Author Archives: editor

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় শতাধিক ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা

রাজশাহী : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের শিক্ষার্থীদের গড়া শতাধিক ভাস্কর্য ভাঙচুর করে উল্টে ফেলে গেছে দুর্বৃত্তরা ।

শিক্ষকদের কক্ষের সামনে এবং আশপাশে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটানো হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অফিস সহকারী এ দৃশ্য দেখতে পেয়ে শিক্ষকদের খবর দেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন চারুকলা বিভাগের দুজন শিক্ষ। তাঁরা হলেন সিরামিক অ্যান্ড স্কালপচার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কনক কুমার পাঠক এবং গ্রাফিকস ডিজাইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মনির উদ্দীন টভেল।

তাঁরা বলেন, শিক্ষার্থীদের গড়া এ ভাস্কর্যগুলো মাঠে রাখা ছিল। কে বা কারা এক রাতের মধ্যে এ কাণ্ড ঘটিয়েছে। শতাধিক ভাস্কর্য মাঠে উল্টে ফেলে রেখে গেছে। আর কিছু ভাস্কর্য শিক্ষকদের কক্ষের দরজার সামনে রেখে গেছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিক প্রধান শিক্ষক বেতন ও পদায়ন নিয়ে অসন্তোস। প্রধান শিক্ষক সমিতির ২জন প্রতিনিধি রাখার দাবী

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর প্রধান শিক্ষক সংকট দূর করতে ৩৪তম বিসিএস থেকে ৮৯৮ জন নন-ক্যাডারকে নিয়োগ করছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। তবে নিয়োগ সম্পন্ন হওয়ার আগেই তাদের পদায়ন ও বেতন নিয়ে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।
অন্যদিকে, বর্তমানে যারা এ পদে নিয়োজিত রয়েছেন তারা দ্বিতীয় শ্রেণির বেতন ও মর্যাদা না পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির মর্যাদা ও সহকারী শিক্ষকদের সঙ্গে বেতন বৈষম্য দূর করতে একটি কমিটি গঠন করা হলেও তাতে আশ্বস্ত হতে পারছেন না নতুন বা পুরাতন কেউই।
এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার বলেন, ‘শিক্ষকদের জন্য ভালো কিছু অবশ্যই করবো। কারণ প্রাথমিক শিক্ষাকে উন্নত করতে চাই। সে কারণে তাদের দাবি-দাওয়া শুনেছি। আর যারা ৩৪তম বিসিএস থেকে আসছেন তাদের বিষয়টি নিয়েও কাজ চলছে, নিশ্চয়ই ভালো কিছু হবে।’
প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়া ৩৪তম বিসিএসের একাধিক প্রার্থী জানান, প্রাথমিকের পদটি দ্বিতীয় শ্রেণি করা হলেও এখনও বেতন বা মর্যাদা কোনটিই দেওয়া হয়নি। নিয়োগের আগেই যদি তা ঠিক করা না হয়, ক্ষোভ মনে রেখেই চাকরিতে যোগ দেবেন সবাই।
এছাড়া, আগের প্রাথমিক শিক্ষকদের নিয়ম মেনে ৩৪তম বিসিএস থেকে আসা ৮৯৮ জন নিয়োগ পাবেন গ্রামের বাড়ির কোনও স্কুলে। যারা এখন স্বামী অথবা স্ত্রীর সঙ্গে ঘর সংসার পেতেছেন অন্যখানে। এ কারণে অনেকেই চাকরি পরে ছেড়ে দিতে পারেন অথবা মনে চরম ক্ষোভ নিয়েই চাকরিতে যোগ দেবেন। এতে শিক্ষার মানোন্নয়নে সরকারের লক্ষ্য অর্জন খানিকটা হলেও ব্যহত হবে।
এদিকে, বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সাধারণ সম্পাদক এস এম সাইদুল্লাহ বলেন, ‘২০১৪ সালের ৯ মার্চ প্রধান শিক্ষকের পদটি দ্বিতীয় শ্রেণির ঘোষণা করলেও পদমর্যাদা ও বেতন কোনটিই পাওয়া যায়নি। হাইস্কুলের শিক্ষকসহ দ্বিতীয় শ্রেণির অন্য সরকারি কর্মকর্তারা যে সুবিধা পান, আমাদের তা দেওয়া হয়নি। আজ অবধি গেজেটেড কর্মকর্তা হিসেবে প্রধান শিক্ষকদের নাম গেজেটভুক্ত হয়নি। যে কারণে আমাদের বেতনের জন্য থানা শিক্ষা অফিসারের জন্য বসে থাকতে হয়।’
মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকরা বর্তমানে বেতন পাচ্ছেন ১১ গ্রেডে এবং প্রশিক্ষণ ছাড়া প্রধান শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছেন ১২ গ্রেডে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের বেতন স্কেল ১১ হাজার ৩০০ টাকা। আর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছেন ১৪ গ্রেডে এবং প্রশিক্ষণ ছাড়া শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছেন ১৫ গ্রেডে। সেই হিসেবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকরা বেতন পাচ্ছেন ১০ হাজার ২০০ টাকা স্কেলে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের চেয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা বেতন কম পাচ্ছেন মাত্র এক হাজার ১০০ টাকা। দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা হিসেবে মর্যাদা ও বেতন কোনটিই পাচ্ছেন তারা।
জানা গেছে, মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ থাক বা না থাক গ্রেড একটি। অথচ প্রাথমিকে দ্বিতীয় শ্রেণি করা হলেও গ্রেড দু’টি। ২০১৩ সালে জাতীয়করণ হওয়া প্রায় ২৬ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ১৪ থেকে ১৫ হাজার বিদ্যালয়েই প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষকরা প্রধান শিক্ষক পদে চলতি দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণের ক্ষেত্রে ৬৫ শতাংশ সহকারী শিক্ষকের মধ্য থেকে পদোন্নতি এবং ৩৫ শতাংশ নতুন করে পরীক্ষা নিয়ে পূরণ করা হয়। এ অবস্থায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ পূরণ করতে এবং উন্নত শিক্ষা নিশ্চিত করতে গত মার্চ মাসে পাঁচ হাজার ৭৯৭ জন প্রধান শিক্ষক নিয়োগের চাহিদাপত্র পিএসসিকে দেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।
নিয়োগের আগেই বর্তমানে কর্মরত প্রধান শিক্ষকরা তাদের দাবি আদায়ে আন্দোলন নামেন। তাদের আন্দোলনের ফলে গত ১০ এপ্রিল অর্থ মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে উদ্ভূত সমস্যা সমাধানে অর্থ মন্ত্রণালয়ে সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুনকে প্রধান করে ৭ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির আরেক সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সাধারণ সম্পাদক স্বরুপ দাস বলেন কমিটিতে ২ জন শিক্ষক প্রতিনিধিকেও অন্তভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। আমরা প্রধান শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে ২ জন প্রতিনিধিকে রাখার জন্য ইতিমধ্যে আবেদন দিয়েছি। কারন সমস্যা আমাদের । তাই কমিটিতে আমাদেরকই রাখতে হবে। অন্য কোন সমিতির প্রতিনিধি থাকলে আমাদের সমস্যা কখনই সমাধান হবে না।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ছাত্রলীগের নাম ভাঙিয়ে অর্থ আদায় -বহিষ্কৃত দুজন

রাবি,১৬ এপ্রিল : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) থেকে তুলে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে এক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের অভিযোগে সংগঠন থেকে দুই নেতাকর্মীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

বহিষ্কৃত দুজন হলেন- ছাত্রলীগ কর্মী অনিক মাহমুদ বনি ও রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক জাকারিয়া জামান জ্যাক।

রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে উল্লেখ করা হয়, ছাত্রলীগের নাম ভাঙিয়ে এক শিক্ষার্থীকে যেভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে অর্থ আদায় করা হয়েছে, তাতে ঐতিহ্যবাহী এ ছাত্র সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন ও দলীয় শৃংখলাভঙ্গ হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত অনিক মাহমুদ বনি ও জাকারিয়া জামান জ্যাককে রাবি শাখা ছাত্রলীগের জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

ভুক্তভোগী ও ছাত্রলীগ সূত্র জানায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রোববার সকাল ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বর থেকে হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ আল মামুনকে তুলে নিয়ে যায় রাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক জাকারিয়া জামান জ্যাক।

পরে তাকে সিনেট ভবনের পেছনে এবং শের-ই-বাংলা হলে ছাত্রলীগ কর্মী অনিক মাহমুদ বনির কক্ষে নিয়ে গিয়ে দুই ঘণ্টা আটকে রেখে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়।

মামুনকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার কাছে ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। টাকা দিতে অক্ষমতা প্রকাশ করলে, একপর্যায়ে তাকে দিয়ে তার বাবার কাছে মোবাইল থেকে কল দেয়া হয়।

মামুনের বাবা বিষয়টি জেনে খাসি বিক্রি করে বিকাশের মাধ্যমে ছয় হাজার টাকা পাঠালে তাকে ছেড়ে দেয় ছাত্রলীগের ওই দুই নেতাকর্মী।

পুরো ঘটনাটি ছাত্রলীগ কর্মী অনিক মাহমুদ বনি ও জাকারিয়া জামান জ্যাকের নেতৃত্বে ঘটে বলে ভুক্তভোগী ও ছাত্রলীগ সূত্র নিশ্চিতে করেছে। এর আগেও বনি ও জ্যাকের বিরুদ্ধে একাধিক চাঁদাবাজি ও শিক্ষার্থীদের মারধর করার অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী মামুন জানান, এর আগেও ভয়ভীতি দেখিয়ে জ্যাক এবং বনি তার কাছ থেকে দুই দফায় ছয় হাজার সাতশ’ টাকা আদায় করেছে। বিষয়টি কাউকে জানালে জামায়াত-শিবিরের কর্মী বলে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার ভয়ও দেখায় তারা।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ কর্মী অনিক মাহমুদ বনি ও সাবেক নেতা জাকারিয়া জামান জ্যাক বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসাবশত একটি পক্ষ তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কলারোয়ায় মাধ্যমিক শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ সমবায় সমিতির আলোচনা সভা

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ কলারোয়ায় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ সমবায় সমিতি লিমিটেড এর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রোববার সকালে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির হলরুমে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা মাধ্যমিক শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ সমবায় সমিতি লিমিটেড এর সভাপতি প্রধান শিক্ষক হরিসাধন ঘোষের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রধান শিক্ষক আমানুল্লাহ আমান, প্রধান শিক্ষক ইবাদুল হক, মনিরুজ্জামান বুলবুল, আক্তার আসাদুজ্জামান চান্দু, আশরাফুজ্জামান, সমিতির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান, ইউপি চেয়ারম্যান প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম, আবদুর রকীব, এসএম আব্দুর রহিম, আমজাদ হোসেন, জয়দেব রায়, হুসাইন কবীর, আমলেন্দু কুমার, দিলীপ কুমার হাজরা, দেবেন্দ্র নাথ, শহীদুল ইসলাম, আঃ ওয়াদুদ, শওকাল আলী, মুনসুর আলী, আবুল হাসান, শফিউল আজম, রবিউল আলম, জাকির হোসেন, শামসুর রহমান লাল্টু, শামসুল হক, রুহুল আমিন, আঃ সাত্তার, আব্দুল আলিম, নুরুল ইসলাম, ফজলুল করিম, হাবিবুল্লাহ প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহকারী প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাজিল পরীক্ষার ফল প্রকাশ

ইবি প্রতিনিধি : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত ফাজিল (ডিগ্রি) প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা ২০১৫ এর ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজ কার্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছরের ফাজিল প্রথম বর্ষের পরীক্ষার্থী ছিল ৫৫ হাজার ৭৩৫ জন। পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৫৩ হাজার ৮৪ জন। পাস করে ৫০ হাজার ৮৯০ জন। পাসের হার ৯৫.৮৭ শতাংশ।

ফাজিল দ্বিতীয় বর্ষে ৪৪ হাজার ২৪৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৪৩ হাজার ২৬৫ জন। পাস করে ৩৯ হাজার ৩১২ জন। পাসের হার ৯০.৮৬ শতাংশ।

ফাজিল তৃতীয় বর্ষে ৩৮ হাজার ৮৫৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৩৮ হাজার ৩৩২ জন। পাস করে ৩৭ হাজার ২৬৯ জন। পাসের হার ৯৭.২৩ শতাংশ।

ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আবুল কালাম আজাদ লাভলু জানান, ফলাফল রিভিউ করতে হলে পরীক্ষার্থীদের আগামী ৩০ দিনের মধ্যে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর লিখিত আবেদন করতে হবে। এ ছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে ফলাফলের কপি পাঠানো হয়েছে।

ফলাফল সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট www.iu.ac.bd থেকে জানা যাবে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩১ জুলাই থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ফাযিল (ডিগ্রি) প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিকাশের মাধ্যমে মাধ্যমিকের উপবৃত্তি প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক :  সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (সেসিপ) আওতায় অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড এবং বিকাশের মাধ্যমে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে মোবাইল ব্যাংকিং পদ্ধতিতে উপবৃত্তির অর্থ বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে।

রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

সেসিপ প্রোগ্রাম পরিচালক এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এস এম ওযাহিদুজ্জামানের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর চাই লি, সেসিপ যুগ্ম-প্রোগ্রাম পরিচালক মো. আবু ছাইদ শেখ, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইসমাইল হোসেন এবং বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদের উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানস্থল থেকে শিক্ষামন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার পাটগ্রাম হুজুর উদ্দিন সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিকাশের মাধ্যমে উপবৃত্তি বিতরণ করেন।

এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য মোতাহের হোসেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা ভিডিও কনফারেন্সে মন্ত্রীর কাছে তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

এ উপবৃত্তি কার্যক্রমের আওতায় সেসিপের মাধ্যমে দেশের ১৭টি জেলার ৫৪টি উপজেলায় মাধ্যমিক ও সমমান পর্যায়ের দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তি বিতরণ করা হবে। চলতি অর্থবছরের জুলাই-ডিসেম্বর প্রান্তিকে ২ লাখ ৫২ হাজার ৯২৮ জন শিক্ষার্থীকে এ প্রকল্পের আওতায় ২৪ কোটি ৬১ লাখ ৮৬ হাজার ৫১০ টাকা বৃত্তি প্রদান করা হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সারা দেশের সব উপজেলায় উপবৃত্তি চালু আছে। বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। সেসিপের এ প্রকল্পটির মাধ্যমে ৫৪টি উপজেলার শিক্ষার্থীরা অগ্রণী ব্যাংকের সহযোগিতায় বিকাশের মাধ্যমে তাদের উপবৃত্তির টাকা পাবে। প্রযুক্তির মাধ্যমে সরাসরি উপবৃত্তির টাকা তাদের হাতে চলে যাবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের শিক্ষার মান বেড়েছে। বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে শিক্ষার সহজলভ্যতা ও গুণগত মান বৃদ্ধি এবং শিক্ষক-কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। সেসিপের আওতায় ১২ লাখ শিক্ষককে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রায় চার লাখ শিক্ষকের প্রশিক্ষণ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাবিতে শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

রাবি সংবাদদাতা ॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) দুই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে আব্দুল্লাহ আল-মামুন নামে এক শিক্ষার্থীকে আবাসিক হলে দুই ঘণ্টা আটকে রেখে মারধর ও চাঁদা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার দুপুর সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের ২০১ নম্বর কক্ষে তাকে আটকে রাখা হয়। পরে ছয় হাজার টাকা চাঁদা আদায়ের পর আব্দুল্লাহকে ছেড়ে দেয় তারা।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা জাকারিয়া জামান জ্যাক রাবি শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক এবং অনিক মাহমুদ বনি ছাত্রলীগের কর্মী। এর আগেও তাদের বিরুদ্ধে ছিনতাই ও চাঁদাবাজির একাধিক অভিযোগ রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হল সূত্র জানায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বর থেকে আব্দুল্লাহকে তুলে নিয়ে শের-ই-বাংলা হলের ২০১ নম্বর কক্ষে আটকে রাখে জাকারিয়া জামান জ্যাক। এ সময় আব্দুল্লাহকে মারধর করে চাঁদা দাবি করা হয়। আব্দুল্লাহর কাছে টাকা না থাকায় তার বাবাকে ফোন করে বিকাশের মাধ্যমে ছয় হাজার টাকা আদায় করে জ্যাক ও বনি। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আব্দুল্লাহকে ছেড়ে দেয়া হয়।

আব্দুল্লাহ এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ এবং ছাত্রলীগের কাছে মৌখিক অভিযোগ করেছেন। ভুক্তভোগী আব্দুল্লাহ আল-মামুন বলেন, এর আগেও ভয়-ভীতি দেখিয়ে জ্যাক এবং বনি তার কাছ থেকে দুই দফায় ছয় হাজার সাতশ’ টাকা নিয়েছে। বিষয়টি কাউকে জানালে জামায়াত-শিবিরের কর্মী বলে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার ভয়ও দেখায় তারা।

তবে জাকারিয়া জামান জ্যাক এবং অনিক মাহমুদ বনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাদের বিপদে ফেলার জন্য কোন রাজনৈতিক পক্ষ পরিকল্পিতভাবে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছে।

জানতে চাইলে রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, তাদের ব্যাপারে এর আগেও ছিনতাই ও চাঁদাবাজির একাধিক অভিযোগ পেয়েছি। আজকের (রবিবার) বিষয়টিও ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন পক্ষ থেকে আমরা জেনেছি। ঘটনার সত্যতা নিয়ে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। সত্যতা পেলে সাংগঠনিকভাবে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

– See more at: http://www.dailyjanakantha.com/details/article/262233/%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%B6%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A7%80%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A6%BF%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%81%E0%A6%A6%E0%A6%BE-%E0%A6%86%E0%A6%A6%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%85%E0%A6%AD%E0%A6%BF%E0%A6%AF%E0%A7%8B%E0%A6%97#sthash.QJAHe09h.dpuf

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মেয়েদের বুক-কোমর-নিতম্বের সেরা অনুপাত… স্কুলের পাঠ্যবইয়ে নারীদেহের বর্ণনা!

ডেস্ক: ৩৬-২৪-৩৬। মহিলাদের আদর্শ ফিগার নাকি এমনটাই হওয়া উচিত। এমনই লেখা হয়েছে সিবিএসই বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণির শারীরশিক্ষার বইতে! লেখক ভি কে শর্মার ‘হেল্‌থ অ্যান্ড ফিজিক্যাল এডুকেশন’ নামের বইটিতে এমন কিছু বিতর্কিত বাক্য রয়েছে, যা নিয়ে সম্প্রতি উত্তাল হয় সোশ্যাল মিডিয়া। তার জেরেই এ বার সেন্ট্রাল বোর্ড অব সেকন্ডারি এডুকেশনের তরফে ওই লেখক এবং প্রকাশকের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হল।

একটি লিখিত বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, সিবিএসই বোর্ড ওই বই সিলেবাসের অন্তর্ভুক্ত করাকে সমর্থন করে না। এর যাবতীয় দায় নয়া দিল্লির প্রকাশক নিউ সরস্বতী হাউজ প্রাইভেট লিমিটেড ও লেখক হরিয়ানার ডাভ কলেজের শারীরশিক্ষার অধ্যাপক ভিকে শর্মার। সরকারি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা ‘ন্যাশনাল কাউন্সিল অব এডুকেশনাল রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং’ (এনসিইআরটি) বইটি ছাপায়নি। ছাপিয়েছে একটি বেসরকারি সংস্থা। এই বই কেন দ্বাদশ শ্রেণির পাঠ্য হবে, তা নিয়ে আপত্তি অনেকেরই। সোশ্যাল মিডিয়াতেও সরব হয়েছেন অনেকেই।

সূত্রের খবর, মহিলাদের ফিগার নিয়ে ওই বইটির একাধিক জায়গায় বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। পুরুষ ও মহিলাদের শারীরিক গঠনের তারতম্য বোঝাতে গিয়ে বইয়ের এক জায়গায় লেখা হয়েছে, ‘‘মেয়েদের উপযুক্ত গঠন হল ৩৬-২৪-৩৬।’’ এর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে লেখক লিখেছেন, ‘‘কারণ মিস ওয়ার্ল্ড বা মিস ইউনিভার্সের মতো সৌন্দর্য প্রতিযোগিতাতেও এই ফিগারই আদর্শ ধরা হয়।’’ শারীরশিক্ষার বইয়ে এমন মন্তব্য কেন লেখা থাকবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অভিভাবকরা। শুধু তা-ই নয়, বইটির এক জায়গায় লেখা, ‘‘শরীরচর্চা করলে ফিগার সুন্দর হয়।’’ আর এক জায়গায় লেখা, ‘‘৩৬-২৪-৩৬ ফিগার হঠাৎ হয় না। তার জন্য নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হয়।’’

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

গ্রামে ডিজিটাল শিক্ষা দিয়ে ফোর্বসের তালিকায় বাংলাদেশের নাজবিন

ডেস্ক: ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলায় গড়ে তোলা বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়ানির্ভর ক্লাসরুম শিক্ষার পাশাপাশি শিশুদের ল্যাপটপ, ট্যাবের মতো ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে শিক্ষা দেওয়ায় মার্কিন সাময়িকী ফোর্বসের করা এশিয়ার শীর্ষ ৩০ তরুণ সামাজিক উদ্যোক্তার তালিকায় স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের সওগাত নাজবিন খান।

নবায়নযোগ্য জ্বালানি নিয়ে কাজ করা ২৭ বছর বয়সী নাজবিন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে বিশ্বব্যাপী জাতিসংঘের ১৭ তরুণ নেতার একজন। এর আগে ২০১৬ সালে কমনওয়েলথ ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ফর এশিয়া এবং ২০১৫ সালে গ্রিন ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ড উঠেছে তার হাতে।

এ বছর ফোর্বসের করা ‘দ্য থার্টি আন্ডার থার্টি এশিয়া: সোশ্যাল এন্ট্রেপ্রেনার্স’ শিরোনামের এই তালিকায় রয়েছেন এ এইচ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা নাজবিন।

বাংলাদেশের ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি থেকে ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতকের পর নাজবিন স্নাতকোত্তর করেন ভারতের ইউনেস্কো মদনজিৎ ইনস্টিটিউট ফর গ্রিন এনার্জি টেকনোলজিতে। সেখানে সৌর শক্তি ও বাতাসকে কাজে লাগিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন নিয়ে কাজ করেন তিনি, যার প্রয়োগ ঘটিয়েছেন দেশে ফিরে শিল্প খাতে।
কৃষকদের জন্য স্বল্প খরচের সৌর সেচ ব্যবস্থা গড়ে তোলায় জার্মানির ফেডারেল মিনিস্ট্রি অব এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ ২০১৫ সালে তাকে গ্রিন ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ড দেয়।
স্নাতকোত্তর শেষে ২০১৪ সালে ভারত থেকে ফিরে তিনি তারাকান্দায় পৈত্রিক সম্পত্তিতে গড়ে তোলেন এইচএ ডিজিটাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ। ছয় মাস শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ২০১৫ সালে তার এই স্কুলে পাঠদান শুরু হয়।

স্বল্প খরচে আধুনিক মানসম্পন্ন শিক্ষাদানের কারণে অল্প দিনের মধ্যেই আশপাশের মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসে স্কুলটি। ন্যূনতম টিউশন ফি নিয়ে শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠ্যবই, স্কুল ইউনিফর্ম ও যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়।

ফোর্বস বলছে, দরিদ্র গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিক্ষাদানের জন্য নাজবিনের গড়ে তোলা এই বিদ্যালয় থেকে এ পর্যন্ত ছয়শ’র মতো শিক্ষার্থী সুবিধাপ্রাপ্ত হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষা শুরু সোমবার

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের ২০১৪ সালের মাস্টার্স শেষ পর্ব (শুধুমাত্র নিয়মিত) পরীক্ষা ১৭ এপ্রিল সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে।

সারাদেশের ১৩০টি কলেজের ১০৫টি কেন্দ্রে সর্বমোট ১ লাখ ২৮ হাজার ৩৪১ জন পরীক্ষার্থী ৩০টি বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

পরীক্ষা অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা শেষ করতে প্রশাসন, সংশ্লিষ্ট কলেজ, শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকগণের সহযোগিতা কামনা করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

রোবাবর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ তথ্য ও পরামর্শ দফতর এ তথ্য জানিয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সব শিক্ষককে ‘শিক্ষক বাতায়নে’ অন্তর্ভুক্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: একজন শিক্ষকের সঙ্গে অন্য শিক্ষকের সর্ম্পকের সেতু স্থাপনে কাজ করে ‘শিক্ষক বাতায়ন’। ফলে সকল শিক্ষককে সেখানে অন্তর্ভুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহবার হোসেন স্বাক্ষরিত পত্রে বলা হয়েছে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে সকল শিক্ষককে শিক্ষক বাতায়নে অন্তর্ভুক্তির প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তা পূরণে আমরা বদ্ধপরিকর। এ বিষয়ে গুরুত্বের সঙ্গে কার্যক্রম গ্রহণে আলোকপাত করায় এসসিডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আরও বলা হয়, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ইতোমধ্যেই আমরা শিক্ষা ক্ষেত্রে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। এর মধ্যে শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা ও কন্টেন্ট আদান প্রদানের জন্য অনলাইন প্লাটফর্ম ‘শিক্ষক বাতায়ন’ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। শিক্ষক বাতায়নে ইত্যোমধ্যেই দেড় লক্ষ শিক্ষক সদস্য হয়েছেন। পর্যায়ক্রমে সকলকেই এর আওতায় আনতে হবে।

শিক্ষক বাতায়নে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) মহাপরিচালকসহ সকল আঞ্চলিক পরিচালক, উপ-পরিচালক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পত্রে বলা হয়, সকলকেই যার যার অবস্থান হতে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের মাধ্যমে অবিলম্বে সকল শিক্ষককে শিক্ষক বাতায়নে অন্তর্ভুক্ত করে এসডিজি বাস্তবায়নে এগিয়ে আসার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

সুত্রঃ দৈনিক শিক্ষা

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাইভেটের টাকা দিতে না পারায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

রাজবাড়ী:: প্রাইভেট শিক্ষকের টাকা দিতে না পারায় বাবার ওপর অভিমান করে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় কুলসুম খাতুন (১৪) নামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। বুধবার রাতে উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ছাবনী পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কুলসুম খাতুন দিনমজুর কবির খানের মেয়ে ও জামালপুর ইউনিয়নের নলিয়া শ্যামামোহন  ইন্সটিটিউশনের ছাত্রী।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কয়েক দিন ধরে প্রাইভেট শিক্ষকের বকেয়া বেতন দেয়ার জন্য কুলসুম তার বাবাকে বলে আসছিল। কিন্তু দরিদ্র বাবা টাকা দিতে না পারায় অভিমান করে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় রশি পেঁচিয়ে সে আত্মহত্যা করে।

বালিয়াকান্দি থানার ওসি মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পারখিদিরপুর হাইস্কুলে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

পাবনা প্রতিনিধি :পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার পারখিদিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ব্যাপক আনন্দঘন পরিবেশে পহেলা বৈশাখ ১৪২৪ উদযাপন করা হয়েছে। পহেলা বৈশাখ উদযাপনের অংশ হিসেবে এ দিন সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে সথে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে শুরু হয়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আফতাব হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা, মঙ্গল শোভাযাত্রা ও র‌্যালী এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এ সময়ে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ম্যানেজিং কমিটির ও মাজপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ ইন্তাজ আলী খান।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ডাঃ মোঃ আমজাদ হোসেন লালন, মোঃ রোকন উদ্দিন খান রঞ্জু, মোঃ রজব আলী, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মোছাঃ জুলেখা খাতুন, সহকারি প্রধান শিক্ষক মোঃ আঃ হালিম, মোঃ সোলায়মান হোসেন, মোঃ মনিরুজ্জামান খান, মোঃ আক্তারুজ্জামান, মোঃ আঃ করিম, মোঃ আঃ সবুর খান, রেহেনা পারভীন, মোঃ মিজানুর রহমান, মোছাঃ সুরভী ইয়াছমিন, মোঃ কামরুল ইসলাম, মোঃ আসলাম হোসেন, মোঃ রাসেল শেখ, মোঃ রায়হান আলীসহ শিক্ষক/কর্মচারী, ছাত্রছাত্রীবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নববর্ষ উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক :রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বাংলা নববর্ষ ১৪২৪ উদযাপন করা হয়েছে। জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ অঙ্গীকারের ঘোষণা দিয়েই দিনব্যাপী বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠানমালা সাজানো হয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে।

শুক্রবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে রাজধানীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মঙ্গল শোভাযাত্রা দিয়ে বর্ষবরণের অনুষ্ঠান শুরু হয়। তারা রঙিন পোশাক পরে বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। মঙ্গল শোভাযাত্রার র‌্যালির পর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একে একে চলতে থাকে নাচ-গান, বাউল সঙ্গীত, লোক সঙ্গীত, রবীন্দ্রসঙ্গীতের আয়োজন।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় বাউল সঙ্গীত, লোক সঙ্গীত, নাচ-গানসহ বিস্তারিত কর্মসূচির পাশপাশি পুতুলনাচের আয়োজন করা হয়। ইউল্যাব চৈত্র সংক্রান্তিসহ পয়লা বৈশাখের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা গেছে, প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণ আলপনা দিয়ে সাজানো হয়েছে। মঙ্গল শোভাযাত্রার র‌্যালিতে ব্যানার ও ফেস্টুন ব্যবহার করা হয়েছে। রঙিন পোশাকে অংশ নিয়েছে শিক্ষার্থীরা। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্কুলড্রেস পরেও মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানে অংশ নেয় শিক্ষার্থীরা।

 

সারা দেশের জেলা, মহানগর, উপজেলা ও ইউনিয়ন সদরে কেন্দ্রীয়ভাবে মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ বৈশাখের আয়োজনের দাবি জানান রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহান আরা বেগম বলেন, ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অঙ্গনেই থাকবে নাকি রমনা এলাকায় র‌্যালিতে নিয়ে যাওয়া হবে, তার একটা নির্দেশনা প্রয়োজন। নিরাপত্তা থাকতে হবে র‌্যালির জন্য। ব্যাপকভাবে মঙ্গল শোভাযাত্রা করার ক্ষেত্রে অর্থ বরাদ্দ দিতে হবে।

মোহাম্মদপুরের সরকারি গ্রাফিকস আর্টস কলেজের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক মো. আয়েত আলী বলেন, বাংলা নববর্ষ উদযাপন করতে সরকার থেকে ১৩ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। এ টাকা দিয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান করা সম্ভব নয়। তারপরেও শিক্ষক-ছাত্রদের সহায়তায় অনুষ্ঠান করা হয়েছে। আমরা সরকারি বরাদ্দ বৃদ্ধির দাবি জানাচ্ছি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

হিন্দু শিক্ষার্থীদের গরুর মাংস দিয়ে রান্না করা তেহারি পরিবেশন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলায় ক্যান্টিন ভাঙচুর

বর্ষবরণ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রার আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ক্যান্টিন ভাঙচুর করেছেন কয়েকজন শিক্ষার্থী। পরিচালককেও ঘটনার সময় মারধর করা হয়।

১৪ এপ্রিল শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। হিন্দু শিক্ষার্থীদের গরুর মাংস দিয়ে রান্না করা তেহারি পরিবেশন করায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানান প্রত্যক্ষর্শীরা। ভাঙচুরের পর ক্যানটিনটি বন্ধ রয়েছে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আমজাদ আলী এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক এম আমজাদ আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ক্যানটিন পরিচালক জানিয়েছেন বিষয়টি তার জানা ছিল না। তারপরও বিষয়টি নিশ্চিত হতে তদন্ত করে দেখা হবে।

তিনি বলেন, আমাদের ক্যান্টিনে কখনই গরুর মাংস আসে না। তেহারি গরুর মাংস দিয়ে যে রান্না হয়েছে তা কেউ জানতো না। খাওয়ার পর সন্দেহ হলে কর্মচারী জাকির হোসেনকে জিজ্ঞাসা করা হয়। তখন সে গরুর মাংস দেওয়ার কথা স্বীকার করে।

জাকিরের আগে চারুকলার ক্যান্টিন চালাতেন মিজানুর রহমান নামে একজন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
hit counter