নিউজ

শিক্ষা কর্মকর্তার সামনেই শিক্ষককে পেটালেন স্কুল সভাপতি!

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনার বেড়া উপজেলার হাটুরিয়া-জগন্নাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ উঠেছে বিদ্যালয়টির সভাপতির বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকালে বেড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বিদ্যালয়টির সভাপতি হাজী নূর ইসলাম বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রধান শিক্ষক শামীম আকতারের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের দায়িত্বরত উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু সাঈদের কাছে অভিযোগ দেন। তিনি দুজনকে নিয়ে বসে বিষয়টি সমাধান করার সিদ্ধান্ত নেন। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ সকালে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে উপস্থিত হন। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক শামীম আকতার নিজের ব্যাখ্যা দেওয়ার একপর্যায়ে সভাপতি তার ওপর চড়াও হন। তিনি ওই প্রধান শিক্ষককে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন এবং আশেপাশের আসবাবপত্র দিয়েও আঘাত করেন। ঘটনার আকস্মিকতায় উপস্থিত সবাই হতভম্ব হয়ে যান।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী প্রধান শিক্ষক শামীম আকতার বলেন, ‘আমি আমার বক্তব্য তুলে ধরার সাথে সাথেই সভাপতি আমার ওপর আক্রমণ করেন এবং মারধর করেন।’

সভাপতি হাজী নূর ইসলাম বলেন, ‘তর্ক-বিতর্ক চলাকালীন সামান্য ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে।’

এ বিষয়ে বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের কপি বেড়া মডেল থানায় এবং উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। তদন্তে সত্যতা প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এমপিওর দাবিতে কাল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও

ডেস্ক,২৪ এপ্রিল : এমপিওভুক্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ঘোরাও করবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পরিচালিত বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স কোর্সেও নন-এমপিও শিক্ষকরা।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরামের আহ্বায়ক নেকবর হোসাইনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. মোহরাব আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিক্ষুব্ধ শিক্ষকরা বলেন, উচ্চ শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে ও গ্রামাঞ্চলে গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য সরকার ১৯৯৩ সালে বেসরকারি কলেজ সমূহে অনার্স-মাস্টার্স কোর্স চালু করা হয়। কিন্তু দীর্ঘ ২৭ বছরেও উচ্চ শিক্ষাদানে নিয়োজিত এই সকল শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করা হয়নি।

শিক্ষকরা বলেন, শুধুমাত্র নীতিমালার দোহাই দিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো কালক্ষেপন করছে। এতে ন্যায্য বেতন-ভাতা বঞ্চিত হয়ে শিক্ষকেরা মানবেতর জীবনযাপন করছে। এতে উচ্চ শিক্ষার মান উন্নয়ন মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এমপিওভুক্তির ঘোষণা দাবি করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

উল্লেখ্য, টানা দ্বিতীয় দিনের মত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশের পাশাপাশি সংশ্ল্ষ্টি দপ্তরগুলোতে দেনদরবার করছেন বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা। তারা দাবি আদায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা হতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘেরাও কর্মসূচি পালন করবে। আগামীতে অনশন কর্মসূচী পালনের পরিকল্পনা রয়েছে বলেও তারা জানান।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর প্রস্তাব সংসদে উঠছে কাল

ডেস্ক,২৩ এপ্রিল:   সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ এবং অবসরের বয়স ৬২ করার প্রস্তাব আগামীকাল একাদশ জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশনে উঠছে। বিকাল ৫ টায় অধিবেশন শুরু হবে।

গত ৩ এপ্রিল রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এ অধিবেশন আহ্বান করেন। সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ অধিবেশন আহ্বান করেন রাষ্ট্রপতি। তবে এই অধিবেশন কতদিন চলবে তা জানা যায়নি। অধিবেশন শুরুর এক ঘণ্টা আগে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে এ অধিবেশন পাঁচ কার্যদিবস চলতে পারে। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ায় অধ্যক্ষকে দায়িত্ব হস্তান্তরের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ এপ্রিল:

বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ার কারণে ঢাকা সেনানিবাসের বিএন কলেজের অধ্যক্ষ মো. মোসলেহ উদ্দিনকে দায়িত্ব হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। ১৮ এপ্রিল অধ্যক্ষকে অধিদপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

চিঠিতে মো. মোসলেহ উদ্দিনকে অধ্যক্ষ পদের দায়িত্ব উপাধ্যক্ষ বা জ্যেষ্ঠ শিক্ষককে হস্তান্তর করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, বয়স ৬০ বছর হলেও এখনও অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব পালন করছেন অধ্যক্ষ মো. মোসলেহ উদ্দিন। কিন্তু গেল ১২ জুন জারি করা এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো ২০১৮ এর ১১.৬ অনুচ্ছেদে বলা হয়, বয়স ৬০ পূর্ণ হলে কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রধান বা সহকারী প্রধান বা শিক্ষক-কর্মচারীকে কোনো অবস্থাতেই পুনঃনিয়োগ বা চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া যাবে না।

এছাড়া, ২০১৮ সালের ১ আগস্ট ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের জারি করা এক নির্দেশনায় বলা হয়, বয়স ৬০ বছর পূর্ণ হওয়ার পর অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ নেই। এর প্রেক্ষিতে মো. মোসলেহ উদ্দিনের অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব পালন করার সুযোগ নেই।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

৫ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ এপ্রিল:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত হওয়া সরকারি সাত কলেজে সেশনজট নিরসন, ক্রটিপূণ্য ফল সংশোধন এবং ফল প্রকাশের দীর্ঘসূত্রিতা দূর করাসহ নানা সমস্যা সমাধানের দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

৫ দফা দাবিতে মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় ঢাকা কলেজের সামনে থেকে মানববন্ধন শুরু করে শিক্ষার্থীরা, যা নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাবের পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। এরপর সড়ক আটকিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে তারা।

এ সময় তারা সাত কলেজের নানা সমস্যা তুলে ধরে বিভিন্ন স্লোগান দেয়। ‘গণহারে আর ফেল নয়, যথাযথ রেজাল্ট চাই’, ‘শিক্ষা কোনো পণ্য নয়, শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা নয়’, ‘গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’, ‘বন্ধ করো অনাচার, সাত কলেজের আবদার’, ‘নিচ্ছো টাকা দিচ্ছ বাশ, সময় শেষে সর্বনাশ’-এসব স্লোগান দেয়া হয় বিক্ষোভে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ঢাবির অধিভুক্ত হ্ওয়ার পর দীর্ঘ ৯ মাস সাত কলেজের কার্যক্রম বন্ধ থাকে। তারপর মানববন্ধন, অনশন কর্মসূচি সর্বশেষ সিদ্দিকের (তিতুমির কলের শিক্ষার্থী) চোঁখের বিনিময়ে ঢাবি আমাদের কার্যক্রম ধীরগতিতে শুরু করে। প্রায় ২ বছর ২ মাস অতিবাহিত হলেও সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা কোনো সুফল ভোগ করতে পারছে না।

শিক্ষার্থীদের দাবি, পরীক্ষার খাতা মূল্যায়নে চরম বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তারা। সবশেষ পরীক্ষায় ঢাকা কলেজ বাংলা বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ২১৬ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সব বিষয়ে পাশ করেছেন মাত্র ৩ জন। ক্যামেস্টিতে ৪৮ জনের মধ্যে ৪০ জন অকৃতকার্য হয়েছেন।

তবিবুর নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ঢাবি আমাদের যে মান অনুযায়ী পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করে সেই মান অনুযায়ী ক্লাসে পড়ানো হয় না। এমনও বিষয় আছে পাঁচটির বেশি ক্লাস হয় না। নানা অজুহাতে ক্লাস বন্ধ থাকে।

শিক্ষার্থী আনোয়ার হোসেন বলেন, আমাদের সমস্যা গুলো নিয়ে কলেজের শিক্ষকদের কাছে গেলে উনারা বলেন, ঢাবি তোমাদের সব কার্যক্রম করছে, আর ঢাবির প্রশাসনিক ভবনে গেলে বলে সাত কলেজের শিক্ষকরা সভা করে সকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এভাবেই শিক্ষাথীরা দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয়।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

আবার প্রাথমিকে নিয়োগ হচ্ছে পুল শিক্ষক

অনলাইন ডেস্ক,২২ এপ্রিল:

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো শিক্ষক সংকটে ধুকছে। সারাদেশের প্রায় শতভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকের অভাব রয়েছে। নিয়মিত শিক্ষক সংকট ছাড়াও কর্মরত শিক্ষকরা নানা ছুটিতে থাকায় পাঠদান মারাত্মক বিঘ্নিত হচ্ছে। এ থেকে উত্তরণে বর্তমানে কর্মরত শিক্ষকদের ২০ শতাংশ তথা প্রায় ৭০ হাজার ‘পুল টিচার’ নিয়োগের পরিকল্পনা করছে সরকার।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে উন্নীত করার ঘোষণা দিয়েছেন। বর্তমানে যারা প্রাথমি স্তরের শিক্ষার্থী তাদেরকে গুনগত শিক্ষা দিতে ব্যর্থ হলে এটা অর্জন করা সম্ভব হবে না। প্রশিক্ষণ ছাড়াও শিক্ষকরা নানা ধরনের ছুটিতে থাকায় বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক সংকট থাকে। পাঠদান নিশ্চিত করতে আপদকালীন ২০ শতাংশ রিজার্ভ টিচার নিয়োগ দেওয়ার সিদ্বান্ত নিয়েছি।’

Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে সাময়িক বরখাস্ত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি,২২ এপ্রিল : মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. মাশহুদ করিমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। নানা অপকর্ম, অনৈতিক সম্পর্ক ও শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে তার স্ত্রী জেসমিন আক্তার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বরাবর অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে  তাকে বরখাস্ত করা হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে চলতি বছরের মার্চ মাসের ৩১ তারিখ রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো.আকরাম-আল-হোসেন স্বাক্ষরিত একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে মাশহুদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। জেসমিন আক্তার জানান, ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসের ২৩ তারিখ মানিকগঞ্জের  হরিরামপুর উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার মাশহুদ করিম এর সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তারা দু’জনই তালাকপ্রাপ্ত ছিল। বিয়ের কিছুদিন পর জানতে পারে তার একটি ছেলে আছে এবং পূর্বের স্ত্রীর সঙ্গে তার যোগাযোগ  আছে।

পরে তিনি আরও জানতে পারেন আগের চাকরিস্থলে বাড়িওয়ালার স্ত্রীর সঙ্গে  মাশহুদের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়েদের সঙ্গে তার পরকিয়া প্রেমে সম্পর্ক রয়েছে। এসব বিষয়ে বাঁধা দিলে সে তাকে ভিন্নভাবে শরীরিক নির্যাতন করতো। এছাড়াও তাকে ডিভোর্স দেওয়ার হুমকি দেয়। পরে গত ২০১৮ সালের আগস্ট মাসের ২৫ তারিখে তাকে ডিভোর্স দেয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) জোৎস্না খাতুন বলেন, ‘ওই উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। সাময়িক বরখাস্তকালীন সময় তিনি প্রচলিত বিধি মোতাবেক  খোরাকি ভাতা পাবেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

৩৬ হাজার নিয়োগ:জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ডেস্কঃ  শিগগিরই বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ৩৬ হাজার শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। বার্তা সংস্থা ইউএনবির সঙ্গে এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এ তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

অবিলম্বে খালি পদ পূরণের জন্য মন্ত্রণালয়ের আবেদনপত্র অনুমোদন করা হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, আশা করছি, আমরা খুব শিগগির খালি পদগুলো পূরণ করতে সক্ষম হব।

জনপ্রশাসনের গতিশীলতা ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ বলেন, আমরা নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশ গড়ার লক্ষ্যে প্রশাসনের গতিশীলতা আনতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।

জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রশাসনের দ্বারা মানুষ প্রায়ই হয়রানির শিকার হচ্ছে— এমন অভিযোগের ব্যাপারে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, জনসাধারণের প্রশাসন গঠনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। জনগণকে দ্রুত সেবা দেওয়ার লক্ষ্য পূরণের জন্য আমরা চেষ্টা করছি।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমি দেখেছি যে, সাধারণ মানুষ সরকারি অফিসে যেতে পারেন না। এমনকি তাঁরা সরকারি অফিসে গেলেও যথাযথ সম্মান পান না। এ পদ্ধতিতে বেশ কয়েকটি ত্রুটি রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা জনসাধারণের কল্যাণভিত্তিক প্রশাসন গড়ে তুলতে চাই।

এসব ব্যাপারে সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ। এ ছাড়া এ ব্যাপারে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে তৃণমূল কর্মকর্তাদের কাছে বার্তা পাঠানো হয়েছে বলেও জানান ফরহাদ।

তিনি বলেন, আমরা মনে করিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছি যে, জনগণ সব ক্ষমতার উৎস এবং প্রশাসনকে সেবা দেওয়ার জন্যই কাজ করতে হবে।

প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত করার জন্য গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১০ বছর ধরে মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের নির্দেশ দিয়েছেন। আমি সেই নীতিই অনুসরণ করছি।

বঙ্গবন্ধুর বক্তব্যকে স্মরণ করে ফরহাদ বলেন, যারা সেবা চান, তারা আমাদের ভাইবোনদের মতো, আমাদের আত্মীয়স্বজনদের মতো। তাদের প্রাপ্য সম্মান দিতে হবে। সরকার এই লক্ষ্য পূরণের জন্যই কাজ বলে জানান ফরহাদ। জনসাধারণের সেবা বাড়বে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা সমৃদ্ধ হতে চাই, পৃথকভাবে না বরং একসঙ্গে। আমরা জনপ্রশাসনকে জনগণের বন্ধুত্বপূর্ণ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। ভবিষ্যতে এটি আন্তর্জাতিক মানের হবে। আমরা যদি দক্ষতার সঙ্গে আমাদের কর্মকর্তাদেরকে গড়ে তুলতে পারি, তাহলে মানুষ তাঁদের সেবা থেকে বঞ্চিত হবে না।

আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে এই লক্ষ্য পূরণ হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। ফরহাদ হোসেন জানান, জনগণের দুর্ভোগ সম্পর্কে জানতে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের প্রশাসনকে সাপ্তাহিক শুনানি রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা মানুষের পছন্দমতো সেবা দেওয়ার চেষ্টা করছি।

ফরহাদ আরো বলেন, সরকার প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সুশাসন নিশ্চিত করতে চায়। সুশাসন মানে জনগণের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করা এবং জনসাধারণের কর্মচারী হিসেবে তাদের মতো করে সেবা দেওয়া।

প্রতিমন্ত্রি ফরহাদ বলেন, জনগণের সেবা করার জন্য আমি আমার যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

গাছে বাঁধা এক কিশোরীর ছবি,নজরে পড়ল নজরে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক,২০ এপ্রিল ২০১৯:

গাছে বাঁধা এক কিশোরীর ছবি ঘুরছে ফেসবুকে। বান্দরবানের লামা উপজেলায় গাছে বেঁধে নির্যাতন করার এই চিত্রটি দেখে নিন্দার ঝড় তুলছেন ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। বিষয়টি নজরে পড়ায় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানতে চেয়েছেন, কিশোরীর নির্যাতনকারীর পরিচয়।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাহেরা বেগম জলি নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারী ওই কিশোরীর ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেন। ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘হে সভ্যতা শিহরিত হও’।

তাহেরা বেগম জলি আরও লেখেন, ‘গত ১০০ দিনে আমাদের দেশে ৩৯৬ জন নারী শিশু হত্যা, ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এই খবরগুলো প্রকাশ্যে এসেছে। দুর্ঘটনার একটা বড় অংশ লোচক্ষুর আড়ালেই থেকে যায়। ইট-পাথরের কারাগারে তারপরও পরম সুখে আছি আমরা।’

এরপরই ছবিটি ভাইরাল হয় ফেসবুকে। একপর্যায়ে শেয়ার পোস্টটি চোখে পড়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের। তিনি নির্যাতকারীর পরিচয় জানতে চেয়ে তার ফেসবুকে লেখেন,  ‘কোনো সভ্য সমাজে কি এমনটি ঘটতে পারে? একটি কিশোরীকে এভাবে অত্যাচার করার জন্য বেঁধে রাখাটাই কি কোনো সভ্য মানুষ করতে পারে? অনুগ্রহ করে খুঁজে বের করুন—অপরাধী কে। লামায় কি কেউ নেই?’

ইমতিয়াজ কানন নামের এক ফেসবুক ব্যবহারকারীর ওয়াল থেকে ছবিটি শেয়ার করেন মন্ত্রী।

এ বিষয়ে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপ্পেলা রাজু নাহার দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে জানান, উপজেলার ফাইচং এলাকায় গত বছর একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার পর একটি দল অপর দলের লোকজনকে পুনরায় মারপিটের জন্য এসে ওই কিশোরীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে।

গতবছরের ছবি নতুন করে ভাইরাল হওয়া প্রসঙ্গে ওসি বলেন, ফেসবুকে কারও ওয়াল থেকে হয়তো মেমোরিতে আসে ছবিটি। পরে তিনি হয়তো আবার শেয়ার দেন। লামায় এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটলে দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে সমাধান করা হবে। অপরাধীরা ছাড় পাবেন না বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

দৈনিক শিক্ষাবার্তা পত্রিকায় সাংবাদিক নিয়োগ

শিক্ষকতার পাশাপাশি অবসর সময়ে গণমাধ্যমে কাজ করতে আগ্রহীরা আবেদন করুন।

শিক্ষা বিষয়ক দেশের একমাত্র অনলাইন জাতীয় পত্রিকা দৈনিকশিক্ষাবার্তা  http://shikkhabarta.com সাংবাদিকতায় আকর্ষণীয় ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিচ্ছে। যারা শুদ্ধভাবে বাংলা ও ইংরেজি লিখতে, বলতে ও পড়তে পারেন এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় এ্যাকটিভ শুধু তাদেরকেই খুঁজছে দৈনিক শিক্ষাবার্তা পত্রিকা।

এর জন্য ঢাকা সহ প্রতিটি জেলায় জেলা প্রতিনিধি ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি আবশ্যক । শিক্ষাগত যোগ্যতা নুন্যতম স্নাতক। শিক্ষকদের অগ্রাধিকার।

আবেদন পাঠানোর ইমেইল: info@shikkhabarta.com, shikkhabarta@gmail.com

যোগাযোগ : বরাবর, নির্বাহী সম্পাদক. “দৈনিক শিক্ষাবার্তা” ।
মোবাইলঃ ০১৫৫৭৬৩১০৯৭,০১৯২৮১২৩৫৪৬

আবেদনের শেষ তারিখ: ২৭/৪/২০১৯

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নুসরাতকে নিয়ে ছোট ভাই রায়হানের আবেগঘন স্ট্যাটাস

শীর্ষ কাগজডেস্কঃ  পাঁচদিন একটানা মৃত্যুর সাথে লড়াই করে ১১ এপ্রিল দুনিয়া ছেড়ে চলে গেছেন নুসরাত জাহান রাফি। এই একটি মৃত্যু নাড়িয়ে দিয়ে গেছে পুরো দেশকে। যে শিক্ষকের কাছে শিক্ষার্থীরা সবচেয়ে নিরাপদে থাকার কথা সেখানে গিয়েই ভয়ংকর অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছে নুসরাতকে।

নিচে স্ট্যাটাসটি হুবুহু উপস্থাপন করা হলো

আবার এসেছিল বৈশাখ, পাড়া প্রতিবেশীর ঘরে ঘরে দেখছি আনন্দের বন্যা। আর আমাদের ছোট্টঘর নিকোষ অন্ধকারে আচ্ছন্ন। অথচ গত বছরের এই সময় আমাদের এই সংসারে কতইনা আনন্দ ছিল। আজ আপুমণিকে হারিয়ে সকল উৎসব অশ্রুজলে বিবর্ণ হয়ে গেছে। ঘাতকের আগুনে পুড়ে ছারখার হয়ে গেলো আমাদের সোনালী সংসার।

কখনোও ভাবিনি আমাদের সমাজে মানুষের পোষাকধারী কিছু অসভ্য জন্তু-জানোয়ার বসবাস করে। যদি আগে জানতে পারতাম তাহলে কলিজার টুকরা আপুকে কখনোও ঘর থেকে বের হতে দিতাম না। মানুষ কতটা নির্দয়-নির্মম হলে একজন মানুষকে পুড়িয়ে মারতে পারে! কী অপরাধ ছিলো আমার আপুর ?

একজন লম্পটের যৌন নিপীড়ন রুখে দিতে প্রতিবাদী হয়েছিলো আমার আপু। সেই প্রতিবাদের মৃত্যু হয়েছে ১০৮ ঘন্টা বার্ণ ইউনিটে (ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল) আপুর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগের মাধ্যমে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল। বাবা-মায়ের পর শিক্ষকরাই আমাদের বড় অভিভাবক। আর সেই অভিভাবক যখন একজন ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন, তখন মনে হয় এই সমাজ আর ভালো নেই। আবার লম্পটকে বাঁচানোর জন্য তার পক্ষে নিয়েছিল কিছু রাজনীতিবিদ ও মানুষরুপী লম্পট। লম্পটের বিচার চাইতে গিয়েছিলাম ওসি সাহেবের কাছে। তিনি আমার আপুকে নিরাপত্তা না দিয়ে মানুষিক নির্যাতন করে ভিডিও করলেন। ওসি সাহেব যদি সচেতন হয়ে বিষয়টি তদন্ত করতেন কিংবা আমার আপুর নিরাপত্তা জোরদার করতেন, তাহলে আমার আপুকে পরপারে পাড়ি দিতে হতো না।

মনে পড়ছে আপুমণির আইসিউতে বলা শেষ কথাগুলো ‘রায়হান, আম্মা-আব্বার দিকে খেয়াল রাখিস। আমাকে নিয়ে চিন্তা করতে বারণ করিস। আমাকে যারা পুড়িয়ে দিলো তাদের যেন সঠিক বিচার হয়। না হলে আমি মরেও শান্তি পাবো না।’ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার আপুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। লম্পটদেরকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছিলেন। আপুকে দেশের বাহিরে পাঠানোর জন্য ডাক্তারগণকে নির্দেশ দিয়েছিলেন। ডাক্তারগণ সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও আপুকে বাঁচাতে পারিনি। আমাদের পরিবারকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডেকে তিনি একজন মমতাময়ী মায়ের পরিচয় দিয়েছেন। আমরা তার কাছে বলেছি, আমার আপুর হত্যাকারীদের যেন দ্রুত বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হয়। তিনি আমাদের নিশ্চিত করেছেন, বিচারে কোন দুর্বলতা রাখা হবেনা। আসামীদের রেহাই দেয়া হবে না বলে তিনি জানিয়েছেন। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিচার-প্রশাসনের প্রতি আস্থা রেখে বলতে চাই, এই সকল জানোয়ারদের কঠিন শাস্তি দেয়া প্রয়োজন। ভবিষ্যতে যেন কোন ভাইয়ের বুক থেকে তার বোনকে কেড়ে নিতে না পারে।

প্রতিদিন সন্ধ্যায় যখন বাড়ী ফিরে দেখি আপুর রুমটা খালি পড়ে আছে। যেই টেবিলে বসে পড়ালেখা করতো সেখানে বই খাতাগুলো ঠিকই আছে। আছে আপুর ব্যবহৃত জিনিসপত্রগুলো। নেই শুধু আমার কলিজার টুকরা আপুটি। বিশ্বাস করুণ, একবুক চাঁপা কষ্ট, বেদনায় আমার ছোট্ট হৃদয়টি দুমড়ে মুচড়ে যায়। প্রতিটি মুহূর্তে মনে পড়ে যায় আপুর কথা। ঘুমের ঘরে জেগে উঠি আপুর শেষ দিনগুলির নির্মম কষ্টের কথা স্বপ্নে দেখে। শেষ রাতে চোখে একফোঁটা ঘুম আসেনা আপুর কথা ভেবে।

 

আমাদের পরিবারের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রতীক ছিলো আপু। পরিবারের প্রতিটি সদস্যের সাথে তার ছিলো আন্তরিকতাপূর্ণ ভালোবাসার সম্পর্ক। শান্ত মেজাজের অধিকারী হওয়ায় পরিবারের সকল সমস্যা অত্যন্ত ধীরচিত্তে সমাধান করতো। আমাদের সাথে দূরের কথা পাড়া-প্রতিবেশীর কারও সাথে কোনদিন ঝগড়া-বিবাদে নিজেকে জড়ায়নি। আব্বুর অনেক আস্থাভাজন হওয়ার কারণে, আব্বু কোন দিন তার প্রিয় সন্তানের কোন চাহিদা অপূর্ণ রাখেননি। প্রতিদিন ফজরের নামাজের পর তার কোরআন তেলোয়াতের মধুর সুর এখনও আমার কানে বাজে।

 

বাড়ির সকল কাজে আম্মুকে সহযোগিতা করতো। আম্মু আমাদের নিয়ে টেনশন করলে, আপু অভয় দিয়ে বলতো আমরা এমন কোন কাজ করবো না যাতে আপনাদের সম্মান হানি হয়। বরং আমরা ৩ ভাইবোন পড়ালেখা করে মানুষের মতো মানুষ হয়ে সমাজে আপনাদের মুখ উজ্জল করবো। সেই উজ্জলতার প্রতিচ্ছবি ছিলো আমাদের সংসার। আপুর মতো ক্ষণজন্ম বোন আমাদের ছোট ঘরকে সবসময় আলোকিত করে রাখতো। যা আজ নিভে গিয়ে একমুঠো ছায়ায় পরিণত হয়েছে।

 

আজ সারাদেশে এমন কি দেশের বাহিরেও আমার আপুর হত্যাকান্ড মানুষ যেভাবে প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠেছে, তাতে আমার মনে পড়ে যাচ্ছে কবির বলে যাওয়া কথা…‘এমন জীবন করিবে গঠন / মরণে হাসিবে তুমি/ কাঁদিবে ভুবন’

 

আল্লাহর কাছে একটাই চাওয়া আমার আপুকে যেন তিনি জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন। আর খুনিদের দুনিয়া ও আখেরাতে কঠোর শাস্তি প্রদান করেন। (আমীন)

রায়হান

হতভাগা নুসরাতে ছোট ভাই

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ করে ভিডিও, বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্র গ্রেপ্তার

শেকৃবি : মার্কস মেডিকেল কলেজের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বাধন মাতব্বর (২৩) নামের শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) এক ছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ।

 

গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থেকে বাধনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি শেকৃবি’র অ্যাগ্রি বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অনুষদের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র।

 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করেন বাধন। এ সময় ধর্ষণের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করেন তিনি। পরবর্তীতে ওই ধারণকরা দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ছাত্রী বাদী হয়ে শেরেবাংলা নগর থানায় একটি মামলা করেন।

 

শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম মুন্সী জানান, ভুক্তভোগী ছাত্রী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ (সংশোধিত ২০০৩) ধারা ৭/৯ (১), তৎসহ প্যানাল কোড-৩৮৫/ ৫০৬ মামলার আসামি বাধন মাতব্বর।

 

ওসি বলেন, ‘আমরা ধর্ষণের অভিযোগে বাধনকে গ্রেপ্তার করেছি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। পরবর্তীতে তাকে আমরা কোর্টে চালান করে দিয়েছি।’

 

এ বিষয়ে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘এ বিষয়ে থানা কর্তৃপক্ষ আমাকে অবহিত করেছিল। আমি বিষয়টি নিয়ে উপাচার্য স্যারের সঙ্গে কথা বলে শৃঙ্খলা কমিটির মিটিংয়ে বিষয়টি উপস্থাপন করব।’

 

অভিযোগ রয়েছে, এর আগেও বাধন মাতব্বর রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে বিভিন্ন মেয়ের সঙ্গে শেরেবাংলা হলের গেস্টরুমে সময় কাটিয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শবে বরাত উদযাপন উপলক্ষ্যে সরকারি চাকরিজীবীদের ছুটি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিআএদক,১৮ এপ্রিল: শবে বরাত উদযাপন উপলক্ষ্যে পূর্ব ঘোষিত ২১ এপ্রিল ছুটির পরিবর্তে ২২ এপ্রিল সোমবার সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বুধবার এক প্রজ্ঞাপনে এই তথ্য জানিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।
খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডে উপলক্ষে আগামী ২১ এপ্রিল বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকবে। অন্যদিকে ২২ এপ্রিল সোমবার ছুটি পড়ে শবে বরাতের। তবে শবে বরাতের তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তি থাকায় ফের বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নেয় চাঁদ দেখা কমিটি। এতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো টানা ২ দিন ছুটি পাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দেয়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বাড়ির কাজ না করায় শিক্ষক পেটালেন ছাত্রকে। বরখাস্ত শিক্ষক

ডেস্ক,১৭ এপ্রিল:   নারায়ণগঞ্জে একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে বাড়ির কাজ করে না আনায় এক ছাত্রকে বেত্রাঘাত করায় এক শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনা শেষে অভিযুক্ত শিক্ষক নাজমুল আলমকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

চেইঞ্জেস স্কুলের চাঁদমারি ক্যাম্পাসে গতকাল মঙ্গলবার আইসিটি বিষয়ে হোমওয়ার্ক করে না আনায় সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সৈকত কুমার পালকে বেত্রাঘাত করে আহত করেন শিক্ষক নাজমুল আলম। ঘটনায় আহত শিক্ষার্থীকে নগরের খানপুরে অবস্থিত ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এই ঘটনায় শিক্ষার্থীর বাবা সুরিথ কুমার পাল বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে স্কুল কর্তৃপক্ষ আজ তিনজন পরিচালক, অভিভাবক ও শিক্ষকদের যৌথ সিদ্ধান্তে আইসিটি শিক্ষক নাজমুল আলমকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানি করে প্রধান শিক্ষক পলাতক

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল: হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ের চৌধুরী পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার পর থেকে মোজাম্মিল হোসেন নামে ওই শিক্ষক পলাতক রয়েছেন।

এ ঘটনার বিচার চেয়ে যৌন হয়রানির শিকার ছাত্রীর বাবা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। পাশাপাশি অভিযোগের অনুলিপি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মামুন খন্দকারের কাছেও দেওয়া হয়েছে। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter