নিউজ

বেতাগী শিক্ষিকাকে ধর্ষনের ঘটনায় চুয়াডাঙ্গায় শিক্ষকদের কালো ব্যাচ ধারন

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : শ্রেণিকক্ষে শিক্ষিকাকে ধর্ষনের ঘটনায় চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার ১১৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কালো ব্যাচ ধারন করে পাঠদান করে প্রতিবাদ কর্মসুচি পালন করে। বুধবার সকাল থেকে এ কর্মসুচি পালন করে শিক্ষকরা।
জানা গেছে বরগুনা জেলার বেতাগী উপজেলার শিক্ষক ধর্ষনের ঘটনা ডাক্তারি রির্পোটের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জের এবং ধর্ষনের প্রতিবাদে কেন্দ্রিয় কমিটির প্রধান শিক্ষক সমিতির সিনিয়ার সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ও সিনিয়ার যুগ্ন সাধারন সম্পাদক স্বরুপ দাসের ডাকে জেলার দামুড়হুদা উপজেলার ১১৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কালো ব্যাচ ধারন করে পাঠদান করে প্রতিবাদ করেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলার প্রধান শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক স্বরুপ দাস ও সহকারী শিক্ষক সমিতির উপজেলা আহবায়ক হারুন অর রশিদ জুয়েল বলেন শিক্ষকের ধর্ষনের প্রতিবাদে আগামীকাল বিকাল ৩টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে স্বরাষ্টমন্ত্রী বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করা হবে।
উল্লেখ্য, গত ১৮ আগস্ট বরগুনার বেতাগী উপজেলায় স্কুল ভবনে স্বামীর সামনে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন সহকারি শিক্ষিকা গণধর্ষণের শিকার হন। ওই শিক্ষিকার সম্প্রতি ভারতে বিয়ে হয়েছে। তার স্বামী ঘটনার দু’দিন আগে বাংলাদেশে আসেন। ঘটনার দিন স্কুল ছুটির পর স্কুল ভবনে বসে তারা আলাপ করছিলেন। এ সময় বাইরে থেকে কিছু বখাটে তাদের উত্যক্ত করছিলো। এক পর্যায়ে ওই শিক্ষিকা স্কুলের মূল গেট বন্ধ করে দেন। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে বখাটেরা স্কুল ভবনে প্রবেশ করে প্রথমে নববিবাহিত স্বামীকে প্রচন্ড মারধর করে। এতে তিনি রক্তাক্ত হয়ে যান। পরে তার সামনেই ওই শিক্ষিকাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে বখাটেরা।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

বন্যায় তিন সহস্রাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ

ডেস্ক: মানুষের জীবনযাত্রা, যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি গত কয়েকদিনের বন্যার প্রভাব পড়েছে শিক্ষা ব্যবস্থায়ও।

এই মৌসুমের দ্বিতীয় দফা বন্যায় সারাদেশের এক হাজারেরও বেশি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া পানি উঠে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় অর্ধশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

বিভিন্ন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপপরিচালকদের কাছ থেকে টেলিফোনে প্রাপ্ত তথ্য এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

অধিদপ্তর থেকে পাওয়া তথ্য মতে, দেশের বিভিন্ন জেলায় পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা বিদ্যালয়ের সংখ্যা এক হাজার ১৫টি। আর পানি উঠেছে, ভেঙে গেছে কিংবা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এমন বিদ্যালয় ৪৫টি।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে জামালপুর জেলায়। মোট ৩১৩টি বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে জামালপুরে এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১৪টি বিদ্যালয়।

কুড়িগ্রামে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ২৫৩টি বিদ্যালয় এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫টি বিদ্যালয়।

দিনাজপুরে ১১৭টি, সুনামগঞ্জে ১০৭টি, সিরাজগঞ্জে ৭০টি, লালমনিরহাটে ৫৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বন্যার কারণে।

এছাড়া মানিকগঞ্জে ৫টি, মুন্সিগঞ্জে ১টি, শরীয়তপুরে ১টি, রাজবাড়ীতে ২টি, ময়মনসিংহে ১৫টি, নেত্রকোনায় ২০টি, সিলেটে ৬টি, বগুড়ায় ১০টি, নওগাঁয় ১৩টি, পাবনায় ৫টি, জয়পুরহাটে ৫টি, গাইবান্ধায় ১১টি, ঠাকুরগাঁওয়ে ৮টি বিদ্যালয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে শিক্ষা কার্যক্রম।

ঢাকা জেলায় পানি প্রবেশ করেছে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। মানিকগঞ্জে নদীতে বিলীন হয়েছে ১টি এবং ভেঙে গেছে ১টি বিদ্যালয়। ফরিদপুরে ২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  নদীতে বিলীন হয়েছে। গোপালগঞ্জের ৭টি বিদ্যালয়ে পানি উঠেছে।

এছাড়াও ময়মনসিংহে ১টি, নেত্রকোনায় ১টি, সিরাজগঞ্জে ১টি, কুড়িগ্রামে ৫টি ও ঠাকুরগাঁওয়ে ৮টি বিদ্যালয় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এছাড়া বন্যাকবলিত এলাকার প্রায় দুই হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর মধ্যে রংপুর বিভাগের আট জেলায় ১ হাজার ৩১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক মাহবুব এলাহী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জামালপুরে ৮৭৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বগুড়ার তিন উপজেলার ৮২টি বিদ্যালয়ে পানি ওঠায় কয়েক হাজার শিক্ষার্থীর পাঠদান বন্ধ রয়েছে।

সিরাজগঞ্জ জেলায় বন্যার কারণে মোট ২১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৭০টি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ মোট ১৭১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভবনে পানি উঠে পড়েছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ফেলে যাওয়া শিশুটির বাবা-মা হতে চেয়ে আদালতে ৮ দম্পতির হট্টগোল

শিশির দাস: রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফেলে যাওয়া অবুঝ ৯ মাসের শিশু ফাতেমার ‘বৈধ অভিভাবকত্ব’ পেতে দাবি জানিয়েছেন ৮ দম্পতি। এদের মধ্যে ২০ লাখ টাকা কিংবা ফ্ল্যাট তার নামে লিখে দিতে চেয়েও অভিভাবকত্ব পেলেন না এক দম্পতি।

বুধবার ঢাকার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমানের আদালতে এ নিয়ে চরম হট্টগোল হয়। আদালতে শুনানির সময় আইন ও সালিস কেন্দ্রের আইনজীবী সেলিনা আক্তার শিশুটির নামে পাঁচ লাখ টাকা দিতে চান। তিনি ১৫ বছর ধরে নিঃসন্তান। আদালত তাকে দিতে চাইলে অন্যরা আপত্তি করেন।

এসময় মাজহারুল ও লায়লা দম্পতি ১০ লাখ টাকা দিতে চান। এই দম্পতি আট বছর ধরে নিঃসন্তান।
অন্যদিকে পুলিশের এসআই আবুল কালাম ও নিঝুম দম্পতি ২০ লাখ টাকা অথবা ফ্ল্যাট লিখে দিতে চান। তারাও আট বছর ধরে নিঃসন্তান।

সিলেটের সামছুল আলম গ্রামের বাড়িটি শিশুটির নামে লিখে দিতে চান। তিনি ৩০ বছর ধরে নিঃসন্তান।
সবাই তাদের দাবিতে অনড় থাকায় আদালত এ বিষয়ে শুনানি মুলতবি রেখে আলাদাভাবে নয় দম্পতির সাক্ষাতকার নেন।

পরবর্তীতে সেলিনা দম্পতিকে অভিভাকত্ব দেন আদালত। আদালত আগামী ২২ তারিখের মধ্য শিশুর নামে পাঁচ লাখ টাকা ডিপোজিট করতে বলেন এবং ওই দিনই শিশুটিকে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান।
এসময় বঞ্চিত অনেক দম্পতিকে কান্নকাটি করতে দেখা যায়।

এর আগে গত ৯ আগস্ট শিশু ফাতেমার প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে পায়নি উল্লেখ করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা বিমানবন্দর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু সাঈদ। প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, আদালতের নির্দেশে বিমানবন্দরের ওই দিনের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়। এতে শিশুটির প্রকৃত বাবা-মাকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। শিশুটির বাবা-মা দাবি করে কেউ লিগ্যাল নোটিশও দেয়নি। এছাড়া শিশুটি হারিয়ে গেছে মর্মে বিমানবন্দর থানায় কেউ জিডিও করেনি।

গত ২৫ জুলাই ঢাকার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান ফাতেমার প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন। সেদিন তিনি ৯ আগস্টের মধ্যে শিশুটির প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে বের করার দিন নির্ধারণ করেন। প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে না পাওয়া গেলে শিশুটিকে নিতে আগ্রহী কোনো দম্পতিকে বাছাই করে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার কথা জানানো হয়।

ওইদিন আট দম্পতি শিশুটিকে নিতে আদালতে আবেদন করেন। পরে আরও দুই দম্পতি আবেদন করেন। তাদের মধ্যে সেনা কর্মকর্তা, পুলিশ কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী, আইনজীবী ও বিমান বাহিনী কর্মকর্তা রয়েছেন।
দম্পতিরা ছিলেন, ব্যবসায়ী আশিক ওয়াহিদ-শাহনাজ, পুলিশ কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ-নিঝুম আক্তার, একটি তথ্যপ্রযুক্তি ফার্মের কর্মকর্তা মাজহারুল-লায়লা নুর, ব্যবসায়ী আলমগীর-অ্যাডভোকেট সেলিনা আক্তার, ব্যবসায়ী জামাল-শ্যামলী আক্তার, ব্যবসায়ী গোলাম সরওয়ার-দুলশাদ বেগম বিথি, ব্যবসায়ী শামসুল আলম চৌধুরী-শামিমা আক্তার চৌধুরী ও বিমানের কর্মকর্তা আ ক ম আতিকুর রহমান-মোনালিসা দম্পতি।

উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই জর্ডান থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে করে দেশে ফিরছিলেন জয়দেবপুরের স্বপ্না বেগম। একই বিমানে শিশুটিকে নিয়ে তার মাও ফিরছিলেন। স্বপ্না জর্ডানে গৃহকর্মী হিসেবে গিয়েছিলেন। অজ্ঞাতপরিচয় ওই নারীও একই কাজে সেখানে গিয়েছিলেন বলে জানতে পারেন স্বপ্না।

স্বপ্না বিমানবন্দর পুলিশকে জানান, ওই নারীও জর্ডান থেকে একই ফ্লাইটে ফেরেন। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে কাস্টমস থেকে মালপত্র নিয়ে বের হয়ে বিমানবন্দরের পার্কিং এলাকায় স্বজনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন স্বপ্না।

এ সময় বিমানে পরিচয় হওয়া শিশুটির মা তাকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আপা আমার শিশুটাকে একটু ধরেন। ভেতরে মালপত্র রয়েছে, নিয়ে আসছি। আগে কথা হওয়ায় সরল বিশ্বাসে শিশুটিকে কোলে তুলে নেন স্বপ্না। কিন্তু দীর্ঘসময় অপেক্ষার পরও সেই নারী আর ফেরেননি। পরে স্বপ্না আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যদের কাছে ঘটনাটি জানালে তারা শিশুসহ স্বপ্নাকে বিমানবন্দর থানায় পাঠায়।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

জাতীয় প্রেসক্লাবে শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

মো: শরীফুল ইসলাম : ১৫ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে শিশুদের নিয়ে এক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার(১৫ আগষ্ট) জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
এই প্রতিযোগিতায় ২০ জন শিশু কিশোর অংশগ্রহন করে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন।
চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে তিনটি গ্রæপে বিভক্ত করে প্রথম ,দ্বিতীয়, তৃতীয় স্থান নির্ধারণীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
বিভিন্ন গ্রæপে ক গ্রæপ ১। মো: রহিম রহমান, ২। আশফিয়া খান অগ্নি, ৩। ইন্দু লেখা অর্মি। খ গ্রপে ১। মুশফিক আল রাফি, ২। বর্ণিল কাদের, ৩। রাইসা রহমান গ গ্রæপ ১। তালহা যুবায়ের, ২। উথল শেঠ, ৩। সাইদুর রহমান
বাকী প্রতিযোগিদের মাঝে সান্তনা পুরস্কার পদান করা হয়।
নির্বাচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর সমজিত রায় চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ।
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন গোলাম সরওয়ার সিনিয়র সদস্য জাতীয় প্রেসক্লাব, আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া জাতীয় প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপানা কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট, জাতীয় প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ কার্তিক চ্যাটার্জী, ঢাকা ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের মহাসচিব ওমর ফারুক, প্রেসক্লাবের সদস্য আতিকুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর খান বাবু প্রমুখ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

শোকের দিনেও খোলা ছিল ঢাকায় আমেরিকান স্কুল

বিডিনিউজ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ডের দিন জাতীয় শোক দিবসেও খোলা রাখা হয়েছিল ঢাকার আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল।

সাধারণ ছুটির দিনে স্কুল খোলা রাখার বিষয়ে বক্তব্য মেলেনি স্কুল কর্তৃপক্ষ ও ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাসের; এ বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার ‘কর্তৃপক্ষ’ হিসাবে একে অপরকে দেখিয়েছে তারা।

মঙ্গলবার সকাল ১১টার পর বারিধারায় জাতিসংঘ সড়কে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে গেলে ক্লাস চলছে বলে জানান সেখানকার নিরাপত্তাকর্মীরা।

স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা মাসুম জানান, স্কুলটি ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসই চালায়। এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য দিলে সেটা দূতাবাস থেকে দেবে।

পরবর্তীতে ভিজিটিং কার্ড পাঠিয়ে স্কুলের মুখপাত্র কিংবা ইনফরমেশন ডেস্কের কারও সঙ্গে কথা বলতে চাইলেও ভেতরে প্রবেশের অনুমতি মেলেনি।

স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন বক্তব্যের পর দূতাবাসে যোগাযোগ করা হলে স্কুলের ‘সময়সূচির’ বিষয় স্কুল কর্তৃপক্ষই ঠিক করে বলে জানান ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মুখপাত্র রেক্স মোসার।

তিনি বলেন, ‘এটা তাদের (স্কুল কর্তৃপক্ষ) একাডেমিক সূচি। এর পরিকল্পনা তারাই করে।’

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সরকারি কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ২৯ আগস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ২৯ আগস্ট সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নন-গেজেটেড কর্মচারী ও সামরিক বাহিনীর নন-কমিশন্ড কর্মকর্তা/কর্মচারীদের আগস্ট মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সুবিধা পেনশনভোগীরাও পাবেন।

তবে কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে আগস্টের বেতন পেতে দেরি হতে পারে। এ বিষয়ে রোববার অর্থ মন্ত্রণালয়ের ট্রেজারি ব্যবস্থাপনা অধিশাখা থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে

অর্থ বিভাগের উপ-সচিব মফিজ উদ্দীন আহমেদ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারি বর্ষপঞ্জি -২০১৭ অনুযায়ী ২ সেপ্টেম্বর (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে বিধায় সরকার এ মর্মে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, সরকারি, অাধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের সব নন-গেজেটেড কর্মচারী ও সামরিক বাহিনীর নন-কমিশন্ড কর্মকর্তা/কর্মচারীদের আগস্ট মাসের বেতন-ভাতা এবং দেশের সব অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীর আগস্ট মাসের পেনশনের অর্থ ২৯ আগস্ট প্রদান করা হবে।

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। নিয়ম হচ্ছে, মাসের ১৫ তারিখের পর এ ধরনের কোনো উৎসব থাকলে ওই মাস শেষ হওয়ার আগেই নন-গেজেটেড ও নন-কমিশন্ড কর্মচারীদের বেতন পরিশোধ করতে হবে।

তবে ১০ম গ্রেড থেকে ১ম গ্রেডের কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে আগস্ট মাসের বেতন পেতে কিছুটা দেরি হতে পারে।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

দর্শনায় শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় দর্শনা পুরাতন বাজার সার্বজনিন শ্রী শ্রী মন্দির আয়োজনে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার সকাল ১০টাই উপজেলার দর্শনা পুরাতন বাজার সার্বজনিন শ্রী শ্রী মন্দির থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শহর প্রদক্ষিণ করে ।
পরে শোভাযাত্রাটি পুরাতন বাজার মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়ে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় র‌্যালিতে ও আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন আওয়ামীলীগ নেতা আলী মুনসুর বাবু,দর্শনা তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক শোনিত কুমার গাইন, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক জয়ন্ত কুমার, ডাঃ দুলাল চন্দ্র দে, শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক ও সাবেক সভাপতি স্বরুপ কুমার দাস, দামুড়হুদা ওদুদ শাহ কলেজের প্রভাষক মিল্টন কুমার সাহা, দামুড়হুদা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি জগবন্ধু ধর, দর্শনা সার্বজনীন শ্রী মন্দিরের সভাপতি উত্তম রঞ্জন দেবনাথ, সাধারন সম্পাদক অনন্ত কুমার সান্তারা, সুধির কুমার সান্তারা,রতন কুমার লোধ, প্রলয় শীল,সাধন অধিকারী, দেবতোষ বিশ্¦াস প্রমূখ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সচিব হলেন পাঁচ কর্মকর্তা

ডেস্ক: প্রশাসনে পাঁচ কর্মকর্তাকে সচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছে সরকার। পদোন্নতি দিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে রোববার (১৩ আগস্ট) আদেশ জারি করা হয়েছে।

এ পাঁচ অতিরিক্ত সচিব ভারপ্রাপ্ত সচিবের মর্যাদায় দায়িত্ব পালন করছিলেন।

  পদোন্নতির পর সচিবদের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়। এরপর দুটি আদেশে তাদের আগের স্থানেই সচিব হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।

পদোন্নতি পেয়ে সচিব হয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আসাদুল ইসলাম।

এছাড়া বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মফিজুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত সচিব পদমর্যাদায়) শিরীন আখতারকে সচিব হিসেবে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে।

সচিব হচ্ছেন কোনো মন্ত্রণালয় বা বিভাগের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক কর্মকর্তা। বর্তমানে প্রশাসনে সিনিয়র সচিব, সচিব ও ভারপ্রাপ্ত সচিব রয়েছেন ৭৮ জন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

১৯ আগস্ট শুরু ঈদে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

শিশির দাস : কোরবানি ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হচ্ছে আগামী ১৯ আগষ্ট। ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন রুটে রয়েছে ৫ জোড়া বিশেষ ট্রেন। এছাড়াও ঈদের দিন চলবে শোলাকিয়া এক্সপ্রেস নামে বিশেষ ট্রেন।

আগামী দোসরা সেপ্টেম্বর ঈদের দিন ধরে অগ্রিম টিকেট বিক্রির পরিকল্পনা করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। নিয়ম অনুযায়ী ১০দিন আগে অর্থাৎ ১৯ আগস্ট দেয়া হবে ২৮ আগস্টের টিকিট। পর্যায়ক্রমে ২০শে আগস্ট ২৯ আগস্টের, ২১শে আগস্ট ৩০শে আগস্টের, ২২শে আগস্ট ৩১শে আগস্টের এবং ২৩শে আগস্ট দেয়া হবে পহেলা সেপ্টেম্বর যাত্রার টিকেট। এবারও প্রতিজন যাত্রী কাউন্টার থেকে ৪টি করে টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

কম মূল্যে এবং আরামদায়ক ভ্রমণ হওয়ায় ট্রেনে যাত্রীদের চাহিদা থাকে ব্যাপক। তাই ঈদ যাত্রায় টিকেটের কালোবাজারি ঠেকাতে জি আর পি’র পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যদিকে, ঈদের অতিরিক্ত যাত্রী চাপ সামাল দিতে চলছে পুরাতন ও নষ্ট বগি মেরামতের কাজ।

চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ঢাকাগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেস, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, মহানগর গৌধুলী, তূর্ণা নিশীতা, চট্টলা এক্সপ্রেস, ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস, সিলেটগামী উদয়ন ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস এবং চাঁদপুরগমী মেঘনা এক্সপ্রেসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে।-তথ্যসূত্র : সময় টিভি

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

সুনামগঞ্জের সাত উপজেলায় প্রাইমারি স্কুলের পরীক্ষা স্থগিত

সুনামগঞ্জ  প্রতিনিধি:   সুনামগঞ্জে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। পাউবোর দেয়া তথ্যমতে শনিবার সকাল ৯টায় সুনামগঞ্জ শহরের ষোলঘর পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এদিকে বন্যার পানি বিভিন্ন স্কুল ও স্কুল সংলগ্ন এলাকায় প্রবেশ করায় জেলার সাতটি উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা স্থগিত রাখা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ সদর, বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, দোয়ারাবাজার, দিরাই ও  ধর্মপাশা উপজেলায় পরীক্ষা স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. বায়োজীদ খান।

তিনি  বলেন, উল্লেখিত উপজেলার সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আজ শনিবার ও আগামীকাল রোববারের  পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তঅ বলেন, জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্কুল ও স্কুল সংলগ্ন এলাকায় বন্যার পানি প্রবেশ করায় পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দু’টি বিষয়ে পরীক্ষা আবার নেয়া হবে।

এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সীমান্তের ওপাড় থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাতের কারণে সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার পরিমাপ অনুযায়ী সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৫৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। রাতে বৃষ্টি বেশি হওয়ায় নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে।

পাউবোর দেয়া তথ্যমতে আজ শনিবার সকাল ৯টায় সুনামগঞ্জ শহরের ষোলঘর পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ২০৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢল অব্যাহত থাকায় জেলার সবকটি নদ-নদী ও হাওরে পানি বাড়ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে পাহাড়ি ঢল ও বন্যার পানিতে কয়েকশ পুকুরের মাছ ভেসে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন মাছচাষীরা।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শক্তিরখলা সড়ক ঢলের পানিতে ডুবে যাওয়ায় সুনামগঞ্জ তাহিরপুরে সড়কে সরাসরি যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এছাড়া ফতেহপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের বেশ কয়টি অংশ বন্যার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। বন্যায় জেলার রোপা আমনেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক জাহেদুল হক  জানান, রোপা-আমন যা রোপন করা হয়েছিল তা পানিতে তলিয়ে গেছে। দু’একদিনের মধ্যে পানি না কমলে ব্যাপক ক্ষতি হবে। এ পর্যন্ত জেলার তাহিরপুর, দোয়ারা বাজার, বিশ্বম্ভরপুর ও সদর উপজেলার প্রায় এক হাজার হেক্টর রোপা-আমন পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম  বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় সব ধরনের প্রস্তুতি প্রশাসনের রয়েছে। যেখানে যা প্রয়োজন সেখানে সেরকম সাহায্য সহযোগিতা করা হবে। ইতোমধ্যে সার্বিক পরিস্থিতির ওপর সার্বক্ষণিক নজর রাখতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের সব স্থরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সেভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

নোয়াখালীতে সদ্য জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক হওয়া তথ্য উদঘাটন

বিধিবর্হিভুতভাবে টাইমস্কেল নেয়ার চাঞ্চল্যকর তথ্য

নোয়াখালি প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সদর ও হাতিয়া উপজেলার সদ্য জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদে পদোন্নতি নেয়ার ক্ষেত্রে কাক্ষিক যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও এবং ২৯/১২/২০১২ খ্রিঃ তারিখের পরে জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ে পদোন্নতি না দেয়ার সুযোগ না থাকলেও ভুয়া তথ্যের ভিত্তিতে সদর( নোয়াখালী) উপজেলার শিক্ষক মোঃ বেলাল উদ্দিন বাবর, সুবর্ণচরের মোঃ আলী আক্কাছ,প্রধান শিক্ষক, চরজুবলী অলি উল্যাহ সপ্রাবি ও হাতিয়া উপজেলার মোঃ নবীর উদ্দিন গং সহযোগীতায় বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষাও বাস্তবায়ণ ইউনিট, শিক্ষা ভবন, ঢাকার অসাধূ কর্মকর্তাদের মাধ্যমে মোটা অংকের অর্থের বিমিনয়ে জুন- ২০১৩ এর এমপিওর মাধ্যমে প্রধান শিক্ষকের স্কেল প্রাপ্ত হয়ে এসএসসি ও এইচএসসি তে ৩য় বিভাগ থাকা শিক্ষকবৃন্দ প্রধান শিক্ষক হিসেবে গেজেটভুক্ত হয়ে প্রধান শিক্ষকের বেতনগ্রেডে দুই দুইটি টাইমস্কেল পরিগ্রহন করছে।

অনিয়মের মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক হওয়া শিক্ষকরা হলেন নোয়াখালী সদর উপজেলার ১। ছৈয়দ আহাম্মদ ,প্রধান শিক্ষক, দক্ষিণ খলিসা টোলা সপ্রাবি, ২। ফয়েজের রহমান, প্রধান শিক্ষক, বদিয়াজ্জামান সপ্রাবি, ৩। মো ঃ নুরুল হক, প্রধান শিক্ষক, দেবীপুর সপ্রাবি হাতিয়া উপজেলার ১। মোঃ নুর উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক , জাহাজমারা লুৎফুল করিম সপ্রাবি,  ২। আবদুল মতিন, প্রধান শিক্ষক, অাবদুল খালেক সপ্রাবি ৩ । মোঃ আমির হোসেন, প্রধান শিক্ষক, উত্তর পশ্চিম জাহাজমারা সপ্রাবি, ৪। আকতারা বেগম লাকি, প্রধান শিক্ষক, পশ্চিম চর আমান উল্যাহ সপ্রাবি  ৫। মোঃ মাঈন উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক, মধ্য জাহাজমারা সপ্রাবি ৬। মোঃ নাসির উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক, চরকিং জাহান আরা সপ্রাবি ৭। আবুল হোসেন ,প্রধান শিক্ষক, কে এ হোসেন সপ্রাবি ৮। বিক্রম চন্দ্র দাস, প্রধান শিক্ষক ,লক্ষিদিয়া সপ্রাবি ৯। মোঃ নবীর উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক, দক্ষিণ পশ্চিম চরঈশ্বর রায় সপ্রাবি ১০। রিংকু দাস ,প্রধান শিক্ষক, চরকিং ইউনিয়ন সপ্রাবি । এছাড়া কাক্ষিত অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও নোয়াখালীর সব কটি উপজেলায় বিধিবহিভর্’তভাবে কেবল মাত্র স্নাতক ডিগ্রীধারী হয়ে কোন ধরণের এমপিওভুক্ত বিদ্যালয়ে/ সরকারি বিদ্যালয়ের ৩ বছরের অভিজ্ঞতা ব্যতিরেকে সরাসরি প্রধান শিক্ষক হিসেবে ২০১২ সালে এমপিও ভুক্তির সুবাধে রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল সার্কুলার ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগবিধিমালা ১৯৯১ এর সরাসরি লঙ্গন করে প্রধান শিক্ষক কর্মরত রয়েছেন।

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার গোলাম মাওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো ঃ জয়নুল আবেদীন ২০১০ সালে পূবূবর্তী ঐ বিদ্যালয়ের মৃত্যুজনীত পদে পদোন্নতি নেয়ার পরেও তিনি তথ্য গোপন করে যোগদানের প্রথম থেকে প্রধান শিক্ষক হিসেব করে ইতোমধ্যে ২ টি টাইমস্কেল নিয়েছেন প্রধান শিক্ষকের স্কেলে। এক দিকে নোয়াখালী র সকল উপজেলায় অবৈধ প্রধান শিক্ষকের ছড়াছড়ি অপরদিকে সেই প্রধান শিক্ষকরাসহ প্রায় ৩০০ প্রধান শিক্ষক বিধি বহির্ভুতভাবে ২/৩ টি টাইমস্কেল প্রধান শিক্ষক হিসবে গ্রহন করায় প্রতি মাসে সরকারের লক্ষ লক্ষ টাকা লোপাট হচ্ছে পাশাপাশি সাবেক সরকারি শিক্ষকগণেরা সদ্য জাতীকরণকৃত প্রধান শিক্ষকদের চেয়ে বেতন ভাতা কম পাওয়ায় ক্ষোভ ও অস্থিরতা তৈরী হচ্ছে।

গত ৩০ জুলাই সুবর্ণচর উপজেলার অবৈধ প্রধান শিক্ষক নিয়ে সর্বাধিক পঠিতব্য অনলাইন পত্রিকা শিক্ষা বার্তা ডটকমে  সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পরেও এ সংক্রান্ত কোন তদন্ত ও ব্যবস্থা না হওয়ায় জনে মনে ক্ষোভের সৃষ্টি ও সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে।

সদ্য জাতীয়করণকৃত অনেক প্রধান শিক্ষক শিক্ষকতার পাশাপাশি নিয়মিত পড়ালেখা চালিয়ে গিয়ে পরবর্তী সময়ে সেই সনদের সুবিধাও নিয়েছেন। যাহা আইনত অগ্রাহ্য ।

এ ব্যাপারে অবিযুক্ত শিক্ষকদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তারা কথা বলতে রাজী হননি।

এ ক্ষেত্রে সনদও বাতিল ,চাকুরিও বাতিল এখন পর্যন্ত সেই বিধিতেই দেশের কার্যক্রম চরছে। তাই সকলের প্রত্যাশা করছে পুরো জাতীয়করণকৃত প্রধান শিক্ষকদেও প্রধান শিক্ষক হিসেবে এমপিওভুক্তির তারিখ উল্লেখিত বাধ্যতামূলক প্রথমিক শিক্ষা ,ইউনিট ঢাকা কর্র্তক প্রদেয় স্বস্ব নামের পত্রটি, সনদপত্রসহ নিয়োগপত্র গুলো যাছাইয়ের মাধ্যমে সত্য উদঘাটিত হবে বলে সচেতন মহল দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

চুয়াডাঙ্গায় সব ধরনের কোচিং বন্ধ ঘোষনা

নিজস্ব প্রতিবেদক: চুয়াডাঙ্গা জেলার শিক্ষার মান ফিরিয়ে আনার লক্ষে নিয়ম বহির্ভূত সব ধরনের কোচিং বন্ধ ঘোষনা করেছে জেলা প্রশাসক । শুক্রবার স্থানীয় সকল পত্রিকার মাধ্যমে এ নির্দেশনা জারী করা হয়।

শিক্ষার মান উন্নয়নে সকলেই নিয়মিত ক্লাশ, ব্যবহারিক ক্লাশ, নিয়মিত উপস্থিতি, মনিটরিংকে শিক্ষার মানের উন্নয়নে সহায়ক হিসেবে কাজ করবে । অপরপক্ষে ছাত্র-অভিভাবকের অসচেতনতা, অনিয়মিত ক্লাশ, বিদ্যালয়ে ছাত্র ও শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকগণের মোবাইল ফোনের ব্যবহার, স্কুল চলাকালে কোচিং সেন্টারের প্রভাবকে শিক্ষার মান হ্রাসের প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

১। বিদ্যালয় চলাকালে সকাল ৭টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কোন ধরনের কোচিং করানো যাবে।

২। শিক্ষা মন্ত্রনালয় কর্তৃক জারীকৃত কোচিং বানিজ্য বন্ধ নীতিমালা অনুসরন করতে হবে।

৩। সন্ধ্যার পর কোন কোচিং সেন্টারে কোচিং করানো যাবে না।

৪। প্রত্যেক কোচিং সেন্টারে আগষ্ট মাসে ডিজিটাল হাজিরার ব্যবস্থা করতে হবে।

৫। ছাত্র ও ছাত্রীদের একই সময়ে একই ব্যাচে কোচিং করানো যাবে না।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের উদ্দেশ্যে প্রজ্ঞাপন

আবার বিয়ে করলে ভাতা দেবে না সরকার

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের মৃত্যুর পর তাঁদের বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী ও তাঁদের প্রতিবন্ধী সন্তানেরা বছরে দুটি উৎসব ভাতা ও চিকিৎসা ভাতা পাবেন। তবে আবার বিয়ে করলে কেউ কোনো ভাতা পাবেন না।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ গত সপ্তাহে এ ব্যাপারে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ২০১৬ বছরের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এই প্রজ্ঞাপন কার্যকর ধরা হবে।
এতে বলা হয়েছে, শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের মৃত্যুর পর তাঁদের বিধবা স্ত্রী ও প্রতিবন্ধী সন্তান ভাতা পাবেন আজীবন।
তবে বিপত্নীক স্বামী ভাতা পাবেন সর্বোচ্চ ১৫ বছর পর্যন্ত। তবে শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী চাকরিজীবীর অবসর গ্রহণের তারিখ থেকে ১৫ বছর মেয়াদ পূর্তি হতে যে সময় বাকি থাকবে, বিপত্নীক স্বামী শুধু সেই সময়টুকুর জন্যই ভাতা পাবেন।

বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী যদি আবার বিয়ে করেন, তাহলে এই ভাতাসুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। উৎসব ভাতার পরিমাণ নির্ধারিত হবে মাসিক নিট পেনশনের ভিত্তিতে। অর্থাৎ শতভাগ পেনশন সমর্পণকারীরা শতভাগ পেনশন সমর্পণ না করলে মাসিক যে পরিমাণ নিট পেনশন পেতেন, তার ভিত্তিতে।
শতভাগ পেনশন সমর্পণকারীর বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী ২০১৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারির আগে কোনো উৎসব ভাতা বা চিকিৎসা ভাতা উত্তোলন করে থাকলে তা তাঁদের পরবর্তী সময়ে প্রাপ্য ভাতা থেকে সমন্বয় করা হবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

১৭৩ জন শিক্ষক-কর্মচারির এমপিওভুক্তির বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৭৩ জন শিক্ষক-কর্মচারির এমপিওভুক্তির আবেদন বাতিল করেছে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রাথমিক যাচাইয়ে অসম্পূর্ণ তথ্য ও দারুল ইহসানের সনদসহ বিভিন্ন সমস্যার কারণে এমপিওর এসব আবেদন বাতিল করা হয় বলে অধিদপ্তরের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

আবেদন বাতিলের কারণসমূহের মধ্যে রয়েছে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ সনদ সরকার অননুমোদিত প্রতিষ্ঠানের, কাম্য শিক্ষাগত যোগ্যতার অভাব, দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদ দাখিলকৃত সনদগুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক যাচাইকৃত নয়, আবেদনকারীর কোন মামলা নেই মর্মে কোন পত্র না দেয়া ও নিয়োগ সংক্রান্ত অভিযোগ থাকা।

এছাড়াও রয়েছে, প্যাটার্নবহির্ভূতভাবে নিয়োগ পাওয়ায়, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের অর্জিত সনদ অনলাইনে খুজে না পাওয়া যাওয়া, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির স্থানীয় পত্রিকার মূল কপি না থাকা, নিয়োগকালীন ম্যানেজিং কমিটির প্রমাণ সংযুক্ত না থাকা এবং এসএসসিতে ৩য় বিভাগে উত্তীণ হওয়া।

প্রাথমিক যাচাইয়ে অসম্পূর্ণ ও বিভিন্ন সমস্যা সম্বলিত কাগজপত্র ও চিহ্নিত সমস্যার জবাব আগামী ১ মাসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে জমা দিতে বলা হয়েছে। অন্যথায় তাদেরকে এমপিওভুক্ত, টাইমস্কেল ও উচ্চতর স্কেলের জন্য পুনরায় আবেদন করতে হবে বলে জানিয়েছে অধিদপ্তর।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

ঈদের ছুটি ৩০ আগস্ট থেকে ৪ সেপ্টেম্বর !

ডেস্ক: সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য সুখবর আসছে। এখন থেকে ঈদের ছুটি ছয় দিন করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। আসন্ন ঈদুল আজহা থেকে এটি কার্যকর হবে। বর্তমানে ঈদে সরকারি কর্মচারীরা ছুটি পান তিন দিন। চাকরিজীবীদের ঈদে স্বস্তিতে বাড়ি পেঁৗছাতে ছুটি বাড়ানোর এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ঈদের ছুটি বাড়ানোর একটি প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। প্রস্তাবটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন পেলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। সরকারি একটি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, প্রস্তাবটি অনুমোদন পেলে এবার ঈদের ছুটি শুরু হবে ৩০ আগস্ট বুধবার থেকে এবং শেষ হবে ৪ সেপ্টেম্বর সোমবার। যদিও এর মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি ঈদের ছুটি হিসেবে কার্যকর হবে। সব মিলিয়ে সরকারি চাকরিজীবীরা এবার ঈদের ছুটি পাবেন ছয় দিন। আর এ ছয় দিন সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। আর ঈদের এ বাড়তি ছুটি কর্মচারীদের ঐচ্ছিক ছুটি থেকে কেটে নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান বলেন, বাস্তব প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে ঈদে ছুটি বাড়ানোর একটি প্রস্তাব সরকারের উচ্চ পর্যায়ে দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে নীতিগত সিদ্ধান্ত আসার পরই এটি সর্বোচ্চ ফোরামে উপস্থাপন করা হবে। এখানে অনুমোদন পেলে ছুটির আদেশ জারি হবে। না হলে বিদ্যমান নিয়মে ছুটি থাকবে।

তিনি বলেন, সরকার ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলে বছরের নির্ধারিত ছুটি ঠিকই থাকবে। বাড়তি ছুটি কর্মচারীদের ঐচ্ছিক ছুটি থেকে কেটে নেওয়া হবে। অর্থাৎ শুধু ঐচ্ছিক ছুটির সঙ্গে ঈদের ছুটির সমন্বয় করা হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, সব ঠিকঠাক থাকলে এবার ঈদুল আজহা পালন হবে ২ সেপ্টেম্বর শনিবার। ঈদের দিন ও তার আগের দিন পড়ছে সাপ্তাহিক ছুটি। ফলে বিদ্যমান নিয়মে এবার তিন দিন ঈদের ছুটি থাকলে এর দু’দিনই পড়ছে সাপ্তাহিক ছুটি। বাড়তি কোনো ছুটি পাচ্ছেন না সরকারি চাকরিজীবীরা। চাকরিজীবীরা বৃহস্পতিবার অফিস শেষ করে বাড়ির দিকে রওনা হবেন। আবার সোমবার অফিস খোলা থাকায় ঈদের পরের দিন রোববার ঢাকামুখী হবেন। এতে একসঙ্গে রাস্তাঘাটা, ফেরি, লঞ্চ, রেলের ওপর চাপ বাড়বে। মানুষের দুর্ভোগের শেষ থাকবে না। এমনকি গ্রামের সড়কও বেহাল। তারপর এত চাপ মোকাবেলা করা প্রশাসনের পক্ষে কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে। সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ারও আশঙ্কা থাকছে। ফলে চাকরিজীবীদের নির্বিঘ্নে বাড়ি পেঁৗছতে ঈদের ছুটি বাড়ানো হচ্ছে।

জানা গেছে, ঈদে ছুটি বাড়ানোর দাবি সরকারি কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের। ২০১০ সালে ঈদুল ফিতরে সরকারি ছুটি তিন দিনের পরিবর্তে পাঁচ দিন করার একটি প্রস্তাব দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। যদিও পরে এটি নাকচ হয়ে যায়। গত ঈদুল ফিতরের ছুটিও ছয় দিন করার একটি প্রস্তাব তৈরি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এতে সম্মতি দেন; কিন্তু ওই সময় সংসদে বাজেট অধিবেশন থাকায় ছুটি বাড়ানোর প্রস্তাব আর কার্যকর হয়নি। এবার সরকারি কর্মচারীদের দাবি বিবেচনায় নিয়ে এবং ঈদে যাতে ঘরমুখো মানুষ নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারেন এ জন্য ছুটি বাড়ানোর প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে। বর্তমানে বছরে অফিস-আদালত ১৫৯ দিন বন্ধ থাকে। এর মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি থাকে ১০৪ দিন। অন্যান্য ছুটি থাকে ৫৫ দিন

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter