সর্বশেষ খবর

মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় মেয়েরা এগিয়ে

অনলাইন রিপোর্টার ॥ সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। গত শুক্রবার (৫ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষার ফল রবিবার প্রকাশিত হয়। ফলাফলে দেখা যায়, পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী মোট ৬৩ সহস্রাধিক পরীক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে ৩৬টি সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য জাতীয় মেধা তালিকায় স্থান পেয়েছেন চার হাজার ৬৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. আবদুর রশীদ জানান, সরকারি মেডিকেল কলেজে সুযোগপ্রাপ্ত চার হাজার ৬৮ জনের মধ্যে ছেলেদের সংখ্যা এক হাজার ৬৫৪ জন ও মেয়েদের সংখ্যা দুই হাজার ৪১৪ জন। শতকরা হিসাবে ছেলে ৪০ ভাগ ও মেয়ে ৬০ ভাগ।

সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোর মধ্যে রাজধানীর ঢাকা মেডিকেল কলেজকেই সেরা কলেজ বলে সবার কাছে পরিচিত। আজ প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায়, এ কলেজে সুযোগপ্রাপ্ত শীর্ষ ১২ জন শিক্ষার্থীর ৬ জনই মেয়ে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস প্রথম বর্ষের (২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষ) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। স্বাস্থ্য অধিদফতরের অধীনে কেন্দ্রীয়ভাবে রাজধানীসহ সারা দেশের ১৯টি কেন্দ্রের ২৭টি ভেন্যুর ৮১৪টি কক্ষে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়। চলতি বছর ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনকারী ৬৫ হাজার ৯১৯ জনের মধ্যে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা ছিল ৬৩ হাজার ২৬ জন।

১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে নেয়া পরীক্ষায় পাস নম্বর ৪০। ৪০ নম্বর পেয়ে সরকারি ও বেসরকারি উভয় মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন ২৪ হাজার ৯৬৮ জন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঢাবি ‘ক’ ইউনিটে ফেল ৮৭ শতাংশ

ঢাবি প্রতিনিধি,৩ অক্টোবর: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে কলা অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার ফল বুধবার প্রকাশিত হয়েছে। এ বছর ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৮৭ শতাংশ ফেল করেছে। পাস করেছে ১৩ শতাংশ। ঢাবির উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান প্রশাসনিক ভবনের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করেন।

পরীক্ষার বিস্তারিত ফলাফল এবং ভর্তিপ্রক্রিয়া সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (admission.eis.du.ac.bd) জানা যাবে। এ ছাড়া DU KA ও রোল নম্বর লিখে ১৬৩২১ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে ফিরতি এসএমএসে ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন। প্রকাশিত ফল অনুযায়ী, ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ১ হাজার ৭৫০টি আসনের বিপরীতে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী সংখ্যা ১০ হাজার ১১৭। যা শতকরা হারে ১৩ দশমিক ০৪ ভাগ। এ বছর ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৮১ হাজার ৯৬ জন। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৭৭ হাজার ৫৭২ শিক্ষার্থী।

পাসকৃত সকল শিক্ষার্থীকে আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে বিস্তারিত এবং বিষয় পছন্দক্রম ফরম পূরণ করতে বলা হয়েছে। এছাড়া কোটায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের ৮ থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিস হতে সংগ্রহ করে সঠিকভাবে পূরণ করে ডিন অফিসে জমা দেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। ফল নিরীক্ষণের জন্য ফি প্রদান সাপেক্ষে আগামী ৪ থেকে ১১ অক্টোবরের মধ্যে বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করা যাবে।

উল্লেখ্য, গত ২৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর ১ হাজার ৭৫০টি আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৮১ হাজার ৯৬ জন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

গত ৫টি ম্যাচে দুটি সেঞ্চুরি, দুটি হাফ সেঞ্চুরি ইনজামামের ভাতিজার

স্পোর্টস ডেস্ক: অনেকে এখন বলেন পাকিস্তানের দল নির্বাচনে ইনজামাম উল হকের পক্ষপাতিত্ব রয়েছে। তার আপন ভাতিজাকে জাতীয় দলে নেয়ায় এই সমালোচনা দেশি-বিদেশি সব মিডিয়ায়।

ইমাম দলে ডাক পেয়ে এই সমালোচনায় হতবাক না হয়ে পারেন নি। কেউ বাহবা দিলেও খোদ পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটারদের অনেকে ভালো নজরে দেখেননি এটাকে। তবে জবাব দিতে মোটেই দেড়ি করেননি তিনি।

অভিষেকের প্রথম ম্যাচেই হাকান সেঞ্চুরি। এর পরেও যেন কেমন কেমন রব। এশিয়াকাপে ভারতের বিপক্ষে মাত্র ২ রান করেন ইমাম। এর আগে হংকংয়ের বিপক্ষে তিনি হাফ সেঞ্চুরি করেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঈদ ২২ আগস্ট

ডেস্বাংক,১২ আগষ্ট:  আকাশে রোববার সন্ধ্যায় জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। ২২ আগস্ট (বুধবার) দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হবে।

আজ রোববার সন্ধ্যায় (বাদ মাগরিব) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্মমন্ত্রী ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সভায় ধর্মমন্ত্রী জানান, সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র, দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী রোববার বাংলাদেশের আকাশে হিজরি ১৪৩৯ সনের জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। সোমবার থেকে জিলহজ মাস গণনা শুরু হবে। ২২ আগস্ট (১০ জিলহজ) বুধবার দেশে ঈদুল আজহা পালিত হবে।

গতকাল শনিবার জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ২১ আগস্ট পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপিত হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সাব-ইন্সপেক্টর (SI) ভাইভা ।তাই অভিজ্ঞতা ও দিকনির্দেশনা জেনে নিন

পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) পদে নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৮ খ্রিঃ এর অনুষ্ঠিতব্য মৌখিক পরীক্ষা
ভাইভা বোর্ড : ১(এক)টি
বোর্ডের সদস্য সংখ্যা : ৪-৬ জন
সময় : ২/৩ মিনিট (কম বেশী হতে পারে)
প্রশ্ন : ১০/১৫ টি (+-)
ভাইভা : ১০০ নাম্বার

প্রশ্নের ধরণ : বিষয়ভিত্তিক, মুক্তিযুদ্ধ, অনুবাদ, নিজ জেলা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাম্প্রতিক বিষয় ও অন্যান্য।

বিষয়ভিত্তিক প্রশ্ন : ভাইভা ভাল করতে হলে অাপনাকে অবশ্যই বিষয়ভিত্তিক প্রশ্নের স্পেসিফিক উত্তর দিতে হবে। এই অংশে ভাল করার উপর বোর্ডের পরবর্তী মুভমেন্ট অনেকাংশে নির্ভর করে। অাপনার পড়িতব্য বিষয়ের উপর প্রথমেই ২/৩টি প্রশ্ন করবেই, তাই অাপনার পড়িতব্য বিষয় সম্পর্কে ভাল ধারণা রাখুন।

মুক্তিযুদ্ধ : এসঅাই ভাইভার জন্য মুক্তিযুদ্ধ অংশ সবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ কারণ ছোট ছোট প্রশ্ন করা হয়, পারলেই ১০০% নম্বর দেয়। এই অংশে ডিপলী প্রশ্ন করা হয়, অনেক সময় বাজারের একটি বইতে সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায় না তাই একটি বইয়ের উপর নির্ভর না করে দুই বা ততোদিক বইয়ের সাহায্য নিন। এছাড়া শেখ হাসিনা কর্তৃক মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত কয়েকটি বইয়ের নাম মনে রাখতে পারেন।

নমুনা প্রশ্ন-
১. শীর্ষ রাজাকার কে?
=> গোলাম অাজম
২. বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রধান ষড়যন্ত্রকারী কে?
=> খন্দকার মোস্তাক অাহম্মেদ
৩. অাল বদর বাহিনীর প্রধান কে?
=> মতিউর রহমান নিজামি
৪. বঙ্গবন্ধুকে গুলি করে?
=> মেজর নূর

৫. মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ কে গড়ে তুলে?

=> বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী
এই ধরণের প্রশ্ন করা হবে, সাথে শেখ মুজিব হত্যা বিচার, মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে বিভিন্ন বইয়ের নাম জেনে নিবেন।
অনুবাদ : যুগটাই এখন এমন, ইংরেজি ছাড়া কোন কিছু চিন্তাও করা যায় না। কি চাকরি, কি পড়াশোনা সব জায়গায়ই ইংরেজিতে দক্ষতা এখন প্রাথমিক চাহিদা। দক্ষতা বিভিন্ন রকমের হতে পারে। তাদের ভিতরে ইংরেজিতে বলার দক্ষতা এখন সবচেয়ে বেশি চাহিদাসম্পন্ন দক্ষতা। এসঅাই ভাইভাতে প্রায় সবাইকে ১/২টি অনুবাদ জিজ্ঞাসা করা হবে। এই অংশে ভাল করার জন্য ইংরেজী প্রবাদ বাক্য পড়তে পারেন। সাধারনত যে ধরণের প্রশ্ন করা হয়-

১. অাজ খুব গরম।
→today is very hot.
২. অাজ দিনটি চমৎকার।
→today is a very nice day!
৩.জানালা দিয়ে অাকাশ দেখা যাচ্ছে।
→the sky is visible through
windows

or

the sky is being seen
through window.

৪.টেবিলের উপর একটি কলম অাছে
→there is a pen on the table

or

a pen has been kept on the table.
৫. পাখি অাকাশে উড়ে

→the birds fly in the sky.
৬.শার্টের পকেটে একটি কলম অাছে
→there is a pen in the pocket.
৭.অামার শার্টের পকেট নাই।

→I have no pocket with my shirt
or, there is no pocket in my shirt.
৮. এখান থেকে সচিবালয় দেখা যায়।
→the secretariat building is visible
from here.

উপরোক্ত বিষয়ের উপর মূলত প্রশ্ন করা হলেও অাপনার নামের অর্থ, নামের সাথে বিখ্যাত ব্যক্তি ও কোন ঘটনা থাকলে তা জেনে রাখা ভাল। অাপনার জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, বিখ্যাত ব্যক্তি এবং শিক্ষা ও অর্থনৈতিক অবস্থা ইত্যাদি সম্পর্কে জেনে নিবেন। সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে অাপডেট নিউজ সংগ্রহে রাখুন।

এসঅাই নিয়োগে লিখিত পরীক্ষা অাপনি যতই ভাল দেন না কেন তার কোন মূল্য নেই যদি না অাপনি ভাইবা ভাল দেন। সব প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে বোর্ডকে সন্তুষ্ট করতে পারলে ৭৫-৮০ নম্বর পাবেন।

পুলিশের চলমান সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) পদে নিয়োগ সম্পূর্ণ স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ, মেধা ও যোগ্যতা ভিত্তিক হচ্ছে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় কোনো প্রভাবশালী ব্যক্তি বা মহলের হস্তক্ষেপ করার কোনো সুুযোগ নেই। তাই প্রতারক বা দালালের খপ্পরে না পড়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি)।

আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী পুলিশকে গণমুখী করার জন্য, “দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য সৎ, মেধাবী, কর্তব্যপরায়ণ এবং দিনরাত মানুষের সেবা প্রদানের মতো পরিশ্রমী অফিসার একান্ত প্রয়োজন। তাই নিয়োগ প্রক্রিয়া হবে সম্পূর্ণ নিয়মতান্ত্রিক। কারো দ্বারা প্রলুব্ধ না হবার জন্য তিনি সকল চাকরি প্রত্যাশীকে আহ্বান জানিয়েছেন।
পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগে টাকা লাগে না, প্রমাণ….!!!

সোনার হরিণ সরকারি চাকরির পেছনে ছোটাছুটি করেে শেষ পর্যন্ত যোগদান থেকে বিরত থাকছেন সাব-ইন্সপেক্টর পদে উত্তীর্ণ অনেকেই। দেশে মেধাবীদের সংখ্যা বাড়ছে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা শুধু বিসিএস ক্যাডার পদের আশায় না থেকে পুলিশের দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা এসআই পদেও আবেদন করছেন। চূড়ান্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর প্রাথমিকভাবে নিয়োগ বা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া এসব মেধাবী তরুণ-তরুণী এ সময়কালে বিসিএস, ব্যাংক, নন ক্যাডারসহ নানা পদে প্রথম শ্রেণি চাকরি পেলে শেষ পর্যন্ত আর এসআই পদে যোগ দিচ্ছেন না।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্রে জানা যায়…

# ২০১২ সালের (৩৩তম ক্যাডেট ব্যাচ) এসআই নিয়োগে মৌখিক পরীক্ষা শেষে ১৬২১ জনকে প্রশিক্ষণে পাঠানোর সুপারিশ করে পুলিশের নির্বাচনী বোর্ড। কিন্তু এর মধ্যে ১৯২ জনই প্রশিক্ষণে অংশ নেননি। আবার প্রশিক্ষণকালে অন্য চাকরির বৌদ্দততে যোগ দেননি আরও ৭৬ জন।
# ২০১৩ সালে (৩৪তম ক্যাডেট ব্যাচ) ১৫২০ জন প্রশিক্ষণের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হলেও তাতে অংশগ্রহণ করেন ১৩৩০ জন। প্রশিক্ষণ শেষে চাকরিতে যোগ দেন ১৩২১ জন।

# ২০১৫ সালে (৩৫তম ক্যাডেট ব্যাচ) ১৫১৭ জনকে প্রশিক্ষণের সুপারিশ করা হলেও তাতে অংশে নেন ১৩৭০ জন। প্রশিক্ষণ কালীন সময়ে বিসিএস, ব্যাংক, নন ক্যাডার চাকরি হবার সুবাধে ৬৭ জন চলে যায়, প্রশিক্ষণ শেষে ১৩২৩ জন যোগদান করলেও প্রায় ১৫ জন অন্য চাকরির গ্রেজেট প্রকাশের প্রহর গুনছেন।

# ২০১৭ সালে বহিরাগত ক্যাডেট এসঅাই (নিরস্ত্র) হিসেবে সিলেকশন বোর্ড ১৫১১ জন প্রার্থীকে প্রাথমিক ভাবে নির্বাচিত করে। উক্ত প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ভিঅার সম্পন্নকরণের ১৪১০ জন প্রার্থীকে চুডান্ত ভাবে মনোনীত করে তন্মধ্যে ১৩৭৬ জন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। ১৭ জন অন্যত্র চাকরি পাওয়ার সুবাধে চলে এসেছে, উল্লেখ্য ৬৫+ প্রার্থী ভাইভাতে অনুপস্থিত ছিল।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পটুয়াখালীতে সেহাকাঠী ক্লাস্টারের সৌজন্যে শহীদদের স্মরনে বৃক্ষ রোপন সম্পন্ন।।

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি।। পটুয়াখালী সদর উপজেলাধীন সেহাকাঠী ক্লাস্টারভুক্ত ২৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০৫ জন প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক “বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা ২০১৮” এবং “জাতীয় বৃক্ষরোপন অভিযান ও বৃক্ষমেলা ২০১৮” ও “মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লক্ষ শহিদের স্মরণে  একযোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি” উপলক্ষে দেড় শতাধিক বৃক্ষ রোপন করেন।
১৮জুলাই বুধবার বেলা ১১ঘটিকায় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্লাস্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার শওকত হোসেন হিরনের সফল নেতৃত্বে লোহালিয়া কাকড়াবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপস্থিত থেকে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়।
এ সময় ৩০ লক্ষ শহীদের আত্নত্যাগ এবং বর্তমান সরকারের কর্মপরিকল্পনার ভূয়সী প্রশংসা করা হয়।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সেমিফাইনালে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা

ডেস্ক: বিশ্বকাপ মানেই অনিশ্চয়তা। কখনো বড় দলগুলো গ্রুপ পর্ব থেকেই মুখ থুবড়ে পড়ে। আবার চমক হয়ে ওঠে ছোট দলগুলোর নাম। এটাই তো বিশ্বকাপের মজা। তাই বিশ্বকাপের দামামা বেজে উঠলেই বাড়তে থাকে জ্যোতিষীর সংখ্যা, শুরু হয় ভবিষ্যদ্বাণী। সেই তালিকা থেকে বিশ্বের অন্যতম সেরা কোচ হোসে মরিনহোই বা বাদ যাবেন কেন! বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলবে কোন চারটি দল, তা নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এ কোচ।

আগেই বলে রাখা ভালো, মরিনহোর তালিকায় নেই তারকাসমৃদ্ধ স্পেনের নাম। ফ্রান্স ও বেলজিয়ামকে সবাই এবার গোনার মধ্যে রাখছেন, ইউরোপের এ দুই দেশও নেই ‘স্পেশাল ওয়ানে’র তালিকায়। তবে তিনি ছোট তালিকায় রেখেছেন নিজের দেশ পর্তুগালকে। তাঁর কথা শুনে আশ্বস্ত হতে পারেন বাংলাদেশের ফুটবলপ্রেমীরাও। কারণ, তাঁর চার দলের মধ্যে দুটি ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। বাকি দেশটি হলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জার্মানি। পর্তুগিজ কোচের ভবিষ্যদ্বাণী আছে আরও একটি, ব্রাজিলের বিপক্ষে হেরে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেবে ইংল্যান্ড।

মরিনহো যেন ধরেই নিয়েছেন শেষ আটে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ব্রাজিল ও ইংল্যান্ড, ‘ব্রাজিল বনাম ইংল্যান্ড অনেক বড় একটি ম্যাচ। বিষয়টি আমার জন্য খারাপ হবে না যে আমার খেলোয়াড়েরা ছুটিতে যেতে পারবে।’ বোঝাই যাচ্ছে কোন দিকে ইঙ্গিত করেছেন করেছেন মরিনহো! আসলে তাঁর ক্লাবের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই ইংল্যান্ডের। ফলে আগে ভাগে মার্কাস রাশফোর্ডরা বিদায় নিলে তাঁরা পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিয়ে ক্লাব মৌসুম শুরু করতে পারবেন।

স্পেনকে কেন তালিকায় রাখা হয়নি, তা–ও বুঝিয়ে দিয়েছেন মরিনহো। তিনি মনে করেন, মেসির কাছেই হারতে হবে স্পেনকে। আর ইউরো ফাইনালের মতো ফ্রান্সকে হারিয়েই সেমিফাইনালে জায়গা করে নেবে পর্তুগাল।

এ ছাড়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে পারে কোন দলগুলো, তা নিয়েও করেছেন ভবিষ্যদ্বাণী। তাঁর কাছে সার্বিয়ার বিশ্বকাপে ভালো খেলার চেয়ে ইউনাইটেডের ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার নেমানিয়া মাতিচের বিশ্রাম বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে। তাই প্রথম রাউন্ড থেকে সার্বিয়া যেন বাদ পড়ে যায়, সে প্রত্যাশাই করছেন মরিনহো।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সরকারি চাকরিজীবীদের গৃহঋণের ফাইলে প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর

নিজস্ব প্রতিবেদক,৩ জুন

বহুল প্রতিক্ষীত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গৃহঋণ সুবিধা পেতে আর বেশি দেরি নয়। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত ফাইলটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর এখন অর্থমন্ত্রণালয়ে। অর্থমন্ত্রীর সই হলেই ঋণ নিতে কর্মকর্তা-কর্মচারিদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হবে। এরপর থেকেই শুরু হবে ইতিহাসের সবচেয়ে কম সুদ অর্থাৎ মাত্র ৫ শতাংশ ঋণে গৃহঋণ বরাদ্দ প্রক্রিয়া।

সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দুর্নীতির প্রবণতা কমাতে এ গৃহঋণের অনুমোদন দিয়েছে পে-কমিশন। ২০১৫ সালে এই অনুমোদন দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনাপত্র প্রদান করে অর্থ মন্ত্রণালয়কে। সেখানে বলা হয়, ৫ শতাংশ সুদে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২০১৫ সালে ঘোষিত পে-স্কেল অনুযায়ী মূল বেতনের ৬০ থেকে ৮০ গুণের সমান গৃহঋণ দেওয়া হবে। এতে করে প্রায় ১৮ লাখ কর্মকর্তা এ সুবিধা পাবেন।

এ ব্যাপারে অর্থমন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব নাজমুস সাকিব বলেন, প্রকল্পটির চূড়ান্ত অনুমোদনের ফলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিরা ভাল একটি সুবিধা পাবেন। এতে তাদের মধ্যে কাজের গতি বাড়বে।

অর্থমন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হাবিবুর রহমান বলেন, এই প্রকল্প থেকে সরকার ও ঋণ গ্রহীতা উভয়ই উপকৃত হবেন। কারণ সরকার ব্যাংকের অলস টাকা ইনভেস্ট করতে পারবে। ঋণের টাকার কিস্তি বেতন থেকে কেটে নেবে ব্যাংক। ফলে অর্থের সিকিউরিটি নিয়েও কোনো সমস্যা হবে না।

এ বিষয়ে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, সরকারি চাকুরি করে ঢাকা শহরে একসাথে এতো টাকা সংগ্রহ করে একটি ফ্লাট কেনা তাদের জন্য ছিল অনেক কষ্টের। কিন্তু সরকারের এমন উদ্যোগ তাদের জন্য সত্যিই আনন্দের। যেহেতু সরকার এ ঋণের বিপরীতে ৩ শতাংশ সুদ ভর্তুকি দেবে, তাই এটা তাদের জন্য বড় পাওয়া।

এদিকে, অর্থমন্ত্রণালয়ের বাজেট শাখা সূত্রে জানা গেছে, আসছে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেটে সরকারি চাকুরিদের বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাব থাকছে। ফলে এবছরও বৃদ্ধি পাচ্ছে সরকারি চাকুরিদের বেতন-ভাতা। বিষয়টি সরকারি চাকুরিজীবীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা তৈরি করেছে। তবে এর প্রভাব বাজারেও পড়বে বলে মনে করেন অর্থনীতি বিষয়ে গবেষকরা।

এ বিষয়ে গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ-সিপিডির গবেষক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, এবার বাজেটে সরকারি চাকুরিদের বেতন বৃদ্ধির যৌক্তিকতা আছে কিনা এটা প্রথমে ভাবতে হবে। সরকারের এমন সিদ্ধান্ত সারাদেশে সরকারি কর্মকর্তাদের নির্বাচন প্রভাবে ইনফ্লুয়েন্স করছে কিনা সেটাও প্রশ্ন উঠবে।

তিনি বলেন, সরকারি চাকুরিজীবীদের বেতন বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার প্রভাব প্রাইভেট সেক্টরেও পড়ে। ফলে প্রাইভেট সেক্টরেও বেতন বৃদ্ধির ডিমান্ড তৈরি হয়। ফলে প্রডাক্ট কষ্ট বৃদ্ধি পায়। এতে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধি পাবেই।

সরকারি কর্মকর্তাদের হোম লোন সুবিধা প্রদান ও আসছে বাজেটে বেতন বৃদ্ধি বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এম এম আকাশ বলেন, মূদ্রাস্ফীতির অবস্থা কি দাঁড়াবে সেটা নির্ভর করবে সরকার এই বেতন বৃদ্ধির অর্থটা কোত্থেকে জোগান দেয় তার ওপর।

তিনি বলেন, সরকার যদি ব্যাংক ঋণ নিয়ে বা নতুন নোট ছাপিয়ে এই বাড়তি বেতন জোগান দেয়, তাহলে নিশ্চিতভাবেই মূদ্রাস্ফীতির ওপর এর প্রভাব পড়বে। সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে এখন বেসরকারি খাতের ওপরও বেতন বৃদ্ধির চাপ বাড়বে। সেটা যদি হয়, তখন মূদ্রাস্ফীতির হার আবারও বাড়বে।

গৃহঋণের বিষয়ে এম এম আকাশ বলেন, এটা সরকারি কর্মকর্তাদের কাজে উৎসাহিত করবে এটা ঠিক। কিন্তু সরকার এ ঋণের সুদে যে ৩ শতাংশ ভর্তুকি দেবে এটা রাষ্ট্রের উপর অতিরিক্ত বোঝা বয়ে আনবে। ফলে ব্যাংকের উপর সরকারের ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। এভাবে রাজস্বের উপর চাপ বৃদ্ধি কতটা যৌক্তিক তা ভেবে দেখতে হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পুলিশি পাহারায় শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক,৩ জুন:

কঠোর নিরাপত্তা ও পুলিশি পাহারায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ড অনুষ্ঠিত হয়েছে। চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের চাপ এবং সুষ্ঠুভাবে নিয়োগ বোর্ড সম্পন্ন করাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ক্যাম্পাসে বহিরাগত প্রবেশে জিরো টলারেন্স জারি করেছে।

রোববার ক্যাম্পাসে সব ধরনের মিছিল মিটিং, বহিরাগতের প্রবেশ ও শিক্ষার্থীদের পরিচয়পত্র বিহীন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এদিন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আটটি বিভাগ ও আইসিটি সেলে মোট ৩৮ জন শিক্ষক-কর্মকর্তা নিয়োগের নির্বাচনী বোর্ড শুরু হয়।

এদিকে চাকরি প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক নেতাকর্মীরা তাদের চাকরি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন প্রকার নিয়োগ বোর্ড অনুষ্ঠিত হতে দেবে না বলে ঘোষণা দেন। একই দাবিতে শনিবার রাত ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা। এসময় ক্যাম্পাসে ইবি থানা ও কুষ্টিয়া থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে কর্তৃপক্ষ। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে আন্দোলনকারীদের সরাতে পুলিশ অ্যাকশনে যাবার প্রস্তুতি নিলে সকাল ১০টা পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করে ফিরে যায় চাকরি প্রত্যাশীরা। এর আগে গত ৭ মে চাকরি প্রত্যাশীদের বাধার মুখে ওই বিভাগগুলোর নিয়োগ বোর্ড স্থগিত করে কর্তৃপক্ষ।

রেজিস্টার অফিস সূত্রে জানা যায়, রোববার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আটটি বিভাগে ৩১ জন শিক্ষক এবং আইটি সেলে ৭ জন কর্মকর্তা নিয়োগ বোর্ড শুরু হয়। সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের  ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বোর্ড শুরু হয়। নিয়োগ পরীক্ষায় ৩১ জন আবেদনকারীর মধ্যে ২৫ জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। আগামী ২৬ জুন পর্যন্ত এ নিয়োগ নির্বাচনী বোর্ড অনুষ্ঠিত হবে।

 

এ বিষয়ে ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রতন শেখ জানান, ‘নিয়োগ বোর্ড সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ক্যাম্পাসে বিভিন্ন স্থানে পোশাকধারী এবং সাদা পোশাকে শতাধিক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মাহবুবর রহমান জানান, ‘ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ প্রবেশ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ক্যাম্পাসের পরিবেশ সম্পূর্ণ শান্ত রয়েছে। নিয়োগ বোর্ড সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে বলে আশা করছি।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষকদের মে মাসের বেতনের চেক ব্যাংকে

নিজস্ব প্রতিবেদক,৩ জুন:

বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারিদের মে-২০১৮ মাসের বেতন ভাতার সরকারি অংশের টাকার ৮টি চেক সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে পাঠিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। রোববার বেতন-ভাতার অনুমোদন দেয়া হয়। সোমবার ঈদ বোনাসের (বেতনের ২৫ শতাংশ) অর্থ ব্যাংকে জমা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে জানা গেছে।

মাউশি উপ-পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকী (সাধারণ প্রশাসন) বলেন, মাউশির অধীনস্থ স্কুল ও কলেজ শিক্ষক-কর্মচারীদের মে মাসের এমপিও (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) বণ্টনকারী অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক, প্রধান কার্যালয়ে এবং জনতা ও সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় কার্যালয়ে হস্তান্তর করা হয়েছে। সোমবার ঈদুল ফিতরের বোনাসের অর্থও ব্যাংকে জমা দেয়া হবে। শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-বোনাসের অর্থ আগামী ১০ জুনের মধ্যে এ অর্থ উত্তোলন করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

আগামী ১০ জুন পর্যন্ত শিক্ষক-কর্মচারিরা তাদের নিজ নিজ ব্যাংকের হিসাব নম্বরের মাধ্যমে বেতনভাতার টাকা তুলতে পারবেন বলে  জানা গেছে।

এদিকে, বেসরকরি শিক্ষক-কর্মচারীদের শতভাগ বোনাস না দেয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ বেসরকরি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও সিদ্ধান্ত স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম রনি। তিনি বলেন, শিক্ষকদের ২৫ শতাংশ বোনাস দেয়ায় সন্তুষ্ট হতে পারিনি।

নজরুল ইসলাম রনি বলেন, দেশে সিংহভাগ প্রতিষ্ঠান বেসরকরিভাবে পরিচালিত হলেও সরকারি শিক্ষকদের সুযোগ-সুবিধা বেশি দেয়া হয়। তাদের তুলনায় এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা বেতন কম পান, তারপরও মূল বেতনের মাত্র ২৫ শতাংশ বোনাস দেয়া হয়। বর্তমান বাজারে এ বোনাসের অর্থ দিয়ে তেমন কিছু করা সম্ভব হয় না। তাই বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীরা মূল বেতনের শতভাগ বোনাস দাবি করছি।

এদিকে কারগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এইচএসসি (বিএম), এসএসসি (ভোকেশনাল) এবং মাদ্রাসা (ভোকেশনাল ও বিএম) শিক্ষক-কর্মচারীদের মে মাসের এমপিওর (বেতন ভাতার সরকারি অংশ) চেক ছাড় হয়েছে। ১২ টি চেক অগ্রণী, জনতা, রুপালী ও সোনালী ব্যাংক লিমিটেড প্রধান/স্থানীয় কার্যালয়ে  বৃহস্পতিবারে হস্তান্তর করা হয়েছে। স্মারক নং- ৫৭.০৩.০০০০.০৯১.২০.০০৫.১৮-৪৮৩,৪৮৪,৪৮৫ ও ৪৮৬। ১৪ জুন পর্যন্ত শিক্ষকরা স্ব স্ব অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে পারবেন।

যারা এপ্রিল মাসের বেতনের সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারেননি তারাও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এপ্রিলের বেতন উত্তোলন করতে পারবেন। অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

তবে মাদ্রাসার শিক্ষকদের এমপিওর কোনো খবর এখনও পাওয়া যায়নি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পদোন্নতি পেলেও ঝুঁকিভাতা আর কমবে না পুলিশের

ডেস্ক,১৩ এপ্রিল: অবশেষে চাকরির মোট মেয়াদকাল গণনা করে পুলিশকে ঝুঁকিভাতা দেওয়ার সিদ্ধান্ত জারি করেছে সরকার। ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত আগের প্রজ্ঞাপনও বাতিল করা হয়েছে। এখন থেকে পদোন্নতি পাওয়ার পরও আর ঝুঁকিভাতা কমবে না। এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে দুই বছর ধরে ঝুলে থাকা পুলিশের ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত জটিলতার নিরসন হলো।
রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের উপসচিব লায়লা মুনতাজেরী দীনার সই করা এক প্রজ্ঞাপনে ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। বুধবার (১১ এপ্রিল) সই করা প্রজ্ঞাপনটি বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল) অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হয়েছে।
আদেশে বলা হয়েছে, অর্থ বিভাগের ২০১৫ সালের ১৮ অক্টোবরের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী পুলিশ বাহিনীর এসআই, সার্জেন্ট, টিএসআই এবং এর থেকে নিম্ন পর্যায়ের কর্মচারীদের চাকরির বয়সভিত্তিক ঝুঁকিভাতার হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে বিদ্যমান জটিলতা নিরসন করা হবে। এ লক্ষ্যে ঝুঁকিভাতা দেওয়ার ক্ষেত্রে নিম্ন পদ থেকে পদোন্নতি হলে মোট চাকরিকাল গণনা করে পদোন্নতিপ্রাপ্ত পদে ঝুঁকিভাতা দেওয়া হবে। অর্থাৎ, এই আদেশের ফলে ঝুঁকিভাতার আওয়াতায় থাকা পুলিশ সদস্যদের চাকরিতে প্রবেশের তারিখ থেকে ঝুঁকিভাতা পাওয়ার মেয়াদ গণনা করা হবে। পদোন্নতি পেলেও ওই উচ্চপদ থেকে নতুন মেয়াদ গণনা করা হবে না।
ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত গত বছরের ২৩ আগস্ট জারি করা প্রজ্ঞাপনও বাতিল করা হয়েছে। এই আদেশ ২০১৬ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে বলেও আদেশ দেওয়া হয়েছে।
এর আগের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, একজন পুলিশ সদস্য কনস্টেবল থেকে পদোন্নতি পেয়ে এএসআই হলে তার চাকরির মেয়াদ নতুন করে গণনা শুরু হতো। ঝুঁকিভাতা পাওয়ার ক্ষেত্রে তার পদোন্নতির আগের চাকরির বয়স গণনা করা হতো না। এতে কনস্টেবল থাকাকালীন তিনি যে ঝুঁকিভাতা পেতেন, এএসআই হওয়ার পর তা কমে আসত। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ ছিল পুলিশ সদস্যদের মধ্যে। এ নিয়ে এ বছরের ৭ জানুয়ারি বাংলা ট্রিবিউনে ‘পদোন্নতির পর ঝুঁকিভাতা কমে যায় পুলিশের!’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন প্রকাশের তিন মাসের মাথায় পুলিশের ঝুঁকিভাতা সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে সরকার নতুন করে প্রজ্ঞাপন জারি করলো।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এশার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করল ছাত্রলীগ

ডেস্ক রিপোর্ট : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কবি সুফিয়া কামাল হল শাখার ছাত্রলীগ সভাপতি ইফফাত জাহান এশার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করেছে তাঁর সংগঠন।

আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি এ কথা জানায়।

ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে ইফফাত জাহান এশা সম্পূর্ণ নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন। বহিষ্কারের আদেশ প্রত্যাহার করে তাঁকে আগের পদে বহাল করা হলো।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান জানান, পরিস্থিতির কারণে এশাকে বহিষ্কার করা হয়। পরে তদন্ত করে নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাঁকে আগের পদে বহাল করা হয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে কোটা সংস্কার আন্দোলনে অংশ নেওয়ায় হলের এক সাধারণ ছাত্রীকে রুমে ডেকে নিয়ে মারধর করে রক্তাক্ত করার অভিযোগ ওঠে এশার বিরুদ্ধে। ওই ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে হলের শিক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে এশাকে অবরুদ্ধ করে রাখেন এবং তাঁর বিচার দাবি করেন। একপর্যায়ে হলের প্রাধ্যক্ষ ও হাউস টিউটরদের সামনেই এশার গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেন হলের ছাত্রীরা।

ওই রাতেই এশাকে হল ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেন উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান। এ ছাড়া সংগঠনের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে ছাত্রলীগ থেকেও এশাকে বহিষ্কার করা হয়।

সুফিয়া কামাল হলের একাধিক ছাত্রীর অভিযোগ, ছাত্রলীগের হল শাখার সভাপতি এশা এর আগেও সাধারণ ছাত্রীদের নিজের কক্ষে ডেকে নিয়ে মারধর করতেন। তবে এত দিন ভয়ে কেউ মুখ খোলেননি। সূত্র : এনটিভি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসার পদের নিয়োগ পরীক্ষা ২৭ এপ্রিল

অফিসার পদে নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামী ২৭ এপ্রিল শুক্রবার সকাল ১০টায় এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীর ৬১টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে, প্রার্থীদের পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার কেন্দ্রে উপস্থিত হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরীক্ষার হলে যেকোনো ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস যেমন মোবাইল ফোন, ক্যালকুলেটর ও স্মার্টওয়াচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

যারা ইতোমধ্যে প্রবেশপত্র ডাউললোড করার পর হারিয়ে ফেলেছেন কেবল তারাই আগামী ২০ এপ্রিল থেকে পুনরায় প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারবেন। প্রার্থীদের আসন বিন্যাস প্রকাশ করা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে গিয়ে আসন বিন্যাস দেখার জন্য প্রার্থীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক (হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট-১) নূর-উন-নাহার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জিমেইল ইয়াহু নয়, সরকারি কাজে গভডটবিডি ব্যবহার হবে

সচিবালয় প্রতিবেদক :

‘সরকারি ই-মেইল নীতিমালা-২০১৮’এর খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সরকারি অফিসগুলোতে আমরা ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহার করে বিভিন্ন করেসপন্ডেন্ট (চিঠিপত্র পাঠানো) করি। সেটা করা যাবে না। সরকারি ডোমেইনের নিজস্ব ই-মেইল অ্যাড্রেস নিয়ে করেসপন্ডেন্ট করতে হবে, যেটা গভডটবিডি (gov.bd)। গভডটবিডি অ্যাকাউন্ট অনেকেরই আছে। সেই অ্যাকাউন্ট থেকেই করেসপন্ডেন্ট করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, নীতিমালাটি অনুমোদন হওয়ায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দাপ্তরিক কাজে অন্যান্য যোগাযোগ মাধ্যম (জিমেইল, ইয়াহু, আউটলুক ) ব্যবহার করতে পারবে না।

তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, প্রত্যেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী দুটি করে ই-মেইল আইডি খুলতে পারবেন। সেক্ষেত্রে একটি হবে তার পদবি দিয়ে এবং অন্যটি নাম দিয়ে। তবে যোগাযোগের ক্ষেত্রেও আইডি দুটি দুই ধরনের কাজে ব্যবহার করতে হবে তাদের। সরকারি কাজে গোপনীয়তা রক্ষা ও সাইবার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে এই নীতিমালা করা হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কোটাব্যবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

এস দাস : জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে বর্তমান কোটাব্যবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বৈঠকটি হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে সভাপতিত্ব করেন।

কোটব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে বেশ কিছুদিন ধরেই আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। সর্বশেষ রোববার তারা কোটা সংস্কারের দাবিতে শাহবাগের সড়ক অবরোধ করে রাখেন। একপর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন আন্দোলনকারীরা। গভীর রাত পর্যন্ত এই সংঘর্ষ চলে।

কোটা সংস্কারের বিষয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়েছে কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘কোটা নিয়ে আসলে তো কোনো সমস্যা নেই। এখন যে কোটাব্যবস্থা এক্সিসটিং (বহাল) রয়েছে সেখানে মেধা কোটা ৪৫ শতাংশ, মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০ শতাংশ, নারী কোটা ১০ শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কোটা ৫ শতাংশ, ক্ষেত্রবিশেষে জেলা কোটা ১০ শতাংশ, ক্ষেত্রবিশেষে প্রতিবন্ধী কোটা ১ শতাংশ।’

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত দিয়েছিল, মুক্তিযোদ্ধা বা অন্যান্য কোটাগুলো যদি পূরণ করা সম্ভব না হয় তবে তা মেধাতালিকার শীর্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীদের দিয়ে পূরণ করতে হবে। সেটা পূরণ করা হয়েছে।’

৩৩তম বিসিএসে মেধাকোটায় পূর্ণ হয়েছে ৭৭ দশমিক ৪০ শতাংশ, ৩৫তম বিসিএসে ৬৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ মেধা তালিকা থেকে এসেছে। ৩৬তম বিসিএসে ৭০ দশমিক ৩৮ শতাংশ মেধাকোটায় নিয়োগ পেয়েছেন বলেও জানান শফিউল আলম।

তিনি বলেন, ‘কোটার মাধ্যমে মেধা অবহেলিত হয়নি। কোটার ক্ষেত্রেও যারা মেধাতালিকায় ভালো তারা আসছেন। এমন না যে মেধাতালিকায় যারা আছেন তারা অবহেলিত আছেন, পেছনে পড়ে যাচ্ছেন। কোটার দ্বারা কারও মেধা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।’

বিভিন্ন কোটায় প্রার্থী পাওয়া যায় না, তাহলে কোটা সংস্কারে সমস্যা কোথায় জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘যেটা মোডিফাই করা হয়েছে অর্থাৎ পদ পাওয়া না গেলে মেধাতালিকার শীর্ষে যারা আছেন তাদের দিয়ে পূরণ করা হবে। এটাই তো একটা সংস্কার।’

‘কোটা হচ্ছে একটা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা। এর মাধ্যমে অনগ্রসর যারা আছেন তাদের সামনে আনা হয়।’

মন্ত্রিসভার বৈঠকে কোটার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত বা নির্দেশনা দেয়া হয়েছে কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘যা আলোচনা হয়েছে তা জানিয়েছি তো। কোটার কারণে যারা মেধাবী তারা খুব বেশি বঞ্চিত হয়নি। আপনাদের তো তিনটা বিসিএসের রেজাল্ট দিয়ে দিলাম।’

কোটায় প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধাতালিকা থেকে তা পূরণের সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভা দিলেও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত ব্যাখ্যায় জানিয়েছে, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদের ক্ষেত্রে কোনো কোটা পূরণ না হলে অন্যান্য কোটা দিয়ে পূরণ করতে হবে। এ জন্য আন্দোলন হচ্ছে।

এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশটি আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখব।’

কোট সংস্কারের বিষয়ে আজকের মন্ত্রিসভা বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে শফিউল আলম বলেন, ‘না আজকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিষয় আছে। অনির্ধারিত আলোচনা তো এরকম কিছু হয়ই। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হলো এটার স্টেক হোল্ডার। তারা এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে। দেখে অবহিত করবে।’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে পরীক্ষার-নিরীক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এ ক্ষেত্রে তিনি কোনো নির্দেশনা দিয়েছেন কি না- জানতে চাইলে শফিউল আলম বলেন, ‘ইনফরমাল আলোচনা তো, ইনফরমালভাবেই….ধরেন….।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free