Home » টপ খবর (page 2)

টপ খবর

করোনাভাইরাস নিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য, ২ শিক্ষক বরখাস্ত

ডেস্ক,২৬ মার্চঃ
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দেশ এখন অবরুদ্ধ। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সড়ক, রেল, নৌ চলাচল। সংক্রমণ ঠেকাতে পুলিশের পাশাপাশি মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনীও। এর মধ্যেই গতকাল বুধবার ঢাকায় সড়ক জীবাণুমুক্তের কাজও চলতে দেখা গেছে।

সরকারের এমন ‘সমন্বিত উদ্যোগ’ এর মধ্যেই করোনাভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ফেসবুকে উসকানিমূলক বক্তব্য ও ছবি পোস্ট করায় বরখাস্ত হয়েছেন সরকারি কলেজের দুজন শিক্ষক।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দেশ এখন অবরুদ্ধ। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সড়ক, রেল, নৌ চলাচল। সংক্রমণ ঠেকাতে পুলিশের পাশাপাশি মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনীও। এর মধ্যেই গতকাল বুধবার ঢাকায় সড়ক জীবাণুমুক্তের কাজও চলতে দেখা গেছে।

সরকারের এমন ‘সমন্বিত উদ্যোগ’ এর মধ্যেই করোনাভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ফেসবুকে উসকানিমূলক বক্তব্য ও ছবি পোস্ট করায় বরখাস্ত হয়েছেন সরকারি কলেজের দুজন শিক্ষক।

তারা হলেন- ময়মনসিংহের গফরগাঁও সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কাজী জাকিয়া ফেরদৌসী এবং বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজের দর্শন বিভাগের প্রভাষক সাহাদাত উল্লাহ কায়সার।

গতকাল ওই দুই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করে আদেশ জারি করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। পাশাপাশি সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা অনুযায়ী কেন তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে জানাতে তাদের নোটিশও পাঠানো হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আজ থেকে একসাথে দুজন চলাফেরা নিষিদ্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ২৫ মার্চঃ
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে নানা পরামর্শ আর নির্দেশনার পরেও মানুষের মধ্যে সচেতনতা আসেনি। বরং মানুষ ঘরে থাকার চেয়ে ছুটির মুডে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ধর্মতাত্বিকরা বারবার ঘরে বসে নামাজ পড়ার আহ্বান জানালেও কিছু ‘অতি ধার্মিক’ লোক দেখানোর জন্য মসজিদে যাচ্ছে। এভাবেই ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস।
এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ও করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা নিশ্চিত করতে সারাদেশে সশস্ত্র বাহিনী নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। উপকূলীয় এলাকায় কাজ করবে নৌবাহিনী। জরুরি ওষুধ সরবরাহ ও চিকিৎসা নিশ্চিত করবে বিমান বাহিনী আর শহরগুলোতে সার্বিক নির্দেশনা বাস্তবায়ন করবে সেনাবাহিনী।
নির্দেশনা অনুযায়ী আজ বুধবার থেকে সারাদেশে একসাথে দুজন চলাফেরা করতে পারবে না কেউ। জরুরি কাজ ছাড়া কেউ বাড়ির বাইরে যেতে পারবে না। আর গেলেও তাকে জিজ্ঞাসাবের মুখোমুখি হতে হবে। এসব নির্দেশনা নিশ্চিত করতে আজ থেকে মাঠে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী ।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

জাতীয়করণ প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইমস্কেল নিয়ে ডিসিএ চিঠি

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৪ মার্চ: জাতীয়করণ প্রাথমিক শিক্ষকদের টাইমস্কেল নিয়ে ডিভিশনাল কন্টো্রলার অব একাউন্টস(ডিসিএ) নতুন পরিপত্র প্রদান করেছে। আজ মঙ্গলবার নিরীক্ষা ও হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম খান স্বাক্ষরিত এক পত্রে নতুন নির্দেশনা দেন। নির্দেশনায় তিনি বলেন ২০১৩ এর ৯(১) এবং ৯(৩) এর উপবিধি (১) ও (২) অনুযায়ী আত্তীকৃত শিক্ষকগণ জৈষ্ঠ্যতার ভিত্তিতে টাইমস্কেল প্রাপ্য হবেন না।
শিক্ষাবার্তার পাঠক জন্য পরিপত্রপত্রটি আপলোড করা হল।

 

Timescale

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

৯ এপ্রিল পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

ডেস্ক,২৪ মার্চঃ
করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যৌথসভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
এর আগে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল।
বিস্তারিত আসছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

এই মুহূর্ত থেকেই ট্রেন চলাচল বন্ধ

প্রথমআলোঃ
নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা
আজ এবং এখন থেকেই সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে। এখন থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়েছে। আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে। তবে মালবাহী ট্রেন চলাচল করবে। কিছুক্ষণের মধ্যে রেলপথমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলন করে এই ঘোষণা দেবেন।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে সব ধরনের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। গত রাত থেকে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে মেইল ও লোকাল ট্রেনের চলাচল বন্ধ করা হয়। তবে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা-জয়দেবপুর পথে কিছু লোকাল ও কমিউটার ট্রেন চালু ছিল। আজ দুপুরে রেলভবনে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী নুরুল ইসলাম, মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, রেলের মহাপরিচালক মো. শামসুজ্জামান ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) মো. মিয়াজাহানসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা বৈঠক করে ২৬ মার্চ থেকে সব যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

ট্রেন পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তাৎক্ষণিকভাবে সব যাত্রীবাহী ট্রেন আজ থেকেই চলাচল বন্ধের নির্দেশনা এসেছে। এরপরই তা জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ওই কর্মকর্তা বলেন, রেলে একটা ট্রেন ঢাকা থেকে গন্তব্যে গিয়ে যাত্রী নামিয়ে ঢাকায় ফিরে এলে এক যাত্রা সম্পূর্ণ হয়। বৃহস্পতিবার ট্রেন বন্ধ করতে গেলে এই যাত্রা সম্পূর্ণ করা ঝামেলার হবে। এ জন্যেই এখন থেকেই ট্রেন বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

রেলের মহাপরিচালক শামসুজ্জামান এসব সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা নিশ্চিত করে বলেন, আন্তনগর ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি তারা আগেই বন্ধ রেখেছেন। এরপরও কেউ অনলাইনে বা অনেক আগে অগ্রিম টিকিট কেটে রাখলে তা আইন অনুযায়ী ফেরত দেওয়া হবে।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, গতকাল অফিস-আদালত ছুটি ঘোষণার পর রাতে কমলাপুর রেলস্টেশনসহ বেশির ভাগ স্টেশনে যাত্রীদের ভিড় লেগে যায়। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দৃষ্টিগোচর হলে রাতেই মেইল ও লোকাল ট্রেন বন্ধের নির্দেশনা আসে। এরপর সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে মহাপরিচালকের পক্ষে অতিরিক্ত মহাপরিচালক মিয়াজাহান রেলের পূর্ব ও পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকদের (জিএম) মেইল ও লোকাল ট্রেন বন্ধের কথা নির্দেশনা দেন। দুই জিএম তাদের অধীনস্থদের এই বার্তা পাঠান। কিন্তু সকালেও তুরাগ এক্সপ্রেস ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পথে কয়েকটি লোকাল ও মেইল ট্রেন চালু ছিল।

রেলের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রথম আলোকে বলেন, যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধের বিষয়ে আগেই প্রস্তুতি নেওয়া ছিল। তবে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বাস বন্ধের ঘোষণা দেওয়ার পরই দ্রততার সঙ্গে সব ট্রেন চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনা ভাইরাস দূর্বল হয়ে পড়ছে -নোবেলজয়ী রসায়ন বিজ্ঞানী

শিক্ষাবার্তা ডেস্ক,২৪ মার্চঃ
মানব সভ্যতাকে আতঙ্কে ফেলে দেয়া করোনা ভাইরাস দুর্বল হয়ে পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন নোবেলজয়ী বিজ্ঞানী মাইকেল লেভিট। ‘করোনা মহামারি’র সমাপ্তি সন্নিকটে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

রসায়নে ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে নোবেলজয়ী মাইকেল লেভিট একজন জীব পদার্থ বিজ্ঞানী। ফেব্রুয়ারিতেই তিনি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমে আসার লক্ষণের কথা জানিয়েছিলেন। যা চীনে সত্য বলে প্রমাণিত হয়।

মাইকেল লেভিট ইসরায়েলের বাণিজ্যবিষয়ক পত্রিকা ক্যালকালিস্টকে একটি সাক্ষাৎকার দেন। যা ১৩ মার্চ অনলাইনে প্রকাশিত হয়। লেভিট বর্তমানে ইসরায়েলের তেল-আবিবে বসবাস করছেন। তার ফ্লু জাতীয় সমস্যা দেখা দেয়ায় ফোনে ওই সাক্ষাৎকার নেয়া হয়।

তার স্ত্রী সসান ব্রস চীনা শিল্পের একজন গবেষক। দেশটিতে করোনা ছড়িয়ে পড়ার সময় তিনি চীনের বন্ধুদের কাছে বিষয়টি জানতে চান।

মাইকেল লেভিট জানান, তারা যখন তাদের পরিস্থিতির ভয়াবহতা বর্ণনা করলেন, তখন আমি বিষয়টি গভীরভাবে ভেবে দেখলাম। আমি আশাবাদী হওয়া যায় এমন কিছু খুঁজতে লাগলাম। হুবেই প্রদেশে যখন দিনে ৩০ ভাগ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছিল তখন তা ছিল খুব আতঙ্কজনক পরিসংখ্যান। এই হারে চলতে থাকলে ৯০ দিনে গোটা পৃথিবীর মানুষ তাতে আক্রান্ত হতো। আমি একজন ইনফ্লুয়েঞ্জা বিশেষজ্ঞ নই। কিন্তু আমি সংখ্যা ও তার বৃদ্ধি বিশ্লেষণ করতে পারি।

লেভিট জানান, ফেব্রুয়ারির ১ তারিখ তিনি দেখেন সেখানে ১৮০০ নতুন রোগী রয়েছে। ষষ্ঠ দিনে তা ৪৭০০ তে পৌঁছায়। কিন্তু ফেব্রুয়ারির ৭ তারিখে এসে নতুনভাবে আক্রান্তের সংখ্যা কমতে থাকে এবং তা অব্যাহত ছিল। আরও এক সপ্তাহ পর উল্লেখযোগ্যভাবে কমতে থাকে মৃতের সংখ্যাও। আক্রান্তের পরিসংখ্যানের এই নাটকীয় পরিবর্তনের একটি মধ্য বিন্দু পাওয়া যায় যা থেকে এই মহামারির পরিসমাপ্তির একটা আশা করা যায়। আমি তখন এই উপসংহারে পৌঁছাই যে চীনে দু সপ্তাহের মধ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হবে, এখন সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা আরও কমে আসছে।

লেভিট এর ব্যাখ্যায় বলেন, যদি কোনো ব্যক্তি ব্যাংকে তার জমা দেয়া অর্থের বিপরীতে প্রথম দিন ৩০ শতাংশ সুদ পান, আর দ্বিতীয় দিন পান ২৯ শতাংশ, তাহলেই বুঝতে পারা যায় যে ওই ব্যক্তি শেষ পর্যন্ত খুব বেশি পাবেন না।

লেভিটের এই বক্তব্য দ্রুতই চীনা ভাষায় তার বন্ধুরা অনুবাদ করে ছড়িয়ে দেন। তার বক্তব্য তখন চীনের মানুষের মনে আশা জাগায়। তার বক্তব্যের সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় রাতারাতি তিনি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন সেখানে। চীনের বিভিন্ন মাধ্যমে এরপর তার সাক্ষাৎকারও প্রকাশিত হয়। তিনি বলেন, মার্চের শেষে চীন থেকে এ ভাইরাস নির্মূল হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে লেভিট আরও বলেন, চীনে শুরুতে প্রত্যেক কভিড-১৯ রোগী দিনে দুই দশমিক দুজনকে আক্রান্ত করেছে। এই উচ্চমাত্রার সংক্রমণ বড় বিপর্যয়ের দিকেই নিয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু যখন আক্রান্তের হার কমতে থাকল এবং এখন দিনে আক্রান্তের সংখ্যা শূন্যের কাছাকাছি।

তিনি ব্যাংকের উদাহরণ টেনে আবার বলেন, যদি সুদ কমতে থাকে, তখনো কিন্তু টাকা উপার্জন অব্যাহত থাকবে। যে আসল জমা ছিল তা কিন্তু কমবে না। এতে সুদের জোগান যোগ হবে খুব ধীরে। রোগের ক্ষেত্রেও এ পরিসংখ্যান আলাপ করা যায়, কারণ মানুষ তখন প্রতিদিনের নতুন নতুন আক্রান্তের খবরে খুব আতঙ্কে থাকে। অথচ প্রকৃত চিত্র হচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যা কমে আসা মানে এর বিস্তৃতি এক দিন নাই হয়ে যাবে।

লেভিট যুক্তি দেখিয়ে বলেন, ক্রমবর্ধমান মডেল অনুযায়ী আপনি ভেবে থাকেন যে নতুন লোক প্রতিদিনই আক্রান্ত হবে, কারণ আপনি প্রতিদিনই নতুন মানুষের সঙ্গে দেখা করছেন। কিন্তু যদি আপনি নিজের সামাজিক পরিসর চিন্তা করে দেখেন, আপনার আসলে প্রতিদিন একই মানুষদের সঙ্গে মূলত দেখা হয়। আপনার নতুন মানুষদের সঙ্গে দেখা হয় ধরা যাক পরিবহনে। কিন্তু বাসেও (পরিবহনে) কিছুদিন পর দেখা যাবে হয় সব যাত্রী আক্রান্ত অথবা তারা সেরে উঠেছেন।

আরও একটি কারণ দেখিয়ে তিনি বলেন, আপনি সব সময় সবাইকে জড়িয়ে ধরেন না। এ ছাড়া আপনি যার একটু ঠান্ডা লেগেছে তাকে এড়িয়ে চলবেন- যা আমরা এখন করছি। যত অসুস্থতা দেখা যাবে তত সংক্রমণ এড়াতে আপনি সচেতন হবেন। এভাবে প্রতি তিন দিনে একজন ব্যক্তি দেড়জনকে আক্রান্ত করতে পারবে, যা ক্রমে আরও কমে আসবে।

তিনি আরও যোগ করে বলেন, আমরা জানি চীন প্রায় পুরোটাই কোয়ারেন্টাইনে ছিল, মানুষ শুধু জরুরি কেনাকাটা করতে বের হয়েছে এবং অন্যকে এড়িয়ে চলেছে। উহানে, যেখানকার হুবেই তে সর্বোচ্চ আক্রান্ত ধরা পড়ে, সেখানে সবার আক্রান্ত হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু আক্রান্ত হয়েছে মাত্র ৩ শতাংশ। প্রমোদতরী ডায়মন্ড প্রিন্সেস এ করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়নি।

এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, অনেক মানুষের শরীরই এই রোগ প্রতিরোধের জন্য উপযুক্ত ছিল।

তবে ইতালির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইতালিতে সামাজিক সম্পর্ক খুব উষ্ণ, তাদের খুব সমৃদ্ধ সামাজিক ইতিহাস আছে। যে কারণে, যিনি আক্রান্ত হবেন তাকে সুস্থদের থেকে দূরে রাখতে হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আজ থেকে ‘সংসদ টেলিভিশনে’ ক্লাস শুরু

করোনাভাইরাসের কারণে স্কুল বন্ধ থাকায় ‘সংসদ টেলিভিশনে’ মাধ্যমিকের বিষয়ভিত্তিক শ্রেণী কার্যক্রম প্রচার শুরু হচ্ছে আজ থেকে। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) উদ্যোগে আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে মঙ্গল (আজ), বুধ ও বৃহস্পতিবার এ কার্যক্রম প্রচার করা হবে।

যতদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ততদিনই টেলিভিশনের মাধ্যমে পাঠদান কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে। দীর্ঘসময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলে বাসায় অবস্থান করেই ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারে সে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েই সংসদ টেলিভিশনে রেকর্ড করা শিক্ষা কার্যক্রম সম্প্রচারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে প্রতিদিন সাতটি করে প্রতিসপ্তাহে ৩৫টি ক্লাস প্রচার করা হবে। শিক্ষার্থীরা বাসায় বসেই টেলিভিশনে নিজ নিজ বিষয়ের ওপর অভিজ্ঞ শিক্ষকদের দেয়া শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘এ টু আই’ প্রকল্পের কারিগরি সহায়তায় মাধ্যমিক শিক্ষা স্তরের এই একাডেমিক কার্যক্রম প্রচার হবে। গত শুক্রবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘ব্যানবেইস’, মোবাইল ফোন কোম্পানি ‘রবি’ এবং একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডিও’তে বিভিন্ন বিষয়ের পাঠদান রেকর্ডিং শুরু হয়েছে।

এর আগে গত ১৬ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয় এক আদেশে, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা ও ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলসহ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করা হয়। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের ঘরে থেকে লেখাপড়া চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। তবে, এ ছুটি বাড়তে পারে বলে একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তাকে জানিয়েছে।

এদিকে শিক্ষকদের শ্রেণী পাঠের ক্লাস কার্যক্রম ভিডিও করে টেলিভিশনে প্রচার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটিতে বহিরাগতের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। অধিদফতরের মহাপরিচালক মোঃ ফসিউল্লাহ বলেছেন, ইতোমধ্যে দেশের সকল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করে দেয়া হয়েছে। এ সময়ে ভাল মানের শিক্ষকদের শ্রেণী পাঠের ক্লাস কার্যক্রম ভিডিও করে টেলিভিশনে প্রচার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তবে প্রাথমিকের পাঠদান অন্যান্য স্তরের মতো না হওয়ায় এ বিষয়ে করণীয় ঠিক করতে আমরা বৈঠক ডেকেছি। অনলাইনে ভিডিও গ্রুপ কলের মাধ্যমে এ সভা ডাকা হয়েছে। সেখানে কীভাবে প্রাথমিক স্তরের বাচ্চাদের টেলিভিশনের মাধ্যমে ক্লাস নেয়া যায় সে বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে পরীক্ষামূলক এ ক্লাস সম্প্রচার করা হবে। এতে সফল হলে পাঠদান পূর্ণাঙ্গভাবে প্রচার করা হবে বলে জানান তিনি। এদিকে জানা গেছে, অধিদফতরের বিদেশ ফেরত তিন কর্মকর্তাকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ফেরত অতিরিক্ত মহাপরিচালক সোহেল আহমেদ, ইতালি ফেরত শিক্ষা কর্মকর্তা শেফালি নাসরিন এবং তার স্বামী ভারত থেকে ফেরায় তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

ছুটি বাড়ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে

ডেস্ক,২৪ মার্চঃ
করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩১ মার্চ থেকে বাড়িয়ে আগামী ঈদুল ফিতর পর্যন্ত করার দাবি তুলেছেন অভিভাবকরা। তারা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করে তাদের দাবি জানিয়েছেন। তাদের দাবি করোনার জন্য সাধারণ ছুটির সঙ্গে গ্রীষ্মকালীন ছুটি সমন্বয় করে ছুটি বাড়ানো হোক।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, সরকার ইতোমধ্যে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে। পরিস্থিতির উন্নতি না হলে এ ছুটি বাড়তে পারে। এছাড়া চাঁদ দেখা গেলে আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে রমজান শুরু হবে। রমজানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকতে পারে এমন শঙ্কায় বিকল্প উপায়ে শিক্ষাদানের পদ্ধতি খোঁজা শুরু করেছে শিক্ষার সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো। বন্ধের এ সময়টুকুতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি যুক্ত করে দেওয়া হতে পারে।

এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তঃমন্ত্রণালয়ে একটি বৈঠক হবে দুএকদিনে। এতে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো: মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্ব করার কথা রয়েছে। সেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় আরও বাড়ানোর বিষয়ে কথা হবে বলে জানা গেছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ‘সরকার ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে।এই সময় পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও ছুটি থাকবে। এর পরে পরিস্থিতি বুঝে নতুন ঘোষণা দেওয়া হবে। শিক্ষা সচিবের সঙ্গে বসে আরও সিদ্বান্ত নিব কত দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হবে।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

কেরুর হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন শুরু, মঙ্গলবার মিলবে বাজারে

বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের (বিএসএফআইসি) প্রতিষ্ঠান কেরু অ্যান্ড কোম্পানি (বাংলাদেশ) লিমিটেড হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন ও বিপণন শুরু করেছে। আজ সোমবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কাজ শুরু হয়। কাল মঙ্গলবার থেকে খুচরা মূল্যে বাজারে বিক্রি হওয়ার কথা রয়েছে। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে জীবাণুনাশকের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটি প্রথমবারের মতো এটি উৎপাদন ও বিপণন করছে।

কেরুজ বিপণন শাখার উপব্যবস্থাপক শেখ মো. শাহাবুদ্দীন বলেন, পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন শুরু হয়েছে। প্রথম দিনে ১০০ মিলিলিটার (এমএল) পরিমাপের ৩ হাজার বোতল উৎপাদন করা হয়েছে। প্রতিটি ১০০ এমএল বোতলের পাইকারি মূল্য ৫০ টাকা এবং গ্রাহকপর্যায়ে খুচরা মূল্য ৬০ টাকা রাখা হয়েছে। বাজারে ১৮০ এমএল আকারের বোতলের চাহিদা রয়েছে। সে অনুযায়ী বোতলজাত ও বিপণনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রথম দিন উৎপাদিত ৩ হাজার বোতল বিএসএফআইসির মাধ্যমে বিপণন করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ায় পুরোটাই ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে। মঙ্গলবার থেকে কোম্পানির নিজস্ব বিক্রয়কেন্দ্র ও ডিপো থেকে সাধারণ ক্রেতাদের জন্য বাজারে ছাড়া হবে।

সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, কেরুর ওষুধ কারখানায় (যেখানে ভিনেগার তৈরি হয়ে থাকে) ১০ জন শ্রমিক টিনের ব্যারেল থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের বোতল ভর্তি, বোতলের ছিপি ও লেবেল লাগানো ও কার্টন ভর্তি করছেন। পুরো বিষয়টি তদারকি করছেন রসায়নবিদ শাখাওয়াত হোসেন। তিনি বলেন, স্যানিজাইটার উৎপাদনের পর ব্যবহারে দেখা গেছে জীবাণুনাশক হিসেবে খুবই কার্যকর। এতে ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ জীবাণু মারা যায়। প্রথম দিন ৩ হাজার বোতল উৎপাদন করা হয়েছে। প্রথম দিন চাহিদা অনুযায়ী বোতল সরবরাহ না পাওয়ায় উৎপাদন সীমিত করা হয়। তবে চাহিদা অনুযায়ী বোতল সরবরাহ পাওয়া গেলে প্রতিদিন অন্তত ১০ হাজার বোতল হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন ও বিপণন সম্ভব হবে।

কেরুর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জাহেদ আলী আনছারী বলেন, ‘দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে কোম্পানি মনে করছে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানানো দরকার। লাভের কথা চিন্তা না করে দেশের মানুষের কল্যাণের কথা ভেবে আমরা হ্যান্ড স্যানিটাইজার উৎপাদন করছি।’

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

টানা ১০ দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৩ মার্চঃ
আগামী ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ সোমবার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।

এ ঘোষণার ফলে একাটানা ১০ দিনের ছুটি পাচ্ছেন সরকারি কর্মচারিরা। কারণ ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে সরকারি ছুটি। ২৭ ও ২৮ মার্চ শুক্র ও শনিবার। আগামী ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল সাধারণ ছুটি। আর ৩ ও ৪ এপ্রিল শুক্র ও শনিবার। ৫ এপ্রিল থেকে আবার অফিস শুরু।

করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হওয়ার পরই সাধারণ ছুটির ঘোষণা দেওয়া হল।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা করবে সশস্ত্র বাহিনী। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য এ সহায়তা করবে সশস্ত্র বাহিনী।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সরকারি চাকরিজীবীদের কর্মস্থলে থাকতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২২ মার্চঃ
করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধ এবং এই অবস্থায় যেকোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সহযোগিতার জন্য পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত দেশের বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সব সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে উপস্থিতি থাকতে হবে।

আজ রোববার এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক পত্রে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত

ডেস্ক,২২ মার্চঃ
এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ১ এপ্রিল বাংলা (অবশ্যিক) প্রথম পত্র দিয়ে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল। ৪ মে পর্যন্ত তত্ত্বীয় পরীক্ষা আয়োজন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে এ খবর নিশ্চিত করেছে। নতুন তারিখ এপ্রিলের প্রথম দিকে জানিয়ে দেয়া হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র বিতরণ স্থগিত

ডেস্ক,২২ মার্চ:

আগামী ১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এইচএসসি পরিক্ষার প্রবেশপত্র বিতরণ ২৮ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে দেশের সকল শিক্ষাবোর্ড। ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল জানান, পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার স্বার্থে আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত প্রবেশপত্র বিতরণ স্থগিত করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের অধীনস্ত সব কলেজ ও জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক এস এম আমিরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত পত্রে বলা হয়, ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ কার্যক্রম ২৮ মার্চ ২০২০ তারিখ পর্যন্ত অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হল। পরীক্ষার্থীদের নিজ বাসায় থেকে পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।

কারোনা পরিস্থিতে সরকার থেকে বড় ধরনের লোক সমাগম আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা থাকায় আগামী ১ এপ্রিল থেকে দেশজুড়ে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে কিনা সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনার বন্ধে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ক্লাস হবে টিভির মাধ্যমে

নিজস্ব প্রতিবেদক,২২ মার্চ:
করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সংসদ টেলিভিশন চ্যানেলের মাধ্যমে সেরা শিক্ষকদের রেকর্ডিং করা ক্লাস প্রচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। একই ধরনের চিন্তাভাবনা করছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। প্রাথমিকের বিষয়ে আজ রোববার আলোচনা করে করণীয় ঠিক করা হবে।

মাউশি ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের দুজন উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন। করোনাভাইরাসের কারণে প্রাক্‌-প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। বন্ধের এই সময়ে শিক্ষার্থীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ফলে প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থী অনেকটা ঘরবন্দী অবস্থায় আছে। এর মধ্যে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থী পৌনে দুই কোটির মতো।

আর মাধ্যমিকে শিক্ষার্থী এক কোটির ওপরে। একদিকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ, অন্যদিকে কোচিং বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ওপর প্রভাব পড়ছে। পরিস্থিতি অবনতি হলে এই বন্ধের মেয়াদ আরও বাড়তে পারে বলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে।

এমন অবস্থায় সরকার বিকল্প উপায়ে ক্লাস নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। আগামী তিন মাসের পরিকল্পনা নিয়ে এই কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাউশির একজন উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তা।

মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী প্রথম আলোকে এই উদ্যোগের কথা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সরকারের এ টু আই প্রকল্পের সঙ্গে মিলে এই কাজ করা হচ্ছে। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সেরা শিক্ষকদের ক্লাস রেকর্ডিং করে সংসদ টিভির মাধ্যমে এই ক্লাস প্রচার করা হবে। সকাল নয়টা থেকে রাত নয়টার মধ্যবর্তী সময়ে এই ক্লাসগুলো প্রচার করা হবে। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত একেকটি বিষয়ের জন্য মোট ৩৫টি ক্লাস থাকবে।

মাউশির সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শনিবার থেকেই এসব ক্লাস রেকর্ডিং করা শুরু হয়েছে। তিনটি স্টুডিওয়ে এই ক্লাস রেকর্ডিং করা হচ্ছে। এর মধ্যে একটি স্টুডিও সরকারের শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর। এ ছাড়া ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এবং মোবাইল ফোন অপারেটর রবির স্টুডিওতে এসব ক্লাস রেকর্ডিং করা হচ্ছে। আগামী মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার পরীক্ষামূলকভাবে এসব ক্লাস প্রচার করা হবে। এরপর নিয়মিতভাবে এটি চলবে। আগামী সপ্তাহ থেকেই নিয়মিতভাবে এভাবে ক্লাস হবে।

এভাবে ক্লাস চালু রাখার বিষয়টিকে ভালো বলছেন ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফওজিয়া। তিনি বলেন, এর মাধ্যমে অন্তত বাড়িতে বসে শিক্ষার্থীরা শিখতে পারবে।

প্রাথমিক স্তরের শিশুদের জন্যও বিকল্প উপায়ে ক্লাস নেওয়ার পরিকল্পনা চলছে। এ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেছেন, তাঁরাও বিকল্প উপায়ে কীভাবে ক্লাস বা পড়াশোনা চালু রাখা যায়, সে বিষয়টি নিয়ে চিন্তাভাবনা করছেন। টিভির মাধ্যমে ক্লাস প্রচারের বিষয়টিও তাদের চিন্তাভাবনায় আছে। আজ রোববার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবের সঙ্গে বৈঠক করে এ বিষয়ে করণীয় ঠিক করা হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল এক বিজ্ঞপ্তিতে এই বন্ধের সময়ে কোনো শিক্ষার্থীকে অযথা বাইরে ঘোরাফেরা না করতে এবং বাড়িতে নিরাপদে রাখার জন্য অভিভাবকদের নির্দেশনা দিতে স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অনুরোধ করেছে।

এদিকে বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার কাজ চালিয়ে নিচ্ছে।

এমন সময়ে অনলাইন ও টিভির মাধ্যমে ক্লাস নেওয়ার বিকল্প উদ্যোগটিকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক মোহাম্মদ তারিক আহসান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, শুধু এই বন্ধেই নয়, বিকল্প উপায়ে শিক্ষাদানের পদ্ধতি অন্যান্য সময়েও থাকা দরকার। কারণ, বিদ্যমান শিক্ষাক্রমে একজন শিক্ষার্থীর পুরো জীবনের সঙ্গে মিল নেই। আবার শুধু শ্রেণিকক্ষেই সব শিখতে পারে না। তাই বিভিন্ন বিকল্প উপায়ে শেখার পদ্ধতিগুলোও থাকা দরকার। আর এই বন্ধের সময়ে অভিভাবকদের ভূমিকাটি অনেক বেশি। এই সময়ে শিক্ষার্থীর স্বাস্থ্য ও মূল্যবোধসহ অন্যান্য বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে।

অনিশ্চয়তায় এইচএসসি পরীক্ষা
করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের পর আগামী ১ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষাও অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলে মনে করছেন শিক্ষা বোর্ডগুলোর কর্মকর্তারা। যেহেতু পরীক্ষা শুরু হতে আরও ১০ দিন বাকি, তাই এখনই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে না। তাদের চিন্তা হলো পরীক্ষার্থীদের তো আর এখন কলেজে যেতে হচ্ছে না, তারা বাড়িতে বসে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে থাকুক। পরীক্ষা শুরুর আগমুহূর্তে পরীক্ষা হবে কি না, তা জানানো হবে।

ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, পরিস্থিতি অবনতি হলে তো পরীক্ষা নেওয়া কঠিন। তবে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কয়েক দিনের মধ্যেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, আগামীকাল সোমবার এ বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা ৩১ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বদরুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, যদি পরিস্থিতি খারাপ থাকে, তাহলে তাদেরও স্থগিতের সময় বাড়ানো হবে। সেটা ৩১ মার্চের আগেই জানিয়ে দেওয়া হবে।

ছুটিতে সময় কাটানোর পরামর্শ

‘ঘরবন্দী’ এই সময়ে শিক্ষার্থীদের সময় কীভাবে কাটতে পারে, সে বিষয়ে কিছু পরামর্শ দিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপক মাহফুজা খানম। তিনি বলেন প্রথমত, এখানে একটি ইতিবাচক দিক হলো এই সময়ে শিশুরা মা–বাবাকে বেশি করে কাছে পাবে। তাই কর্মের কারণে সন্তানদের সঙ্গে মা–বাবার যে দূরত্ব, সেটা দূর করার সুযোগও এটি। এই সময়ে ছোট শিশুদের জন্য মা–বাবা অথবা অভিভাবকেরা গল্প শোনানো, ছবি আঁকা বা শিশুরা যেসব বিষয় করতে আনন্দ পায় সেসব বিষয় করতে দিয়ে সময় কাটানো যায়। আরেকটু বড় শিশুদের ক্ষেত্রে বলব, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ মানে তো আর পড়াশোনায় ছুটি নয়, তাই তাদের প্রয়োজনীয় পড়াশোনা চালিয়ে যেতে হবে। পাশাপাশি এই সময়ে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। বাবা-মায়েরা তাঁদের এই বয়সে কী ধরনের বই পড়তে পছন্দ করতেন, সে–জাতীয় বই পড়ানোর ক্ষেত্রে উৎসাহ দিতে পারেন। এভাবে বই পড়ার মাধ্যমে সময় কাটানো যায়। আর বড়রা তো মোটামুটি সময় ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে জানেন, সেটা মেনে চলতে হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

আক্রান্তের তৃতীয় দিনে গণস্বাস্থ্যের কিটে ধরা পড়বে করোনা

নিজস্ব প্রতিবেদক,২১ মার্চ:
করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরির উপাদান আমদানির ক্ষেত্রে শুল্ক মওকুফের প্রতিশ্রুতি পেয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। আগামী বৃহস্পতিবারের মধ্যে প্রয়োজনীয় উপাদান বা রিএজেন্ট দেশে পৌঁছাবে বলে জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, উপাদান দেশে পৌঁছানোর এক সপ্তাহের মধ্যে সরকারকে নমুনা কিট সরবরাহ করতে পারবেন।

আজ শনিবার সকালে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কার্যালয়ে প্রথম আলোকে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকারি মহলে কিট তৈরির ব্যাপারে উদ্দীপনা তৈরি হয়েছে। আজ শনিবার সাপ্তাহিক বন্ধের দিনেও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কার্যালয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আমদানি শুল্ক মওকুফের বিষয়টি নিয়ে কাজ হচ্ছে। শুল্ক মওকুফ এবং দ্রুততম সময়ে খালাস করার ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিয়েছে এনবিআর।

গণস্বাস্থ্য র‍্যাপিড ডট ব্লটের (জি র‍্যাপিড ডট ব্লট) একটি সীমাবদ্ধতা রয়েছে বলে জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, বর্তমানে করোনাভাইরাস শনাক্তে ব্যবহৃত পিসিআর পদ্ধতিটি ব্যয়বহুল। তবে এই পদ্ধতিতে করোনা আক্রান্তের প্রথম দিনেই রোগ শনাক্ত করা সম্ভব। আর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিটে করোনা আক্রান্ত হওয়ার তৃতীয় দিনে গিয়ে রোগ শনাক্ত হবে।
Lifebuoy Soap

গণস্বাস্থ্য র‍্যাপিড ডট ব্লট (জি র‍্যাপিড ডট ব্লট) নামের এই কিটের মাধ্যমে কীভাবে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হবে জানতে চাইলে জাফরুল্লাহ বলেন, রক্তের গ্রুপ যে পদ্ধতিতে চিহ্নিত করা হয়, এটা মোটামুটি সে রকমের একটি পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে ৫ থেকে ১৫ মিনিটের মধ্যে অত্যন্ত স্বল্পমূল্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা যাবে। তিনি বলেন, খরচ পড়বে তিন শ থেকে সাড়ে তিন শ টাকা। সরকার যদি এর ওপর ট্যাক্স-ভ্যাট আরোপ না করে, তাহলে গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র দুই থেকে আড়াই শ টাকায় এটি বাজারজাত করতে পারবে।

জাফরুল্লাহ বলেন, পিসিআর পদ্ধতিতে নাক, মুখের লালা দিয়ে পরীক্ষা করা হয়। ৩ থেকে ৫ দিন সময় লাগে। আর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিটে এক ফোঁটা রক্তের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হবে। এর জন্য আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে যথেষ্ট অ্যান্টিবডি তৈরি হতে হয়। ফলে গণস্বাস্থ্যের কিটে পরীক্ষাটি আক্রান্ত হওয়ার তৃতীয় দিনে কার্যকর হবে।

করোনাভাইরাস শনাক্তে কোভিড-১৯ রোগ পরীক্ষার সহজ ও স্বল্পমূল্যের পদ্ধতি উদ্ভাবন করার কথা জানিয়েছে গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র। গত বুধবার গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে সরকারের ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে কিটে ব্যবহার করতে প্রয়োজনীয় উপাদান বা রিএজেন্ট আমদানির অনুমতি চাওয়া হয়। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে কিট তৈরির উপাদানের আমদানির অনুমতি দেয় সরকার।

জাফরুল্লাহ বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর একটায় সরকার আমদানির অনুমতি দেয়। গণস্বাস্থ্যকেন্দ্র ওই দিন দুপুর ২টায় ব্যাংকে ঋণপত্র খোলে। যুক্তরাজ্যের গবেষণাগারের সঙ্গে কথা হয়েছে। সোম বা মঙ্গলবারের মধ্যে তারা উপাদান পাঠিয়ে দেবে। বৃহস্পতিবারে মধ্যে দেশে পৌঁছে যাবে।

বৃহস্পতিবার উপাদান পাওয়া গেলে এক সপ্তাহের মধ্যে প্রয়োজনীয় নমুনা কিট তৈরি করতে পারবেন বলে জাফরুল্লাহ আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সরকার কিট তৈরির অনুমতি দিয়েছে, তবে বাজারজাত করার অনুমতি দেয়নি। কিটের নমুনা তৈরি করে তা সরকারকে দেওয়া হবে। সরকার পরীক্ষা করে দেখবে সেটা কতটুকু কাজ করে। এপ্রিলের মধ্যে লক্ষাধিক মানুষকে পরীক্ষা করার মতো কিট তৈরি করা যাবে বলে তিনি আশা করেন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরির কার্যক্রমের শুরু কীভাবে জানতে চাইলে জাফরুল্লাহ বলেন, গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালসের প্রধান বিজ্ঞানী বিজন কুমার শীল গত ডিসেম্বরে করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরির কাজ শুরু করেন। তার সঙ্গে গণস্বাস্থ্যকেন্দ্রের তিন চিকিৎসক নিহাদ আদনান, মোহাম্মদ রাশেদ জমিরউদ্দিন ও ফিরোজ আহমেদ এই পদ্ধতি উদ্ভাবনে কাজ করেন। আর তাদের কাজ সমন্বয় করেন গণবিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মহিবুল্লা খন্দকার।

মার্চ মাসের শুরুর দিকে বিজন কুমার জানান, তারা করোনাভাইরাস শনাক্তের কিট তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। ২০০৩ সালে পৃথিবীজুড়ে সার্স ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে বিজন কুমার শীল সিঙ্গাপুর গবেষণাগারে কয়েকজন সহকারীকে নিয়ে সার্স ভাইরাস দ্রুত নির্ণয়ের পদ্ধতি আবিষ্কার করেন। বিজন কুমার বর্তমানে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালসের প্রধান বিজ্ঞানী হিসেবে কর্মরত আছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free

hit counter