Author Archives: editor

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নেওয়া হবে

শিশির দাস: সারা দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে (পার্বত্য তিন জেলা- রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ব্যতীত) সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সম্প্রতি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর বিভিন্ন পত্রিকায় ও তাদের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ নিয়োগের বিষয়টি জানিয়েছে। কতজন নেওয়া হবে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবু হেনা মোস্তফা কামাল  বলেন পদটিতে প্রায় ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। তবে পদের সংখ্যা বাড়তে বা কমতে পারে।

সহকারী শিক্ষক পদে এরই মধ্যে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। আবেদন করা যাবে আগামী ৩০ আগস্ট রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত। তাই লক্ষ্য যাদের শিক্ষক হওয়ার আবেদনের শেষ দিনের জন্য অপেক্ষা না করে পদটিতে আবেদন করতে পারেন এখনই। এই নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিটি পাওয়া যাবে www.dpe.gov.bd  এই ঠিকানায়।

আবেদনের যোগ্যতা: এ পদে আবেদনের জন্য পুরুষ প্রার্থীদের কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ন্যূনতম দ্বিতীয় বিভাগ/শ্রেণি/সমমানের জিপিএসহ স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি পাস হতে হবে। অন্যদিকে, মহিলা প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট বা সমমানের পরীক্ষায় ন্যূনতম দ্বিতীয় বিভাগ/সমমানের জিপিএসহ উত্তীর্ণ অথবা স্নাতক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। উভয় প্রার্থীদের বয়স ৩০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর।

যেভাবে আবেদন করবেন: এ পদে প্রার্থীদের অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। http://dpe.telelalk.com.bd  এবং www.dpe.gov.bd  এই ওয়েবসাইটে লগ ইন করলে একটি লিংক পাওয়া যাবে। এই লিংকে প্রবেশ করে সংশ্লিষ্ট নির্দেশনা মোতাবেক অনলাইন আবেদনপত্র পূরণ করতে হবে। অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ করে জমা করার পর অ্যাপ্লিকেশন কপি প্রিন্ট করতে হবে। সঠিকভাবে পূরণকৃত অ্যাপ্লিকেশন কপির ইউজার আইডি দিয়ে আবেদন ফি জমা দিতে হবে। একবার আবেদন ফি জমা দেওয়া পর অ্যাপ্লিকেশন ফরম কোনো অবস্থাতেই সংশোধন বা প্রত্যাহার করা যাবে না। শুধু ইউজার আইডিপ্রাপ্ত প্রার্থীরা উক্ত সময় পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত এসএমএসের মাধ্যমে ফি প্রদান করতে পারবে। আবেদনকারীকে একটি ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দেওয়া হবে। এই ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড সব সময়ের জন্য প্রার্থীকে সংরক্ষণ করতে হবে। প্রার্থীকে পরীক্ষার ফি বাবদ অফেরতযোগ্য সার্ভিস চার্জসহ ১৬৬.৫০ টাকা যেকোনো টেলিটক মোবাইল নম্বর থেকে এসএমএসের মাধ্যমে যথাসময়ে প্রেরণ করতে হবে।

নির্বাচন পদ্ধতি: প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সহকারী শিক্ষক পদে এর আগে ৮০ নম্বরের এমসিকিউ পদ্ধতিতে লিখিত পরীক্ষা ও ২০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হতো। বাংলা, গণিত, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে প্রশ্ন থাকত। তবে এবারের নিয়োগে কত নম্বরের পরীক্ষা হবে এই বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এসব পরীক্ষার তারিখ পরে অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট ও বিভিন্ন পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে বলে অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: প্রার্থী লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর আবেদনপত্রের সঙ্গে অনলাইনে দাখিলকৃত আবেদনের ফটোকপি, পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি, প্রথম শ্রেণির গেজেটেড সরকারি কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কিত সব মূল বা সাময়িক সনদপত্র এবং সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌরসভার মেয়র/সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সনদপত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিতে হবে।

বেতন: চূড়ান্তভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত একজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী ১০ হাজার ২০০ (গ্রেড ১৪) টাকা স্কেলে বেতন পাবেন। আর প্রশিক্ষণবিহীন একজন সহকারী শিক্ষক ৯ হাজার ৭০০ (গ্রেড-১৫) টাকা স্কেলে বেতন পাবেন।

প্রথম আলো

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সাব-ইন্সপেক্টর (SI) ভাইভা ।তাই অভিজ্ঞতা ও দিকনির্দেশনা জেনে নিন

পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) পদে নিয়োগ পরীক্ষা ২০১৮ খ্রিঃ এর অনুষ্ঠিতব্য মৌখিক পরীক্ষা
ভাইভা বোর্ড : ১(এক)টি
বোর্ডের সদস্য সংখ্যা : ৪-৬ জন
সময় : ২/৩ মিনিট (কম বেশী হতে পারে)
প্রশ্ন : ১০/১৫ টি (+-)
ভাইভা : ১০০ নাম্বার

প্রশ্নের ধরণ : বিষয়ভিত্তিক, মুক্তিযুদ্ধ, অনুবাদ, নিজ জেলা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাম্প্রতিক বিষয় ও অন্যান্য।

বিষয়ভিত্তিক প্রশ্ন : ভাইভা ভাল করতে হলে অাপনাকে অবশ্যই বিষয়ভিত্তিক প্রশ্নের স্পেসিফিক উত্তর দিতে হবে। এই অংশে ভাল করার উপর বোর্ডের পরবর্তী মুভমেন্ট অনেকাংশে নির্ভর করে। অাপনার পড়িতব্য বিষয়ের উপর প্রথমেই ২/৩টি প্রশ্ন করবেই, তাই অাপনার পড়িতব্য বিষয় সম্পর্কে ভাল ধারণা রাখুন।

মুক্তিযুদ্ধ : এসঅাই ভাইভার জন্য মুক্তিযুদ্ধ অংশ সবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ কারণ ছোট ছোট প্রশ্ন করা হয়, পারলেই ১০০% নম্বর দেয়। এই অংশে ডিপলী প্রশ্ন করা হয়, অনেক সময় বাজারের একটি বইতে সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায় না তাই একটি বইয়ের উপর নির্ভর না করে দুই বা ততোদিক বইয়ের সাহায্য নিন। এছাড়া শেখ হাসিনা কর্তৃক মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত কয়েকটি বইয়ের নাম মনে রাখতে পারেন।

নমুনা প্রশ্ন-
১. শীর্ষ রাজাকার কে?
=> গোলাম অাজম
২. বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রধান ষড়যন্ত্রকারী কে?
=> খন্দকার মোস্তাক অাহম্মেদ
৩. অাল বদর বাহিনীর প্রধান কে?
=> মতিউর রহমান নিজামি
৪. বঙ্গবন্ধুকে গুলি করে?
=> মেজর নূর

৫. মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ কে গড়ে তুলে?

=> বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী
এই ধরণের প্রশ্ন করা হবে, সাথে শেখ মুজিব হত্যা বিচার, মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে বিভিন্ন বইয়ের নাম জেনে নিবেন।
অনুবাদ : যুগটাই এখন এমন, ইংরেজি ছাড়া কোন কিছু চিন্তাও করা যায় না। কি চাকরি, কি পড়াশোনা সব জায়গায়ই ইংরেজিতে দক্ষতা এখন প্রাথমিক চাহিদা। দক্ষতা বিভিন্ন রকমের হতে পারে। তাদের ভিতরে ইংরেজিতে বলার দক্ষতা এখন সবচেয়ে বেশি চাহিদাসম্পন্ন দক্ষতা। এসঅাই ভাইভাতে প্রায় সবাইকে ১/২টি অনুবাদ জিজ্ঞাসা করা হবে। এই অংশে ভাল করার জন্য ইংরেজী প্রবাদ বাক্য পড়তে পারেন। সাধারনত যে ধরণের প্রশ্ন করা হয়-

১. অাজ খুব গরম।
→today is very hot.
২. অাজ দিনটি চমৎকার।
→today is a very nice day!
৩.জানালা দিয়ে অাকাশ দেখা যাচ্ছে।
→the sky is visible through
windows

or

the sky is being seen
through window.

৪.টেবিলের উপর একটি কলম অাছে
→there is a pen on the table

or

a pen has been kept on the table.
৫. পাখি অাকাশে উড়ে

→the birds fly in the sky.
৬.শার্টের পকেটে একটি কলম অাছে
→there is a pen in the pocket.
৭.অামার শার্টের পকেট নাই।

→I have no pocket with my shirt
or, there is no pocket in my shirt.
৮. এখান থেকে সচিবালয় দেখা যায়।
→the secretariat building is visible
from here.

উপরোক্ত বিষয়ের উপর মূলত প্রশ্ন করা হলেও অাপনার নামের অর্থ, নামের সাথে বিখ্যাত ব্যক্তি ও কোন ঘটনা থাকলে তা জেনে রাখা ভাল। অাপনার জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, বিখ্যাত ব্যক্তি এবং শিক্ষা ও অর্থনৈতিক অবস্থা ইত্যাদি সম্পর্কে জেনে নিবেন। সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে অাপডেট নিউজ সংগ্রহে রাখুন।

এসঅাই নিয়োগে লিখিত পরীক্ষা অাপনি যতই ভাল দেন না কেন তার কোন মূল্য নেই যদি না অাপনি ভাইবা ভাল দেন। সব প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিয়ে বোর্ডকে সন্তুষ্ট করতে পারলে ৭৫-৮০ নম্বর পাবেন।

পুলিশের চলমান সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) পদে নিয়োগ সম্পূর্ণ স্বচ্ছ, নিরপেক্ষ, মেধা ও যোগ্যতা ভিত্তিক হচ্ছে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় কোনো প্রভাবশালী ব্যক্তি বা মহলের হস্তক্ষেপ করার কোনো সুুযোগ নেই। তাই প্রতারক বা দালালের খপ্পরে না পড়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি)।

আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী পুলিশকে গণমুখী করার জন্য, “দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য সৎ, মেধাবী, কর্তব্যপরায়ণ এবং দিনরাত মানুষের সেবা প্রদানের মতো পরিশ্রমী অফিসার একান্ত প্রয়োজন। তাই নিয়োগ প্রক্রিয়া হবে সম্পূর্ণ নিয়মতান্ত্রিক। কারো দ্বারা প্রলুব্ধ না হবার জন্য তিনি সকল চাকরি প্রত্যাশীকে আহ্বান জানিয়েছেন।
পুলিশ সাব-ইন্সপেক্টর নিয়োগে টাকা লাগে না, প্রমাণ….!!!

সোনার হরিণ সরকারি চাকরির পেছনে ছোটাছুটি করেে শেষ পর্যন্ত যোগদান থেকে বিরত থাকছেন সাব-ইন্সপেক্টর পদে উত্তীর্ণ অনেকেই। দেশে মেধাবীদের সংখ্যা বাড়ছে। মেধাবী শিক্ষার্থীরা শুধু বিসিএস ক্যাডার পদের আশায় না থেকে পুলিশের দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা এসআই পদেও আবেদন করছেন। চূড়ান্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর প্রাথমিকভাবে নিয়োগ বা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়া এসব মেধাবী তরুণ-তরুণী এ সময়কালে বিসিএস, ব্যাংক, নন ক্যাডারসহ নানা পদে প্রথম শ্রেণি চাকরি পেলে শেষ পর্যন্ত আর এসআই পদে যোগ দিচ্ছেন না।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্রে জানা যায়…

# ২০১২ সালের (৩৩তম ক্যাডেট ব্যাচ) এসআই নিয়োগে মৌখিক পরীক্ষা শেষে ১৬২১ জনকে প্রশিক্ষণে পাঠানোর সুপারিশ করে পুলিশের নির্বাচনী বোর্ড। কিন্তু এর মধ্যে ১৯২ জনই প্রশিক্ষণে অংশ নেননি। আবার প্রশিক্ষণকালে অন্য চাকরির বৌদ্দততে যোগ দেননি আরও ৭৬ জন।
# ২০১৩ সালে (৩৪তম ক্যাডেট ব্যাচ) ১৫২০ জন প্রশিক্ষণের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হলেও তাতে অংশগ্রহণ করেন ১৩৩০ জন। প্রশিক্ষণ শেষে চাকরিতে যোগ দেন ১৩২১ জন।

# ২০১৫ সালে (৩৫তম ক্যাডেট ব্যাচ) ১৫১৭ জনকে প্রশিক্ষণের সুপারিশ করা হলেও তাতে অংশে নেন ১৩৭০ জন। প্রশিক্ষণ কালীন সময়ে বিসিএস, ব্যাংক, নন ক্যাডার চাকরি হবার সুবাধে ৬৭ জন চলে যায়, প্রশিক্ষণ শেষে ১৩২৩ জন যোগদান করলেও প্রায় ১৫ জন অন্য চাকরির গ্রেজেট প্রকাশের প্রহর গুনছেন।

# ২০১৭ সালে বহিরাগত ক্যাডেট এসঅাই (নিরস্ত্র) হিসেবে সিলেকশন বোর্ড ১৫১১ জন প্রার্থীকে প্রাথমিক ভাবে নির্বাচিত করে। উক্ত প্রার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ভিঅার সম্পন্নকরণের ১৪১০ জন প্রার্থীকে চুডান্ত ভাবে মনোনীত করে তন্মধ্যে ১৩৭৬ জন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। ১৭ জন অন্যত্র চাকরি পাওয়ার সুবাধে চলে এসেছে, উল্লেখ্য ৬৫+ প্রার্থী ভাইভাতে অনুপস্থিত ছিল।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষক বদলি নীতিমালা তদবির ঠেকাতে স্থগিত

ডেস্ক,১১ আগষ্ট: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক বদলি নীতিমালা সংশোধনে আগ্রহী নয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। মেট্রোপলিটন ও সিটি কর্পোরেশনে শিক্ষক বদলিতে তদবিরের হিড়িক পড়ায় নীতিমালা সংশোধনের কাজ স্থগিত রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে দুবার এবং ২০১১ ও ২০১৫ সাল মিলে মোট চারবার প্রাথমিকের ‘শিক্ষক বদলি নীতিমালা’ পরিবর্তন করা হয়। সর্বশেষ ২০১৭ সালে পঞ্চমবারের মতো বদলি নীতিমালা যুগোপযোগী করতে খসড়া নীতিমালায় অনুমোদন দেয় মন্ত্রণালয়।

তবে চূড়ান্ত অনুমোদনের আগেই মন্ত্রণালয়ে শিক্ষক বদলিতে তদবিরের হিড়িক পড়ে। ফলে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়নি মন্ত্রণালয়।
সর্বদা জানতে ও জানাতে লাইক দিয়ে একটিভ থাকুন

প্রণীত খসড়ার ৩-এর ৯ ধারায় বলা হয়েছে, প্রাথমিকের শিক্ষিকারা স্বামীর কর্মস্থল এলাকা বা এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় বদলি (পদশূন্য থাকা সাপেক্ষে) হতে পারবেন।

আগে স্বামীর নিজ জেলায় শিক্ষিকারা বদলি হতে পারলেও স্বামীর কর্মস্থল এলাকায় বদলিতে অনেক জটিলতা পোহাতে হতো, যা ছিল অনেকটা দুঃসাধ্য। নীতিমালা পরিবর্তন হলে মানবিক কারণসহ কয়েকটি ক্যাটাগরিতে সারা বছর বদলির আবেদন করা যাবে। ফলে স্বামীর সঙ্গেই থাকতে পারবেন প্রাথমিকের শিক্ষিকারা।

২০১৫ সালে শিক্ষকের স্ত্রী/স্বামী সরকারি, আধাসরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত কোনো প্রতিষ্ঠানের চাকরি করলে সেখানে কর্মস্থলে বদলির করা যেত। আধাসরকারি ধারায় ব্যাপক বিশৃঙ্খলা দেখা দিলে ‘আধাসরকারি’ শব্দটি বাদ দিয়ে নতুন করে তফসিলভুক্ত ব্যাংক ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের কর্মস্থলে বদলি হওয়া যাবে বলে ধারায় বলা হয়।

খসড়া নীতিমালায় আরও বলা হয়, চাকরি পাওয়ার পর নারী শিক্ষকদের বিয়ে হলে স্বামীর কর্মস্থলের পার্শ্ববর্তী স্কুলে বদলি হতে পারবেন। প্রতিবন্ধী শিক্ষকদের স্থায়ী ঠিকানার পার্শ্ববর্তী এলাকার স্কুলে বদলি করা যাবে। স্বামী মারা গেলে বা বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে সুবিধামতো স্থানসহ বিশেষ কোনো কারণে বছরের যে কোনো সময় বদলি হওয়া যাবে।

দুর্গম এলাকায় নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা চাকরির মেয়াদ ১০ বছরের পরিবর্তে পাঁচ বছর পর নিজ এলাকায় বদলি হতে পারবেন। এছাড়া জাতীয়করণ হওয়া অনেক শিক্ষককে ভিন্ন জেলায় নিয়োগ দেয়া হয়েছে, তারা প্রেষণে নিজ জেলায় বদলি হতে পারবেন।

তবে সাধারণ বদলির ক্ষেত্রে বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত আবেদনের সময় নির্ধারিত রয়েছে। আগের মতো শিক্ষকদের চাকরির মেয়াদ দুই বছর পূর্ণ হলে বদলির আবেদন করতে পারবেন। এক বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বদলির আবেদন করা যাবে না।

তবে বিশেষ কারণে যে কোনো সময়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের (ডিপিই) মহাপরিচালক, প্রাথমিক জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও বিভাগীয় উপ-পরিচালকের সুপারিশে সুবিধামতো স্থানে বদলি হওয়া যাবে।

মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা  জানান, নীতিমালা জারি হওয়ার আগেই মেট্রোপলিটন ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বদলির আবেদনের হিড়িক পড়ে।

পদ শূন্য না থাকলেও বিভিন্ন মহল থেকে বদলির তদবির শুরু হয়। তদবির সামলাতে মন্ত্রী, সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিপাকে পড়েন। এ কারণে মন্ত্রীর পরামর্শে বদলির কাজ স্থগিত রাখা হয়েছে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান  বলেন, শিক্ষক বদলির বিষয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতা তৈরি হয়েছে।

গত আড়াই বছরে ১২০০ শিক্ষক বদলির পর মেট্রোপলিটন ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বদলি কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে। সবাই শুধু জেলা শহর আর ঢাকায় আসতে চান, মফস্বলে কেউ থাকতে চান না। শূন্য আসন না থাকায় এসব এলাকায় নতুন করে আর শিক্ষক বদলির প্রয়োজন নেই। এ কারণে নীতিমালা সংশোধনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন সময়ে নারী শিক্ষকরা নানা সমস্যায় পড়েন। এতে সেখানে তার অবস্থান অসম্ভব হয়ে পড়ে। নানা ধরনের মানবিক কারণে শিক্ষকদের সুবিধামতো স্থানে বদলিতে আমরা নীতিমালা সংশোধনের সিদ্ধান্ত নেই।

কিন্তু দেখা গেছে, ভালো স্থানে বদলি হতে সবাই নানা সমস্যার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রণালয়ে ভিড় জমাতে শুরু করেন। এ কারণে ২০১৭ সাল থেকে মেট্রোপলিটন ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বদলি কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।

‘প্রয়োজন হলে ভবিষ্যতে এ নীতিমালা সংশোধন করা হবে’ বলেও জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সাধারন জ্ঞান

১ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ১১তম আইপিএল-এ সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করেন কোন বােলার? অ্যান্ড্রু টাই।
২ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত আইপিএল এ সর্বোচ্চ রান করেন কোন খেলােয়াড়? কেন উইলিয়ামসন (৭৩৫)।
৩ ২০১৮ সালে পােল্যান্ডের লেখক ওলগা টোকারচুক কোন উপন্যাসের জন্য ম্যান বুকার ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার পান? ফ্লাইটস’।
৪ ২০১৮ সালে ম্যান বুকার ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার পেয়েছেন পােল্যান্ডের কোন লেখক? ওলগা টোকারচুক।
৫ ২০১৮ সালের ফ্রেঞ্চ ওপেনে পুরুষ ও নারী এককে চ্যাম্পিয়ন কে কে? পুরুষ : রাফায়েল নাদাল (স্পেন) ও নারী : সিমােনা হালেপ (রােমানিয়া)।
৬ ২০১৮-১৯ সালের বাজেটে কোন খাতে বেশি বাজেট দেয়া হয়? জনপ্রশাসন খাতে।
৭ ২২ – ২৪ জুন, ২০১৮ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত ২৭তম বইমেলার স্লোগান কী? বই হােক আমাদের উত্তরাধিকার।
৮ ২২- ২৭ মে, ২০১৮ শ্রীলংকার কলম্বােয় কততম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসব অনুষ্ঠিত হয়? অষ্টম।
৯ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি দেশ খেলবে? ৪৮টি।

১০ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি দেশে অনুষ্ঠিত হবে? ৩টি কানাভা, মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র।
১১ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে? ৮০টি।
১২ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ কতটি শহরে অনুষ্ঠিত হবে? ১৬টি যুক্তরাষ্ট্রের ১০টি এবং বাকি ৬টি কানাডা ও মেক্সিকোর।
১৩ ২৩তম বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ ফাইনাল হবে কোন স্টেডিয়ামে? মেটলাইফ স্টেডিয়াম, নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র।
১৪ ৬ জুন ২০১৮ বিশ্বের প্রথম EPR পরমাণু প্রকল্পের কাজ শুরু করে কোন দেশ? চীন।
১৫ EPR’র পূর্ণরূপ কী? European Pressurized Reactor
১৬ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কত? 3.04%
১৭ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে পুরুষ ও নারী অনুপাত কত? Soo. : 3001
১৮ অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ মতে পুরুষ ও নারীর গড় আয়ু কত? ৭০.৩ ও ৭২.৯ বছর।
১৯ আল কুদস কী? জেরুজালেম শহরের অপর নাম। (রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮)

২০ ইতালির বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? কার্লো কোত্তারেল্লি।
২১ ক্যারিবীয় দ্বীপ বারবাডােজের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? মিয়া আমাের মােটলি ।
২২ জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কত? ১.৩৭%।
২৩ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম বার্ষিক অধিবেশনের প্রেসিডেন্ট কে? মারিয়া ফার্নান্দো এস্পিনােসা গরসেস; ইকুয়েডর।
২৪ দেশে সরকারি আয়ের প্রধান উৎস কী? মূল্য সংযােজন কর (মূসক) বা VAT।
২৫ পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়-এর ইংরেজি নাম কী? Ministry of Environment, Forest andClimate Change.
২৬ প্রতি হাজারে স্থূল জন্মহার কত? ১৮.৫ জন। |
২৭ প্রতি হাজারে স্থূল মৃত্যুহার কত? ৫.১ জন। (কৃষি পরিসংখ্যান বর্ষগ্রন্থ ২০১৭)
২৮ প্রত্যাশিত আয়ুষ্কাল কত? ৭২.০%।
২৯ বর্তমানে VAT’র স্তর কতটি? ৫টি; পূর্বে ছিল ৯টি।

৩০ বর্তমানে তুরস্কে কোন পদ্ধতির শাসন ব্যবস্থা বিদ্যমান? প্রেসিডেন্ট শাসিত।
৩১ বর্তমানে দেশে কতটি সেবা খাত রয়েছে? ২১টি।
৩২ বর্তমানে দেশে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা কতটি? ১০২টি।
৩৩ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বর্তমান কোচ কে? স্টিভ রােডস (ইংল্যান্ড)।
৩৪ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বর্তমান প্রধান কে? জেনারেল আজিজ আহমেদ।
৩৫ বাংলাদেশের প্রথম নারী সলিসিটর কে? জেসমিন আরা বেগম।
৩৬ বার্বাডােজের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? মিয়া আমর মােটলি।
৩৭ বিশ্বকাপ – ২০১৮ আসরের শততম গোলদাতা কে? লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা)।
৩৮ বিশ্বকাপ – ২০১৮ এর প্রথম গােলদাতা কে? ইউরি গাজিনস্কি (রাশিয়া)।
৩৯ বিশ্বকাপ – ২০১৮ ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে কোথায়? লুঝনিকি স্টেডিয়াম, মস্কো; ১৫ জুলাই ২০১৮
৪০ বিহঙ্গ দ্বীপ কোথায় অবস্থিত? পাথরঘাটা, বরগুনা।

৪১ মােট জনসংখ্যা কত? ১৬৩.৬৫ মিলিয়ন; ১ জানুয়ারি
৪২ মেসিডােনিয়ার প্রস্তাবিত রাষ্ট্রীয় নাম কী? Republic of North Macedonia
৪৩ যুক্তরাজ্যের ইউরােপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ সংক্রান্ত BREXIT বিল আনুষ্ঠানিকভাবে আইনে পরিণত হয় কবে? ২৬ জুন ২০১৮।
৪৪ যুক্তরাষ্ট্র কৰে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ (UNHCR) ত্যাগের ঘােষণা দেয়? ১৯ জুন ২০১৮।
৪৫ লেবাননের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাম কী? মিশেল আউন হারিরি।
৪৬ সপ্তম নারী এশিয়া কাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হয় কোন দেশ? বাংলাদেশ।
৪৭ সম্প্রতি উত্তর আমেরিকায় কততম ঢালিউড অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের আয়ােজন করা হয়? সপ্তদশ।
৪৮ সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া তাদের কোন পরমাণু পরীক্ষা কেন্দ্র বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে? ‘পুংগিয়ে-রি’।
৪৯ সম্প্রতি এভারেস্ট জয়ী পর্বতারােহী . এমএ মুহিত কোন পর্বত জয় করেন? লাকপ রি পর্বত।
৫০ সম্প্রতি কানাডার অন্টারিও প্রদেশের প্রাদেশিক নির্বাচনে বিজয়ী বাংলাদেশি নারীর নাম কী? ডলি বেগম।
৫১ সম্প্রতি দুই বাংলার চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য কোলকাতার ১৭ তম ‘টেলি সিনে অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী অভিনেত্রী ববিতাকে কোন সম্মাননা ” প্রদান করা হয়? আজীবন সম্মাননা।

৫২ সম্প্রতি নির্বাচিত স্পেনের নতুন প্রধানমন্ত্রীর নাম কী? পেদ্রো সানচেজ।
৫৩ সম্প্রতি বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) নতুন কান্ট্রি ডিরেক্টর হিসেবে নিয়ােগ পেয়েছেন কে? টুমাে পৌটিআইনেন।
৫৪ সম্প্রতি ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’এবং পাকিস্তানের গােয়েন্দা সংস্থা আইএস আই’এর দুই সাবেক প্রধান অমরজিৎ সিং দুলাত ও আসাদ দুররানি একসঙ্গে মিলে যে বইটি লিখেছের তার নাম কী? “দ্য স্পাই ক্রনিকলস।
৫৫ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকোতে প্রথমবারের মতাে যে কৃষ্ণাঙ্গ নারী মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন তাঁর নাম কী? লন্ডন ব্রিড।
৫৬ সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন ও জেমস প্যাটারসনের সম্মিলিতভাবে লিখিত রােমাঞ্চকর গল্পের বইয়ের নাম কী? দ্য প্রেসিডেন্ট ইজ মিসিং।
৫৭ সম্প্রতি শিল্পোন্নত দেশগুলাের জোট গ্রুপ অব সেভেন (জি- ৭) সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় কোথায়? কানাডার কুইবেকে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চাকরিতে বয়সসীমা ৩৫ !

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট : চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার জন্য গত ২৭ জুন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সুপারিশ করে এবং একই সঙ্গে অবসরের বয়সসীমা ৬৫ বছর করার পরামর্শ দেয়।

কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পক্ষে শনিবার বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের মানববন্ধন করে।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক হারূন-অর রশিদ বলেন, সরকারের বর্তমান মেয়াদের মধ্যে এ সুপারিশ বাস্তবায়ন করতে হবে। নবম সংসদের নির্বাচনের আগেও চাকুরিতে আবেদনের বয়স বাড়ানোর জন্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু বাস্তবে তার সুফল এদেশের উচ্চ শিক্ষিত ছাত্ররা এখনো লাভ করেনি। তাই আসছে নির্বাচনের আগেই এটা অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে হবে।

এসময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক সবুজ ভূঁইয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক কামরুন নাহার ঝুমা, যুগ্ম আহ্বায়ক রীপা প্রমুখ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পটুয়াখালীর বাউফলে নিরাপদ সড়কের দাবীতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, নেতৃত্বে ছাত্রলীগ।।

মোয়াজ্জেম হোসেন, পটুয়াখালী।। পটুয়াখালীর বাউফলে নিরাপদ সড়কের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। তবে এ আন্দোলনে সারাদেশের থেকে বাউফলের চিত্রটা একটু ভিন্ন।
দেখা গেছে আন্দোলনের অগ্রভাগে ছিল ছাত্রলীগ। বাউফল সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইউসুফ ও সাধারন সম্পাদক মো.শুভর নেতৃত্বে বেলা ১১টার দিকে একটি মিছিল বের হয়ে ইঞ্জিনিয়ার ফারুক তালুকদার মহিলা কলেজের সামনে আসলে মহিলা কলেজের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী মিছিলে অংশ নেয়।
পরে শিক্ষার্থীদের ওই আন্দোলনের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে সাধারন শিক্ষার্থীদের সাথে মানব বন্ধনে অংশ নেয় বাউফল পৌর ছাত্রলীগের একাংশের আহবায়ক নিয়াজ মোর্শেদ। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় পাঁচ শতাধিক ছাত্র ছাত্রী ওই বিক্ষোভ মিছিল ও মানব বন্ধন কর্মসূচীতে অংশ নেয়।
বিক্ষোভ মিছিলটি বাউফল পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে বাউফল উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালনের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বাউফল পৌর ছাত্রলীগের একাংশের আহবায়ক নিয়াজ মোর্শেদ সহ অন্যান্যরা। বক্তারা নিরাপদ সড়কের দাবীর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহবান জানান। পরে বাউফল সরকারি কলেজের সামনে অবৈধ যানবাহন থামিয়ে লাইসেন্স চেক করে সাধারন শিক্ষার্থীরা। এসময়ে লাইসেন্সবিহীন বেশ কয়েকটি মটর সাইকেলের চাবি আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় শিক্ষার্থীরা।
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ফেইসবুকে আর হবে না স্বয়ংক্রিয় টুইট শেয়ার

অনলাইন ডেস্ক ॥ নিজেদের এপিআই প্ল্যাটফর্মে লাখ লাখ অ্যাপের প্রবেশাধিকার বন্ধ করে দিচ্ছে ফেইসবুক। এর ফলে টুইটার ব্যবহারকারীরা আর তাদের ফেইসবুক অ্যাকাউন্টে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কোনো টুইট বা রিটুইট পোস্ট করতে পারবেন না।

ফেইসবুক নিজেদের এপিআই থেকে ‘পাবলিশ’ অপশন সরিয়ে নিয়েছে। এই ফিচারের মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাপ থেকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক মাধ্যমটিতে পোস্ট করা যেত, অবশ্যই যদি ফেইসবুক অ্যাকাউন্টটিতে আগে থেকে লগ-ইন করা থাকে।

ফেইসবুকের পণ্য অংশীদারিত্ববিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট ইমে আরকিবং বলেন, ফেইসবুক প্ল্যাটফর্ম এপিআই ব্যবহার করা সব অ্যাপকে আরও বেশি যাচাইয়ে মধ্য দিয়ে যেতে হবে। ফেইসবুকে মানুষের থাকা তথ্য সুরক্ষায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বর্তমানে থাকা সব অ্যাপ যাচাইয়ের জন্য ১ অগাস্ট পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল ফেইসবুক।

আরকিবং বলেন, “এর ফলে, আমরা সক্রিয় নয় এমন লাখ লাখ অ্যাপের এপিআই অ্যাকসেস সরিয়ে নিচ্ছি যেগুলো আমাদের অ্যাপ যাচাই প্রক্রিয়ায় অংশ নেয়নি।”

ফেইসবুকে টুইটার থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফেইসবুকে টুইট করতে না পারা নিয়ে অভিযোগ তোলার পর বৃহস্পতিবার এ নিয়ে টুইটারে সাপোর্ট দল একটি টুইট করেছে বলে উল্লেখ করা হয় আইএএনএস-এর প্রতিবেদনে।

টুইটার সাপোর্ট-এর পক্ষ থেকে বলা হয়, “আমরা জেনেছি যে ফেইসবুকের সাম্প্রতিক আপডেটের কারণে টুইট আর রিটুইট আর সংযুক্ত ফেইসবুক অ্যাকাউন্টগুলোতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে পোস্ট করা যাচ্ছে না।”

“চিন্তা করবে না, আপনাদের টুইট শেয়ার করার অন্য উপায় আছে।”

“আপনাদের ফোনের অ্যাড্রেস বুক থেকে আপনাদের কনটাক্ট লিস্টে থাকা মানুষদের এসএমএস বা মেইল পাঠিয়ে অথবা ফলোয়ারদের সঙ্গে ডিরেক্ট মেসেজ-এর মাধ্যমে টুইট শেয়ারের সুযোগ আছে।”

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মাদরাসা শিক্ষকদের জুলাই মাসের বেতনের চেক ছাড়

অনলাইন ডেস্ক: এমপিওভুক্ত মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের  জুলাই মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) চেক ছাড় হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) অনুদান বণ্টনকারী রাষ্ট্রায়াত্ত চারটি ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। শিক্ষকরা ৯ আগস্ট পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন।

মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোহাম্মদ শামসুজ্জামান  এ তথ্য জানিয়েছেন।

আদেশের স্মারক নম্বর ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.১৭-১৪৯

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঢাকা উইমেন কলেজে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

ঢাকা উইমেন কলেজে উপাধ্যক্ষ ও শিক্ষক নিয়েগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করলে পরিণাম শুভ হবে না

অনলাইন ডেস্ক: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ওপর গতকালও হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ। গতকাল ধানমণ্ডিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগের সশস্ত্র ক্যাডাররা। সাংবাদিকরা হামলার দৃশ্য ধারণ করতে গেলে তাদের সশস্ত্র হামলা করা হয়েছে।

আজ শনিবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, আজ রাজধানীর মোড়ে মোড়ে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনকে মনিটরিংয়ের নামে দাঁড় করিয়ে রাখা হবে বলে গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। যদি আওয়ামী লীগ এ কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে তাহলে জনগণ ও অভিভাবকরা তাদের ক্ষমা করবে না, এর পরিণাম শুভ হবে না।

তিনি বলেন, গত সাড়ে তিন বছরে সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেছে ২৫ হাজার মানুষ। আহত হয়েছেন ৬২ হাজার মানুষ। সড়কে দীর্ঘ মৃত্যুর-মিছিলের জন্য দায়ী সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং নৌমন্ত্রী শাজাহান খান ও সরকারের অনাচারমূলক নীতি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মন্ত্রীদের নির্দেশে আজকেও দেশব্যাপী গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কষ্ট দেওয়া হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এই গণপরিবহন বন্ধ করেনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ, শ্রমিকলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট: রাজধানী ঢাকার জিগাতলায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) গেটের সামনে শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠি হাতে হামলা চালিয়েছে একদল যুবক। তাদের মাথায় হেলমেট পরা ছিল। দুই পক্ষকে ইটপাটকেল ছুড়তে দেখা যায়। আজ শনিবার বেলা দুইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আজ সকাল থেকে ওই এলাকায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা জড়ো হতে শুরু করে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। হাজার হাজার শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান নেয়। বেলা দুইটার দিকে বিজিবি গেটের সামনে শত শত শিক্ষার্থীর একটি অংশের ওপর হঠাৎ করে হেলমেট পরা লাঠি হাতে ২৫-৩০ জনের এক দল যুবক হামলা চালায়। ওই সময় বিজিবির সদস্যরা গেট থেকে সামনে এসে যুবকদের থামানোর চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে শিক্ষার্থী ও হামলাকারীরা একে অপরের দিকে ইটপাটকেল ছোড়া শুরু করে।

২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহন লিমিটেডের একটি বাসের চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। ওই ঘটনার প্রতিবাদে সেদিন থেকেই শিক্ষার্থীরা রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জালিয়াতি করে চাকরি, মোংলা বন্দরের ৩১২ জন কর্মচারীকে দুদকে তলব

নিজস্ব প্রতিবেদক,৪ আগষ্ট: জাল সার্টিফিকেট, কোটা ও বয়সসীমা জালিয়াতি করে মোংলা বন্দরে চাকরি নেওয়া ৩১২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এসব কর্মচারীরা কীভাবে অনিয়ম করে চাকরি নিয়েছে সে ব্যাপারে দুদক তদন্ত নেমেছে বলেও জানা গেছে।

এদিকে এ ঘটনায় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর ফারুক হাসান অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘অনিয়ম করায় যোগ্যতা অনুযায়ী মেধাবীদের চাকরিতে সুযোগ না হওয়ায় ইতোমধ্যে বন্দরের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে।’

অভিযোগ উঠেছে, অর্থ বাণিজ্যর মাধ্যমে অনিয়ম করে বন্দরের বিভিন্ন কর্মস্থলে কয়েক’শ লোকজনকে চাকরি পাইয়ে দেয় বন্দর কর্মচারীদের সংগঠন (সিবিএ)। বন্দর কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন কর্মস্থলে নিয়োগের ক্ষেত্রে ধারাবহিকভাবে সিবিএ হস্তক্ষেপ করায় এসব অনিয়ম হয়ে আসছে বলে জানান চাকরি প্রত্যাশীদের অবিভাবকরা।

মোংলা বন্দরের ব্যবসায়ী ও একজন চাকরি প্রত্যাশীর অবিভাবক শাজাহান সিদ্দিকী বলেন, ‘গত কয়েক বছর ধরে মোংলা বন্দরে যেভাবে নিয়োগ বাণিজ্য চলছে, তাতে আমাদের ছেলেমেয়েরা ভালো রেজাল্ট করেও চাকরি পাবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘বন্দরের সিবিএ নেতাদের কাছে জাল সার্টিফিকেট, বয়স নেই, কাজের অভিজ্ঞতা নেই এমন জাল সনদের সঙ্গে মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষ নিয়ে গেলেই অনভিজ্ঞদের চাকরি হয়ে যায়।’ এতে কোনোদিন মেধাবীদের চাকরি হবেনা বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এদিকে জাল সার্টিফিকে দিয়ে চাকরি নেওয়া মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের নিজস্ব জলযান এম টি সারথী-২ এর ভান্ডারি (রাধুনী) ফজলুল হক, এম টি মেঘদূতের হাবিবুর রহমান এবং সরোয়ার মুন্সি বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাদের সিবিএ’র সংগঠনের নেতা পল্টু ও সাকিবকে জিজ্ঞেস করেন। তারা আমাদের হয়ে কথা বলবেন।’

সরোয়ার মুন্সি মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ শ্রমিক কর্মচারী সংঘ রেজিঃ ১৯৫৭ (সিবিএ) এর যুগ্ন সম্পাদক মতিউর রহমান সাকিবের ভগ্নিপতি। সাকিবের ছোট ভাই মহসিন হোসেন বাদশাও জন্ম সনদ জাল করে বয়স কমিয়ে সিনিয়র আউটডোর অ্যাসিসন্টে হিসেবে চাকরি নেন বলে অভিযোগ আছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বন্দরের হারবার, মেরিন এবং যান্ত্রিক ও তড়িৎ বিভাগের একাধিক কর্মচারীরা বলেন, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ শ্রমিক কর্মচারী সংঘ রেজিঃ ১৯৫৭ (সিবিএ) এর সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম পল্টু এবং যুগ্ন সম্পাদক মতিউর রহমান সাকিব-বন্দরের কর্মচরীর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলেই তাদের কর্মস্থলে চাকরি ফেলে বেসামাল হয়ে ওঠেন। তারা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির তালিকা ধরে নিয়োগ বাণিজ্যে নেমে পড়েন বলে গুঞ্জন রয়েছে।

তবে পল্টু ও সাকিব এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমরা বন্দরের নিয়োগ কমিটিকে সুস্থভাবে কাজ করতে আরও সহযোগিতা করি।’

তারা আরও বলেন, ‘বন্দরে ২০১৩ ও ১৪ সালে যারা নিয়োগ পেয়েছেন তাদেরকে ডেকে হয়রানি করছে দুর্নীতি দমন কমিশন । তিন-চার বছর ধরে চাকরিতে থাকা অবস্থায় তাদের ডেকে আবার লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেওয়ার যৌক্তিকতা নেই।’

এদিকে বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) পর্যন্ত অনিয়ম করে চাকরি পাওয়ায় বন্দরের ৩২ জন কর্মচারীকে দুদক ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

এ প্রসঙ্গে খুলনার দুর্নীতি দমন কমিশনের ডেপুটি অ্যাসিস্টেন্ট ডাইরেক্টর নীল কমল পাল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘জাল সার্টিফিকেট, কোটা ও বয়সসীমা জালিয়াতি করে যারা মোংলা বন্দরে চাকরিতে নিয়োগ নিয়েছেন, তদন্তের স্বার্থে তাদের ডাকা হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দুদকের তদন্তকারী কর্মকর্তা ফয়সাল কাদের এসব বিষয়ে তদন্ত করছেন। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলেই সংশ্লিষ্ট থানায় এজাহার (মামলা) দায়ের করা হবে।

এদিকে বন্দরের পার্সোনাল শাখার একটি সূত্র জানায়, গত ২০১৩ ও ১৪ সালে নিয়োগ পাওয়া ৩১২ জন কর্মচারীর অধিকাংশের বিরুদ্ধে অযোগ্যতার অভিযোগ ওঠায় চলতি বছরের জুলাই মাসে দু’দফায় ২৮ জনকে তলব করে পুনরায় পরীক্ষা নিয়েছে দুদক।

সূত্রটি আরও জানায়, বন্দরের নিজস্ব জলযান এম এল গাংচিল, এম টি শিবসা, এম টি সারথী-২, বি এল ভি মালঞ্চ, এম এল ঝিনুক, এম এল উষা, এম টি সারথী-১, এম ভি রুহী, এম এল রাজহংস, এম ভি তৃঞ্ষা, এফ এফ টি অগ্নি প্রহরী, এম এল ময়ীরপঙ্খী, এম এল বলাকা, এম এল পান্না, এম এল, হীরা, এম এল মতি, এম এল অনুসন্ধানী, এম এল উর্মি, ও এম এল মুক্তার “ভান্ডারী” (রাধুনী) ছাড়াও যান্ত্রিক ও তড়িৎ বিভাগের “ক্রেন হেলপার” পদের নব্বই শতাংশ ব্যক্তিই জালিয়াতির মাধ্যমে নিয়োগ পেয়েছেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ছুটি কাটিয়ে বাড়ি ফিরলেন দীপিকা-রণবীর

বিনোদন ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে বেশ কিছুদিন একসঙ্গে  দারুণ সময় পার করেছেন দীপিকা ও রণবীর। এনডিটিভির খবরে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁরা মুম্বাই ফিরেছেন।

মুম্বাই এয়ারপোর্টে পাপারাজ্জিদের তোলা ছবিতে দীপিকা ও রণবীরকে দেখা যায় বেশ খোশ মেজাজে। তাঁদের মুখে ছিল মিষ্টি হাসি। পাশাপাশি হাত ধরে হেঁটেছিলেন তাঁরা। দুজনই পরেছিলেন আরামদায়ক পোশাক।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় দীপিকা ও রণবীরের কাটানো সময়গুলোর ছবি ও ভিডিও ইন্টারনেট দুনিয়ায় এখন ভাইরাল ও আলোচিত। ঘুরে বেড়ানোর ছবির পাশাপাশি  ফ্লোরিডা থেকে ইনস্টাগ্রামে দীপিকা তাঁর ছোটবেলার একটা ছবি শেয়ার করেছিলেন গত বৃহস্পতিবার। ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘টমবয় তখন, এখন এবং সবসময়।’  গোলাপি পোশাকে ছোট্ট দীপিকার ছবি তাঁর ভক্তদের মন কেড়ে নিয়েছে আরো একবার। হাজার হাজার ভ্ক্ততের মাঝে ছবিটিতে কমেন্ট করেছিলেন রণবীরও।

বোঝায় যাচ্ছে, দীপিকা ও রণবীরের মনে এখন সুবাতাস বইছে। আসছে নভেম্বরে তাঁদের দুজনের বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা। বলিউডের এই আলোচিত ঝুটির বিয়ে কোথায় হবে, এই নিয়েও চলছে নানা গুঞ্জন। অনেকে বলছে তাঁদের বিয়ে হতে পারে ইতালিতে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জবি ১ম বর্ষে ভর্তির আবেদন শুরু ৫ আগস্ট

জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে চার বছর মেয়াদী স্নাতক (সম্মান) ও বিবিএ ১ম বর্ষের ভার্তির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে রোববার (৪ আগস্ট)।

এ বছরই প্রথম ভিন্ন আঙ্গিকে নেয়া হবে জবিতে ভর্তি পরীক্ষা। এমসিকিউর পরিবর্তে পরীক্ষা হবে লিখিত পদ্ধতিতে।

মোট আসন : এবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ২ হাজার ৭৬৫টি আসনে শিক্ষার্থীরা ভর্তির সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে ইউনিট-১ (বিজ্ঞান শাখা)-৮২৫জন, ইউনিট-২ (মানবিক শাখা)- ১ হাজার ২৭০জন, ইউনিট-৩ (বাণিজ্য শাখা)- ৫২০ জন এবং বিশেষায়িত চারটি বিভাগে (সংগীত, চারুকলা, নাট্যকলা এবং ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন) মোট ১৫০ জন ভর্তি হতে পারবেন।

আবেদনের যোগ্যতা : যেসব শিক্ষার্থী ২০১৫ বা ২০১৬ সালে এসএসসি/সমমান এবং ২০১৮ সালে এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন কেবলমাত্র তারাই ভর্তির আবেদন করতে পারবেন।

এরমধ্যে এসএসসি/সমমান এবং এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় ইউনিট-১ (বিজ্ঞান শাখা)-এর জন্য ন্যূনতম জিপিএ ৮.০, ইউনিট-২ (মানবিক শাখা)-এর জন্য ন্যূনতম জিপিএ ৭.৫ এবং ইউনিট-৩ (বাণিজ্য শাখা)-এর জন্য ন্যূনতম জিপিএ ৮.০ থাকতে হবে। তবে এসএসসি/সমমান এবং এইচএসসি/সমমান কোনো পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০ এর নীচে পেলে তারা কোনো বিভাগে আবেদনের যোগ্য হবেন না।

অপরদিকে বিশেষায়িত বিভাগে ভর্তির আবেদনের জন্য এসএসসি/সমমান এবং এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের মোট জিপিএ ৭.০ (কোনো পরীক্ষায় জিপিএ ২.৫ এর নীচে নয়) থাকতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া : ইউনিট-১, ২ ও ৩ এর জন্য admission.jnu.ac.bd অথবা admissionjnu.info ওয়েবসাইটে login করে bKash-এ সার্ভিস চার্জসহ ১০১/- টাকা, SureCash-এ সার্ভিস চার্জসহ ১০৪/- টাকা এবং Rocket-এ সার্ভিস চার্জসহ ১০১/- টাকা জমা দেয়া সাপেক্ষে ৫ আগস্ট বেলা ১২টা থেকে ২৭ আগস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত প্রাথমিক আবেদন করা যাবে। প্রাথমিক আবেদনকৃত শিক্ষার্থীদের এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ এবং এইচএসসি পরীক্ষায় প্রাপ্ত মোট নম্বরকে (৪র্থ বিষয়সহ) ভিত্তি করে লিখিত পরীক্ষার জন্য প্রথম ৩০ হাজার যোগ্য শিক্ষার্থীর তালিকা (পরীক্ষার্থীর নাম ও রোল নম্বরসহ) প্রস্তুত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে প্রকাশ করা হবে এবং পরীক্ষার্থীদের দেয়া মোবাইল নম্বরে SMS-এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে। এই শর্ত পোষ্য কোটাসহ সব কোটার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

প্রাথমিকভাবে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীরা Application ID Number ব্যবহার করে ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট (admission.jnu.ac.bd অথবা admissionjnu.info) login করে ছবি, স্বাক্ষর, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে কোটার তথ্য Upload করে Final Submit করতে পারবেন। Final Submit করার পর কোনো পরিবর্তন করা যাবে না। প্রাথমিকভাবে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীরা লিখিত পরীক্ষার জন্য bKash-এ সার্ভিস চার্জসহ ৫০৫/- টাকা, SureCash-এ সার্ভিস চার্জসহ ৫০৫/- টাকা এবং Rocket-এ সার্ভিস চার্জসহ ৫০৫/- টাকা ৩১ আগস্ট বেলা ১২টা থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত জমা প্রদান করতে পারবেন। Final Submit-এর পর প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে এবং পরীক্ষার দিন অবশ্যই তা সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে।

বিশেষায়িত বিভাগসমূহের (সংগীত, চারুকলা, নাট্যকলা এবং ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভশন) জন্য কোনো লিখিত পরীক্ষা নেয়া হবে না। শুধু বিষয়ভিত্তিক ব্যবহারিক এবং মৌখিক ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে। শিক্ষার্থীদের admission.jnu.ac.bd অথবা admissionjnu.info ওয়েবসাইটে login করে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রোল নম্বর, শিক্ষা বোর্ড, পাসের সন এবং নিজের মোবাইল নম্বরসহ প্রয়োজনীয় তথ্য Input দিয়ে Submit করতে হবে। যোগ্য বিবেচিত আবেদনকারীদের একটি Applicaiton ID দেয়া হবে। একজন শিক্ষার্থী বিশেষায়িত এই চার বিভাগের প্রতিটিতে আলাদাভাবে আবেদন করতে পারবেন। Applicaiton ID প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা প্রতিটি বিভাগের ভর্তি পরীক্ষায় (ব্যবহারিক এবং মৌখিক) অংশগ্রহণের জন্য bKash-এ সার্ভিস চার্জসহ ৪০৪/- টাকা, SureCash-এ সার্ভিস চার্জসহ ৪০৪/- টাকা এবং Rocket-এ সার্ভিস চার্জসহ ৪০৪/- টাকা ৩১ আগস্ট বেলা ১২টা থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত জমা দিতে পারবেন। Final Submit-এর পর প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারবেন এবং পরীক্ষার দিন অবশ্যই তা সঙ্গে নিয়ে আসতে হবে।

এছাড়া বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি), ইংলিশ মিডিয়াম অথবা বিদেশ থেকে এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ৫ আগস্ট থেকে ২৭ আগস্ট পর্যন্ত (অফিস চলাকালীন সময়ে) কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির সদস্য-সচিবের (রেজিস্ট্রার) অফিসে যোগাযোগ করে নির্ধারিত আবেদন ফরম সংগ্রহ করে আবেদন করতে পারবে।

ভর্তি পরীক্ষার তারিখ : ইউনিট-১-এর ভর্তি পরীক্ষা ২৯ সেপ্টেম্বর (শনিবার), ইউনিট-২-এর ভর্তি পরীক্ষা ৬ অক্টোবর (শনিবার), ইউনিট-৩-এর ভর্তি পরীক্ষা ১৩ অক্টোবর (শনিবার) সকাল (১০.০০টা হতে ১১.৩০টা) এবং বিকেল (৩টা হতে ৪টা৩০মিনিটি) দুটি শিফটে অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও বিশেষায়িত বিভাগের ব্যবহারিক এবং মৌখিক পরীক্ষা ২৭ অক্টোবর থেকে শুরু হবে।

ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে (admission.jnu.ac.bd অথবা admissionjnu.info) পাওয়া যাবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে নির্মাতা ফারুকীর খোলা চিঠি

নিজস্ব প্রতিবেদক: ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের উদ্দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খোলা চিঠি লিখেছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী।

আজ শনিবার সকালে লেখা চিঠিতে ফারুকী বলেন, ‘প্রিয় মোস্তাফা জব্বার ভাই,কিশোর বিদ্রোহের এই অনন্যসাধারণ ব্যাপারটাকে ভিলিফাই করার চেষ্টা করবেন না, প্লিজ। মনে রাখবেন, এরা আপনাদের শত্রু না। এরাই আপনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রধান সৈনিক হবে। মিরপুরে লাঠি হাতে যারা দাপিয়ে বেড়িয়েছে তাদের দিয়া জয় ভাইয়েরও কাজ হবে না, ববি ভাইয়েরও না। লাগবে এসব সোনার ছেলেমেয়েদেরই। আরো মনে রাখবেন, দুই হাজার আটে সাধারণভাবে তরুণরা আপনাদের পক্ষে ছিল বলেই আপনাদের পক্ষে জোয়ার আসছিল। ভাবেন এই ছেলেমেয়েরা পাঁচ-দশ বছর কোথায় যাবে। তখন এরা কত জরুরি হবে আপনাদের কাছে।’

চলচ্চিত্র নির্মাতা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি আমরা মেনে নিচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রেদওয়ান মুজিব তাদের সম্মানে হেঁটে অফিসে গেলেন। ডিএমপির মনির ভাই বললেন শিক্ষার্থীরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে।

‘এখন হঠাৎ করে বিচ্ছিন্ন দুয়েকটা ঘটনা, স্লোগান আর ভাষা নিয়া অহেতুক আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ছোট করার ব্যর্থচেষ্টা করবেন না। এতে আপনি, আমি, আমরা, আমাদের ভবিষ্যৎ সবাই ছোট হচ্ছি। গালি বা স্ট্রিট ল্যাংগুয়েজের নন্দন তত্ত্ব, সামাজিক ব্যাখ্যা এসবে না গিয়ে আপনাকে খেয়াল করিয়ে দিতে চাই এসব দুয়েকটা ঘটনা এই আন্দোলনের আসল চিত্র ছিল না। এত হাজার হাজার ছেলেমেয়ে রাস্তায় এসেছে তাদের মধ্যে কত রকমের মানুষ থাকতে পারে। নব্বইয়ে ছিল না এই রকম অতি সামান্য বিচ্ছিন্ন উপাদান?’

চিঠিতে লেখা হয়, ‘আমি বরং সেসব নিয়ে কথা না বলে খেয়াল করাতে চাই এই আন্দোলন কত রাজনৈতিকভাবে সচেতন স্লোগান ব্যবহার করেছে । খেয়াল করিয়ে দিতে চাই, পুলিশ-ছাত্র গলাগলি করে কীভাবে দাঁড়িয়েছিল ফার্মগেটে, কি সুমধুর সুরে এরা জাতীয় সংগীত গেয়েছে, কি সুন্দরভাবে লাইসেন্স চেক করে থ্যাংক ইউ বলেছে, কোথাও কোথাও চকলেট দিয়েছে। খেয়াল করাতে চাই এদের বক্তব্যে এবং কণ্ঠে কতবার বঙ্গবন্ধুর কথা উঠে এসেছে রেফারেন্স হিসেবে। নতুন প্রজন্মের হৃদয়ে বঙ্গবন্ধুকে এভাবে দেখেও কি আপনি আশাবাদী হন নাই? আমি তো ভীষণ হয়েছি।’

ফারুকী আরো বলেন, ‘এখন ওদের হাসিমুখে ঘরে ফিরতে দেন আর যে কাজ করার ওয়াদা করেছেন সেগুলোতে হাত দেন। তারপর আমরা সবাই মিলে একসাথে এগিয়ে যাই সামনের দিকে।

এবার নিচে এই আন্দোলনের কিছু জনপ্রিয় স্লোগানের লিস্ট দিয়ে দিলাম যদি আপনি মিস করে থাকেন এই ভয়ে।’

‘১. হয়নি বলেই আর হবে না, আমরা বলি বাদ দে। লক্ষ তরুণ চেঁচিয়ে বলে পাপ সরাবো হাত দে।
২. যদি তুমি ভয় পাও তবে তুমি শেষ , যদি তুমি রুখে দাড়াও তবে তুমি বাংলাদেশ।
৩. জনপ্রতিনিধিদের সপ্তাহে অন্তত তিনদিন গণপরিবহনে যাতায়াত করতে হবে।
৪. পারলে মাথায় গুলি কর, তাহলে মেধা মারা যাবে, কিন্তু বুকে গুলি করিস না, এখানে বঙ্গবন্ধু ঘুমায়, বন্ধু জেগে গেলে সব ধ্বংস হয়ে যাবে।
৫. আমরা নয় টাকায় এক জিবি চাই না ‘নিরাপদ সড়ক চাই’।
৬. চার কোটি শুক্রাণুর সাথে লড়াই করে জন্মেছি, চাকার তলায় পিষার জন্য নয়।
৭. পথ খুলবে বলেই রাস্তা আটকাই।
৮. শিক্ষকের বেতের বাড়ি নিষেধ যেই দেশে, পুলিশের হাতে লাঠি কেন সেই দেশে।
৯. আর নবারুন ভট্টাচার্যর কবিতাটা যেটার লাইন আমার হুবহু মনে পড়ছে না।
১০. টনক তুমি নড়বে কবে?
১১. ন্যায্য দাবির মিছিলে যে চোখ
সে চোখ জেগেছে জয়ে
মিছিল কখনো থামে না বুলেটে
স্লোগান থামে না ভয়ে।’

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, ‘আমার তো মনে হয় না ওদের বয়সে আমি এই রকম গুছিয়ে বলতে পারতাম। মনে পড়ে মহল্লার সরু রাস্তা ছেড়ে বড় রাস্তায় উঠলে জড়তায় সংকুচিত হয়ে থাকতাম। সেখানে মহাসড়কে নেমে এত গুছিয়ে একটা আন্দোলন তো অনেক দূরে কথা। আপনি কি পারতেন, প্রিয় জব্বার ভাই? আপনাকে ধন্যবাদ।’

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। জাবালে নূর পরিবহনের দুটি বাস প্রতিযোগিতা করে মিরপুর থেকে ফ্লাইওভারের ওপর দিয়ে আসছিল। এ সময় ফ্লাইওভারের শেষ দিকে, রাস্তার পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল একদল শিক্ষার্থী। এর মধ্যে একটি বাস ফ্লাইওভার থেকে নেমেই দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। এ ছাড়া আহত হয় বেশ কয়েকজন। নিহতরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব।

ওই ঘটনার পর থেকেই বিমানবন্দর সড়কসহ বিভিন্ন এলাকায় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে টানা কয়েক দিন। ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ দাবিতে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকীসহ অনেক শিল্পী

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail