Home » প্রযুক্তি

প্রযুক্তি

আসছে হোয়াটসঅ্যাপের আপডেট, যা থাকছে

ফেসবুকের মালিকানাধীন ম্যাসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপ প্রায়ই তার ব্যবহারকারীদের জন্য নতুন আপডেট নিয়ে আসে। বেশ কিছুদিন ধরে গুঞ্জন, দ্রুতই আসছে হোয়াটসঅ্যাপের নতুন ফিচার, যেখানে ডেস্কটপ বা ওয়েব সংস্করণে যুক্ত হচ্ছে ফিঙ্গার প্রিন্ট সুবিধা।

হোয়াটসঅ্যাপের নতুন আপডেটে কী থাকছে, তা অফিশিয়ালি এখনো জানা না গেলেও ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, ওয়েবে ফিঙ্গার প্রিন্ট সুবিধা ছাড়াও আরো যা থাকতে পারে সে তথ্য :

* আসন্ন আপডেটে হোয়াটসঅ্যাপে থাকতে পারে বিভিন্ন রিংটোন সেট করার সুবিধা। যার ফলে ব্যবহারকারীরা স্বতন্ত্র কল ও গ্রুপ কলের মধ্যে পার্থক্য বুঝতে পারবে।

* ডেস্কটপ বা ওয়েব সংস্করণের পর আপডেটে অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণেও ব্যাকগ্রাউন্ড ডুডল পরিবর্তনের সুযোগ পেতে পারেন ব্যবহারকারীরা।

* অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণে কল ধরা ও কল করার সিস্টেম আপডেট করা হবে।

* স্টিকার ও অ্যানিমেটেড স্টিকারগুলোতে আসছে পরিবর্তন। থাকবে একাধিক লুপ।

* ব্যবসায়ী অ্যাকাউন্টের জন্য শিগগিরই হোয়াটসঅ্যাপ শর্টকাট অ্যাক্সেস যুক্ত করতে পারে। ফলে তাৎক্ষণিক দেখা যাবে পোর্টফোলিও। এ ছাড়া অ্যাপে একটি নতুন কল বোতাম যুক্ত হতে পারে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মেসেঞ্জারে ঢুকতে পাসওয়ার্ড লাগবে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ফেসবুকের মেসেঞ্জারের ব্যবহার বেড়েছে। মেসেঞ্জারে বার্তা আদান–প্রদানের সুবিধাটিকে আরও ব্যক্তিগত রাখার জন্য বিশেষ নিরাপত্তা ফিচার যুক্ত করার পরিকল্পনা করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। মেসেঞ্জারে যুক্ত হচ্ছে ফেস আইডি, টাচ আইডি বা পাসকোড ব্যবস্থা। এতে ব্যবহারকারী মেসেঞ্জার ‘লক’ করে রাখতে পারবেন, যাতে অন্য কেউ ব্যক্তিগত বার্তা দেখতে না পারেন।

প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট এনগ্যাজেট এক প্রতিবেদনে বলেছে, ফেসবুক বর্তমানে মেসেঞ্জারের নিরাপত্তা ফিচারগুলো নিয়ে পরীক্ষা করছে। এসব ফিচার চালু হলে ব্যবহারকারীকে তাঁর মেসেঞ্জারের ইনবক্সে ঢুকতে হলে পাসওয়ার্ড বা আইডি দিয়ে ঢুকতে হবে। ফোন আনলক করা থাকলেও মেসেঞ্জারে আইডি দিয়ে ঢুকতে হবে। অ্যাপ ছেড়ে যাওয়ার কতক্ষণ পর তা লক হবে, সে সময়ও ঠিক করে দেওয়ার সুবিধা থাকবে।

এনগ্যাজেটকে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘আমরা ব্যবহারকারীদের কাছে তাঁদের আরও বেশি পছন্দের ও নিয়ন্ত্রণের সুবিধা তুলে দিতে চাই, যাতে তাঁরা ব্যক্তিগত বার্তা সুরক্ষিত রাখতে পারেন। সম্প্রতি আমরা এ রকম ফিচার পরীক্ষা শুরু করেছি যাতে ডিভাইস সেটিংস ব্যবহার করে মেসেঞ্জার অ্যাপ খুলতে হবে। কেউ যাতে হুট করে বার্তা পড়ে ফেলতে না পারে, সে জন্যই প্রাইভেসির বাড়তি স্তর যুক্ত করা হচ্ছে।’

গত মাসেই ফেসবুক তাদের ভিডিও কনফারেন্সিং টুল ‘মেসেঞ্জার রুমস’ চালু করেছে। এতে ৫০ জন একসঙ্গে যুক্ত হতে পারেন এবং ফেসবুক অ্যাকাউন্ট না থাকলেও এতে যুক্ত হওয়া যায়। মেসেঞ্জার রুমস সৃষ্টির ফিচারটি আইওএস, অ্যান্ড্রয়েড, উইন্ডোজ ও ম্যাকওএস অপারেটিং সিস্টেমে চালু হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মধ্যরাত থেকেই মোবাইলে বাড়তি টাকা কাটা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মোবাইল ফোনের সিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার ওপর সম্পূরক শুল্ক বাড়িয়ে প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণার পরই মধ্যরাত থেকে এসএমএস, কথা বলা ও ইন্টারনেট ব্যবহারে গ্রাহকদের বাড়তি অর্থ গুনতে হচ্ছে। পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) গ্রাহকের কাছ থেকে এই বাড়তি অর্থ নেওয়া শুরু করেছে।

২০২০-২০২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বৃহস্পতিবার (১১ জুন) মোবাইল ফোনের সিম বা রিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার ওপর সম্পূরক শুল্ক পাঁচ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেন।

পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর ফলে মোবাইল ফোনের সেবায় ১৫ শতাংশ ভ্যাট, এক শতাংশ সারচার্জ, ১৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক এবং অন্যান্য খরচ মিলে ২৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৩ দশমিক ২৫ শতাংশ।

মোবাইল ফোন অপারেটররা বলছে, আগে ১০০ টাকা খরচ করলে সরকারকে ২১ টাকা ৫৭ পয়সা দিতে হতো। পাঁচ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়ায় এখন তা হবে ২৪ টাকা ৯৫ পয়সা। এই বাড়তি খরচ বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকেই কার্যকর হয়েছে।

তবে ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে ভ্যাট পাঁচ শতাংশ হওয়ায় ডেটা ব্যবহারে কিছুটা কম খরচ হবে বলে জানায় অপারেটররা।

বিটিআরসির সর্বশেষ মার্চ মাসের হিসেবে, বর্তমানে দেশে চারটি মোবাইল ফোন অপারেটরের গ্রাহক সংখ্যা ১৬ কোটি ৫৩ লাখ ৩৭ হাজার। আর ইন্টারনেট গ্রাহক ১০ কোটি ৩২ লাখ ৫৩ হাজার।

মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (এমটব) বলছে, নিয়মিতভাবে করের বোঝা চাপিয়ে সরকার মোবাইল খাতকে ক্রমেই দুর্বল করে তুলছে। ফেলছে গ্রাহকদের ওপর বাড়তি চাপ। এমটব এই বাড়তি কর পুনর্বিবেচনার অনুরোধ করেছে।

বাজেট উত্থাপনের পরই এমটব মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এসএম ফরহাদ এক বিবৃতিতে বলেন, দেশের অর্থনীতিতে মোবাইল টেলিকম খাতের অবদান যত উল্লেখযোগ্যই হোক না কেন, সরকার নিয়মিতভাবে প্রতিবছর এই খাতের ওপর আরও বেশি করে করের বোঝা চাপিয়ে একে আরও দুর্বল করে তুলছে; গ্রাহকদের ওপর ফেলছে বাড়তি চাপ। ফলে দেশের জিডিপিতে মোবাইলের বর্তমান অবদান সাত শতাংশ থেকে যে দুই অঙ্কের ঘরে যাওয়ার কথা বলা হয়েছিল, তা আর অর্জিত না-ও হতে পারে।

‘এ বছর সরকার মোবাইলের মাধ্যমে প্রাপ্ত সব রকম সেবার ক্ষেত্রে সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করেছে। যা অত্যন্ত হতাশাজনক। এর ফলে গ্রাহকদের ওপর বাড়তি চাপ পড়বে। এ বিষয়ে এসআরও জারি হওয়ায় তা আজ দিবাগত রাত ১২টার পর থেকেই কার্যকর হবে।’

এমটব মহাসচিব বলেন, দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে এমনিতেই মানুষের মধ্যে যখন নাভিশ্বাস উঠেছে, মোবাইল হয়ে উঠেছে সব যোগাযোগের মূল চালিকা ও দেশ ডিজিটাল ইকনোমির দিকে এগিয়ে চলছে; ঠিক সে সময় এ ধরনের করের বোঝা কোনোভাবেই দেশের অর্থনীতির জন্য মঙ্গলজনক হবে না। এ বোঝা দরিদ্র মানুষের জন্য অসহনীয় হয়ে পড়বে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের পথে অন্তরায় হয়ে উঠবে। যা করোনা ভাইরাস সংকটের কারণে আরও বাড়বে। এতে মোবাইল শিল্প খাত আরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্বল হবে।

তিনি বলেন, আমরা মোবাইল খাতের পক্ষ থেকে অলাভজনক কোম্পানির জন্য বর্তমান ২ শতাংশ ন্যূনতম কর বিলোপ ও করপোরেট ট্যাক্স কমানোর জন্য পূর্বাপর অনুরোধ করলেও তা বিবেচনা করা হয়নি। যা চরম হতাশাজনক। আমরা সরকারকে টেলিকম খাতের বাজেটের বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করার জন্য আবারও অনুরোধ করছি।

মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোও পৃথক বিবৃতিতে বাড়তি খরচ কমানোর অনুরোধ করেছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

১০৫ নম্বরে কল দিলেই এনআইডি সমস্যার সমাধান

ডেস্ক নিউজ: জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন, হারানো এনআইডি তোলাসহ সব ধরনের সমস্যা সমাধানে ১০৫ নম্বরে কল দিলেই পাওয়া যাবে।

জানা গেছে, জাতীয় পরিচয়পত্রের সব সমস্যার সমাধান এবং পরামর্শ দিতে কল সেন্টার আগেই চালু করে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) এনআইডি শাখা। তবে তা পর্যাপ্ত ছিলো না। গত সোমবার এ কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ফোন করে এ সেবা পাওয়া যাবে বলে জানানো হয়েছে।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ই-পাসপোর্ট পেতে কত টাকা লাগবে!

ডেস্ক,২০ জানুয়ারী:
সময়ের সাথে সাথে বদলে যাচ্ছে অনেক কিছু। প্রযুক্তির কল্যাণে পরিবর্তনের ছোঁয়া লেগেছে পাসপোর্টের ক্ষেত্রেও। তাই পাসপোর্টের আধুনিকতম সংস্করণ ইলেক্ট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট। এ পাসপোর্টের রয়েছে অনেক সুবিধা। কারণ তিন ক্যাটাগরিতে দেওয়া হবে ই-পাসপোর্ট।

আগামী ২২ জানুয়ারি থেকে ই-পাসপোর্ট বিতরণ শুরু হবে। এ ব্যাপারে সব ধরনের প্রস্তুতি ও আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেছে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট বিভাগ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে ই-পাসপোর্টের উদ্বোধন করবেন।
জানা যায়, প্রাথমিকভাবে আগারগাঁও, যাত্রাবাড়ী এবং উত্তরা পাসপোর্ট অফিস থেকে ই-পাসপোর্ট বিতরণ করা হবে এবং পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে সর্বত্র ই-পাসপোর্ট বিতরণ করা হবে।

তবে ই-পাসপোর্ট পেতে কত টাকা লাগবে তা অনেকেই জানেন না। এমনকি আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও ছবি সংযোজন করতে সত্যায়ন করারও দরকার হবে না। তবে পাসপোর্ট পেতে হলে জাতীয় পরিচয়পত্রের মূল কপি থাকতে হবে।

সবক্ষেত্রে ৪৮ ও ৬৪ পৃষ্ঠার হবে ই-পাসপোর্ট। সরকার সে অনুয়ায়ী ফি নির্ধারণ করেছে। আসুন জেনে নেই বিস্তারিত-



Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লিগ্যাল নোটিশ পেয়েই কেটে নেয়া টাকা ফেরত দিল বাংলালিংক

ডেস্ক,১৬ জানুয়ারী:

গ্রাহকের অনুমতি ব্যতীত স্বয়ংক্রিয়ভাবে মোবাইলের ব্যালেন্স থেকে টাকা কেটে নেয়ায় বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক আস ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হককে বিবাদী করে আইনজীবীর মাধ্যমে লিগ্যাল নোটিশ দিয়েছেন ময়মনসিংহ লাইভ’র সম্পাদক মো. আব্দুল কাইয়ুম।

এদিকে বাংলালিংকের অফিসিয়াল ই-মেইল ও ডাকযোগে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানোর ১০ ঘণ্টার মধ্যে প্রতারণার মাধ্যমে ব্যালেন্স থেকে কেটে নেয়া টাকা ফেরত দিয়েছে বাংলালিংক কর্তৃপক্ষ। টাকা ফেরত দেয়ার বিষয়টি বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) সকালে গ্রাহককে কল দিয়ে নিশ্চিত করেন বাংলালিংকের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা।

এদিকে গতকাল বুধবার ১৫ জানুয়ারি ময়মনসিংহ জজকোর্টের আইনজীবী মো. এমদাদুল হক স্বাক্ষরিত এক লিগ্যাল নোটিশে জানা যায়, মো. আব্দুল কাইয়ুমের ব্যবহৃত একটি নম্বরের ব্যালেন্স থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে গত ২৮, ২৯ নভেম্বর ও ৬ ডিসেম্বর অতিরিক্ত গোপন চার্জ কর্তন করা হয়। বাংলালিংক ওয়েবসাইটের ই-সেলফ কেয়ারের মাধ্যমে ওই গ্রাহক সব কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি চেক করে কনফার্ম হন যে, ইতোপূর্বে তিনি কোনো সার্ভিস চালু করেননি। বিষয়টি নিয়ে বাংলালিংকের গ্রাহকসেবা ১২১ ও ০১৯১১-৩০৪১২১ নম্বরে অভিযোগ করলে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে চার্জ করা টাকা ফেরতের জন্য অভিযোগটি আমলে নেন ও পরবর্তী ১২ ঘণ্টার মধ্যে অভিযোগটি সুরাহার আশ্বাস দেন। কিন্তু ১২ ঘণ্টা পরে গ্রাহককেই ফোন দিয়ে আপডেট জানতে হয় ও হচ্ছে। সেই সঙ্গে অভিযোগটির কোনো সুরাহা করতে পারেনি বাংলালিংক। এভাবে প্রতিবারই বাংলালিংক কর্তৃপক্ষ তার এজেন্টের মাধ্যমে ১২ ঘণ্টা করে সময় চেয়ে চলতি বছরের ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত সময়ক্ষেপণ করে।

এদিকে, ১ জানুয়ারি গ্রাহকের ব্যবহৃত নম্বরের কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রির অফিসিয়াল লিস্ট উত্তোলনের জন্য ময়মনসিংহের দুর্গাবাড়ী রোডে অবস্থিত বাংলালিংক মনোব্র্যান্ড এবং কেয়ার সেন্টারে গিয়েও কল লিস্ট পাননি। তাদের সিস্টেমে সমস্যা থাকায় তারাও কবে নাগাদ লিস্ট দিতে পারবে তা নিশ্চিত করতে পারেননি। এ বিষয়টি আবারও অভিযোগ আকারে গ্রাহকসেবা হেলপ লাইনে জানানো হলে ১৪ জানুয়ারি বাংলালিংকের একজন এজেন্ট কল করে এ গ্রাহককে জানান যে, কোনো বাংলালিংক কাস্টমারকেই তার নিজস্ব কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি দেয়া যাচ্ছে না।

তাই লিগ্যাল নোটিশদাতা তার নোটিশে উল্লেখ করেন যে, আগামী ২৮ জানুয়ারির মধ্যে তার কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি হাতে না পেলে বাংলালিংকের বিরুদ্ধে কোনো আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না। কারণ, বাংলালিংক অফিসিয়ালভাবে শুধু বিগত দুই মাসের কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি দিতে পারে। দুই মাস অতিক্রম হলে কোনোভাবেই কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি দিতে পারে না গ্রাহককে।

এছাড়া বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন কেন জাতীয় দৈনিকগুলোতে বাংলালিংক কর্তৃৃক গ্রাহকদের ভোগান্তির বিষয়ে সচেতন করছেন না সেজন্য কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হককেও লিখিত জবাব দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অভিযোগকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দীর্ঘ দুই মাস ধরে বিষয়গুলো নিয়ে বাংলালিংকে অভিযোগ করে আসছি কিন্তু কোনো সুরাহা হচ্ছিল না। বাংলালিংক কর্তৃপক্ষ সময়ক্ষেপণ করে দুই মাস অতিক্রম করে কল, এসএমএস ও রিচার্জ হিস্ট্রি সরবরাহ না করে প্রতারণার অভিযোগ থেকে বাঁচতে চায়। আমার মতো কোটি গ্রাহকের সঙ্গে এমন প্রতারণা হয়ে থাকতে পারে, তাই দেশ ও দেশের মানুষের স্বার্থে আমি আইনি ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছি।

এ ব্যাপারে ময়মনসিংহ জজকোর্টের আইনজীবী মো. এমদাদুল হক জানান, প্রতারণার মাধ্যমে বাংলালিংক গ্রাহকের ব্যবহৃত নম্বর থেকে গোপন চার্জ কর্তন করার অভিযোগ আনায় বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক আস ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হককে বিবাদী করে মামলার পূর্ব প্রস্তুতিস্বরূপ বিবাদীদের কাছে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আশা করি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যথাসময়ে লিখিত জবাব দাখিল করবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

চার্জ দেওয়া অবস্থায় মোবাইল ব্যবহার করলে কি কোনও সমস্যা হবে?

তাহমিদ বোরহান:
ওয়েল, এক কথায় উত্তরটি হচ্ছে হ্যাঁ, আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি চার্জে ফোন লাগিয়ে যেকোনোই নরমাল ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি ফোন সারারাত চার্জে লাগিয়ে রাখুন, সারাদিন চার্জে লাগিয়ে রাখুন, ফোন চার্জ করতে করতে ব্যবহার করুন, ফোন উল্টা কানে ধরুন অথবা সিধা কানে ধরুন, লো ব্যাটারিতে ব্যবহার করুন, ফুল ব্যাটারিতে ব্যবহার করুন, যা ইচ্ছা তাই করুন। এতে কখনোই কোন প্রকারের ক্ষতি আপনার হবে না। আপনি সম্পূর্ণই নিরাপদ থাকবেন।

এরকম অনেক ফটো দেখছেন বা ভিডিও দেখেছেন যেখানে কারো কান ফেটে রক্ত বের হচ্ছে, কারো আবার মুখ পুড়ে গেছে সম্পূর্ণভাবে, কারো হাত পুড়ে গেছে ফোন ব্লাস্ট হয়ে ইত্যাদি। তো এগুলোর মধ্যে কিছু দুর্ঘটনা তো সত্যিই হয়েছিলো তা আমি নিজেও মানছি। কিন্তু এগুলো শুধু তখনই হয়ে থাকে যখন আপনি ফোন ঠিক মতো ব্যবহার করবেন না।

এখন ঠিক মত ফোন ব্যবহার না করা মানে কি? দেখুন ফোনের ব্যাটারি অনেক মারাত্মক একটি জিনিষ এটি আপনিও জানেন আর আমিও জানি এবং ফোন প্রস্তুতকারী কোম্পানি স্যামসাং, অ্যাপেল, এইচটিসিও এই কথা জানে। কিন্তু আপনার ফোন কখনোই একটি মারাত্মক ক্ষতিকর ডিভাইস নয়। ফোনে প্রতিটি উপাদান অনেক পরিমান মতো দেওয়া আছে যার জন্য আপনার কখনোই কোন সমস্যা হবে। আজকাল ফোন এমন একটি ডিভাইস যার উপরে আমাদের সবচাইতে বেশি নিয়ন্ত্রন থাকে।

একটি ফোন বাজারে আসার আগে ঐ ফোনটিকে অনেকগুলো টেস্ট পাস করতে হয় তবেই সে বাজারে আসতে পারে। তো এই অবস্থায় ফোন নিয়ে যতো কথা শোনা যায়, সেলফোন বুকের পকেটে রাখলে হৃদপিন্ডের ক্ষতি হতে পারে, মাথার কাছে রাখলে মস্তিস্কের সমস্যা হতে পারে ইত্যাদি গুজব গুলো সম্পূর্ণই মিথ্যা। এই কথা গুলোর কোনই ভিত্তি নাই। আজ পর্যন্ত এমন একটি গবেষণাও দেখা যায়নি যে এই বিষয় গুলো প্রমানিত করতে পারে। এই কথাগুলো ব্যাস মনগড়া। জানিনা কে যে কোথা থেকে এইসব শোনে আর গুজব রটায় তার ঠিক নেই।

বলুন তো স্যামসাং, অ্যাপেল, এইচটিসি, সোনি ইত্যাদি সহ যতো বড়বড় মোবাইল প্রস্তুতকারী কোম্পানি রয়েছে তারা কি কখনো মোবাইলের প্যাকেটে লিখে রেখেছে যে, মোবাইল ফোন লো ব্যাটারিতে ব্যবহার করা ঝুঁকিপূর্ণ বা চার্জ করার সময় ফোন ব্যবহার করবেন না?

তবে চার্জে লাগিয়ে ফোন ইউজ করার কিছু সমস্যা তৈরি করতে পারে, ১ম হচ্ছে আপনার ফোন বেশি গরম হবে, তবে গরম হয়ে পুড়ে বা ব্লাস্ট হবেনা, কিন্তু সাধারণের চেয়ে বেশি গরম হলে ফোনের ব্যাটারির আয়ু ধীরেধীরে কমে যাবে। আর আরেকটি সমস্যা হচ্ছে আপনার ফোনের চার্জ হতে সময় বেশি লাগবে! তবে চার্জে লাগিয়ে হেভি টাস্ক না করাই ভাল, তবে করলেই যে সমস্যা হবে এমনটাও না!

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিকাশের মাধ্যমে আয়কর দেয়ার সুযোগ

ডেস্ক,১৪ নভেম্বর:
এখন থেকে যেকোন সময় যেকোন স্থান থেকে বিকাশের মাধ্যমে আয়কর পরিশোধ করা যাবে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ই-পেমেন্ট পোর্টালে গিয়ে বিকাশ পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করে আয়কর পরিশোধ সেবা নিতে পারবেন গ্রাহক।

এছাড়াও বিকাশ অ্যাপ এর হোম স্ক্রিনের সাজেশন বক্সে এনবিআর লোগো থাকবে, যেখানে ক্লিক করলেই গ্রাহক সরাসরি আয়কর পেমেন্ট গেটওয়ে পেজে চলে যেতে পারবেন।

১৪ থেকে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত ঢাকার বেইলী রোডের অফিসার্স ক্লাবসহ সারাদেশে এনবিআর কর্তৃক আয়োজিত আয়কর মেলাতেও সহজেই বিকাশের মাধ্যমে আয়কর পরিশোধ করা যাবে।

ঝামেলা এড়িয়ে অনলাইনে আয়কর পরিশোধ করতে www.nbrepayment.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। অনলাইন আয়কর সেবা প্রদানে যারা নিবন্ধন করেছেন বা নিবন্ধন করেননি উভয় গ্রাহকই এখান থেকে আয়কর পরিশোধ করতে পারবেন। যাদের রেজিস্ট্রশন করা আছে তারা সাইন-ইন করে “পে ইনকাম ট্যাক্স” থেকে “ট্যাক্স” অপশন চেপে পরবর্তী পাতায় টিআইএন নম্বর দিলে পাশেই “ভেরিফাই টিআইএন” দেখতে পাবেন।

ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সাবমিট বাটন চাপলে “পেমেন্ট মেথড” পাওয়া যাবে।

এখানে মোবাইল পেমেন্ট অপশন থেকে বিকাশ সিলেক্ট করে একাউন্ট, ওটিপি কোড ও পিন নম্বর দিলেই আয়কর প্রদানের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হবে এবং চলে আসবে কনফার্মেশন মেসেজ। যাদের রেজিস্ট্রেশন করা নেই, তারা “আনরেজিস্টার্ড” অপশন সিলেক্ট করে একই প্রক্রিয়ায় আয়কর পরিশোধ করতে পারবেন।

বিকাশে আয়কর পরিশোধে গ্রাহকদের জন্য ১.১% চার্জ প্রযোজ্য হবে।

বিকাশের মাধ্যমে আয়কর পরিশোধ ঝামেলামুক্ত করতে এনবিআর-কে প্রযুক্তি সহায়তা দিয়েছে আইটি কনসালট্যান্টস লিমিটেড (আইটিসিএল)।



Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Shikkhok Batayon | শিক্ষক বাতায়ন |teachers.gov.bd হতে কন্টেন্ট ডাউনলোড

Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে সদস্য হতে কি নিবন্ধন করতে হবে?

Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে সদস্য হতে গেলে অবশ্যই নিবন্ধন করতে হবে। কেবল নিবন্ধিত সদস্যরা মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট আপলোড করতে পারবে। কারো কন্টেন্টে মতামত ও রেটিং প্রদানের জন্য আপনাকে অবশ্যই শিক্ষক বাতায়নে নিবন্ধন করতে হবে। তবে কন্টেন্ট দেখা ও ডাউনলোড করার জন্য নিবন্ধন করতে হবে না। এখানে নিবন্ধনের ছকে কিছু তথ্য দিয়ে বিনামূল্যে নিবন্ধন করা যায়।
Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে কীভাবে নিবন্ধন করবো?

Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে নিবন্ধন করতে গেলে আপনাকে প্রথমতঃ শিক্ষক বাতায়ন থেকে সদস্য হওয়ার আমন্ত্রণ পেতে হবে। কেবল নিবন্ধিত সদস্যরা এই আমন্ত্রণ পাঠাতে পারবে। তাই কোন নিবন্ধিত সদস্যকে আপনার ইমেইলে আমন্ত্রণ পাঠাতে অনুরোধ করুন। আমন্ত্রণ পাঠানো হলে আপনার ইমেইল ইনবক্সে বিষয়টি সম্পর্কে একটি ইমেইল বার্তা পাবেন। ইমেইল বার্তাটি ওপেন করুন। দেখবেন শিক্ষক বাতায়ন থেকে একটি লিংক পাঠানো হয়েছে। উক্ত লিংকে ক্লিক করুন। বাতায়ন পোর্টালের ইউজার রেজিস্টার বা ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার পাতা দেখা যাবে। লগইন ও নিবন্ধন পাতার ঠিকানা https://www.teachers.gov.bd/user_login।

ব্রাউজারের নতুন পাতায় লগইন করুন + নিবন্ধন করুন লেখা পাতাটি ওপেন হলে নিবন্ধন করুন লিংকটিতে ক্লিক করুন।

৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস-২০১৯ শিক্ষক বাতায়ন এর নতুন ভার্সন চালু হয়েছে। তাই নিচের ছবির মত নিবন্ধন ফরমটি, নতুন ভার্সনে কয়েকটি পর্বে ভাগ করা হয়েছে। তবে ফরমের তথ্য মোটামুটি একই আছে। এই ফরমে সকল তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করে, সবার শেষে নতুন এ্যাকাউন্ট তৈরী করুন ট্যাবে ক্লিক করুন। কিছুক্ষণের মধ্যে পরবর্তী পাতায় আপনার নিবন্ধন হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করা হবে। যদি নিবন্ধন ফরমে কোন তথ্য পূরণ করতে বাদ পড়ে বা ভুল তথ্য দেন তাহলে সেখানে এরর দেখাবে। পুনরায় সঠিক তথ্যগুলো পূরণ করে নিবন্ধন ফরমটি জমা দিন।

shikkhok-batayon-user-register


বিঃ দ্রঃ- উপরের নিবন্ধন ছকে অনেক তথ্য সিলেক্ট বাটনে ক্লিক করে সিলেক্ট করতে হবে আবার অনেক তথ্য লিখে পূরণ করতে হবে। নিবন্ধন ছকের যে তথ্যগুলো আবশ্যিক তা বোঝাতে × চিহ্ন ব্যবহার করা হয়েছে।
Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে কীভাবে কন্টেন্ট ডাউনলোড করতে পারবো?

Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়ন হতে কন্টেন্ট ডাউনলোড করতে হলে আপনাকে আগে কোন শ্রেণী ও বিষয়ের কন্টেন্ট ডাউনলোড করবেন তা নির্ধারণ করতে হবে। এর জন্য আপনাকে পোর্টালের নেভিগেশন মেনুর দিকে লক্ষ্য করতে হবে। এখানে দুইভাবে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় কন্টেন্ট খুঁজে পাবেন। প্রথমত সার্চ এর মাধ্যমে। দ্বিতীয়ত পুরো কন্টেন্টের মধ্য থেকে। নেভিগেশন মেন্যুর দিকে লক্ষ্য করুন। নিচের ছবিটির মত দেখতে পাবেন।

shikkhok batayon-content-download

নেভিগেশন মেন্যুর এই অংশে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় কন্টেন্ট খুজে পেতে সার্চ বক্সের সাহায্য নিতে পারবেন। এখানে আপনার খোঁজার বিষয়বস্তু মানে আপনি কি খুঁজতে চাইছেন তা লিখুন। এরপর প্রতিষ্ঠানের ধরণ, শ্রেণী ও বিষয় নির্ধারণ করে ডানের সার্চ আইকনটিতে ক্লিক করুন। কিছুক্ষনের মধ্যে অনেকগুলো কন্টেন্ট দেখতে পাবেন। এবার আপনার পছন্দ মত কন্টেন্টের শিরোনামের উপর ক্লিক করুন। কন্টেন্ট পাতাটি ওপেন হলে, নিচের দিকে শেয়ার বাটনের শেষে Download লেখা লিংক দেখতে পাবেন। এখানে ক্লিক করুন। কিছুক্ষণের মধ্যে আপনার কাঙ্খিত কন্টেন্ট ডাউনলোড হয়ে যাবে।
এখানে আপনি শিক্ষক বাতায়নে রক্ষিত কন্টেন্ট এর বিভিন্ন শ্রেণীভাগ দেখতে পাবেন। আপনি যে ধরণের কন্টেন্ট চান তা নির্ধারণ করে ক্লিক করুন। তারপর পূর্বের মত কাঙ্খিত কন্টেনটি ডাউনলোড করুন।
এখানে সাধারণ, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষার প্রতিটি শ্রেণী ও বিষয়ের কন্টেন্ট এর শ্রেণীভাগ করা আছে। এখানে আপনার কাঙ্খিত শ্রেণী ও বিষয়ের কন্টেন্ট খুঁজে পেতে বিষয়টির উপর ক্লিক করুন। উক্ত বিষয়ের সকল কন্টেন্ট শ্রেণী ক্রম অনুসারে আসলে সেখান থেকে আপনার কাঙ্খিত কন্টেন্ট পূর্বের নিয়মের মত ডাউনলোড করুন।

শিক্ষক বাতানের কন্টেন্ট আপলোড করার নিয়ম জানতে, নিচের লিংকে ক্লিক করুন।

Shikkhok Batayon Content Upload | শিক্ষক বাতায়ন কন্টেন্ট আপলোড করার নিয়ম।

যদি আপনি এমপিও ভুক্ত শিক্ষক হন, তাহলে নিচের লেখাগুলো আপনার কাছে প্রয়োজনীয় হতে পারে-

MPO Notice | Teacher MPO: কিভাবে দেখবেন?

Madrasha MPO Notice | কোথায়, কিভাবে দেখবেন?

www.dshe.gov.bd – Teacher MPO Update: কখন, কোথায়, কিভাবে দেখবেন?

Shikkhok Batayon – শিক্ষক বাতায়নে নিবন্ধন ও কন্টেন্ট ডাউনলোড করতে কোন প্রকার অসুবিধা হলে নিচের মন্তব্যের ঘরে জানান। আর বিষয়টি অন্য সবার জন্য প্রয়োজনীয় মনে করলে ফেসবুক ও টুইটারে শেয়ার করুন।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

গ্রুপ চ্যাট বন্ধ করছে ফেসবুক

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৮ আগস্ট , ২০১৯:
জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে চার-পাঁচজন কিংবা তার চেয়ে বেশি মানুষ মিলে গ্রুপ চ্যাটও করে থাকেন। এভাবে গ্রুপ স্টাডিও চলে। আড্ডা কিংবা অফিসিয়াল কাজেও ব্যবহার করা হয় এই গ্রুপ চ্যাট।


ফেসবুক ব্যবহারকারীদের জন্য দুঃসংবাদ হলো, আগামী ২২ আগস্ট থেকে এ সেবা বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এর পরও গ্রুপের আগের চ্যাটগুলো দেখা যাবে।

শনিবার ‘কমিউনিটি লিডারশিপ সার্কেল ফ্রম ফেসবুক’ এক পোস্টে এ তথ্য নিশ্চিত করে। এতে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যে অবকাঠামো মেনে তৈরি করা হয়েছে, তার সঙ্গে ফেসবুকের গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি মানানসই নয়। তাই ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য সুরক্ষা ও নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে এটি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তা বন্ধ হলেও ফেসবুকে বন্ধু তালিকায় (ফ্রেন্ডলিস্টে) থাকা বন্ধুদের সঙ্গে গ্রুপ চ্যাট করা যাবে। বন্ধু তালিকায় নেই এমন বন্ধুরা গ্রুপে যুক্ত হতে পারবে না।

কমিউনিটি লিডারশিপ সার্কেল ফ্রম ফেসবুকের পেজে লেখা হয়েছে, তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য গ্রুপ চ্যাটে আগামীতে নতুন কিছু করা যায় কি-না সে ব্যাপারে চিন্তাভাবনা চলছে। তবে তা কী ধরনের হবে এ নিয়ে এখনই বলা যাচ্ছে না।

ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার ২০০৮ সালে চালু করা হয়। ২০১০ সালে এটা সংস্কার করে ফের চালু করা হয়। স্কাইপকে তাদের প্রযুক্তি অংশীদার করে ২০১১ সালের ৬ জুলাই ফেসবুকের ভিডিও কল সেবা চালু করা হয়। এরপর ২০১১ সালের ৯ আগস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস অ্যাপে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার চালু করা হয়। আর ফেসবুকে গ্রুপ চ্যাট চালু হয় ২০১৩ সালে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ইনস্টাগ্রামে যেভাবে ‘টিকটক’ করবেন

আমজনতা থেকে তারকা সবাই ব্যস্ত টিকটকে ভিডিও বানাতে। সেই টিকটককে টেক্কা দিতে পথ খুঁজে বার করেছে ফেসবুকের মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রাম।



জনপ্রিয় এই সোশ্যাল অ্যাপ নিয়ে এসেছে ‘অনস্ক্রিন লিরিক্স ফিচার’। অর্থাৎ ইনস্টাগ্রামে যে স্টোরি আপলোড করবেন, তার সঙ্গে ব্যবহার করতে পারবেন পছন্দের গানের কথা ও মিউজিক।
যেভাবে ব্যবহার করবেন এই অ্যাপ –

১. আপডেট করে ফেলুন ইনস্টাগ্রাম অ্যাপটি।
২. ‘মিউজিক লেন্স’ সিলেক্ট করে, মনের মতো গান ও লিরিকের সঙ্গে শুট করুন। ঠিক যেমনটা টিকটকের ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। সেই একই পন্থায় শুটিং হয়ে গেলে, ‘মিউজিক স্টিকার’ ব্যবহার করুন।
৩. মিউজিক লেন্স টাইপে আপনি কোনও গান পছন্দ করলে সেই গানের লিরিক যদি ইনস্টা মিউজিকে উপস্থিত থাকে, তা হলে তা আপনা আপনিই ফোনের স্ক্রিনে চলে আসবে।
৪. আপনি নিজের পছন্দমতো গান অথবা গানের স্থায়ী-অন্তরা বেছে নিতে পারবেন।

এখানেই শেষ নয়, ব্যবহারকারী ছাড়াও যারা আপনার স্টোরি দেখবেন, তাদের জন্যও রয়েছে বেশ কিছু ফিচার।

স্টোরিতে যদি কোনও গান সম্পর্কে আরও জানতে চান, তাহলে স্ক্রিনে ক্লিক করলেই সেই গানের শিল্পী ও তাঁর আরও অ্যালবামের খোঁজ পেয়ে যাবেন সেই মুহূর্তে।

আপাতত বাংলাদেশে এই ফিচারের দেখা না মিললেও খুব শিগগিরই এর আগমন ঘটবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

নেটওয়ার্কের গতি কমে গেলে থমকে যায় ইনস্টাগ্রাম। সেই সমস্যাও সমাধান করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ইনস্টাগ্রাম। যার জন্য তারা নিয়ে এসেছে ‘ডেটা সেভার’ ফিচার। যা ‘লো নেটওয়ার্ক এরিয়া’তেও অ্যাপটিকে কাজ করতে সাহায্য করবে। নিয়ন্ত্রণে থাকবে ডেটা।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

পাওয়ার পয়েন্ট টুকিটাকি-১

স্লাইডে টীকার কলম ব্যবহার

পাওয়ার পয়েন্ট সফটওয়্যারে তৈরি স্লাইডে টীকার (অ্যানোটেশন) জন্য কলম তৈরি করা যায়। সেই কলম দিয়ে স্লাইডে নতুন কিছু যোগ বা কোন নির্দিষ্ট অংশ চিহ্নিত করা যাবে। পাওয়ার পয়েন্টে স্লাইড শো করার সময় অ্যানোটেশন কলম ব্যবহার করতে চাইলে আপনাকে যা করতে হবে তাহলো-



1. স্লাইড শো বাটনে ক্লিক করে View show তে ক্লিক করুন।
2. পর্দার নিচে বাঁদিকের কোণায় দুটি বোতামের যেকোন একটিতে ক্লিক করুন অথবা মাউসের ডান বাটন ক্লিক করুন।
3. Pen-এ ক্লিক করুন। মাউস পয়েন্টারটি কলমের আকৃতি ধারন করবে।
4. একে সরিয়ে যেকোন জায়গায় নিয়ে মাউসের বোতাম চেপে রেখে কলম দিয়ে ব্যবহারকারী লিখতে পারেন বা মার্ক করতে পারেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

SEO শিখে কিভাবে অনলাইনে আয় করবেন?

SEO- Search Engine Optimization হচ্ছে ডিজিটাল সেলস এন্ড মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টের অন্যতম বৃহৎ অংশ। সাধারন কথায় বলতে গেলে Google বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে অনলাইন ভিত্তিক ওয়েবসাইট বা ব্যবসার মার্কেটিং করাই হচ্ছে SEO.

  • Amazon Affiliate Marketing এর মাধ্যমে আয় করা সম্ভব, এক্ষেত্রে অ্যামাজনের নিয়মকানুন জানা থাকলেই হবে
  • যে কোন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এ আপনাকে হেল্প করবে
  • নিজের ওয়েবসাইটে/ব্লগে এসইও করে ট্রাফিক নিয়ে এসে আয় করা যাবে
  • Google Adsense এর ইনকাম বাড়ানো যাবে- যেহেতু SEO এর মাধ্যমে ট্রাফিক জেনারেট করা যায়
  • এই ডিভিডি তে দেখানো মেথুড গুলো ইউটিউব ভিডিওতে অ্যাপ্লাই করে ইউটিউব ভিডিও র‍্যাংক করানো সম্ভব এবং এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে আয় করা সম্ভব
  • ক্লাইন্টের কাজ করা তথা ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলো যেমন- আপওয়ার্ক, ফ্রীল্যান্সার, ফাইভার ইত্যাদিতে কাজ করা যাবে
  • ই-কমার্স সাইটে SEO অ্যাপ্লাই করে সেলস বাড়ানো সম্ভব
  • লোকাল কোন কোম্পানীতে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজার হিসেবে চাকরী করা যাবে
Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মেটা ট্যাগ (Meta Tag) কি এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন ?

স্বরুপ দাস: মেটা ট্যাগ হল একধরনের HTMLকোড। যার মাধ্যমে আপনার ব্লগ কি সম্পর্কেতা সার্চ ইঞ্জিন ও ভিসিটর জানতে পারে।মেটা ট্যাগে অনেকগুলা বিষয় জড়িত থাকেযেমনঃ- ব্লগের বিবরন, ব্লগের কি ওয়ার্ড,ব্লগের মালিকের নাম, robots ইত্যাদি। meta tag এর সাহায্যে গুগল সহঅন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন আপনার সাইট সম্পর্কে অবগত হবে, তাই যখন কোন ভিসিটরকিছু সার্চ করে। আপনার সাইটে যদি এই বিষয়ে লিখা থাকে, তাহলে সার্চ ইঞ্জিন ওই ভিসিটরকে আপনার সাইটে পাঠিয়ে দিবে।

কিভাবে মেটা ট্যাগ তৈরি করবেন?

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের বর্ণনা দিন” name=”description”/>

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের keyword গুলো কমা দিয়ে লিখুন ” name=”keywords”/>

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের যিনি মালিক তার নাম লিখুন ” name=”author”/>

অথবা,

<meta name=”description” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের বর্ণনা দিন” />

<meta name=”keywords” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের keyword গুলো কমা দিয়ে লিখুন” />

<meta name=”author” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের যিনি মালিক তার নাম লিখুন” />

মনে রাখবেন মেটা ট্যাগ এ আপনি কখনও বড় হাতের লেখা ব্যবহার করবেন না, সবসময় ছোট হাতের লেখা ব্যাবহার করবেন।

অারো জানতে এখানে ক্লিক করুন

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

wordpress ব্যবহার করে কিভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

১। প্রথমে আপনার ডোমেন ও হোষ্টিং কিনুন।

২। আপনার হোস্টিং অ্যাকাউন্ট এ লগ ইন করুন। এক্ষেত্রে সি প্যালেন ব্যবহার করতে হবে।

সি প্যানেল লগইন কিভাবে

  1. আপনার সি প্যানেলে যান (যেমন www. ursite.com/cpanel)
  2. “ওয়ার্ডপ্রেস” বোতামটি ক্লিক করুন এবং আপনি আপনার নতুন ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটলেশান করে নিন।

    ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটলেশান সি প্যানেল থেকে

     ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করবেন কিভাবে?

    ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল স্টেপ

    সি প্যানেল থেকে ওয়ার্ডপ্রেস বাটনে ক্লিক করার পর উপরের ছবির মতো একটি উইন্ডো পাবেন। তীর চিহ্নিত জায়গায়(Install Now) ক্লিক করুন.

    তারপর তিনটি স্থান পুরন করতে হবে যা আপনার সাইটের জন্যে খুব গুরুত্বপূর্ণ।

    ১। আপনার সাইটের ডোমেইন URL নির্দেশনা দিন। যদি আপনার  SSL Certificate থাকে তবে অবশ্যই HTTPS সিলেক্ট করবেন। নাহলে HTTP সিলেক্ট করুন। তারপর আপনার সাইটে মানুষ কিভাবে লগইন করবে? www দিবে নাকি শুধু ডোমেইন দিয়ে লগইন করা যাবে।

    ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল স্টেপ ২

    ২। তারপর আপনার ডোমেইন সিলেক্ট/টাইপ করুন।

    ৩। ডিরেক্টরি সিলেক্ট করুনঃ এই ধাপে ওয়ার্ডপ্রেস এ By default ‘wp’ দেয়া থাকে। ‘wp’ ওয়ার্ডপ্রেস এর short form. এর মানে আপনার Root URL এর শেষে wp কথাটা থাকবে।

    • আপনার ডোমেইন যদি হয় www.money-bd.com তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল হবে www.money-bd.com/wp এ।
    • ৩ নম্বর পয়েন্ট জায়গাটা ফাকা রাখা ভালো। ‘wp’ কথাটি মুছে ফেলুন এবং পরবর্তী ধাপে চলে যান।

    ৪। পরের ধাপে আপনাকে আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইটের নাম ও টাইটেল বা শ্লোগান ঠিক করতে হবে।

    ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল স্টেপ ৩

    আপনার সাইটের ভাষা সিলেক্ট করুন। আপনি যদি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড বাংলা লেখায় চান তাহলে বাংলা সিলেক্ট করুন। তা নাহলে ইংলিশ রাখুন এবং পরের ধাপে চলে যান।

    ৫। সর্বশেষ ধাপে আপনাকে একটি থিম সিলেক্ট করতে হবে। থিম নির্বাচনটি একটু সময় নিয়ে করবেন। ওয়ার্ডপ্রেস এ হাজার হাজার ফ্রি থিম পাবেন। যেকোন একটি নির্বাচন করুন এবং আপনার সাইটের কন্টেন্টের সাথে মিল থাকে এমন একটি থিম নির্বাচন করা বুদ্ধিমানের কাজ।

    ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল স্টেপ ৪

    ইন্সটল ক্লিক করার পর ১-২ মিনিট সময় নিবে ইন্সটলেশন সম্পূর্ণ হতে। ইন্সটল হয়ে গেলে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড যাবার ইউআরএল দেখাবে। এই ড্যাশবোর্ড ই হবে আপনার সকল কাজের মুল জায়গা।

    নোটঃ ৩ নং ধাপে আপনি যদি ‘wp’ কথাটি রাখেন তাহলে আপনার ড্যাশবোর্ড ইউআরএল হবে একরকম আর মুছে ফেললে হবে আরেকরকম।

    •  ‘wp’ কথাটি রাখলে https://www.ur site.com/wp/wp-admin/
    • ‘wp’ কথাটি না রাখলে https://www.ur site.com/wp-admin/

    আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ডে লগ ইন করুন

    আপনার ব্রাউজারে ড্যাশবোর্ড URL(https://www.ur site.com/wp-admin/) এ গিয়ে আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন।

    ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড

    আপনার ওয়েব সাইট কাস্টমাইজ করুন


    কাস্টমাইজ করার বেসিক কিছু ধাপ দেয়া হলোঃ

    • থিমঃ আপনার থিম ফাইনাল করুন। ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটলের সময় যে থিম সিলেক্ট করেছিলেন তা ভালো না লাগলে আরেকটি থিম সিলেক্ট করুন।
    • থিম সিলেক্টঃ  Appearance>Theme>Add new>search any theme>press install>Press Activate

    ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজেশন কিভাবে

    এখন জেনে নেয়া যাক কিভাবে এবং কোন কোন আবশ্যকীয় প্লাগইন ইন্সটল করতে হবে।

    ওয়ার্ডপ্রেস এর Plugin Install করবেন কিভাবে?

    ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড থেকে Plugins>Add New>Search plugins(type any plugin name)>Click Install>Click Activate

    প্লাগইন এক্টিভেট করার পর আপনার ড্যাশবোর্ড এ প্লাগইন এর আইকন পাবেন (বাম দিকে নিচে)

    ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইন ইন্সটল কিভাবে

    ওয়ার্ডপ্রেস এর কিছু জরুরী Plugin

    # Jetpack WordPress Plugin

    জেটপেক ওয়ার্ডপ্রেস এর ভিতরে প্রথমেই দেয়া থাকে। খুবই প্রয়োজনীয় একটি প্লাগইন। জেটপেক প্লাগইন ফ্রি ভার্শন এর কিছু সুবিধা অসুবিধা দেয়া হলোঃ

    জেটপেক প্লাগইন এর সুবিধা

      • আপনার সাইট সর্বদা পর্যবেক্ষণ করবে। আপনার সাইট কখনো ডাউন হলে (হোস্টিং এর কারণে) আপনাকে মেইল করবে।
      • সোশ্যাল শেয়ার আইকন/অপশন গুলো পাবেন বিনামুল্যে, কোন কোডিং বা প্লাগিন ব্যবহার করা লাগবেনা।
    • সোশ্যাল একাউন্টের মাধ্যমে ইউজার-রা লগইন বা কমেন্ট করতে পারবে।
    • সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে আপনার সাইট সাবমিট/ভেরিফিকেশন করতে পারবেন

    জেটপেক প্লাগইন এর অসুবিধা

    • অনেক ভারী একটি প্লাগইন। অনেক বেশি জায়গা নিবে আপনার সাইটে।
    • অনেক বড় হওয়াতে আপনার সাইট লোড হতে সময় নিতে পারে।
    #

    ইয়োস্ট প্লাগিন

    সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন অনেক গুরুত্বপূর্ণ যদি আপনার সাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটর চান। Website কি, কিভাবে কাজ করে তা যেমন জানতে হবে তেমনি, আপনার সাইটের কন্টেন্ট লেখার সময় যে জিনিস গুলো খেয়াল রাখতে হবে তা ইয়োস্ট এসইও দিয়ে চেক করে নিতে পারবেন।

    ইয়োস্ট প্লাগিনের সুবিধা

    • কন্টেন্ট বা আর্টিকেল টাইটেল কত শব্দের দিবেন তা ইয়োস্ট সাজেস্ট করবে। লেখার নিচে সবুজ অংশ মানে আপনি পর্যাপ্ত শব্দ দিয়েছেন। লাল কালার হলে শব্দের পরিমান কমাতে হবে।
    • মেটা ডেসক্রিপশন কত বড় হবে তা ঠিক করে নিতে পারবেন।
    • ফোকাস কিওয়ার্ড সেট করে দিতে পারবেনইয়োস্ট প্লাগইন- Yoast Plugin সেটাপ কিভাবে
    • ইয়োস্ট এসইও প্লাগইন দিয়ে আপনার আর্টিকেল SEO friendly কিনা চেক করতে পারবেন।
    • একদম উপরের টুলবার এ ইয়োস্ট প্লাগইন এর আইকন যদি সবুজ বৃত্ত দেখায় তারমানে আপনার পোস্ট টি সার্চ ইঞ্জিনে ভালো ইম্প্রেশন পাবে।
    # Polylang Multilingual Plugin

    এটি অত্যন্ত জরুরী প্লাগইন যদি আপনি আপনার সাইট একাধিক ভাষায় দেখাতে চান। ধরুন আপনার ওয়েব সাইট বাংলায়। কিন্তু আপনি ইংলিশেও কিছু পোস্ট করবেন বা ইংলিশ ভাষার ভিজিটর দের আপনার সাইটে আনবেন। সেই ক্ষেত্রে এই প্লাগিনটি জরুরী।

    আগেই বলেছি, কোডিং না জানলে ও ওয়েব সাইট বানানো কোন বড় ব্যপার নয়। কারন আপনি যদি কোড করে আপনার সাইট হেডার এ ল্যাংগুয়েজ সেট করতে পারেন তাহলে এই প্লাগইন ব্যবহার না করলেও হবে। আর কোডিং না পারলে এই প্লাগিন আপনার লাগবেই। ভাষা-ল্যাংগুয়েজ প্লাগিন-ওয়ার্ডপ্রেস

    আপনার ওয়েব সাইট একাধিক ভাষায় না হলেও এই প্লাগিন লাগবে। শুধু ইংরেজি বা বাংলা ভাষায় হলেও প্লাগিন সেট করে ভাষা ঠিক করতে হবে। নাহলে সার্চ ইঞ্জিন আপনার সাইট ইনডেক্স করবেনা।

    সার্চ ইঞ্জিন আপনার ওয়েব সাইট এ এসে প্রথমেই হেডার এ ভাষার নির্দেশনা খুজবে। গুগল যখন দেখবে আপনার ওয়েব সাইট ইংলিশ ভাষায় বা একাধিক ভাষায় আর্টিকেল আছে তখন গুগলের ইনডেক্সিং সহজ হয়। ভাষায় সমস্যা হলে সার্চ ইঞ্জিন আপনার সাইট ইগনোর করবে যার ফলে আপনি র‍্যাংকিং হারাবেন।

    # WP Smush Plugin

    ওয়েব সাইট তৈরী হলে দিনে দিনে আপনার আর্টিকেল বা পোস্ট বাড়বে সেই ক্ষেত্রে ধীরে ধীরে আপনার ওয়েব সাইট ভারী হবে। আর্টিকেল বা পোষ্টে খুব কমন জিনিস হলো ছবি।

    আপনার সাইটে যদি অনেক বেশি ছবি থাকে এবং তা যদি অপ্টিমাইজ না করেন তবে আপনার Web site স্লো হবে। স্লো Website কখনো কোন ভিজিটর দ্বিতীয়বার আসবেনা।

    অপ্টিমাইজ ওয়ার্ডপ্রেস-স্মাশ

    এই প্লাগইন ব্যবহার করলে আপনার ওয়েব সাইট এর ইমেজ বা ছবির সাইজ কমিয়ে আনবে প্রায় ৭০%।

    ইমেজ অপ্টিমাইজ ওয়ার্ডপ্রেস

     

     

     

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter