Home » নিউজ (page 39)

নিউজ

মাস্টার্সে ভর্তির ৩য় রিলিজ স্লিপ ৬ অক্টোবর

ঢাকা: জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩-২০১৪ শিক্ষাবর্ষে মাস্টার্স শেষ পর্ব (নিয়মিত) কোর্সে অনলাইন ভর্তি কার্যক্রমে ৩য় রিলিজ স্লিপের মেধা তালিকা ৬ অক্টোবর প্রকাশ করা হবে।

সোমবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দফতর থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ফল ওই দিন বিকাল ৪টায় যেকোনো মোবাইল থেকে SMS এর মাধ্যমে nu<space>atmf<space> Roll লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে ফল জানা যাবে।

এ ছাড়া রাত ৯টায় www.nu.edu.bd/admissions অথবা admissions.nu.edu.bd ওয়েবসাইটে ফল পাওয়া যাবে।

স্কুলের জমি দখল রোধে ১৫ ছাত্রীর লড়াই

0ডেস্ক রিপোর্ট : সাত সকালে পটুয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কিছু লোকের জটলা। তারা বহিরাগত, ভাড়া করা। স্কুলের পশ্চিম কোণে বালু ফেলে সরকারি পুকুর ভরাট করতে শুরু করে। দখলের এই কর্মকাণ্ড দেখে প্রতিবাদী হয়ে ওঠে স্কুলের কয়েকজন ছাত্রী। তারা ছুটে গিয়ে শিক্ষকদের খবর দেয়। শিক্ষকরা তাৎক্ষণাৎ এসে দেখেন ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে আছেন জেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক গাজী হাফিজুর রহমান ওরফে সবির। তাঁর নেতৃত্বে চলছে স্কুলের জমি দখল। ওই সময় শিক্ষকরা ভয়ে মুখ খোলার সাহস পাননি। পরে তাঁরা জেলা প্রশাসকের দারস্থ হন। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক নড়েচড়ে বসেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ নেতার নাম শুনে তিনিও থেমে যান।

তবে স্কুল কর্তৃপক্ষের পিছুটান ও জেলা প্রশাসকের নিষ্ক্রিয় ভূমিকা দেখে দখলরোধে সাহসী লড়াই করে ১৫ জন ছাত্রী। তারা জড়ো হয়ে স্কুলের জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণকাজ বন্ধ করে দেয়। দখলদারের বিরুদ্ধে পৌর মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগ করে। কিন্তু দখল সাময়িক বন্ধ হলেও আওয়ামী লীগ নেতার চেষ্টা এখনো অব্যাহত রয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আওয়ামী লীগ নেতা গাজী হাফিজুর রহমান সবিরের ভাইয়ের বাড়ি রয়েছে স্কুলের পাশে। সেই বাড়িতে যাওয়ার পথ তৈরি করতে চলছে সরকারি পুকুর ভরাটের কাজ। তাঁর ভাইয়ের নাম সাঈদুর রহমান গাজী। যিনি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। তাঁর বাড়ি যাওয়ার পথ তৈরি করতে সরকারি পুকুরসহ স্কুলের জমি দখল করছেন আওয়ামী লীগ নেতা সবির।

স্কুলের ছাত্রীরা বলছে, দখলের ফলে তারা খেলাধুলা করতে পারছে না। এমনকি কম্পাউন্ডে বহিরাগতদের অবাধ চলাচলের কারণে তারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। ২৫ সেপ্টেম্বর রাত থেকেই সরকারি পুকুর ভরাটের পাশাপাশি স্কুল মাঠের একটা অংশ দখল করে রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছিল। পরের দিন সকালে বিষয়টি তাদের নজরে আসে।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পটুয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের ভবনসংলগ্ন খেলার মাঠ, প্রধান শিক্ষকের বাসভবনসংলগ্ন পশ্চিম-উত্তর পাশে সরকারি পুকুর। সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক গাজী হাফিজুর রহমান সবির চলাচলের জন্য পুকুর ভরাট করে রাস্তা তৈরি করছিলেন। এজন্য বিদ্যালয় লাগোয়া বেশ কয়েকটি গাছ কেটে ফেলা হয়েছে। সরকারি পুকুরটির উত্তর-পূর্বাংশে বালু ফেলে ভরাট করেছেন। সঙ্গে খেলার মাঠের একটা অংশ ভরাট চলছে। এসব ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষ, জেলা প্রশাসন নীরব থাকলেও স্কুলের জমি দখল ঠেকাতে লড়ছে ১৫ জন ছাত্রী।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর ১৫ জন ছাত্রীর স্বাক্ষরিত একটি আবেদন মেয়রের কাছে পাঠানো হয়। আবেদনে বলা হয়, ‘বিদ্যালয়ের পশ্চিম দিকের ভবনসংলগ্ন গেটের পরেই আমাদের খেলার মাঠ। সেই মাঠটি আমাদের একমাত্র খেলার স্থান। ‘দুর্ভাগ্যবশত জনৈক প্রতিবেশী সরকারি পুকুর ভরাট করে রাস্তা তৈরি করছেন। শুধু তাই নয়, বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের রাস্তার সঙ্গে একত্র করে বিদ্যালয়ের জমি দখলের পাঁয়তারা করছেন। দখলের এই পদক্ষেপ বন্ধ করার জন্য অনুরোধ করছি।’

স্কুলের জমি দখল ঠেকাতে লড়াই করা ওই ১৫ ছাত্রী হলো—মালিহা বিনতে নজরুল, সাজিয়া আফরোজ ঐশী, সামিয়া শফিক প্রভা, অনানিম সাইমা রাইতা, উম্মে কুলসুম ফাল্গুনী, অনন্যা সরকার অন্তরা, সানজিদা আফরিন ঐশী, লামিয়া ইসলাম জাবিন, খন্দকার মাইশা, মৌমিতা দত্ত, মারিয়া জাহান সিনথিয়া, অধিকা দত্ত, ইমরানা জাহান ইতু, মারজান ইসলাম ও তাবিয়া জামান অর্পি।

ওই ছাত্রীরা বলে, ‘খেলার মাঠ উদ্ধারের জন্য আমরা প্রধান শিক্ষকের কাছে ছুটে গেছি। স্যার আমাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যালয়ের সভাপতি জেলা প্রশাসকের কাছে দখলরোধে করণীয় ব্যাপারে আলোচনা করেছেন। জেলা প্রশাসক বিদ্যালয়ের মাঠটি অবৈধ দখলদারদের রুখতে কোনো পদক্ষেপ নেননি। শুনেছি, ডিসি স্যার বিষয়টি নিয়ে জনপ্রতিনিধির সঙ্গে শিক্ষকদের আলোচনা করতে পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষকরা সাহস পাচ্ছিলেন না। আমরা তো শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিত্ব করি, সেই দৃষ্টিকোণ থেকেই মেয়রের কাছে আবেদন করেছি।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্যদের সভাপতি ও জেলা প্রশাসক এ কে এম শামীমুল হক সিদ্দিকী গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, ‘সরকারি পুকুর ভরাটের পাশাপাশি স্কুল মাঠের পাশ দিয়ে রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছিল। শিক্ষার্থীরা নিজ উদ্যোগে সেই কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষকরা স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সঙ্গে আলোচনায় বসেছেন। রাস্তা নির্মিত হবে না বলে জনপ্রতিনিধিরা আশ্বস্ত করেছেন।

সরকারি পুকুর ভরাট ও গাছ কাটার ব্যাপারে প্রশাসন কী ব্যবস্থা নিয়েছে এমনটা জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘কাগজপত্র যাচাইয়ে কাজ চলছে, সে অনুযায়ী পরে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক গাজী হাফিজুর রহমান গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘পৌরসভার মেয়র ডা. শফিকুল ইসলাম স্থানীয়দের চলাচলের সুবিধার্থে বিদ্যালয়ের ভেতর দিয়ে রাস্তা নির্মাণের জন্য একটি প্রকল্প দিয়েছিলেন। সেই প্রকল্পের ঠিকাদার হিসেবে রাস্তা নির্মাণের জন্য পুকুরের পাশের একটি অংশ ভরাট করেছি। স্কুলের কিছু জমি ভরাটের সময় শিক্ষার্থীরা বাধা দিয়েছিল। স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মেয়রের আলোচনা চলছে, তাই কাজ সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ রয়েছে।’

মৌখিকভাবে আমাকে ঠিকাদারির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল এমনটি দাবি করে গাজী হাফিজুর রহমান আরো বলেন, ‘স্কুলের পাশে আমার কোনো জমি নেই। আমার ভাই সাঈদুর রহমান গাজীর (বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত) ১৫ শতাংশ জমির ওপর বাড়ি রয়েছে। সবাই ভাবছে সেই সুবিধার্থে রাস্তা তৈরি করছি।’

এ ব্যাপারে জানতে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পটুয়াখালী পৌরসভার মেয়র ডা. শফিকুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে দুই দিন ধরে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। কালের কন্ঠ

মেয়াদোত্তীর্ণ সিবিএ নেতাদের দাপটে চাকরি হারালেন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারি

নিজস্ব প্রতিবেদক: bcicবিসিআইসির মেয়াদোত্তীর্ণ সিবিএ নেতাদের দাপটে চাকরি হারালেন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মিরাজ হোসেন। এর প্রতিবাদ করায় চাকরি হারনোর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে আরও কয়েকজনের। এই মেয়াদোত্তীর্ণ সিবিএ নেতারা এক সময় বিএনপি জামায়াতের রাজনীতিতে যুক্ত থাকলেও এখন ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে তাল মিলিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
শনিবার সকালে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন বিসিআইসির কর্মচারিরা।
তারা জানান, গত ২২ সেপ্টেম্বর বিসিআিইসি কর্মচারী লীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। গত ১ আগষ্ট হাইকোর্টের নির্দেশনা আসে নির্বাচনের। কিন্তু কোন নির্বাচন দেয়া হয়নি। কর্মচারিদের স্বার্থরক্ষায় এই নির্বাচন দাবি করায় গত ২৫ সেপ্টেম্বর মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির যোগসাজশে উপ-কর্মচারি প্রধান মান-১ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে চাকরি থেকে অবসানের আদেশ প্রদান করা হয় মিরাজকে। এই কমিটির নেতারা বিনা নির্বাচনে আবারও ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা চালালে অন্য কর্মচারিরা এর প্রতিবাদ জানান। এর ফলে ট্রেড ইউনিয়নের সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীসহ ৪৩ জনের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয় এই মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি। এ নিয়ে বিসিআইসির কর্মচারিদের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। পাশাপাশি নির্বাচন দেয়ারও দাবি জানিয়েছেন তারা।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বিএনপি জামায়াতের আমলে কমিটিতে থাকা ৮ জন বর্তমান কমিটিতে রয়েছেন। তারা জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী হলেও এখন আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ঢুকে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা চালাচ্ছে। বর্তমান সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে অপচেষ্টা চালাচ্ছে এই চক্র বলে অভিযোগ তাদের। এ অবস্থায় মিরাজের চাকরি পুনর্বহাল ও ট্রেড ইউনিয়নের নির্বাচন দাবি করেছেন বিসিআইসির কর্মচারিরা।

৩৭ তম বিসিএস পরীক্ষা শুরু

bcsঅনলাইন রিপোর্টার॥ সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর আগারগাঁও সরকারি কর্মকমিশন সচিবালয়ে লটারির মাধ্যমে বিসিএসের প্রশ্নপত্র ঠিক করা হয়। এ বছর চিত্রা সেটের প্রশ্নপত্র দিয়ে বিসিএস পরীক্ষা হচ্ছে। ৩৭ তম বিসিএস পরীক্ষা আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে শুরু হয়েছে। এতে অংশ নিচ্ছে দুই লাখ ৪৩ হাজার ৪৭৬ জন পরীক্ষার্থী।

লটারির আগে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক দেশের ছয়টি বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে ভিডিও সম্মেলন করেন। লটারিতে প্রশ্ন নির্ধারণের পর সম্মেলনের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়।

পিএসসি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ‘আমরা চাই বিসিএস পরীক্ষা স্বচ্ছভাবে হোক। এ কারণেই আমাদের সব আয়োজন। ঢাকায় দুজন ও চট্টগ্রামে একজন জেলখানায় বসে পরীক্ষা দিচ্ছেন। প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী হাকিম আছেন। পুরো দুই ঘণ্টা তাঁরা কেন্দ্রে পর্যবেক্ষণ করবেন।’

ঢাকার ১২৩টি কেন্দ্রসহ ছয় বিভাগের ১৯০টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা হচ্ছে। পরীক্ষার কক্ষে কোনো রকম বইপত্র, মোবাইল, ক্যালকুলেটর, ইলেকট্রনিকস ডিভাইস, হাত ঘড়ি, পকেট ঘড়িও সঙ্গে আনা নিষেধ।

প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা হিসেবে এক হাজার ২২৬ জনকে নিয়োগ দিতে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি ৩৭ তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পিএসসি। এ বিসিএসে অংশ নিতে গত ৩১ মার্চ থেকে ২ মে পর্যন্ত প্রার্থীরা আবেদন করেছেন।

নতুন অধ্যাপকদের পদায়নের কাজ চলছে

অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পাওয়া প্রায় ৩৮০ জনকে বিভিন্ন সরকারি কলেজ ও মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ পদে পদায়নের কাজ চলছে। মঙ্গলবার বি সি এস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের পদোন্নতি কমিটির সভায় প্রায় ৩৮০ জন সহযোগী অধ্যাপককে অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেয়া হয়।

নতুন অধ্যাপকদের পদায়নসহ পদোন্নতির তালিকা প্রকাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা অধিদপ্তরে ভীড় জমিয়েছেন হবু অধ্যাপকরা। যারা ৭ম ও ৮ম বি সি এস’র তারা মোটামুটি নিশ্চিত যে অধ্যাপক হচ্ছেন। তাই তারা পছন্দমতো পদায়নের তদবির শুরু করছেন।

আজ-কালের মধ্যে আদেশ জারি হতে পারে ।

অপরদিকে প্রভাষক ও সহকারি অধ্যাপক থেকে যারা পদোন্নতি পাবেন তারা তদবির শুরু করছেন। শিগগিরই আরেকটি ডিপিসির সভা অনুষ্ঠিত হতে পারে মর্মে খবর পাওয়া গেছে।
এদিকে বি সি এস শিক্ষা সমিতির কোনো কোনো নেতা পূর্বের নেতাদের ধারাবাহিকতায় পদোন্নতি নিয়ন্ত্রের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

এনটিআরসিতে হয়রানিতে হাজার হাজার প্রার্থী

ডেস্ক:%e0%a7%a7দেশে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি ও হয়রানি বন্ধে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা চালু করে সরকার। আর শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাসহ যাবতীয় বিষয় দেখভাল করে। কিন্তু সেবার বদলে এনটিআরসি থেকে হয়রানির শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার প্রার্থী ও শিক্ষক এ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিদিন শত শত চাকরি প্রত্যাশী বিভিন্ন ধরনের তথ্য জানতে অফিসটিতে ভিড় করলেও কেউ ভেতরে প্রবেশ করার অনুমতি পান না। অফিসের গেট থেকেই তাদের ফিরে যেতে হয়।

এ খবর জানার পর মঙ্গলবার রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় অবস্থিত এনটিআরসিএ অফিসে সাংবাদিকরা ছুটে গেলে তারাও প্রবেশ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। এমনকি প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান কথাও বলেননি। উল্টো পুলিশ ডেকে হয়রানি করার চেষ্টা করেন।

এ সময় গাজীপুর থেকে আসা মো. রুহুল আমিন সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, ‘১২তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় প্রভাষক পদে ৮২ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছি। নিজ উপজেলার কোনও কলেজে আমার বিষয়ে প্রভাষক পদ শূন্য নেই। এখন আমি অন্য কলেজে নিয়োগ পাবো কিনা তা জানার জন্য এসেছিলাম। সকাল থেকে অপেক্ষা করেও ভেতরে ঢুকতে পারিনি’।

শরীয়তপুর থেকে এসেছিলেন নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘এক মাস আগে নদীভাঙনে আমাদের বাড়িঘর পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। এখন এলাকা ছেড়ে ফরিদপুর বসবাস করছি। শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার একটি কলেজে প্রভাষক পদে নিয়োগের জন্য আবেদন করেছি। নিয়ম অনুযায়ী নিজ উপজেলার প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। নদীভাঙনের কারণে ঠিকানা পরিবর্তন করা যাবে কিনা তা জানতে এসেছিলাম। দুই ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে অনেক অনুরোধ করেও অফিসের ভেতরে প্রবেশ করতে পারিনি’।

টাঙ্গাইল থেকে আসা মাহমুদুল হাসান অভিযোগ করেন, ‘১৩তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ফল কবে দেবে, তা জানতে এসেছিলাম। ভেতরে ঢোকা তো দূরের কথা, লিফট থেকে নামার পর দাঁড়নোর জায়গাও পেলাম না। বাধ্য হয়ে চলে যেতে হচ্ছে। অথচ জামালপুর-৪ আসনের এমপির এপিএস পরিচয় দেওয়ার পর একজনকে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়েছে’।

রোকসানা পারভীন নামে একজন অভিযোগ করেন, ‘প্রভাষক পদে আবেদন করার পর আমার বিয়ে হয়েছে। আবেদন সংশোধন করে স্বামীর ঠিকানা দেওয়া যাবে কিনা জানতে এসেছিলাম। অনেক অনুরোধ করেও অফিসের ভেতরে ঢুকতে দেওয়ানি। অথচ পিএসসিতে বিসিএসের আবেদন সংশোধনের সুযোগ আছে।’

সনদ তুলতে এসেছিলেন বিধান। তিনিও কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করে ভেতরে ঢুকতে না পেরে সনদ ছাড়াই ফিরে যান।

ভুক্তভোগীরা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করলে এ প্রতিবেদকসহ কয়েকজন সাংবাদিক ছুটে যান নায়েম ক্যাম্পাসের একটি ভবনের পাঁচতলায় অস্থায়ী অফিসে। লিফট থেকে নামার জায়গায়ও ফাঁকা ছিল না। লিফটের এক ফুট সামনেই কলাপসিবল গেট দিয়ে অফিসে প্রবেশের পথ আটকে রাখা হয়েছে। গেটে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে বড় বড় ৪টি তালা। অফিসের নোটিশ বোর্ডের ও তথ্যকেন্দ্র গেটের ভেতরে। কারও পক্ষে তথ্য জানার সুযোগ নেই।

সাংবাদিকরা নিজেদের পরিচয় দিয়ে ভেতরে প্রবেশের অনুমতি চাইলে গেটে দাঁড়িয়ে থাকা দারোয়ান তসলিম বলেন, ‘অফিসের ভেতরে প্রবেশ নিষেধ। চেয়ারম্যান স্যার দেড় বছর ধরে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।’

সাংবাদিকরা ভিজিটিং কার্ড চেয়ারম্যানকে দেওয়ার জন্য বললে তিনি কয়েকজন কর্মকর্তাকে ডেকে আনেন। তারাও এসে বলেন, ‘ভেতরে ঢোকা যাবে না। চেয়ারম্যান স্যার কারও সঙ্গে দেখা করেন না।’ ভেতরে ঢোকা নিয়ে একপর্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন তারা। পরে তারা ভেতরে গিয়ে কিছু সময় পর ফিরে এসে বলেন, ‘এবার দেখবেন মজা!’

এ ঘটনার কয়েক মিনিট পরেই নিউমার্কেট থানার পুলিশের এসআই আবুল এসে হাজির হন ঘটনাস্থলে। তিনি ভেতরে ঢুকে ফিরে এসে বলেন, ‘চেয়ারম্যান স্যার কারও সঙ্গে দেখা করবেননা। আপনারা এখান থেকে চলে যান।’ এসময় তিনিও সাংবাদিকদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) এএমএম আজাহারের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনিও কথা বলতে রাজি হননি।

প্রাক-প্রাথমিকে নিয়োগ ৩৫৪৩৭ জন

parliamentনিজস্ব প্রতিবেদক :

এখন পর্যন্ত তিন ধাপে ৩৫ হাজার ৪৩৭ জন প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

 

জাতীয় সংসদ ভবনে মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত কমিটির ৩০তম বৈঠকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। সংসদ সচিবালয়ের সহকারী পরিচালক মৌমিতা নাসরাত রুমা  এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

এ ছাড়া বৈঠকে প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তক সঠিকভাবে মুদ্রণ ও বাঁধাই করা হচ্ছে কি না সে জন্য ছাপাখানা পরিদর্শনের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি সাবকমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

কমিটির কার্যপত্র সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি পর্যন্ত এসব শিক্ষকদের নিয়োগ দেওয়া হয়। তবে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় প্রার্থী না পাওয়ায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আইন অনুযায়ী পদগুলো শূন্য রয়েছে। পুনরায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৪৬ হাজার ৪৭৭টি আবেদপত্র জমা পড়েছে। ন্যূনতম সময়ের মধ্যে লিখিত পরীক্ষা গ্রহণের জন্য কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

 

বৈঠকে প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তক সঠিকভাবে মুদ্রণ ও বাঁধাই করা হচ্ছে কি না সে জন্য ছাপাখানা পরিদর্শনের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি সাবকমিটি গঠন করা হয়। সাবকমিটিতে মো. নজরুল ইসলাম বাবুকে আহ্বায়ক এবং মো. আবুল কালাম ও মোহাম্মদ ইলিয়াছকে সদস্য করা হয়েছে।

 

কমিটি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষার সার্বিক কার্যক্রম ও বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ কার্যক্রমের অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনা করে। এ ছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম দ্রুত বাস্তবায়নের সুপারিশ করা হয়েছে।

 

বৈঠকে সবার জন্য মানসম্পন্ন প্রাথমিক ও মৌলিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে সরকারি বিদ্যালয়ের বাইরে অন্যান্য বিদ্যালয়ে সরকারি নীতিমালার আলোকে প্রণীত পাঠদান কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে কি না তাও পর্যবেক্ষণের সুপারিশ করা হয়।

 

বিআইটিএমে নতুন ৮টি ব্যাচের প্রশিক্ষণ শুরু

basis-laনিজস্ব প্রতিবেদক: দক্ষতা উন্নয়নবিষয়ক প্রশিক্ষণ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বেসিস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (বিআইটিএম)-এ ডিজিটাল মার্কেটিং, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট-পিএইচপি, প্রাকটিক্যাল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও) এবং আইটি সাপোর্ট টেকনিক্যাল বিষয়ে নতুন ৮টি ব্যাচের প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে।

সম্প্রতি রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ বিআইটিএম ল্যাবে শুরু হওয়া প্রশিক্ষণগুলোর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

এ সময় বেসিস সভাপতি বলেন, দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের এখন উড্ডয়নের সময়। এজন্য প্রয়োজন দক্ষ জনশক্তি। একদিন দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশেও শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোতে বাংলাদেশের তরুণ-তরুণীরা চাকরি পরিমাণ বাড়বে। অনেকেই নিজেকে দক্ষ করে তুলে নিজস্ব প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মাধ্যমে অন্যদেরকে চাকরি দেবে। সেই লক্ষ্যেই সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে বেসিস-বিআইটিএম কাজ করছে।

বিনামূল্যের এসইআইপি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ইতোমধ্যে প্রায় ৬ হাজার তরুণ-তরুণী বিআইটিএম থেকে প্রশিক্ষণ শেষ করেছে। ২০১৮ সাল নাগাদ মোট ২৩ হাজার তরুণ-তরুণীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

আগ্রহীরা বিআইটিএমের ওয়েবসাইট (www.bitm.org.bd/seip) থেকে প্রশিক্ষণের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন। এরপর যথাযথ মূল্যায়নের মাধ্যমে চূড়ান্ত নির্বাচিতরা প্রশিক্ষণে অংশ নিতে পারবেন।

উল্লেখ্য, প্রশিক্ষণটি এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) অর্থায়নে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (এসইআইপি)-এর অধীনে এবং বেসিস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (বিআইটিএম)-এর তত্ত্বাবধায়নে পরিচালিত হচ্ছে।

শিক্ষকদের আরও উন্নতমানের পাঠদান করতে হবে

আমাদের ছেলে-মেয়েদের ভালো ক্লাসরুমে যদি লেখাপড়া করার ব্যবস্থা করা হয়, যদি সেটা আকর্ষণীয় হয় এবং তারা যদি মজা পায় তাহলে সে ক্লাসে আসবে। তাই ক্লাসরুমের শিক্ষাকে ভালো করতে হবে। শিক্ষকদের আরও উন্নতমানের পাঠদান করতে হবে।’

শনিবার বিকালে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি)অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘শিক্ষার উন্নত পরিবেশ এবং জঙ্গিবাদমুক্ত শিক্ষাঙ্গন শীর্ষক মতবিনিময়’ সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সভায় বাকৃবি’র ভিসি প্রফেসর ড. আলী আকবর, শিক্ষা সচিব সোহরাব হোসাইন, ঢাকা শিক্ষাবোর্ডেও চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ময়মনসিংহ অঞ্চল) পরিচালক আব্দুল মোতালেবসহ বিশিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় শিক্ষা মন্ত্রী আরও বলেন, শিক্ষক, অভিভাবক আর সমাজের সকল মানুষ মিলে আমাদেও ছেলে-মেয়েদের নজর রাখতে হবে। প্রয়োজনে আলেম ওলামা কুরআনের ব্যাখ্যা দিয়ে জঙ্গিবাদ সম্পর্কে জ্ঞান দিতে হবে। এতে করে আমরা সকলেই জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করতে সক্ষম হব।

এর আগে সকালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ‘এগ্রোনমি অ্যান্ড লাইভলিহুড ভিষণ- ২০৫০ অ্যান্ড বিয়ন্ড ফর বাংলাদেশ’ এই প্রতিবাদ্য নিয়ে সোসাইটি অভ এগ্রোনোমি-এর ১৫তম কর্মশালার উদ্বোধন করেন।

সোসাইটি অভ এগ্রোনোমি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ড. আব্দুল জলিল মৃধার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো.  আলী আকবর। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যথাক্রমে প্রফেসর ড. মো. আব্দুল কাদের এবং ড.মঈন-উস সালাম।

ভিশনারী স্পিকার হিসেবে বক্তব্য রাখেন এফ এ ও-এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি ড. মাইক রবসন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএসএর সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড.এ কে এম রুহুল আমিন। অন্যান্যর মাঝে বক্তব্য রাখেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. সাইদুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ এগ্রিকালচার রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর মহাপরিচালক ড. মো. রফিকুল ইসলাম মণ্ডল, ডিএই এর মহাপরিচালক মো. হামিদুর রহমান এবং এগ্রোনোমি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মাহফুজা বেগম।

কর্মশালায় কৃষি গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য প্রফেসর ড. মোঃ আবদুর রহমান সরকার এবং ড. নূর এ এলাহিকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

ভিসামুক্ত ভ্রমণে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর

bangla-rasiaকূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্টধারীদের ভিসামুক্ত ভ্রমণ বিষয় একটি পারস্পরিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ ও রাশিয়া। বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ সদর দফতরে এক অনুষ্ঠানে নিজ নিজ পক্ষে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এবং রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেগেই ভি. ল্যাভরভ এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। শুক্রবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বৈঠকে দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ২০১৭ সালের প্রথম দিকে যে কোন সময় রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভের বাংলাদেশ সফরের সম্ভাবনাসহ পারস্পরিক স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেন। কূটনৈতিক চ্যানেলে মেদভেদেভের সফরের তারিখ ঠিক করা হবে। রাশিয়া আন্তসরকার সহযোগিতা, মেরিটাইম কো-অপারেশনসহ কিছু চুক্তি এবং এ বিষয় আলোচনা আরো এগিয়ে নিতে ঢাকায় প্রতিনিধিদল পাঠাতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

এছাড়া পারস্পরিক বিভিন্ন ইস্যুতে জাতিসংঘে গঠনমূলক ও ভারসাম্যপূর্ণ ভূমিকার জন্য বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছে রাশিয়া।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী বাংলাদেশকে অব্যাহত সহযোগিতা বিশেষ করে তাদের সহযোগিতায় দেশে প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য রাশিয়া সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

ভিসামুক্ত ভ্রমণের চুক্তি বাস্তবায়ন হলে বন্ধু প্রতীম দুই দেশের জনগণের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার এবং সহজতর হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

জলি আত্মহত্যা : স্বাবেক স্বামীকে অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম থেকে প্রত্যাহার

ru_teacherরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক স্বামী তানভীর আহমেদকে বিভাগের সকল অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম থেকে সাময়িক প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিভাগ।

পাশপাশি বিষয়টি তদন্তের জন্য বিভাগের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করা হয়েছে। তাছাড়া ‘আত্মহত্যা প্ররোচণা’ মামলা তদারকির জন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে।
বিভাগের অ্যাকাডেমিক কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে একাধিক শিক্ষক নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়। তানভীর আহমেদ একই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এবং সাবেক সভাপতি।

তবে বিভাগের সভাপতি ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে, সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমেদ সার্বিক দিক বিবেচনা করে নিজ থেকে বিভাগের অ্যাকাডেমিক কর্মকাণ্ড থেকে নিজেকে প্রত্যাহারের প্রস্তাব দেন। আর তা সভায় উপস্থিত শিক্ষকদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে অনুমোদন হয়।

ড. প্রদীপ কুমার পাণ্ডে যুগান্তরকে বলেন, সভার একপর্যায়ে তানভীর আহমেদ নিজেই অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম থেকে নিজেকে প্রত্যাহার রাখার প্রস্তাব দেন। পরে সেটা সর্বসম্মতিক্রমে গ্রহণ করা হয়।
এ ব্যাপারে তানভীর আহমদের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

সভার শুরুতে আকতার জাহান জলির মৃত্যুতে শোকপ্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। হাতে নেয়া হয় আরও বেশ কিছু কর্মসূচি।

এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় বিভাগের সামনে থেকে শোকর‌্যালি, বেলা ১২টায় শোকসভা এবং ২৩ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিন দিন কালো ব্যাজ ধারণ।
সভায় আকতার জাহানের নামে বিভাগের সেমিনার লাইব্রেরির নামকরণ, বিভাগের সামনে ‘আকতার জাহান কর্ণার’ স্থাপন ও শোকবই খোলার সিদ্ধান্ত হয়।

মামলার তদারকি কমিটিতে বিভাগের সভাপতিকে আহ্বায়ক করা হয়েছে। এ কমিটির সদস্য হলেন- সহকারী অধ্যাপক শাতিল সিরাজ, কাজী মামুন হায়দার রানা ও আব্দুল্লাহীল বাকী।

উল্লেখ্য, গত ৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় জুবেরী ভবনের নিজ কক্ষ থেকে শিক্ষিকা আকতার জাহান জলির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

পরদিন বিকালে তার ছোট ভাই কামরুল হাসান আত্মহত্যায় প্ররোচনা অভিযোগে রাজশাহী নগরীর মতিহার থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্ত চলছে।

প্রাইভেট না পড়ায় ছাত্র পেটানোর অভিযোগ

মাদারীপুর প্রতিনিধি :
মাদারীপুরে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্র প্রাইভেট পড়তে অস্বীকৃতি জানালে তাকে পেটানোর অভিযোগ উঠে সুকুমার হালদার নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।
বুধবার ছাত্র পেটানোর এই ঘটনা ঘটে। আহত ছাত্রের নাম ফাহিম। এই ঘটনায় ফাহিমের বাবা বৃহস্পতিবার স্কুল কর্তৃপক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

ফাহিমের বাবা উপ-প্রকৌশলী আ স ম হাসান কবির বলেন, আমি ঈদের ছুটিতে পরিবারসহ গ্রামের বাড়ি বেড়াতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে মাদারীপুর আসতে একদিন দেরি হয়। এরপর আমার ছেলে গতকাল স্কুলে গেলে স্কুলের শিক্ষক সুকুমার হালদার আমার ছেলের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেন এবং বকাঝকা করেন। এতে আমার ছেলে তার কাছে প্রাইভেট পড়তে অনীহা প্রকাশ করলে আমার ছেলেকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন তিনি।

অভিযুক্ত শিক্ষক সুকুমার হালদার এ বিষয় বলেন, প্রাইভেট তো দেশব্যাপী সবাই পড়ায়। আমি তো একা পড়াই না।
ছাত্রকে নির্যাতনের বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বেত দিয়ে সামান্য একটি বাড়ি দিয়েছি।

ইউনাইটেড ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিক সব ধরনের নির্যাতনই বেআইনি। নির্যাতনের শিকার ছাত্র ফাহিমের বাবা বৃহস্পতিবার একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে আটক ১

বাগেরহাট প্রতিনিধি :
বাগেরহাটের ফকিরহাটে স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে পুলিশ এক যুবককে আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা ধনপোতা মাদ্রাসা এলাকা থেকে মইনুল মোড়ল (৩২) নামে ওই যুবককে আটক করা হয়।

ফকিরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)বজলুর রহমান বলেন, ফকিরহাট উপজেলার ধনপোতা গ্রামের ইনামুল শেখের শিশু কন্যা (১১) আজ সকালে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছিল। ধনপোতা মাদ্রাসার কাছে পৌঁছলে একই এলাকার তালেব মোড়লের ছেলে মইনুল তাকে ঝাপটে ধরে যৌন হয়রানির চেষ্টা করে। এ সময় শিশুটির ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে মইনুল পালিয়ে যায়।

এই ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে ফকিরহাট মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মইনুলকে আটক করে।

শিক্ষক নিয়োগে অনিশ্চয়তা: গ্যাঁড়াকলে নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ

বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় এন্ট্রি লেভেলে শিক্ষক নিয়োগ গত বছরের ২২ অক্টোবর থেকে বন্ধ রয়েছে। নতুন বিধিমালা অনুসারে ম্যানেজিং কমিটি বা গভর্নিং বডির বদলে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) শিক্ষক নিয়োগের জন্য প্রার্থী বাছাইয়ের পরীক্ষা নেয়া ও নিয়োগের সুপারিশ করার ক্ষমতা পেয়েছে। কিন্তু পুরনো নিবন্ধনধারীদের নিয়োগ ও ১৩তমদের পরীক্ষা ও ফলাফল প্রকাশ নিয়ে গ্যাঁড়াকলে পড়েছে তারা। নিয়োগ দিতে না পারায় ব্যাহত হচ্ছে পড়াশোনা।

এরই মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ২১ অক্টোবরের আগে প্রক্রিয়া শুরু করা এন্ট্রি লেভেলে নিয়োগ দিতে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বাড়িয়ে দেয়ায় ধোয়াশা বেড়েছে বলে মনে করছেন প্রার্থীরা।

নিবন্ধন কর্তৃপক্ষ আইনের সংশোধিত বিধিমালা অনুযায়ী নিয়োগের ক্ষেত্রে বেশ কিছু জটিলতা দেখা দিয়েছে। বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকের চাহিদার তথ্য চেয়েছে এনটিআরসিএ। যেসব স্কুল এমপিওভুক্ত নয়, তারাও চাহিদা জানিয়েছে। আবার প্রার্থীরা না বুঝে এমপিওভুক্ত নয় এমন অনেক স্কুলের জন্য আবেদন করেছেন। এখন পর্যন্ত দ্বাদশ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা শেষ হয়েছে। উত্তীর্ণ প্রার্থী প্রায় সাড়ে চার লাখ। তাঁদের তিন লাখেরও বেশি জনের এখনো চাকরি হয়নি। দশম নিবন্ধন পর্যন্ত সনদের মেয়াদ ছিল আজীবন। ফলে একজন প্রার্থীর ৫৯ বছর পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত চাকরি পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু একাদশ নিবন্ধন থেকে মেয়াদ মাত্র তিন বছরের। ত্রয়োদশ নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এবার থেকে যতগুলো পদ শূন্য থাকবে ততজনকে উত্তীর্ণ করা হবে। তাহলে দ্বাদশ নিবন্ধন পরীক্ষা পর্যন্ত উত্তীর্ণরা কি আর চাকরির সুযোগ পাবেন না? এ ধরনের নানা জটিল হিসাব-নিকাশের গ্যাড়াঁকলে পড়েছে এনটিআরসিএ।

আবেদনকারীরাও উত্কণ্ঠায় রয়েছেন। জান্নাতুল ফেরদৌস নামের এক প্রার্থী বলেন, ‘নিয়োগ প্রক্রিয়ায় জটিলতা রয়েছে। ফল প্রকাশের নির্দিষ্ট দিনক্ষণ নেই। আমরা কত দিন অপেক্ষা করব?’ তিনি বলেন, ‘যদি উপজেলা কোটায় নেওয়া হয়, তাহলে আগেই কেন উপজেলা মেধাতালিকা প্রকাশ করা হলো না? আমি ১০টি আবেদন করেছি। প্রতিটিতে ১৮০ টাকা খরচ হয়েছে। উপজেলা মেধাতালিকা জানা থাকলে এত টাকা খরচ হতো না।’

জানা যায়, ১৫ হাজার পদের জন্য গত জুলাই মাসে ১৩ লাখ আবেদনপত্র জমা পড়ে। কিন্তু নিয়োগপ্রক্রিয়া শেষ করতে পারছে না এনটিআরসিএ। এক বছর ধরে নিয়োগ বন্ধ থাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক সংকট চরমে পৌঁছেছে। ব্যাহত হচ্ছে লেখাপড়া। আগে শিক্ষক নিয়োগ দিত স্কুল ম্যানেজিং কমিটি বা গভর্নিং বডি। তাদের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে অদক্ষ শিক্ষকদের নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ দীর্ঘদিনের। এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের জন্য একেকজনকে দিতে হতো সাত থেকে ১০ লাখ টাকা। এ জন্যই বিধিমালা সংশোধন করে এনটিআরসিএর কাছে নিয়োগের ক্ষমতা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সবাই এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানায়। কিন্তু বিপুলসংখ্যক আবেদনপত্র নিয়ে গ্যাড়াঁকলে পড়েছে এনটিআরসিএ।

এনটিআরসিএর চেয়ারম্যান এ এম এম আজহার বলেন, ‘১৩ লাখ আবেদনপত্রের ডাটা প্রসেসিংয়ে সময়ের দরকার। দিনক্ষণ ঠিক করে বলতে পারব না কবে নিয়োগপ্রক্রিয়া শেষ হবে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের একাধিক সূত্র জানায়, গত জুনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে শিক্ষকের চাহিদার তথ্য নেয় এনটিআরসিএ। জুলাইয়ে অনলাইনে আবেদনপত্র চাওয়া হয়। ১৫ হাজার পদের জন্য ১৩ লাখ আবেদনপত্র জমা পড়ে। আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই নিয়েই হ-য-ব-র-ল অবস্থা। তারা বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদনপত্র যাচাই-বাছাইয়ে যে সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয়, শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রেও একই রকম সফটওয়্যার ব্যবহৃত হওয়ার কথা। ওই সফটওয়্যার সাত-আট দিনের মধ্যে ৩০ লাখের বেশি আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই করে ফল দিতে পারে। অথচ এখানে আবেদনপত্র জমা পড়েছে মাত্র ১৩ লাখ। এর পরও দেড় মাস ধরে তাদের যাচাই-বাছাই চলছে।

অপর এক সূত্র জানায়, নিবন্ধন অফিসের কর্মকর্তাদের অদক্ষতার কারণে প্রক্রিয়া শেষ হতে এত সময় লাগছে। প্রথমবারের মতো তারা এত বড় পরীক্ষা ও নিয়োগ প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট হয়েছেন। এর চেয়ারম্যান ও কর্মকর্তাদের কেউ আগে এ ধরনের প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। চেয়ারম্যান একজন বি সি এস প্রশাসন ক্যাডার অফিসার। তিনি এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চাকুরি করেছেন।

বাংলাদেশ অধ্যক্ষ পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মাজহারুল হান্নান জানান, ১৪ লাখ শিক্ষার্থীকে অনলাইনে কলেজে ভর্তিপ্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে বুয়েটের সহায়তা নেওয়া হয়। এ নিয়োগের কাজে আইটি বিশেষজ্ঞদের সহায়তা নেওয়া উচিত ছিল। তাহলে দ্রুত কাজ শেষ করা সম্ভব হতো।

এনটিআরসিএর পরিচালক মো. তৌহিদুর রহমান বলেন, ‘আমরা দ্রুততার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করছি। ১৩ লাখ আবেদনকারীর তথ্য যাচাই-বাছাই করতে হচ্ছে। ভুল হলে বড় সমস্যা তৈরি হবে। চেষ্টা করছি চলতি মাসেই যাচাইয়ের কাজ শেষ করতে।’

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও রাজধানীর মিরপুরের সিদ্ধান্ত হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. নজরুল ইসলাম রনি দৈনিকশিক্ষাকে বলেন, অনেক স্কুলে গণিত ও ইংরেজির শিক্ষকের পদ আট-দশ মাস ধরে শূন্য রয়েছে। সাধারণ বিষয়গুলো অন্য শিক্ষকরা পড়াতে পারলেও গণিত বা ইংরেজি সব শিক্ষক পড়াতে পারেন না। কোথাও খণ্ডকালীন শিক্ষক দিয়ে কোনোমতে কাজ চলছে। পড়ালেখা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গা ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রকে হত্যার প্রতিবাদে ঘাতকের ফাঁসীর দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ সমাবেশ

mail.google.comচুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা ভিজে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র মাহফুজের হত্যার প্রতিবাদে ঘাতকের গ্রেফতার ও ফাঁসীর দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ছাত্র সংসদের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ থেকে ৮ম শ্রেনীর ছাত্র মাহফুজ আলম সজীবের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসীর দাবি জানানো হয়। সমাবেশে সজীবের আতœার রুহের মাগফিরাত কামনায় নিরবতা পালন করা হয়। বক্তব্য দেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিমোহন বিশ্বাসসহ অন্যরা।

প্রসংগত ২৯ জুলাই জেলার দামুড়হুদা উপজেলা চত্বরে বৃক্ষ মেলা দেখতে এসে অপহৃত হন মাহফুজ আলম সজীব। তার মুক্তিপণ বাবদ মোবাইল ফোনে ২০ লাখ টাকা দাবি করা হয়। তার পর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। পরে ৩১ আগষ্ট বুধবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-পুলিশ সদস্যরা চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সিএন্ডবি পাড়ার কোরবান আলির বাড়ির পায়খানার সেপটিক ট্যাংক থেকে সজীবের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় নিহতের মামা চুয়াডাঙ্গা আলোকদিয়া ইউপির ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রকিব উদ্দিনসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছেন । পুলিশ বাড়ি মালিক কোরবান আলীসহ ৩ জনকে আটক করেছে।

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter