তালেবান।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আফগানিস্তানে বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের বোরখা পরার নির্দেশ তালেবানের

তালেবানরা আফগানিস্তান দখলে র পর থেকে তারা তাদের নিজেদের নিয়ম তৈরি শুরু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় নতুন একটি নিয়ম তৈরি করেছেন সেটি হচ্ছে-আফগানিস্তানের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলকভাবে পূর্ণ মুখঢাকা বোরখা পরতে হবে।

এছাড়া লিঙ্গের ওপর ভিত্তি করে শ্রেণিকক্ষ ভাগ করতে হবে, অন্ততপক্ষে শ্রেণিকক্ষে নারী ও পুরুষদের বসার স্থান পর্দা দিয়ে বিভক্ত করতে হবে।

তালেবানের শিক্ষা কর্তৃপক্ষের জারি করা দীর্ঘ নির্দেশনায় বলা হয়েছে, নারী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদানের দায়িত্বে কেবল নারী শিক্ষকই থাকবেন। তবে যদি কোনো কারণে তা সম্ভব না হয়, তাহলে ভালো চরিত্রের ‘বৃদ্ধ পুরুষ’ সেই দায়িত্ব পালন করবেন।

সোমবার থেকে আফগানিস্তানের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলা হচ্ছে।

তালেবানের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে তাদের সুযোগ-সুবিধার ভিত্তিতে নারী শিক্ষার্থীদের জন্য নারী শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে। নারী ও পুরুষদের জন্য পৃথক প্রবেশ ও বর্হিগমন পথ থাকতে হবে।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা প্রয়োজন মনে করে ব্রিটেন

তালেবান সরকারকে দ্রুত স্বীকৃতি দেওয়ার কোনো পরিকল্পনা ব্রিটিশ সরকারের নেই। তবে তালেবানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখা প্রয়োজন বলে মনে করে ব্রিটেন।

বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেইখ মোহাম্মদ বিন আব্দুর রহমান আল থানির সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কাতারি কর্তৃপক্ষ তাকে নিশ্চিত করেছেন যে, ভবিষ্যতে আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না, আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখা হবে এবং আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার প্রতিষ্ঠায় তালেবান যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তার জন্য তাদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা হবে।

তিনি আরও বলেছেন, ‘আফগানিস্তানকে দেওয়া আমাদের প্রতিশ্রুতি বহাল থাকবে। নতুন বাস্তবতার সঙ্গে সমন্বয় করতে আমাদের সময় প্রয়োজন।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

২০ বছর পর আফগানিস্তানে ফিরলো লাদেনের সহযোগী আমিন উল-হক

আফগানিস্তান থেকে সোমবার (৩০ আগস্ট) মার্কিন সেনারা বিদায় নিতে না নিতেই ২০ বছর পর দেশটিতে ফিরেছেন ওসামা বিন লাদেনের এক ঘনিষ্ঠ সহযোগী আমিন উল-হক। আফগানিস্তান ছাড়ার পর পরই তিনি তার জন্মস্থান নানগারহার প্রদেশে ফিরেন। তিনি একজন আল-কায়েদার অস্ত্র সরবরাহকারী।

আমিন উল-হক এক সময় ওসামা বিন লাদেনের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা ছিলেন। সোমবার প্রকাশিত এক ভিডিওতে দেখা যায় আমিন উল-হকের আগমন উপলক্ষে প্রচুর জনসমাগম হয়। মানুষজন তার গাড়ীর আশ-পাশে ভিড় করে ছিল। এ সময় গাড়ীর ভেতর থেকে উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে হাত নাড়ছিলেন তিনি।

একটা সময় গাড়ীর কাচ নামান এবং বেশ কিছু মানুষ তার হাতে চুমু খেতে ছুটে যায়। তার সঙ্গে সেলফি তোলে। আর তার গাড়ীর সঙ্গেই ছিল অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত গাড়ীর বহর। তাদের মধ্যে কেউ কেউ তালেবানের পতাকা বহন করছিল।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter