Home » কলেজ

কলেজ

এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা ৩ বিষয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৭ জুলাই, ২০২১
সময় ও নম্বর কমিয়ে গ্রুপভিত্তিক (বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্যসহ অন্যান্য গ্রুপ) তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আবশ্যিক কোনো বিষয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে না। তবে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে আবশ্যিক বিষয় এবং চতুর্থ বিষয়ের নম্বর দিয়ে ফলাফলে যোগ করা হবে।

সোমবার (২৬ জুলাই) মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর এসএম আমিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ২০২১ খ্রিষ্টাব্দের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা শুধু গ্রুপ ভিত্তিক ৩টি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষার সময় ও পরীক্ষার নম্বর হ্রাস করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষার গ্রহণ করা হবে। আবশ্যিক বিষয় ও ৪র্থ বিষয়ের কোন পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে না। বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশে জেএসসি ও সমমান এবং এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে সাবজেক্ট ম্যাপিং করে আবশ্যিক বিষয় ও চতুর্থ বিষয়ের নম্বর দেওয়া হবে।

শিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন কার্ড অনুযায়ী চতুর্থ বিষয়ের নম্বর সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে এসএসসি ও সমমান এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা-২০২১-এর ফলাফলে যোগ করা হবে। এক্ষেত্রে উচ্চ শিক্ষায় ভর্তির কোন রকম নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না।

বোর্ড আরও বলছে, এ মুহুর্তে শিক্ষার্থীর রেজিস্ট্রেশন কার্ডে ৪র্থ বিষয় পরিবর্তণ বা সংশোধনের কোন সুযোগ নেই।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ভার্চ্যুয়াল প্রেস ব্রিফিংয়ে জানিয়েছিলেন, আবশ্যিক বিষয়ের পরীক্ষা নেয়া হবে না। গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে সময় ও নম্বর কমিয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে।

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী নভেম্বরে এসএসসি ও ডিসেম্বরে এইচএসসি এবং সমমানের পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা রয়েছে সরকারের।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশ আগামী মঙ্গলবার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ২৮ জুন, ২০২১
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগে গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ নিয়ে সৃষ্ট আইনি জটিলতা দূর হয়েছে। এখন গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে আবেদেন করা প্রার্থীদের নিয়োগ সুপারিশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে এনটিআরসিএ। চলতি সপ্তাহেই গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন কর্মকর্তারা।

সোমবার (২৮ জুন) দুপুরে এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা দৈনিক শিক্ষা ডটকমকে এ পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংস্থাটির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ১ থেকে ১২ তম নিবন্ধিতদের করা আদালত অবমাননার আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ নিষ্পত্তি করে দেয়া হয়েছে। গণবিজ্ঞপ্তি ফল প্রকাশে আর কোনো বাধা নেই এনটিআরসিএ নিয়োগ সুপারিশে প্রস্তুতি নিচ্ছে।

কবে নাগাদ প্রার্থীদের নিয়োগ সুপারিশ করা হতে পারে জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, আদেশের সার্টিফাইড কপি আমাদের হাতে আসতে হবে। সেটি নিয়ে আমরা টেলিটকের সাথে বসবো। খুব তাড়াতাড়ি গণবিজ্ঞপ্তির ফল প্রকাশ করা হবে বলে আশা প্রকাশ করছি। আগামীকাল মঙ্গলবার ফল প্রকাশ হতে পারে, তবে বিষয়টি নির্ভর করছে কনটেম্পট নিষ্পত্তি করে দেয়া আদেশের সার্টিফাইড কপি হাতে পাওয়ার ওপর। চলতি সপ্তাহেই গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করা প্রার্থীদের নিয়োগ সুপারিশ করা হবে।

সোমবার (২৮ জুন) এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পেতে ১ম থেকে ১২তম নিবন্ধনধারী ২ হাজার ৫০০ শিক্ষকের রিট আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এনটিআরসিএর আইনজীবী কামরুজ্জামান বলেন, আদালত কন্টেম আবেদন নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন। গণবিজ্ঞপ্তির আবেদনের প্রেক্ষিতে নিয়োগ সুপারিশে আর বাধা নেই।

আদেশের কপি কবে পাবলিশ হতে পারে জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, আদেশের সার্টিফাইড কপি পেতে একটু সময় লাগে। তবে, আদালত ভার্চুয়ালি শুনানি করে আদেশ দিয়েছেন। পাবলিকলি আদেশ প্রকাশ হয়েছে। সে প্রেক্ষিতে এনটিআরসিএ নিয়োগ সুপারিশ করতে পারে।

তৃতীয় দফায় ৫৪ হাজার শিক্ষক নিয়োগে ৮৯ লাখের বেশি আবেদন গ্রহণ করেছে এনটিআরসিএ। এ ৫৪ হাজার ৩০৪টি পদের মধ্যে ৪৮ হাজার ১৯৯ টি এমপিওভুক্ত শূন্যপদ। ননএমপিও পদ আছ ৬ হাজার ১০৫ টি। এগুলোর মধ্যে ২ হাজার ২০৭ টি এমপিও পদে রিট মামলায় অংশগ্রহণ করা প্রার্থীদের জন্য সংরক্ষিত রাখা হচ্ছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে অর্থ সহায়তা চাইলেন শিক্ষক!

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৮ জুন ২০২১:
করোনাকালে আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম বিপদে পড়েছেন যশোর উপশহর মহিলা কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক শরিফুল ইসলাম। অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে বৈধভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে ২০১৫ সাল থেকে কলেজটিতে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত থাকলেও এমপিওভুক্ত হননি এখনো। কলেজ ফান্ড থেকে যে সামান্য বেতন পেতেন, করোনায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সেটিও পাচ্ছেন না পাঁচ মাস ধরে। চার সদস্যের পরিবার নিয়ে পড়েছেন চরম অর্থসংকটে। অথচ এই অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদের নিয়ে নিষ্ঠুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। তাদের বিরোধীতার কারণে চরম অনিশ্চয়তায় শরিফুলের মতো প্রায় চার হাজার শিক্ষক।

সামাজিক মর্যাদার বিষয়টি বিবেচনা করে এত দিন কারো কাছে সহায়তার জন্য হাত না পাতলেও এবার নিরুপায় হয়ে আর্থিক সহায়তা চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি।

নিজের ফেসবুক আইডিতে শরিফুল ইসলাম লিখেছেন-

‘আমি শরিফুল ইসলাম। প্রভাষক, উপশহর মহিলা কলেজ, যশোর। আমি একজন নন-এমপিও অনার্স শিক্ষক। বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে কলেজ থেকে যে সামন্য বেতন পেতাম, তা দীর্ঘদিন ধরে পাচ্ছি না। তাই পরিবার-পরিজন নিয়ে অত্যন্ত মানবেতর জীবনযাপন করছি। আমাকে কিছু নগদ অর্থ বা খাদ্য দিয়ে সহযোগিতা করলে উপকৃত হব। আমার বিকাশ নম্বর ০১৭২৪-৯০৬৮২০।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে শরিফুল ইসলাম দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে বলেন, চলমান করোনা মহামারিতে শিক্ষার্থীদের বেতন-ভাতা আদায় বন্ধ রয়েছে। আয় না থাকায় কলেজের নন-এমপিও বেসরকারি শিক্ষকদের বেতন ও ভাতা সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। এ ছাড়া কলেজের ফান্ড শূন্য থাকায় আমাদের বেতন দিচ্ছে না। আমি শুধু একা না, আমার মতো নন-এমপিও শিক্ষকরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

তিনি বলেন, আমরা অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা এমপিওভুক্ত হতে পারছি না। আমাদের অন্য শিক্ষকদের মত এমপিওভুক্ত করা হলে আমাদের এ জটিলতায় পড়তে হতো না। করোনাকালে আমরা অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা বিপাকে পরেছি।

তিনি বলেন, এ শিক্ষকদের জন্য পরিবার নিয়ে দিন পার করাই এখন দায়! অনেকে ত্রাণ বা সরকারের আর্থিক সহায়তাও পাচ্ছে না। বিশেষ করে সামাজিক মর্যাদার কারণে অনেকেই ত্রাণের জন্য বাইরে যোগাযোগ করছে না। দীর্ঘদিন ধরে স্বজনদের কাছ থেকে ধার-দেনা করে সংসার চালিয়ে আসছি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

দুই বিকল্পে হতে পারে এসএসসি-এইচএসসির ফলাফল

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৮ জুন ২০২১:

করোনার কারণে ফের কঠোর লকডাউন দেওয়ায় এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনাও কমছে। এ জন্য পাবলিক পরীক্ষার বিষয়ে বিকল্প পদ্ধতি নিয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছেন নীতি-নির্ধারকরা। এ ক্ষেত্রে ফলাফল দেওয়ার জন্য দুটি বিকল্প পদ্ধতি গ্রহণযোগ্য হতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র জানিয়েছে, দুই বিকল্পের মধ্যে একটি পূর্ববর্তী পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে। দ্বিতীয়টি সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ওপর অ্যাসাইনমেন্ট জমা নিয়ে মূল্যায়ন। এরইমধ্যে করোনার কারণে এইচএসসি ও সমমানের ফরম পূরণ স্থগিত করা হয়েছে। রোববার (২৭ জুন) এই স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়।

এর আগে এসএসসি ও এইচএসসির সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করা হয়েছে। এ সিলেবাসের আলোকেই যথাক্রমে ৬০ ও ৮৪ দিন তাদের ক্লাস নেওয়ার কথা ছিল। এরপর ১৫ দিন সময় দিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু করোনার প্রকোপ ঊর্ধ্বমুখী থাকায় সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ বাস্তবায়ন নিয়ে গভীর সংশয় তৈরি হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক তপন কুমার সরকার এ বিষয়ে বলেন, ‘সশরীরে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। বিকল্প কোনো কিছু থাকলে কর্তৃপক্ষই সিদ্ধান্ত নেবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পরীক্ষা সশরীরে নেওয়া না গেলে দুটি বিকল্পই কার্যকর হতে পারে। এরমধ্যে জেএসসি ও এসএসসির ফলের ওপর মূল্যায়ন করা হতে পারে। গত বছর এসএসসির ৭৫ শতাংশ ও জেএসসির ২৫ শতাংশ নম্বর নিয়ে মূল্যায়ন করা হয়েছিল। তবে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে জটিলতা রয়েছে। তারা শুধু জেএসসি দেওয়ায় এ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তাদের জেএসসির ফল ও অ্যাসাইনমেন্টের আলো গ্রেড যোগ করে ফলাফল দেওয়া হতে পারে।

অন্য বিকল্পটি অ্যাসাইনমেন্টভিত্তিক হতে পারে। সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলো এক মাস সময় দিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট বাসায় বসে লিখে শিক্ষার্থীরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জমা দেবে। এর আলোকে গ্রেডিং ও চূড়ান্ত ফল দেওয়া হবে। এ ছাড়া অ্যাসাইনমেন্ট ও পূর্ববর্তী পরীক্ষার ফল মিলিয়েও এসএসসি ও এইচএসসির ফল তৈরি করা হবে বলে জানা গেছে।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষক নিয়োগ: ফের শুনানি ২৭ জুন

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২২ জুন, ২০২১
আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) বিরুদ্ধে রিট করেছেন প্রায় আড়াই হাজার চাকরিপ্রার্থী। রিটের প্রেক্ষিতে আদালত এই আড়াই হাজার প্রার্থীকে নিয়োগের আদেশ দিলেও তার ওপর স্থগিতাদেশ চেয়ে আপিল করেছিল এনটিআরসিএ। ১ থেকে ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রায় আড়াই হাজার চাকরিপ্রার্থীকে আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে নিয়োগ দিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেনি আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি। এনটিআরসিএর করা আবেদনে ওপর শুনানি করে এ আদেশ দেন চেম্বার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

আদেশের বিষয়টি জানান চাকরি প্রত্যাশীদের আইনজীবী ছিদ্দিক উল্যাহ মিয়া। তারা বলেন, আগামী ২৭ জুন এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানি অনুষ্ঠিত হবে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে। আদালতে এনটআরসিএর পক্ষে শুনানি করেন ফিদা এম কামাল। চাকরি প্রত্যাশদের পক্ষে শুনানি করেন খুরশীদ আলম খান।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) কর্তৃক ১ থেকে ১২তম নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রায় আড়াই হাজার চাকরিপ্রার্থী যারা আদালত অবমাননার মামলা করেছেন, তাদের বিষয়ে গত ৩১ মে আদেশ দিয়েছিল আদালত। রিটকারীদের আইনজীবীরা বলছেন, এ প্রার্থীদের এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগের সুপারিশ করতে এনটিআরসিএর প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে সুপারিশ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

যদিও এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা কাছে দাবি করেছেন, এসব ২০১৭ খ্রিষ্টাব্দের ১৪ ডিসেম্বর হাইকোর্ট একটি রায় দিয়েছিলেন। সেই রায়ের একটি অংশে বলা ছিল, এনটিআরসিএকে রিটকারী ও অন্যান্য আবেদনকারীদের অর্জিত সনদ ও নিয়োগের জাতীয় মেধাতালিকা অনুসরণ করে শূন্যপদে নিয়োগ সুপারিশ করতে হবে। সে রায় ৪ সপ্তাহের মধ্যে বাস্তবায়নের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সে রায় অনুসারেই এনটিআরসিএ চলমান ৩য় চক্রে ও ২য় চক্রে শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশ করেছে। তাই, আদালত অবমাননা হয়নি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

এসএসসি-এইসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত শিগগির : শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২২ জুন, ২০২১
শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি বলেছেন, আমরা জানি এসএসসি ও এইসএসসি পরীক্ষার্থীরা ভীষণ উদ্বেগের মধ্যে আছে। আমরা এটা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা করছি। আমরা খুব শিগগিরই সিদ্ধান্তটি জানিয়ে দেবো। আর বেশি দিন উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে থাকতে হবে না। তিনি আরও বলেন, ‘২০২০ খ্রিষ্টাব্দে এসএসসি পরীক্ষা হয়েছিল সেটার ফল আমরা প্রকাশ করেছি। এইচএসসি বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়ন করেছি।

মঙ্গলবার (২২ জুন) ৪৩ লাখ শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি ও টিউশন ফি প্রদান সংক্রান্ত এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

২০২১ খ্রিষ্টাব্দের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও টিউশন ফি বাবদ মোট ১ হাজার ৭৮ কোটি ৯২ লাখ ৭৮ হাজার ১০ টাকা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে উপবৃত্তি বাবদ ২৯ হাজার ৩০১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৪২ লাখ ৮৪ হাজার ৯২৮ জন শিক্ষার্থীকে মোট ৮৮২ কোটি ৯৩ লাখ৫০ হাজার ৬০০ টাকা দেয়া হয়। এছাড়া শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বাবদ দেয়া হয় ১৯৫ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার ৪১০ টাকা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির আওতায় এই অর্থ ইএফটির মাধ্যমে সরাসরি শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছে যাবে।’

উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো যুক্ত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান। ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট ফান্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাসরীন আফরোজ, ট্রাস্ট ফান্ডের সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির স্কিম পরিচালক শরীফ মোর্তজা মামুন এবং সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংযুক্ত ছিলেন।

ভার্চুয়াল উপবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে দেশের চারটি উপজেলা থেকে ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে কিনা জানা যাবে আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৬ মে, ২০২১
টানা ১৪ মাস ধরে বন্ধ থাকা সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে কিনা, তা আজ বুধবার জানা যাবে। পাশাপাশি এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি আজ দুপুর ১২টায় ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যম কর্মীদের জানাবেন।

করোনা পরিস্থিতিতে আগামী ২৯ মে পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা থাকলেও চলমান লকডাউনের সময়সীমা ৩০ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। এ কারণে স্কুল-কলেজের ছুটি আরও এক সপ্তাহ বাড়তে পারে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে। করোনা-সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির সঙ্গে পরামর্শ করে মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আজ জানিয়ে দেওয়া হবে।

সূত্র জানায়, সরকার চেয়েছিল করোনা সংক্রমণের হার পাঁচ শতাংশের নিচে নেমে এলে স্কুল-কলেজ খুলে দিতে। এ অবস্থা এখনও আসেনি। অন্যদিকে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া না হলে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা বাধাগ্রস্ত হবে।

সম্প্রতি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এ দাবিতে তারা আন্দোলনেও নেমেছেন। শিক্ষার্থীদের দাবিসহ সার্বিক দিক বিবেচনায় স্কুল-কলেজ খুলতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

জানা গেছে, আগামী জুন মাস থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এর আগে নতুন করে আরও এক সপ্তাহ ছুটি দেওয়ার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। এ সময়ের মধ্যে যদি লকডাউন তুলে দেওয়া হয় তাহলে স্কুল-কলেজ খোলার প্রস্তুতি শুরু হবে। জুন মাসে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হলেও চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস শেষ করতে বেশি গুরুত্ব দিয়ে সপ্তাহে ছয় দিন তাদের ক্লাস নেওয়া হবে। অন্য স্তরের শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে অফলাইনে একদিন ক্লাস নেওয়া হবে। এছাড়া অনলাইনে চলবে নিয়মিত ক্লাস।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে গত সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা কলেজ, ইডেন কলেজ, ঢাকা সিটি কলেজসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। তারা অবিলম্বে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া না হলে বড় ধরনের আন্দোলনের হুমকি দেন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও। গতকাল মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসের রাজু ভাস্কর্যের সামনে মানববন্ধন করেন তারা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহবুব হোসেন বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে এখন পর্যন্ত সকল সিদ্ধান্ত জাতীয় টেকনিক্যাল কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী নেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ব্যাপারে শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন মহলের দাবির ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অবগত আছে। এ মুহূর্তে কী করণীয়, তা দ্রুতই জানানো হবে।

বেসরকারি কয়েকটি প্রতিষ্ঠান করোনাকালে শিক্ষার ক্ষতি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে সম্প্রতি একটি জরিপ পরিচালনা করে। এর মধ্যে পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার (পিপিআরসি) ও ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (বিআইজিডি) যৌথ গবেষণা জরিপের ফলাফলে বলা হয়, দেশের ৯৭ দশমিক ৭ শতাংশ প্রাথমিক শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেছেন, স্কুল খুললে তারা সন্তানদের স্কুলে পাঠাবেন। আর মাধ্যমিকের ৯৬ শতাংশ অভিভাবক সন্তানদের স্কুলে পাঠানোর পক্ষে মত দিয়েছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবিতে ২৪ মে সারাদেশে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৩ মে, ২০২১

করােনা সংক্রমণের কারণে শিক্ষামন্ত্রণালয় কর্তৃক আগামী ২৯ মে পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান করেছে সারাদেশের শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে আগামী ২৪ মে সারাদেশে মানববন্ধনের ডাক দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, সারাদেশের বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে সোমবার রাতে এক অনলাইন মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মিটিংয়ে উপস্থিত ছাত্র প্রতিনিধিরা জানান, সরকার করােনা সংক্রমণের অজুহাত দিয়ে বারবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বৃদ্ধি করছে। তারা শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টিকে প্রাধান্য দেয়ার কথা বলছে।

শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে মােহাম্মদ ইসমাইল বলেন, আমরা মনে করি এটা কেবল মুখের বুলি বৈ-কিছু নয়। কারণ গত মার্চ মাসে যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খােলার দাবিতে সারাদেশে জোরালাে আন্দোলন শুরু হয় তখন শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, ১৭ মে হল ও ২৪ মে ক্যাম্পাস খুলে শিক্ষা-কার্যক্রম স্বাভাবিক করা হবে এবং তার আগে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

তিনি বলেন, আমরা দেখলাম সরকার হাতে দু-মাস সময় পেয়েও এখন পর্যন্ত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিনের আওতায় আনেনি। তারা যদি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি সত্যিই গুরুত্ব দিয়ে থাকেন তাহলে ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে কেন এখনও তাদের প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে না? সরকারের এসব কাজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘােষণার সিদ্ধান্তকে সন্দেহজনক করে তুলেছে।

ছাত্র প্রতিনিধিরা শিক্ষামন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তকে হঠকারী উল্লেখ করে কর্মসূচি ঘােষণা করেন। সেগুলো হলো-

১. হল-ক্যাম্পাস খুলে শিক্ষাকার্যক্রম স্বাভাবিক করার দাবিতে আগামী ২৪ মে সারাদেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে, জেলা উপজেলায় মানববন্ধন কর্মসূচি ঘােষণা করা হলাে।

২. একই দাবিতে ২৪ মে বেলা ১১টায় ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ল ২৯ মে পর্যন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৫ মে ২০২১:

দেশে চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আরেক দফা বাড়িয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। স্কুল-কলেজের চলমান ছুটি আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে।

শনিবার (১৫ মে) রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের ঊর্ধগতি দেখা দেয়া শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে এবং করোনা মোকাবেলায় গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি বাড়ানো হয়েছে। ছুটি চলাকালীন শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস চলমান থাকবে।

এর আগে শনিবার বিকেলে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী জানিয়েছিলেন, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ২৩ স্কুল-কলেজ ও ২৪ মে ইউনিভার্সিটি খোলা সম্ভব হবে না।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

এসএসসি-সমমানের ২৩ লাখ পরীক্ষার্থী দুশ্চিন্তায়, আগস্টে পরীক্ষার পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৭ এপ্রিল, ২০২১:
সারাদেশের ১১টি শিক্ষা বোর্ডের প্রায় ২৩ লাখ মাধ্যমিক (এসএসসি) পরীক্ষার্থী দিশেহারা। কবে নাগাদ স্কুল খোলা হবে, কবে থেকে পরীক্ষা শুরু হবে- এসব প্রশ্নের উত্তর পাচ্ছেন না শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

এ অবস্থায় গত রোববার ঢাকা শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমদের সঙ্গে কথা বলেছে শিক্ষাবার্তা ডটকমকে। তিনি জানিয়েছেন, যখনই বিদ্যালয় খুলে দেওয়া সম্ভব হবে, তার পর থেকে ৬০ কর্মদিবস ক্লাস নেয়া হবে। এর পর আরও ১৫ দিন সময় দিয়ে তবেই এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেওয়া হবে।

চেয়ারম্যান বলেন, এরই মধ্যে এ বছরের পরীক্ষার জন্য সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। ওই সিলেবাসের ওপরই এসএসসির প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হবে।

চেয়ারম্যান বলেন, ক্লাস না নিয়ে কোনোভাবেই পরীক্ষা নেওয়া হবে না। সারাদেশে এবার প্রায় ২৩ লাখ শিক্ষার্থী এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অবতীর্ণ হবে। এর মধ্যে ঢাকা বোর্ডের রয়েছে প্রায় পাঁচ লাখ। এখনও ফরম পূরণ চলছে। লকডাউনের কারণে সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, ২৩ মে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার সরকারি সিদ্ধান্ত এখনো বহাল আছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২৩ মে স্কুল-কলেজ এবং ২৪ মে সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে। এর পর ৬০ কর্মদিবস পাঠদান শেষে মাধ্যমিক পরীক্ষা নিতে চায় সরকার। সব মিলিয়ে আগস্টের শেষে মাধ্যমিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে, যেভাবে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে নতুন করেও ভাবতেও হতে পারে ছুটির বিষয়ে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এর আগে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে এবারের এসএসসি ও এইচএসসির একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। তা সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানোও হয়েছে। বিদ্যালয় যখনই খোলা সম্ভব হবে, ওই সংক্ষিপ্ত সিলেবাস পড়িয়ে শেষ করে, আরও অন্তত দু’সপ্তাহ সময় দিয়ে তবেই পরীক্ষা নেয়া হবে।

যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমীর হোসেনও একই কথা বলেন। তিনি বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের ঘরে বসেই ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে রাখার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে। অনলাইন ক্লাসগুলো ঠিকভাবে করতে হবে।

পরীক্ষা আয়োজনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করার কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডর চেয়ারম্যান অধ্যাপক প্রদীপ চক্রবর্তীও। শতভাগ প্রস্তুত রয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা নিয়েই শিক্ষার্থীদের ফল দিতে চাই। সে লক্ষ্যে আমাদের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। স্কুল খোলার পর ৬০ কর্মদিবস ক্লাস করিয়ে তাদের পরীক্ষা গ্রহণের কথা মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের জানানো হয়েছে। আমরা এখনও সেই সিদ্ধান্তের ওপর ভিত্তি করে আছি। লকডাউনের পর এ ব্যাপারে মন্ত্রীর সঙ্গে বোর্ডপ্রধানদের বৈঠকের কথা রয়েছে।’

সিলেট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রমা বিজয় সরকার সাংবাদিকদের বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে যথাসময়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হবে। সিলেট বোর্ডে এসএসসিতে আনুমানিক সোয়া লাখ এবং এইচএসসিতে ৮০ হাজারের মতো শিক্ষার্থী এ বছর পরীক্ষা দেবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খোলার কারণ জানালেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৯ মার্চ:

আগামী ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে না পারার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, আমরা স্কুল-কলেজ খুলে দিতে চেয়েছিলাম কিন্তু দেশে হঠাৎ করেই করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়াতে এখন আর খোলা হচ্ছে না।

রোববার (২৮ মার্চ) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন সরকারপ্রধান।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এক বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর আগামী ৩০ মার্চ দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার কথা ছিলো। কিন্তু চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে হঠাৎ করে দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরো এক দফায় বাড়িয়ে ২৩ মে পর্যন্ত করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় স্কুল-কলেজ ঠিক এখন না খুলে আসন্ন রোজার ঈদের পরেই সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে। ইতিমধ্যে স্কুল-কলেজ এবং বিশেষ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরানো হলগুলো মেরামত করার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সুযোগে এসব কাজ করা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে এসব কাজ আগামীতেও চলতে থাকবে।

সরকারপ্রধান বলেন, করোনার টিকা দেয়া অব্যাহত থাকবে। তবে কেউ যাতে মাস্ক ছাড়া বাইরে না যায়। নিরাপদ দূরত্ব মেনে বসতে হবে। সভা-সেমিনার-কর্মশালা স্বাস্থ্যসুরক্ষা মেনে করতে হবে। যতদূর সম্ভব খোলা জায়গায় কর্মসূচি করতে হবে। ঘরের মধ্যে করলে করোনার প্রাদুর্ভাব আরো বেশি দেখা দেয়।

সভায় সূচনা বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এতে আরো বক্তব্য রাখেন প্রেসিডয়াম সদস্য আবদুর রাজ্জাক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ প্রমুখ।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে : শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ মার্চ, ২০২১
ঈদের পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। আগামী ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা ছিল। তবে তা আর হচ্ছে না।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে গণহত্যা দিবসের আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান। এ সময় করোনা সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায়, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনায় নিয়েই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান দীপু মনি।

এর আগে বুধবার (২৪ মার্চ) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, শবে বরাতের সরকারি ছুটি ২৯ মার্চের পরিবর্তে ৩০ মার্চ নির্ধারণ করার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এদিন খুলছে না। বিষয়টি নিয়ে দু-একদিনের মধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালকের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। ৩০ মার্চ ছুটি ঘোষণা করে মাউশিকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে বলা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ঈদের আগে খুলছে না স্কুল-কলেজ!

‌ডেস্ক,২৫ মার্চ
পবিত্র শবে বরাতের ছুটি ২৯ মার্চের পরিবর্তে ৩০ মার্চ। তাই, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আগামী ৩০ মার্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে না। তবে, কবে নাগাদ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে সে সিদ্ধান্তও এখনো হয়নি। সংশ্লিষ্টরা ধারণা করছেন ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আরও বাড়তে পারে। এ পরিস্থিতিতে শিগগিরই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে তা ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
এ ব্যাপারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করেই স্কুল-কলেজ খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হবে।
করোনা মোকাবিলায় গঠিত সরকারের জাতীয় কারিগরি পরামর্শ কমিটির সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, যখন সরকার স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, তখন সংক্রমণ অনেক কম ছিল। এখন বেড়েছে। এখন খোলার পরিবেশ নেই। পরীক্ষা অনুপাতে শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে খোলা যায়। এখন ১৩ শতাংশ, অনেক বেশি। এখন করোনা ‘এপিডেমিক’ লেভেলে আছে, ৫ শতাংশের নিচে গেলে ‘এনডেমিক’ লেভেলে চলে যাবে। তখন খোলা যাবে। স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে সরকারের অপেক্ষা করা উচিত। কমলে তখন খুলবে। খোলার আগে শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি, দু-একদিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত

ডেস্ক,২৪ মার্চ:
করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তথা স্কুল-কলেজের ছুটি ফের বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার। আগামী এক-দুই দিনের মধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

গতবছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা সংক্রমণের পর ১৮ মার্চ থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ সময়ে অনলাইনে এবং সংসদ টিভিতে শ্রেণি কার্যক্রম চালু রাখে সরকার।

তবে করোনা সংক্রমণ কমে আসায় আগামী ৩০ মার্চ স্কুল-কলেজ এবং ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। স্কুল-কলেজ খোলা নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের একটি নির্দেশনার আলোকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর অধীন প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রস্তুতিরও নির্দেশ দিয়েছে।

অপরদিকে, চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে পবিত্র শবে বরাতের ছুটি ২৯ মার্চের পরিবর্তে ৩০ মার্চ নির্ধারণ করেছে সরকার। এছাড়া করোনা রোগী শনাক্তের হার তিন হাজার ছাড়িয়েছে মঙ্গলবার (২৩ মার্চ)।

এ পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে কিনা- প্রশ্নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বুধবার (২৪ মার্চ) সাংবাদিকদের বলেন, এ বিষয়ে দুই-এক দিনের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। আমরা সববিষয় মাথায় রাখছি।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, করোনা রোগী বাড়ার কারণে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। কারণ এ পরিস্থিতিতে বাচ্চাদের স্কুল-কলেজে পাঠানো ঠিক হবে না। ঈদের পর পর্যন্ত এ ছুটি আপাতত বাড়তে পারে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মার্চের শেষ দিকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা : প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক,৪ মার্চ:
এ মাসের শেষ দিকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফেলোশিপ এবং বিশেষ গবেষণা অনুদান-২০২১ প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে সুরক্ষা দিতেই একবছর ধরে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে- এ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ হলেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। শিক্ষাকে সবসময় গুরুত্ব দিয়ে দেখেছে আওয়ামী লীগ সরকার, অতীতে শিক্ষাখাতে বিজ্ঞানে উৎসাহ ছিল না শিক্ষার্থীদের, তবে বিজ্ঞান ও গবেষণা ছাড়া কোনো জাতি এগিয়ে যেতে পারে না। তাই জ্ঞান ও দক্ষতা বাড়াতে আধুনিক শিক্ষানীতি প্রণয়ন করেছে সরকার।

তিনি বলেন, দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে শিক্ষাখাত নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে আর শিক্ষাকে বহুমুখী করে দেয়া হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রায় এক বছরের মতো আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখতে হয়েছে। এটা মানুষের জীবনকে সুরক্ষা করার জন্যই করা হয়েছে। এরই মধ্যে আমরা ভ্যাকসিন (দেয়া) শুরু করেছি। এই টিকা দেওয়ার কর্মসূচিতে শিক্ষকদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।’

প্রাইমারি থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত শিক্ষক ও কর্মচারীদের টিকা দেয়ার কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘ভ্যাকসিন দেয়া শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা ইনশাআল্লাহ এই মার্চ মাসের শেষ দিকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে সক্ষম হব।’

এ বছরের বিশেষ গবেষণা অনুদান-২০২১ প্রদান অনুষ্ঠানে গবেষণা কাজের জন্য চার হাজার ১৮২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে মোট ৭৮ কোটি টাকা অনুদান দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান কয়েকজন গবেষকের হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter