শারীরিক অনুশীলন শিশুদের মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়ায়

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে, শারীরিক অনুশীলন শিশুদের মস্তিষ্কের ক্ষমতা বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়। আগে ধারণা ছিল, শুধু চিন্তা করলেই বুঝি ব্রেনের কার্যক্ষমতা বাড়ে। কিন্তু স্পেনের গ্রান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দল জানাচ্ছে, এ ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। শুধু পড়াশোনা করলেই ব্রেনের কার্যক্ষমতা বাড়ে না। তার জন্য দরকার শারীরিক কসরত। গবেষণায় জানা গেছে, যেসব শিশু নিয়মিত খেলাধুলা করে তাদের মস্তিষ্কে গ্রে মেটারের পরিমাণ বাড়ে। গ্রে মেটার মস্তিষ্কের এমন একটি উপাদান, যা স্মৃতিশক্তি ও কার্যক্ষমতা বাড়ায়। শারীরিক অনুশীলনকারী শিশুদের মানসিক ক্ষমতাও বেশি হয়। তারা আত্মবিশ্বাসী হয়। দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারে। গবেষক দল আরো জানিয়েছে, শারীরিকভাবে দক্ষ শিশুরা অন্যদের তুলনায় যারা খেলাধুলা না করে সারাক্ষণ বই নিয়ে পড়ে থাকে তাদের চেয়ে বেশি সামাজিকভাবে দক্ষ হয়। প্রথমদিকে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় একটু খারাপ হলেও পরবর্তীতে তারা খুব দ্রুতই সেই শূন্যতা কাটিয়ে উঠে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারে। বরং খেলাধুলা না করে যেসব শিশু সারাক্ষণ শুধু পড়াশোনা নিয়ে মেতে থাকে, প্রথম জীবনে তারা ভালো ফলাফল করলেও পরবর্তী জীবনে অনেক কিছুই ব্যর্থ হয়। গ্রান্ডা বিশ্ববিদ্যালয় এবং হেলথ ইনস্টিটিউটের গবেষক দলের প্রধান ফ্রান্সিস কো বি ওর্তেগা জানিয়েছেন, শারীরিক দক্ষতা শিশুদের ব্রেনের বিভিন্ন অংশের সঙ্গে সরাসরি দ্রুত সংযুক্তি তৈরি করে, যা তাদের সারাজীবনের কর্মকাণ্ডের ওপর পজিটিভ প্রভাব ফেলে। প্রাতিষ্ঠানিক ও কর্মজীবনে তারা দ্রুত সফল হয়।

সংবাদটি আমাদের বাংলাদেশের শহুরে শিশুদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্ববহ। কারণ আমাদের দেশের শিশুরা এখন নিয়মিত খেলাধুলার সুযোগ পায় না। ছোট ছোট ফ্ল্যাটে বন্দি তারা। স্কুলে ও এলাকায় খেলার মাঠ নেই। খেলা বলতে তাদের এখন কম্পিউটারে মোবাইলে ভিডিও গেমস। ফলে শারীরিকভাবে তারা খুব দুর্বল হয়ে পড়ছে। অন্যান্য রোগের সঙ্গে তাদের মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতাও কমে যাচ্ছে। অদূর ভবিষ্যতেই হয়তো তার মারাত্মক প্রভাব পড়বে। তার জন্য এখনই সচেতনতা দরকার। শিশুদের অবশ্যই প্রতিদিন কিছু শারীরিক অনুশীলনের সুযোগ করে দিতে হবে।

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*