টপ খবর

সাধারন জ্ঞান

১ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ১১তম আইপিএল-এ সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেন কোন বােলার? অ্যান্ড্রু টাই।
২ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত আইপিএল এ সর্বোচ্চ রান করেন কোন খেলােয়াড়? কেন উইলিয়ামসন (৭৩৫)।
৩ ২০১৮ সালে পােল্যান্ডের লেখক ওলগা টোকারচুক কোন উপন্যাসের জন্য ম্যান বুকার ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার পান? ফ্লাইটস’।
৪ ২০১৮ সালে ম্যান বুকার ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার পেয়েছেন পােল্যান্ডের কোন লেখক? ওলগা টোকারচুক।
৫ ২০১৮ সালের ফ্রেঞ্চ ওপেনে পুরুষ ও নারী এককে চ্যাম্পিয়ন কে কে? পুরুষ : রাফায়েল নাদাল (স্পেন) ও নারী : সিমােনা হালেপ (রােমানিয়া)।
৬ ২০১৮-১৯ সালের বাজেটে কোন খাতে বেশি বাজেট দেয়া হয়? জনপ্রশাসন খাতে।
৭ ২২ – ২৪ জুন, ২০১৮ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত ২৭তম বইমেলার স্লোগান কী? বই হােক আমাদের উত্তরাধিকার।
৮ ২২- ২৭ মে, ২০১৮ শ্রীলংকার কলম্বােয় কততম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হয়? অষ্টম।
৯ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি দেশ খেলবে? ৪৮টি।

১০ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি দেশে অনুষ্ঠিত হবে? ৩টি কানাভা, মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র।
১১ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে? ৮০টি।
১২ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি শহরে অনুষ্ঠিত হবে? ১৬টি যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি এবং বাকি ৬টি কানাডা ও মেক্সিকোর।
১৩ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ ফাইনাল হবে কোন স্টেডিয়ামে? মেটলাইফ স্টেডিয়াম, নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র।
১৪ ৬ জুন ২০১৮ বিশ্বের প্রথম EPR পরমাণু প্রকল্পের কাজ শুরু করে কোন দেশ? চীন।
১৫ EPR’র পূর্ণরূপ কী? European Pressurized Reactor
১৬ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কত? 3.04%
১৭ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে পুরুষ ও নারী অনুপাত কত? Soo. : 3001
১৮ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে পুরুষ ও নারীর গড় আয়ু কত? ৭০.৩ ও ৭২.৯ বছর।
১৯ আল কুদস কী? জেরুজালেম শহরের অপর নাম। (রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮)

২০ ইতালির বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? কার্লো কোত্তারেল্লি।
২১ ক্যারিবীয় দ্বীপ বারবাডােজের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? মিয়া আমাের মােটলি ।
২২ জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কত? ১.৩৭%।
২৩ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম বার্ষিক অধিবেশনের প্রেসিডেন্ট কে? মারিয়া ফার্নান্দো এস্পিনােসা গরসেস; ইকুয়েডর।
২৪ দেশে সরকারি আয়ের প্রধান উৎস কী? মূল্য সংযােজন কর (মূসক) বা VAT।
২৫ পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়-এর ইংরেজি নাম কী? Ministry of Environment, Forest andClimate Change.
২৬ প্রতি হাজারে স্থূল জন্মহার কত? ১৮.৫ জন। |
২৭ প্রতি হাজারে স্থূল মৃত্যুহার কত? ৫.১ জন। (কৃষি পরিসংখ্যান বর্ষগ্রন্থ ২০১৭)
২৮ প্রত্যাশিত আয়ুষ্কাল কত? ৭২.০%।
২৯ বর্তমানে VAT’র স্তর কতটি? ৫টি; পূর্বে ছিল ৯টি।

৩০ বর্তমানে তুরস্কে কোন পদ্ধতির শাসন ব্যবস্থা বিদ্যমান? প্রেসিডেন্ট শাসিত।
৩১ বর্তমানে দেশে কতটি সেবা খাত রয়েছে? ২১টি।
৩২ বর্তমানে দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা কতটি? ১০২টি।
৩৩ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বর্তমান কোচ কে? স্টিভ রােডস (ইংল্যান্ড)।
৩৪ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বর্তমান প্রধান কে? জেনারেল আজিজ আহমেদ।
৩৫ বাংলাদেশের প্রথম নারী সলিসিটর কে? জেসমিন আরা বেগম।
৩৬ বার্বাডােজের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? মিয়া আমর মােটলি।
৩৭ বিশ্বকাপ – ২০১৮ আসরের শততম গোলদাতা কে? লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা)।
৩৮ বিশ্বকাপ – ২০১৮ এর প্রথম গােলদাতা কে? ইউরি গাজিনস্কি (রাশিয়া)।
৩৯ বিশ্বকাপ – ২০১৮ ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে কোথায়? লুঝনিকি স্টেডিয়াম, মস্কো; ১৫ জুলাই ২০১৮
৪০ বিহঙ্গ দ্বীপ কোথায় অবস্থিত? পাথরঘাটা, বরগুনা।

৪১ মােট জনসংখ্যা কত? ১৬৩.৬৫ মিলিয়ন; ১ জানুয়ারি
৪২ মেসিডােনিয়ার প্রস্তাবিত রাষ্ট্রীয় নাম কী? Republic of North Macedonia
৪৩ যুক্তরাজ্যের ইউরােপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ সংক্রান্ত BREXIT বিল আনুষ্ঠানিকভাবে আইনে পরিণত হয় কবে? ২৬ জুন ২০১৮।
৪৪ যুক্তরাষ্ট্র কৰে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ (UNHCR) ত্যাগের ঘােষণা দেয়? ১৯ জুন ২০১৮।
৪৫ লেবাননের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাম কী? মিশেল আউন হারিরি।
৪৬ সপ্তম নারী এশিয়া কাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হয় কোন দেশ? বাংলাদেশ।
৪৭ সম্প্রতি উত্তর আমেরিকায় কততম ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের আয়ােজন করা হয়? সপ্তদশ।
৪৮ সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া তাদের কোন পরমাণু পরীক্ষা কেন্দ্র বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে? ‘পুংগিয়ে-রি’।
৪৯ সম্প্রতি এভারেস্ট জয়ী পর্বতারােহী . এমএ মুহিত কোন পর্বত জয় করেন? লাকপ রি পর্বত।
৫০ সম্প্রতি কানাডার অন্টারিও প্রদেশের প্রাদেশিক নির্বাচনে বিজয়ী বাংলাদেশি নারীর নাম কী? ডলি বেগম।
৫১ সম্প্রতি দুই বাংলার চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য কোলকাতার ১৭ তম ‘টেলি সিনে অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী অভিনেত্রী ববিতাকে কোন সম্মাননা ” প্রদান করা হয়? আজীবন সম্মাননা।

৫২ সম্প্রতি নির্বাচিত স্পেনের নতুন প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? পেদ্রো সানচেজ।
৫৩ সম্প্রতি বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) নতুন কান্ট্রি ডিরেক্টর হিসেবে নিয়ােগ পেয়েছেন কে? টুমাে পৌটিআইনেন।
৫৪ সম্প্রতি ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’এবং পাকিস্তানের গােয়েন্দা সংস্থা আইএস আই’এর দুই সাবেক প্রধান অমরজিৎ সিং দুলাত ও আসাদ দুররানি একসঙ্গে মিলে যে বইটি লিখেছের তার নাম কী? “দ্য স্পাই ক্রনিকলস।
৫৫ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোতে প্রথমবারের মতাে যে কৃষ্ণাঙ্গ নারী মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন তাঁর নাম কী? লন্ডন ব্রিড।
৫৬ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ও জেমস প্যাটারসনের সম্মিলিতভাবে লিখিত রােমাঞ্চকর গল্পের বইয়ের নাম কী? দ্য প্রেসিডেন্ট ইজ মিসিং।
৫৭ সম্প্রতি শিল্পোন্নত দেশগুলাের জোট গ্রুপ অব সেভেন (জি- ৭) সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় কোথায়? কানাডার কুইবেকে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চাকরিতে বয়সসীমা ৩৫ !

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট : চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার জন্য গত ২৭ জুন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সুপারিশ করে এবং একই সঙ্গে অবসরের বয়সসীমা ৬৫ বছর করার পরামর্শ দেয়।

কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পক্ষে শনিবার বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের মানববন্ধন করে।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক হারূন-অর রশিদ বলেন, সরকারের বর্তমান মেয়াদের মধ্যে এ সুপারিশ বাস্তবায়ন করতে হবে। নবম সংসদের নির্বাচনের আগেও চাকুরিতে আবেদনের বয়স বাড়ানোর জন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু বাস্তবে তার সুফল এদেশের উচ্চ শিক্ষিত ছাত্ররা এখনো লাভ করেনি। তাই আসছে নির্বাচনের আগেই এটা অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে হবে।

এসময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক সবুজ ভূঁইয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক কামরুন নাহার ঝুমা, যুগ্ম আহ্বায়ক রীপা প্রমুখ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঢাকা উইমেন কলেজে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

ঢাকা উইমেন কলেজে উপাধ্যক্ষ ও শিক্ষক নিয়েগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট: রাজধানী ঢাকার জিগাতলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) গেটের সামনে শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা চালিয়েছে একদল যুবক। তাদের মাথায় হেলমেট পরা ছিল। দুই পক্ষকে ইটপাটকেল ছুড়তে দেখা যায়। আজ শনিবার বেলা দুইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আজ সকাল থেকে ওই এলাকায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা জড়ো হতে শুরু করে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। হাজার হাজার শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান নেয়। বেলা দুইটার দিকে বিজিবি গেটের সামনে শত শত শিক্ষার্থীর একটি অংশের ওপর হঠাৎ করে হেলমেট পরা লাঠি হাতে ২৫-৩০ জনের এক দল যুবক হামলা চালায়। ওই সময় বিজিবির সদস্যরা গেট থেকে সামনে এসে যুবকদের থামানোর চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে শিক্ষার্থী ও হামলাকারীরা একে অপরের দিকে ইটপাটকেল ছোড়া শুরু করে।

২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহন লিমিটেডের একটি বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। ওই ঘটনার প্রতিবাদে সেদিন থেকেই শিক্ষার্থীরা রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে নির্মাতা ফারুকীর খোলা চিঠি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের উদ্দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খোলা চিঠি লিখেছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী।

আজ শনিবার সকালে লেখা চিঠিতে ফারুকী বলেন, ‘প্রিয় মোস্তাফা জব্বার ভাই,কিশোর বিদ্রোহের এই অনন্যসাধারণ ব্যাপারটাকে ভিলিফাই করার চেষ্টা করবেন না, প্লিজ। মনে রাখবেন, এরা আপনাদের শত্রু না। এরাই আপনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রধান সৈনিক হবে। মিরপুরে লাঠি হাতে যারা দাপিয়ে বেড়িয়েছে তাদের দিয়া জয় ভাইয়েরও কাজ হবে না, ববি ভাইয়েরও না। লাগবে এসব সোনার ছেলেমেয়েদেরই। আরো মনে রাখবেন, দুই হাজার আটে সাধারণভাবে তরুণরা আপনাদের পক্ষে ছিল বলেই আপনাদের পক্ষে জোয়ার আসছিল। ভাবেন এই ছেলেমেয়েরা পাঁচ-দশ বছর কোথায় যাবে। তখন এরা কত জরুরি হবে আপনাদের কাছে।’

চলচ্চিত্র নির্মাতা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি আমরা মেনে নিচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রেদওয়ান মুজিব তাদের সম্মানে হেঁটে অফিসে গেলেন। ডিএমপির মনির ভাই বললেন শিক্ষার্থীরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে।

‘এখন হঠাৎ করে বিচ্ছিন্ন দুয়েকটা ঘটনা, স্লোগান আর ভাষা নিয়া অহেতুক আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ছোট করার ব্যর্থচেষ্টা করবেন না। এতে আপনি, আমি, আমরা, আমাদের ভবিষ্যৎ সবাই ছোট হচ্ছি। গালি বা স্ট্রিট ল্যাংগুয়েজের নন্দন তত্ত্ব, সামাজিক ব্যাখ্যা এসবে না গিয়ে আপনাকে খেয়াল করিয়ে দিতে চাই এসব দুয়েকটা ঘটনা এই আন্দোলনের আসল চিত্র ছিল না। এত হাজার হাজার ছেলেমেয়ে রাস্তায় এসেছে তাদের মধ্যে কত রকমের মানুষ থাকতে পারে। নব্বইয়ে ছিল না এই রকম অতি সামান্য বিচ্ছিন্ন উপাদান?’

চিঠিতে লেখা হয়, ‘আমি বরং সেসব নিয়ে কথা না বলে খেয়াল করাতে চাই এই আন্দোলন কত রাজনৈতিকভাবে সচেতন স্লোগান ব্যবহার করেছে । খেয়াল করিয়ে দিতে চাই, পুলিশ-ছাত্র গলাগলি করে কীভাবে দাঁড়িয়েছিল ফার্মগেটে, কি সুমধুর সুরে এরা জাতীয় সংগীত গেয়েছে, কি সুন্দরভাবে লাইসেন্স চেক করে থ্যাংক ইউ বলেছে, কোথাও কোথাও চকলেট দিয়েছে। খেয়াল করাতে চাই এদের বক্তব্যে এবং কণ্ঠে কতবার বঙ্গবন্ধুর কথা উঠে এসেছে রেফারেন্স হিসেবে। নতুন প্রজন্মের হৃদয়ে বঙ্গবন্ধুকে এভাবে দেখেও কি আপনি আশাবাদী হন নাই? আমি তো ভীষণ হয়েছি।’

ফারুকী আরো বলেন, ‘এখন ওদের হাসিমুখে ঘরে ফিরতে দেন আর যে কাজ করার ওয়াদা করেছেন সেগুলোতে হাত দেন। তারপর আমরা সবাই মিলে একসাথে এগিয়ে যাই সামনের দিকে।

এবার নিচে এই আন্দোলনের কিছু জনপ্রিয় স্লোগানের লিস্ট দিয়ে দিলাম যদি আপনি মিস করে থাকেন এই ভয়ে।’

‘১. হয়নি বলেই আর হবে না, আমরা বলি বাদ দে। লক্ষ তরুণ চেঁচিয়ে বলে পাপ সরাবো হাত দে।
২. যদি তুমি ভয় পাও তবে তুমি শেষ , যদি তুমি রুখে দাড়াও তবে তুমি বাংলাদেশ।
৩. জনপ্রতিনিধিদের সপ্তাহে অন্তত তিনদিন গণপরিবহনে যাতায়াত করতে হবে।
৪. পারলে মাথায় গুলি কর, তাহলে মেধা মারা যাবে, কিন্তু বুকে গুলি করিস না, এখানে বঙ্গবন্ধু ঘুমায়, বন্ধু জেগে গেলে সব ধ্বংস হয়ে যাবে।
৫. আমরা নয় টাকায় এক জিবি চাই না ‘নিরাপদ সড়ক চাই’।
৬. চার কোটি শুক্রাণুর সাথে লড়াই করে জন্মেছি, চাকার তলায় পিষার জন্য নয়।
৭. পথ খুলবে বলেই রাস্তা আটকাই।
৮. শিক্ষকের বেতের বাড়ি নিষেধ যেই দেশে, পুলিশের হাতে লাঠি কেন সেই দেশে।
৯. আর নবারুন ভট্টাচার্যর কবিতাটা যেটার লাইন আমার হুবহু মনে পড়ছে না।
১০. টনক তুমি নড়বে কবে?
১১. ন্যায্য দাবির মিছিলে যে চোখ
সে চোখ জেগেছে জয়ে
মিছিল কখনো থামে না বুলেটে
স্লোগান থামে না ভয়ে।’

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, ‘আমার তো মনে হয় না ওদের বয়সে আমি এই রকম গুছিয়ে বলতে পারতাম। মনে পড়ে মহল্লার সরু রাস্তা ছেড়ে বড় রাস্তায় উঠলে জড়তায় সংকুচিত হয়ে থাকতাম। সেখানে মহাসড়কে নেমে এত গুছিয়ে একটা আন্দোলন তো অনেক দূরে কথা। আপনি কি পারতেন, প্রিয় জব্বার ভাই? আপনাকে ধন্যবাদ।’

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। জাবালে নূর পরিবহনের দুটি বাস প্রতিযোগিতা করে মিরপুর থেকে ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে আসছিল। এ সময় ফ্লাইওভারের শেষ দিকে, রাস্তার পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল একদল শিক্ষার্থী। এর মধ্যে একটি বাস ফ্লাইওভার থেকে নেমেই দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। এ ছাড়া আহত হয় বেশ কয়েকজন। নিহতরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব।

ওই ঘটনার পর থেকেই বিমানবন্দর সড়কসহ বিভিন্ন এলাকায় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে টানা কয়েক দিন। ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ দাবিতে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকীসহ অনেক শিল্পী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ছাত্ররা ঘরে ফিরলেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে : কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট: অাওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অান্দোলনকারীদের সব দাবি মেনে নিয়েছি। অনেকগুলো বাস্তবায়নের পথে। তাই অাবার তাদের বলবো অনেকে ঘরে ফিরেছে, তোমরাও ঘরে ফিরে যাও। ছাত্ররা ঘরে ফিরলেই পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে।

তিনি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে অাইন পাস হচ্ছে। অাগামী সোমবার মন্ত্রিসভায় এবং পরবর্তী সংসদ বসলে এ অাইন পাস করা হবে।

শনিবার ধানমন্ডিস্থ অাওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে অায়োজিত সম্পাদকমণ্ডলীর সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল অালম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, এনামুল হক শামীম, বি এম মোজাম্মেল হক, দফতর সম্পাদক ড. অাবদুস সোবহান গোলাপ, কৃষিবিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের বাড়িতে গেছেন এবং অার্থিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। এরপর অার কী বলার থাকে?

তিনি বলেন, কোমলমতি ছাত্রদের অান্দোলনে যখন অনুপ্রবেশকারী ঢোকে এবং সহিংস ঘটনা ঘটায় তখন ছাত্রদের সেটা দেখতে হবে এবং একইসঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তা না হলে সরকার ব্যবস্থা নেবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে কাদের কলেন, বিএনপি নামক একটি নালিশ পার্টি অাছে। এরা জনগণ থেকে ক্রমান্বয়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে। ফখরুলসহ প্রথম সারির নেতারা পদত্যাগ করলে দেশের মানুষ মুক্তি পায়, বিএনপির নেতারাও মুক্তি পায়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিলে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ সাকিবের

তোমরা যা করেছ, তা এদেশে ইতিহাস হয়ে থাকবে
* এ অর্জন সফল হবে তোমাদের পড়ার টেবিলে ফিরে যাওয়ার মাধ্যমে
*তোমাদের দাবি পূরণ হয়েছে এবং হচ্ছে, ব্যত্যয় ঘটলে আমাকে পাবে তোমাদের সাথে

ডেস্ক: বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থী নিহতের পর দেশজুড়ে আন্দোলন করছে ছাত্র-ছাত্রীরা। তাদের পক্ষ থেকে এসেছে ‘নয় দফা দাবি’। যে দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছে তারা। গত কয়েকদিন ধরে এতে প্রায় থমকে গেছে দেশ। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে বড় বড় তারকারা। এবার এই শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কথা বললেন বাংলাদেশের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ খেলতে এখন বাংলাদেশ দল যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায়। সেখান থেকেই আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘ফেসবুক’-এ একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন সাকিব। যাতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সমর্থন জানিয়েছেন তিনি। তবে তাদের দাবি কার্যকর হচ্ছে জানিয়ে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাসে ফিরে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করার অনুরোধ জানিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

নিজের ফেসবুক ভেরিফাইড পেজে সাকিব লিখেছেন, ‘আমি এখন ফ্লোরিডায় আছি। আজ এক গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আমার তরুণ ফ্যানদের উদ্দেশ্যে কিছু বলতে চাই।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থী দিয়া ও আবদুল করিম নিহত হওয়ার ঘটনায় আমি প্রচণ্ড মর্মাহত ছিলাম। কিন্তু যখন দেখলাম তার সহপাঠী থেকে শুরু করে সারাদেশের ছাত্রছাত্রীরা দোষীদের শাস্তি দাবি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে, তখন গর্ববোধ করেছি বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে। দেশে থাকলে আমিই তোমাদের অটোগ্রাফ নেয়ার জন্য চলে আসতাম।

তোমাদের সাধুবাদ জানিয়ে বলতে চাই, তোমাদের দাবি কার্যকর হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিহত পরিবারকে আর্থিক সহায়তা ছাড়াও নিরাপদ সড়ক আইন করতে আন্তরিকভাবে কাজ করছেন। ইতোমধ্যে অভিযুক্ত পরিবহনের রুট পারমিট বাতিলসহ পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ অবস্থায় তোমাদের কাছে বিনীত অনুরোধ করবো, ক্লাসে ফিরে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করতে। তোমরা যা করেছ, তা এদেশে ইতিহাস হয়ে থাকবে। এ অর্জন সফল হবে তোমাদের পড়ার টেবিলে ফিরে যাওয়ার মাধ্যমে।

তোমাদের দাবি পূরণ হয়েছে এবং হচ্ছে। ব্যত্যয় ঘটলে আমাকে পাবে তোমাদের সাথে।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

‘আমাকে রাতের পোশাকে দেখতে চেয়েছিলেন পরিচালক

‘আমাদের জগতে মেয়েদের নানাভাবে অত্যাচার করা হয়। আমার কাছেও এক কুরুচিকর প্রস্তাব এসেছিল। আমি তখন বলিউডে নতুন নতুন এসেছি। চলচ্চিত্রের একজন পরিচালকের সঙ্গে ছবির ব্যাপারে কথা বলতে যাই। তিনি আমাকে রাতের শয্যার পোশাকে দেখতে চান। পরিচালক বলেন, ‘স্লিভলেস নাইটি পরে আমাকে আগে দেখাও। এই কথা শুনে আমি ওখান থেকে দ্রুত বেরিয়ে আসি।’ বললেন বলিউড তারকা মাহি গিল। গত ২৭ জুলাই মুক্তি পেয়েছে ‘সাহেব, বিবি ঔর গ্যাংস্টার থ্রি’। ছবিতে অভিনয় করেছেন সঞ্জয় দত্ত, জিমি শেরগিল, মাহি গিল, চিত্রাঙ্গদা সিং, সোহা আলী খান প্রমুখ। মুক্তির আগে এই ছবির প্রচারণা করতে গিয়ে সাংবাদিকের মুখোমুখি হন মাহি গিল। ওই সময় ‘কাস্টিং কাউচ’ নিয়ে মুখ খোলেন তিনি।

মাহি গিলমাহি গিলবলিউডে নিজের সেই শুরুর দিনগুলো প্রসঙ্গে মাহি গিল বলেন, ‘ওই সময় প্রচুর লড়াই করেছি। তবে আমার “না” বলার ক্ষমতা ছিল। কাজ পাওয়ার জন্য ওই পরিচালকের প্রস্তাবে রাজি হইনি। অনেকের মধ্যে “না” বলার সাহস থাকে না। ওই পরিস্থিতিতে বুঝে উঠতে পারেন না, কী করবেন। বিশেষ করে যাঁরা ছোট শহর থেকে আসেন, তাঁরা খুব অসহায় বোধ করেন।’

এক সপ্তাহ পর জানা গেছে, ১০ কোটি রুপি বাজেটের ‘সাহেব, বিবি ঔর গ্যাংস্টার থ্রি’ ছবিটি ব্যবসায়িক দিক থেকে একেবারই সুবিধা করতে পারেনি। ছবিটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছে। তবে ছবিতে মাহির অভিনয় খুব প্রশংসিত হয়েছে।

মাহি গিলমাহি গিলএদিকে ‘সাহেব, বিবি ঔর গ্যাংস্টার থ্রি’ ছবিতে মাহি গিলকে কিছু সাহসী দৃশ্যে বেশি দেখা গেছে। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘গোড়ার দিকে ছবিতে আমি অনেক খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করেছিলাম। তারপর আমার কাছে এ ধরনের ছবির প্রস্তাব বেশি এসেছে। তবে চিত্রনাট্যে প্রয়োজন থাকলে এ রকম দৃশ্যে নিশ্চয়ই অভিনয় করব। শুধু শরীর প্রদর্শন করার জন্য তা কখনোই করব না।’

বলিউডের কাজের পরিবেশ নিয়ে মাহি বলেন, ‘আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি অনেক ভালো। এখানে কারও ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছু করা হয় না। আমাদের জগতে ধর্ষণের মতো কুরুচিকর ঘটনা ঘটে না। সেদিক থেকে আমাদের ইন্ডাস্ট্রি অনেক নিরাপদ। অন্য জগতের থেকে অনেক ভালো।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রিকশাও চলে লাইন ধরে

নিজস্ব প্রতিবেদক,৩ আগষ্ট: রাজধানীর কুর্মিটোলায় দুই শিক্ষার্থীকে চাপা দেওয়ার ঘটনায় বিক্ষোভ করতে রাস্তায় নামা শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরনের পরিবহনের কাগজপত্র পরীক্ষা করছে। এর মধ্যেই রাস্তায় ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের কাজেও লেগে পড়েছে তারা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় সারিবদ্ধভাবে রিকশা চলাচলের ব্যবস্থা করে ট্রাফিক পুলিশের জন্য এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

সরেজমিন ধানমন্ডি ১ এলাকা ঘুরে দেখা যায়, রাস্তার ৩টি মোড়ে অবস্থান নিয়েছে কিছু শিক্ষার্থী। সাইন্স ল্যাবে পুলিশ বক্সের সামনে, ১ নম্বর সড়কের মাঝামাঝি চৌরাস্তায় এবং ১ নম্বর সড়ক থেকে বের হয়ে সাত মসজিদ রোডের মোড়ে অবস্থান নিয়ে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করছে শিক্ষার্থীরা। তারা জানায়, নিরাপদ সড়কের পাশাপাশি রাস্তায় পরিবহন ব্যবস্থায় কীভাবে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা যায় তা দেখাতে চান তারা। তাদের মতে, ট্রাফিক পুলিশের পক্ষেও এ কাজ সম্ভব যদি তাদের সদিচ্ছা থাকে। একটু চেষ্টা করলেই লাইনে আনা সম্ভব।.

বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) সকালে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা এক লেনে গাড়ি চালাতে বাধ্য করার পাশাপাশি গাড়ির কাগজপত্র এবং ড্রাইভারের লাইসেন্স পরীক্ষা করছে। যারা দেখাতে ব্যর্থ হচ্ছে তাদের নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

রাস্তায় শৃঙ্খলা দেখে এই রাস্তায় প্রতিদিন যাতায়াতকারী অনেকেই ছাত্রদের এ কাজকে স্বাগত জানিয়েছেন। নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী ফারুক বলেন, ‘এই রাস্তা ধরে সপ্তাহের প্রতিদিন যাওয়া-আসা করি। মঙ্গলবার মার্কেট বন্ধ থাকে বলে এই রাস্তা একটু ফাঁকা থাকে। না হলে প্রত্যেক দিন জ্যাম লেগে থাকে। রিকশাগুলো লাইন করে ৫-৬টা। যার কারণে বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়িগুলো আসতে পারে না। শিক্ষার্থীরা যা করছে এটা তো পুলিশের করার কথা। তাদের একটি পুলিশ বক্স আছে মোড়ে। তারপরও তারা ব্যর্থ। শিক্ষার্থীরা শতভাগ সফল।’.

 

এই এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা রিকশাচালক মিজান জানান, ‘এই রাস্তায় সব এক লাইনে চললে তো জ্যাম থাকবো না। আমরাও সমর্থন করি। আমাদেরও জ্যামে সময় নষ্ট হয়। ভালা কাজ করসে তারা।’

অন্যদিকে ধানমন্ডি ল্যাবএইডের সামনেও একই চিত্র দেখা যায়। সেখানে এক লেনে গাড়ি, এক লেনে রিকশা, আর আরেক লেনে মোটরসাইকেল প্রবেশের সুযোগ করে দিচ্ছে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত সিটি কলেজের শিক্ষার্থী রাসেল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘চেষ্টা থাকলে সবাইকে লাইনে আনা সম্ভব। এই রাস্তায় আমরা প্রতিদিন যাওয়া আসা করি। মানুষের কী পরিমাণ দুর্ভোগ হয় আমরা জানি। তাই এই লাইনে আনার চেষ্টা। চাইলে ট্রাফিক পুলিশও করতে পারে এই কাজ। কিন্তু তাদের সদিচ্ছা নেই মনে হয়। থাকলে আমাদের উদ্যোগ নিতে হতো না।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে স্পিডব্রেকার ও ট্রাফিক মোতায়েনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক,৩আগষ্ট: প্রত্যেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে স্পিডব্রেকার (গতিরোধক) নির্মাণ ও বিশেষ ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েনের নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াতের জন্য পাঁচটি বাস প্রদান এবং স্কুল সংলগ্ন বিমানবন্দর সড়কে আন্ডারপাস নির্মাণের নির্দেশ দেন।

ঢাকা বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত স্কুলছাত্র দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিমের পরিবারের সদস্যরা বৃহস্পতিবার তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে এ নির্দেশনা দেন বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

প্রেসসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব স্কুলের সামনে স্পিডব্রেকার স্থাপন, প্ল্যাকার্ডধারী বিশেষ ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন, শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ সংলগ্ন বিমানবন্দর সড়কে আন্ডারপাস নির্মাণ এবং ওই স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের যাতায়াতের জন্য পাঁচটি বাস প্রদান করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল নূর নাহার ইয়াসমিন তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তানেরা পড়তে আসেন উল্লেখ করে তাদের যাতায়াতের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে বাস দেওয়ার অনুরোধ করেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

যথেষ্ট হয়েছে, তোমরা ক্লাসে ফিরে যাও, বাসায় ফিরে যাও।’

নিজস্ব প্রতিবেদক,৩ আগষ্ট: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘দুই সহপাঠী হারিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যে প্রতিবাদ জানিয়েছে, তা যৌক্তিক। কিন্তু এ কারণে সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়ছে। তা ছাড়া কোমলমতি এই শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সুযোগ নিয়ে অন্তর্ঘাতমূলক তৎপরতা (সাবোটাজ) ও দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কাছে আমার অনুরোধ, যথেষ্ট হয়েছে, তোমরা ক্লাসে ফিরে যাও, বাসায় ফিরে যাও।’

আজ বৃহস্পতিবার রাতে ধানমন্ডিতে নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ অনুরোধ করেন। তিনি শিক্ষার্থীদের বোঝানোর জন্য মা-বাবা ও প্রতিবেশীদের প্রতিও আহ্বান জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে, তাতে সাবোটাজ ও দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আন্দোলন নিয়ে সুবিধাবাদীরা ষড়যন্ত্র করতে পারে। যদি কিছু ঘটে, তবে নিরাপত্তাবাহিনী এর দায় নিতে পারবে না। কেননা তারা দূরে দূরে থাকছে। এ কারণে কোনো একটা কিছু ঘটলে তারা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে পারবে না। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা সড়কে যে কাজ করছে, সেটা তাদের কাজ নয়। তারা আন্দোলনের অংশ হিসেবে এটা করছে। তাই বলব, তোমাদের কাছে অনুরোধ করব, যথেষ্ট হয়েছে, এখন ফিরে যাও, যার যে কাজ তাকে সেই কাজ করতে দাও।’

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে রাজধানী অচল হয়ে পড়েছে। গাড়ি চলছে না। ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের ভয়ে মালিকেরা গাড়ি বের করছেন না। ফলে মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছে। চরম দুর্ভোগ চলছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কাছে অনুরোধ, যেহেতু দাবি মানা হয়েছে এবং কিছু দাবি মানা প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। তাই তোমরা ক্লাসে ফিরে যাও। কেননা তোমাদের এ আন্দোলন ঘিরে সহিংসতা হতে পারে, সাবোটাজ হতে পারে। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আপনারা দেখেছেন, আন্দোলনের মধ্য রাজারবাগ পুলিশ লাইনে, কাফরুল থানায়, মিরপুরে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, পুলিশ চরম ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। ইতিমধ্যে অনেকেই আন্দোলন নিয়ে ফেসবুকে প্রচারণা চালাচ্ছেন। ২০১৩ সালের ছবি পোস্ট করে বলছে পুলিশ শিক্ষার্থীদের মারধর করছে। এর পেছনে অনেকের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ও অভিলাষ রয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষনা

নিজস্ব প্রতিবেদক,১্আগষ্ট:  দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। কিছুক্ষণের মধ্যে এ বিষয়ে আদেশ জারি করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী শোকার্ত কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শোক সংবরণ করে শান্ত থাকতে এবং ধৈর্য ধারণ করার আহ্বান জানান।
এর আগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় শিক্ষামন্ত্রী মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীর নিহত ও কয়েকজন শিক্ষার্থীর আহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনায় সহপাঠীর মৃত্যুতে কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ আমরা শিক্ষা পরিবারের সবাই শোকার্ত।’
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ওই দুর্ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা এবং সড়ক পরিবহনকে সুশৃঙ্খল ও নিরাপদ করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন। সে অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং দোষীদের গ্রেপ্তার করেছে। দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণ অব্যাহত আছে।
সভায় মন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সব শিক্ষক, অভিভাবক ও অন্যদের শিক্ষার্থীদের পাশে থেকে শিক্ষা কার্যক্রমে সহযোগিতা করার জন্য ভূমিকা রাখতে বিশেষভাবে অনুরোধ জানান।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিকে ১২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

ডেস্ক,৩১ জুলাই:সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট নিরসনে রাজস্বখাতভুক্ত নতুন করে আরও ১২ হাজার ‘সহকারী শিক্ষক’ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। পার্বত্য তিন জেলা রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান ব্যতীত এ দরখাস্ত আহ্বান করা হয়েছে। সোমবার এ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই)। আগামী ১ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টা থেকে অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়ে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত চলবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চাকরিবিধি অনুযায়ী আবেদনের ক্ষেত্রে ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশি নাগরিকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন। শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে এতে পুরুষদের জন্য স্নাতক বা সমমানের দ্বিতীয়/বিভাগ বা শ্রেণিতে পাশ থাকতে হবে। আর নারীদের জন্য উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট বা সমমান পরীক্ষায় ন্যূনতম দ্বিতীয়/বিভাগ/সমমানে পাশ হতে হবে।

আগ্রহী প্রার্থীরা অনলাইনে dpe.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন কার্যক্রম আগামী ১ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টা থেকে অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়ে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। আবেদন করার পর প্রার্থীকে পরীক্ষার ফি বাবদ অফেরতযোগ্য সার্ভিস চার্জসহ ১৬৬ টাকা ৫০ পয়সা যে কোনো টেলিটক মোবাইল নম্বর হতে এসএমএসের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ে পরিশোধ করতে হবে।

jagonews24

ডিপিই সূত্র জানায়, বর্তমানে সারা দেশে প্রায় ৬৪ হাজার ৮২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। তার মধ্যে প্রায় ১২ হাজার সহকারী শিক্ষক শূন্য রয়েছে। এ কারণে নতুন করে রাজস্বখাতভুক্ত আরও ১২ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পুরনো নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। ফলে নারী আবেদনকারীদের ৬০ শতাংশ কোটায় এইচএসসি বা সমমান পাশ এবং পুরুষের জন্য ৪০ শতাংশ কোটায় স্নাতক বা সমমান পাশ রাখা হয়েছে।

ডিপিই’র মহাপরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল জাগো নিউজকে বলেন, নতুন করে রাজস্ব খাতে প্রায় ১২ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দিতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে শিক্ষক নিয়োগের প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

তিনি বলেন, নতুন নিয়োগ বিধিমালার কাজ সম্পন্ন না হওয়ায় পুরনো নিয়োগ বিধির আলোকে এই নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। সে অনুযায়ী আগের সব বিষয় বহাল থাকবে।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখতে ক্লিক করুন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শনিবার থেকে এমপিওভুক্তির অনলাইন আবেদন শুরু

ডেস্ক,৩১ জুলাই: আগামী শনিবার (৪ আগস্ট) থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে অনলাইন আবেদন কার্যক্রম শুরু হবে। পরবর্তী ১৫ দিন পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলবে। এ সংক্রান্ত গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন এমপিওভুক্তি সংক্রান্ত কমিটির প্রধান মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ।

এ বিষয়ে জাবেদ আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘সকল প্রক্রিয়া শেষ। আগামী ৪ আগস্ট থেকে অনলাইন আবেদন কার্যক্রম শুরু হবে। পরবর্তী ১৫ দিন পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হবে। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে আবেদনকারী প্রতিষ্ঠানের তালিকা ও তাদের দেয়া তথ্য-উপাত্ত প্রতিবেদন আকারে শিক্ষা সচিব বরাবর দেয়া হবে। এ সংক্রান্ত কাল বুধবার একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘এমপিওভুক্তি আবেদন গ্রহণ সফটওয়্যারটি একটি অটোমেশন সিলেকশন সফটওয়্যার হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। শর্ত পূরণ ও এমপিওভুক্তির জন্য যোগ্যদের অটোমেটিকভাবে একটি তালিকা আকারে সেট করবে। আমরা সেই প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেব।’ এ সফটওয়্যারের মাধ্যমে শুধুমাত্র জেনারেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আবেদন গ্রহণ করা হবে বলেও জানান জাবেদ আহমেদ।

এমপিওভুক্তির নীতিমালা অনুযায়ী দেখা গেছে, এক একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাত্র একটি স্তরে এমপিও দেয়া হবে। অর্থাৎ কোনো প্রতিষ্ঠান ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত হলে, সেখানে নিম্ন মাধ্যমিক (অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত) অথবা মাধ্যমিক (নবম-দশম) যে কোনো একটি স্তরে এমপিওভুক্ত করা হবে। সফটওয়্যার সেভাবে তৈরি হচ্ছে।

শিক্ষা মন্ত্রলালয় সূত্রে জানা গেছে, সারাদেশে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকলেও প্রথম পর্যায়ে মাত্র ১ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তি করা হবে। তার মধ্যে নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক স্কুল পর্যায়ে ৪০০টি, স্কুল অ্যান্ড কলেজ ১০, কলেজ ৭৫, ভোকেশনাল স্কুল ও কলেজ ৩০০টি, মাদরাসা ১০০টি এবং ১১৫টি বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ রয়েছে।

এমপিও নীতিমালায় বলা আছে, শিক্ষকদের নিয়োগে ৩৫ বছর নির্ধারণ করে নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে। ১০০ নম্বরের গ্রেডিংয়ের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি করা হবে। তার মধ্যে একাডেমিক স্বীকৃতিতে ২৫ নম্বর (প্রতি দুই বছরের জন্য পাঁচ নম্বর। ১০ বা তার চেয়ে বেশি বয়স এমন প্রতিষ্ঠানের জন্য ২৫ নম্বর)। শিক্ষার্থীর সংখ্যার ওপর ২৫ নম্বর (কাম্য সংখ্যার জন্য ১৫ নম্বর, এরপর ১০ শতাংশ বৃদ্ধিতে পাঁচ নম্বর)। পরীক্ষার্থীর সংখ্যার জন্য ২৫ নম্বর (কাম্য সংখ্যার ক্ষেত্রে ১৫ ও পরবর্তী প্রতি ১০ জনের জন্য পাঁচ নম্বর)। পাবলিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণের জন্য ২৫ নম্বরের (কাম্য হার অর্জনে ১৫ নম্বর ও পরবর্তী প্রতি ১০ শতাংশ পাসে পাঁচ নম্বর) গ্রেডিং করা হবে।

প্রভাষকদের এমপিওভুক্তিতে বিষয়ভিত্তিক ২৫ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। তবে বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১৫ জন করা হচ্ছে। তবে নতুন জনবল কাঠামোতে সৃষ্ট পদের শিক্ষক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতা দেয়া হবে না, কিন্তু নতুন পদে এমপিওভুক্ত করা হবে। নতুন জনবল কাঠামোর বাইরে কর্মরত পদ শূন্য হলে নতুন করে নিয়োগ দেয়া যাবে না। যারা এমপিওভুক্ত নন কিন্তু বৈধভাবে নিয়োগ পেয়েছেন, তাদের নতুন পদে পদায়ন করতে হবে।

এদিকে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রায় এক মাস ধরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলন করেন। এর মধ্যে গত ১৫ দিন ধরে আমরণ অনশন পালন করেন তারা।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এমপিওভুক্তির ভুয়া চিঠি :মন্ত্রণালয়ের সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি

ডেস্ক,২৭ জুলাই: শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্টের স্বাক্ষর জাল করে বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এমপিওভুক্তির একটি ভুয়া চিঠি পাঠিয়েছে একটি প্রতারক চক্র। এমপিওর ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড সংগ্রহ সংক্রান্ত এ চিঠিটির সাথে মন্ত্রণালয়ের কোন সম্পৃক্ততা নেই জানিয়ে একটি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার (২৬ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্টের ভুয়া স্বাক্ষরে পাঠানো চিঠিতে  ডাচ বাংলা ব্যাংকের একটি মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট (Md.monuar Hossain A/C No: 7017019622076) দুই হাজার টাকা জমা দিয়ে এমপিও ইউসার আইডি ও পাসওয়ার্ড সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সতর্কিকরণ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ‘এ ধরনের চিঠির সাথে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের কোন  সংশ্লিষ্টতা নেই।’

এ ধরণের প্রতারক চক্র থেকে সংশ্লিষ্ট সকলকে সাবধান থাকতে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সুত্র: দৈনিক শিক্ষা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free