টপ খবর

পঞ্চগড়ে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে লাখো কণ্ঠে শপথ নিলো শিক্ষার্থীরা

পঞ্চঘড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ের মাধ্যমিক ও তদুর্ধ্ব প্রায় দেড় লক্ষ শিক্ষার্থী সামাজিক অভিসাপ বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে একযোগে লাখো কণ্ঠে শপথ গ্রহণ করেছে। একই সাথে তারা সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও মাদক প্রতিরোধেও শপথ গ্রহণ করে।
বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় প গড় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে উৎসব মুখর পরিবেশে জেলার ৩৮৯ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা একযোগে এই শপথ পাঠে অংশ নেয়। এ সময় সামাজিক অভিসাপ বাল্য বিবাহ, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও মাদক মুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ্যে দীপ্ত অঙ্গীকার করে শিক্ষার্থীরা। শপথ পাঠ করান নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানেরা।
পঞ্চগড় বিপি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শপথ পাঠ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহমেদ। এ সময় অন্যদের মধ্যে প গড় জেলা প্রশাসক অমল কৃষ্ণ মন্ডল, জেল পুলিশ সুপার গিয়াস উদ্দিন আহমদ ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শঙ্কর কুমার ঘোষ উপস্থিত ছিলেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার তারিখ প্রকাশ, জেনে নিন কবে-কখন

ঢাকা: জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার তারিখ প্রকাশ হয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ২০১৭ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষা ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা।

আজ বুধবার পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে। বোর্ডের ওয়েবসাইটে http://(http://dhakaeducationboard.portal.gov.bd)সময়সূচি দেওয়া হয়েছে। সময়সূচি অনুযায়ী, ১ নভেম্বর এবার থেকে জেএসসির নিয়মিত শিক্ষার্থীদের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা এবং চারু ও কারুকলা বিষয়ের পরীক্ষা হবে না। এই বিষয়গুলোর জন্য শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক মূল্যায়নের (শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানই করবে) মাধ্যমে প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে সরবরাহ করতে বলা হয়েছে। এরপর সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র পরীক্ষা চলাকালীন বোর্ডের ওয়েবসাইটে অনলাইনের মাধ্যমে ধারাবাহিক মূল্যায়নের প্রাপ্ত নম্বর এন্ট্রি করে পাঠাবে। তবে অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের এই তিন বিষয়ের পরীক্ষা হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

১৬৬৩ কর্মকর্তা নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক :

রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, রূপালী, জনতা ব্যাংকসহ মোট ছয়টি ব্যাংকসহ দুটি সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে মোট ১ হাজার ৬৬৩ জন কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক লিমিটেডে ৫২৭ জন, জনতা ব্যাংক লিমিটেডে ১৬১ জন, রূপালী ব্যাংক লিমিটেডে ২৮৩ জন, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেডে ৩৯ জন, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে ৩৫১ জন ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকে ২৩১ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে।

এছাড়া বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশন একজন ও ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশে (আইসিবি) ৭০ জনসহ মোট ১ হাজার ৬৬৩ জন নিয়োগ দেওয়া হবে। তবে পদের সংখ্যা পরে বাড়তে বা কমতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে বিজ্ঞপ্তিতে।

আগ্রহী প্রার্থীরা বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আবেদন করার সুযোগ পাবেন। তবে আগ্রহী প্রার্থীদের বয়সসীমা ১ আগস্ট ২০১৭ তারিখে সর্বোচ্চ ৩০ বছর এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩২ বছর হতে হবে।

বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ও অনলাইনে আবেদন করতে ক্লিক করুন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিচার বিভাগ যথেষ্ট ধৈর্য ধরছে ॥ প্রধান বিচারপতি

স্টাফ রিপোর্টার॥ প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ‘আমরা বিচার বিভাগ ধৈর্য ধরছি। যথেষ্ট ধৈর্য ধরছি। পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্ট প্রধানমন্ত্রীকে…করেছেন। শুধু বলব, আমাদের আরও কিছু পরিপক্বতার দরকার আছে।’

অধস্তন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি চূড়ান্ত করার বিষয়ে আজ রবিবার রাষ্ট্রপক্ষের সময়ের আবেদনের শুনানিতে প্রধান বিচারপতি এসব কথা বলেন। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ বিষয়টির ওপর পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ৮ অক্টোবর তারিখ রেখেছেন।

সবশেষ গত ৬ আগস্ট রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে অধস্তন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি চূড়ান্ত করতে আপিল বিভাগ ২০ আগস্ট পর্যন্ত সময় দিয়েছিলেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ বিষয়টি আপিল বিভাগে ওঠে।

শুরুতেই অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সময়ের আবেদন দাখিল করেন। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, গত তারিখে কী করা হবে, বলা হয়েছিল। আলাপ-আলোচনার কথা বলা হয়েছিল। কার সঙ্গে, কে কে থাকবেন? জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আইনমন্ত্রী।

আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহাব মিয়া বলেন, আপিল বিভাগের সব বিচারপতির সঙ্গে। প্রধান বিচারপতি বলেন, আলাপ-আলোচনার কথা। আপনারা আলাপ-আলোচনা পর্যন্ত করলেন না। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, নীতি-নির্ধারণী বিষয়ে আমার কী করার আছে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনারা মিডিয়াতে অনেক কথা বলবেন, কোর্টে এসে অন্য কথা বলবেন। আপনাকে বলছি না, আপনাদের কথা বলছি। অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনি বলেন, কবে রাখব (পরবর্তী তারিখ)। সবাই বসবেন।

একপর্যায়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, সব বিষয় নিয়ে ঝড় উঠে গেছে। প্রধান বিচারপতি বলেন, আমরা তো কোনো মন্তব্য করছি না। সব তো আপনারাই করছেন। পরবর্তী (তারিখ) কবে চান? অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, বন্ধের এক সপ্তাহ পর।

প্রধান বিচারপতি বলেন, আপনার মতই আমরা রাখলাম। ৮ অক্টোবর তারিখ রাখলাম। এ পর্যায়ে অধস্তন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রণয়নের প্রক্রিয়ার বিষয়ে বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য দাঁড়ান মাসদার হোসেন মামলার অন্যতম কৌঁসুলি ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম।

১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর আপিল বিভাগ মাসদার হোসেন মামলায় ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেন। রায়ের আলোকে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা ছিল।

আপিল বিভাগের নির্দেশনার পর ২০১৫ সালের ৭ মে আইন মন্ত্রণালয় বিধিমালার একটি খসড়া তৈরি করে সুপ্রিম কোর্টে পাঠায়। ওই বিধিমালা সংশোধন করে দেন আপিল বিভাগ। ওই খসড়া আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। সেই বিধিমালা গেজেট আকারে জারি করে তা দাখিল করতে গত বছরের ২৮ আগস্ট আইন মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। এরপর থেকে রাষ্ট্রপক্ষ দফায় দফায় সময় নিয়েছে। সবশেষ সংশোধিত খসড়া প্রধান বিচারপতির কাছে জমা দেয় আইন মন্ত্রণালয়। এই খসড়া সুপ্রিম কোর্টের সুপারিশ অনুসারে হয়নি বলে জানিয়ে দেন আপিল বিভাগ।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বন্যায় বন্ধ ৩৫২৯ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বন্যায় তিন সহস্রাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ

ডেস্ক: মানুষের জীবনযাত্রা, যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি গত কয়েকদিনের বন্যার প্রভাব পড়েছে শিক্ষা ব্যবস্থায়ও।

এই মৌসুমের দ্বিতীয় দফা বন্যায় সারাদেশের এক হাজারেরও বেশি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া পানি উঠে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় অর্ধশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

বিভিন্ন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপপরিচালকদের কাছ থেকে টেলিফোনে প্রাপ্ত তথ্য এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

অধিদপ্তর থেকে পাওয়া তথ্য মতে, দেশের বিভিন্ন জেলায় পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা বিদ্যালয়ের সংখ্যা এক হাজার ১৫টি। আর পানি উঠেছে, ভেঙে গেছে কিংবা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এমন বিদ্যালয় ৪৫টি।

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে জামালপুর জেলায়। মোট ৩১৩টি বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে জামালপুরে এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১৪টি বিদ্যালয়।

কুড়িগ্রামে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ২৫৩টি বিদ্যালয় এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫টি বিদ্যালয়।

দিনাজপুরে ১১৭টি, সুনামগঞ্জে ১০৭টি, সিরাজগঞ্জে ৭০টি, লালমনিরহাটে ৫৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বন্যার কারণে।

এছাড়া মানিকগঞ্জে ৫টি, মুন্সিগঞ্জে ১টি, শরীয়তপুরে ১টি, রাজবাড়ীতে ২টি, ময়মনসিংহে ১৫টি, নেত্রকোনায় ২০টি, সিলেটে ৬টি, বগুড়ায় ১০টি, নওগাঁয় ১৩টি, পাবনায় ৫টি, জয়পুরহাটে ৫টি, গাইবান্ধায় ১১টি, ঠাকুরগাঁওয়ে ৮টি বিদ্যালয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে শিক্ষা কার্যক্রম।

ঢাকা জেলায় পানি প্রবেশ করেছে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। মানিকগঞ্জে নদীতে বিলীন হয়েছে ১টি এবং ভেঙে গেছে ১টি বিদ্যালয়। ফরিদপুরে ২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান  নদীতে বিলীন হয়েছে। গোপালগঞ্জের ৭টি বিদ্যালয়ে পানি উঠেছে।

এছাড়াও ময়মনসিংহে ১টি, নেত্রকোনায় ১টি, সিরাজগঞ্জে ১টি, কুড়িগ্রামে ৫টি ও ঠাকুরগাঁওয়ে ৮টি বিদ্যালয় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এছাড়া বন্যাকবলিত এলাকার প্রায় দুই হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর মধ্যে রংপুর বিভাগের আট জেলায় ১ হাজার ৩১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর রংপুর বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক মাহবুব এলাহী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জামালপুরে ৮৭৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। বগুড়ার তিন উপজেলার ৮২টি বিদ্যালয়ে পানি ওঠায় কয়েক হাজার শিক্ষার্থীর পাঠদান বন্ধ রয়েছে।

সিরাজগঞ্জ জেলায় বন্যার কারণে মোট ২১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৭০টি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ মোট ১৭১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভবনে পানি উঠে পড়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ফেলে যাওয়া শিশুটির বাবা-মা হতে চেয়ে আদালতে ৮ দম্পতির হট্টগোল

শিশির দাস: রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ফেলে যাওয়া অবুঝ ৯ মাসের শিশু ফাতেমার ‘বৈধ অভিভাবকত্ব’ পেতে দাবি জানিয়েছেন ৮ দম্পতি। এদের মধ্যে ২০ লাখ টাকা কিংবা ফ্ল্যাট তার নামে লিখে দিতে চেয়েও অভিভাবকত্ব পেলেন না এক দম্পতি।

বুধবার ঢাকার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমানের আদালতে এ নিয়ে চরম হট্টগোল হয়। আদালতে শুনানির সময় আইন ও সালিস কেন্দ্রের আইনজীবী সেলিনা আক্তার শিশুটির নামে পাঁচ লাখ টাকা দিতে চান। তিনি ১৫ বছর ধরে নিঃসন্তান। আদালত তাকে দিতে চাইলে অন্যরা আপত্তি করেন।

এসময় মাজহারুল ও লায়লা দম্পতি ১০ লাখ টাকা দিতে চান। এই দম্পতি আট বছর ধরে নিঃসন্তান।
অন্যদিকে পুলিশের এসআই আবুল কালাম ও নিঝুম দম্পতি ২০ লাখ টাকা অথবা ফ্ল্যাট লিখে দিতে চান। তারাও আট বছর ধরে নিঃসন্তান।

সিলেটের সামছুল আলম গ্রামের বাড়িটি শিশুটির নামে লিখে দিতে চান। তিনি ৩০ বছর ধরে নিঃসন্তান।
সবাই তাদের দাবিতে অনড় থাকায় আদালত এ বিষয়ে শুনানি মুলতবি রেখে আলাদাভাবে নয় দম্পতির সাক্ষাতকার নেন।

পরবর্তীতে সেলিনা দম্পতিকে অভিভাকত্ব দেন আদালত। আদালত আগামী ২২ তারিখের মধ্য শিশুর নামে পাঁচ লাখ টাকা ডিপোজিট করতে বলেন এবং ওই দিনই শিশুটিকে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান।
এসময় বঞ্চিত অনেক দম্পতিকে কান্নকাটি করতে দেখা যায়।

এর আগে গত ৯ আগস্ট শিশু ফাতেমার প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে পায়নি উল্লেখ করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা বিমানবন্দর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু সাঈদ। প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, আদালতের নির্দেশে বিমানবন্দরের ওই দিনের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়। এতে শিশুটির প্রকৃত বাবা-মাকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। শিশুটির বাবা-মা দাবি করে কেউ লিগ্যাল নোটিশও দেয়নি। এছাড়া শিশুটি হারিয়ে গেছে মর্মে বিমানবন্দর থানায় কেউ জিডিও করেনি।

গত ২৫ জুলাই ঢাকার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান ফাতেমার প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন। সেদিন তিনি ৯ আগস্টের মধ্যে শিশুটির প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে বের করার দিন নির্ধারণ করেন। প্রকৃত বাবা-মাকে খুঁজে না পাওয়া গেলে শিশুটিকে নিতে আগ্রহী কোনো দম্পতিকে বাছাই করে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার কথা জানানো হয়।

ওইদিন আট দম্পতি শিশুটিকে নিতে আদালতে আবেদন করেন। পরে আরও দুই দম্পতি আবেদন করেন। তাদের মধ্যে সেনা কর্মকর্তা, পুলিশ কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী, আইনজীবী ও বিমান বাহিনী কর্মকর্তা রয়েছেন।
দম্পতিরা ছিলেন, ব্যবসায়ী আশিক ওয়াহিদ-শাহনাজ, পুলিশ কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ-নিঝুম আক্তার, একটি তথ্যপ্রযুক্তি ফার্মের কর্মকর্তা মাজহারুল-লায়লা নুর, ব্যবসায়ী আলমগীর-অ্যাডভোকেট সেলিনা আক্তার, ব্যবসায়ী জামাল-শ্যামলী আক্তার, ব্যবসায়ী গোলাম সরওয়ার-দুলশাদ বেগম বিথি, ব্যবসায়ী শামসুল আলম চৌধুরী-শামিমা আক্তার চৌধুরী ও বিমানের কর্মকর্তা আ ক ম আতিকুর রহমান-মোনালিসা দম্পতি।

উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই জর্ডান থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে করে দেশে ফিরছিলেন জয়দেবপুরের স্বপ্না বেগম। একই বিমানে শিশুটিকে নিয়ে তার মাও ফিরছিলেন। স্বপ্না জর্ডানে গৃহকর্মী হিসেবে গিয়েছিলেন। অজ্ঞাতপরিচয় ওই নারীও একই কাজে সেখানে গিয়েছিলেন বলে জানতে পারেন স্বপ্না।

স্বপ্না বিমানবন্দর পুলিশকে জানান, ওই নারীও জর্ডান থেকে একই ফ্লাইটে ফেরেন। সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে কাস্টমস থেকে মালপত্র নিয়ে বের হয়ে বিমানবন্দরের পার্কিং এলাকায় স্বজনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন স্বপ্না।

এ সময় বিমানে পরিচয় হওয়া শিশুটির মা তাকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, আপা আমার শিশুটাকে একটু ধরেন। ভেতরে মালপত্র রয়েছে, নিয়ে আসছি। আগে কথা হওয়ায় সরল বিশ্বাসে শিশুটিকে কোলে তুলে নেন স্বপ্না। কিন্তু দীর্ঘসময় অপেক্ষার পরও সেই নারী আর ফেরেননি। পরে স্বপ্না আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যদের কাছে ঘটনাটি জানালে তারা শিশুসহ স্বপ্নাকে বিমানবন্দর থানায় পাঠায়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

দৈনিক মিড ডে মিল বাস্তবায়নের লক্ষে দর্শনায় টিফিন বক্স ও খাবার বিতরন॥

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : জেলার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনার আজমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাতীয় শোক দিবসকে সামনে রেখে শিশুদের দৈনিক মিড ডে মিল বাস্তবায়নের লক্ষে সকল শিশুর মধ্যে টিফিন বক্স ও খাবার বিতরন করা হয়।

এক মুঠো বেশি ভাত টিফিন বক্সে দিয়ে শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠাতে অনুরোধ করেছেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্বরুপ দাস।

মঙ্গলবার সকাল ১০টাই জাতীয় শোকদিবসের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে টিফিন বক্স বিতরন অনুষ্ঠানে এ আহবান জানান।
আজমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বর্তমান এসএমসি,সাবেক সভাপতি হারুন রাজু ও শিক্ষকদের অর্থায়নে ৩য় শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত ৮৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে টিফিন বক্স ও খাবার দেয়া হয় ।

মঙ্গলবার সকালে জাতীয় শোকদিবসের আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে এসএমসির সভাপতি রবিউল হক সুমনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক চঞ্চল মেহমুদ, সাবেক সাধারন সম্পাদক হারুন রাজু, আকাশ খররের ব্যুরো প্রধান ওসমান, ভোরের কাগজের দামুড়হুদা প্রতিনিধি আওয়াল হোসেন, সাংবাদিক সুজন, প্রধান শিক্ষক আরতি হালসানা, শিক্ষক প্রতিনিধি হারুন অর রশিদ জুয়েল,অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল হামিদ, আতিকুর রহমান, সরদার পিয়ারী খানম ও মেরিনা পারভীন, এসএমসি সদস্য জুয়েল ও শাহিনুর খাতুন।

অনষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সকালে সামান্য খাবার খেয়ে বিদ্যালয়ে এসে বিকেল ৪টা পর্যন্ত থাকা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জন্য অত্যান্ত কষ্টকর। তাই সম্পূর্ন নিজস্ব অর্থায়নে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামুল্যে টিফিন বক্স ও খাবার সরবরাহ করা হয়েছে। শিশুদের এ টিফিন বক্সে খাবার সরবরাহ করতে অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান বক্তারা। অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, যদি ঘরে খাবার নাও থাকে একমুষ্টি চাল ভাজা হলেও টিফিন বক্সে দিলে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা দিনভর বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতে পারবে। এ টিফিন বক্স বিতরনের মাধ্যমে প্রতিদিন মিড ডে চালু করল অত্র বিদ্যালয়টি।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক স্বরুপ দাস।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সরকারি কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ২৯ আগস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ২৯ আগস্ট সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নন-গেজেটেড কর্মচারী ও সামরিক বাহিনীর নন-কমিশন্ড কর্মকর্তা/কর্মচারীদের আগস্ট মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সুবিধা পেনশনভোগীরাও পাবেন।

তবে কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে আগস্টের বেতন পেতে দেরি হতে পারে। এ বিষয়ে রোববার অর্থ মন্ত্রণালয়ের ট্রেজারি ব্যবস্থাপনা অধিশাখা থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে

অর্থ বিভাগের উপ-সচিব মফিজ উদ্দীন আহমেদ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারি বর্ষপঞ্জি -২০১৭ অনুযায়ী ২ সেপ্টেম্বর (চাঁদ দেখা সাপেক্ষে) ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে বিধায় সরকার এ মর্মে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, সরকারি, অাধা-সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের সব নন-গেজেটেড কর্মচারী ও সামরিক বাহিনীর নন-কমিশন্ড কর্মকর্তা/কর্মচারীদের আগস্ট মাসের বেতন-ভাতা এবং দেশের সব অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীর আগস্ট মাসের পেনশনের অর্থ ২৯ আগস্ট প্রদান করা হবে।

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। নিয়ম হচ্ছে, মাসের ১৫ তারিখের পর এ ধরনের কোনো উৎসব থাকলে ওই মাস শেষ হওয়ার আগেই নন-গেজেটেড ও নন-কমিশন্ড কর্মচারীদের বেতন পরিশোধ করতে হবে।

তবে ১০ম গ্রেড থেকে ১ম গ্রেডের কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে আগস্ট মাসের বেতন পেতে কিছুটা দেরি হতে পারে।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সচিব হলেন পাঁচ কর্মকর্তা

ডেস্ক: প্রশাসনে পাঁচ কর্মকর্তাকে সচিব পদে পদোন্নতি দিয়েছে সরকার। পদোন্নতি দিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে রোববার (১৩ আগস্ট) আদেশ জারি করা হয়েছে।

এ পাঁচ অতিরিক্ত সচিব ভারপ্রাপ্ত সচিবের মর্যাদায় দায়িত্ব পালন করছিলেন।

  পদোন্নতির পর সচিবদের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়। এরপর দুটি আদেশে তাদের আগের স্থানেই সচিব হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।

পদোন্নতি পেয়ে সচিব হয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ইব্রাহীম হোসেন খান, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আসাদুল ইসলাম।

এছাড়া বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. মফিজুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত সচিব পদমর্যাদায়) শিরীন আখতারকে সচিব হিসেবে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে।

সচিব হচ্ছেন কোনো মন্ত্রণালয় বা বিভাগের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক কর্মকর্তা। বর্তমানে প্রশাসনে সিনিয়র সচিব, সচিব ও ভারপ্রাপ্ত সচিব রয়েছেন ৭৮ জন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

১৯ আগস্ট শুরু ঈদে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

শিশির দাস : কোরবানি ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হচ্ছে আগামী ১৯ আগষ্ট। ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন রুটে রয়েছে ৫ জোড়া বিশেষ ট্রেন। এছাড়াও ঈদের দিন চলবে শোলাকিয়া এক্সপ্রেস নামে বিশেষ ট্রেন।

আগামী দোসরা সেপ্টেম্বর ঈদের দিন ধরে অগ্রিম টিকেট বিক্রির পরিকল্পনা করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। নিয়ম অনুযায়ী ১০দিন আগে অর্থাৎ ১৯ আগস্ট দেয়া হবে ২৮ আগস্টের টিকিট। পর্যায়ক্রমে ২০শে আগস্ট ২৯ আগস্টের, ২১শে আগস্ট ৩০শে আগস্টের, ২২শে আগস্ট ৩১শে আগস্টের এবং ২৩শে আগস্ট দেয়া হবে পহেলা সেপ্টেম্বর যাত্রার টিকেট। এবারও প্রতিজন যাত্রী কাউন্টার থেকে ৪টি করে টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

কম মূল্যে এবং আরামদায়ক ভ্রমণ হওয়ায় ট্রেনে যাত্রীদের চাহিদা থাকে ব্যাপক। তাই ঈদ যাত্রায় টিকেটের কালোবাজারি ঠেকাতে জি আর পি’র পক্ষ থেকে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যদিকে, ঈদের অতিরিক্ত যাত্রী চাপ সামাল দিতে চলছে পুরাতন ও নষ্ট বগি মেরামতের কাজ।

চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ঢাকাগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেস, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, মহানগর গৌধুলী, তূর্ণা নিশীতা, চট্টলা এক্সপ্রেস, ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস, সিলেটগামী উদয়ন ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস এবং চাঁদপুরগমী মেঘনা এক্সপ্রেসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে।-তথ্যসূত্র : সময় টিভি

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

৫ দফা দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকদের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক | আগস্ট ১১

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকদের নানা সমস্যা নিরসনে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতি থেকে ৫ দফা দাবি জানানো হয়েছে।

শুক্রবার (১১ আগস্ট) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু ও প্রাথমিক শিক্ষা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় ৫ দফা দাবি তুলে ধরেন সংগঠনটির নেত‍ারা।

সহকারী শিক্ষকদের ৫ দফা দাবিগুলো হলো- প্রধান শিক্ষকের পরের ধাপে সহকারি শিক্ষকদের বেতন স্কেল নির্ধারণ, বিভাগীয় পদোন্নতি, প্রাথমিক শিক্ষকদের নন ভোকেশনাল ডিপার্টমেন্ট হিসেবে ঘোষণা, বিদ্যালয়ের সময়সূচি সকাল ১০টা থেকে দুপুর ৩টা ও শিক্ষক সুরক্ষা আইন প্রণয়ন।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমান চাইলে পাকিস্তানি সরকারের প্রস্তাব মেনে আরাম আয়েশে থাকতে পারতেন। কিন্তু তিনি এই দেশের জনগণের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেননি। তিনি দেশের মানুষের কথা সব সময় ভাবতেন। তার মেয়ে শেখ হাসিনারও বাবার মতো সব স্বপ্ন বাংলাদেশের মানুষকে কেন্দ্র করে। দেশে প্রতিনিয়ত উন্নয়ন হচ্ছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন-সহকারী শিক্ষক সমিতির নেতা নুরুল ইসলাম, মো. ইব্রাহীম খলিল, এমিলি দেওয়ান প্রমুখ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের উদ্দেশ্যে প্রজ্ঞাপন

আবার বিয়ে করলে ভাতা দেবে না সরকার

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের মৃত্যুর পর তাঁদের বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী ও তাঁদের প্রতিবন্ধী সন্তানেরা বছরে দুটি উৎসব ভাতা ও চিকিৎসা ভাতা পাবেন। তবে আবার বিয়ে করলে কেউ কোনো ভাতা পাবেন না।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ গত সপ্তাহে এ ব্যাপারে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ২০১৬ বছরের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এই প্রজ্ঞাপন কার্যকর ধরা হবে।
এতে বলা হয়েছে, শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকরিজীবীদের মৃত্যুর পর তাঁদের বিধবা স্ত্রী ও প্রতিবন্ধী সন্তান ভাতা পাবেন আজীবন।
তবে বিপত্নীক স্বামী ভাতা পাবেন সর্বোচ্চ ১৫ বছর পর্যন্ত। তবে শতভাগ পেনশন সমর্পণকারী চাকরিজীবীর অবসর গ্রহণের তারিখ থেকে ১৫ বছর মেয়াদ পূর্তি হতে যে সময় বাকি থাকবে, বিপত্নীক স্বামী শুধু সেই সময়টুকুর জন্যই ভাতা পাবেন।

বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী যদি আবার বিয়ে করেন, তাহলে এই ভাতাসুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। উৎসব ভাতার পরিমাণ নির্ধারিত হবে মাসিক নিট পেনশনের ভিত্তিতে। অর্থাৎ শতভাগ পেনশন সমর্পণকারীরা শতভাগ পেনশন সমর্পণ না করলে মাসিক যে পরিমাণ নিট পেনশন পেতেন, তার ভিত্তিতে।
শতভাগ পেনশন সমর্পণকারীর বিধবা স্ত্রী বা বিপত্নীক স্বামী ২০১৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারির আগে কোনো উৎসব ভাতা বা চিকিৎসা ভাতা উত্তোলন করে থাকলে তা তাঁদের পরবর্তী সময়ে প্রাপ্য ভাতা থেকে সমন্বয় করা হবে বলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিসিএসে আবেদনের রেকর্ড!

ডেস্ক: বিসিএসের আবেদনের ক্ষেত্রে রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। ৩৮তম বিসিএসের জন্য ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৪৬৮ জন প্রার্থী আবেদন করেছেন। আজ ছিল এ আবেদন জমা দেওয়ার শেষ দিন। পিএসসি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মোহাম্মদ সাদিক বলেন, এবার এ পর্যন্ত ফি জমা দিয়েছেন ৩ লাখ ২৭ হাজার ৭৩৫ জন। ফি জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৩ আগস্ট।
এর আগে ৩৭তম বিসিএসে অংশ নেন ২ লাখ ৪৩ হাজার ৪৭৬ জন পরীক্ষার্থী। এর আগে এটিই ছিল বিসিএসে সবচেয়ে বেশি প্রার্থীর আবেদন।
মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ‘সরকারি চাকরির প্রতি মানুষের আস্থা ও আগ্রহ বাড়ছে। তাই এবার এত আবেদন পড়েছে। এর আগে কোনো বিসিএসে এত বেশি আবেদন জমা পড়েনি।’
৩৮তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অক্টোবরের শেষ দিকে নেওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে জানান মোহাম্মদ সাদিক।
৩৮তম বিসিএসের মাধ্যমে জনপ্রশাসনে ২ হাজার ২৪ জন ক্যাডার কর্মকর্তা নিয়োগ করা হবে। পিএসসি সূত্রে জানা গেছে, প্রশাসন ক্যাডারের ৩০০, পুলিশ ক্যাডারের ১০০টি পদসহ ৩৮তম বিসিএসে সাধারণ ক্যাডারে মোট ৫২০টি, কারিগরি ও পেশাগত ক্যাডারে ৫৪৯টি এবং শিক্ষা ক্যাডারে ৯৫৫টি পদ থাকছে।
পিএসসির চেয়ারম্যান প্রথম আলোকে বলেন, এই বিসিএসের লিখিত পরীক্ষার প্রতিটি খাতা দুজন পরীক্ষক মূল্যায়ন করবেন। তাঁদের নম্বরের ব্যবধান ২০ শতাংশের বেশি হলে তৃতীয় পরীক্ষকের কাছে খাতা পাঠানো হবে। এর ফলে পরীক্ষার্থীদের মেধা যথাযথভাবে মূল্যায়িত হবে বলে মনে করছে পিএসসি।
এই বিসিএস থেকে বাংলাদেশ বিষয়াবলির ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় আলাদা করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে ৫০ নম্বরের প্রশ্ন রাখা হবে। কেউ চাইলে ইংরেজিতেও এই বিসিএস দিতে পারবেন। সাত বিভাগের পাশাপাশি এবার নতুন বিভাগ ময়মনসিংহেও পরীক্ষা নেওয়া হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঈদের ছুটি ৩০ আগস্ট থেকে ৪ সেপ্টেম্বর !

ডেস্ক: সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য সুখবর আসছে। এখন থেকে ঈদের ছুটি ছয় দিন করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। আসন্ন ঈদুল আজহা থেকে এটি কার্যকর হবে। বর্তমানে ঈদে সরকারি কর্মচারীরা ছুটি পান তিন দিন। চাকরিজীবীদের ঈদে স্বস্তিতে বাড়ি পেঁৗছাতে ছুটি বাড়ানোর এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ঈদের ছুটি বাড়ানোর একটি প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। প্রস্তাবটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন পেলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। সরকারি একটি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, প্রস্তাবটি অনুমোদন পেলে এবার ঈদের ছুটি শুরু হবে ৩০ আগস্ট বুধবার থেকে এবং শেষ হবে ৪ সেপ্টেম্বর সোমবার। যদিও এর মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি ঈদের ছুটি হিসেবে কার্যকর হবে। সব মিলিয়ে সরকারি চাকরিজীবীরা এবার ঈদের ছুটি পাবেন ছয় দিন। আর এ ছয় দিন সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। আর ঈদের এ বাড়তি ছুটি কর্মচারীদের ঐচ্ছিক ছুটি থেকে কেটে নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোজাম্মেল হক খান বলেন, বাস্তব প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে ঈদে ছুটি বাড়ানোর একটি প্রস্তাব সরকারের উচ্চ পর্যায়ে দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে নীতিগত সিদ্ধান্ত আসার পরই এটি সর্বোচ্চ ফোরামে উপস্থাপন করা হবে। এখানে অনুমোদন পেলে ছুটির আদেশ জারি হবে। না হলে বিদ্যমান নিয়মে ছুটি থাকবে।

তিনি বলেন, সরকার ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিলে বছরের নির্ধারিত ছুটি ঠিকই থাকবে। বাড়তি ছুটি কর্মচারীদের ঐচ্ছিক ছুটি থেকে কেটে নেওয়া হবে। অর্থাৎ শুধু ঐচ্ছিক ছুটির সঙ্গে ঈদের ছুটির সমন্বয় করা হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, সব ঠিকঠাক থাকলে এবার ঈদুল আজহা পালন হবে ২ সেপ্টেম্বর শনিবার। ঈদের দিন ও তার আগের দিন পড়ছে সাপ্তাহিক ছুটি। ফলে বিদ্যমান নিয়মে এবার তিন দিন ঈদের ছুটি থাকলে এর দু’দিনই পড়ছে সাপ্তাহিক ছুটি। বাড়তি কোনো ছুটি পাচ্ছেন না সরকারি চাকরিজীবীরা। চাকরিজীবীরা বৃহস্পতিবার অফিস শেষ করে বাড়ির দিকে রওনা হবেন। আবার সোমবার অফিস খোলা থাকায় ঈদের পরের দিন রোববার ঢাকামুখী হবেন। এতে একসঙ্গে রাস্তাঘাটা, ফেরি, লঞ্চ, রেলের ওপর চাপ বাড়বে। মানুষের দুর্ভোগের শেষ থাকবে না। এমনকি গ্রামের সড়কও বেহাল। তারপর এত চাপ মোকাবেলা করা প্রশাসনের পক্ষে কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে। সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ারও আশঙ্কা থাকছে। ফলে চাকরিজীবীদের নির্বিঘ্নে বাড়ি পেঁৗছতে ঈদের ছুটি বাড়ানো হচ্ছে।

জানা গেছে, ঈদে ছুটি বাড়ানোর দাবি সরকারি কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের। ২০১০ সালে ঈদুল ফিতরে সরকারি ছুটি তিন দিনের পরিবর্তে পাঁচ দিন করার একটি প্রস্তাব দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। যদিও পরে এটি নাকচ হয়ে যায়। গত ঈদুল ফিতরের ছুটিও ছয় দিন করার একটি প্রস্তাব তৈরি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এতে সম্মতি দেন; কিন্তু ওই সময় সংসদে বাজেট অধিবেশন থাকায় ছুটি বাড়ানোর প্রস্তাব আর কার্যকর হয়নি। এবার সরকারি কর্মচারীদের দাবি বিবেচনায় নিয়ে এবং ঈদে যাতে ঘরমুখো মানুষ নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারেন এ জন্য ছুটি বাড়ানোর প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে। বর্তমানে বছরে অফিস-আদালত ১৫৯ দিন বন্ধ থাকে। এর মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি থাকে ১০৪ দিন। অন্যান্য ছুটি থাকে ৫৫ দিন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free