Home » নিউজ (page 6)

নিউজ

মাদরাসা শিক্ষকদের জুলাই মাসের এমপিওর চেক ছাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক |

মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের জুলাই (২০২০) মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে। অনুদান বণ্টনকারী রাষ্ট্রায়াত্ত চারটি ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। শিক্ষকরা আগামী ১২ আগস্ট পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন। সোমবার (৩ আগস্ট) মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল নিয়ে জটিলতা নিরসনের দাবি

আগামী ১৩ আগষ্ট ২০২০ খ্রিঃ বিকাল ৩ ঘটিকায় জেলা প্রশাসকগণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৫ জুলাই: বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকদের  ৯/৩/১৪ হতে ১৪/১২/২০১৫ ইং পর্যন্ত সকল সরকারি চাকুরিজীবির ন্যয় টাইমস্কেলের দাবিতে ভার্চুয়াল লাইভ প্রেস কনফারেন্স করেছে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক টাইমস্কেল বঞ্চিত গ্রুপ। গতকাল শুক্রবার রাত সারে আটটায় ভার্চুয়াল প্লাটফরম থেকে দাবি পূরণে সরকারকে অনুরোধ জানায় ‘প্রধান শিক্ষক টাইমস্কেল বঞ্চিত গ্রুপ।’।

বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল বঞ্চিত গ্রুপের মুখপাত্র ও প্রধান শিক্ষক সমিতির সিনিয়ার যুগ্ন সাধারন সম্পাদক স্বরুপ দাসের স্বাক্ষরিত আবেদনে উল্লেখ করা কারণগুলো তুলে ধরা হলো:

২০১৪ সালের ৯ মার্চ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এক যুগান্তকারী ঘোষণার মাধ্যমে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদমর্যাদায় উন্নীত করেন। একই দিনে পদমর্যাদা উন্নীতের আদেশ জারী করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

গত ১৫/১২/২০১৫ খ্রিঃ তারিখ অর্থ বিভাগের বাস্তবায়ন অনুবিভাগ হতে যে গেজেট প্রকাশ হয়েছে তাতে সরকারি সকল কর্মচারি ১৪/১২/২০১৫ খ্রিঃ পর্যন্ত টাইমস্কেল/সিলেকশন গ্রেড প্রাপ্য হবেন। কিন্তু ব্যতিক্রম আমরা প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকরা।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকদের অজ্ঞাত কারনে ৯/৩/২০১৪ খ্রিঃ হতে ১৪/১২/২০১৫ খ্রিঃ পর্যন্ত প্রাপ্য প্রথম/২য়/৩য় টাইমস্কেল বন্ধ হয়ে আছে।

গত ১২/০৮/২০১৫ খ্রিঃ তারিখ ৫০৪ সংখ্যক স্মারকে প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয় বিদ্যালয় ২ শাখায় সিনিয়ার সহকারী সচিব জাজরীন নাহার স্বাক্ষরিত পত্রে প্রধান শিক্ষকদের নন গেজেটেড পদমর্যাদায় বেতন নির্ধারন করতে বলা হয়েছে।

গত ১০/০৪/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ ১৬৮ সংখ্যক স্মারকে প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয় বিদ্যালয় ২ শাখায় উপসচিব মোহম্মদ হিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত পত্রে টাইমস্কেল মঞ্জুরের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ নির্ধারন করা হয়েছে।

গত ১৮/০৮/১৯৯৭ খ্রিঃ তারিখ ১১৮ সংখ্যক স্মারকে প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয় হতে জারি করা পত্রে ৬/৫/১৯৮১ ইং তারিখে থানা শিক্ষা অফিসারদের (গেজেটেড) ২য় শ্রেণি ঘোষনা করা হয়েছে। উক্ত তারিখের পূর্বে নন গেজেটেড পদের চাকুরিকাল গণনা করে টাইমস্কেল প্রাপ্য।

গত ১৫/১১/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ ২৩১ সংখ্যক স্মারকে অর্থ বিভাগের বাস্তবায়ন অনুবিভাগ হতে প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অধীন প্রধান শিক্ষকদের নন গেজেটড ধরে উন্নীত বেতন স্কেল নির্ধারন সংক্রান্ত একটি পত্র জারি করা হয়েছে।

যেহেতু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদটি ৯/৩/২০১৪ ইং পূর্বেও ছিল নন গেজেটড এবং বর্তমানেও নন গেজেটেড।
০৯/০৩/২০১৪ খ্রি.-এর পূর্বে প্রধান শিক্ষকগণ যে ৩য় শ্রেনির কোডে বেতন ভাতা পেতেন অদ্যবধি সে কোডেই বেতন ভাতা পাচ্ছেন। ২য় শ্রেণির কর্মকর্তাগণ টিফিন ভাতা না পেলেও ৩য় শ্রেণি হিসেবে প্রধান শিক্ষকগণ এখনও টিফিন ভাতা পাচ্ছেন।মাননীয় মহোদয়কে আমরা সবিনয়ে জানাতে চায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের উন্নিত বেতন স্কেল প্রাপ্ত হয়েছেন। উন্নিত বেতন স্কেল কখনো পদোন্নতি হিসাবে গণ্য হতে পারে না।

১৫/১১/২০১৭ খ্রিঃ তারিখ ২৩১ সংখ্যক স্মারকে অর্থ বিভাগ থেকে জারিকৃত পত্র সংশোধন পূর্বক বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষকদের ৯/৩/২০১৪ ইং তারিখ হতে ১৪/১২/২০১৫ ইং তারিখ পর্যন্ত প্রাপ্য প্রথম/২য়/৩য় টাইমস্কেলের দাবি জানানো হয়।

প্রধান শিক্ষক স‌মি‌তির সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, টাইমস্কেল প্রাপ্তির কারণ উল্লেখ করে দ্রুত তা বাস্তবায়নের অনুরোধ জানান। অন্যথায়  আগামী ১৩ আগষ্ট ২০২০ খ্রিঃ বিকাল ৩ ঘটিকায় জেলা প্রশাসকগণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হবে বলে জানানো হয়।

আরো উপ‌স্থিত ছি‌লের প্রধান শিক্ষক স‌মি‌তির সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম,বঞ্চিত কমিটির চট্রগ্রাম বিভাগের আহবায়ক ও সিনিয়ার যুগ্ন সাধারন সম্পাদক র‌ঞ্জিত ভট্রাচার্য ম‌নি, খুলনা বিভাগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, সিলেট বিভাগের আহবায়ক অরুন কুমার দাস,প্রধান শিক্ষক সমিতির নেতা খায়রুল ইসলাম মামুন,নুর ইসলাম নুর , পার‌ভেজ সাজ্জাদ,দিদারুল আলম,র‌ঞ্জিত দত্ত,নু‌রে দিবা,প্রমুখ ।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত আসছে।

ডেস্ক,২৫ জুলাই:

করোনার কারণে প্রায় চার মাস ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এখন পর্যন্ত কোনো সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত না আসলেও জানা গেছে, আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত ছুটি শেষ হওয়ার পরই আবারো বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি।

শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলমান পরিস্থিতিতে অনলাইন প্ল্যাটফর্ম আর সংসদ টেলিভিশনের মাধ্যমেই শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কোনো সম্ভাবনা নেই।

আরো পড়ুন: ৮ আগস্ট খুলছে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু ভুয়া আইডি থেকে ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ‘গুজব’ ছড়ানো হয়। এতে বিভ্রান্ত হচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা। অনেক অভিভাবকই স্কুলের শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগও করছেন।

আরো পড়ুন:
প্রাথমিক নিয়ে মন্ত্রণালয়ের নতুন সিদ্ধান্ত

তবে গত বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এক বিবৃতিতে বলেছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক শ্রেণির মানুষ শিক্ষাসংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে মিথ্য প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে আমরা এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। অথচ আমাদের নাম দিয়ে কখনো জাতীয় শিক্ষা বোর্ড নামে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে জাতীয় শিক্ষা বোর্ড নামে কোনো শিক্ষা বোর্ড নেই।

দীপু মনি বলেন, মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা, শিক্ষক ও অভিভাবকদের এ বিষয়ে সচেতন থাকতে অনুরোধ জানাচ্ছি। যখন সময় হবে আমরা গণমাধ্যমের সাহায্যে জানিয়ে দেব, কখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে, কখন পরীক্ষা নেওয়া হবে। শিক্ষাসংক্রান্ত কোনো বিষয়ে গুজব ছড়ানো হলে বা গুজব ছড়ানোর চেষ্টা করা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মন্ত্রী।

এর আগে গত মাসে এক ভিডিওবার্তায় শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে। সেইসঙ্গে পরের শিক্ষাবর্ষ কমিয়ে নয় মাস করার কথা ভাবা হচ্ছে। যদিও এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত আসেনি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক নিয়ে মন্ত্রণালয়ের নতুন সিদ্ধান্ত

ডেস্ক,২৫ জুলাই:

করোনায় থমকে আছে বিশ্ব। কবে মুক্তি মিলবে তা অজানা। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই এ ভাইরাসের প্রভাব দেখা গেছে। অনেক দেশেই করোনাভাইরাসের প্রভাবে অর্থনীতি, সংস্কৃতি, শিক্ষাব্যবস্থা, স্বাস্থ্যখাতসহ প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রের অবস্থাই শোচনীয়।

উন্নত দেশে করোনার যে ধরনের প্রভাব পড়েছে সেখানে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোর জন্য এ পরিস্থিতি মোকাবিলা করা আরো কঠিন। সংশ্লিষ্টরা শিক্ষাখাতে চলমান সংকট মোকাবিলায় দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন।

আরো খবর:

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল নিয়ে জটিলতা নিরসনের দাবি

দেশে করোনার কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক দফার বৃদ্ধির পর আগামী ৬ আগস্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা থাকলেও শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা বলছেন এখনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার মতো পরিস্থিতি আসেনি।

সূত্রমতে, সেপ্টেম্বরের আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কথা ভাবছে না সরকার।

এদিকে প্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার পর গত ৭ এপ্রিল থেকে সংসদ টেলিভিশনে প্রাথমিক ক্লাস সম্প্রচারিত হচ্ছে। তবে এতে শতভাগ শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছানো যাচ্ছে না।

এমন অবস্থায় প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের সিলেবাস সংক্ষিপ্ত তথা ছোট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। করোনা পরিস্থিতির ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, শিক্ষার্থীদের জন্য অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোকে আলাদা করে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করার পরিকল্পনা করছে মন্ত্রণালয়।

ইতোমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর ও জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমিকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সার্বিক দিক মূল্যায়ন করে খুব শিগগিরই এটি কার্যকর করা হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন জানান, দীর্ঘ বন্ধে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমরা টেলিভিশনের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। তবুও অনেক শিক্ষার্থী শিক্ষা কার্যক্রম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই সবার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে নতুনভাবে চিন্তা করতে হচ্ছে আমাদের।

তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠান খোলার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীরা যাতে খুব দ্রুত তাদের সিলেবাস শেষ করতে পারে সেজন্য একটা পরিকল্পনা রয়েছে। শ্রেণিভিত্তিক মৌলিক সক্ষমতা বা কোর কম্পিটেন্ট অর্জনে বিষয় চিহ্নিত করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি করার জন্য জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বছরের শুরুতেই সারা বছরের পাঠপরিকল্পনা নির্ধারণ করা ছিল। সংশোধিত সিলেবাস সেটাকেও রিভাইস করতে বলা হয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ জানান, শিক্ষাবর্ষ যাতে পিছিয়ে না যায় সে লক্ষ্যে এ ধরনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ শুরু হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সাধারণ ছুটি শেষ হলে ওই সিলেবাস সম্পন্ন করে ডিসেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেয়া হতে পারে। তবে ছুটি যদি সেপ্টেম্বরের পরও দীর্ঘ হয় তাহলে শিক্ষাবর্ষ পরবর্তী বছরের দুই এক মাস লাগতে পারে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীর পরের ক্লাসের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলোকে চিহ্নিত করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস তৈরি হবে। দুইটি স্তরে এটি করা হবে। প্রথম শ্রেণি থেকে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য একভাবে। আর পঞ্চম শ্রেণির জন্য আলাদাভাবে করা হবে। এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ চ্যাপ্টারগুলোর প্রতি বেশি জোর দেয়া হবে। সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব হলে সে আলোকে ক্লাস হবে এবং শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ব্রিটিশ কাউন্সিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (ISA) , ফুল লাভ করল কাইতকোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ।

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৫ জুলাই:
ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশ কর্তৃক গত ২০ জুলাই ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (ISA) ঘোষনা করা হয়। এতে বাংলাদেশের জুন ২০২০ইং রাউন্ডে দেশের ২২টি শিক্ষা প্রতিষ্টানকে ফুল অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। এরমধ্যে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাইতকোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কানেকটিং ক্লাসরুম প্রকল্পে কৃতিত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশ কর্তৃক ঘোষিত সর্বোচ্চ সম্মান সূচক পুরস্কার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (আইএসএ) (ফুল) লাভ করেছে। পারফর্মেন্স মূল্যায়ন কমিটি কর্তৃক অনেক যাচাই বাছাই করে ফলাফল প্রকাশ করে, যা সুনামগঞ্জ জেলার মধ্যে ২টি বিদ্যালয় এবং ১টি মাধমিক বিদ্যালয় (জনতা উচ্চ বিদ্যালয়, কামরাঙ্গি) এই খ্যাতি অর্জন করেছে।
যোগাযোগ করে জানা যায়, ফুল অ্যাওয়ার্ড এর জন্য আন্তর্জাতিক পার্টনার স্কুলের (ভারত, পাকিস্থান, নেপাল, আফগানিস্তান, ফিলিপাইন, ইংল্যান্ড) সহ অন্যান্য দেশের সাথে বিভিন্ন প্রজেক্ট কাজের অভিজ্ঞতা সারা বছর ধরে কার্যক্রম পরিচালনা করে ও শেয়ার করে। বৈশ্বিক নাগরিক হিসাবে পার্টনার স্কুলের সাথে আন্তর্জাতিকভাবে মিথস্ক্রিয়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের জীবনের জন্য দক্ষতা উন্নয়ন করে। এই কার্যক্রম শুরু করা হয় জুলাই ২০১৯ ইং হতে ২০২০ইং সনের মে মাস পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ের করা প্রজেক্ট গুলোর মধ্যে ৭ (সাত) টি প্রজেক্ট কার্যক্রম দিয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিল বাংলাদেশে আবেদন করা হয়। ব্রিটিশ কাউন্সিল তার তত্ত্বাবধানে পর্যবেক্ষণ ও পর্যালোচনার পর ফুল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (ISA) ঘোষনা করে। কাইতকোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই অ্যাওয়ার্ড পেতে যিনি কাজ করেছেন তিনি হলেন বিদ্যালয়ের প্রজেক্টের আন্তর্জাতিক কো-অর্ডিনেটর এবং শিক্ষক বাতায়ন পোর্টালের সুনামগঞ্জ জেলা এম্বাসেডর মোঃ আল আমীন, সহকারী শিক্ষক অত্র বিদ্যালয়। এছাড়াও উনাকে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেন অত্র বিদ্যালয়ের সুনামগঞ্জ জেলার নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ শিক্ষক (প্রাক্তন) ও স্বনামধন্য প্রধান শিক্ষক জনাব অসীম চক্রবর্তী।। তিনি উপজেলা শিক্ষা অফিসার, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার এবং ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর মহোদয়ের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ।
এক প্রতিক্রিয়ায় বিদ্যালয়ের সভাপতি জনাব তোফায়েল আহমেদ তালুকদার বলেন, এই অ্যাওয়ার্ড অর্জনে বিদ্যালয়ের সকল ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্য ও শিক্ষার্থীদের সকল অভিভাবক অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত। বিশেষ করে কৃতজ্ঞতা জানাই ব্রিটিশ কাউন্সিল স্কুলের এ্যাম্বাসেডর মো. কামাল উদ্দিন মহোদয়সহ ব্রিটিশ কাউন্সিল কর্তৃপক্ষকে। এছাড়া অশেষ কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাচ্ছি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জনাব মোঃ আল আমীন সাহেবকে। যার ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠা ও কঠোর পরিশ্রমের কারণে এই অ্যাওয়ার্ড অর্জন সম্ভব হয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল বিভিন্ন এক্টিভিটি করার ক্ষেত্রে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা খুবই স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেছে। এই অর্জনের মধ্যে দিয়ে প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট এর আরেকটি ধাপ উন্নীত হলো এবং বিদ্যালয়টি আরো সামনের দিকে এগিয়ে যাবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আজ ব্যাংকে যাচ্ছে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বোনাসের টাকা

ডেস্ক,২২ জুলাই:

বেসরকারি এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদুল আজহার উৎসব বোনাসের সরকারি আদেশে জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই টাকা আজ বুধবার (২২ জুলাই) সরকারি সোনালী, রূপালী, জনতা, অগ্রণী ব্যাংকে পাঠানো হবে।

এর আগে গত সোমবার জিও জারি করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) পরিচালক (প্রশাসন) শাহেদুল খবির চৌধুরী বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ বোনাসের জিও বা সরকারি আদেশ জারি হয়েছে। আজ (বুধবার) অর্থ নির্ধারিত চারটি ব্যাংকে পাঠানো হবে। ঈদের আগেই শিক্ষক-কর্মচারীরা বোনাসের অর্থ হাতে পাবেন বলে জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, শিক্ষকদের ঈদুল আজহার উৎসব ভাতা দেয়ার প্রস্তাব অধিদপ্তর থেকে পাঠানো হয়েছিল। সেই প্রস্তাবে অনুমোদনও দেয়া হয়েছে। এখন বোনাসের চেক ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হচ্ছে। এমপিও শিক্ষকরা প্রচলিত বিধি অনুসারে বোনাস ভাতা পাবেন।

জানা গেছে, আগামী ১ আগস্ট সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। তাই জুলাই মাসের বেতন অনুসারে উৎসব ভাতা পাচ্ছেন শিক্ষকরা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আরও বাড়তে পারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি, অনিশ্চিত এইচএসসি পরীক্ষাও

ডেস্ক,২২ জুলাই:

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে টানা বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কয়েক দফা বাড়ানোর পর সরকারের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ থাকবে প্রতিষ্ঠানগুলো। কিন্তু এরপর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে কি না, সে বিষয়ে এখনেও সিদ্ধান্ত নেয়নি মন্ত্রণালয়। তবে সহসাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে না বলে ইতিমধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের সাংবাদিকদেরকে এ তথ্য জানিয়েছেন। এছাড়া এইচএসসি পরীক্ষা নিয়েও এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

জানা গেছে, ঈদের ছুটির পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্তে যেতে পারেনি মন্ত্রণালয়। তবে ৬ আগস্টের আগেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করে ছুটির বিষয়ে নির্দেশনা চাওয়া হবে বলে সূত্র জানিয়েছে।

মোহাম্মদ আবুল খায়ের বলেন, ‘সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা না করে সিদ্ধান্তে নেবে না মন্ত্রণালয়। তাছাড়া ৬ আগস্ট আসতে এখনও কিছুদিন সময় বাকি আছে। ঈদের পর বিষয়টি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।’

শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে গত ১৭ মার্চ থেকে শুরু হওয়া ছুটি বাড়ানো হয়েছে ৬ আগস্ট পর্যন্ত। এই পরিস্থিতির মধ্যে ৯ আগস্ট থেকে অনলাইনে একাদশে ভর্তির আবেদন আহবান করা হয়েছে। আবেদনের শেষ সময় ৮ সেপ্টেম্বর। সব প্রক্রিয়া শেষ করতে সময় লাগবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি জানিয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হবে। অন্তত দুই সপ্তাহ সময় দিয়ে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লেজিসলেটিভ সচিব নরেন দাসের মৃত্যু

ডেস্ক,২১ জুলাইঃ
সরকারের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব নরেন দাস করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয় বলে তার একান্ত সচিব তরফদার মাহমুদুর রহমান জানান।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “আত্মীয়-স্বজনরা হাসপাতালের পথে রয়েছেন। তারা আসার পর তার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

সচিব নরেন দাস

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় গত ৫ জুলাই রাতে নরেনকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।
গত ৭ জুলাই নমুনা পরীক্ষা করা হলে নরেন দাসের সঙ্গে তার স্ত্রীরও কোভিড-১৯ ‘পজিটিভ’ আসে।

মাহমুদুর জানান, নরেন দাসের স্ত্রী এখন সুস্থ্য হয়ে উঠছেন, তার দ্বিতীয় পরীক্ষার ফল ‘নেগেটিভ’ এসেছে।

২০১৯ সালের ৩ নভেম্বর থেকে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন নরেন দাস। এর আগে তিনি এ বিভাগের অতিরিক্ত সচিবের (ড্রাফটিং) দায়িত্বে ছিলেন।

নরেন দাসের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এক শোকবার্তায় তিনি প্রয়াত সচিবের আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

আইন কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হকও লেজিসলেটিভ সচিব নরেনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে নরেন দাস ছিলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হকের ছাত্র।

লেজিসলেটিভ সচিবের মৃত্যুতে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ারও শোক জানিয়েছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

পবিত্র ঈদুল আজহা ১ আগষ্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা
বাংলাদেশের আকাশে জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে বাংলাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে ১ আগষ্ট। আজ চাঁদ দেখা না যাওয়ায় জিলহজ শুরু হবে আগামী বৃহস্পতিবার।

আজ মঙ্গলবার চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিতর্কের মুখে পদত্যাগ করলেন স্বাস্থ্যের ডিজি

ডেস্স্বাক,২১ জুলাইঃ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) আবুল কালাম আজাদ পদত্যাগ করেছেন। আজ মঙ্গলবার জনপ্রশাসন সচিবের কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আবুল কালাম আজাদের পদত্যাগপত্র গৃহীতের বিষয়টি প্রজ্ঞাপন আকারের জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্যখাতের নানা অনিয়ম নিয়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যে তিনি পদত্যাগ করলেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বিএড স্কেল পাওয়ার ১০ বছর পর উচ্চতর গ্রেড পাবেন শিক্ষকরা

ডেস্ক,২১ জুলাইঃ

বিএড স্কেল পাওয়ার ১০ বছর পূর্তিতে উচ্চতর গ্রেড পাবেন এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। আর বিএড স্কেল শিক্ষাগত ডিগ্রির জন্য অর্জিত হলেও উচ্চতর গ্রেড হিসেবে গণ্য হবে। তবে, শিক্ষকরা চাকরিতে দুইটির বেশি উচ্চতর গ্রেড পাবেন না। এসব তথ্য জানিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে পাঠানো স্পষ্টীকরণ চিঠির জবাব দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। তাই, এমপিও নীতিমালায় শিক্ষকদের দুইটি উচ্চতর গ্রেড পাওয়ার কথা বলা হলেও দ্বিতীয় উচ্চতর গ্রেড নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি কর্মচারীদের পেনশন সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,২০ জুলাই:

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদের পর আন্দোলনে নামছে ৩৫ প্রত্যাশীরা

শিক্ষাবার্তা ডেস্ক,১৮ জুলাই:

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার দাবিতে ফের আন্দোলনে নামছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ। দাবি আদায়ে সরকারকে নতুনভাবে আল্টিমেটামও দিয়েছে সংগঠনটি। দাবি না মানলে ঈদুল আজহার পর শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে তারা।

এ বিষয়ে অনুষ্ঠানিকভাবে জানাতে আগামী সোমবার (২০ জুলাই) ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েসন (ক্রাব) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ (কেন্দ্রীয় কমিটি)। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংগঠনটির মুখপাত্র ইমতিয়াজ হোসেন।

তিনি বলেন, সেশনজট, রাজনৈতিক অস্থিরতা, নিয়োগের ক্ষেত্রে কালক্ষেপণ ও বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে অনেকের চাকরিতে আবেদনের বয়স শেষ হয়ে গেছে। সবকিছু বিবেচনায় সরকারের উচিত চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছর করা।

ইমতিয়াজ হোসেন বলেন, আমরা দাবি আদায়ে সরকারকে ২৮ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছি। এর মধ্যে আমাদের দাবি মানা না হলে ঈদুল আজহার পর দেশের আপামর ছাত্র সমাজকে সাথে নিয়ে আমরা শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি পালন করব। আমাদের কর্মপরিকল্পনা জানাতে আগামী ২০ জুলাই সংবাদ সম্মেলন ডেকেছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে বেসরকারি চাকরিতেও ৩০ বছরের পর প্রবেশ করা যাচ্ছে না। আমাদের দাবি সেখানেও যেন বয়সসীমা উঠিয়ে দেয়া হয়। ৩০ এর বাধ্যবাধকতা থাকায় আমরা অনেক মেধাবীদের হারাচ্ছি। তারা বিদেশে চলে যাচ্ছে। ফলে মেধার পাচার হচ্ছে। সরকারের অবশ্যই এদিকে নজর দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, টানা কয়েক বছর ধরে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ করার দাবিতে আন্দোলন করছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ। তবে জাতীয় সংসদে কণ্ঠভোটে নাকচ হয়েছে ৩৫-এর সব চাওয়া-পাওয়া। তারপরও আন্দোলন থেকে সরে আসেননি আন্দোলনকারীরা। সাংগঠনিকভাবে কিছুটা গুছিয়ে উঠে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন তারা। এ প্রক্রিয়ায় রয়েছেন আন্দোলনকারীদের সংগঠক এম এ আলী, ফেরদৌস জিন্নাহ লেলিন, সঞ্জয় দাসসহ আরও অনেকে।

জানা গেছে, সম্প্রতি কোটা সংস্কার আন্দোলন সফলতার মুখ দেখলেও এখনো চলছে ‘৩৫ চাই’ আন্দোলন। ২০১৯ সালে কয়েক দফা কর্মসূচি পালন ও পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটেছে গ্রেফতারের ঘটনাও। এরইমধ্যে তাদের মধ্যে নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব ও মতবিরোধ দেখা দেওয়ায় আন্দোলন কিছুটা ঝিমিয়ে পড়েছিলো।

গত বছরের ২৫ এপ্রিল চাকরি প্রত্যাশীদের বহুল কাঙ্ক্ষিত চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার প্রস্তাব জাতীয় সংসদে ওঠে। তবে তা নাকচ করে দিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, পড়াশোনা শেষ করার পর একজন ছাত্র অন্তত সাত বছর সময় পেয়েছে। এটা অনেক সময়। তাছাড়া এর আগে চাকরির বয়স ২৫ বছর ছিল, সেখান থেকে ২৭ ও পরবর্তীতে ৩০ বছর করা হয়। সে হিসেবে এখন বাড়ানোর যৌক্তিকতা নেই।

এ সময় তিনি প্রস্তাব উত্থাপনকারী সংসদ সদস্যকে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার আহবান জানান এবং প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। কিন্তু বগুড়া-৭ আসনের সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম বাবলু সেটি প্রত্যাহারে রাজি না হলে কণ্ঠভোটের আয়োজন করা হয়। কণ্ঠভোটে প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দেন সংসদ সদস্যরা। মূলত প্রস্তাবটি পাস না হওয়াতেই তীব্র হতাশ হয়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সাহেদ এরমধ্যেও ঢাকায় যাওয়া আসা করেছেন : র‌্যাবের ব্রিফিং

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৫ জুলাই, ২০২০
রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম নিজেকে যতোই ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চেষ্টা করুক না কেন, সে মূলত চতুর ধুরন্ধর, অর্থলিপ্সু। বুধবার (১৫ জুলাই) এই পলাতক আসামিকে আটকের পরে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন। তিনি এসময় তার বিরুদ্ধে প্রতারণার কিছু অভিযোগ তুলে ধরেন এবং কীভাবে তাকে ধরা সম্ভব হলো সেসব নিয়ে কথা বলেন।

বুধবার সকাল ৯টায় সাতক্ষীরা থেকে ঢাকায় আনার পর সাহেদকে প্রথমে র‌্যাব সদর দপ্তরে নেয়া হয়। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে নিয়ে র‌্যাব রাজধানীর উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের ২০ নম্বর সড়কের ৬২ নম্বর বাসায় অভিযান চালায়। সিএইচএল বায়তুল এহসান নামের এই বহুতল ভবনের পঞ্চম তলায় সাহেদ করিমের একটি গোপন অফিস আছে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তারা। আইন বিষয়ে কোনও ডিগ্রি না থাকলেও এটি ছিল তার ল চেম্বার। অভিযানে সেখান থেকে জাল টাকা উদ্ধার করা হয়।

পরে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজের তথ্যের ভিত্তিতেই সাহেদের অবস্থান জেনে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার ভোর ৫টার দিকে সাহেদ করিমকে সাতক্ষীরায় গ্রেপ্তার করা হয়। নৌপথে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন তিনি। যেন কেউ চিনতে না পারে সেজন্য বোরকা পরে নৌকায় করে নদী পার হওয়ার চেষ্টা করছিলেন। তবে র‌্যাবের নজরদারির কারণে এমন কিছু করতে পারেননি তিনি। গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আজ সকাল নটার দিকে র‌্যাবের হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। এসময় কর্মকর্তারা জানান, গোঁফ কেটে চেহারা পালটিয়ে পাগলের বেশ নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন সাহেদ।

মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সে নিজেকে কখনও অবসরপ্রাপ্ত কখনও চাকরিরত সেনা কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিতো। কখনও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব পরিচয় দিতো এবং সুকৌশলে ছবি তুলে সেটা ব্যবহার করতো। এমনকি তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, সাহেদ বালু,পাথর ব্যবসায়ীদের ভুয়া লাইসেন্স দিয়ে প্রতারিত করেছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

লকডাউনে বিয়ে করে করোনায় প্রাণ গেল শিক্ষিকার

ডেস্ক | ১৫ জুলাই, ২০২০

লকডাউনের মধ্যেই বিয়ে করেছিলেন। সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক সবকিছু মেনেই বিয়ের অনুষ্ঠান হয়েছিল। কিন্তু এক মাসের মধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হলো ভারতের হুগলির চন্দননগরের এক স্কুলশিক্ষিকার। মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) বিকালে ব্যান্ডেল ইএসআই হাসপাতালে মৃত্যু হয় সৌমি সাহা নামে ওই শিক্ষিকার।

মৃতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছু দিন ধরেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন সৌমি। চিকিৎসার জন্য গত কয়েক দিন আগে চন্দননগর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। জ্বর ও শ্বাষকষ্টের জন্য তাকে ব্যান্ডেল ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হলে গত শনিবার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এর পর তাকে করোনা চিকিৎসার জন্য শ্রীরামপুরের শ্রমজিবী হাসপাতালে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় স্থানান্তর করা সম্ভব হয়নি। মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে ওই শিক্ষিকার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চন্দননগর মুন্সিপুকুর এলাকার বাসিন্দা বছর চৌত্রিশের এই শিক্ষিকা পোলবার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ছিলেন। গত ১৪ জুন চন্দনগরেরই যুবক প্রসূন ঘটকের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। প্রসূন কর্মসূত্রে মুম্বাইয়ে থাকতেন। বিয়ের জন্য সেই সময় মুম্বাই থেকে গাড়িতে করে চন্দননগরে ফেরেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter