জেলার খবর

কলাপাড়ায় শিক্ষার্থী-সহ অর্ধশত গৃহিনীকে হাত ধোয়ার প্রশিক্ষণ ।।

পটুয়াখালী প্রতিনিধি।।কলাপাড়ায় বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উপলক্ষে প্রাথমিক শিক্ষার্থী-সহ অর্ধশতাধিক গৃহিনীকে হাত ধোয়ার প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।
সোমবার উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের আমিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে দিবসটি উদযাপন করেন বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থ্যা এফ এইচ এ্যাসোসিয়েশন। দিবসটি উপলক্ষ্যে সকালে আমীরাবাদ গ্রামের সকল শিশু-কিশোর এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে “হাত ধোব নিয়মিত থাকবো সবাই স্বাস্থ্য সম্মত” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে একটি বর্ণাঢ্য র্যালী অনুষ্ঠিত হয়। র্যালী শেষে আলোচনা সভায় এফএইচ এনজিও’র রিজোওনাল প্রোগ্রাম ম্যানেজার গৌতম চন্দ্র দাশ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আমিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক শ্রী জগদিস চন্দ্র হালদার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় ইউপি সদস্যা মমতা রানী, আমিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহ সুজা উদ্দিন প্রমূখ। এসময় ওই বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এবং বিভিন্ন পেশার নারী পুরুষ উপস্তিত ছিলেন।
আলোচনা শেষে শিশুদের অংশগ্রহনে হাত ধোয়ার তাৎপর্য বিষয়ে উপস্থিত বক্তৃতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরুষ্কার বিতরন করা হয়। পরে সেখানে উপস্থিত অর্ধশত গৃহিনীকে স্বাস্থ্য সম্মত পদ্ধতিতে হাত ধোয়ার কৌশল হাতেকলমে শিখিয়ে দেওয়া হয়। পাঁচটি স্বাস্থ্য সম্মত পদ্ধতিতে হাত ধোয়া এবং সাংসারিক কাজে স্বাস্থ্যকর পদ্ধতি অবলম্বনের জন্য শপথ পড়ানো হয়।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ওসির সহযোগিতায় শিক্ষক ফিরে পেলো হারিয়ে যাওয়া সম্পদ

মো. মহিউদ্দিন আল আজাদ: হাজীগঞ্জ থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন রনির আন্তরিক প্রচেষ্টায় ২০ দিন পর শিক্ষক ফিরে পেয়েছে সিএনজিতে ফেলে যাওয়া ৬ ভরি স্বর্ণ, ১ লাখ ১৯ হাজার টাকা ও একটি অপ্পো এফ-৯ মোবাইল সেট। শনিবার সন্ধ্যায় স্বর্ণ, টাকা ও মোবাইল সেট শাহাদাত হোসেনকে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগির হোসেন রনিসহ থানার সকল কর্মকর্তাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন বিভিন্ন সুধীজন।

থানা সূত্রে জানাযায়, জানান, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা বিএএফ শাহীন কলেজের শিক্ষক কালচোঁ উত্তর ইউনিয়নের খীলপাড়া পাটওয়ারী বাড়ীর মৃত মুসলিম পাটওয়ারীর ছেলে মো. শাহাদাত হোসেন তার স্ত্রীসহ ঢাকা থেকে লঞ্চ যোগে চাঁদপুর এসে চাঁদপুর থেকে সিএনজিতে হাজীগঞ্জ আসার পথে বলাখাল বাজারে নেমে যায়। এ সময় ভুলক্রমে সিএনজিতে শিক্ষকের স্ত্রীর ভ্যানেটি ব্যাগটি রয়ে যায়। ব্যাগে নগদ ১ লাখ ১৯ হাজার টাকা, ৬ ভরি স্বর্ণ ও ১টি অপ্পো এফ-৯ মোবাইল সেট ছিল।

পরবর্তীতে তারা বাড়ীতে গিয়ে বুঝতে পারে সিএনজিতে তাদের ভ্যানিটি ব্যাগটি রয়েগেছে। কিন্তু সে সময়ে সিএনজি চালককে আর কোথায় পাওয়া যায়। এদিকে শাহাদাত হোসেন অনেক খোঁজাখুঁজি করেও সিএনজি চালককে না পেয়ে হাজীগঞ্জ থানায় ওই দিন সন্ধ্যায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

এমপিও শিটে নাম না আসায় শিক্ষকের আত্মহত্যা

সাতক্ষীরা,১০ অক্টোবর: সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলায় এমপিও শিটে নাম না আসায় লোকলজ্জার ভয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বিধান চন্দ্র ঘোষ (৪২) নামে এক শিক্ষক।
বুধবার সকালে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
এর আগে মঙ্গলবার রাতে বিষপান করলে তাকে ভর্তি করা হয়।
বিধান চন্দ্র ঘোষ তালার ধানদিয়া ইউনিয়নের সেনেরগাঁতী বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) এবং দৌলতপুর গ্রামের মৃণাল কান্তি ঘোষের ছেলে।
বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, বিধান চন্দ্র ঘোষ ২০০২ সাল থেকে শিক্ষকতা করে আসছিলেন। কিন্তু ২০১৬ সালে বিদ্যালয়ের মিনিস্ট্রি অডিটের সময় তার সনদ সংক্রান্ত ত্রুটি দেখা যায়। তিনি নিয়মিত বেতনও উত্তোলন করে আসছিলেন। কিন্তু চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের এমপিও শিটে তার নাম না থাকার বিষয়টি জানাজানি হলে মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে লোকলজ্জার ভয়ে তিনি বিষপান করেন।

তিনি জানান, পরিবারের লোকজন তাৎক্ষণিক তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল আটটার দিকে তার মৃত্যু হয়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কলাপাড়ায় সন্ত্রাসীদের হাতে শিক্ষক লাঞ্ছিত, গ্রেফতার ৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া ॥ বরিশাল শের-ই-বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওরফে শাহআলম মাস্টারের বাম পা গোড়ালি পর্যন্ত কেটে ফেলেছে। এসময় তাকে বেধড়ক কোপানো হয়েছে। পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব মোস্তফাপুর গ্রামে দরবেশ বাড়ির সামনের সড়কে শনিবার সকাল ১০টায় এ ঘটনা ঘটে। মুমুর্ষ অবস্থায় গ্রামের লোকজন শাহআলম মাস্টারকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নেয়।

সেখান থেকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। শাহআলম মাস্টার জানান, নজরুলের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসী তকে অনুসরন করে হত্যার জন্য এমন হামলা চালায়। কলাপাড়া থানার ওসি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাতক্ষণিক জড়িত সন্দেহে একই এলাকার রহিম খোকন, সাঈদুর রহমান সাইদ, মাহাদী হাসান, তাইফুল ও মোঃ হোসাইনকে গ্রেফতার করেছে। এসময় শত শত মানুষ জড়ো হয়ে বিক্ষোভ জানায়। এ ঘটনার জের ধরে পাল্টা হামলার শঙ্কা করছেন স্থানীয় মানুষ। এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও আহতের স্বজনেরা জানান, বরিশাল শেরে বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শাহ আলম হাওলাদার শনিবার সকালে শিশু ছেলে আফ্রিদিকে নিয়ে পূর্ব মোস্তফাপুর গ্রামে বোন জামাই মকবুল মাস্টারের বাড়িতে কোরবানির দাওয়াত খেতে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে আগে থেকে ওৎপেতে থাকা সশস্ত্র ১০-১২ সশস্ত্র সন্ত্রাসী অতির্কিত হামলা চালায় তার ওপর। সন্ত্রাসীরা তার শিশুসন্তানের সামনে বাম পায়ের গোড়ালির উপর দিয়ে কেটে ঝুলিয়ে দেয়। ডান পা, দুই হাত ও মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। ১০-১২ মিনিট ধরে সন্ত্রাসীদের নৃশংস তান্ডব চলে। এ সময় শাহ আলম মাস্টার ও তার শিশুপুত্রের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা সটকে পড়ে। কলাপাড়া হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শংকর কুমার পাল জানান, আহত শাহ আলমের বাম পায়ের ৯০ ভাগ কেটে ফেলা হয়েছে। এ কারনে পা রক্ষা করা অসম্ভব। শরীরেও ধারালো অস্ত্রের কোপের একাধিক জখম রয়েছে।

কলাপাড়া থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, স্থানীয় বাদশা মেম্বার-আইয়ুব আলী গ্রুপের সঙ্গে শাহআলম মাস্টার গ্রুপের দীর্ঘ প্রায় ১৫ বছরে প্রচন্ড বিরোধ রয়েছে। ইতোপুর্বে এরা একে অপরের ওপর অন্তত ১২/১৩ বার সশস্ত্র হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনা ঘটায়। তিনি এও জানান, আহত শাহআলম মাস্টারের বিরুদ্ধে অন্তত দেড় ডজন মামলা রয়েছে।

তবে এ ঘটনায় জড়িতদের বাকি আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। নীলগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট নাসির মাহমুদ জানান, এরা উভয়গ্রুপ বিএনপি-জামায়াতের রাজনৈতিক নেতাকর্মী। এদের বছরের পর বছর ধরে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে নীলগঞ্জের মানুষ রয়েছে আতঙ্কে।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পটুয়াখালীর বাউফলে নিরাপদ সড়কের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, নেতৃত্বে ছাত্রলীগ।।

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী।। পটুয়াখালীর বাউফলে নিরাপদ সড়কের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। তবে এ আন্দোলনে সারাদেশের থেকে বাউফলের চিত্রটা একটু ভিন্ন।
দেখা গেছে আন্দোলনের অগ্রভাগে ছিল ছাত্রলীগ। বাউফল সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইউসুফ ও সাধারন সম্পাদক মো.শুভর নেতৃত্বে বেলা ১১টার দিকে একটি মিছিল বের হয়ে ইঞ্জিনিয়ার ফারুক তালুকদার মহিলা কলেজের সামনে আসলে মহিলা কলেজের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী মিছিলে অংশ নেয়।
পরে শিক্ষার্থীদের ওই আন্দোলনের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে সাধারন শিক্ষার্থীদের সাথে মানব বন্ধনে অংশ নেয় বাউফল পৌর ছাত্রলীগের একাংশের আহবায়ক নিয়াজ মোর্শেদ। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় পাঁচ শতাধিক ছাত্র ছাত্রী ওই বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন কর্মসূচীতে অংশ নেয়।
বিক্ষোভ মিছিলটি বাউফল পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে বাউফল উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাউফল পৌর ছাত্রলীগের একাংশের আহবায়ক নিয়াজ মোর্শেদ সহ অন্যান্যরা। বক্তারা নিরাপদ সড়কের দাবীর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহবান জানান। পরে বাউফল সরকারি কলেজের সামনে অবৈধ যানবাহন থামিয়ে লাইসেন্স চেক করে সাধারন শিক্ষার্থীরা। এসময়ে লাইসেন্সবিহীন বেশ কয়েকটি মটর সাইকেলের চাবি আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় শিক্ষার্থীরা।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পেলেন ববি’র তিন শিক্ষার্থী

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) কর্তৃক প্রবর্তিত “প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক” পেলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) তিন মেধাবী শিক্ষার্থী। বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা এ পদক প্রদান করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীরা হলেন-সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীন অর্থনীতি বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সোমা রানী সরকার যার প্রাপ্ত সিজিপিএ-৩.৯৬, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের অধীন ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তন্বী দেবনাথ যার প্রাপ্ত সিজিপিএ-৩.৯৪ এবং কলা ও মানবিক অনুষদের অধীন ইংরেজী বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সুরাইয়া আক্তার সুমনা যার প্রাপ্ত সিজিপিএ-৩.৬৩।

বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফলে সর্বোচ্চ জিপিএ অর্জন করায় এই তিন শিক্ষার্থী “প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৭” এর জন্য মনোনীত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন মেধাবী শিক্ষার্থী স্বর্ণপদক গ্রহণ করেন।

এসময় শিক্ষামন্ত্রী, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান, শিক্ষা সচিব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিশিষ্ট বৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. এসএম ইমামুল হকসহ অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

এক প্রতিক্রিয়ায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, নবীন বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন কৃতি শিক্ষার্থীর “প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক” অর্জন অত্যন্ত গৌরব ও আনন্দের বিষয়। এ অর্জন শুধুমাত্র বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের নয়, এ অর্জন সমগ্র বরিশালবাসীর। আর এ অর্জনকে ভবিষ্যতের প্রেরণা হিসেবে নিয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা ও গবেষণায় অচিরেই একটি আন্তর্জাতিকমানের বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হবে।

প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক দেয়ার পুরো অনুষ্ঠানটি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রজেক্টরের মাধ্যমে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে সরাসরি সম্প্রচারের ব্যবস্থা করেন। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম শিক্ষার্থী হিসেবে গনিত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী ফৌজিয়া শারমিন নিরা ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ গ্রহণ করেছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ১০ লাখ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: |

ঝিনাইদহের ঐতিহ্যবাহী শৈলকুপা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় থেকে এক বছরে ১০ লাখ টাকা আত্নসাতের অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক দিলারা ইয়াসমিন জোয়ার্দ্দারের বিরুদ্ধে। ক্ষমতার অপব্যবহারসহ শিক্ষক-কর্মচারীদের সঙ্গে অসৌজন্য মূলক আচরণেরও অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। বিদ্যালয়ের বেতন-সেশন হঠাৎ দ্বিগুন বৃদ্ধি নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

বিভিন্ন সময়ে প্রধান শিক্ষিকা ছুটিতে থাকা কালে নিয়ম অনুযায়ী সহকারী প্রধান শিক্ষকের উপর দায়িত্ব দেয়ার নিয়ম থাকলেও জুনিয়র শিক্ষকদের উপর দায়িত্ব দেয়া হয় যা চাকরি বিধি লঙ্ঘন বলে লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে।

তবে অভিযোগের বিষয়ে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক দিলারা ইয়াসমিন জোয়ার্দ্দার শিক্ষাবার্তা ডটকমকে বলেন, ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সঠিক নয়। রেজুলেশান আর ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই স্কুল পরিচালনা হচ্ছে। একজন শিক্ষক তার বিরুদ্ধে ভুল করে অভিযোগ করেছেন।

এসব বিষয়ে শৈলকুপা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের বর্তমান এডহক কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. উসমান গনি  জানিয়েছেন তদন্ত কমিটি গঠন সহ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে । তিনি সব কিছু খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন এবং এ সংক্রান্ত বিষয়ে একটি মিটিংও করেছেন।

এসব নিয়ে শিক্ষক-কর্মচারী, শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া। অনিয়মের প্রতিবাদে শিক্ষকরা ক্লাস বর্জনও করেছে। এরপর  বিদ্যালয়ের  সেসব অনিয়মের লিখিত ফিরিস্তি দেয়া হয়েছে শিক্ষা অফিসার, জেলা প্রশাসক, শিক্ষা বোর্ডসহ দুর্নীতি দমন কমিশনে। ম্যানেজিং কমিটির সদ্য বিদায়ী সভাপতি ক্ষোভ প্রকাশ করে জানিয়েছেন তার স্বাক্ষর ছাড়ায় রেজুলেশন, চেকসহ সমস্ত তহবিল হিসাবে নানা জালিয়াতি করেছে প্রধান শিক্ষিক। আর বিদ্যালয়টির বর্তমান এডহক কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তদন্ত কমিটি গঠনসহ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাসের কথা জানিয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কলাপাড়ায় এইচ,এস,সির ফলাফল বিপর্যয়ে হতাশ শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ অভিভাবক

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি।। কলেজ ছয়টি, পরীক্ষার্থী একহাজার ১৬৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র চার জন। এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ফলাফল বিপর্যয়ে হতাশ অভিভাবক,শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এ ফলাফল বিপর্যয়ের জন্য এক কলেজ শিক্ষকরা অন্য কলেজের শিক্ষকদের দোষারোপ করছেন, এমনি অভিযোগ করছেন শিক্ষকদের বিরুদ্ধে নৈবেত্ত্যিক উত্তরপত্র কর্তন ও খাতা টানাটানির।

কলাপাড়া মহিলা ডিগ্রি কলেজে ১৭১ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছে ৯৬ জন। পাশের হার ৫৬ দশমিক ১৪। জিপিএ-৫ পেয়েছে একজন। মোজাহার উদ্দিন বিশ্বাস(অনার্স) কলেজে ২৫৭ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছে ১৩৮ জন। পাশের হার ৫৩ দশমিক ৭০। খানবাদ কলেজে ২৯৫ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১৫১ জন পাশ করেছে। পাশের হার ৫১ দশমিক ১৭। জিপিএ-৫ পেয়েছে তিন শিক্ষার্থী। আলহাজ্ব জালাল উদ্দিন কলেজে ১৯৫ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছে ৯৯ জন। পাশের হার ৫০ দশমিক ৭৭। ধানখালী ডিগ্রি কলেজে ৯৬ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছে ৪৮ জন। পাশের হার ৫০ ভাগ।
অপরদিকে মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল কলেজ থেকে ১৫১ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয় মাত্র ৫৭ জন। পাশের হার ৩৭ দশমিক ৭৫ভাগ। এ ফলাফল বিপর্যয়ে হতাশ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। উপজেলায় সবচেয়ে পাশের হার কম এ কলেজে। কলেজ অধ্যক্ষ মো. কলিম উল্লাহ অভিযোগ করেন, কলেজের টেস্ট পরীক্ষায় শিক্ষার্থীরা ভালো ফলাফল করলেও মাত্র ৩৭ শতাংশ পাশ করায় তারা হতাশ ও চিন্তিত। এ বিপর্যয়ের কারন হিসেবে তিনি বলেন, খানাবাদ কলেজ কেন্দ্রে তাদের কলেজের ছাত্রদের নৈবত্ত্যিক উত্তর পত্র কর্তন হতে পারে। পরীক্ষার হলে দায়িত্বরত শিক্ষকরা এ কাজ করছে বলে ধারণা করছেন।
খানাবাদ কলেজ এর অধ্যক্ষ সি এম সাইফুর রহমান খান এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যেখানে সিসি ক্যামেরার আওতায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে, সেখানে কী করে শিক্ষকরা উত্তরপত্র কর্তন করে। উল্টো অভিযোগ করে তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধা মেমোরিয়াল কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে তাদের কলেজের পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্র টানাটানি, পদার্থ বিজ্ঞান পরীক্ষায় ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে দেয়নি শিক্ষার্থীদের। এ কারনে বিজ্ঞান বিভাগের ৫৬ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে মাত্র ২২ জন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

গাড়ী চালনা শিখতে গিয়ে দু শিক্ষার্থী গুরুগত আহত।

মোয়াজ্জেম হোসেন,পটুয়াখালী জেলা প্রতিনিধি :  কলাপাড়ায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এর পুত্র শিক্ষার্থী মো.সায়েম বন্ধুদের নিয়ে ডিসি পুল’র সরকারী প্রাইভেট কার দুমড়ে মুচড়ে ফেলেছেন। বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে বন্ধুদের নিয়ে কুয়াকাটা ভ্রমন শেষে ড্রাইভারকে পাশে বসিয়ে নিজ হাতে গাড়ী চালনা শিখতে গিয়ে কুয়াকাটা-পটুয়াখালী মহাসড়কের মাষ্টার বাড়ী পয়েন্টে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে এডিসি’র পুত্র সায়েম (২২), ড্রাইভার আমিনুল (৪৫) সহ সায়েম’র এক বন্ধু আহত হন। দুর্ঘটনার পর পর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরন করে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে ডিসি পুল’র সরকারী প্রাইভেট কার (পটুয়াখালী-ঘ-১১-০০২৫) নিয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: হেমায়েত উদ্দীন এর ছেলে সায়েম কুয়াকাটা ভ্রমন শেষে ড্রাইভারকে পাশে বসিয়ে নিজেই ড্রাইভ করা শিখতে ছিল। এসময় গাড়ীর পেছনের চাকা পাংচার হয়ে প্রাইভেট কারটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মহাসড়কের পার্শ্ববর্তী একটি গাছের সাথে ধাক্কা লেগে দুমড়ে মুচড়ে যায়। স্থানীয়রা দুর্ঘটনার পর উল্টে থাকা প্রাইভেট কার থেকে আহতদের টেনে বের করে।
এদিকে দুর্ঘটনার পর পর থানা পুলিশ, উপজেলা প্রশাসন সহ এডিসি সার্বিক স্বয়ং ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আহতদের চিকিৎসার ব্যাবস্থা করেন।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পটুয়াখালীতে সেহাকাঠী ক্লাস্টারের সৌজন্যে শহীদদের স্মরনে বৃক্ষ রোপন সম্পন্ন।।

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি।। পটুয়াখালী সদর উপজেলাধীন সেহাকাঠী ক্লাস্টারভুক্ত ২৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১০৫ জন প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক “বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা ২০১৮” এবং “জাতীয় বৃক্ষরোপন অভিযান ও বৃক্ষমেলা ২০১৮” ও “মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লক্ষ শহিদের স্মরণে  একযোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি” উপলক্ষে দেড় শতাধিক বৃক্ষ রোপন করেন।
১৮জুলাই বুধবার বেলা ১১ঘটিকায় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্লাস্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার শওকত হোসেন হিরনের সফল নেতৃত্বে লোহালিয়া কাকড়াবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপস্থিত থেকে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয়।
এ সময় ৩০ লক্ষ শহীদের আত্নত্যাগ এবং বর্তমান সরকারের কর্মপরিকল্পনার ভূয়সী প্রশংসা করা হয়।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কলাপাড়ায় দক্ষিণ দেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি : পটুয়াখালী জেলাধীন কলাপাড়া উপজেলার চম্পাপুর ইউনিয়নের দক্ষিন দেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ১১ঘটিকায় এ নির্বাচন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। নির্বাচনে মো.মিলন মৃধা ১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে বর্তমান ইউপি সদস্য মো.মহিউদ্দিন বাচ্চু মোল্লা ০৩ভোট পেয়ে পরাজিত হন। নির্বাচন পরিচালনা করেন ধানখালী এম ইউ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.শাহ-আলম।
অভিভাবক সদস্য, দাতা সদস্য সহ মোট ১১টি ভোটের নির্বাচন সম্পন্ন হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা.মেহেরুননেসা নির্বাচন নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সাংবাদিকের কন্যা উর্মি এসএসসিতে গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে

লালমনিরহাটপ্রতিনিধি : নিউজবিজয়২৪.কম-এর প্রকাশক ও সম্পাদক দৈনিক প্রত্যাসার জেলা প্রতিনিধি ফারুক হোসেনের একমাত্র মেয়ে ইশরাত জাহান উর্মি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন দেখছে। সে ভবিষ্যতে বিশ্বমানবতার সেবায় এগিয়ে আসতে চায়। উর্মির বাড়ি লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দক্ষিণ গড্ডিমারী গ্রামে।

উর্মি এবছর এসএসসি পরীক্ষায় হাতীবান্ধা এসএস সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে অংশ নেয় এবং বিজ্ঞান বিভাগ থেকে গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। সে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও জেএসসি পরীক্ষায়ও গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছিল। তার লক্ষ্য, একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার হয়ে সে অসহায় নিরীহ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করবে । উর্মি অবসর সময়ে গল্পের বই পড়ে সময় কাটায়। উর্মি বড় হয়ে মানবতার সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখার যে আকাঙ্ক্ষা লালন করে চলেছে- তা যেন কানায় কানায় পূর্ণ হয় সেজন্য উর্মির বাবাও মা সকল শুভানুধ্যায়ীর দোয়া চেয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

‘ক্লাস পরীক্ষায় খারাপ করায় কলেজছাত্রের আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক:     রাজধানীর তেজগাঁওয়ের মণিপুরী এলাকার একটি ভবন থেকে সৌরভ মণ্ডল (১৮) নামে এক কলেজছাত্রের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল বুধবার রাত ৯টার দিকে সংবাদ পেয়ে তেজগাঁও থানার পুলিশ গিয়ে ভবনের পঞ্চম তলা থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে তেজগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. সোহেল হোসেন বলেন, ‘সৌরভ তেজগাঁও কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল। তাঁর বোন দীপিকা মণ্ডল পুলিশকে জানিয়েছেন, কলেজে ক্লাস পরীক্ষায় খারাপ করায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে সৌরভ। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’

মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাত ১১টায় শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান এসআই।

সৌরভের বাবার নাম সুমন্ত মণ্ডল। মণিপুরী পাড়ার ওই ভবনের ছাদের একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে দুই ভাইবোন থাকতো।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

হাইকোর্টের নির্দেশে খুশি সদ্যপ্রয়াত কলেজছাত্র রাজীবের পরিবার ॥

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি ॥
রাজধানীতে দুই বাসের চাপায় হাত হারানোর পর ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া পটুয়াখালীর বাউফলের দাশপাড়া ইউনিয়নের কৃতিসন্ত্রান ঢাকা তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব হাসানের পরিবারকে ১কোটি টাকা ক্ষতিপূরন দেয়ার হাইকোর্টের নির্দেশে খুশি রাজিবের পরিবার। রায় ঘোষনার পর মঙ্গলবার দুপরে উপজেলার দাশপাড়া গ্রামের বাড়ীতে ছোট মামা মিরাজের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আদালতের রায়ের আমরা খুশী।
তবে এসময়ে রাজীবের মামা মিরাজ আক্ষেপ করে বলেন, জেলা প্রশাসক থেকে চল্লিশ হাজার টাকার চেক পেয়েছে রাজীবের ছোট দুই ভাই। এরপর থেকে আর কোন সহযোগিতা করা হয়নি। এমনকি যারা অনেক কিছু প্রতিশ্রতি দিয়েছিল তাদেরকেও এখন আর খুঁজে পাওয়া যায়না। রাজীবের পরিবারের পাশে এখন আর কেই নেই। বাড়ীতে দুই ভাইয়ের মাথা গোজার মতো কোন ঠাই না খাকায় রাজীবের দুই ছোট ভাইয়ের স্থান এখন ঢাকা একটি হাফেজি মাদরাসায় এতিম খানা। মাঝে মাঝে খালা জাহানারা পারভীনের বাসায় আশ্রায় নিয়ে থাকেন। ক্ষতিপুরনের এই অর্থ পেলে এতিম অসহায় ছোট দুই ভাইকে নিয়ে রাজীব যে স্বপ্ন দেখেছিল তা পুরন হবে।
উল্লেখ্য, ৩ এপ্রিল দুই বাস চালকের বেপরোয়া গাড়ী চালানো শিকার হন রাজীব। দুই বাসের চাপে হাতকাটা পড়ে রাজীবের। মাথায় প্রচন্ড রক্তক্ষনের ফলে ১৬ এপ্রিল সোমবার দিবাগত রাতে রাজীব মারা যান। মঙ্গলবার (৮মে) হাইকোটের বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি একএম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। রায়ের সময় আদালতে রাজীবের দুই ভাই মেহেদী হাসান ও আবদুল্লাহ এবং তাদের খালা জাহানারা পারভীন ও মামা জাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

হাতীবান্ধায় প্রধান শিক্ষক পদ নিয়ে দু”গ্রুপের সংঘর্ষ

লালমনিরহাটপ্রতিনিধি :লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা আমঝোল নিন্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ নিয়ে ওই বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকের মধ্যে দ্বন্দ চলে আসছে।

মঙ্গলবার (১০ মে) দুপুরে প্রধান শিক্ষকের চেয়ার দখল নিয়ে দুই শিক্ষকের মধ্যে পাল্টা-পাল্টি সংর্ঘষে ছাত্র-শিক্ষকসহ উভয় পক্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ১৯৯৯ সালে আমঝোল এলাকার আহম্মেদ হোসেনের পুত্র আবুল হোসেনসহ কয়েকজন মিলে আমঝোল নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। ওই সময় আবুল হোসেন প্রধান শিক্ষক ও আজিজুল ইসলাম অফিস সহকারী হিসাবে নিয়োগ পেয়ে দায়িত্ব পালন করতে থাকে।
২০০৩ সালে অফিস সহকারী আজিজুল ইসলামের পিতা হাজী মোখলেছার রহমান বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি’র সভাপতি নির্বাচিত হন। হাজী মোখলেছার রহমান সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর পরেই সুকৌশলে তার ছেলে অফিস সহকারী আজিজুল ইসলামকে প্রধান শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ দেয়। পুরো বিষয়টি নিয়ে শেষ পযর্ন্ত আদালতে মামলা হয়। উভয় পক্ষ ওই মামলায় পাল্টা-পাল্টি রায়ও পায়। কিন্তু কয়েক বার চেষ্টা করে প্রধান শিক্ষকের চেয়ারে বসতে ব্যর্থ হয় আজিজুল ইসলাম।
মঙ্গলবার দুপুরে অফিস সহকারী আজিজুল ইসলাম নিজেকে প্রধান শিক্ষক দাবী করে বিদ্যালয় গিয়ে প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনের উপর হামলা চালায়। এ সময় প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসে উপস্থিত শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়রা।
এ নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে পাল্টা-পাল্টি সংর্ঘষ হয়েছে। ওই সংর্ঘষে প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন, সহকারী শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, অফিস সহকারী আজিজুল ইসলাম ও তার স্ত্রী নাছিমা বেগম, সহকারী শিক্ষক আইনুল হক, শিক্ষার্থী লাভলু, আতিকুর, মমিনুরসহ উভয় পক্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। খবর পেয়ে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি করান।

প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন জানান, তিনি ওই বিদ্যালয়ের বৈধ প্রধান শিক্ষক। তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে বিদ্যালয়ে হামলা চালানো হয়েছে।
প্রধান শিক্ষকের দাবীদার অফিস সহকারী আজিজুল ইসলাম জানান, তিনি ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলে আদালত তার পক্ষে রায় দিয়েছে। কিন্তু আবুল হোসেন অবৈধ ভাবে চেয়ার দখল করে আছেন।

হাতীবান্ধা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দার জানান, প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেনেই ওই বিদ্যালয়ের বৈধ প্রধান শিক্ষক।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free