456

অনুপস্থিত শিক্ষার্থী খুঁজতে বাড়িতে যাওয়ার নির্দেশ

ডেস্ক।।

স্কুল খুলেছে, কিন্তু ক্লাসে ফেরেনি অনেক শিক্ষার্থীই। ফলে এ নিয়ে খোদ সরকারের মধ্যেই তৈরি হয়েছে উদ্বেগ। টানা দেড় বছর বন্ধ থাকার পর গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলেছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি অনুপস্থিত শিক্ষার্থী প্রাথমিক পর্যায়ে। আর এই হার কোনো কোনো ক্ষেত্রে ২০ থেকে ২৫ শতাংশেও পৌঁছেছে।

আরো পড়ুনঃ প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকরা পদোন্নতি পাবেন না?

সংখ্যার দিক দিয়ে প্রাথমিকের ক্লাসে অনুপস্থিত শিক্ষার্থী সাড়ে ৪৮ লাখ। সরকারের পক্ষ থেকে এই বিশাল অঙ্কের শিক্ষার্থীদের খুুঁজে বের করতে বা স্কুলে অনুপস্থিতির কারণ অনুসন্ধান করতে উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের বিষয়ে তথ্য জানাতে হবে। আর এই দায়িত্ব পালন করতে হবে স্বয়ং প্রাথমিকের শিক্ষকদেরই। সম্প্রতি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এ বিষয়ে একটি নির্দেশনাও জারি করেছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, করোনার দীর্ঘ ছুটির পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুললেও অনেক শিক্ষার্থী অনুপস্থিত। এ পরিস্থিতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে অনুপস্থিত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে শিক্ষকদের। প্রয়োজনে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে বা ফোন করে বা অন্য কোনো মাধ্যমে যোগাযোগ করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ গোপালঞ্জের ২ শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত

যদিও এর আগে প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন থেকেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলের সব ক্লাসে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি মনিটরিং করতে পৃথক পৃথক টিম গঠন করা হয়। এই টিম শুরু থেকেই একটি ছকের মাধ্যমে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে সব স্কুলের শিক্ষার্থীদের ক্লাসে উপস্থিতি কত সেটা মনিটরিং করছে। সেখানে দেখা গেছে গ্রামের চেয়ে শহরের স্কুলগুলোতে শিক্ষার্থী উপস্থিতির সংখ্যা বেশি। আর গ্রামের অনেক শিক্ষার্থীর কোনো খোঁজই নেই। তারা স্কুলেও আসছে না, কোনো যোগাযোগও করছে না। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের দেয়া তথ্য মতেই গ্রামের শিক্ষার্থীদের অনুপস্থিতির হার ২০ থেকে ২৫ শতাংশ।

আরো পড়ুনঃ Motion-Graphics শিখুন

সূত্র আরো জানায়, দেড় বছর পর স্কুল খুললেও প্রাথমিক পর্যায়েই ক্লাসে ফেরেনি সাড়ে ৪৮ লাখের বেশি শিক্ষার্থী। ধারণা করা হচ্ছে, এসব শিক্ষার্থী হয়তো তাদের নিয়মিত ক্লাসে আর ফিরবেও না। অন্য দিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরার সময় এখনো শেষ হয়ে যায়নি। অনেক অভিভাবক এখনো করোনার ভয়ে তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠাচ্ছেন না। পরিস্থিতি আরো একটু স্বাভাবিক হলেই সব শিক্ষার্থীই ক্লাসে ফিরবে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather
Image

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather