Author Archives: editor

দৈনিক শিক্ষাবার্তা পত্রিকায় সাংবাদিক নিয়োগ

শিক্ষকতার পাশাপাশি অবসর সময়ে গণমাধ্যমে কাজ করতে আগ্রহীরা আবেদন করুন।

শিক্ষা বিষয়ক দেশের একমাত্র অনলাইন জাতীয় পত্রিকা দৈনিকশিক্ষাবার্তা  http://shikkhabarta.com সাংবাদিকতায় আকর্ষণীয় ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিচ্ছে। যারা শুদ্ধভাবে বাংলা ও ইংরেজি লিখতে, বলতে ও পড়তে পারেন এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় এ্যাকটিভ শুধু তাদেরকেই খুঁজছে দৈনিক শিক্ষাবার্তা পত্রিকা।

এর জন্য ঢাকা সহ প্রতিটি জেলায় জেলা প্রতিনিধি ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি আবশ্যক । শিক্ষাগত যোগ্যতা নুন্যতম স্নাতক। শিক্ষকদের অগ্রাধিকার।

আবেদন পাঠানোর ইমেইল: info@shikkhabarta.com, shikkhabarta@gmail.com

যোগাযোগ : বরাবর, নির্বাহী সম্পাদক. “দৈনিক শিক্ষাবার্তা” ।
মোবাইলঃ ০১৫৫৭৬৩১০৯৭,০১৯২৮১২৩৫৪৬

আবেদনের শেষ তারিখ: ২৭/৪/২০১৯

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিক সমাপনি প্রস্তুতি-গণিত

১.গুণনীয়ক কাকে বলে ?

উত্তর : কোনো সংখ্যার গুণনীয়ক হচ্ছে সেই সকল সংখ্যা যেগুলো দ্বারা ঐ সংখ্যাটিকে নি:শেষে ভাগ করা যায় ।

২.গুণনীয়কের অপর নাম কী ?

উত্তর : গুণনীয়কের অপর নাম উত্পাদক।

৩.গসাগু বা গরিষ্ঠ সাধারণ গুণনীয়ক কাকে বলে?

উত্তর : একাধিক সংখ্যার সাধারণ গুণনীয়কগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড় সংখ্যাটিকে গরিষ্ঠ সাধারণ গুণনীয়ক বা গসাগু বলে।

৪.গুণিতক কাকে বলে?

উত্তর : কোনো একটি নির্দিষ্ট সংখ্যা দ্বারা যে সকল সংখ্যাকে নি:শেষে ভাগ করা যায়, তাদেরকে ঐ নির্দিষ্ট সাংখ্যার গুণিতক বলে।

৫. লসাগু কাকে বলে?

উত্তর : একাধিক সংখ্যার সাধারণ গুণিতকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ছোট সংখ্যাটিকে ঐ নির্দিষ্ট সংখ্যার “লঘিষ্ঠ সাধারণ গুণিতক” বা লসাগু বলে।

৬. কতগুলো সংখ্যার সাধারণ মৌলিক গুণনীয়ক না থাকলে তাদের গসাগু কত?

উত্তর : গসাগু ১।

৭. মৌলিক সংখ্যা কাকে বলে?

উত্তর : কোনো সংখ্যার গুণনীয়ক যদি ১ এবং ওই সংখ্যা হয়, তাহলে সংখ্যাটিকে মৌলিক সংখ্যা বলে।

৮. ১ মৌলিক সংখ্যা না হওয়ার কারণ কী?

উত্তর : ১ এর একটি মাত্র গুণনীয়ক আছে যা ১।

৯. ২৫ থেকে ৪০ পর্যন্ত মৌলিক সংখ্যাগুলো কী কী?

উত্তর : ২৯, ৩১ ও ৩৭।

১০. ৫ ও ৭ এর গসাগু কত?

উত্তর : ১।

১১. ১৭ ও ১৯ এর গসাগু কত?

উত্তর : ১।

১২. ১১ এর গুণনীয়কগুলো কী কী?

উত্তর : ১ ও ১১।

১৩. ১৮ এর উত্পাদকগুলো লেখ।

উত্তর : ১, ২, ৩, ৬, ৯ ও ১৮।

১৪. ৩ ও ১১ এর লসাগু কত?

উত্তর : ৩৩।

১৫. ৬, ১২, ১৮ ও ২৪ এর গসাগু কত?

উত্তর : ৬।

১৬.৬, ১২, ১৮ ও ২৪ এর লসাগু কত?

উত্তর : ৭২।

১৭. ৫ এর প্রথম চারটি গুণিতক লেখ।

উত্তর : ৫, ১০, ১৫ ও ২০।

১৮.সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম মৌলিক সংখ্যা কোনটি?

উত্তর : ২।

১৯. ৪০টি আম ও ১২০টি লিচু কতজন শিক্ষার্থীর মধ্যে সমানভাবে ভাগ করে দেওয়া যাবে?

উত্তর : ৪০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে।

২০.৩ ও ৪ এর একটি সাধারণ গুণিতক ১২ হলে এর পরবর্তী সাধারণ গুণিতক কত?

উত্তর : ২৪।

 মিরাজুল ইসলাম, প্রভাষক ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

২০২১ সাল থেকে নতুন শিক্ষাক্রমের পাঠ্যবই পাবে শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক,২০ এপ্রিল: পাল্টে যাচ্ছে সিলেবাস ও বই। প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত পরিবর্তন করা হচ্ছে বিভিন্ন বিষয়ের পাঠ্যক্রম। প্রথম ধাপে ২০২১ সালের জানুয়ারিতেই প্রথম ও ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা হাতে পাবে সব বিষয়ের নতুন পাঠ্যক্রমের বই। ধাপে ধাপে সব শ্রেণির ছাত্রছাত্রীই নতুন পাঠ্যক্রমের লেখা পাবে। কমে যাবে বেশ কিছু বিষয়ের পাঠ্যবইয়ের টেক্সট ও কনটেক্সট। নতুন কিছু যুক্ত হবে আবার। শিক্ষাক্রম বদলানোর পুরো কাজটি শেষ হবে আগামী এক বছরে। ১০ এপ্রিল থেকে শিক্ষাক্রম পরিবর্তনের কাজ শুরু করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।

এনসিটিবি চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা বলেন, `শিক্ষাক্রম রিভিউয়ের কাজ চলছে। এরপর শুরু হবে রিভিশন। আগামী বছরের মাঝামাঝিতে নতুন শিক্ষাক্রম চূড়ান্ত করা যাবে। তারপর নতুন শিক্ষাক্রম অনুসারে বই লেখা হবে। ২০২১ সাল থেকে নতুন শিক্ষাক্রমের পাঠ্যবই হাতে পেতে শুরু করবে ছাত্রছাত্রীরা।`

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে মন্ত্রণালয়ের জরুরি নির্দেশনা

নিজস্ব প্রতিবেদক,২০ এপ্রিল: দেশের সব সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন নিপীড়নবিরোধী কমিটি করার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তর। বৃহস্পতিবার অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক মো. শাহেদুল খবির চৌধুরী স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত জরুরি আদেশ প্রদান করা হয়।

মাউশি অধিদপ্তরের আদেশে বলা হয়, আদালতের আদেশের প্রেক্ষিতে মাউশি অধিদপ্তর এবং এর আওতাধীন অফিস ও দেশের সব সরকারি, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠন এবং প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করার নির্দেশনা প্রদান করা হলো। এ আদেশ মোতাবেক প্রতিটি অফিস ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধে পাঁচ সদস্যের কমিটি প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করবে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে একটি কমিটি গঠন করে তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে।উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে আদালত প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কর্মস্থলে পাঁচ সদস্যের যৌন নিপীড়নবিরোধী কমিটি করার নির্দেশনা দেন। যেই কমিটির প্রধান হবেন একজন নারী। কিন্তু আদালতের এই নির্দেশনা মানেনি প্রতিষ্ঠানগুলো। স্কুল-কলেজে এ সংক্রান্ত কমিটি নেই বললেই চলে। বড় বড় দু’চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই কমিটি কার্যকর রয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে কমিটি হলেও কার্যকর নেই।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

৩৪৪ শিক্ষকের ভাগ্য খুলছে

ডেস্ক,২০ এপ্রিল: কিছুদিন আগে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের সহকারী শিক্ষক পদে যোগ দিয়ে নিয়মিত পাঠদান করা ৩৪৪ জন শিক্ষক হয়রানিতে পড়েছিলেন। জানা গেছে, এমপিওর জন্য তারা শিক্ষা অধিদপ্তরে যোগযোগ করলে বলা হয় এনটিআরসিএতে যেতে। আবার এনটিআরসিএতে গেলে সেখানকার কর্তারা সোজা দেখিয়ে দেন শিক্ষা অধিদপ্তরকে।

এমতাবস্থায় দুই অফিসে যোগাযোগ করে হয়রান হচ্ছিলেন ৩৪৪ শিক্ষক। এবার তাদের ভাগ্য খুলছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষকরা অভিযোগ করেন, ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ প্রকাশিত গণবিজ্ঞপ্তির পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের ডিসেম্বরে নিয়োগ সুপারিশ পেয়েছেন তারা। নিজ নিজ কর্মস্থলে যোগদান করে পাঠদান শুরু করলেও এমপিও পাচ্ছিলেন না তারা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ৬ মাসের ডিপ্লোমায় যোগদান করায় এসব শিক্ষকের এমপিও আবেদন আঞ্চলিক উপপরিচালকরা ইএমআইএস সেলে অগ্রায়ন করছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। আঞ্চলিক উপপরিচালকদের দাবি ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের এমপিও নীতিমালায় কম্পিউটার বিষয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের যোগ্যতা পরিবর্তন হওয়ায় আবেদন অগ্রায়ন করা হচ্ছে না।

এদিকে এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা জানান, আদালতের নির্দেশে ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে নিয়োগ পেয়েছেন এ ৩৪৪ শিক্ষক। তাই তাদের এমপিওর দাবি যৌক্তিক।

জানা গেছে, ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে এনটিআরসিএ প্রকাশিত শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি অনুসারে আবেদন করেছিলেন অনেক প্রার্থী। কিন্তু আইনি জটিলতায় আটকে যায় তাদের নিয়োগ সুপারিশ। জটিলতা নিরসন হলে গত ডিসেম্বরে ১০৯৫ জনকে বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার বিষয়ের সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের সুপারিশ করে এনটিআরসিএ। এর মধ্যে ১০৪৭ জনকে সুপারিশপত্র দেয়া হয়। তবে তাদের মধ্য থেকে ৩৪৪ জন প্রার্থী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার বিষয়ের সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেন বলে জানা গেছে। তারা ৬ মাসের ডিপ্লোমা ডিগ্রি নিয়ে কম্পিউটার বিষয়ের সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেছেন।

২০১০ খ্রিষ্টাব্দে জারি করা এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামোতে ৬ মাসের ডিপ্লোমায় কম্পিউটার শিক্ষক পদে যোগদানের সুযোগ ছিল। কিন্তু ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের জারি করা হয় নতুন এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো। নতুন সেই এমপিও নীতিমালায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিষয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান বা কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এ স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি অথবা বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড হতে ৩ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা-ইন-কম্পিউটার সায়েন্স বা সমমান শিক্ষাগত যোগ্যতার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

নিয়োগপ্রাপ্তদের দাবি নীতিমালা জারির আগেই প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে আবেদন করে নিয়োগ পেয়েছেন তারা। কিন্তু এমপিও পাচ্ছেন না।

ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার পশ্চিম ছিটকী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে যোগদান করেছেন মিরা বিশ্বাস। তার অভিযোগ, বরিশালের আঞ্চলিক উপপরিচালক তার এমপিও আবেদন এএমআইএস সেলে অগ্রায়ন করছেন না।

তিনি আরও জানান, নতুন এমপিও নীতিমালায় যোগ্যতার পরিবর্তন হয়েছে। কিন্তু আমরা ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে আবেদন করেছি। আইনি জটিলতায় আমাদের নিয়োগ সুপারিশ বিলম্বিত হয়েছে। তাই নতুন নীতিমালায় আমরা এমপিও পাচ্ছি না।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের বরিশাল আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্র জানায়, যারা নতুন এমপিও নীতিমালা জারি হবার পর যোগদান করেছে, তাদের আবেদনগুলো অগ্রায়ন করতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বা অধিদপ্তরের সুস্পষ্ট নির্দেশনা প্রয়োজন।

এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা জানান, আইনি জটিলতা থাকায় ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরে নিয়োগের সুপারিশে দেরি হয়েছে। আদালতের নির্দেশে ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। সেই হিসাবে তাদের নিয়োগ ও এমপিও সংক্রান্ত বিষয়টি ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দের বিধান অনুযায়ী যৌক্তিক। তবে এমপিও দেবে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এনটিআরসিএর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। এ জটিলতা নিরসনে খুব শিগগিরই শিক্ষা অধিদপ্তরকে লিখিতভাবে বিষয়টি জানানো হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ট্রেনের টিকিট কেনা যাবে অনলাইনে

ডেস্ক,১৮ এপ্রিল :  যাত্রীদের সেবা নিশ্চিত ও রেলওয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরো উন্নত করতে আগামী ২৮ এপ্রিলের মধ্যে চালু করা হবে রেলওয়ে মোবাইল অ্যাপ। বৃহস্পতিবার কমলাপুর স্টেশনে অংশীজন সভা শেষে এসব কথা জানান রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন।

ওয়ানস্টপ রেলওয়ে ডিজিটাল যাত্রীসেবা সিস্টেম’ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে মূলত এ অ্যাপ চালু করা হবে বলে জানিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এই অ্যাপ চালু হলে যাত্রীরা পছন্দের সিট, টিকিটের মূল্য পরিশোধ এবং ট্রেনের বর্তমান অবস্থান জানতে পারবেন। এছাড়া যাত্রা শেষে সেবার মান সম্পর্কেও যাত্রীরা রেটিং দিতে পারবেন।

জানা গেছে, রেলের ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে অ্যাপের মাধ্যমে। টিকিটের দাম পরিশোধ করা যাবে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমেও। বাকি টিকিট বিক্রি হবে স্টেশনের কাউন্টার থেকে। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মেটা ট্যাগ (Meta Tag) কি এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন ?

স্বরুপ দাস: মেটা ট্যাগ হল একধরনের HTMLকোড। যার মাধ্যমে আপনার ব্লগ কি সম্পর্কেতা সার্চ ইঞ্জিন ও ভিসিটর জানতে পারে।মেটা ট্যাগে অনেকগুলা বিষয় জড়িত থাকেযেমনঃ- ব্লগের বিবরন, ব্লগের কি ওয়ার্ড,ব্লগের মালিকের নাম, robots ইত্যাদি। meta tag এর সাহায্যে গুগল সহঅন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন আপনার সাইট সম্পর্কে অবগত হবে, তাই যখন কোন ভিসিটরকিছু সার্চ করে। আপনার সাইটে যদি এই বিষয়ে লিখা থাকে, তাহলে সার্চ ইঞ্জিন ওই ভিসিটরকে আপনার সাইটে পাঠিয়ে দিবে।

কিভাবে মেটা ট্যাগ তৈরি করবেন?

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের বর্ণনা দিন” name=”description”/>

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের keyword গুলো কমা দিয়ে লিখুন ” name=”keywords”/>

<meta content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের যিনি মালিক তার নাম লিখুন ” name=”author”/>

অথবা,

<meta name=”description” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের বর্ণনা দিন” />

<meta name=”keywords” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের keyword গুলো কমা দিয়ে লিখুন” />

<meta name=”author” content=” এখানে আপনার বা আপনার client এর সাইটের যিনি মালিক তার নাম লিখুন” />

মনে রাখবেন মেটা ট্যাগ এ আপনি কখনও বড় হাতের লেখা ব্যবহার করবেন না, সবসময় ছোট হাতের লেখা ব্যাবহার করবেন।

অারো জানতে এখানে ক্লিক করুন

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাতে কী কোনোভাবে আমাকে তোমার প্রয়োজন হতে পারে?

বিনোদন ডেস্ক, ১৭ এপ্রিল ২০১৯

বেশ কিছুদিন ধরেই ‘মি টু’ ঝড় আছড়ে পড়েছে গোটা বলিউডে। অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত শুরুটা করলেও পরবর্তীতে তার সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন আরও অনেকে। এবার সে তালিকায় যোগ হলেন বলিউড অভিনেত্রী রাধিকা আপ্তে।

তার কথায়, ‌‘শুধু নারীরাই নয়, এ ক্ষেত্রে পুরুষদেরও বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলা দরকার। তাহলেই কাস্টিং কাউচের ঘটনা আটকানো যাবে।’ পরে নিজের ভয়ানক এক অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেন অভিনেত্রী।

Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ, আটকে রেখে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া, ১৭ এপ্রিল ২০১৯:

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ ও বিয়ে করে আটকে রেখে ‘ধর্ষণে’র অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা গতকাল মঙ্গলবার রাতে ধুনট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরিপ্রেক্ষিতে নুর মোহাম্মদ বাবু নামে এক যুবককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ।

উপজেলার চিকাশী ইউনিয়নের বড়িয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। মামলাসূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বড়িয়া গ্রামের ওই মাদ্রাসা ছাত্রী বান্ধবীর বাসায় যাওয়া জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। পথে প্রতিবেশী অটোচালক নুর মোহাম্মাদ বাবু তাকে দেখে সেখানে দাঁড়ান। বান্ধবীর বাড়ি পৌঁছে দেবেন বলে তাকে ফুঁসলিয়ে নিজের অটোতে তুলে নেন।

Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বাড়ির কাজ না করায় শিক্ষক পেটালেন ছাত্রকে। বরখাস্ত শিক্ষক

ডেস্ক,১৭ এপ্রিল:   নারায়ণগঞ্জে একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে বাড়ির কাজ করে না আনায় এক ছাত্রকে বেত্রাঘাত করায় এক শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনা শেষে অভিযুক্ত শিক্ষক নাজমুল আলমকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

চেইঞ্জেস স্কুলের চাঁদমারি ক্যাম্পাসে গতকাল মঙ্গলবার আইসিটি বিষয়ে হোমওয়ার্ক করে না আনায় সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সৈকত কুমার পালকে বেত্রাঘাত করে আহত করেন শিক্ষক নাজমুল আলম। ঘটনায় আহত শিক্ষার্থীকে নগরের খানপুরে অবস্থিত ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এই ঘটনায় শিক্ষার্থীর বাবা সুরিথ কুমার পাল বিষয়টি স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে স্কুল কর্তৃপক্ষ আজ তিনজন পরিচালক, অভিভাবক ও শিক্ষকদের যৌথ সিদ্ধান্তে আইসিটি শিক্ষক নাজমুল আলমকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ভারতের বিশ্বকাপ দল ঘোষনা! চার নম্বরে কে?

অশোক মলহোত্র: চার নম্বরে কে?

আর কয়েক ঘণ্টা পরে বিশ্বকাপের জন্য ভারতীয় দল নির্বাচন। সেখানে এই প্রশ্নটা অবশ্যই ঝড় তুলবে।

গত এক বছরে ভারতীয় দলে চার নম্বরে পোক্ত একজন ব্যাটসম্যানের খোঁজ চলছে। যেখানে পরখ করা হয়েছে অম্বাতি রায়ডুকে। ফলে প্রশ্ন, চার নম্বরে অম্বাতি রায়ডু না অন্য কেউ?

নিজে জাতীয় নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করেছি। এ প্রসঙ্গে মনে পড়ছে, ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপের দল নির্বাচনের কথা। তখন আমি জাতীয় নির্বাচক। সে বারও ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ হয়েছিল। মিডল অর্ডারে একটা নাম নিয়ে দল নির্বাচনী বৈঠকে খুব হইচই হয়েছিল। আমাদের বাছতে হত বিনোদ কাম্বলি, হেমাঙ্গ বাদানি ও অময় খুরাশিয়ার মধ্যে একজনকে। অময় ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল রান করায় শেষ পর্যন্ত আমরা ওকেই নিয়েছিলাম। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চমক দিয়ে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা অস্ট্রেলিয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৫ এপ্রিল: অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে শেষ ১৩টি ম্যাচে একটি সেঞ্চুরি আর তিনটি হাফ সেঞ্চুরি। গড় প্রায় ৪৪। স্ট্রাইক রেট ৯৯। এর পরেও বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার জর্সিতে খেলা হচ্ছে না পিটার হ্যান্ডসকম্বের।

তবে তিনি ছিটকে গেলেও অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলে জায়গা পেয়েছেন স্টিভ স্মিথ আর ডেভিড ওয়ার্নার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এই দুই তারকা ফেরায় কি হ্যান্ডসকম্বকে ছেঁটে ফেলা হল? এমন প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে। আইপিএলে স্বপ্নের ফর্মে ব্যাট করছেন ওয়ার্নার। আগ্রাসী ব্যাটিং করতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। স্মিথও ছন্দে ফিরছেন।

হ্যান্ডসকম্বের মতোই বিশ্বকাপ দলে জায়গা পাননি ফাস্ট বোলার জশ হ্যাজেলউড। জানুয়ারি থেকে পিঠের চোটে ভুগছেন হ্যাজলউড। তিনি যে দলে ডাক পাবেন না, তা আগে থেকেই যেন স্পষ্ট ছিল। অস্ট্রেলিয়ার পেস আক্রমণ সামলাতে দেখা যাবে মিচেল স্টার্ক, জাই রিচার্ডসন, প্যাট কামিন্স, জেসন বেহেরেনডর্ফ ও নাথান কুল্টার-নাইলকে। দলে জায়গা দেওয়া হয়নি ভারতের বিরুদ্ধে টি টোয়েন্টি সিরিজে ঝড় তোলা ব্যাটসম্যান অ্যাশটন টার্নারকেও।

অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দল: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার, উসমান খওয়াজা, শন মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টোইনিস, অ্যালেক্স ক্যারে (উইকেটরক্ষক), অ্যাডাম জাম্পা, নাথান লায়ন, জেসন বেহেরেনডর্ফ, নাথান কুল্টার-নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, জাই রিচার্ডসন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

৯ হাজারের বেশি ঝুঁকিপূর্ণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৫ এপ্রিল ২০১৯ : সারাদেশে সাড়ে ৯ হাজারের বেশি ঝুঁকিপূর্ণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠদান চলছে। এসব ভবনের অধিকাংশই ২০০১ থেকে ২০০২ সালে নির্মিত। বাকি ভবনগুলোর বয়সও ২০ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে। নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে এসব ভবন নির্মাণ করায় প্রাথমিকের লক্ষাধিক ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষে ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভবনগুলোর কোনোটির পিলার নড়বড়ে, কোনোটির ছাদ বা দেয়ালের পলেস্তারা খসে পড়ছে। ভবনগুলোর ছাদের অবস্থাও খুবই নাজুক। পলেস্তারা ওঠে রড বেরিয়ে পড়েছে। নতুন অনেক ভবনের দরজা-জানালাও নেই। কোনো বিদ্যালয়ে আবার বসার চেয়ার-টেবিলসহ সকল আসবাপত্রও নড়বড়ে।

শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের (ইইডি, সাবেক ফ্যাসিলিটিজ বিভাগ) একজন সিনিয়র প্রকৌশলী জানান, যদি একটি ভবন নির্মাণে বরাদ্দ যথাযথভাবে ব্যয় হয়, তাহলে কিছুতেই তা ৫০ বছরের আগে সংস্কারের দরকার পড়ে না। ভবন ভেঙে পড়ার মূল কারণ হচ্ছে, রড ছাড়া কাঠ-বাঁশের ব্যবহার এবং যথাযথ পরিমাণ বালু ও সিমেন্ট না ব্যবহার করা।

ঠিকাদার তো লাভ করতে চাইবেই, কিন্তু স্পেসিফিকেশন অনুযায়ী নির্মাণকাজ নিশ্চিত করা প্রকৌশলীর দায়িত্ব। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ১৯৯০ সাল থেকে গ্রামের স্কুলগুলো এলজিইডি নির্মাণ করছে। শহরেরগুলো ফ্যাসিলিটিজ বিভাগ ২০০০ সাল পর্যন্ত নির্মাণের দায়িত্ব পালন করে। দেখা যাবে, ঢাকা শহরে ৮০ দশকে নির্মিত স্কুল এখন পর্যন্ত সংস্কারও করতে হয়নি।

তিনি আরও বলেন, এর মধ্যে ১৯৮৬ সালে নির্মিত করাতিটোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। পরবর্তীতে তৈরি মানিকদীতে অবস্থিত ব্রাহ্মণনগর এবং বাংলামোটরের খোদেজা খাতুন স্কুল অন্যতম। এসব প্রতিষ্ঠান শুধু চুনকাম করলেই নতুনের মতো দেখায়। আমাদের নির্মাণ ব্যয় বেশি বলে এলজিইডিকে কাজ দেয়া হয়েছিল; কিন্তু আসলেই কি কম টাকায় ভবন হচ্ছে?

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (ডিপিই) এবং মাঠপ্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, এলজিইডির ভবন নির্মাণের সময় প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই। নির্মাণ শেষে স্কুলের পরিচালনা কমিটি এবং প্রধান শিক্ষকের স্বাক্ষরে ভবনটি হস্তান্তর করা হয়। গোটা কাজ তদারকি করেন উপজেলা প্রকৌশলী।

সার্বিক দায়িত্বে সংশ্লিষ্ট ইউএনও। তবে হস্তান্তরের পর এসব ভবন রক্ষণাবেক্ষণ, পরিচর্যা ও তদারকির ভার প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ডিপিইও) জেলার গোটা শিক্ষার ব্যাপারে দায়িত্বপ্রাপ্ত। এরপরও প্রাথমিকের ভবনগুলোর মরণ ফাঁদে পরিণত হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। গত ৬ এপ্রিল বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোটবগী পিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদের বিম ভেঙে পড়ে একজন শিশু ছাত্রী নিহত এবং ৯ জন আহত হয়।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেন, মাঠ প্রশাসনের মাধ্যমে সারাদেশের স্কুল ও এর শিক্ষার সার্বিক দিক তদারকি করানো হয়। তা সত্ত্বেও বরগুনার একটি স্কুলে হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। আমরা খুবই ব্যথিত। এ ঘটনায় ভবন নির্মাণ থেকে শুরু করে, তদারকি ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেউই রেহাই পাবে না। তদন্ত কমিটি রোববার নাগাদ প্রতিবেদন দেবে। তার ভিত্তিতে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা সংগ্রহের কাজ চলছে। দ্রুত ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা চূড়ান্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এক্ষেত্রে কোনো ভবন সংস্কারের সুযোগ না থাকলে তা পরিত্যক্ত করা হবে। বাকিগুলো সংস্কারে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ছাত্রীদের ফোন করে ‘কুপ্রস্তাব’

ডেস্ক,১৫ এপ্রিল: নাটোরের সিংড়া উপজেলার বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুলের গণিত শিক্ষক ফজলুর রহমানে  ছাত্রীদের  ফোন করে কুপ্রস্তাব দেওয়ার পাশাপাশি যৌন হয়রানি, ভোগান্তি, হুমকি দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে ওই স্কুলের ১৩ জন শিক্ষার্থী এবং ১১ জন অভিভাবক গত ১১ এপ্রিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্ত শিক্ষক ফজলুর রহমানকে অপসারণ ও তার কঠোর শাস্তির দাবিও করেছেন তারা।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ওই প্রতিষ্ঠানের গণিত বিভাগের শিক্ষক ফজলুর রহমান রাতে ছাত্রীদের ফোন করে কুপ্রস্তাব দেন। তার কুপ্রস্তাবে রাজি হলে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং বেশি নম্বর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। শিক্ষার্থীদের তার কাছে প্রাইভেট পড়তে বাধ্য করেন তিনি। প্রাইভেট পড়ানোর সময় একাধিক ছাত্রীর স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেওয়াসহ যৌন হয়রানি করেন ওই শিক্ষক।

তিন পৃষ্ঠার এই অভিযোগপত্রে অভিযুক্ত শিক্ষকের নামে মোট ১২টি অভিযোগ উল্লেখ করেন শিক্ষার্থীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই স্কুলের নবম শ্রেণির এক ছাত্রী বলে, ‘অবিলম্বে অভিযুক্ত শিক্ষককে দ্রুত অপসারণ করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা না নেওয়া হলে ফেনির মাদ্রাসাছাত্রী ছাত্রী নুসরাতের মতো ঘটনা এখানেও ঘটতে পারে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত গণিত শিক্ষক ফজলুর রহমানকে গতকাল শনিবার স্কুলে গিয়ে পাওয়া যায়নি। আর ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক আজিজুর রহমান এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

এ বিষয়ে ওই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সিংড়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিপুল কুমারকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তদন্তে ওই শিক্ষকের দ্বারা ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করার ঘটনা প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী লাইফ সাপোর্টে

বিনোদন ডেস্ক,১৫ এপ্রিল: একুশে পদক পাওয়া  গুরুতর অসুস্থ। গতকাল রোববার রাতে তিনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন। তাঁকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়েছে। আইএসপিআরের সহকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খান জানিয়েছেন, হাসপাতালে আনার পর সুবীর নন্দীকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়। এখানে তাঁকে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়। তাঁকে প্রয়োজনীয় সব চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ৭২ ঘণ্টা পর তাঁর শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত বলা যাবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail
hit counter