Author Archives: chief editor

নৌবাহিনীতে অফিসার পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

ডেস্ক:বাংলাদেশ নৌবাহিনী সম্প্রতি ২০১৮ সালের অফিসার ক্যাডেট ব্যাচ-পুরুষ (দ্বিতীয় গ্রুপে) নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। বিজ্ঞপ্তি অনুসারে আবেদন করতে পারবেন শুধু পুরুষ প্রার্থীরা। আবেদনপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ : ১৩ আগস্ট ২০১৭।

বয়স : আগামী ১ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখে প্রার্থীদের বয়স সাড়ে ১৬ বছর থেকে ২১ বছর, তবে সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

শারীরিক যোগ্যতা : পুরুষ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে উচ্চতা পাঁচ ফুট চার ইঞ্চি, ওজন ৫০ কেজি, বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি এবং প্রসারিত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি হতে হবে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা : আবেদনকারীকে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক (বিজ্ঞান বিভাগে) অথবা সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উভয় পরীক্ষায় পদার্থবিজ্ঞান ও গণিতে জিপিএ ৪ পেতে হবে। অথবা ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষার্থীদের জন্য ‘ও’ লেভেলে ছয়টি বিষয়ের মধ্যে কমপক্ষে তিনটি বিষয়ে ‘এ’ গ্রেড এবং দু’টি বিষয়ে ‘বি’ গ্রেড পেতে হবে এবং ‘এ’ লেভেলে কমপক্ষে দু’টি বিষয়ে (উভয় পরীক্ষায় পদার্থবিজ্ঞান ও গণিতসহ) ‘বি’ গ্রেড থাকতে হবে।

অথবা সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত প্রার্থীদের নৌবাহিনীর উচ্চমান পরীক্ষা (এইচইটি) বা সমমানের বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাংলাদেশ বিমানবাহিনী পরীক্ষায় কৃতকার্য হতে হবে। শুধু সরবরাহ শাখায় আবেদনের জন্য প্রার্থীকে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় (ব্যবসায় শিক্ষা শাখা) জিপিএ ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় হিসাববিজ্ঞান ও ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে জিপিএ ৪ পেতে হবে। ২০১৮-তে অফিসার ক্যাডেট ব্যাচে শুধু পুরুষ প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।

বৈবাহিক অবস্থা : অবিবাহিত পুরুষ ও বাংলাদেশের পুরুষ নাগরিক হতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া : নৌবাহিনীতে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে আবেদনের দু’টি পদ্ধতি রয়েছে। অনলাইনের মাধ্যমে ও সরাসরি ফরম পূরণ করে।

অনলাইন পদ্ধতি (টিবিএমএম অ্যাকাউন্টধারীদের জন্য) : অনলাইনে আবেদনের জন্য আবেদনকারীকে ট্রাস্ট ব্যাংক মোবাইল মানির (টিবিএমএম) গ্রাহক হয়ে মুঠোফোনের মেসেজ অপশনে গিয়ে নিচের এসএমএসটি টাইপ করে Trustmm BNRF < space> OTBMMPIN Candidate’s মোবাইল নম্বর start with 88 (৮৮) লিখে ০৩৫৯০০১৬২০১ নম্বরে পাঠিয়ে দিতে হবে। এ জন্য আবেদনকারীর টিবিএমএম অ্যাকাউন্টে কমপক্ষে ৭২০ টাকা থাকতে হবে। টাকা জমা দেয়ার পর একটি ট্রানজেকশন আইডি আবেদনকারীর মোবাইলে চলে আসবে, যা ব্যবহার করে www.navy.mil.bd থেকে Join Navy লিংকে ক্লিক করে অথবা সরাসরি www.joinnavy.navy.mil.bd এই ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে ভর্তি ফরম পূরণ করে জমা দিতে হবে। ফরম পূরণের সময় ওই ট্রানজেকশন আইডি নম্বরটি ফরমের পেমেন্ট পেজের যথাস্থানে লিখতে হবে। সঠিকভাবে ফরম পূরণ শেষে প্রার্থীকে অনলাইনেই কল-আপ লেটার পাঠানো হবে, এ ক্ষেত্রে অনলাইনে ফরম পূরণ শেষে এর একটি প্রিন্ট নিতে হবে, যা পরবর্তী সময়ে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের সময় সাথে নিয়ে আসতে হবে।

সরাসরি ফরম পূরণ (টিবিএমএম অ্যাকাউন্টধারী নন) : সরাসরি ফরম পূরণের জন্য যারা টিবিএমএমের গ্রাহক নন, তারা ট্রাস্ট ব্যাংকের যেকোনো শাখা অথবা ট্রাস্ট ব্যাংকের মনোনীত পে-পয়েন্টে গিয়ে ‘বিএন রিক্রুটমেন্ট ফান্ড’ ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, প্রিন্সিপাল ব্রাঞ্চ, ঢাকার অনুকূলে ৭০০ টাকার ভর্তি ফি জমা দেয়ার পর প্রার্থী প্রাপ্ত নোটিফিকেশন এসএমএস ও মানিরিসিট পাবেন, যাতে একটি ট্রানজেকশন আইডি থাকবে, এ আইডি নম্বরটি অনলাইনে ফরম পূরণের ক্ষেত্রে পেমেন্ট পেজের যথাস্থানে লিখতে হবে এবং ম্যানুয়ালি ফরম পূরণের ক্ষেত্রে ব্যাংক ড্রাফটের ঘরে লিখতে হবে। পে পয়েন্ট ও ট্রাস্ট ব্যাংকের শাখার বিস্তারিত তালিকা http : // trustbank.com.bd/ download/ Trust_ Bank_Branch_Paypoint_List.pdf থেকে পাওয়া যাবে।

প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকার : ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা কেন্দ্রে প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকার আগামী ২১-২৪ আগস্ট ২০১৭ (পরিবর্তনযোগ্য) তারিখে অনুষ্ঠিত হবে।

লিখিত পরীক্ষা : প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষায় ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকারে উপযুক্ত বিবেচিত প্রার্থীদের বুদ্ধিমত্তা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে লিখিত পরীক্ষা আগামী ২৫ আগস্ট ২০১৭ (পরিবর্তনযোগ্য) তারিখে উল্লিখিত কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

আইএসএসবি কর্তৃক পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকার : লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আন্তঃবাহিনী নির্বাচন পর্ষদ (আইএসএসবি) কর্তৃক পরীক্ষা এবং সাক্ষাৎকার আন্তঃবাহিনী নির্বাচন পর্ষদ (আইএসএসবি), ঢাকা সেনানিবাস, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে।

চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষা : আইএসএসবি কর্তৃক নির্বাচিত প্রার্থীদের চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা সেনানিবাসস্থ বিএনএস হাজী মুহসীনে উপস্থিত হতে হবে।

চূড়ান্ত মনোনয়ন পর্ষদ : চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উপযুক্ত প্রার্থীদের নৌসদর কর্তৃক চূড়ান্ত মনোনয়ন পর্ষদ কার্যক্রম ডিসেম্বর ২০১৭-এর মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

নেভাল একাডেমিতে যোগদান : চূড়ান্তভাবে মনোনীত প্রার্থীরা জানুয়ারি ২০১৮-এর প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি, পতেঙ্গা, চট্টগ্রামে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে যোগদান করবেন।

প্রশিক্ষণ/কমিশন : চূড়ান্তভাবে বাছাইকৃত প্রার্থীরা প্রথমে বাংলাদেশ মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে ১০ সপ্তাহের প্রশিক্ষণসহ বাংলাদেশ নেভাল অ্যাকাডেমিতে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে ২৪ মাস ও মিডশিপম্যান হিসেবে ১২ মাস প্রশিক্ষণসহ মোট তিন বছর মেয়াদি প্রশিক্ষণ শেষে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে তাদের সাব-লেফটেন্যান্ট পদে নিয়মিত কমিশন প্রদান করা হবে। একাডেমিতে পেশাগত প্রশিক্ষণের পাশাপাশি এক্সিকিউটিভ শাখার ক্যাডেটদের মেরিটাইম সায়েন্স বিষয়ে বিএসসি (অনার্স) এবং সাপ্লাই শাখার ক্যাডেটদের বিবিএ ডিগ্রি বিইউপি থেকে প্রদান করা হবে। ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইলেকট্রিক্যাল শাখার ক্যাডেটদের বুয়েট/ এমআইএসটি থেকে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি প্রদান করা হবে।

বেতনভাতা : চূড়ান্তভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত অফিসার ক্যাডেটরা সরকার কর্তৃক নির্ধারিত অন্যান্য সুবিধাসহ সশস্ত্র বাহিনীর বেতনক্রম অনুযায়ী বেতন ও ভাতা পাবেন। পরে মিডশিপম্যান হিসেবে পদোন্নতির পর উচ্চতর স্কেলে বেতন প্রাপ্ত হবেন।

সুযোগ-সুবিধা : সি, এয়ার ও ল্যান্ড এ তিনটি মাধ্যমেই চাকরির সুযোগ, প্রশিক্ষণের বিভিন্ন পর্যায়ে ও কমিশনপ্রাপ্তির পর মেধাবী ক্যাডেট ও অফিসারদের প্রশিক্ষণের জন্য বিদেশ গমনের সুযোগ। দেশে-বিদেশে সরকারি খরচে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে উচ্চতর প্রশিক্ষণের (এমএসসি, এমবিএ, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, এমএস) সুযোগ, বাসস্থান প্রাপ্তি, চিকিৎসা সুবিধা, জাতিসঙ্ঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যোগদানের সুযোগ পাবেন।
আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্তি হিসেবে যেসব কাগজপত্র জমা দিতে হবে : ফরমটি পূরণপূর্বক নিচে বর্ণিত কাগজপত্র/ ছবিসহ জমা দিতে হবে। আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্তি হিসেবে প্রার্থীর সদ্য তোলা তিন কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজের ছবি, ৮ টাকার অব্যবহৃত ডাকটিকিট লাগানো ও নিজ ঠিকানা সংবলিত ১০ ইঞ্চি × ৪ ইঞ্চি আকারের একটি খাম, ম্যানুয়ালি ফরম পূরণের ক্ষেত্রে ফরমটি পাঠানোর আগে ট্রাস্ট ব্যাংক/বুথ থেকে প্রেরিত মানিরিসিট অথবা অন্য কোনো ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত পে-অর্ডার ফরমের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

অনলাইনে আবেদনকৃতদের ক্ষেত্রে : ম্যানুয়াল প্রার্থীরা যথাযথভাবে পূরণকৃত ফরমটির মূলকপি নৌসদরে পাঠাতে হবে ও ফটোকপিসহ বর্ণিত সনদপত্র সংযোজন করে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের সময় সাথে আনতে হবে। অন্যদিকে অনলাইনে আবেদনকৃতদের ক্ষেত্রে অনলাইন ফরম পূরণ করে প্রিন্ট কপির সাথে নিচের কাগজপত্র সংযোজন করে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের সময় জমা দিতে হবে। কাগজপত্রগুলো হলো- এক কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি, সব শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র ও মার্কশিটের কপি, নিজ নিজ ইউপি চেয়ারম্যান/পৌরসভার মেয়র বা ওয়ার্ড কাউন্সিলরের দেয়া নাগরিকত্বের সনদ ও প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক চারিত্রিক সনদপত্রের কপিসহ পরিচালক, পার্সোনেল সার্ভিসেস পরিদফতর, নৌবাহিনী সদর দফতর, বনানী, ঢাকা-১২১৩ এই ঠিকানায় জমা দিতে হবে।

যোগাযোগ : ফোন : ৯৮৩৬১৪১-৯,
বর্ধিত : ২২১৫, হেল্পলাইন : ০১৭৬৯৭০২২১৫

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রতি জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা আছে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক,২৯ জুন:   শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশে সরকারি-বেসরকারি মিলে ১৩৪টি বিশ্ববিদ্যালয় আছে। সকলের জন্য উচ্চ শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিত করতে দেশের প্রতি জেলায় একটি করে সাধারণ-বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা আছে সরকারের।

বৃহস্পতিবার [২৯ জুন] সকালে জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি বেগম পিনু খানের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে  সকাল ১০টা ৫ মিনিটে অধিবেশন শুরু হয়।

নুরুল ইসলাম নাহিদ সংসদকে জানান, বর্তমানে দেশে ১৩৪টি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। তন্মধ্যে ৩৯টি সরকারি এবং ৯৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এ সব বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক (সম্মান) পর্যায়ে ভর্তির জন্য মোট ৬ লাখ ২৬ হাজার ৩৫৮টি আসন রয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এ ছাড়া বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় নামে আরও দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষে মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক আইন অনুমোদিত হয়েছে। বর্তমানে বিলটি রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলরের অনুমোদনের জন্য অর্থ বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি জানান, সকলের জন্য উচ্চ শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিত করতে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে দেশের প্রতি জেলায় একটি করে সাধারণ-বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। এর অংশ হিসেবে বর্তমান সরকারের বিগত মেয়াদে ২০০৯ সাল হতে এ পর্যন্ত দেশে ৮টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। পাশাপাশি ৪২টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন ও একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি দেয়া হয়েছে। এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কুমিল্লায় দুই স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

কুমিল্লা: কুমিল্লায় ২ স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। নগরের শাকতলা এলাকায় একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে দুই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কিশোরীদের মধ্যে একজনের বয়স ১৩ বছর, আরেকজনের বয়স ১১ বছর। তারা সম্পর্কে খালা-ভাগনি। এ ঘটনায় ওই দুই ছাত্রীর এক আত্মীয় বাদী হয়ে আজ রাতে ৩ ধর্ষককে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার অভিযোগ ও শিক্ষার্থীরা জানান, একজন নগরীর একটি স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী (১৩) ও তার বোনের মেয়ে (১১) তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী। বুধবার সকাল ১০টার দিকে তারা শাকতলা এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে ঠাকুরপাড়ার বাসায় যাচ্ছিল। পথে তিন বখাটে তাদের পথ আগলে দাঁড়ায়। একপর্যায়ে ওই বখাটেরা একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তাদের গণধর্ষণ করে। তখন সেখানে আরও দুজন ব্যক্তি দাঁড়িয়ে পাহারা দিয়েছেন। এসময় ওই ছাত্রীদের ছবি তোলা হয় এবং তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। এরপর ওই কিশোরীদের পরিবারের সদস্যদের ডেকে এনে টাকা চায় বখাটেরা। পরিবারের সদস্যরা ৮ হাজার টাকা দেবেন বলে আশ্বাস দিয়ে কিশোরীদের ছাড়িয়ে নেন।

এরপর দুই ছাত্রী বাসায় ফিরে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি জানান। পরিবারের লোকজন স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তিকে ঘটনাটি জানায় এবং তাদের পরামর্শে ও এক আত্মীয়ের সহায়তায় বুধবার রাত ৯টার দিকে দুই ছাত্রীকে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় নেয়া হয়। এ ঘটনায় ভিকটিমদ্বয়ের আত্মীয় জেসমিন আক্তার বাদী হয়ে ৩ ধর্ষককে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে রাতে সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, রাতে ভিকটিমরা থানায় আসার পর তাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানায় মামলা নথিভূক্ত করা হয়েছে। ধর্ষকদের মধ্যে সজিব নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ভিকটিমদের ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর হচ্ছে না : ব্যাংকের আবগারি শুল্ক তিন স্তরে

স্টাফ রিপোর্টার: অবশেষে মূল্য সংযোজন কর বা ভাট আইনের বাস্তবায়ন দুই বছরের জন্য পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এই ঘোষণা দেন। ঈদের ছুটির পর গতকাল সংসদের মূলতবি বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। এতে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে নতুন ভ্যাট আইনের কার্যকারিতা দুই বছর পেছানোর আহ্বান জানান। আগে থেকেই অবশ্য বলা হয়েছিলো যে, প্রস্তাবিত ভ্যাট আইনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী সংসদে খোলাসা বক্তব্য দেবেন।

গত পহেলা জুন ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব উত্থাপনকালে নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করার ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী। এই আইনে ঢালাও   ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয় যা মূল্যস্ফীতি বাড়াবে বলে শুরুতেই সমালোচনায় পড়ে। সংসদ এবং সংসদের বাইরে ভ্যাট আইনটি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। শেষ পর্যন্ত গতকাল এর সমাধান দেন প্রধানমন্ত্রী। যদিও আগে থেকেই বোঝা যাচ্ছিলো যে, আইনটির কার্যকারিতা দুই বছরের জন্য স্থগিত করা হতে পারে।

অর্থমন্ত্রী গতকাল জাতীয় সংসদে তার বক্তব্যে কর আরোপ প্রক্রিয়ায় মূল্য সংযোজন কর ব্যবস্থাকে একটি উত্তম পন্থা হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, ১৯৯১ সালে প্রণীত মূল্য সংযোজন কর আইনটি বহু সংশোধনীর পর অফলপ্রসূ হয়ে পড়ায় ২০০৮ সালেই একটি নতুন মূসক আইন প্রণীত হয়। এইটি নিয়ে প্রায় চার বছর নানা আলোচনা বিতর্ক চলে। অবশেষে ২০১২ সালে নতুন আইন প্রণয়ন করা হয়, যা এই মহান সংসদে পাস হয়।

তিনি বলেন, এই আইনটির কার্যকারিতা কিন্তু ধাপে ধাপে বাড়ানো হয়েছে। এ বছর জাতীয় রাজস্ব বোর্ড পূর্ব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিধায় এবারের বাজেটে আইনটি কার্যকর করার প্রস্তাব করা হয়েছিলো। এ বিষয়ে সংসদ সদস্যরা তাদের প্রাজ্ঞ মতামত দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীও এই বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন। সেই প্রেক্ষিতে মূসক আইনের পূর্ণ কার্যকারিতা পিছিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করছি। আগের ধারাবাহিকতায় কিছু সংশোধন করে ২০১২ সালের আইনই যেভাবে গত ৪ বছর ধরে পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়িত হচ্ছে ঠিক তেমনিভাবে বর্তমান সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

অর্থমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর ঢালাও ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপের বিষয়টি আর থাকছে না। এখন থেকে আগের গত চার বছর ধরে চলে আসা নিয়মই বহাল থাকবে। তবে ক্ষেত্রেভেদে কিছু পরিবর্তন হতে পারে। অর্থমন্ত্রীও কিছু ক্ষেত্রে সংশোধনী প্রস্তাব দিয়েছেন। এসব প্রস্তাবসহ অর্থ বিল ২০১৭ জাতীয় সংসদে কণ্ঠভোটে পাস হয়।

আবগারি শুল্ক কমেছে: এদিকে, বহুল আলোচিত আবগারি শুল্ক হারেও পরিবর্তন আনা হয়েছে। ব্যাংকে টাকা লেনদেনের ওপর আরোপিত আবগারি শুল্ক নিয়েও ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। আগে ২০ হাজার টাকা থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত বছরে দেড়শ’ টাকা আবগারি শুল্ক কেটে রাখা হতো। নতুন বাজেটে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত মওকুফ করে দিয়ে ১ লাখের বেশি হলে ৮শ টাকা শুল্ক আরোপ করা হয় যা আগে ছিলো ৫শ  টাকা। আলোচনা সমালোচনার পর এই হারেও পরিবর্তন আনা হয়। তিনটি স্তরে এই পরিবর্তনের ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী।

সংশোধিত প্রস্তাবে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেনে আবগারি শুল্ক হার মওকুফ করা হয়। ১ লাখ টাকা থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত দেড়শ টাকা, ৫ লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ৫শ টাকা, ১০ লাখ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত আড়াই হাজার টাকা শুল্কারোপের প্রস্তাব করা হয়। ১ কোটি থেকে ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত ১২ হাজার টাকা এবং ৫ কোটি টাকার বেশি হলে ২৫ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক কর্তনের নতুন প্রস্তাব দেয়া হয়।

আরো যেসব সংশোধনী: অর্থমন্ত্রী তার বক্তৃতায় আরও কিছু সংশোধনীর কথা তুলে ধরেন। তিনি সংসদে জানান, রাজস্ব প্রস্তাব সম্বন্ধে বিভিন্ন মহল থেকে শুল্ক-করাদি বাড়ানো অথবা কমানো অথবা বাদ দেয়ার জন্য অনেক প্রস্তাব গত কয়েক মাসে পাওয়া গেছে। জাতীয় সংসদের আলোচনায় এই সব প্রস্তাবের অনেকগুলো তুলে ধরা হয়েছে। এই সব প্রস্তাবের বেশিরভাগই বাজেট চূড়ান্তকরণের সময়ে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ ও নির্দেশনা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

সংশোধিত প্রস্তাব অনুযায়ী, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে একটি সমাজকল্যাণমূলক কার্যক্রম হিসেবে বিবেচনা করে এবং ধ্যান অথবা যোগ (মেডিটেশন)-এর ওপরে আগামী ২ বছর ভ্যাট থাকছে না। কম্পিউটার, সেলুলার ফোন এবং তার যন্ত্রাংশ এখন দেশে তৈরি হচ্ছে জানিয়ে এগুলোকে মূল্য সংযোজন কর অব্যাহতি প্রজ্ঞাপনে অন্তর্ভুক্ত করে ভ্যাট অব্যাহতি দেয়ার কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। বহাল থাকছে শিপব্রেকিংয়ের বিষয়ে বর্তমানে বলবত প্রজ্ঞাপন। মোটরসাইকেল শিল্পের উপর স্থানীয় উত্পাদন পর্যায়ে আরোপনীয় সমুদয় মূল্য সংযোজন কর অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। মাইক্রোসফট বাংলাদেশ লিমিটেড অনেক সফটওয়্যার আমদানি করে এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে ২৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক প্রদান করে এবং কতিপয় পণ্য বিনা আমদানি শুল্কে আমদানি করে। যেসব পণ্যে আমদানি শুল্ক  নেই  সেগুলোর উপরে প্রস্তাবিত ভ্যাট অব্যাহতির ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী। রেফ্রিজারেটর সংযোজনকারীদের উপর প্রযোজ্য ৩০ শতাংশের স্থলে ২০ শতাংশ হারে সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে।

এলপিজির ব্যাপক ব্যবহারের লক্ষ্যে কম্পোজিট অর্থাত প্লাস্টিক ও গ্লাস ফাইবার নির্মিত এলপিজি কন্টেইনারের ওপর আমদানি পর্যায়ে ভ্যাট অব্যাহতির ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, এলপিজি সিলিন্ডার এখনো আমদানি নির্ভর হওয়ায় স্থানীয় শিল্পের সুরক্ষার স্বার্থে আমদানি পর্যায়ে লৌহনির্মিত এলপিজি কন্টেইনারের ওপর ভ্যাট বহাল রাখার প্রস্তাব করছি। এক কথায় গত বছর যে ব্যবস্থাটি ছিলো সেটাই অব্যাহত থাকছে।

অর্থমন্ত্রীর সংশোধিত প্রস্তাব অনুযায়ী, মোটরসাইকেলের সব যন্ত্রপাতি উত্পাদনকে সাহায্য করার জন্য গত বছরের অর্থ বিলে প্রগ্রেসিভ উত্পাদনকে কিছু কর/শুল্কের সুবিধা দেয়া হয়েছিলো। এবারও এই খাতের ওপর বর্ধিত শুল্ক করাদি মওকুফ করার প্রস্তাব রাখেন অর্থমন্ত্রী। একইভাবে প্রস্তাবিত সোলার প্যানেলের আমদানি শুল্ক বাদ দেয়া হয় চূড়ান্ত প্রস্তাবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

রাবি’র মেধাবী ছাত্র আমান উল্লাহ নিহত

গাংনী প্রতিনিধি: আমান উল্লাহ। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কাঁপানো একজন মেধাবী ছাত্র। শুধু লেখাপড়ায় নয়, সামাজিক কাজের সাথেও জড়িত ছিলেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ইচ্ছে’ নামের একটি সামাজিক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। জোড়পুকুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের গন্ডি পেরিয়েছেন মেধার পরিচয় দিয়ে। স্বপ্ন ছিলো বড় অর্থনীতিবিদ হবেন। গত ২৯ মে তিনি ফেসবুকে স্টাটাস দিয়েছিলেন ‘অতঃপর গৃহাভিমুকে রওনা হইলাম….’। বাড়িও এসেছিলেন। পরিবারের সাথে ঈদ উদযাপন করতে। কিন্তু ঈদের দিন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় তিনি চলে গেলেন না ফেরার দেশে। শ্যালোইঞ্জিন চালিত অবৈধযান আলগামনের সাথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নিয়েছে একটি পরিবারের ঈদ আনন্দ, ভবিষ্যত স্বপ্ন ও একজন মেধাবীকে। আমান উল্লাহর ফেসবুক বন্ধু রাসিদুল ইসলাম ওই স্টাটাসে লিখেছেন ‘ভাই, তুমি কোন বাড়ির উদ্দেশ্যে যে রওনা দিলে’। ভোমরদহ গ্রামের ক্ষণজন্ম এই আমান উল্লাহর মৃত্যুতে পরিবারে এখনো শোকের মাতম বইছে। আত্মীয়স্বজন, সহপাঠী, প্রতিবেশীসহ পরিচিতজনরাও শোকে কাতর। তার এভাবে চলে যাওয়া ভুলতে পারছেন না স্বজনরা। আমান উল্লাহ (২১) মেহেরপুর গাংনী উপজেলার ভোমরদহ গ্রামের মহির উদ্দীনের ছেলে ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি তৃতীয় বর্ষের ছাত্র।
জানা গেছে, ঈদের দিন দুুপুরের দিকে আমান উল্লাহ ঈদের দিন তার ভগ্নিপতি মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য’র পিএস সাইফুজ্জামান সিপুর পালসার মোটরসাইকেল নিয়ে গাংনী থেকে গ্রামের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়ক দিয়ে গাংনী উত্তরপাড়া অতিক্রম করার সময় একটি আলগামনের সাথে ধাক্কা লেগে গুরুতর আহত হন। আলগামন তার গায়ের ওপর দিয়ে চলে যায় বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। কুষ্টিয়া মেডিকেলে ভর্তির কয়েক মিনিটের মধ্যে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন আমান উল্লাহ। হাসপাতার থেকে মরদেহ নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে নেয়া হয়। রাতে গ্রাম্য কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়। গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, তবে এ ঘটনায় পরিবার থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়নি। নসিমনটি শনাক্ত করে আটকের চেষ্টা চলছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চুয়াডাঙ্গার ঐতিহ্যবাহী গোকুলখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭০ বছর পূর্তি উৎসব

সাইদুর রহমান: ‘প্রতিজ্ঞা এবং পরিশ্রমই হোক আমাদের প্রতিষ্ঠার গতিপথ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গোকুলখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর ৭০ বছর পূর্তি উৎসব উপলক্ষে পতাকা উত্তোলন, আনন্দ শোভাযাত্রা, আলোচনাসভা, মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান ও সাংস্কৃতি আনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। নানা আয়োজনে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখাসহ সুন্দর সমাজ গঠনে অবদান রাখার আন্তরিক প্রচেষ্টার বিষয়টি ঘরে ফিরেই আলোচনায় তুলে আনেন।
গতকাল বুধবার গোকুলখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭০ বছর পূর্তি উৎসব উপলক্ষে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পতাকা উত্তোলন ও শোভাযাত্রা শেষে প্রথম পর্বের আলোচনা অনুষ্ঠানে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি উদযাপন কমিটির সভাপতি বিল্লাল হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার কলিমুদ্দীন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাাদুল হক বিশ্বাস, জজ কোটের পিপি অ্যাড. শামশুজ্জোহা, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আতাউর রহমান, চিৎলা ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান। আলোচনার শুরুতে কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আশরাফ আলী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফরিদ হোসেন।
আমার কৈশোর ও আজকের প্রত্যাশা এই স্লোগানে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অধিবেশনের দ্বিতীয় পর্বে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে উদযাপন কমিটির সভাপতি বিল্লাল হোসেনের সভাপতিত্বে অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অবসরপ্রাপ্ত উপপরিচালক রেজাউল করিম ও আবুবক্কর সিদ্দিকী, অগ্রণী ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত ডিজিএম জহুরুল আলম, আইনজীবী সেলিম উদ্দিন খান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক আকরামুল হক, সাবরেজিস্ট্রার রাব্বুস সোবহান, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আফজালুল হক, ইঞ্জিনিয়ার শাহজাহান আলম প্রমুখ। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে অধিবেশনের তৃতীয় পর্বে বিদ্যালয়ের শিক্ষার মানোন্নয়নে করণীয় আলোচনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে অতিথি ছিলেন সরকারি আদর্শ মহিলা কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহীদুল ইসলাম, দর্শনা সরকারি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত উপধ্যক্ষ মোশারফ হোসেন, গোকুলখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মোস্তফা কামাল, বিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র শিক্ষক খাইরুল বাসার ও মোশাররফ হোসেন।
অধিবেশনের চতুর্থ পর্বে দুপুর আড়াইটার দিকে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানে উদযাপন কমিটির সভাপতির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চিৎলা ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান, বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক মোস্তফা কামাল, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক, উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ফরিদ হোসেন। অনুষ্ঠান শেষে ক্ষুদে গানরাজ উদয়, শাবনুর ও বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র দেলোয়ার হোসেন দিপুসহ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। সার্বিক অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আদর্শ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর হোসেন, প্রাক্তন ছাত্র রাজীব ফেরদৌস পাপেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষক শফি উদ্দিন টিটু, বেলাল হোসেন।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পরপুরুষের শয্যাসঙ্গী হতে চাপ দিতো স্বামী!

ডেস্ক: পরপুরুষের সঙ্গে রাত কাটানোর জন্য চাপ সৃষ্টি করত তার স্বামী।তাঁর অভিযোগ, তিনি স্বামীর কথামতো কাজ করতে অস্বীকার করলে তাঁকে ডিভোর্সের হুমকি দিত স্বামী। মহিলার অভিযোগ, তাঁর স্বামী সম্পূর্ণ বিকৃত মানসিকতার শিকার। প্রতিরাতেই তাঁর স্বামী পিসির ছেলের শয্যাসঙ্গী হওয়ার জন্য চাপ দিতো। আর নিজে চাইত পিসির ছেলের বান্ধবীর সঙ্গে রাত কাটাতে। আর এই কারণেই স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার আবেদন জানিয়েছেন অভিযোগকারিণী। অভিযোগ পাওয়ার পরেই ওই ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে ভারতের কানপুরের এক গ্রামে। বৃহস্পতিবার কানপুরের চকেরি থানায় এ বিষয়ে অভিযোগ দায়ের করেন অভিযুক্তর স্ত্রী।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ নিয়োগে জটিলতা

ডেস্ক : আবার জটিলতা। ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচ নিয়োগকে কেন্দ্র করে। বোর্ডের একাংশ যে রবি শাস্ত্রীকে কোচ অথবা ডিরেক্টর হিসেবে ফিরিয়ে আনতে চাইছেন, এটা এখন আর কোনো গোপন খবর নয়। তা করতে গিয়ে অপসারিত কর্তাদের একাংশ সুপ্রিম কোর্ট নিয়োজিত প্রশাসকদের না জানিয়ে নতুন করে কোচ নিয়োগের আবেদন করার রাস্তা খুলে দিয়েছেন।

এতে প্রচণ্ড চটে গেছেন প্রশাসকরা। তা নিয়ে অবশ্য মোটেই চিন্তিত নন অপসারিত কর্তারা। ঠিক হয়েছে, ৯ জুলাইয়ের মধ্যে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। এই মর্মে বোর্ডের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপনও দেয়া হয়েছে। উদ্দেশ্য একটাই, প্রথম দফায় রবি শাস্ত্রী আবেদন না করায় তাকে সরাসরি শচিন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলি ও ভিভিএস লক্ষ্মণের সামনে পরীক্ষায় ডাকা সম্ভব হবে না, আইনি জটিলতার কারণে।

আবেদনের মেয়াদ ৯ জুলাই পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়ায় রবি শাস্ত্রীকে সুযোগ করে দেয়া হলো।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চাঁদপুরে স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার, বান্ধবীকে জিজ্ঞাসাবাদ

চাঁদপুর : চাঁদপুর শহরের জোড় পুকুর পাড় এলাকা থেকে এক স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। ওই ছাত্রীর নাম সাবরিনা আফরিন রিয়া (১৪), সে অষ্টম শ্রেণিতে পড়তো। রিয়া চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের মো. সফিকুল ইসলামের মেয়ে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাহবুবুর রহমান মোল্লা বলেন, এ ঘটনায় রিয়ার বান্ধবী খাদিজা, তার বাবা রহমান গাজী এবং মা রাবেয়া বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে বিস্তারিত জানা যাবে বলেও জানান তিনি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

ঈদের দিন বেড়ানো হলো না ডিপ্লোমা পাস করা শিক্ষার্থী সানোয়ারের

পঞ্চগড় প্রতিনিধি,২৬জুন: ঈদে ঘোরা হলো না সদ্য ডিপ্লোমা পাস করা শিক্ষার্থী সানোয়ার হোসেনের (২৬)। আজ সোমবার দুপুরে বাড়ি থেকে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলেন বন্ধু মহসিন আলীর মোটরসাইকেলে করে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া মহাসড়কের অমরখানা সেতুর কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন মহসিন। মহাসড়কের পাশের পিলারে ধাক্কা লাগে মোটরসাইকেলের। পেছনে থাকা সানোয়ার ঘটনাস্থলেই নিহত হন। গুরুতর আহত মহসিনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। নিহত সানোয়ার রংপুরের প্রাইম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা পাস করেছেন। তাঁর বাড়ি তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহান ইউনিয়নের ঠুনঠুনিয়া এলাকায়।

অমরখানা সেতুর এলাকার প্রত্যক্ষদর্শী আনিছুর রহমান জানান, সেতুর কাছে বাঁক নেওয়ার সময় মহাসড়কের পাশের পিলারে এসে ধাক্কা লাগে মোটরসাইকেলের। এ সময় তিনিসহ স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যান।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. নরদেব রায় জানান, হাসপাতালে আনার আগেই সানোয়ারের মৃত্যু হয়েছে। আহত মহসিনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শ্রীনগরে স্কুলে লুকিয়ে থাকা দুই জঙ্গি নিহত

ডেস্ক: ১৫ ঘণ্টার অপারেশন শেষে অবশেষে রবিবার দুপুরে শ্রীনগরের ডিপিএস স্কুলের ভেতর লুকিয়ে থাকা দুই জঙ্গি নিহত হয়েছে। ঘটনায় আহত দুই সেনা সদস্য। এখনও চলছে তল্লাশি অভিযান।

সিআরপিএফ সেনাদের ওপর শনিবারের হামলার পর শ্রীনগরের দিল্লি পাবলিক স্কুলে ঢুকে লুকিয়ে পড়ে জঙ্গিদের একটি দল। এরপরই গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে নিরাপত্তা বাহিনী। শনিবার ভোর রাত তিনটে বেজে চল্লিশ মিনিট থেকে জঙ্গি ও নিরাপত্তাবাহিনীর মধ্যে গুলির লড়াই শুরু হয়।

জম্মু-কাশ্মীরের ডিজিপি এস.পি বেদ জানান, ঘটনাস্থল থেকে স্কুলের কর্মী ও অন্যান্য লোকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সূত্র:এনটিভি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

কফির সাথে সাথে আপনি পান করছেন অসংখ্য পোকা!

অনলাইন ডেস্ক: কফিতেও থাকে পোকা! কী শুনে খুব অবাক হচ্ছেন! হ্যাঁ আমাদের চারপাশে অসংখ্য পোকামাকড় থাকে এটা আমরা জানি। এ কারণে আমেরিকার ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) কিছু নির্দিষ্ট পোকা বা পোকার খন্ডকে খাবারের মধ্যে যোগ করার অনুমতি দিয়েছে। খাদ্যের অপরিহার্য ত্রুটি হিসেবেই তারা লেবেলে উল্লেখ থাকে এবং পিনাট বাটার, চকলেট এমনকি ফল ও সব্জিতেও পোকা থাকে প্রচুর পরিমাণে।

এফডিএ খাবারের মধ্যে কিছু সংখ্যক পোকা যোগ করার অনুমতি দিয়েছিল, কিন্তু সময়ের সাথে সাথে এই সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। আপনি এতোদিন পর্যন্ত যে খাবার খেয়েছেন তার যদি হিসাব করেন তাহলে এর সাথে সাথে আপনি প্রচুর পোকাও খেয়েছেন বলতে হয়।

পোকামাকড় নিয়ন্ত্রণের প্রতিষ্ঠান টেরো এই তথ্যের একটি তালিকা একত্র করেছে। তারা দেখেছে যে কত সংখ্যক ছারপোকা এবং পোকার খন্ড এফডিএ খাদ্যের সাথে প্যাকেটজাত করার অনুমতি দিয়েছে। এক বছরে একজন মানুষ কত সংখ্যক পোকা গ্রহণ করেন তার হিসাব করেছেন তারা। সবচেয়ে মজার তথ্যটি হচ্ছে আপনি আপনার সকালের এক কাপ কফির সাথে কী পরিমাণ পোকা গ্রহণ করছেন তা। এটি শুনলে আপনি হয়তো দাঁড়ানো থেকে বসে যেতে পারেন! এক বছর কফি পান করার ফলে আপনি ১,৩৬,০৮০ টি পোকার খন্ড গ্রহণ করছেন!

কফির মানের উপর কী পোকা প্রভাব ফেলছে? না আপনি এদের স্বাদ অনুভব করতে পারবেন না। বস্তুত অনেক মানুষই পোকামাকড় খাওয়ার দিকে ঝুঁকছেন কারণ এরা টেকসই প্রোটিনের উৎস এবং এদের যখন আবাদ করা হয় তখন তা পরিবেশের উপর খুবই কম প্রভাব ফেলে। খাদ্য পণ্য থেকে একজন আমেরিকান প্রতিদিন গড়ে কতটি পোকা গ্রহণ করেন তার তালিকাটি হচ্ছে –

ফ্রোজেন বা ক্যানড জাম জাতীয় ফলে থাকে ৮৪ টি পোকা

ফ্রোজেন ব্রোকলিতে থাকে ১,৬৬০ টি পোকা

ছোট বাঁধাকপি বা ব্রাসেলস স্প্রাউট এ থাকে ৫৪ টি পোকা

চকলেট এ থাকে ৫,৯৮৮ টি পোকার দেহ খন্ড

কফির বীজে থাকে ১,৩৬,০৮০ টি পোকার দেহ খন্ড

ম্যাকারনি বা নুডুলস এ থাকে ৭,০৩১ টি পোকার দেহ খন্ড

মাশরুমে থাকে ২৫৪ টি পোকা

পিনাট বাটারে থাকে ৪০৮ টি পোকার দেহ খন্ড

ময়দায় থাকে ৯১,৬৫০ টি পোকার দেহখন্ড

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

আরো ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে আরো ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবে সরকার। গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে প্রশাসনিক অনুমোদন দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম জানান, বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে ১০ হাজার চিকিৎসক পর্যায়ক্রমে নিয়োগ দেওয়া হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্যসেবা সঠিকভাবে নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বর্তমান সরকারের সময়েই গত ৩ বছরে বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে প্রায় ৭ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৩৩তম বিসিএসে ৬ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে তাদেরকে উপজেলা পর্যায়ে পদায়ন করা হয়েছে।

সূত্র : বাসস

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

পরবর্তী অর্থমন্ত্রী ফরাসউদ্দিন!

অনলাইন ডেস্ক: ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের তীব্র সমালোচনা করছেন খোদ আওয়ামী লীগ নেতারা। এ সমালোচনা থেকে একধাপ এগিয়ে জাতীয় পার্টি। তাদের সমালোচনার কারণ আগামী বাজেটে আবগারি শুল্ক, সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানো এবং বাড়তি ভ্যাট কেন জনগণের ওপর চাপালেন অর্থমন্ত্রী। একদিকে সরকারি দল ও বিরোধী দলের সমালোচনা, অন্যদিকে বয়সের ভার সামলাতে কষ্ট হচ্ছে অর্থমন্ত্রীর। ৮৪ বছর হয়েছে তার। অবশ্য তিনি নিজেও কিছুদিন আগে বলেছিলেন ২০১৮ সালে এ সরকারের শেষ বাজেট দিয়ে অবসর নেবেন। আগামী নির্বাচনও করবেন না। পরে আবার মত পাল্টিয়ে বলেন, আগামী নির্বাচন করবেন। এই যখন অবস্থা তখন পরবর্তী অর্থমন্ত্রী কে হবেন তা নিয়ে চলছে আলোচনা।একটি সূত্রে জানা গেছে, বরাবরের মতো পরবর্তী অর্থমন্ত্রীও রাখা হতে পারে সিলেট বিভাগ থেকে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে নিজে থেকে পদত্যাগ করলে বা তাকে সরিয়ে দিলে অথবা আগামী একাদশ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলে তার স্থলে পরবর্তী অর্থমন্ত্রী করা হতে পারে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনকে। তার গ্রামের বাড়ি সিলেট বিভাগের হবিগঞ্জ জেলার মাধপুরে। এ সরকারের আমলে তাকে অর্থমন্ত্রী করা হলে টেকনোক্রেট কোটায় করতে হবে। কারণ তিনি নির্বাচিত এমপি নন। কেউ কেউ বলছেন ফরাসউদ্দিন যেমন একজন দক্ষ অর্থনীতিবিদ তেমনি আওয়ামী লীগের অনুগতও। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তখন তার ব্যক্তিগত সহকারী ছিলেন ড. ফরাসউদ্দিন।

তাই তিনি অর্থমন্ত্রী হলে ষোলকলা পূর্ণ হবে। দেশ যেমন পাবে দক্ষ অর্থমন্ত্রী, তেমনি সিলেট থেকেই অর্থমন্ত্রী হওয়ার ধারাবাহিকতাও বজায় থাকল। ড. ফরাসউদ্দিন অর্থমন্ত্রী হতে পারেন-এমন আলোচনা বেশি হচ্ছে ঢাকায় বসবাসরত সিলেটের মানুষের মধ্যে। কিছু রাজনীতিবিদ এবং অর্থনীতবিদও এমন আলোচনা করছেন। একাধিক রাজনৈতিক নেতা ও অর্থনীতিবিদ নাম প্রকাশ না করার শর্তে আমার সংবাদকে বলেন, ড. ফরাসউদ্দিনের গ্রহণযোগ্যতা অনেক। তাছাড়া তার ব্যক্তিগত ইমেজও ক্লিন। গতবছর দেশের ইতিহাসে ব্যাংকিং খাতে সবথেকে আলোচিত ঘটনা বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্তভারও ছিল তার উপর এবং তিনি অত্যন্ত মুন্সিয়ানা দেখিয়েই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছিলেন সরকারের কাছে। এছাড়াও অর্থনীতি বিষয়ে বড় বিপর্যয় বা দুর্নীতির বিষয়ে তদন্ত কমিটি করা হলে অনেক ক্ষেত্রেই নেতৃত্বে থাকেন ফরাসউদ্দিন।

সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন-ভাতাও দিগুণ হয়েছে তার প্রতিবেদনের আলোকে। তিনি পে অ্যান্ড সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে ছিলেন। তাছাড়া পরবর্তী অর্থমন্ত্রী হিসেবে সিলেটে তার বিকল্প আর কোনো অর্থনীতিবিদ আপাতত দেখা যাচ্ছে না। বড় বড় অর্থনীতিবিদ থাকলেও ফরাসউদ্দিনের মতো ততটা পরিচিত নন তারা। অনেকের ধারণা সিলেটের বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, প্রয়াত অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া ও এম সাইফুর রহমানের বিকল্প হতে পারেন একমাত্র ড. ফরাসউদ্দিনই। জানা গেছে অর্থনীতি বিষয়ে অধিক যোগ্যতা ও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সিলেট এগিয়ে থাকার কারণেই স্বাধীনতার পর থেকে প্রায় সব সরকারই সিলেট থেকে অর্থমন্ত্রী বেছে নিয়েছেন। অন্য জেলা থেকে খুব কমই অর্থমন্ত্রী হওয়ার নজির রয়েছে। বিএনপির হয়ে দেশের ইতিহাসে বেশি বাজেট দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান।

তবে একটানা বেশি বাজেট দিয়েছেন বর্তমান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তিনি এরশাদ সরকারের আমলেও একাধিক বাজেট দিয়েছেন। বিশিষ্টজনরা বলছেন, এই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের মতো ফরাসউদ্দিনেরও রয়েছে মেধা, অর্থনীতি বিষয়ে পা-িত্য ও বর্ণাঢ্য জীবন। ১৯৪২ সালের ১৮ এপ্রিল ফরাসউদ্দিনের জন্ম। অর্থনীতিতে অনার্স ও মাস্টার্স করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। যদিও এসএসসি এবং এইচএসসিতে তিনি বিজ্ঞানের ছাত্র ছিলেন।

ফরাসউদ্দিন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন ইউনিভার্সিটি থেকে অর্থনীতিতে পিএইচডি করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, সোনালী ব্যাংক ও পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান (এই পদ থেকেই ড. ফখরুদ্দীন আহমদ তত্ত্বাবধায়ক সরকার হয়েছিলেন), জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচির কান্ট্রি ডিরেক্টর। এছাড়াও অনেক সংস্থা ও কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন এবং আছেন। বর্তমানে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারপারসন তিনি। ছিলেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিক স্কুল জাতীয়করণে প্রধান শিক্ষক পদে দূর্ণীতি

অনলাইন ডেস্ক,২৪ জুন: প্রাথমিক স্কুল জাতীয়করণে প্রধান শিক্ষক পদে দূর্ণিতী ব্যপক অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিক্ষাবার্তার একটি অনুসন্ধানি টিম কিভাবে প্রধান শিক্ষক পদ পেল তা নিয়ে কাজ করছে। মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব তাদের ফাইল নোটে জাতীয়করন শিক্ষকদের মধ্যে প্রধান শিক্ষক হবার যোগ্যতা নেয় বলার পর কিভাবে তারা পেল তা নিয়ে চলছে অনুসন্ধান।

যাদের কাছে এ বিয়য়ে কোন তথ্য আছে তারা ‍  shikkhabarta@gmail.com এ তথ্য দেবার জন্য অনুরোধ রইল।

সরাসরি আমাদের কাছে জানাতে পারেন

সম্পাদক

০১৫৫৭৬৩১০৯৭

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail