Home » বিশেষ সংবাদ (page 19)

বিশেষ সংবাদ

জীবননগর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

জীবননগর: চুয়াডাঙ্গায় পাওয়ার ট্রিলার ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে সবুজ মিয়া (২৯) নামে এক গরু ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। বুধবার দুপুরে জীবননগর উপজেলার বেনীপুর গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ওই গ্রামের নুরুল ইসলাম মন্ডলের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার দুপুর ১২টার দিকে

সবুজ মোটরসাইকেল নিয়ে জীবননগর উপজেলা শহরে আসার পথে বেনীপুর গ্রামের বিজিবি ক্যাম্পের সামনে একটি পাওয়ার ট্রিলারের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

এতে গুরুতর জখম হয় সবুজ। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর দুইটার দিকে সবুজ মারা যায়। জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব খাঁন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চুয়াডাঙ্গায় বিএনপির ৪ কর্মী আটক

শিক্ষাবার্তা.কম,চুয়াডাঙ্গা : চুয়াডাঙ্গা শহরে কেদারগঞ্জ এলাকা থেকে মিছিল করার সময় ৪ বিএনপি কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার বিকাল সাড়ে ৪টায় কেদারগঞ্জ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, শহরের বজরুপ গড়গড়ি পাড়ার মাহাত্তাফ আলির ছেলে হাফিজুর রহমান (৪০), জিনতলা পাড়ার তাহেরের ছেলে আজিম (২৬), সিএমবি পাড়ার আব্দুছ ছাত্তারের ছেলে আব্দুল হান্নান (২২) ও কেদারগঞ্জ পাড়ার সার্থক মন্ডলের ছেলে আবু বক্কর (৩৮)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা শহরের কেদারগঞ্জ এলাকা থেকে ১৮ দলীয় নেতাকর্মীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এ সময় পুলিশ তাদেরকে বাধা দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং বিএনপি কর্মী হাফিজুর, অজিম, আব্দুল হান্নান ও আবু বক্করকে আটক করে।

চুয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. গাজী ইব্রাহীম জানান, তাদেরকে গাড়ি ভাঙচুর মামলায় আটক করা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

দামুড়হুদা ঠাকুরপুরে স্বামী আব্দুল মজিদের বিরুদ্ধে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগ

শিক্ষাবার্তা.কম,চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:  দামুড়হুদার কুড়–লগাছী ইউনিয়নে ঠাকুরপুর গ্রামে যৌতুকের দাবিতে জাকিয়া খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে বলা হয় স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামী আব্দুল মজিদ একটি পরিত্যাক্ত ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে।
পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার ভোরে দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর গ্রামের আব্দুল মজিদ তার দ্বিতীয় স্ত্রী জাকিয়া খাতুনের কাছে যৌতুকের টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অস্বীকার করলে উভয়ের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয়। এরপর স্বামী আব্দুল মজিদ ও সতীন মায়া খাতুন তাকে নির্যাতন করে হত্যা করে। পরে তাকে  পার্শ্ববর্তী পরিত্যাক্ত ঘরের আড়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। বেলা ১১ টায় এলাকাবাসী তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে দামুড়হুদা থানা পুলিশে  খবর দেয়।    নিহতের পিতা আফসার আলী জানান, তার মেয়েকে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতন করে হত্যা করেছে জামাতা আব্দুল মজিদ ও তার ১ম স্ত্রী মায়া খাতুন।দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ঘঁটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

অবৈধ দুই যানে সংঘর্ষ – নিহত ১

চুয়াডাঙ্গা: জীবননগর উপজেলার মনোহরপুর আমতলা নামক স্থানে নসিমন ও পাওয়ারট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে আরজু বানু (৫৮) নামে এক চাতাল শ্রমিক নিহত হয়েছেন।শুক্রবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে।
নিহত চাতাল শ্রমিক আরজু জীবননগর উপজেলার বাঁকা পূর্বপাড়ার মৃত রায়হান চৌকিদারের স্ত্রী।প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আরজু বানু জীবননগরে খাজা রাইসমিলে কাজ শেষে নসিমনযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পাওয়ার ট্রলির সঙ্গে ওই নসিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় । এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি।  জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বাংলামেইলকে জানিয়েছেন, নিহত আরজু বানুর পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে এবং জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম মর্তুজার সুপারিশে লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

দুচোখের পাপড়ি ভিজে যাওয়া এক করুন কাহিনী ! স্ত্রীর হাতের বালা বেচে পাঠাগার নির্মাণ

বাচিয়ে রাখতে সন্তানের দুধের টাকা দিয়ে পত্রিকার বিল পরিশোধ

স্বরুপ দাসঃ চুয়াডাঙ্গা শহর থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত শিল্প শহর দর্শনা। যার পশ্চিম দিক দিয়ে বয়ে গেছে মাথাভাঙ্গা নদী। যে শহরে অবস্থিত বিখ্যাত কেরু এ্যন্ড কোম্পানি, শান্ত শিষ্ঠ শহর হিসাবে পরিচিত যে শহর সেই শহরে  থাকবে না কোন সাদা মনের মানুষ তা কি হয়। পত্রিকায় বিভিন্ন সাদা মনের মানুষের কথা পড়েছি, একা একা চোখের জল ফেলেছি কিন্তু বাস্তবে দেখা হয়ে ওঠেনি। দর্শনায় বাস করার সুবাদে আimage CDLবু সুফিয়ানের সাথে পরিচয় সেই ১৯৯২ সাল থেকে। জ্ঞানপিপাসু মানুষের ভালোবাসা নিয়ে জীবনের অন্তিম শয়নও যেন গ্রন্থাগারের পাশে হয়ত বলতে বলতে আবু সুফিয়ানের কণ্ঠ থেকে বেরিয়ে আসে একটি দীর্ঘশ্বাস। এক সময় দু’চোখের পাপড়ি ভিজে যায়। সুফিয়ান  বলেন, ‘সন্তানের দুধের টাকা, স্ত্রীর হাতের সোনার বালা,এবং জমিজমা বিক্রিসহ জীবনের সব সম্বল বিক্রি কওে কোনোরকমে বাঁচিয়ে রেখেছি এ গ্রন্থাগারটি।’
নদীর  জলধারা যেমন নীরবে প্রবাহিত হতে হতে একটি পর্যায়ে থেমে যায় ঠিক তেমনি বহু সংগ্রাম করে কোন রকমে  একটি গ্রন্থাগার। দর্শনার একমাত্র গ্রন্থাগার যাকে সবাই গন উন্নয়ন গ্রন্থাগার বলে চেনে।
যার হাল ধরে রেখেছেন আবু সুফিয়ান ও তার স্ত্রী। বিলিয়ে যাচ্ছেন জ্ঞানের আলো।
প্রাচীন এই জনপদের কেরুজ কোয়ার্টারে ১৯৬৮ সালের ৫ মার্চ জন্ম নেন আবু সুফিয়ান। বাবা মরহুম এসকান্দার এবং মা মোছাঃ  রিজিয়া বেগম কেরু অ্যান্ড কো¤পানিতে চাকরির সুবাদেই  আসেন দর্শনাতে।
তিনি ছিলেন পাওয়ার ইঞ্জিন ড্রাইভার। সামান্য এই চাকরি করেও তিনি ভাবতেন তার সন্তানরা সবাই লেখাপড়া করে আলোকিত মানুষ হবে। আবু সুফিয়ান এর শিক্ষাজীবন শুরু কেরু প্রাইমারি স্কুলে। গোপালগঞ্জ বঙ্গঁবন্ধু কলেজ থেকে øাতক ড্রিগ্রি অর্জনের পর  এক সময়ের সহপাঠী সেলিনা আক্তার কনকের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন ভালোবাসার বন্ধনে। অবশেষে বিবাহ বন্ধনে আর্বিভুত হন। ভালোবাসায় হৃদয়ের আহার জুটলেও মাথার ওপর ছাউনি আর পেটের আহার কীভাবে জুটবে সে পথ ছিল অজানা। রোজগারহীন দিনগুলোতে প্রায়ই শূন্য হাতে বাড়ি ফেরেন সুফিয়ান। তিন বেলা খাবার না জুটলেও, ভালোবাসার সঙ্গী সেলিনা আক্তার কনক স্বামীর চোখে চোখ রেখে যেন ভুলে যান আহারবিহীন দিন-রাত্রি। আলোকিত এই মানুষটির যখন সবাইকে আলোকিত করার কথা ভাবেন তখন তার নিজের ঘওে থাকে না বাতি। আধাওে রাত কাটাতে হয়।  খাবার সংগ্রহের নেশায় মাঝে মাঝে শুধু ভাবেন কিন্তু করার কিছুই থাকে না।  যখন খাবার জোটে তখন খান। না পেলে খালি পেটেই কাটিয়ে দেন সময়। পেরিয়ে যায় আরও একটি দিন। আবার ভোর হয়। যথারীতি গ্রন্থাগারের দুয়ার খুলে বসে থাকেন সুফিয়ান। দর্শনার মোবারকপাড়ার এক আতœীয়ের দয়ায় তাদের বাড়ির ছোট্ট একটি টিনশেড কক্ষে স্ত্রী সেলিনা আক্তার কনক আর ৭ বছরের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস মাওয়া ও ১৪ বছরের ছেলে আবু সাইফ কাসফাতকে নিয়ে সুফিয়ানের সংসার।
আশির দশকের অক্টোবরে এক দল সমাজকর্মীর উদ্যোগে বাংলার প্রাচীন রাজধানী জাহাঙ্গীরনগর (ঢাকা) থেকে শুরু হয় গণগ্রন্থাগার সিডিএলের আনুষ্ঠানিক পথচলা। ‘জ্ঞান হোক শোষিত মানুষের মুক্তির
সহায়ক’ এ ¯ে¬াগানের সামনে নিয়ে ১৯৮৯ সালে নিশান উড়িয়ে সারাদেশের মতো দর্শনাতেও আবু সুফিয়ানের তত্ত্বাবধানে ভাড়া করা একটি টালি ঘরে শুরু হয় গ্রন্থাগারটির আনুষ্ঠানিক যাত্রা। সারাদেশে এ কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেলেও বন্ধ হয়নি দর্শনা গণগ্রন্থাগার।
দৃঢ় প্রত্যয়ের আবু সুফিয়ান ও সেলিনা আক্তার কনক বন্ধ হতে দেননি পাঠাগারটি। সিডিএল কর্তৃপক্ষের সমাজসেবামূলক কার্যক্রমের আওতায় পাঠাগারটির যাত্রা শুরু হলেও নামমাত্র অর্থ বরাদ্দ দিত তারা। বাকি সব খরচই বহন করতে হতো উদ্যোগী ও ত্যাগী আবু সুফিয়ানকে। এক সময় গ্রন্থাগারটি চালাতে যখন হিমশিম খাচ্ছিলেন আবু সুফিয়ান, তখন নীরবে তার পাশে এসে দাঁড়ান সেলিনা আক্তার কনক। যে পাঠাগার মানুষকে আলোর পথ দেখায়, যে বই মানুষকে উদার ও মানবিক হতে শেখায়, এমন একটি বাতিঘর বন্ধ হয়ে যাবেথ সেটা কিছুতেই মানতে পারেন না সুফিয়ান ও কনক। পাঠাগার ও বই তাদের কাছে সংসার এবং সন্তানের মতোই সমান প্রিয় ও পবিত্র। একদিন পাঠাগারের পত্রিকার বিল না দেওয়ায় এজেন্ট বকেয়ার দায়ে পত্রিকা সরবরাহ বন্ধ করে দেয়। বিষয়টি কিছুতেই মানতে পারেন না সেলিনা আক্তার কনক। নিজের সন্তানের মাসকাবারি দুধের টাকা দুধওয়ালাকে না দিয়ে পাঠাগারের পত্রিকার বিল পরিশোধ করেন কনক। এতে দুধওয়ালা টাকা না পেয়ে ছেলের দুধ দেওয়া বন্ধ করে দেয়। সন্তান অভুক্ত থাকলেও ক্ষতি নেই, পাঠক যেন জ্ঞান আহরণে কিছুতেই অভুক্ত না থাকে। এক সময় সিডিএল কর্তৃপক্ষ ঘর ভাড়াও বন্ধ করে দেয়। পাঠাগারটি নিয়ে এবার যেন অথৈ সমুদ্রে পড়ে যান আবু সুফিয়ান। আবারও পাশে এসে দাঁড়ালেন সেলিনা আক্তার কনক। বিয়ের সময় অনেক কষ্টে দেওয়া স্বামী আবু সুফিয়ানের শ্রেষ্ঠ উপহার জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান স্মৃতি নিজ হাতের ৪০ হাজার টাকার এক জোড়া সোনার বালা মাত্র ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে গ্রন্থাগারটির নির্মাণ কাজ শুরু করে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন কনক।
কীভাবে সমাজকে আলো বিলাতে হয়, তার যেন অনন্য এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন পোড় খাওয়া, আতœপ্রত্যয়ী বইপ্রেমী নারী কনক। যারা রাজনীতি, সমাজনীতির পসরা সাজিয়ে দেশটাকে উল্টে-পাল্টে
শোষণ করেন, তাদের জন্য কনক যেন বড্ড এক লজ্জার নাম।বর্তমানে স্থানীয় সরকারি কলেজের উত্তর-পূর্ব কোনায় চটকাতলার পাশে ছায়া সুনিবিড় নির্মল পরিবেশে টিনের দোচালা ঘরটি নিজেদের টাকায় ও শ্রমে নির্মাণের পর, সেটি নির্মল পরিবেশে পাঠকের পদভারে মুখরিত থাকে সব সময়।
বর্তমানে কিছু স্থায়ী সদস্য সংগ্রহের মাধ্যমে গ্রন্থাগারটি আবারও মাথা তুলে দাড়াতে চাই।অসংখ্য পাঠকের কথা ভেবে আবু সুফিয়ান  গ্রন্থাগারটিকে টিকিয়ে রাখতে চাইছে। কিন্তু এভাবে কতদিন । একটি সময় হয়ত আবু সুফিয়ান থাকবে না, তখন কি থাকবে আমাদেও এই শ্রেষ্ঠ গ্রন্থাগারটি। ভাবতে গেলে বুকে কান্ন্া ছাড়া আর কিছুই থাকে না। আবুসুফিয়ান এসব নিয়ে ভাবতে চান না। তিনি চান সামনের দিকে এগিয়ে যেতে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চুয়াডাঙ্গায় জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা ঃjsc picচুয়াডাঙ্গা জেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে আজ বৃহস্পতিবার জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবার জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় ১৩ হাজার ৪শ ৪৫ জন ছাত্রছাত্রী চুয়াডাঙ্গা জেলায় জেলার ৪ উপজেলার মোট ৩৭ টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে গঠন করা হয়েছে একাধিক পরিদর্শক দল। জেলা প্রশাসক দেলোয়ার হোসাইন ও পুলিশ সুপার আব্দুর রহিম শাহ্ চৌধুরীসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

দর্শনায় আড়ায় লক্ষ টাকার মাদকদ্রব্য ও টিভি পার্টস আটক ॥

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ ০২ অক্টোবর:চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার দর্শনা-নিমতলা ক্যাম্পের বিজিবি সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ৬৪ বোতল ভারতীয় মদ, ৩০ বোতল ফেনসিডিল ও টিভি পার্টস আটক করেছে। আটককৃত মালের মূল্য প্রায় আড়ায় লক্ষ টাকা।
বিজিবি জানায়, আজ শনিবার ভোর সাড়ে ৪টায় দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা ক্যাম্পের কোম্পানি কমন্ডার সুবেদার আওয়াল হোসেন সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সীমান্তবতী ঈশ্বরচন্দ্রপুর মাঠে একটি আখ খেতে ওৎ পেতে ছিল। এসময় ৫/৬ জন চোরাচালানীদের দেখে চ্যালেঞ্জ করলে তারা তিনটি প্লাষ্টিকের বস্তা ফেলে পালিয়ে যায়। বস্তা তল্লাসী করে ২৪বোতল মদ ও টিভি পাটর্স উদ্ধার করে। যার মূল্য ১লক্ষ ৬৪হাজার টাকা।
এছাড়া ভোর ৫টায় নিমতলা ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার মহাসিন আলী সঙ্গীয় ফোর্সসহ জয়নগর সীমান্তের ৭৫নং মেইন পিলারের কাছে টহল দেওয়ার সময় ২জন চোরাচালানীকে দেখে ধাওয়া করে। এ সময় তারা দু’টি চটের ব্যাগ ফেলে ভারতে পালিয়ে যায়। ব্যাগ তল্লাসী করে ৪০বোতল মদ ও ৩০বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত মালের মূল্য ৮০হাজার টাকা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চুয়াডাঙ্গা জীবননগরে ছিনতাইকারীদের হানা ॥ নগদ ৪০ হাজার টাকা, মোবাইল সহ মোটরসাইকেল ছিনতাই ॥

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ ০২-১১-১৩ঃচুয়াডাঙ্গার-জীবননগর মহাসড়কের সন্তোষপুর বয়ারগাড়ী নামক স্থানে স্বশস্ত্র ছিনতাইকারীরা মোটরসাইকেল গতিরোধ করে নগদ ৪০ হাজার টাকা, মোবাইল ফোন সহ একটি মোটরসাইকেল ছিনতাই করে নিয়ে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাত ১০ টায়।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯ টায় দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা ষ্টেশন পাড়ার ঢাকাগামী জে আর পরিবহনের সুপারভাইজার ডাবলু ও তার সহযোগী জীবননগর উপজেলার বিদ্যুৎ দর্শনা থেকে মোটরসাইকেল যোগে জীবননগর যাওয়ার পথে সন্তোষপুর বয়ারগাড়ী নামক স্থানে পৌছালে ৭/৮ জন স্বশস্ত্র ছিনতাইকারী রাস্তার দু’পাশে গাছে সাথে দড়ি বেধে তাদের মোটরসাইকেল গতিরোধ করে। এসময় ছিনতাইকারীরা তাদেরকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নগদ ৪০ হাজার টাকা, ৪ টি মোবাইল সেট ও একটি ১২৫ সিসি ডিসকভারী মোটরসাইকেল ছিনতাই করে নিয়ে পালিয়ে যায়। জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রকিব খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ছিনতাইকারীদের অতিসত্বর গ্রেফতার সহ ছিনতাই হওয়া মালামাল উদ্ধারের জোর প্রচেষ্টা চলছে। ##

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ডাকাত সর্দার আটক

শাহারিয়ার তুহিন,দামুড়হুদা(চুয়াডাঙ্গা)সংবাদদাতাঃ  চুয়াডাঙ্গার জেলার দামুড়হুদা উপজলায় ডাকাতি করে পালানোর সময় আব্দুল কুদ্দুস (৩৫) নামে এক ডাকাতকে ধাওয়া করে আটক  করেছে পুলিশ। এ সময় ওই ডাকাত সর্দারের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দুটি তাজা বোমা। গতকাল বৃহ¯পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটে। আটক ডাকাত সর্দার আব্দুল কুদ্দুস একই উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের মৃত খোকা মণ্ডলের ছেলে। রবজেল নামে এক গ্রামবাসীরা জানায়, বৃহ¯পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ১০-১৫ জনের একটি ডাকাত দল বিষ্ণুপুর গ্রামের লিয়াকত আলীর বাড়িতে হানা দেয়। এ সময় ডাকাত সদস্যরা অস্ত্রের মুখে বাড়ির সকলকে জিম্মি করে স্বর্ণলঙ্কার, নগদ টাকা ও মোবাইলসহ প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল লুট করে সটকে পড়ার চেষ্টা করে।
বাড়ির সদস্যরা ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার দিলে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে ডাকাত সদস্যদের ধাওয়া
করে। গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে বাকি সদস্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও জনতার হাতে ধরা পড়ে
সর্দার আব্দুল কুদ্দুস।
দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান হাবীব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন,
আটক আব্দুল কুদ্দুস চুয়াডাঙ্গা জেলা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার। তার নামে ডাকাতি বোমাবাজিসহ ৬টি মামলা আছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চুয়াডাঙ্গার দর্শনায় তিন দিনের লালন উৎসব শুরু

দামুড়হুদা(চুয়াডাঙ্গা)সংবাদদাতাঃ  চুয়াডাঙ্গা দর্শনায় লালন ফকিরের ১২৩ তম তিরোধান দিবস উপলক্ষে তিন দিনের লালন স্মরণ উৎসব শুরু হয়েছে। লালন স্মরণ উৎসবের আয়োজন করেছে দর্শনা লালন একাডেমী। বৃহ¯পতিবার সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে একাডেমী চত্বরে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন মঙ্গল সাধু ও মুস্তাফিজুর রহমান যুদ্ধ। এরপর লালন একাডেমীর সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে লালনের বর্ণাঢ্য জীবন নিয়ে আলোচনা করেন প্রভাষক মিজানুর রহমান মণ্ডল, হেলাল উদ্দীন, কাশেম চিশতী ও পাচু শাহ।
পরে অনুষ্ঠানে লালন সঙ্গীত পরিবেশন করেন একাডেমীর শিল্পীরা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter