Home » নিউজ (page 38)

নিউজ

সুশান্ত পালের শাস্তির দাবিতে ঢাবিতে মানববন্ধন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়: কাস্টমস কর্মকর্তা সুশান্ত পাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দেওয়ায় তার শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

রোববার (২৩ অক্টোবর) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ঘণ্টাব্যাপী এই মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার’ ব্যানারে এই মানববন্ধন আয়োজন করা হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালেয়ের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

মানববন্ধনে সুশান্ত পালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ এর সার্টিফিকেট বাতিলের দাবি জানানো হয়। পাশাপাশি আইসিটি আইনে মামলা করার ঘোষণা দেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মুতাকাব্বির খান প্রবাস বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস হচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাস। স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে দেশের প্রতিটি আন্দোলনে রয়েছে অনন্য ভূমিকা। এই বিশ্ববিদ্যলয় নিয়ে মিথ্যা, অশ্লীল স্ট্যাটাস দেওয়ায় তার সার্টিফিকেট বাতিলের পাশাপাশি চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার দাবি জানান।

এ সময় তিনি সুশান্ত পালকে ঢাবি ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রী খাদিজাতুল কুবরা বলেন, আমার ভাইয়েরা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে থেকেছেন। এই ধরনের নোংরা অভিযোগ কোনদিন পাইনি।

মানবন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা র‌্যালিসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক এ এম আমজাদের কাছে একটি স্মরকলিপি জমা দেন।

এ বিষয়ে অধ্যাপক এ এম আমজাদ  বলেন, শিক্ষার্থীরা সুশান্ত পালের সার্টিফিকেট বাতিল ও মামলা করার জন্য স্মারকলিপি দিয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

গত ২০ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দেন সুশান্ত। এর পর থেকে শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ করে আসছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ঢামেকের সামনে অ্যাম্বুলেন্স চাপায় আহত আরেকজনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ফটকে সামনে অ্যাম্বুলেন্স চাপায় আহত আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম  রমজান আলী (৩০)। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এ নিয়ে ওই দুর্ঘটনায় মোট পাঁচজন নিহত হলেন।

গত ১৫ অক্টোবর সকাল সোয়া নয়টার দিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মূল ফটকের সামনে ‘মানব সেবা’ নামের একটি অ্যাম্বুলেন্সের চাপায় অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ চারজন নিহত হন।

ওই দুর্ঘটনায় আহত হন রমজান আলীসহ আরও তিনজন।

প্রক্সি পরীক্ষা দিতে গিয়ে দুই যুবক শ্রীঘরে

গাজীপুর: গাজীপুর জেলায় রাজস্ব প্রশাসনের জনবল নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি পরীক্ষা দিতে গিয়ে শুক্রবার দুই যুবক গ্রেফতার হয়েছেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের বিভিন্ন মেয়াদে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, শেরপুরের উত্তর শ্রীবরদী গ্রামের মো. আবুল হোসেনে ছেলে মো. নুরুন নবী আজাদ (২৪) ও গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কর্ণপুর গ্রামের আব্দুর রবের ছেলে তরিকুল ইসলাম (২৫)।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক গাজীপুরের এনডিসি মামুন শিবলী জানান, শুক্রবার সকালে গাজীপুর জেলায় রাজস্ব প্রশাসনের জনবল নিয়োগের জন্য পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষা চলাকালে শহরের রাণী বিলাসমনি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ক্রেডিট চেকিং কাম সায়ারার সহকারী পদে গাজীপুরের শ্রীপুর এলাকার মারতা এলাকার আব্দুল মোতালেবের ছেলে মো. তারেকের ( রোল নং ১২৪) প্রক্সি পরীক্ষা দেয়ার সময় নুরুন নবী আজাদকে আটক করা হয়।

একই অভিযোগে জয়দেবপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে মিউটেশন কাম সহকারী পদে শ্রীপুরে কর্ণপুর এলাকার আমিনুল ইসলামের (রোল নং ৫৫৭) প্রক্সি পরীক্ষা দেয়ার সময় তরিকুলকে আটক করা হয়।

পরে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে তরিকুলকে ৭ দিনের এবং নুরুন নবী আজাদকে ৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

রাবি ক্যাম্পাসে যুবকের লাশ

রাজশাহী : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) নবাব আব্দুল লতিফ হলের পাশের ড্রেন থেকে এক অজ্ঞাত পরিচয় যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে লাশটি পাওয়া যায় বলে জানা যায়।

তাৎক্ষণিকভাবে ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

চুয়াডাঙ্গায় ট্রাকচাপায় স্কুলছাত্র নিহত

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গায় ট্রাকচাপায় আসিফ খান (১৬) নামে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আসিফ খান ছয়ঘরিয়া গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাইসাইকেলে করে চুয়াডাঙ্গা থেকে ঝিনাইদহ যাচ্ছিল আসিফ। পথে সে সরোজগঞ্জ বাজারে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দেয়। এতে রাস্তায় ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোজাম্মেল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সম্পূর্ণ নিরপেক্ষতার সাথে এনটিআরসিএ’র শিক্ষক বাছাই করা হয়েছে’

ডেস্ক নিউজ: শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ কেন্দ্রীয়ভাবে ১২ হাজার ৬১৯ জন বেসরকারি শিক্ষক বাছাই সম্পূর্ণ নিরপেক্ষতার সাথে করা হয়েছে। 
আজ রোববার প্রথমবারের মতো কেন্দ্রীয়ভাবে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের ফলাফল প্রকাশ উপলক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা বলেন।
শিক্ষামন্ত্রী অনলাইনে ক্লিক করে এ ফলাফল প্রকাশ করেন।
প্রকাশিত ফলাফল অনুযায়ী, বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগের জন্যে এ প্রার্থী বাছাই করেছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ণ কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)।
বাছাইকৃত প্রার্থীগণ এসএমএস-এর মাধ্যমে ইতোমধ্যে তাদের ফলাফল জেনে গেছেন বলে জানিয়েছে অনলাইন নিয়োগ প্রক্রিয়া পরিচালনা প্রতিষ্ঠান টেলিটক। বাছাইকৃত এসব প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়োগপত্র প্রদান করবে।
এনটিআরসিএ-এর বিজ্ঞপ্তির প্রেক্ষিতে ৬ হাজার ৪৭০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাহিদাকৃত ১৪ হাজার ৬৬৯টি শূন্য পদের বিপরীতে ১৩টি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে ১৩ লাখ ৭৫ হাজার ১৮৭টি আবেদন পাওয়া যায়। এসব আবেদন যাচাই করে এ ১২ হাজার ৬১৯ জন শিক্ষক নিয়োগের জন্য বাছাই করা হয়। মামলা, পদের বিপরীতে কোন আবেদন না পাওয়াসহ অন্যান্য কারণে বেশকিছু শূন্য পদের বিপরীতে প্রার্থী বাছাই করা সম্ভব হয়নি।
এ উপলক্ষে বক্তৃতায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০-এ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের অনুরূপ নিয়োগ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের কথা বলা হয়েছে। সে অনুযায়ী শতভাগ স্বচ্ছ, বিড়ম্বনামুক্ত ও নিরপেক্ষতার সাথে এসব শিক্ষক বাছাই করা হয়েছে।
জনাব নাহিদ বলেন, একটি অত্যন্ত যোগ্য কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত এসব শিক্ষক নিজেদের সম্মানিত বোধ করবেন।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান এ এম এস আজহারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

মাধ্যমিক বিদ্যালয়কে প্রাথমিক শিক্ষার অধিভুক্ত করার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোকে প্রাথমিক শিক্ষার অধিভুক্ত করার দাবি জানিয়েছে নন-এমপিও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় শিক্ষক-কর্মচারী সমিতি। এই দাবিতে আগামী ২৩ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারক লিপি দেবেও বলে জানিয়েছে শিক্ষক-কর্মচারীদের এই সংগঠনটি।

রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানানো হয়।

এসময় বক্তারা বলেন, সরকার প্রাথমিক শিক্ষাকে ৫ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণিতে উন্নীতকরণের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এই প্রক্রিয়ায় নন-এমপিও নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলো প্রাথমিক শিক্ষার অধিভুক্ত করা হোক।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক শরীফুজ্জামান আগা খান। এসময় আরোও উপস্থিত ছিলেন আয়োজক সংগঠনের মহা সচিব মনসুর আলী, যুগ্ম আহ্বায়ক মো. শফিকুল ইসলাম, সদস্য শাহীনুর রহমান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মে মাসে প্রাথমিক শিক্ষা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই স্তরের শিক্ষার কার্যক্রম দেখভালের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে।

পূজার ছুটি থেকে বঞ্চিত মনিপুর স্কুলের শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক: দুর্গা পূজা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার থেকে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু রাজধানীর মিরপুরের মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীদেরকে ছুটি দেওয়া হয়নি। হিন্দু ধর্মাবলম্বী শিক্ষার্থীদেরকে ধর্মীয় এ অনুষ্ঠান পালনে বঞ্চিত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

স্কুলটির কয়েকজন অভিভাবক  কাছে অভিযোগ করে বলেন,পূজা উপলক্ষে সারা দেশের স্কুল-কলেজ বন্ধ। অথচ মনিপুর স্কুলের কর্তৃপক্ষ জোর করে স্কুল খোলা রেখেছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোর ছুটির তালিকা থেকে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) থেকে আগামী ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত দেশের সব স্কুল-কলেজ পূজা উপলক্ষে ছুটি দেওয়া হয়েছে।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে হিন্দু ধর্মাবলম্বী এক ছাত্রীর অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, দুর্গা পূজা আমাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান। সরকার পূজা উপলক্ষে আগে থেকেই ৯দিনের ছুটির তালিকা দিয়ে রেখেছে। কিন্তু এই স্কুল কর্তৃপক্ষ সেই ছুটি না দিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাসে আটকে রেখেছে। ক্লাস করতে বাধ্য করছে। এতে আমাদের সন্তানরা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে ।

তিনি আরও বলেন, সবাই যখন মণ্ডপে পূজা দিতে যাচ্ছেন, আমাদের সন্তানরা তখন ক্লাসে যাচ্ছে। স্কুল থেকে বলা হয়েছে, কেবল দশমীর দিন ছুটি দেওয়া হবে। স্কুল কর্তৃপক্ষ রীতিমত এটা শিক্ষার্থীদের ওপর জুলুম করছে।

আরেক অভিভাবক বলেন, স্কুলটিতে প্রতিনিয়ত অনিয়ম করে যাচ্ছেন শিক্ষকরা। আমরা অনেক কিছুই জানি, কিন্তু সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে কিছু বলতেও পারিনা।

তিনি বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ এখন শিক্ষার্থীদের প্রাপ্য ছুটি দিচ্ছে না। অথচ যেদিন বন্ধ থাকার কথা নয়, সেদিনও স্কুল বন্ধ থাকে এবং ক্লাস হয় না।

এতথ্য জানিয়ে তিনি বলেন, এর আগে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে গত ২৮ সেপ্টেম্বর স্কুলের প্রধান ক্যাম্পাসে একটি অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল। সে অনুযায়ী স্কুলের প্রিন্সিপাল একটি নোটিশও করেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের। তাতে বলা হয়,সেখানে সবাই আমন্ত্রিত। যেহেতু প্রধানমন্ত্রী  তার জন্মদিন উপলক্ষে সব অনুষ্ঠান নিজেই বাতিল করেছিলেন, তাই স্কুল কর্তৃপক্ষও ওই অনুষ্ঠানটি বাতিল করে। কিন্তু ওইদিন স্কুলটি বন্ধ ছিল, কোনও ক্লাস হয়নি।

এই অভিভাবক বলেন, পরের দিন ২৯ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ফলে ওইদিনও স্কুলে কোনও ক্লাস হয়নি।

পূজার ছুটি কেন দেওয়া হয়নি জানতে মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় অ্যাণ্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেইনকে ফোন করা হলে, সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তিনি বলেন, ‘যা যানতে চান আমাকে মেইল করেন। আমি পরে উত্তর দেবো।’ এই বলে ফোন রেখে দেন। এরপর তার মোবাইলে এসএমএস করে প্রশ্ন  পাঠালেও তিনি তার উত্তর দেননি।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘এটা তো শিক্ষার্থীদের প্রাপ্য ছুটি। এটা কেন দেবে না। ছুটি যদি না দিয়ে থাকে, তাহলে স্কুল কর্তৃপক্ষ নিয়ম লঙ্ঘন করেছে।’

তিনি আরও বলেন,‘এই স্কুলের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আমাদের কাছে আরও অভিযোগ আছে। এরা কোনও নিয়মই মানে না।’

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক  শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক এস এম ওহিদুজ্জামান  বলেন, ‘নিয়ম অনুযায়ী পূজা উপলক্ষে ছুটি রয়েছে। তারা কেন ছুটি দেয়নি, তা জানতে চাওয়া হবে। তারা কি উত্তর দেয়, সেটা আমি দেখবো। ছুটি না দেওয়ার পেছনে গ্রহণযোগ্য কোনও যুক্তি আছে কিনা সেটা যাচাই করবো।’

নিয়োগ পরীক্ষায় আটক ১৭ জন

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ‘উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা’ নিয়োগ পরীক্ষায় ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার ও প্রক্সি দেয়ার অপরাধে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৫ জন ভুয়া পরীক্ষার্থীকে সাজা প্রদান করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আর পরীক্ষায় ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহারের অপরাধে ১২ জনকে গ্রেফতার করে র্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় ‘উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা’ নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা প্রশাসন ইন্সটিটিউটের (আইবিএ) অধীনে ১৩টি কেন্দ্রে এ নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

নিয়োগ পরীক্ষায় ৫ জন পরীক্ষার্থী অপকৌশলের মাধ্যমে মূল পরীক্ষার্থীর পরিবর্তে প্রক্সি হিসেবে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। এ ভুয়া ৫ পরীক্ষার্থীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

এছাড়াও ১১ জন পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহারের কারণে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে আটক করা হয়। ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহারে সহযোগিতার অপরাধে আরও ১ জনকে উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের বাহির থেকে আটক করা হয়। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ‘উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা’ নিয়োগ পরীক্ষায় ২৫ হাজার ২৪৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০ হাজার ৯৩৫ জন অংশগ্রহণ করেন। যথাযথ নিরাপত্তার মাধ্যমে পরীক্ষা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

গাইড-কোচিং বন্ধে নতুন আইন: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য আর ব্যবসায়ীদের গাইড ব্যবসার কারণে শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। ফলে শিক্ষার মান যেমন কাঙ্খিত হারে বাড়ছে না, তেমনি অনেক শিক্ষার্থী বিপথগামী হচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে নতুন আইন করা হবে।
---

আজ বৃহস্পতিবার যশোর শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল এন্ড কলেজে খুলনা বিভাগের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যারা গাইড-নোট বইয়ের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকবে তাদের ঠিকানা হবে জেলখানা। কোচিং বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত শিক্ষকদের বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থার বিধান রেখে এই আইন করা হবে। আগামী সপ্তাহে আইনটি সংসদে উঠবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন বর্তমানে আমাদের সামনে প্রধান সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে জঙ্গিবাদ। এই জঙ্গিবাদকে রুখতে দেশের শিক্ষক সমাজকে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখতে হবে। কারণ যারা জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে তারা বেশিরভাগ ছাত্র। কোন কোন শিক্ষকও এই ভয়ঙ্কর পথে যোগ দিয়েছে। এখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে সচেতনতা বাড়াতে হবে। শিক্ষার্থীদের ভাল পথের দিকনির্দেশনা দিতে হবে।

নুরুল ইসলাম নাহিদ আরো বলেন, আমাদের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের খেলাধুলায় অংশ নেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষার্থীরা সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। বিএনসিসি, গার্লসগাইড, স্কাউট এর সদস্য হতে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

আমাদের মনে রাখতে হবে যে শিক্ষার্থীরা বিএনসিসির সদস্য হয়ে কাজ করে তারা কখনো ক্রাইমে জড়িয়ে পড়ে না। আমাদের শুধু শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফল করালে হবে না। ভাল মানুষ হওয়ার শিক্ষা দিতে হবে।

যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব কেএস মাহমুদ, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুস সামাদ, যশোরের জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর প্রমুখ।

জুন পর্যন্ত টাইম স্কেল বিবেচনার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি চাকরিজীবীদের গত ৩০ জুন পর্যন্ত টাইম স্কেল সুবিধা বিবেচনার নির্দেশ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। মন্ত্রণালয়ে এ সংক্রান্ত বেশ কিছু আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি এ নির্দেশ দিয়েছেন। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, বঞ্চিত কয়েকজন চাকরিজীবীরা অর্থমন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদন করেছেন। এছাড়া মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেও অনেকে তাদের বঞ্চনার কথা জানিয়েছেন। পরে মন্ত্রী এ বিষয়ে বিবেচনার নির্দেশ দেন। এ সংক্রান্ত এক নোটে অর্থমন্ত্রী লিখেছেন, ‘বিষয়টি জরুরি ভিত্তিতে মীমাংসা করুন।’

এর আগে অষ্টম জাতীয় বেতন স্কেলের আওতায় চাকরিজীবীদের গত ১৪ ডিসেম্বরের পর টাইম স্কেল সুবিধা বাতিল করা হয়। এতে অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী বঞ্চিত হয়েছেন।

অর্থমন্ত্রীর কাছে আবেদনপত্রে এক কর্মচারী লিখেছেন, ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বরে জাতীয় বেতন স্কেলের গ্যাজেট প্রকাশ করা হয়। এর আগের দিন পর্যন্ত টাইম স্কেল ও ইনক্রিমেন্ট সুবিধা দেয়া হয়। আর পরের দিন থেকে পাওনা থাকলেও অনেক কর্মকর্তা ও কর্মচারী বঞ্চিত হয়েছেন। ২০১৫ সালের ১ জুন থেকে ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত কোনো ধরনের গ্যাজেট ছাড়াই ইনক্রিমেন্ট প্রদান করা হয়েছে। আবেদনে এ সময়কালে সবাইকে টাইম স্কেল প্রদান করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

জানা গেছে, জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ ঘোষণার সঙ্গে বাতিল করা হয় টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড ও ইনক্রিমেন্ট (বেতন বর্ধিত) সুবিধা। তবে ২০১৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনটি সুবিধা বহাল রাখা হয়। কিন্তু বছরের মাঝামাঝি ১৫ ডিসেম্বর থেকে এ সুবিধা পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণার কারণে কাছাকাছি সময়ে এসে অনেকেই বঞ্চিত হয়েছেন। ফলে একই পদের একজন এ সুবিধা পেলেও পাশের টেবিলে আরেকজন বঞ্চিত হয়েছেন।

কল্যাণ ট্রাস্টের অর্থ যথাসময়ে চান শিক্ষকরা

trustনিজস্ব প্রতিবেদক: শিক্ষকদের জন্য গঠিত কল্যাণ ট্রাস্টের টাকা যথাসময়ে পরিশোধের দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিক)। একই সঙ্গে কলেজ শিক্ষকদের অধ্যাপক পদমর্যাদায় পদোন্নতি দেওয়ারও দাবি জানান তারা।

বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে ‘বিশ্ব শিক্ষক দিবস’ উপলক্ষে ‘শিক্ষক মূল্যায়ন ও মর্যাদার উন্নয়ন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব দাবি জানান।

আলোচনায় সভায় সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি অধ্যক্ষ মো. আবদুল রশীদের সভাপতিত্বে আরোও বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল হক আলো, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. আবুল বাশার হাওলাদার, বাংলাদেশ শিক্ষক সসিতির জুলফিকার আলম চৌধুরী, বাকবিশিসের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর শামসুল আরেফিন চৌধুরীসহ বিভিন্ন শিক্ষক সমিতির নেতারা।

এ সময় বক্তারা বলেন, চাকরিকালীন শিক্ষকদের কল্যাণ ট্রাস্টের আর্থিক সুবিধা দিতে মূল বেতনের ২ শতাংশ টাকা কেটে রাখা হয়। কিন্তু এ অর্থ শিক্ষকদের সময়মত দেওয়া হচ্ছে না। কল্যাণ তহবিলের টাকা পেতে বছরের পর বছর ঘুরছেন শিক্ষকরা। অনেকে পৃথিবী ছেড়ে চলেও যাচ্ছেন। কিন্তু তারপরও পাচ্ছেন না কল্যাণ ট্রাস্টের অর্থ। তাই জাতি গঠনের এই কারিগরদের নির্ধারিত সময়ে কল্যাণ তহবিলের টাকা পরিশোধের দাবি জানান তারা।

বক্তারা আরো বলেন, বর্তমানে কলেজগুলোতে শিক্ষকদের সর্বোচ্চ সহকারী অধ্যাপক পদপর্যাদা দেওয়া হয়। এতে যোগ্যতা থাকা সত্তেও অধ্যাপক মর্যাদা পাচ্ছেন না তারা। বিষয়টি নিয়ে এর আগে কয়েক দফা উদ্যোগ নিলেও কোনো সূরাহা করেনি সরকার। যত শিগগিরই সম্ভব বিষয়টি সমাধান করে শিক্ষকদের প্রাপ্য মর্যাদা দেওয়ার দাবি জানান তারা।

উল্লেখ, আজ ৫ অক্টোবর ‘বিশ্ব শিক্ষক দিবস’। এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে, ‘শিক্ষকের মূল্যায়ন, মর্যাদার উন্নয়’। শিক্ষকরা যাতে ভবিষ্যত প্রজন্মের চাহিদা পূরণ করতে পারে তা নিশ্চিত করতেই দিবসটি পালন করা হয়। শিক্ষকদের অবদানকে স্মরণ করার জন্য জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কোর সদস্যভুক্ত প্রতিটি দেশে ১৯৯৫ সাল থেকে প্রতি বছর এ দিনে দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে।

দিবসটি পালনের উদ্দেশ্য- জাতীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ে শিক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের শিক্ষকদের মর্যাদা ও মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়নে শিক্ষকের গুরুত্ব সম্পর্কে অবহিত করা, মানসসম্মত শিক্ষা তথা সকল শিশুর জন্য প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে শিক্ষকদের দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে আলোকপাত করা এবং প্রবীণ শিক্ষকদের অভিজ্ঞতাকে জানা ও কাজে লাগানো।

সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে কুপিয়ে আহত

সিলেট: সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে কোপানোর আগে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে একটি স্ট্যাটাস দেয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম।

syl_std-550x307
সোমবার বেলা ৩ টা ২১ মিনিটে ওই স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, ‘নিষ্ঠুর পৃথিবীর মানুষগুলোর কাছে আমি সবিনয়ে ক্ষমা প্রার্থী।’
এই স্ট্যাটাস দেওয়ার ঘণ্টা দেড়েক পরই এমসি কলেজ ক্যাম্পাসের পুকুর পাড়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে খাদিজা আক্তার নার্গিসকে। ওই সময়ে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা দিয়ে বের হয় খাদিজা। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মঙ্গলবার ভোরে তাকে ঢাকায় এনে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এরআগে সোমবার রাত সাড়ে ১২টা দিকে অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে নিয়ে ঢাকায় রওয়ানা হন পরিবারের সদস্যরা।
আহত খাদিজা আক্তার নার্গিসের ভাই নুর আহমদ জানান, তার বোন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। সোমবার দুপুরে পরীক্ষা দিতে সে এমসি কলেজে যায়। পরীক্ষা শেষে বের হলে বিকেলে সন্ত্রাসী বদরুল তার বোনকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় আঘাত করার কারণে তার মগজ বের হয়ে গেছে। এছাড়া হাতে কোপানোর কারণে রগও কেটে গেছে বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন। ডাক্তারদের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে।
এদিকে হামলা করে পালিয়ে যাওয়ার সময় বদরুল আলমকে আটক করে গণধোলাই দেয় শিক্ষার্থীরা।
হামলাকারী বদরুল ইসলাম সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার চেচানবাজারের সোনাইগাতি গ্রামের সাইদুর রহমানের ছেলে। ছাতকের নূতন বাজার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ও গোবিন্দগঞ্জ আবদুল হক স্মৃতি ডিগ্রী কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে সে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিভাগে ভর্তি হয়। ২০০৮-২০০৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র হিসেবে অনার্স শেষ করে। সে শাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছে। পাশাপাশি আয়াজুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছে বলে জানা গেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শাবির এক ছাত্র জানান, বদরুল শাবিতে ভর্তির পর সিলেট সদর উপজেলার মোগলগাঁও ইউনিয়নের হাউসা গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী মাসুক মিয়ার বাড়িতে লজিং মাস্টার হিসেবে উঠে। এর আগে কলেজে থাকাকালীন সময় থেকেই খাদিজা আক্তার নার্গিসের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।
দীর্ঘ ৬ বছর তারা প্রেম করে। সম্প্রতি তাদের সম্পর্কে ভাঙ্গন দেখা দেয়। খাদিজা আক্তার নার্গিস এড়িয়ে চলতে শুরু করে বদরুলকে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্যও ছিলো। গত ২৫ আগস্ট বদরুল আলম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেয়। এতে উল্লেখ করে, ‘হৃদয়ের পার্লামেন্টে আজ স্পিকার নেই। মনের জনসভায় নেই কোনো বক্তা। অন্তরে হরতাল ডেকেছে বিরোধীদল। ভালবাসার ভোটকেন্দ্রে একটিমাত্র ভোট পেয়েছিলাম; তাও আবার জাল। হায়রে কপাল।’ ৩১ আগস্ট আরেকটি স্ট্যাটাসে ‘দূরে সরে গেছ, তাতে কী/ দু’জনে এক আকাশের নিচেই তো আছি’ উল্লেখ করে সে।
এদিকে বদরুল আলম সম্পর্কে অনুসন্ধানে জানা গেছে, অনেকটা উগ্র মেজাজি ছিল সে। ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে, বেপরোয়াভাবে চলাফেরা করত। তার বিরুদ্ধাচরণ করলেই মারধোর করতো সে। বছর চারেক আগে শাবির হলে দলবল নিয়ে হামলা করে বদরুল। এ সময় সে কয়েকটি কক্ষে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এর জের ধরে ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি সদর উপজেলার জাঙ্গাইল এলাকায় তার উপর হামলা হয়। ওই সময় ছাত্রলীগ দাবি করেছিল, শিবির নেতাকর্মীরা বদরুলকে কুপিয়েছে।
সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান (রহ.) থানার ওসি শাহজালাল মুন্সি জানান, প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে বদরুল ও খাদিজার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি খাদিজা বদরুলকে এড়িয়ে চলতে শুরু করলে ৬ বছরের প্রেমে ভাঙ্গন দেখা দেয়। এ কারণে সে ক্ষিপ্ত হয়ে খাদিজাকে কোপায়।

এমপিওভুক্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ভ্যাট ও আয়কর দিতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: এখন থেকে এমপিওভুক্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে উৎসে মূসক ও আয়কর দিতেই হবে। এ ব্যাপারে নির্দেশনা (পরিপত্র) জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। মাউশির পরিচালক (ফাইন্যান্স অ্যান্ড প্রকিউরমেন্ট) প্রফেসর জুলফিকার রহমান গত ৪ সেপ্টেম্বর এ সংক্রান্ত নির্দেশনা পত্র জারি করে। এখন এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ অর্থাৎ সারাদেশের এমপিওভুক্ত স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা প্রধানকে অবহিত করবেন মাউশির কলেজ ও প্রশাসন পরিচালক এবং মাধ্যমিক শাখার পরিচালক।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী সংগ্রামী ঐক্য পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী নজরুল ইসলাম রনি সংবাদকে বলেন, ‘আমরা যেসব প্রতিষ্ঠান বা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কোন কেনাকাটা করি যেসব প্রতিষ্ঠানই ভ্যাট বা এ জাতীয় সরকারি প্রাপ্য কেটে রাখে। এখন নতুন করে আমাদের ওপর হয়রানিমূলক আর্থিক ব্যয় চাপিয়ে দেয়া ঠিক হবে না।’

শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দেয়া এনবিআরের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) নির্দেশনা অনুযায়ী উৎসে মূসক কর্তন ও আয়কর কর্তন হচ্ছে না। উৎসে মূসক কর্তন না করায় ২০১৩-১৪ আর্থিক সালে এমপিওভুক্ত স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় সরকারের ৪৪ লাখ ৮১ হাজার ৬০৭ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মুদ্রণ ও ডেকোরেট কাজ, আপ্যায়ন আসবাবপত্র তৈরি ও সরবরাহ, পূর্ত ব্যয়, সাধারণ সেবার ক্ষেত্রে ভ্যাট কর্তন না করায়ও সরকারের বিপুল অংকের টাকা ক্ষতি হয়েছে। ২০১৩-১৪ অর্থবছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের চট্টগ্রাম অঞ্চলের পাঁচটি জেলার শিক্ষা অফিসের ৯৫টি এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিরীক্ষাকালে রেকর্ডপত্র পর্যালোচনায় দেখা গেছে, এসব প্রতিষ্ঠানের (৯৫টি) বিভিন্ন খাতে ব্যয়িত টাকার ওপর উৎসে আয়কর কর্তন না করায় সরকারের নয় লাখ ৭১ হাজার ৩১২ টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে।

এনবিআরের ২০১৩ সালের ৬ জুন জারি করা এক সাধারণ আদেশে বলা হয়েছে, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মুদ্রণ ও ডেকোরেট কাজের ওপর ১৫ শতাংশ, আপ্যায়নের ওপর ৬ শতাংশ, আসবাবপত্র তৈরি ও সরবরাহের ক্ষেত্রে ৯ শতাংশ, পূর্ত/উন্নয়ন ব্যয়ের ক্ষেত্রে ৫.৫ শতাংশ, সাধারণ ক্রয়/যোগানদার সেবার ক্ষেত্রে ৪ শতাংশ হারে ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) কর্তনের বিধান থাকলেও আলোচ্য ক্ষেত্রে তা অনুসরণ করা হয়নি।

আয়কর অধ্যাদেশ-১৯৮৪ এর ৫২ এর মাধ্যমে ঠিকাদারী চুক্তির মাধ্যমে সরবরাহ গ্রহণ এবং বিধি ১৬ এর মোতাবেক নির্ধারিত হারে উৎসে আয়কর কর্তন ও সরকারি কোষাগারে জমাযোগ্য।

এ ব্যাপারে প্রফেসর জুলফিকার রহমানের পত্রে বলা হয়েছে, ‘স্থানীয় ও রাজস্ব অডিট অধিদফতর কর্তৃক ২০১৩-১৪ ও ২০১৪-১৫ অর্থবছরের নিরীক্ষা কার্য সম্পাদনপূর্বক বেসরকারি এমপিওভুক্ত স্কুল/মাদ্রাসা/কলেজসমূহের ভ্যাট বিভিন্ন ব্যয়ের ক্ষেত্রে ও উৎসে আয়কর কর্তন করা হয়নি মর্মে অডিট আপত্তি উত্থাপন করে। এই অডিট আপত্তির পরিপ্রেক্ষিতে মাউশি’র আওতাধীন এমপিওভুক্ত স্কুল/মাদ্রাসা/কলেজসমূহে অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য মূসক কর্তন ও বিভিন্ন খাতে ব্যয়িত টাকার ওপর উৎসে আয়কর এনবিআরের নির্দেশনা অনুযায়ী কর্তন করার নির্দেশনা প্রদান করে পত্র জারি করতে অনুরোধ করা হলো। মহাপরিচালকের অনুমোদনক্রমে এ পত্র জারি করা হলো।’

মাউশির অধীনে দেশে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে ২৮ হাজার ৩৮৩টি। এসব প্রতিষ্ঠানে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী আছেন প্রায় চার লাখ ৭০ হাজার। আর কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের অধীনে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে প্রায় দেড় হাজার। এছাড়াও মাউশি’র অধীনে সারাদেশে দেশে নন-এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠান রয়েছে প্রায় দশ হাজার। তবে সরকারি হাই স্কুল ও কলেজগুলো এনবিআরের নিয়মানুযায়ী উৎসে মূসক ও আয়কর কর্তন করছে।

জবির ‘সি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের বাণিজ্য অনুষদভুক্ত ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সি’ ইউনিটের ৫৬০টি আসনের (বাণিজ্য-৪৯০ ও অন্যান্য-৭০) বিপরীতে ৯৫০ জন (বাণিজ্য- ৭৯২ ও অন্যান্য ১৫৮ জন) পরীক্ষার্থী প্রাথমিকভাবে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা অর্জন করেছে।

উল্লেখ্য, ২৭ হাজার ৮২৫ জন পরীক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছিল। ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড এবং ওয়েবসাইট (www.jnu.ac.bd বা www.result.jnu.ac.bd ) এ পাওয়া যাচ্ছে।

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter