Author Archives: chief editor

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা মে মাসেই

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। আগামী মাসের মাঝামাঝি থেকে কয়েক ধাপে নেয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর। সারা দেশে এই পরীক্ষায় অংশ নিতে ১৩ হাজার পদের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ২৪ লাখের বেশি। ২০ হাজারের মধ্যে পরীক্ষার্থী আছে এমন ৭টি জেলায় প্রথম ধাপে এ পরীক্ষা নেয়া হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা জানান, সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা মে মাসের মাঝামাঝি হতে পারে। কোন তারিখে হবে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তবে পরীক্ষা-সংক্রান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দুই একদিনের মধ্যে নেয়া হবে। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষক কর্মচারীদের মে মাসের এমপিও যথাসময়ের প্রদানের নির্দেশনা জারি

ডেস্ক,১৬এপ্রিলঃ  স্কুল-কলেজের শিক্ষক কর্মচারীদের মে-২০১৯ মাসের এমপিও যথাসময়ের প্রদানের লক্ষ্যে নির্দেশনা জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) মহাপরিচালক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়।

শিক্ষকদের এমপিওর নির্দেশনায় বলা হয়েছে, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, বরিশাল, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, কমিল্লা ও সিলেট অঞ্চলের স্কুল-কলেজের শিক্ষক কর্মচারীদের মে-২০১৯ মাসের এমপিও যথাসময়ের প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, অনলাইনে সংশ্লিষ্ট জেলা শিক্ষা অফিসারগণ আবেদনসমূহের আঞ্চলিক উপ পরিচালকের নিকট আগামী ২৩ এপ্রিলের মধ্যে এবং আঞ্চলিক উপ পরিচালকগণ আবেদনসমূহ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নিকট আগামী ১২ মে তারিখের মধ্যে প্রেরণ করতে হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শবে বরাতের তারিখ ঘোষনা

ডেস্ক,১৬এপ্রিলঃ জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২১ এপ্রিলই পবিত্র শবে বরাত পালিত হবে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ।

মঙ্গলবার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে নিজ দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি। শাবান মাসের চাঁদ দেখার বিষয়ে বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামদের সমন্বয়ে গঠিত ১১ সদস্য কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে এ ঘোষণা দেন তিনি।

 

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষক কিভাবে তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী পদমর্যাদার হন?

মাহফিজুর রহমান মামুন: শিক্ষার আলো বিস্তার প্রথমে শুরু হয় যাঁদের হাত দিয়ে, সেই প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা বেতন পদমর্যাদায় এখনো চরমভাবে অবহেলিত। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দু’ধরনের শিক্ষক রয়েছেন—প্রধানশিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক। আগে এই উভয় ধরনের শিক্ষকই ৩য় শ্রেণির কর্মচারী ছিলেন। ২০১৪ সালে প্রধানশিক্ষকদের ২য় শ্রেণির মর্যাদা দেওয়া হয়। একই শিক্ষাগত যোগ্যতায় নিয়োগপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা এখনো ৩য় শ্রেণির পদমর্যাদায় রয়েছেন, যা মানুষ গড়ার কারিগরদের জন্য লজ্জাজনক।

একজন শিক্ষক কিভাবে ৩য় শ্রেণির কর্মচারী হন? প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকের শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক। তাছাড়া নিয়োগ পাওয়ার পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইইআর ডিপার্টমেন্টের অধীনে বাধ্যতামূলকভাবে দেড় বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন প্রাইমারি এডুকেশন নামে একটি উন্নতমানের ডিপ্লো­মা কোর্স সম্পন্ন করতে হয় তাঁদের। যেখানে এসএসসি ও এইচএসসি পাসের পরে ডিপ্লোমা সম্পন্ন করে অন্য সকল ডিপ্লোমাধারী পেশাজীবী ২য় শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তার পদমর্যাদায় অধিষ্ঠিত, সেখানে স্নাতক পাসের পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ডিপ্লোমা সম্পন্ন করার পরেও প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা ৩য় শ্রেণির কর্মচারী পদমর্যাদায় অধিষ্ঠিত! একই দেশে একই যোগ্যতায় নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা কেন এই বৈষম্যের শিকার?

সারা বিশ্বে প্রাথমিক শিক্ষকদের পদমর্যাদা যেখানে অতি উচ্চ, সেখানে আমাদের দেশে প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের পদমর্যাদা ৩য় শ্রেণির—এটা খুবই দুঃখজনক। শিক্ষকরা আশা করেন, শিক্ষাবান্ধব বর্তমান সরকার দ্রুত প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষকদেরও ২য় শ্রেণির পদমর্যাদা দিয়ে তাঁদের যথাযোগ্য মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করবে।

লেখক- সহকারী শিক্ষক, ভীমদামাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঝলঝলি, তেপুকুরিয়া, বোদা, পঞ্চগড়

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

২০ শতাংশ হারে ইনক্রিমেন্ট চান সরকারি কর্মচারীরা

শিক্ষাবা্র্তা ডেস্ক,১৬ এপ্রিল:   বার্ষিক বেতন বৃদ্ধি (ইনক্রিমেন্ট) ৫ শতাংশের পরিবর্তে ২০ শতাংশ হারে ইনক্রিমেন্ট চান সরকারি কর্মচারীরা। টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বাতিল করে দেয়ার পর থেকে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তারা।

বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী ঐক্য পরিষদ এই দাবি জানিয়েছেন। একই সঙ্গে বিনা সুদে ৩০ লাখ টাকা গৃহঋণও চেয়েছেন তারা।

গত ১০ এপ্রিল অর্থ সচিবের কাছে এক চিঠি দিয়ে এসব সুবিধা চেয়েছে ঐক্য পরিষদ। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। চিঠিতে ঐক্য পরিষদ বলছে, হচ্ছে-টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড তাদের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তার পরিবর্তে ৫ ভাগ হারে বেতন বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে চতুর্থ শ্রেণি, তৃতীয় শ্রেণি ও দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মচারীরা ভীষণভাবে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

১৫তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা ১৯ এ্রপ্রিল

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল:

আগামী ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ১৫তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা।
ওই দিন শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টায় স্কুল ও স্কুল পর্যায়-২-এর প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত কলেজ পর্যায়ের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া ২৬ জুলাই শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত স্কুল ও স্কুল পর্যায়-২-এর লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর দিন ২৭ জুলাই কলেজ পর্যায়ের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এই লিখিত পরীক্ষা সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২ পর্যন্ত চলবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল:আসন্ন ইংল্যান্ড এবং ওয়েলসে যৌথভাবে অনুষ্ঠিত ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ১৫ জনের মূল দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দুপুর সাড়ে ১২টায় শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম সম্মেলন কক্ষে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য এ স্কোয়াড ঘোষণা করেন।

বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের বিশ্বকাপ স্কোয়াড

মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ রাহি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

শিক্ষা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শিক্ষক হয়রানির অভিযোগ করলেন শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অভিযোগ প্রত্যাক্ষান

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল:

অনিয়মতান্ত্রিক বদলি বাণিজ্যের শিকারসহ বিভিন্ন ধরনের হয়রানি কর্মকান্ডের অভিযোগ তুলেছেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ সহকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি (১২০৬৮) এর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা শাখার উদ্যোগে নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে এসে শিক্ষা কর্মকর্তাদের অনিয়ম তুলে ধরেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

এসময় ওই সমিতির নেতৃবৃন্দসহ সদর উপজেলার প্রায় ২০-২৫ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত অর্ধশতাধিক সহকারি শিক্ষক-শিক্ষিকা উপস্থিত ছিলেন।

এতে সহকারি শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সহযোগিতা কামনা করে বক্তব্য দেন সজীব হোসেন, আনোয়ার হোসেন, মো. নূরনবী, আলতাফ হোসেন,আমির হোসেন প্রমুখ শিক্ষক নেতৃবৃন্দ।

এসময় তারা অভিযোগ করে জানান, বদলিতে অবৈধ অর্থ আদায়ের বাণিজ্য এবং কোন কোন ক্ষেত্রে উদ্দেশ্যমূলকভাবে অনিয়মতান্ত্রিক বদলির নির্দেশ প্রদান করে কর্মকর্তারা নিরীহ শিক্ষকদের হয়রানি করে চলছেন।

এছাড়াও বিভিন্ন ছুতোয় অভ্যন্তরীন কর্মকান্ডে অমূলকভাবে শিক্ষকদের হয়রানি করে চলছেন সংশ্লিষ্ট শিক্ষা কর্মকর্তারা।

একপর্যায়ে শিক্ষকরা অসহায়ত্ব প্রকাশ করে জানান, শিক্ষকতার চাকরী করে তারা যে বেতন পান তা সীমিত এবং সম্পূর্ণ বৈধ উপার্জন। এই উপার্জন দিয়ে কোনমতে নিজেদের সংসার চালিয়ে যেতে হিমশিম খেতে হয়। তার উপর হয়রানি এড়াতে অন্যায়ভাবে বাণিজ্যের শিকার হলে টানাপোড়নে ভুগতে হয় তাদের।

এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এর হস্তক্ষেপসহ প্রয়োজনীয় সহযোগিতা কামনা করেন শিক্ষকরা।

পরে নবনির্বাচিত লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ.কে.এম.সালাহ্ উদ্দিন টিপু উপস্থিত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের উদ্দেশ্য করে জানান, উদ্দেশ্যমূলক কিংবা অনিয়মতান্ত্রিক কোন প্রকার হয়রানি হলে তা অবশ্যই নিন্দনীয়।

একই সাথে কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ যথার্থ হলে তিনি শিক্ষকদের কল্যাণে যথাসাধ্য সহযোগিতা প্রদান করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আলো এসব বিষয়ে জানান, শিক্ষকদের এসব হয়রানি ব্যাপক জনশ্রুতি রয়েছে। তবে কোন শিক্ষক এসব বিষয়ে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ সাপেক্ষ অদ্যাবধি কোন অভিযোগ দায়ের করেনি। যার কারণে কোন পদক্ষেপই নেয়া সম্ভব হচ্ছেনা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু ছালেহ মোহাম্মদ শিক্ষক-শিক্ষিকার এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে জানান, এ সংক্রান্ত কোন প্রমাণপত্র কখনোই কেউ দেখাতে পারবেনা।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫!

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৬ এপ্রিল : সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ ও অবসর গ্রহণের বয়সসীমা ৬২ করতে সংসদ অধিবেশনে সিদ্ধান্ত প্রস্তাব আনা হচ্ছে। দেশের শিক্ষিত তরুণ সমাজ এ দাবী নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে। এটা তাদের প্রাণের দাবিতে পরিণত হয়েছে। চাকরিতে বয়সসীমা বাড়াতে আসন্ন সংসদ অধিবেশনে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ঢাকা-৮ আসনের এমপি রাশেদ খান মেনন এ প্রস্তাব আনবেন।

তথ্যমতে, প্রস্তাবে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর ও অবসর গ্রহণের বয়সসীমা ৬২ বছর করার প্রস্তাব করবেন রাশেদ খান মেনন। ইতোমধ্যে সংসদের আইন শাখা-২ সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি জমা দিয়েছেন। সংসদে সিদ্ধান্ত প্রস্তাবটি গ্রহীত হলে এ বিষয়ে সরকারের কাজ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

Read More »

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ উপজেলাভিত্তিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় পাঁচটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। ইতোমধ্যেই গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।নতুন নিয়োগ বিধিমালায় শিক্ষক নিয়োগ আগের মতোই উপজেলা বা থানাভিত্তিক করা হয়েছে। তবে কেন্দ্রীয়ভাবে গঠিত সহকারী শিক্ষক নির্বাচন কমিটির সুপারিশ ছাড়া কোনো ব্যক্তিকে সহকারী শিক্ষক পদে সরাসরি নিয়োগ দেওয়া যাবে না।

 

এ ছাড়া বাংলাদেশের স্থায়ী বাসিন্দা না হলে বা বাংলাদেশের নাগরিক ভিন্ন কাউকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগ দেওয়া যাবে না।

 

 

 

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগের ক্ষেত্রে ২০১৩ সালের নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করে এতদিন শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতি কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে। এখন থেকে নতুন নিয়োগ বিধিমালা কার্যকর হবে।

 

নতুন বিধিমালায় সহকারী শিক্ষক পদে পুরুষ ও নারী উভয়ের ক্ষেত্রেই শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএসহ স্নাতক বা অনার্স অথবা সমমানের ডিগ্রি হতে হবে। বয়সসীমা নির্ধারণ করা হয়েছে ২১ থেকে ৩০ বছর। তবে নারী প্রার্থীদের জন্য ৬০ শতাংশ কোটা বহাল থাকবে। ২০ শতাংশ পোষ্য কোটা ও বাকি ২০ শতাংশ পুরুষ প্রার্থীদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বিজ্ঞান বিষয়ে পাস করা প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। যদি ২০ শতাংশ কোটা পূরণ না হয়, তবে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যা অধ্যক্ষসহ দুই শিক্ষকের এমপিও স্থগিত

ডেস্ক,১৩এপ্রিলঃ   গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করা নুসরাত জাহান রাফির সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাযিল মাদরাসার অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ-উদ-দৌলার এমপিও স্থগিত করা হয়েছে। ওই মাদরাসার অন্য এক শিক্ষকেরও এমপিও স্থগিত করতে বৃহস্পতিবার মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে চিঠি পাঠিয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তর।

 

চিঠিতে অধ্যক্ষ এ এস এম সিরাজ উদদৌলা (ইনডেক্স-৩০৪১১১) এবং ইংরেজির প্রভাষক আফসার উদ্দিনের (ইনডেক্স-২০৩০৫০৮) এমপিও স্থগিত করতে বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, ‘আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে শ্লীলতাহানী মামলা নং-২৪, তারিখ ২৭/০৩/২০১৯ এবং হত্যা মামলা নং-১০, তারিখ ০৮/০৪/২০১৯ সোনাগাজী থানার প্রেক্ষিতে  অধ্যক্ষ এবং ইংরেজি বিষয়ের প্রভাষক গ্রেপ্তার হওয়ায় তাদের এমপিও স্থগিত হওয়া প্রয়োজন।’

 

নুসরাতের পরিবারের করা শ্লীলতাহানির মামলায় গ্রেফতার হয়ে এখন বন্দি রয়েছেন অধ্যক্ষ সিরাজ।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

প্রাথমিকে স্ব স্ব বিদ্যালয়ে প্রশ্নপত্র প্রনয়নের নির্দেশ।

নিজস্ব প্রতিবেদক,১১ এপ্রিল: প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্ব স্ব বিদ্যালয়ে প্রশ্নপত্র প্রনয়নের নির্দেশ দিয়েছে খুলনা বিভাগীয় উপপরিচালক মেহেরুননেসা। গত ৮ এপ্রিল প্রাথমিক ও গনশিক্ষা মন্ত্রনালয়ে বিভাগীয় উপপরিচালকদের নিয়ে সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয।

সভায় সকল সাময়িক ও বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রনয়নের জন্য ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ করা হয়। এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্ত্রনালয়ের এ সিদ্দান্তকে স্বাগত জানাই বিভিন্ন শিক্ষক।

জিয়াউর রহমান নামে এক শিক্ষক কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিযেছে। মোস্তাক আহমেদ জানিয়েছে এটা বড় ও বাস্তব সিদ্ধান্ত।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

মাদ্রাসা শিক্ষকদের বৈশাখী ভাতার চেক ছাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক,১০এপ্রিলঃ এমপিওভুক্ত মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের ১৪২৬ বঙ্গাব্দের ২০ শতাংশ বৈশাখী ভাতার চেক ছাড় হয়েছে। বুধবার (১০ এপ্রিল) বৈশাখী ভাতার চারটি চেক অনুদান বণ্টনকারী রাষ্ট্রায়াত্ব ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১১এপ্রিল) পর্যন্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা বৈশাখী ভাতার টাকা তুলতে পারবেন।মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শামসুজ্জামান শিক্ষা বার্তাকেএ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্মারক নম্বরঃ ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.১৯-১৩৪।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নববর্ষ উদযাপনের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১০এপ্রিলঃ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলা নববর্ষ উদযাপনের নির্দেশ দিয়েছে সরকার। সোমবার (৮ এপ্রিল) অধিদপ্তরগুলোকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নববর্ষ উদযাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। অধিদপ্তরগুলো থেকে এদিনই জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের কাছে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে।

১৪১৭ বঙ্গাব্দ থেকে জাতীয়ভাবে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হচ্ছে। গত ২৪ মার্চ শিল্পকলা একাডেমিতে জাতীয়ভাবে ১৪২৬ বঙ্গাব্দের নববর্ষ উদাপনের কর্মসূচি প্রণয়নে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। সভায় স্কুল, কলেজ মাদরাসাসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলা নববর্ষ উদযাপনে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুসারে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করতে বলা হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

নিয়োগ বিধি ।প্রাথমিক শিক্ষা কোন পথে

ডেস্ক,১০এপ্রিলঃ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৯ প্রকাশ হবার পর থেকে প্রাথমিক শিক্ষকদের মধে ্য নানা মত দেখা দিয়েছে।ফেসবুকের শালিক আহমেদের পোষ্ট থেকে হুবুহ তুলে ধরা হল।

উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ কিন্তু প্রাথমিক শিক্ষা কোন পথে !!!!!!!!!

প্রধান শিক্ষক পদটি যখন ৩য় শ্রেণি ছিল তখন এ পদে শিক্ষাগত যোগ্যতা ছিল স্নাতকোত্তর /মাষ্টার্স পাশ। পদ ২য় শ্রেণিতে উন্নীত হলো কিন্তু শিক্ষাগত যোগ্যতা সিম্পল ডিগ্রীতে নেমে গেল !!!!!!!!!!

প্রাথমিক শিক্ষা ৫ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণিতে উন্নীত হল কিন্তু নতুন নিয়োগ বিধি ২০১৯ এ -এ পদে প্রবেশ যোগ্যতা চাওয়া হল স্নাতক।

যখন ছিলো কেবলই শতভাগ ভর্তি আর সবার জন্য শিক্ষা,তখন ছিল সহ.শিক্ষক এসএসসি/ডিগ্রি এবং প্রশি স্নাতকোত্তর।

কিন্তু আজ যখন উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষার অঙ্গীকার, ঠিক তখনই সহ.শি. যোগ্যতা ডিগ্রীতে উন্নীত করলেও প্রতিষ্ঠান প্রধানের যোগ্যতা স্নাতকোত্তর (মাষ্টার্স) থেকে পিছিয়ে করা হলো স্নাতক। তাহলে ডিপার্টমেন্ট সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে নাকি পিছিয়ে যাচ্ছে??? আদৌ কি দেশের প্রাথমিক শিক্ষা ৮ম শ্রেণিতে উন্নীত করার সদিচ্ছা আছে, নাকি ফাঁকাবুলি??? আদৌ সুষ্ঠু পরিকল্পনা কিংবা SWOT এনালাইসিসের মাধ্যমে টেকসই বিধিমালা প্রণীত হয়েছে নাকি প্রশিদের ২য় শ্রেণির পদমর্যাদা, বাইনেইম গেজেট এবং পদোন্নতিসহ ২য় শ্রেণির কর্মকর্তা হিসেবে পুর্ণাঙ্গ সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার কোন দুরভিসন্ধিপূর্ণ উদ্দেশ্য রয়েছে???????? এই বিধিমালা সার্বজনীন গ্রহণযোগ্যতা পাবে নাকি প্রশ্নবিদ্ধ হবে ? এর কারণ কি? তা বোধগম্য নয়!!! বাংলাদেশের অন্য কোন ডিপার্টমেন্টে নতুন নিয়োগবিধিমালা প্রণয়নের সাথে যোগ্যতা পিছিয়ে যাওয়ার ইতিহাস আছে কিনা জানা নেই! তাছাড়া, আরো ৫/৭ বছর পর সহকারী শিক্ষকদের সরাসরি নিয়োগ যোগ্যতা মাষ্টার্সে উন্নীত করার যেমন সম্ভাবনা রয়েছে পক্ষান্তরে, প্রধান শিক্ষক সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চ-মাধ্যমিকে নামিয়ে আনে কিনা, এমন ভাবনা উড়িয়ে দেওয়ার অবকাশ নেই!!!!! প্রশ্নগুলোর জবাব দেবে কে? বিজ্ঞজনের মতামত আশা করছি।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail