Home » কলেজ

কলেজ

২০২৩ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা সব বিষয়ে

ডেস্ক,১৩ মে ২০২২:
মহামারীর খাঁড়া কাটিয়ে আগামী বছর স্বাভাবিক সময়ের মতো এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে সরকার।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির এক আদেশে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালের এই দুই পাবলিক পরীক্ষা ২০২২ সালের পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী সব বিষয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

এসএসসিতে আইসিটি পরীক্ষার পূর্ণ নম্বর থাকবে ৫০।অন্যান্য প্রতিটি বিষয়ে ৩ ঘণ্টা সময়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

এইচএসসি পর্যায়ে প্রতিটি বিষয়ে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা ৩ ঘণ্টায় অনুষ্ঠিত হবে।

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে চার মাস পিছিয়ে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষা ১৯ জুন থেকে এবং এইচএসসি পরীক্ষা ২২ অগাস্ট থেকে শুরুর কথা রয়েছে।
এ বছর এসএসসিতে ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এবং বিজ্ঞানের পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এ বিষয়গুলোর নম্বর সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে।

এইচএসসিতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি পরীক্ষা না নিয়ে তা সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে নম্বর দেওয়া হবে।

এসএসসি ও এইচএসসিতে এবার ২ ঘণ্টায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

হাইস্কুল-কলেজে রমজানের ছুটি বাড়লো

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৪ এপ্রিল, ২০২২
আগামী ২০ এপ্রিল পর্যন্ত হাইস্কুল-কলেজে ক্লাস চলবে। রমজান মাসে শুক্র-শনিবার হাইস্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে। রমজানে আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত হাইস্কুল-কলেজে ক্লাস চালানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছিলো। কিন্তু পরে ছুটি বাড়িয়ে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত ক্লাস নেয়ার ঘোষণা আসলো।

সোমবার সন্ধ্যায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের দৈনিক শিক্ষাবার্তাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরো পড়ুনঃ প্রতিষ্ঠান প্রধানদের মতের ভিত্তিতেই রমজানে ক্লাস : মহাপরিচালক

তিনি জানিয়েছেন, ২০ এপ্রিল পর্যন্ত হাইস্কুল ও কলেজের ক্লাস চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। রমজান মাসে শুক্র-শনিবার হাইস্কুল-কলেজে সাপ্তাহিক ছুটি থাকবে। এ নিয়ে শিগগিরই আদেশ হবে।

এর আগে আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত ক্লাস চালানোর নির্দেশনা দিয়েছিলো শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। সে অনুসারে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে জারি করা আদেশে স্কুল-কলেজগুলোকে ২৬ এপ্রিল বা ২৪ রমজান পর্যন্ত ক্লাস চালানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছিলো।

অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী, এক শিফটের প্রতিষ্ঠান সকাল সাড়ে নয়টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত ক্লাস নেবে। দুই শিফটের প্রতিষ্ঠান প্রভাতী শিফটে সকাল সাড়ে আটটা থেকে বেলা ১১টা ১০ মিনিট পর্যন্ত দিবা শিফটে সাড়ে ১১টা থেকে দুইটা ১০ মিনিট পর্যন্ত ক্লাস চলবে। দুই শিফটের জন্য প্রতি শিফটে প্রতিদিন চারটি ক্লাস ও এক শিফটের জন্য প্রতিদিন পাঁচটি ক্লাস অনুষ্ঠিত হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো স্ব স্ব রুটিন প্রণয়ন করবে।

বাড়তে পারে স্কুল-কলেজের ছুটি

নিজস্ব প্রতিবেদক,০৩ এপ্রিল ২০২২
রমজানে স্কুল-কলেজ পর্যায়ে আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত নিয়মিত ক্লাস চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এমন সিদ্ধান্তে নানা পর্যায়ে শুরু হয়েছে আলোচনা- সমালোচনা। এবার এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে পারে শিক্ষামন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আরো খবরঃ বদলি বন্ধে বিড়ম্বনায় শিক্ষকরা

রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, ছুটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষামন্ত্রণালয়। এ ক্ষেত্রে মাউশির কোনো ভূমিকা নেই। তবে এটুকু বলতে পারি ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে চিন্তাভাবনা করছে। মনে হচ্ছে এ বিষয়ে পজেটিভ সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

এর আগে গত ২৮ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব নজরুল ইসলামের সই করা অফিস আদেশ আগামী ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত নিয়মিত ক্লাস চালু রাখার কথা জানানো হয়।

অফিস আদেশে বলা হয়, করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি পূরণ করতে এ বিভাগের আওতাধীন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান অব্যাহত রাখার অনুরোধ করা হলো।

রমজানে স্কুল-কলেজঃ ক্লাস চলবে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৭ মার্চ ২০২২ঃ
করোনাকালীন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে রোজার মাসের বেশিরভাগ সময়ই স্কুল-কলেজ খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, দেশের সব স্কুল-কলেজে ক্লাস চলবে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত।

আরো পড়ুনঃ ৭ দিনের মধ্যে প্রাথমিকের বদলি চালুর পদক্ষেপ নিতে নোটিশ

সোমবার (২৮ মার্চ) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এক আদেশে সরকারের এ সিদ্ধান্ত জানিয়েছে।
আদেশে বলা হয়েছে, করোনার কারণে দীর্ঘদিন শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত শ্রেণিকক্ষে পাঠদান অব্যাহত রাখার অনুরোধ করা হচ্ছে।

একইসঙ্গে আদেশে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

এর আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে জারি করা এক আদেশে ২০ রমজান পর্যন্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা রাখার সিদ্ধান্ত জানানো হয়। এক্ষেত্রে প্রাথমিকে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত ক্লাসের সময়সীমা নির্ধারণ করে অধিদপ্তর।

এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই শুরু হচ্ছে সিয়াম সাধনার মাস পবিত্র মাহে রমজান। প্রতিবছর রোজার মাস ঘিরে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকে। তবে করোনার দুই বছরে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা অনেকটা ব্যাহত হওয়ায় ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবছর রোজার মাসে স্কুল-কলেজে ক্লাস চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিলো সরকার।

এসএসসি ও এইচএসসির নতুন সিলেবাস প্রকাশ

ডেস্ক,১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২ঃ
২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে জুন মাসে। আর এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া হবে আগস্ট মাসে। এটি নিশ্চিত করেছে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড। তবে চলতি বছর দুটি পাবলিক পরীক্ষায় বাংলা ২য় পত্র ও ইংরেজি প্রথম ও ২য় পত্রের পাঠ্যসূচি অধিকতর পরিমার্জন করে পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে।

রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ড ঢাকা এ বিষয়ে একটি অফিস আদেশ জারি করেছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) প্রফেসর তপন কুমার সরকার।

পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির আলোকে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করার জন্য জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডকে (এনসিটিবি) অনুরোধ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, এর আগে ৭ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দুই বিষয়ের পাঠ্যসূচি পুনর্বিন্যাস করা হয়।

নতুন পুনর্বিন্যাসে বাংলা দ্বিতীয়পত্রের ব্যাকরণ থেকে ১৫ নম্বর থাকবে। আর নির্মিতি হিসেবে থাকবে ৩৫ নম্বর। এছাড়াও ইংরেজি প্রথম পত্রে থাকছে ৫০ নম্বর। একই নম্বরে পরীক্ষা হবে ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রও।

নতুন সিলেবাসে কি কি আছে দেখতে ক্লিক করুন

স্কুল-কলেজ খুললে যেভাবে ক্লাস

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ঃ

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে স্কুল কলেজে সশরীরে পাঠদান শুরু হচ্ছে। জানুয়ারিতে যে অবস্থায় শ্রেণিকক্ষে পাঠদান বন্ধ হয়েছে, সেই জায়গা থেকেই স্কুল-কলেজ খুললে পাঠদান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেছেন, আমাদের ক্লাসের সংখ্যা যে রকম ছিল, আমরা এখন শুরু করব সেই জায়গায়। তারপরে আমরা চেষ্টা করব সেই সংখ্যাকে পরিস্থিতি সাপেক্ষে বাড়িয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে যাওয়ার।
আরো পড়ুনঃ প্রাইমারি স্কুলের দপ্তরিদের কাজ না করলে সেবামূল্য দেয়ার সুযোগ নেই : অধিদপ্তর

বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।
সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারিতে বন্ধের আগ পর্যন্ত একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে প্রতিদিনই ক্লাস হত। আর পাঠদান হত তিন বিষয়ের। ৩০ ডিসেম্বর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর মাধ্যমিক স্তরে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনায় সর্বশেষ নির্দেশনা দেয়।

সে হিসেব অনুযায়ী, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের সপ্তাহে প্রতিদিন চারটি বিষয়ের ওপর ক্লাস নেয়া হবে, ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে প্রতিদিন (বিদ্যালয় খোলা থাকা সাপেক্ষে) ক্লাস হবে এবং দিনে তিনটি বিষয়ের ক্লাস নেয়া হবে। এছাড়া অষ্টম ও নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে দুইদিন তিনটি করে বিষয়ের ওপর ক্লাস নেয়া হবে। ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য সপ্তাহে একদিন তিনটি বিষয়ে ক্লাস নেয়া হবে। আর ২০২২ খ্রিষ্টাব্দের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রতিদিন চারটি বিষয়ের ক্লাস নিতে হবে কলেজগুলোকে।

ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজের চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রকাশ

অনলাইন ডেস্ক, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২:
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের স্নাতক প্রথম বর্ষ ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের বিষয় ও কলেজ বরাদ্দের চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রকাশিত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ শিক্ষার্থীদের ইউনিক আইডি’র ডাটা এন্ট্রির সময়সীমা বেড়েছে

সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ৯টার দিকে অধিভুক্ত কলেজগুলোর জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট- https://cutt.ly/wEjvGJE -এ লগইন করে বিষয় ও কলেজ মনোনয়নের ফল দেখতে পারবেন।

এইচএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ঃ

আজ থেকে এইচএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ এনসিটিবির নতুন চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরহাদুল ইসলাম

যেসব পরীক্ষার্থী ফলে অসন্তুষ্ট হয়েছেন তারা ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনের সুযোগ পাবেন। ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন গ্রহণ শুরু। ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এসএমএসের মাধ্যমে করা যাবে।

শিক্ষা বোর্ড থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এতে বোর্ড বলছে, ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এসএমএসের মাধ্যমে ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

উদারভাবে খাতা দেখা, ইংরেজি পরীক্ষা না হওয়ায় রেকর্ড পাসের নেপথ্যে

ডেস্ক,১৪ ফ্রেবুয়ারী ২০২২ঃ
অতীতের সব রেকর্ড ভেঙেছেন এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীরা। ১ লাখ ৮৯ হাজার ১৬৯ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন।

২০০১ খ্রিষ্টাব্দে এই পদ্ধতি চালু হওয়ার পর এটিই সর্বোচ্চ। জিপিএ ফাইভে গতবছরের অটোপাসকেও হার মানিয়েছে। গত বারের (২০২০) তুলনায় ২৭ হাজার ৩৬২ জন বেশি পরীক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন।

আরো পড়ুনঃ এ মাসের শেষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী

আর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে এসএসসি ও জেএসসির ফল মূল্যায়ন করে ১ লাখ ৬১ হাজার ৮০৭ জনকে এই পরীক্ষায় জিপিএ ফাইভ দেয়া হয়েছিলো।

এর আগে ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের সব বিষয়ের পরীক্ষা দিয়ে এইচএসসি ও সমমানে ৪৭ হাজার ২৪৮ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ অর্জন করেছিলেন।

গত কয়েক বছরের ফল পর্যালোচনায় দেখা গেছে, এ বারে তিন বিষয়ের পরীক্ষায় সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন। এই পরীক্ষা ও ফল প্রকাশ ২০২১ খ্রিষ্টাব্দেই হওয়ার কথা থাকলেও করোনার ছোবলে তা করা যায়নি।

জিপিএ ফাইভ বৃদ্ধির তিনটি কারণ চিহ্নিত করেছেন শিক্ষা প্রশাসনের কর্তারা। তাদের মতে, সংক্ষিপ্ত সিলেবাস, জেএসসি ও এসএসসির ফল হিসেবে অবশ্যিক বিষয়ের নম্বর দেয়া এবং ইংরেজি বিষয়ের পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ে মূল্যায়ন করায় জিপিএ ফাইভ বেড়েছে।

উদারভাবে খাতা দেখার বিষয়টিও ছিলো। এদিকে শিক্ষাবিদরা বলছেন, ঢালাওভাবে জিপিএ ফাইভ দেয়ায় শিক্ষার্থীদের প্রত্যাশা বাড়বে। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো সর্বোচ্চ ফল করা শিক্ষার্থীদের আসন দিতে পারবে না। যা দীর্ঘমেয়াদি প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের হাতাশা বাড়াবে।

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসির বিষয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২২
২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তবে পরীক্ষার দিনক্ষণের বিষয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

|আরো খবর: ১২ ক্যাডেট কলেজে শতভাগ জিপিএ-৫

রোববার ২০২১ সালের উচ্চ মাধ্যমিক বা এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশের অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা কোন কোন বিষয়ে নেয়া হবে সেই ব্যাপারে ইতোমধ্যেই মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। কিছু সাবজেক্ট পরীক্ষার আওতায় আসছে না।

২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা কবে শুরু হবে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এ বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাইছি না। কারণ সবকিছু নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির উপর। দেখা যাচ্ছে আমরা একটি তারিখ ঘোষণা করলাম, পরে কোভিড সংক্রমণ বেড়ে গেলো। একারণে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সময় আসলেই চলতি বছরের পাবলিক পরীক্ষার তারিখ জানিয়ে দেয়া হবে।

জানা যায়, ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষাও অন্যান্য বছরের মতো হয়নি; পরীক্ষা হয় শুধু নৈর্বাচনিক বিষয়ে। আর আবশ্যিক বিষয়ে আগের পাবলিক পরীক্ষার সাবজেক্ট ম্যাপিং করে মূল্যায়নের মাধ্যমে নম্বর দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বাদ দেয়া হয় চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষাও।

২০২২ সালের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষাও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১৮ নভেম্বর ২০২১

আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষাও সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান তিনি।

আরো খবরঃ স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষার ফল ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে

তিনি বলেন, ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলে পরীক্ষা নেওয়ার সুযোগ কিছুটা কম। সেক্ষেত্রে কিছুটা পেছাবে। কতটা পেছাবে, এটাও এ মুহূর্তে বলা খুব জটিল। কারণ সারাবিশ্বে করোনা আবার বাড়ছে। আমাদের এখানে পরপর দু বছরই কিন্তু মার্চ মাসের দিকেই করোনা বেড়েছিল।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আগামী মার্চ-এপ্রিলে কী অবস্থা হবে, তা আমরা বলতে পারছি না। সেজন্য পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়েই পরীক্ষার সময়সূচি নির্ধারণ করব।

বৈঠকে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক, আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাবকমিটির সভাপতি অধ্যাপক নেহাল আহমেদ অংশ নেন।

ডিগ্রির ৭৭০ তৃতীয় শিক্ষক হচ্ছেন এমপিওভুক্ত

ডেস্ক.৯ নভেম্বর ২০২১ : এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ৭৭০ জন ডিগ্রির তৃতীয় শিক্ষক।মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর ২০১০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বিভিন্ন কলেজে গভর্নিং বডির মাধ্যমে নিয়োগ পাওয়া এসব শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করার ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

গতকাল রোববার এ নির্দেশ দিয়ে আদেশ জারি করা হলেও আদেশটি সোমবার প্রকাশ করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। একই সাথে এসব শিক্ষকের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ প্রাথমিকে পিইসি পরীক্ষার পরিবর্তে যেভাবে হবে মূল্যায়ন

অধিদপ্তর থেকে আঞ্চলিক উপপরিচালকদের এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এসব শিক্ষককের অনলাইনে এমপিওভুক্তির আবেদন করতে হবে।

অধিদপ্তর থেকে জারি করা আদেশে বলা হয়েছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রিস্তরে নিয়োগপ্রাপ্ত ৮৪১জন তৃতীয় শিক্ষককে শর্ত পূরণ সাপেক্ষে এমপিওভুক্ত করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে অনুরোধ করা হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা ও শর্তে বলা আছে, ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নিয়োগপ্রাপ্তদের এমপিওভুক্ত করা হবে।

আরো পড়ুনঃ বড় সিলেবাসে পরীক্ষা নয়: শিক্ষামন্ত্রী

সে মোতাবেক ২০১০ খ্রিষ্টাব্দের ৪ ফেব্রুয়ারির পর ও ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত গভর্নিং বডি কর্তৃক নিয়োগ পাওয়া ৭৭০ জন ডিগ্রি পর্যায়ে তৃতীয় শিক্ষককে অনলাইনে এমপিওতে অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আঞ্চলিক পরিচালকদের অনুরোধ করা হলো।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এ ৭৭০ জন শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করার বিষয়ে কয়েকদফা শর্ত দিয়েছে। শর্ত হিসেবে বলা হয়েছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ডিগ্রি স্তর এমপিওভুক্ত থাকতে হবে। তৃতীয় শিক্ষকদের নীতিমালা অনুযায়ী নিয়োগকালীন কাম্যযোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করতে হবে। তৃতীয় শিক্ষক নিয়োগ করা হয়নি এমন প্রতিষ্ঠানের নতুনভাবে তৃতীয় শিক্ষক নিয়োগ করা যাবে না।

শর্ত হিসেবে আরও বলা হয়েছে, কলেজে নিয়োগ থেকে নিরবিচ্ছিন্ন ও ধারাবাহিকভাবে কর্মরত থাকার বিষয়টি অধ্যক্রে প্রত্যয়নের মধ্যমে নিশ্চিত করতে হবে। নিয়োগ প্রক্রিয়ার কাগজপত্রে স্নাতক (পাস) স্তরে তৃতীয় শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের প্রমাণক থাকতে হবে। কলেজের অনার্স মাস্টার্স পর্যায় অথবা তৃতীয় শিক্ষক ছাড়া অন্য কোনো পদে নিয়োগপ্রাপ্তদের এমপিওভুক্ত করা যাবে না। নিয়োগ নিষেধাজ্ঞা থাকায় সদ্য সরকারিকৃত কোন কলেজের তৃতীয় শিক্ষক এমপিওভুক্ত করা যাবে না। এমপিওভুক্তির অন্যান্য শর্তগুলো যথারীতি প্রতিপালন করতে হবে।

শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণসহ ৫ দফা দাবী জানাল বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি

ডেস্ক,৫ নভেম্বর ২০২১ :
শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণসহ ৫ দফা দাবী জানাল বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি। শুক্রবার সমিতির কেন্দ্রীয় পরিষদের সভা থেকে এ দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক নেতারা। সভাটি সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ এম.এ. আউয়াল সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে পল্লবী নাহার একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তি: ভেরিফিকেশন ছাড়াই যোগদান

উক্ত সভায় সমিতির শিক্ষক নেতারা বলেন, আমরা বেসরকারি শিক্ষকরা দেশের ৯৫ ভাগ শিক্ষার্থীর শিক্ষাদান করে থাকি, অথচ আমাদের ন্যায্য দাবি চাকরি জাতীয়করণ থেকে আমরা বঞ্চিত। তাই শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের মাধ্যমে সকল বৈষম্য দূর করতে হবে। এছাড়া শিক্ষক নেতারা আরও দাবি জানিয়েছেন।

দাবিগুলো হল-

১. বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের অবসর সুবিধাবোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে আর্থিক সুবিধা প্রদানের পরিবর্তে পূর্ণাঙ্গ পেনশন চালুকরণ।

২. পূর্ণাঙ্গ উৎসব ভাতা ও মেডিকেল ভাতা প্রদান।

৩. বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষকের বেতন স্কেল সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষকের বেতন স্কেলের অনুরূপ বেতন স্কেল নির্ধারণ।

৪. উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ শিক্ষকদের পদন্নোতির ক্ষেত্রে অনুপাত প্রথা বাতিল করণ।

৫. এবং উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ প্রভাষকদের পদন্নোতির ক্ষেত্রে ‘জ্যেষ্ঠ প্রভাষক’ নামকরণের পরিবর্তে পূর্বের ‘সহকারী অধ্যাপক’ পদ বহাল রাখার দাবিও জনানো হয় সভায়।

সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বিলকিস জামান, সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সমরেন্দ্রনাথ রায় সমর, অধ্যক্ষ মোঃ আবু তাহের, অধ্যাপক মোঃ ফজলুল হক খান, মোঃ আব্দুল মজিদ, মোঃ শামসুল হুদা প্রামানিক, হাসিনা পারভীন, মোঃ শাহাদুল হক, মোঃ হাফিজুর রহমান তালুকদার, জেব-উন-নিসা, সাহিদা বেগম, ব্রজেন্দ্র নাথ সরকার, তাজকিরা বেগম, মোঃ শাহে আলম, মোঃ মামুন আর রশিদ, মোঃ ইউসুফ আলী, রওশন আরা বেগম, মোঃ সাহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক মধুসুদন বাগচী, মোঃ ফজলুর রহমান, এস এম শহীদুল ইসলাম তালুকদার, মোঃ শফিকুল আলম।

এছাড়াও অধ্যাপক বিপ্লব কুমার সেন, অধ্যাপক এ কে এম সায়েদ হোসেন ফারুক, মোঃ আব্দুস সামাদ শিকদার, মোঃ আব্দুল হামিদ, মনোজ ব্যাপারী, প্রিয়শঙ্কর বন্দোপাধ্যায়, শামীম আরা ইয়াসমিন, অধ্যক্ষ মোঃ খালেকুজ্জামান জুয়েল, মোঃ কামরুজ্জামান, মোঃ শহীদুল ইসলাম তালুকদার, মোঃ নওশের আলম, মোঃ নবী নেওয়াজ, এ কে এম আব্দুল মতিন, মোঃ আনোয়ার হোসেন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, আহম্মদ আলী, মোঃ আতিকুর রহমান মিয়া, হালিমা খাতুন, মোঃ হাসিনুর রহমান, মোঃ আনসার আলী, মোঃ শাহজাহান মিয়া, ইস্কান্দার মির্জা, রঞ্জিত কুমার পাল, মোঃ শফিকুল ইসলাম, মোঃ হাবিবুর রহামন প্রমুখ।

user

ফরম পূরণের বেঁচে যাওয়া টাকা ফেরত পাবে এসএসসি পরীক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৭ অক্টোবর ২০২১ঃ

মহামারি করোনার কারণে এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ৯ মাস পিছিয়েছে। আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে এ পরীক্ষা। এবার পরীক্ষা নেয়া হবে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে। সব বিষয়ে পরীক্ষা না হওয়ায় পরীক্ষার ব্যায় কমেছে। তাই নিজেদের ফরম পূরণের অব্যায়িত এই টাকা ফেরত পাবে পরীক্ষার্থীরা।

আরো খবর চবির ছাত্রীর বড় বোনকে যৌন হয়রানি

বুধবার দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সকল বিষয়ে পরীক্ষা না হওয়ার কারণে পরীক্ষার ব্যায় কমে যাওয়ায় পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণে আদায়কৃত অর্থের অব্যায়িত অংশ ফেরত দেয়া হবে।

সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, করোনার কারণে বিলম্ব হওয়া এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা চলতি বছরের আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে।

সারাদেশে মোট ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে এবার। এ পরীক্ষায় ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে।

পরীক্ষার পদ্ধতি:

চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি এবং সমমানের পরীক্ষা সব বিষয়ে না নিয়ে কেবল গ্রুপভিত্তিক নৈর্বাচনিক তিন বিষয়ে নেয়া হবে। পরীক্ষা হবে ৫০ নম্বরের। তিন ঘণ্টার পরীক্ষা হবে দেড় ঘণ্টায়। উত্তরপত্রে ১০০ নম্বরের ওপর মূল্যায়ন করা হবে।

সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে প্রথমে বহুনির্বাচনী ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এমসিকিউ এবং সিকিউ অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না। সকাল ১০টা থেকে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষার ক্ষেত্রে সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে অলিখিত উত্তরপত্র ও বহুনির্বাচনী ওএমআর সিট বিতরণ, সকাল ১০টায় বহুনির্বাচিনী প্রশ্নপত্র বিতরণ, সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে বহুনির্বাচনী উত্তরপত্র ওএমআর শিট সংগ্রহ ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হবে।

দুপুর ২টা থেকে শুরু হওয়া পরীক্ষার ক্ষেত্রে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে অলিখিত উত্তরপত্র ও বহুনির্বাচনী ওএমআর সিট বিতরণ করা হবে। দুপুর ২টায় বহুনির্বাচনী প্রশ্নপত্র বিতরণ, দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে বহুনির্বাচনী (ওএমআর শিট) উত্তরপত্র সংগ্রহ ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাকক্ষে নিজ আসনে বসতে হবে।

‘প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে ফয়েল পেপারে মোড়ানো প্রশ্নপত্র কেন্দ্রে পাঠানো হবে এবং পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে এসএমএস এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্টদের কাছে প্রশ্নপত্রের সেট কোড জানিয়ে দেওয়া হবে।’

মোট পরীক্ষার্থী:

সারাদেশে মোট ৩ হাজার ৬৭৯টি কেন্দ্রে এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষা হবে। এ পরীক্ষায় ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। তাদের মধ্যে ১৮ লাখ ৯৯৮ জন ৮টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি, ৩ লাখ ১ হাজার ৮৮৭ জন মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে দাখিল এবং ১ লাখ ২৪ হাজার ২২৮ জন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি ভকেশনাল পরীক্ষার্থী দিবে।

কোচিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা:

সংবাদ সম্মেলনে দীপু মনি জানান, এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা উপলক্ষে আগামী ৮ থেকে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে।

নির্দেশনা:

পরীক্ষাকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিচার ফোন (স্মার্টফোন ছাড়া) ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়া পরীক্ষার হলে অন্য কেউ ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না।

এখন আর ক্লাসের সংখ্যা বাড়ছে না : শিক্ষামন্ত্রী

চাঁদপুর প্রতিনিধি অক্টোবর ২৩, ২০২১
শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে। শিক্ষাবর্ষ শেষের পথে থাকায় মহামারির মধ্যে এখন আর ক্লাসের দিন বা সংখ্যা আর বাড়ছে না।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) চাঁদপুর শহরের বাবুর হাট এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের নবনির্মিত সদরদফতরের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, এ মুহূর্তে ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। এখন সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করেই শিক্ষার্থীদের শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। এছাড়া বিশ্বের কিছু কিছু দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউ দেখা যাচ্ছে। তাই এই মুহূর্তেই কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি বলেন, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর জানুয়ারিতে যখন নতুন ক্লাস শুরু হবে, আমরা চিন্তা করছি তখন ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানো হবে। তবে যদি করোনা পরিস্থিতি এমন থাকে, তাহলেই আমরা চিন্তা করব ক্লাসের সংখ্যা বৃদ্ধি করার।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিষয়ে দীপু মনি বলেন, অশুভ শক্তি যতই সঙ্ঘবদ্ধ হোক না কেন আমরা একজোট থাকলে কখনই তারা সফল হবে না। যেমন একাত্তরেও পারেনি তেমনি এখনো পারবে না।

তিনি বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে চিহ্নিত বিএনপি-জামায়াত ও তাদের দোসররা এই সরকারের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে নানানভাবে বিভিন্ন অপকর্ম করছে এবং আজকে তা বিভিন্নভাবে প্রমাণিত।

তিনি আরও বলেন, তাই আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে, সবাইকে চোখ-কান খোলা রাখাতে হবে। সহিংসতার বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে এবং কোথায় কোথায় কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তাদের শনাক্ত করে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম দেব কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাহাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূইয়া, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী প্রমুখ।

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter