ক্যাম্পাস

সরকারি চাকুরেদের জন্য বড় সুবিধার যৌথ স্বাস্থ্যবীমা

ডেস্ক রিপোর্ট : মাসিক ৭০০ টাকার চিকিৎসা ভাতা দেয়ার বর্তমান ব্যবস্থার পরিবর্তে সরকারি কর্মচারীদের আরও বড় সুবিধার যৌথ স্বাস্থ্য বীমার অধীনে আনার কথা ভাবছে সরকার। বিদ্যমান যৌথ স্বাস্থ্য বীমার চাঁদা ৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০০ টাকা করার কথাও ভাবা হচ্ছে। বর্তমান চিকিৎসা ভাতা ও বর্তমান স্বাস্থ্য বীমাকে একীভূত করে নতুন সুবিধার যৌথ স্বাস্থ্য বীমা চালু করা গেলে একজন কর্মচারী বছরে সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকার চিকিৎসা সুবিধা পেতে পারেন। তবে নতুন পরিকল্পনায় এ দুটি পৃথক সুবিধা রাখা হবে, নাকি একীভূত করা হবে—তা নিয়ে পর্যালোচনা ও সুবিধাভোগীদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।

সরকারের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, নতুন আরেকটি বেতনক্রম ঘোষণার আগেই সরকারি কর্মচারীদের বিদ্যমান সুযোগ সুবিধা কাঠামোয় বড় ধরনের সংস্কারের উদ্দেশ্য নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে সরকার। এক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সুবিধাকেই প্রথম বিবেচনায় নেয়া হচ্ছে। বিবেচনায় থাকছে গৃহঋণ ও গাড়ি কেনার ঋণ সুবিধাও।

প্রসঙ্গত, বিদ্যমান বেতনক্রমের সঙ্গে সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য মাসিক ৭০০ টাকা করে চিকিৎসা ভাতা দেয়া হয়। বস্তুত এ টাকায় একটি পরিবারের চিকিৎসা সুবিধা খুব সামান্যই মেটানো সম্ভব। এ বাস্তবতাকে সামনে রেখে সরকার ভাবছে কীভাবে সরকারি চাকরিজীবীদের চিকিৎসা সুবিধা বাড়ানো যায়।
সূত্র জানায়, সরকারের দেয় ৭০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা যৌথ স্বাস্থ্য বীমার বিপরীতে প্রিমিয়াম দাবি হিসাবে পরিশোধ করা হবে। এতে বছরে একজন চাকরিজীবী অন্তত এক লাখ টাকার চিকিৎসা সুবিধা পাবেন। তবে এক্ষেত্রে কিছু শর্ত নির্ধারণ করে দেয়া হতে পারে। যেমন, এই অর্থ নেয়ার প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে চিকিৎসার প্রমাণপত্র দেখাতে হবে।
এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম ইসমাত আরা সাদেক  বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে আলোচনা না করে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে না। সার্বিকভাবে কর্মচারীদের জন্য হিতকর সিদ্ধান্ত গ্রহণে সরকার সম্পূর্ণ আন্তরিক এবং সেক্ষেত্রে কালক্ষেপণও করা হবে না।
অন্যদিকে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বর্তমানে যে যৌথ স্বাস্থ্য বীমা চালু আছে তাতে ৫০ টাকা করে চাঁদা নেয় সরকার। কর্মচারীদের বেতন দেয়ার সময় এ টাকা কেটে রাখা হয়। নতুন যৌথ স্বাস্থ্য বীমা চালুর ক্ষেত্রে চিকিৎসা ভাতা ও যৌথ বীমা কর্মসূচিকে একীভূত করা হলে কর্মচারীদের দেয় ৭০০ টাকার চিকিৎসা ভাতার সঙ্গে ৫০ টাকা বীমার চাঁদার পরিবর্তে আরও ১৫০ টাকা বাড়িয়ে ২০০ টাকা করা হতে পারে। এই দুই খাতের টাকা এক করে প্রিমিয়াম দেয়া হলে এর পরিমাণ দাঁড়াবে ৯০০ টাকা। আর ৯০০ টাকা প্রিমিয়াম দেয়া হলে একজন কর্মচারী বছরে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা সুবিধা পেতে পারেন।

বর্তমানে চাকরিরত অবস্থায় কারো মৃত্যু হলে তার উত্তরাধিকারীকে বিদ্যমান যৌথ স্বাস্থ্য বীমার খাত থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা দেয়া হয়। যৌথ বীমা ব্যবস্থার সংস্কার করা হলে এ টাকার পরিমাণ দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ বেড়ে যাবে। আর এক্ষেত্রে সরকারকে অতিরিক্ত অর্থের যোগান দিতে হবে না।
গৃহঋণ ও গাড়ির ঋণ:বর্তমানে সরকারের যুগ্ম সচিব এবং তদূর্ধ্ব কর্মকর্তাদের গাড়ি কেনার জন্য এককালীন ২০ লাখ টাকা ঋণ দেয়া হয়। কিন্তু সহকারী সচিব থেকে উপসচিব পর্যন্ত কর্মকর্তাদের জন্য এই ঋণের পরিমাণ মোটরসাইকেলের জন্য ৩৫ হাজার টাকা এবং গাড়ির জন্য ১ লাখ ২০ টাকা।
কর্মকর্তারা বলছেন, এটি অত্যন্ত হাস্যকর ও লজ্জাকর। এই টাকা দিয়ে মোটরসাইকেল হয় না। আর ১ লাখ ২০ টাকা দিয়ে কোন কোন গাড়ির সবচেয়ে কমদামি যন্ত্রাংশ কেনা যেতে পারে।
অপরদিকে গৃহঋণ বাবদ বর্তমানে দেয়া হয় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা। এই টাকা দিয়ে ছোটখাট টিনের বাড়ি তৈরিও সম্ভব নয়। এর সংস্কার জরুরি বলে মনে করেন সরকারি চাকরিজীবীরা। তবে এসব নিয়ে এক্ষণি সিদ্ধান্ত হচ্ছে না বলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়সূত্রে জানা গেছে।ইত্তেফাক

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

গাইবান্ধায় পিকনিকের বাস খাদে পড়ে নিহত ২, আহত ২৫

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: এবার গাইবান্ধায় মাদরাসা শিক্ষার্থীদের পিকনিকের বাস খাদে পড়ে অন্তত দু’জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো কমপক্ষে ২৫ জন। নিহতরা হলো গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া গ্রামের সুজা মিয়ার ছেলে রাকিব হাসান (১৪) ও আহসান আলীর ছেলে মোকছেদ মিয়া (১৪)। রাকিব ও মোকছেদ ফুলছড়ি উপজেলার খবিরিয়া দাখিল মাদ্রাসার দশম ও সপ্তম শ্রেণির ছাত্র।

সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে গাইবান্ধা-বালাসি সড়কের পুলবন্দির ফলিয়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ অতিদ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল ৮টার দিকে খবিরিয়া দাখিল মাদ্রাসার ১০৭ জন শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীরা দু’টি বাসে দিনাজপুর জেলার বিনোদন কেন্দ্র ‘স্বপ্নপুরী’তে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে একই দিন রাত সাড়ে ৯টায় পুলবন্দির ফলিয়া নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস (ঢাকা-মেট্রো-জ-২৮৯৩) উল্টে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে বাসের চাপা পড়ে ঘটনাস্থলে রাফিক ও হাসান নিহত হয়। আহতদের গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে পাঁচ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোশারফ হোসেন দু’জন নিহত ও ২৫ জন আহত হবার কথা নিশ্চিত করেছেন। জেলা প্রশাসক এহছানে এলাহী গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি যশোরের বেনাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে মেহেরপুরের মুজিবনগরে পিকনিকে গিয়ে ফেরার পথে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে শিক্ষার্থীরা। যশোরের চৌগাছা উপজেলার ঝাউতলায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে শিক্ষার্থীবাহী বাসটি পুকুরে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই সাত শিক্ষার্থী নিহত হয়। আহত হয় অর্ধশত।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চট্টগ্রামে বিএন স্কুলের পিকনিক বাস উল্টে আহত ২৩

রাঙামাটি প্রchittogong-1nতিনিধি: রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় পিকনিকের বাস উল্টে বিএন স্কুল এন্ড কলেজের ২৩ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে চট্টগ্রাম শহর থেকে বিএন স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বাসটি কাপ্তাই আসার পথে ব্যাঙছড়ি এলাকায় পৌঁছালে একটি সিএনজিকে সাইট দিতে গিয়ে রাস্তার উপর বাসটি উল্টে যায়।

কাপ্তাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলায়েত হোসেন জানান, এ ঘটনায় প্রায় ২৩ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

তাত্ক্ষণকিভাবে আহতদের উদ্ধার করে নৌ-বাহিনী ও স্থানীয়দের সহায়তায় কাপ্তাই শহীদ মোয়াজ্জেম নৌ-ঘাঁটির চিকিত্সাকেন্দ্র, চন্দ্রঘোনা মিশন হাসপাতাল এবং বড়ইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সা দিয়ে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রধান শিক্ষকদের পদমর্যাদা ও বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা ৯ মার্চ

ডেস্ক রিপোর্ট : দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের পদমর্যাদা দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল এক ধাপ বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হবে আগামী ৯ মার্চ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ঘোষণা দেবেন।
দেশের প্রায় ৬০ হাজার প্রধান শিক্ষক ও সাড়ে তিন লাখ সহকারী শিক্ষক রয়েছে বলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘প্রধান শিক্ষকদের পদমর্যাদা দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল বৃদ্ধির বিষয়টি আমরা চূড়ান্ত করে রেখেছি। আগামী ৯ মার্চ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ঘোষণা দেবেন।’

আগের ৩৭ হাজার ৬৭২টি সরকারি বিদ্যালয়ের পাশাপাশি নতুন সরকারি হওয়া প্রায় ২৩ হাজার বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা এই সুবিধা পাবেন। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির মর্যাদার পাশাপাশি এর  সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বেতনও বাড়বে। প্রশিক্ষণবিহীন সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল ৪ হাজার ৭০০ টাকা থেকে বেড়ে ৪ হাজার ৯০০ টাকা এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের ৪ হাজার ৯০০ টাকা থেকে বেড়ে ৫ হাজার ২০০ টাকা হচ্ছে।

প্রাথমিক শিক্ষকদের পদমর্যাদা ও বেতন বৃদ্ধির বিষয়টি অনেক দিন ধরে আলোচিত হচ্ছিল। দাবি আদায়ে আন্দোলনেও নামে শিক্ষকরা। এরপর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় দাবি পূরণে উদ্যোগ নেয়। কিন্তু জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে এ সংক্রান্ত প্রস্তাবে অনুমোদন দিচ্ছিল না। গত মহাজোট সরকারের শেষ সময়ে এসে জটিলতা কেটে যায়। অর্থ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পাওয়া যায়। তখন এ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন আফছারুল আমীন। সময় না থাকায় সবকিছু চূড়ান্ত করা সম্ভব হয়নি তখন।

১২ জানুয়ারি নতুন সরকার গঠন করা হয়। মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান মোস্তাফিজুর রহমান। সবকিছু চূড়ান্ত হওয়ার পর এখন প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে এ বিষয়ে ঘোষণা দেয়া হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

খুলনায় সড়ক দুর্ঘটনায় ভর্তি পরীক্ষার্থীসহ নিহত ৩

খুলনা প্রতিনিধি : মহানগরীর আরংঘাটা থানা এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে ট্রাক ও প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক ভর্তি পরীক্ষার্থীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো তিনজন। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মোস্তফা মোড়ের রুপসা বাইপাস সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন ভর্তি পরীক্ষার্থী জ্যোতি (২২), প্রাইভেটকারচালক জাকারিয়া (২৭) ও জ্যোতির খালাত ভাই (নাম জানা যায়নি)। আহতরা হলেন জ্যোতির মা, বাবা ও অজ্ঞাত আরো একজন। হতাহতদের সবাইকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাখা হয়েছে।ROAD এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আহতদের কারো জ্ঞান ফেরেনি।

জানা যায়, যশোর ঝিকরগাছা থেকে সকালে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য জ্যোতি তার পরিবারের সঙ্গে প্রাইভেটকারে রওয়ানা দেয়। প্রাইভেটকারটি খুলনা থেকে রুপসা বাইপাস সড়ক দিয়ে আটরার মোড়ের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে ওই প্রাইভেটকারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই জ্যোতি, জ্যোতির খালাত ভাই ও প্রাইভেটকারচালক জাকারিয়ার মৃত্যু হয়। আহত হন জ্যোতির মা, বাবা ও অজ্ঞাত আরো একজন। আহতদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের লাশ হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরংঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু মুসা খন্দকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সাকিব ৩ ম্যাচ নিষিদ্ধ, ৩ লাখ টাকা জরিমানা

ঢাকা: ক্যামেরার সামনে অশোভন আচরণ sports-21_26784_26787করায় ক্রিকেটার সাকিব আল-হাসানকে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ এবং ৩ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড-বিসিবি।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট ম্যাচ চলাকালে ড্রেসিংরুমে বসে অশালীন অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।  দেশ সেরা এই ক্রিকেটারের এমন আচরণে রীতিমতো ক্ষুব্ধ ও মর্মাহত দেশের ক্রিকেট প্রেমীরা।

বাংলাদেশ ক্রিকেটে সাকিব এক অনুকরণীয় আদর্শ। কিন্তু ক্রিকেট ক্যারিয়ারে বেশ কিছু বিতর্কিত ঘটনা ঘটিয়ে বিস্তর সমালোচনারও জন্ম দিয়েছেন এই অলরাউন্ডার। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের ইনিংস চলাকালে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরার পর সাকিব শরীরে একটি তোয়ালে জড়িয়ে সতীর্থদের খেলা দেখতে থাকেন।

এ সময় ক্যামেরায় তাকে বেশ কয়েক বার ফোকাস করা হয়। কিন্তু তৃতীয়বার যখন তাকে ফোকাস করা হয় তখন তিনি এমন অশালীন অঙ্গভঙ্গি করেন যা দেখে হতবাক হয়ে যান ক্রিকেটপ্রেমীরা।

এই অশোভন আচরণের ব্যাখা এবং করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতেই এক জরুরি বৈঠকে বসে বিসিবির কর্মকর্তারা। শুক্রবার এক মেইলবার্তায় বিসিবি মারফত জানানো হয়। সাকিব কোড অব কন্ডাক্ট ভঙ্গ করেছেন। ক্রিকেটের নিয়ম বহির্ভূত কাজ করায় তাকে আগামী তিনটি একদিনের (ওয়ান ডে) ম্যাচ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন মেইল বার্তায় জানিয়েছেন, সাকিব নিজের অপরাধ স্বীকার করে অনুতপ্ত হয়েছেন। বিসিবি তাকে সর্তক করে দিয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিগগিরই ৩৫তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি

ঢাকা: download-53৩৫তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে বিভিন্ন ক্যাডারে এক হাজার ৭৪৯ জন কর্মকর্তা নিয়োগের লক্ষ্যে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) দ্রুত বিজ্ঞপ্তি জারি করবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক।

রোববার দশম জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে সংসদ সদস্য মো. রুস্তম আলী ফরাজীর এক প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী সংসদকে এ তথ্য জানান।

ইসমাত আরা বলেন, ‘চলতি ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ৩২তম বিসিএস (বিশেষ) এর মাধ্যমে এক হাজার ৬২৭ জন কর্মকর্তাকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ৩৩তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে পিএসসি কর্তৃক সুপারিশকৃত আট হাজার ৩৭৭ প্রার্থীকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের কার্যক্রম চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে এবং ৩৪তম বিসিএস’র মাধ্যমে নিয়োগের প্রিলিমিনারী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।’

এছাড়া বর্তমান অর্থবছরে দ্বিতীয় শ্রেণীতে ১৫ জন, তৃতীয় শ্রেণীতে ৭০ জন ও চতুর্থ শ্রেণীতে ২৬ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগের লক্ষ্য রয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

আরেক সংসদ সদস্য শিরিন আখতারের এক প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে জনপ্রশাসনে নারী ও পুরুষের হার এক অনুপাত তিন দশমিক ৪৬। সরকারি চাকরিতে সাধারণভাবে সরাসরি নিয়োগে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর পদের ক্ষেত্রে মহিলা কোটা ১০ ভাগ এবং তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর পদের ক্ষেত্রে ১৫ ভাগ নির্ধারিত রয়েছে।’

এই কোটার বাইরেও প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ‘মেধা কোটায়’ সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে নারীদের চাকরি পাওয়ার সুযোগ রয়েছে বলেও জানান তিনি।

নারীদের জন্য সরকারি কোটা বৃদ্ধির বিষয়ে সরকারের আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই বলেও জানান ইসমাত আরা।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঝিনাইদহের মোবারকগঞ্জ চিনি কলের ১৮ ঘন্টা আখ মাড়াই বন্ধ ৫০ লাখ টাকা লোকসান

আহমেদ নাসিম আনসারী,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ২৮ জানুয়ারি -২০১৪ :মিল কর্তৃপক্ষের অবহেলা অনিয়ম ও যান্ত্রিক ত্রুটির কারনে ঝিনাইদহের mail.google.comমোবারকগঞ্জ চিনি কলের ১৮ ঘন্টা ধরে আখ মাড়াই বন্ধ রয়েছে। যার ফলে চিনিকলের   ৫০ লক্ষ টাকা লোকসান হয়েছে। চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেন জানান, গতকাল রাত ৮ টা থেকে চলতি মৌসূমের আখ মাড়াই এর টারবাইন মেশিন নষ্ট হওয়ার কারনে চিনি কলের আখ মাড়াই বন্ধ রয়েছে যার কারনে জেলার ৮টি সাবজোনের অধিনে ৫০ টি সেন্টারে হাজার হাজার চাষীর আখ পড়ে থেকে নষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে । ফলে চাষীদের আখ শুখিয়ে নষ্ঠ হচ্ছে  চিনির উৎপাদন কম হওয়ার কারনে মিলকর্তৃপক্ষের ৫০ লক্ষ টাকার লোকসান হয়েছে। জেলা আখ চাষীরা অভিযোগ করেছেন মিল কর্তৃপক্ষের অবহেলা  অদক্ষতা নি¤œ মানের যন্ত্রাংশ  এর কারনে এমন ঘটনাটি ঘটেছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দাঁড় করানোয় নিষেধাজ্ঞা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষার্থীদের লাইনে দাঁড়ানো চিরতরে বন্ধ করার পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

ডেস্ক:20140124100400_52e1bad4f1d3b-Shariar-Alam_Short_Interview-300x211সম্প্রতি বিভিন্ন এলাকায় এমপি-মন্ত্রীদের সংবর্ধনায় স্কুলের ছেলে-মেয়েকে বাধ্যতামূলক হাজির করানো হচ্ছে। রোদের মধ্যে ক্ষুধার্ত স্কুল শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দাঁড় করিয়ে রাখার খবর প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন গণমাধ্যমে। রাজশাহীতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও দেখা গেছে এমন দৃশ্য। এতে নাখোশ হয়েছে প্রতিমন্ত্রী।

রোববার তিনি তার ফেইসবুক স্ট্যাটাসে এ বিষয়ে জানিয়েছেন, আমি সব সময় স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের অসময়ে বা অনির্ধারিত উপস্থিতির ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করি। গত সপ্তাহের কয়েকটা সংবাদ পড়েই বুঝেছিলাম স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের উপস্থিতি আলাদাভাবে আবার নিষেধ করে দিতে হবে, তা করাও হয়েছিল। কিন্তু বাঘা হাইস্কুলের শিক্ষার্থীরা তাদের সীমানা প্রাচীরের ভেতরে দুপুর ৩টার পর থেকে অবস্থান নেয়। আমি সভা স্থলে এসেই তাদের চলে যেতে বলি। আমি কখনই এই ধরণের কর্মকান্ড সমর্থন করিনা, করবও না।

তিনি বলেন, সমস্যা হয়ে যায় যখন স্কুলগুলো নিজেরা অতিউৎসাহী হয়ে অথবা কোন দাবি দাওয়ার জন্য এগুলো করেন। স্কুলের শিশু-কিশোরদের এমন রাজনৈতিক ব্যবহারের বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি লিখেছেন, আমার দপ্তর থেকে জেলা প্রশাসকের দপ্তর, শিক্ষা দপ্তর এবং দলের কাছে এগুলো চিরতরে বন্ধের জন্য এ নির্দেশনা পাঠানো হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

দুই চিকিৎসক, এক স্বাস্থ্য সহকারী বরখাস্ত

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চবি শিক্ষকের বাড়িতে চুরি

বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার ভোরের কোনো সময়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানার মুরাদপুরের মোহাম্মদপুরে কম্পিউটার বিজ্ঞানের সহকারী অধ্যাপক রেজাউল করিcuমের বাড়িতে এই চুরি হয়।

তার বাসা থেকে চোররা নগদ ১ লাখ টাকা ও ১০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার চুরি করে বলে তার দাবি।

মুরাদপুরে পৈত্রিক বাড়ি কুলসুম ভিলার দোতলায় সপরিবারে থাকতেন রেজাউল। চুরির সময় তার ফ্ল্যাটে কেউ ছিল না।

এই শিক্ষক  বলেন, চোররা গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে স্টিলের আলমিরা ভেঙ্গে নগদ টাকা, অলঙ্কার, দুটি মোবাইল ফোনসেট নিয়ে যায়। পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

পাঁচলাইশ থানার ওসি আবু জাফর মো.ওমর ফারুক  বলেন, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। এই ঘটনায় শিক্ষক রেজাউল করিম থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করবেন বলে জানিয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পরকীয়ায় ফেঁসে গেলেন রাবি শিক্ষক গ্রেপ্তার ৩

রাবি প্রতিনিধি: মোবাইল ফোনে প্রেমালাপ, বন্ধুত্ব, অতঃপর ওই বাসায় অবাধ যাতায়াত। কিন্তু ওই সব যে ছিল সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের ফাঁদ তা বুঝে উঠতে পারেননি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক মুন্সী মুনজুরুল হক। যখন বুঝলেন তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে। অবশেষে ওই প্রতারক চক্রের ফাঁদ থেকে রক্ষা পেতে বোয়ালিয়া থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় গতকাল মঙ্গলবার ভোররাতে সেই মেয়েসহ প্রতারণা চক্রের তিনজনকে আটক করেছে বোয়ালিয়া পুলিশ। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্য8105_b3দের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

গত ১৬ই জানুয়ারি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই শিক্ষক বোয়ালিয়া থানায় একটি প্রতারণা করে অপহরণ ও চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেছিলেন। এই মামলায় আটকৃত তিনজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- হীরা (২১), ফাহিম (৩০) ও তারেক (৩৫)। এরা সবাই বিভিন্ন সময় ধনাঢ্য ব্যক্তিদের সঙ্গে প্রতারণা করে টাকা আদায় করতো বলে জানিয়েছে পুলিশ। আর এদেরকে সহায়তা করে এক শ্রেণীর নামধারী সাংবাদিক ও কথিত মানবাধিকারকর্মী।
পুলিশ ও বিভিন্ন সূত্রে জা
না গেছে, রাজশাহী মহানগরীর শিরোইল কলোনির মঠপুকুর এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে হীরা নামের ওই মেয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বসবাস শুরু করে। এক সন্তানের জননী হীরার বিয়ে হয়েছিল নওগাঁর আত্রাইয়ে। তবে স্বামীর সঙ্গে তার যোগাযোগ নেই এখন। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান গেয়ে সংসার চালায়। এছাড়া ধনী পরিবারের ছেলেদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করার একটি সিন্ডিকেটের সাথে জড়িত হীরা। এই হীরার বান্ধবী শারমিনের স্বামী তারেক প্রতারণা সিন্ডিকেটেও মূল হোতা। যশোরের ছেলে তারেক রাজশাহীতে এসে এখন মেয়ে দিয়ে পুরুষদের ফাঁদে ফেলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
আরও জানা গেছে, তারেকের পরিকল্পনা মতো হীরা কথা বলা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই শিক্ষকের সঙ্গে। ওই শিক্ষককে ফোনে কথা বলার মাধ্যমে দুর্বল করার চেষ্টা করে। এভাবে প্রায় মাস খানেক কথা বলার পর শিক্ষকের সঙ্গে হীরার বন্ধুত্ব হয়। হীরা একদিন শিক্ষককে রাজশাহী শ
হরে দেখা করার জন্য ডাকে। শিক্ষক চলে আসেন। সাহেববাজারে দেখা হয় দুজনের। এরপর হোটেল ওয়ারিশনে লাঞ্চ। বন্ধুত্ব জমে ওঠে।
গত ১৬ই ডিসেম্বর হীরা রাবির সেই শিক্ষককে বাসায় ডাকে। আগপাছ চিন্তা না করে রূপের মোহে পড়ে শিক্ষক চলে যান হীরার বাসায়। আগে থেকেই সেই বাসায় ছিল তারেক ও সহযোগীরা। এবার শিক্ষকের কাপড়-চোপড় খুলতে থাকে মেয়েটি। আর তা ক্যামেরায় ধারণ করে তারেক ও ফাহিম। পরে ছবি তুলে নিয়ে শিক্ষককে ছেড়ে দেয়া হয়। পরে ওই দিন রাতে তিনি বোয়ালিয়া থানায় প্রতারণা করে অপহরণ, জিম্মি ও চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন।
অন্যদিকে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৬ই জনুয়ারি বেলা ১১টার দিকে সাহেব বাজারে যাওয়া উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয় গেট থেকে অটোরিকশায় ওঠেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মুন্সী মুনজুরুল হক। কিন্তু অটোটি উৎসব হল মোড়ে এসে বাজারে গণ্ডগোল হচ্ছে এ অজুহাত দেখিয়ে দোসর মণ্ডলের মোড়ে দিকে এগোতে থাকে। এ সময় তিনি কারণ জানতে চাইলে অটোতে থাকা অপর দুজন তাদের জোর করে শিরোইল কলোনির মঠপুকুর এলাকায় ‘হ্যাপী লজ’ নামের একটি দোতালা বাসায় নিয়ে গিয়ে জোর করে বিবস্ত করে। পরে পাশের রুম থেকে একজন বিবস্ত্র মেয়ে নিয়ে এসে তাদের স্থির ছবি তোলে রাখে এবং তার কাছ থেকে ১৬ লাখ টাকা দাবি করে। তা না হলে তার বিবস্ত্র ছবি অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশ করা হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। এ সময় তার কাছে টাকা না থাকায় তার মোবাইল ফোনটি নিজেদের কাছে রেখে ওই নম্বরে যোগাযোগ করতে বলে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম  জানান, ওই সংঘবদ্ধ চক্র ওই শিক্ষককে জিম্মি করে ১৬ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। ওই সময় শিক্ষক ওদের হাত থেকে রক্ষা পেতে বলেন যে, তার কাছে অত টাকা নেয়। তিনি বড় জোর ২ লাখ টাকা জোগাড় করে দিতে পারবেন। পরে ২ লাখ টাকা ও ৪ লাখ টাকার চেক দেয়া হবে- এ শর্তে তারা তাকে মুক্তি দেয় এবং তার ব্যবহৃত একটি মোবাইল তাদের কাছে রেখে দেয় টাকা আদায়ের জন্য যোগাযোগের কাজে ব্যবহারে উদ্দেশ্যে। পরে ওই দিন রাতে মুক্ত হয়ে বোয়ালিয়া থানায় এসে তিনি প্রতারণা, অপহরণ করে জিম্মি করে চাঁদাবাজির মামলা করেন। ওই মামলায় মঙ্গলবার ভোর রাত ৪টার দিকে শিরোইল মঠপুকুর এলাকার বাসা থেকে অভিযান চালিয়ে প্রথমে হীরাকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং তার সঙ্গে থাকা ক্যামেরা ও ছবি উদ্ধার করা হয়।  পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তারেক ও ফাহিমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান জিয়া জানান, ঘটনার পর থেকে মানবাধিকার কর্মী পরিচয় দিয়ে আতোয়ার রহমান আতিক বারবার ওই শিক্ষককে টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। টাকা না দেয়া হলে শিক্ষকের বিবস্ত্র ছবি অনলাইন পত্রিকায় দেয়া হবে বলেও হুমকি দেয় আতিক। এ ঘটনার পর থেকে প্রতারণার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আটকে অভিযানে নামে পুুলিশ। গত রাতে বিভিন্ন বাসায় অভিযান চালিয়ে হীরা, ঘটনার হোতা তারেক ও ফাহিমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। কিন্তু পলাতক থাকায় আতিককে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে তাকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি জিয়াউর রহমান।
এদিকে গ্রেপ্তার হীরার মা জোলেখা ওরফে বেবী জানিয়েছেন, তার মেয়ে একজন গায়িকা। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান গেয়ে সংসার চালায় সে। স্বামী যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন করলে নওগাঁর আত্রাই থেকে তার মেয়ে হীরা একমাত্র ছেলে সন্তানকে নিয়ে রাজশাহীতে বসবাস করছে। এ ঘটনায় তার মেয়েকে ফাঁসানো হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।
অপরদিকে হীরা দাবি করেছে, সে ওই শিক্ষককে ফোনে ডেকে বাসায় নিয়ে গিয়েছিল এ কথা সত্য। তারেকের কথামতো সে শুধু অভিনয় করেছে। শিক্ষককে ফাঁসানোর এ ঘটনার সঙ্গে সে জড়িত নয় বলে দাবি করে। তারেক বান্ধবী শারমিনের স্বামী হওয়ায় তারেকের কথা সে রেখেছে। কিন্তু এটা নিয়ে যে শিক্ষককে ব্যাকমেইল করে টাকা আদায় করা হবে তা সে জানতো না বলেও দাবি করে হীরা।
সে আরও জানায়, ওই শিক্ষক তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছেন। শুধু তাই নয়, ওই শিক্ষক হীরাকে জানিয়েছিল, তার স্ত্রী শারীরিকভাবে অক্ষম। তাই তিনি হীরার কাছে এসেছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বাংলাদেশে মানবাধিকার মুখ থুবড়ে পড়েছে

২০১৩ সালে বাংলাদেশের মানবাধিকার উল্টো দিকে ধাবিত হয়েছে। নাগরিক সমাজ, মিডিয়া আর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ওপর কঠোর অভিযান চালিয়েছে সরকার। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ‘বিশ্ব প্রতিবেদন-২০১৪’ শীর্ষক পর্যালোচনায় এভাবে উঠে এসেছে বাংলাদেশের মানবাধিhuman_rights_watch_logoকার চিত্র। সংস্থাটি গতবছরের বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সহিংস বিক্ষোভ আর প্রতিরোধযোগ্য একাধিক কারখানা বিপর্যয়ে বাংলাদেশের পণ্ড এক বছর হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

এতে আরও বলা হয়, প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে কতৃপক্ষ প্রায়ই সহিংস এবং অবৈধ পন্থা অবলম্বন করেছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে বেআইনি মৃত্যুর বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগের বিষয়ে কোনপ্রকার তদন্তকাজ শুরু করতে ব্যর্থ হয়েছে কতৃপক্ষ। কারখানা বিপর্যয়ে প্রাণহানীর একাধিক ঘটনার পর শ্রমিকদের অধিকার রক্ষার্থে গৃহিত পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক মানদণ্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়নি।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া বিষয়ক পরিচালক ব্রাড এডামস বলেন, বাংলাদেশের জন্য গত বছর ছিল মর্মান্তিক। রাজনৈতিক অস্থিরতার ফলে প্রতিবাদকারী, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য আর সাধারণ মানুষেরা অনর্থক প্রাণ হারিয়েছে।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঝিনাইদহে এক ইজিবাইক চালককে অপহরণের পরকুপিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা

আহমেদ নাসিম আনসারী,ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ২০ জানুয়ারি -২০১৪ :ঝিনাইদহে রাসেল শেখ (২০) নামে এক ইজিবাইক চালককে অপহরণের পর কুপিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। আজ মঙ্গলবার সকালে ঝিনাইদহ পৌর এলাকার উদয়পুর গ্রামের মাঠে তামাক ক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত রাসেল সদর উপজেলার কুমড়াবাড়ীয়া গ্রামের ওহিদুল শেখের  ছেলে। নিহতেmail.google.comর শরীরে বিভিন্ন স্থানে কোপের এবং মুখমণ্ডল সহ শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেওয়ার  চিহ্ন রয়েছে। ইজিবাইকের ব্যাটারি ও গাড়ি নেয়ার জন্য তাকে হত্যা করা হতে পারে বলে পুলিশের ধারণা।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, সকালে উদয়পুর গ্রামের মাঠে তামাক ক্ষেতে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। দুর্বৃত্তরা প্রথমে তাকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ও পরে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায়।
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, সোমবার সকাল ৯টার দিকে ভাড়ায় চালিত ইজিবাইক নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয় রাসেল। সন্ধ্যার পর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। রাতেও সে বাড়িতে ফেরেনি। ইজিবাইকের ব্যাটারি ও গাড়ি নেয়ার জন্য দুর্বৃত্তরা তাকে অপহরণের পর রাতে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে। নিহত রাসেলের ইজিবাইকটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে ইজিবাইকে ব্যাটারি পাওয়া যায়নি। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।
এদিকে হত্যাকাণ্ডের পর লাশ পোড়ানোর ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। সকাল থেকে শত শত মানুষ নিহতের লাশ দেখতে হাসপাতালে ভিড় করে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Responsive WordPress Theme Freetheme wordpress magazine responsive freetheme wordpress news responsive freeWORDPRESS PLUGIN PREMIUM FREEDownload theme free