Home » Author Archives: editor (page 20)

Author Archives: editor

১৭ মার্চে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের চিঠি পড়া বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৬ মার্চ, ২০২০
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর চিঠি শিশুদের পড়ানোর সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে সরকার। আগামীকাল ১৭ মার্চ থেকে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তাই, চিঠি পড়ার কার্যক্রমটি ১৭ মার্চ হবে না। চিঠিটি আজ রোববারই সব শিক্ষার্থীদের কাছে পৌঁছে দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ সোমবার দুপুরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো: জাকির হোসেন মন্ত্রণালয় এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

এর আগে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে দেশের সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। সিদ্ধান্তের পর শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

জানা যায়, ১৭ই মার্চ সকাল ১১টায় প্রধানমন্ত্রীর লেখা এই চিঠি একযোগে ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেড় কোটি শিক্ষার্থীরা পড়ার কথা ছিলো। স্কুলের সমাবেশে বা শ্রেণিকক্ষে চিঠিটি পড়ার কথা ছিলো। গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে চিঠি পৌঁছায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে। এরপর তা ছাপাতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। সোমবারের মধ্যেই প্রায় দেড় কোটি চিঠি পৌঁছে যায় সব স্কুলে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ নিয়ে যে নির্দেশনা দিলেন সচিব

ঢাকা,১৬ মার্চ : করোনাভাইরাস থেকে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ রাখতে সাময়িকভাবে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সোমবার (১৬ মার্চ) মন্ত্রিপরিষদ সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন।
সচিব বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয় রেখে বুধবার (১৮ মার্চ) থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ থাকবে। ১৭ মার্চ সাধারণ ছুটি হওয়ায় ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ কার্যকর হবে।
তিনি বলেন, আমাদের সন্তানদের সুস্থ রাখাটাই প্রধান দায়িত্ব। তারা সুস্থ থাকলে আমাদের প্রতিষ্ঠান চলবে। করোনাভাইরাস থেকে খুদে শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রাখতে সাময়িকভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

১৮ মার্চ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ মার্চঃ
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বুধবার (১৮ মার্চ) থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করছে সরকার। আপাতত ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

সোমবার (১৬ মার্চ) বিকেলে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি হবে। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ১৭ মার্চ সাধারণ ছুটি। ১৮ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করা হবে। প্রতিমন্ত্রী মহোদয় এলেই আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করব।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হবে কিনা সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৫ মার্চ, ২০২০
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে শুধু পরামর্শ দিয়েছে। রোববার (১৫ মার্চ) সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

অন্যদিকে দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের প্রেক্ষাপটে সব স্কুল, কলেজ, মাদরাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ চেয়ে হাইকোর্ট রিট করা হয়েছে। এ রিটে দেশের স্থল-নৌ এবং বিমানবন্দরও বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ রোববার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট করেন।

আইইডিসিআর জানিয়েছে, বাংলাদেশে মোট ৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। আগের তিনজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন। এখন ২ জন আক্রান্ত আছেন।

রোববার সকালে ইটালি থেকে আরও ১৫২ জন দেশে এসেছেন। তাদের এখনও স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়নি। তারা হজক্যাম্পে আছেন। তাদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

দেশে করোনার রোগী শনাক্তের পর বিভিন্ন মহল থেকে দাবি উঠে স্কুল-কলেজ বন্ধের। এ পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞদের মতের ভিত্তিতে স্কুল কলেজ বন্ধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল গত সোমবার (৯ মার্চ) বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে সোমবার সকালে উপমন্ত্রী বলেছিলেন স্কুল-কলেজ বন্ধ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ লাগবে। এ খবর প্রকাশের পর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ শাখা থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়। এতে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির বরাত দিয়ে বলা হয়, ‘করোনা মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। বিষেশজ্ঞদের মতামতের ভিত্তিতে স্কুল কলেজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সচেতনতামূলক নির্দেশনা পাঠানো হচ্ছে।’

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনা ভাইরাস। পরে ছড়িয়ে পড়ে পুরো বিশ্বে। এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বিশ্বের ১৫০টি দেশের জনগণ। ইটালিতে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ১৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫ হাজার ৮১৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

তবে এখন পর্যন্ত করোনাতে আক্রান্ত হয়ে ৭৪ হাজার ২৭৬ জন সুস্থ হয়েছেন। আকাশপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন আছে প্রায় অর্ধেক পৃথিবী। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, করোনা ভাইরাসের এখন কেন্দ্র হয়ে দাঁড়িয়েছে ইউরোপ।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

করোনা : সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে রিট

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৫ মার্চ, ২০২০
দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। ওই রিটে দেশের স্থল ও নৌবন্দর বন্ধের নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে।

রোববার (১৫ মার্চ) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন করেন আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ।

এদিকে, করোনাভাইরাস নিয়ে ছড়িয়ে পড়া আতঙ্কে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের দাবি সামনে আসলেও স্কুল কলেজ বিশ^বিদ্যালয় এখনই ‘বন্ধ করে আতঙ্ক’ বাড়াতে চায়না মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওপর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের চাপ থাকলেও দুই মন্ত্রণালয়ই তাকিয়ে আছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের দিকে। শিক্ষার দুই মন্ত্রণালয়ই বলছে, তারা এখন পর্যন্ত প্রতিষ্ঠান বন্ধের কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যেভাবে বলবে সেভাবেই পদক্ষেপ নেয়া হবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, তারা জনসমাগম এড়ানোর কথা বলছেন। কিন্তু প্রতিষ্ঠান বন্ধ হবে কি না সেটা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিষয়।

এদিকে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সারা বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করেছে। খুব শিগগিরই এ মহামারি থেকে রক্ষারও উপায় নেই। এর প্রভাব পড়েছে শিক্ষা খাতেও। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যেহেতু বড় জনসমাগমের জায়গা, তাই ইতিমধ্যে ৬১ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এর মধ্যে জাতীয়ভাবে বন্ধ করা হয়েছে ৩৯টি দেশে। এতে পড়ালেখা ব্যাহত হচ্ছে ৪২ কোটি ১৩ লাখ ৮৮ হাজার ৪৬২ শিক্ষার্থীর। আর আংশিক বন্ধ করা হয়েছে ২২ দেশে। এসব দেশে ৬৫ কোটি ৩৩ লাখ ৩৯ হাজার ৯৪৭ জন শিক্ষার্থী শিক্ষাঝুঁকিতে রয়েছে। পুরোপুরি ও আংশিক বন্ধ হওয়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১০৭ কোটি ৪৭ লাখ ২৮ হাজার ৪০৯ জন শিক্ষার্থীই শিক্ষাঝুঁকিতে রয়েছে। শিক্ষা খাতে কভিড-১৯-এর প্রভাব নিয়ে ইউনাইটেড নেশনস এডুকেশনাল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড কালচারাল অর্গানাইজেশন (ইউনেসকো) গত শুক্রবার সর্বশেষ এই তথ্য প্রকাশ করেছে।

গতকাল শনিবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দেশ ও অঞ্চলের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪৮। এর মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে। দেশে এই ভাইরাসে নতুন করে ২ জন আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে গতকাল শনিবার। এর আগে তিনজন পাওয়া যায়। তাঁরা এখন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অভিভাবকদের দাবি থাকলেও বাংলাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করার মতো পরিস্থিতি এখনো সৃষ্টি হয়নি বলে মত সংশ্লিষ্টদের।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্কলাষ্টিকা স্কুলে ছুটি ঘোষণা

ডেস্ক,১৫ মার্চঃ
রাজধানীর স্কলাস্টিকা স্কুলে ছুটির ঘোষণা দেয়া হয়েছে। আগামী ১৮ মার্চ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্কুল বন্ধ থাকবে বলে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছে মেইল পাঠানো হয়েছে।
রোববার (১৫ মার্চ) পাঠানো স্কুলের পক্ষ থেকে এটিকে বসন্তকালীন ছুটি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।
করোনার কারণে বিভিন্ন মহল থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের দাবি উঠলেও সরকারের তরফ থেকে এখনো তেমন কোনো ঘোষণা আসেনি। এর মধ্যে রোববার (১৫ মার্চ) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় পরামর্শ দিয়েছে। তবে প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেবে।
এসময় তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখবে না বন্ধ রাখবে তা পুরোটাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত। পরামর্শ যতটুকু দেয়ার আমরা দিয়েছি।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশের মানুষকে আমরা নিরাপদে রাখার চেষ্টা করেছি। এজন্য দুই মাস ধরেই কাজ করে যাচ্ছি। আমরা কারো ওপরে চাপিয়ে দিতে পারি না। আমরা পরামর্শ দিয়ে সবাইকেই চিঠি দিয়েছি। এর থেকে বেশি কিছু আমরা করতে পারি না।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিতে সুপারিশ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জাতীয় সংগীত পরিবেশন কর্মসূচি স্থগিত

ডেস্ক,১৪ মার্চ:
একযোগে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। দেশে ৩ করোনা রোগী শনাক্তের কারণে এই আয়োজন স্থগিত করার নির্দেশ দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপসচিব মো. সাইদুর রহমানের সই করা আদেশে বলা হয়, আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে একযোগে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শুদ্ধসুরে জাতীয় সংগীত পরিবেশন প্রতিযোগিতা অনিবার্য কারণে স্থগিত করা হলো।

করোনা পরিস্থিতির কারণে জনসমাগম এড়াতে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশে বলা হয়, সারাদেশে ও বিদেশে একযোগে জাতীয় সংগীত পরিবেশন কর্মসূচি আয়োজনের সময়সূচি পুনর্বিন্যাস করে পরে জানানো হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ, জরুরি অবস্থা জারি

ডেস্ক
করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে বাঁচতে আগামী সোমবার (১৬ মার্চ) থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ ও প্রাথমিক জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে পর্তুগাল সরকার।
বৃহস্পতিবার রাতে পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক বিবৃতিতে পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত পর্তুগালের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ রাখার কথা জানান।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির শর্ত শিথিলের সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক,১২ মার্চঃ
বেসরকারি স্কুল কলেজ এমপিওভুক্তির শর্ত শিথিল করার সুপারিশ করছে এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধন কমিটি। এমপিওভুক্তি শর্ত হিসেবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থী সংখ্যা ও পাসের হার কমানোর সুপারিশ করা হচ্ছে। আজ বুধবার (১১ মার্চ) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে এমপিও নীতিমালা ও সংশোধন কমিটির পঞ্চম সভা। সভায় এমপিও নীতিমালা সংশোধনে সুপারিশগুলো চূড়ান্ত করা হয়েছে। সভায় উপস্থিত একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে গঠিত কমিটির পঞ্চম সভায় সভাপতিত্ব করবেন কমিটির আহ্বায়ক ও মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন।

একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাবার্তা ডটকমকে জানায়, বুধবার নীতিমালা সংশোধন কমিটির পঞ্চম সভায় আগের সভাগুলোর আলোচ্যসুচি ও সুপারিশ বিষয়ে আলোচনা করে সুপারিশ চূড়ান্ত করা হয়েছে। এসব সুপারিশ লিখিতভাবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীকে দেয়া হবে। তারা নীতিমালা সংশোধনের বিষয়ে সভা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্বাধীনতা দিবসের কুচকাওয়াজসহ সব ধরনের সমাবেশ স্থগিত

ডেস্ক,১২ মার্চঃ
২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে জেলা ও উপজেলাপর্যায়ে কুচকাওয়াজসহ সব ধরনের সমাবেশ স্থগিত করেছে সরকার। দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস এবং ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে সংশোধিত জাতীয় কর্মসূচি থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনের পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সংশোধিত কর্মসূচি জেলা প্রশাসক (ডিসি), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) কাছে পাঠানো হয়েছে।

রোববার জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) এক সংবাদ সম্মেলনে জানায়, দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিনজন শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে একজন নারী ও দুজন পুরুষ। এরমধ্যে দুজন ইতালি ফেরত। পরিপ্রেক্ষিতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। সবাইকে জনসমাগম এড়িয়ে চলারও পরামর্শ দিয়েছে সরকার।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

স্কুল-কলেজগুলো নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত

ডেস্ক,১২ মার্চঃ
চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হলেও বর্তমানে বিশ্বের ১১৯টি দেশে ছড়িয়ে গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) করোনা ভাইরাসকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করেছে।

করোনা ভাইরাস প্রায় সব মহাদেশের শতাধিক দেশে ছড়িয়ে ১ লাখের বেশি মানুষকে আক্রান্ত এবং ৪ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যুর কারণ হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের চেয়েও বেশি আতঙ্ক ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস।

বাংলাদেশেও করোনার কিছুটা প্রভাব পড়েছে। বাংলাদেশ সরকার করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। তার মধ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সচেতনামূলক নির্দেশনা দিয়েছে।

বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এমন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে- সরকার ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছে। এ ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সবার সতর্কতা ও সচেতনতা প্রয়োজন। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীন সব অফিস ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট সবাইকে এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় জনসমাগম এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হলো।

এতে আরও বলা হয়েছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাংস্কৃতিক, ক্রীড়া ও অন্যান্য যেসব অনুষ্ঠানে জনসমাগম হয় সেসব অনুষ্ঠান আয়োজনের সূচি পুনর্বিন্যাস করে পরবর্তী সময়ে আয়োজনের নির্দেশনা দেওয়া হলো। এ ছাড়া পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রাত্যহিক সমাবেশ শ্রেণি কক্ষগুলোতে আয়োজন করতে হবে। সেখানেই জাতীয় সঙ্গীত গাওয়াসহ অন্যান্য কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এদিকে করোনা সম্পর্কে সহায়তা পেতে এখন থেকে আর ১২টি নম্বারে ফোন করতে হবে না। মাত্র একটি নাম্বারের ফোন করলেই হবে। নাম্বারটি হচ্ছে ০১৯৪৪৩৩৩২২২। এই সেল নাম্বারে যোগাযোগ করলেই প্রয়োজনীয় নাম্বারে ফোন ঢুকে যাবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

সব দেশের ভিসা স্থগিত করল ভারত

নিজস্ব প্রতিবেদক,১২ মার্চঃ
নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে কয়েকটি বিশেষ ক্যাটাগরির বাইরে বিশ্বের সব দেশের নাগরিকদের ভিসা স্থগিত করেছে ভারত সরকার। গতকাল বুধবার ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৩ মার্চ রাত ১২টা থেকে শুরু হয়ে এই স্থগিতাদেশ থাকবে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত।

তবে কূটনৈতিক, অফিসিয়াল, জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা, চাকরি ও প্রকল্প ভিসা এই আদেশের বাইরে থাকবে বলে জানিয়েছে দেশটি। একই সময়ের জন্য ওভারসিজ সিটিজেন অব ইন্ডিয়া (ওসিআই) কার্ডধারীদের ভিসামুক্ত প্রবেশাধিকার সুবিধাও স্থগিত করেছে দেশটির সরকার।

ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এক কোটি ৩৭ লাখ ৩০ হাজার ২৮২ বিদেশি ভারত ভ্রমণ করেছেন।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

মুজিববর্ষের অনুষ্ঠান হবে ছোট আকারে: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক,৯ মার্চ:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মুজিব শত বার্ষিকীতে লাখ মানুষ জমায়েত হওয়ার কথা রয়েছে। আমরা সে জমায়েত বন্ধ করে দিয়েছি। অনুষ্ঠান হবে, তবে ছোট আকারে।

তিনি বলেন, আমরা অন্যান্য কর্মসূচি অব্যাহত রাখব। অন্যান্য আয়োজন সবকিছু ঠিকঠাক থাকবে। এটি তো বছরব্যাপী অনুষ্ঠান। গণজমায়েত হবে এমন অনুষ্ঠান আমরা স্থগিত করে দিয়েছি।

সোমবার গণভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে বক্তব্য প্রদানকালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধামন্ত্রী বলেন, আমরা সবাই গতকাল মিটিং করেছি। যেখানে লোক সমাগম হবে সেখানে প্রোগ্রাম শিথিল করা হয়েছে। আমাদের কাছে জনগণের কল্যাণ বড়।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সারা দেশের হাসপাতাল প্রস্তুত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা টেলিভিশনে সবসময় সচেতনতার বিষয় প্রচার করাচ্ছি। করোনা প্রতিরোধে সারা দেশ প্রস্তুত।

ইতালিফেরতদের আত্মীয়দের পরীক্ষা করা হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্দেহভাজনদের আমরা পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছি। যারা আক্রান্ত হয়েছে তাদের কোয়ারান্টাইনে নিয়েছি। তারা কোথায় কোথায় গেছে সে খোঁজ নিয়ে আমারা তাদের পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছি। তাদের আত্মীয়-স্বজনদের পরীক্ষার ব্যবস্থা করেছি। হ্যান্ডশেক করা বন্ধ।

দেশের জনগণের নিরাপত্তার কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, অনুষ্ঠান করব যাতে লোকসমাগম কম হয়। আমরা মানুষের নিরাপত্তা আর তাদের স্বাস্থ্যের নিরাপত্তার বিষয়টি নজর দিয়েছি। ঢাকায় তিনটি হাসপাতাল আমরা রেডি করেছি। আমি অনুরোধ করব কারো মধ্যে এতটুকু লক্ষণ দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে। আমাদের দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সচেতন থাকতে হবে। ঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাড়ির পাশে রাস্তাও পরিস্কার রাখতে হবে। এ ভাইরাসটি বেশি দিন থাকবে না। এটি বাতাসে ওড়ে না।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

১৭ মার্চ প্রাথমিকে ৭ কাজ ‘বাধ্যতামূলক’

ডেস্ক,৯ মার্চ:

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন নিয়ে জরুরি নির্দেশনা জারি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি উপসচিব নাজমা শেখ সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়েছে- উপর্যুক্ত বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আগামী ১৭ মার্চ ২০২০ জাতির পিতার জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপনের জন্য দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিম্নবর্ণিত কর্মসূচি গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহত হয়েছে।

সেগুলো হলো- (ক) সমাবেশ; (খ) জাতীয় সঙ্গীত; (গ) মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চিঠি পাঠ; (ঘ) কেক কাটা; (ঙ) চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা; (চ) আলোচনা সভা; বিষয়: ছোটদের বঙ্গবন্ধু এবং (ছ) সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এমতাবস্থায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে উপরোক্ত কর্মসূচিসমূহ দেশের সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যথাযথভাবে পালনের জন্য মাঠ পর্যায়ে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান এবং এ বিষয়ে গৃহীত কার্যক্রমের জেলাওয়ারি প্রতিবেদন ৭ (সাত) কার্যদিবসের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।


Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather

পিটিআই প্রশিক্ষকের হাতে ৫০ প্রাথমিক শিক্ষিকার যৌন হয়রানী

ডেস্ক,৯ মার্চঃ

প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই)-এ নারী প্রশিক্ষণার্থীদের খোদ প্রশিক্ষকের হাতেই যৌন হয়রানির শিকার হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। অন্তত ৫০ জন প্রশিক্ষণার্থী এভাবে যৌন হয়রানির শিকার হওয়ার অভিযোগ তুলেছেন। অথচ প্রাথমিক শিক্ষকদের পাঠদান ও নীতিনৈতিকতা বিষয়ে শিক্ষা দেয়া হয় পিটিআইতে।

 

চট্টগ্রামের পটিয়া পিটিআইতে এমন ভয়াবহ ঘটনা ঘটেছে। এর প্রতিবাদে খোদ এক প্রশিক্ষক চার সহকর্মীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তুলে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর খোলা চিঠি লিখে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। গত শুক্রবার রাতে প্রশিক্ষক দেবব্রত বড়ুয়ার আত্মহত্যাচেষ্টার পর এমন ঘটনা সামনে আসে। ফলে ফুঁসে ওঠেন মুখ বন্ধ রাখা প্রশিক্ষণার্থীরাও।

 

পিটিআইতে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষকদের দেড় বছরের প্রশিক্ষণ হয়। এর মধ্যে এক বছর পিটিআইতে থাকেন তাঁরা। সেখানে আবাসিক ব্যবস্থা রয়েছে। আর ছয় মাস বিভিন্ন বিদ্যালয়ে পাঠদান করে থাকেন। প্রতি ব্যাচে ২০০ জন প্রশিক্ষণার্থী থাকেন। তবে পটিয়া পিটিআইতে এখন ১৫০ জনের মতো প্রশিক্ষণার্থী রয়েছেন।

 

এছাড়া ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর প্রধান করা হয়েছে চট্টগ্রাম প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক রাশেদা বেগমকে। তিনি রোববার ঘটনা খতিয়ে দেখতে পটিয়া পিটিআইতে উপস্থিত হন। তবেপ্রশিক্ষণার্থীরা চার প্রশিক্ষকের শাস্তি ও আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন কর্মসূচি থেকে সরে দাঁড়াতে রাজি হননি। তাঁরা কেউ ক্লাসেও যাননি।

 

চট্টগ্রামে নিজের বাসায় ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন দেবব্রত। তবে দুদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে রোববার হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরেন। দেবব্রত অসহায়ত্ব প্রকাশ করে বলেন, ‘চোখের সামনে প্রশিক্ষণার্থীদের চার সহকর্মী যৌন হয়রানি করে যাচ্ছিলেন, কিছু করতে পারছিলাম না।’

 

তিনি জানান, ‘শিক্ষার্থীরা অনেকে স্বীকার করেছেন। কিন্তু পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ার ভয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলছিলেন না। প্রতিবাদ করেও কিছু করতে পারিনি। তাই শেষে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছিলাম। জীবনের বিনিময়ে শিক্ষার্থীদের বাঁচাতে চেয়েছিলাম।’

 

আন্দোলনের মুখে ওই চার প্রশিক্ষককে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। তাঁরা হলেন, শরীরচর্চার প্রশিক্ষক ফারুক হোসেন, চারু ও কারুকলার শিক্ষক সবুজ কান্তি আচার্য, সাধারণ বিভাগের শিক্ষক জসিম উদ্দিন ও আইটির শিক্ষক রবিউল ইসলাম।

 

দুপুরের পর চট্টগ্রামের প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের উপপরিচালক সুলতান মিয়াসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা গিয়ে অভিযুক্ত চারজন প্রশিক্ষককে প্রত্যাহার ও তদন্ত কমিটি গঠনের ঘোষণা দেন। এ সময় প্রশিক্ষণার্থীরা কোনো পিটিআইতে তাঁরা চাকরি করতে পারবেন না বলে দাবি তোলেন এবং স্থায়ীভাবে চাকরিচ্যুত করার দাবি জানান। এছাড়া বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি তোলেন।

 

সোলতান মিয়া বলেন, ‘অভিযুক্ত চারজনকে প্রত্যাহারের পাশাপাশি তদন্ত করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ২৪ ঘণ্টায় প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। দেবব্রত বড়ুয়া ও প্রশিক্ষণার্থীদের কোনো সমস্যা হবে না বলেও তিনি আশ্বাস দেন। পরে প্রশিক্ষণার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি থেকে সরে দাঁড়াতে সম্মত হন।

 

পিটিআইয়ের তত্ত্বাবধায়ক তপন কুমার দাশ বলেন, এ ধরনের অভিযোগ আগে শোনেননি তিনি। কেউ অভিযোগও দেয়নি।

 

দেবব্রত বড়ুয়ার খোলা চিঠিতে অভিযোগ করেছেন, প্রায় ৫০ নারী প্রশিক্ষণার্থী যৌন হয়রানির অভিযোগ স্বীকার হয়েছেন। এর মধ্যে ফারুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০১১ সালে পিটিআইতে আসার পর ছাত্রীদের উদ্দেশে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ ‍শুরু করেন। এতে কাউকে বেশি নম্বর দেওয়ার লোভ দেখিয়ে আবার কারও প্রেমের সম্পর্ক ফাঁস করার ভয় দেখিয়ে অপকর্ম করেন তিনি।

 

আর জসিম বিরতির সময় নারী প্রশিক্ষণার্থীদের সঙ্গে শ্রেণিকক্ষ, করিডোর ও আঙিনায় কথা বলতেন। পরে সম্পর্ক তৈরি করে ‘অপকর্ম’ করতেন। সবুজ চারু ও কারুকলার প্রশিক্ষক হিসেবে মেয়েদের অঙ্গসৌষ্ঠবের শৈল্পিক বিশ্লেষণ ও শাড়ি বা কী ধরনের পোশাকে ভালো দেখাবে, সে পরামর্শ দিতেন। এছাড়া রবিউলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি এক নারী প্রশিক্ষণার্থীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েও বিয়ে করেননি।

 

অভিযোগ প্রসঙ্গে ফারুক হোসেন বলেন, ‘ব্যক্তিগত আক্রোশে এ অভিযোগ আনা হয়েছে। ফেসবুকে মিথ্যা অভিযোগ করে মানহানি করায় আইনগত ব্যবস্থা নেব। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ দেব।’ রবিউল ইসলাম, জসিম উদ্দিন ও সবুজ আচার্যও অভিযোগ অস্বীকার করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন। এছাড়া এটাকে ষড়যন্ত্রমূলক বলে অভিহিত করেছেন।

 

এব্যাপারে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ গণমাধ্যকে বলেন, ‘ওই চারজনকে আপাতত  পিটিআইয়ের কর্ম থেকে বিরত রাখা হয়েছে। স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রাথমিকের উপপরিচালককে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather
hit counter