চুয়াডাঙ্গায় দুই স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি,২২ এপ্রিল:

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও ঝিনাইদহের মহেশপুরে ২ স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গত রবিবার বিকেলে দুজনকেই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে।

ধর্ষিত এক শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা জানান, মহেশপুরে ওই শিক্ষার্থী জ্বরে আক্রান্ত হলে তাকে গ্রাম্য চিকিৎসক সাইফুলের কাছে নেওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে জ্বর একটু ভালো হলে রবিবার আবারো তাকে দেখা করতে বলে ওই চিকিৎসক সাইফুল। ঘটনার দিন গত রবিবার সকালে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ওই শিক্ষার্থী একাই চিকিৎসা নিতে গেলে ওই গ্রাম্য চিকিৎসক সাইফুল মেয়েটিকে ধর্ষণ করে।

এ সময় ধর্ষিতা ওই শিক্ষার্থীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে গেলে সাইফুল পালিয়ে যায়। পরে পরিবারের সদস্যরা মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ ইন্সপেক্টর রাশেদুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর রবিবার রাতে অভিযুক্ত ধর্ষক ওই গ্রাম্য চিকিৎসক সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এদিকে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামে এক এসএসসি পরীক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। অপহরণের পর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেন।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশ ইন্সপেক্টর শেখ গণি মিয়া জানান, উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের এসএসসি পরীক্ষার্থী ওই শিক্ষার্থীকে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে অপহরণ করে একই এলাকার গোলাম মোস্তফার ছেলে সাখাওয়াত হোসেন শহীদ ও তার সহযোগীরা। এ ঘটনায় অপহৃত শিক্ষার্থীর বড় ভাই থানায় মামলা করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে গত রবিবার বিকেলে ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে। এ সময় অপহরণকারী সাখাওয়াত হোসেনকেও আটক করা হয়। অপহরণের পর ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করলে ধর্ষিতা মেয়েটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার শামীম কবীর জানান, রবিবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার দুই শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে ঝিনাইদহের মহেশপুরের শিক্ষার্থীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে। ধর্ষণের কারণে ওই শিক্ষার্থীর প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। অন্যদিকে, জীবননগরে ধর্ষণের শিকার হওয়া এলাকার নিশ্চিন্তপুরের এসএসসি পরীক্ষার্থীর ডাক্তারি পরীক্ষা প্রক্রিয়াধীন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

চুয়াডাঙ্গা শিশু ধর্ষন মামলার প্রধান আসামী আব্দুল মালেক যশোর থেকে গ্রেপ্তার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি(১৩.০৭.১৯): চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামে ৬বছরের এক শিশুকে চকলেট দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষনের মামলার প্রধান আসামী আব্দুল মালেককে (৫০) যশোরের ঝিকরগাছা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিনগত রাত ...

জীবননগরের ঐতিহ্যবাহী আন্দুলবাড়ীয়া বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম লাভলু ইন্তেকালঃ বিভিন্ন মহলে শোক।

জাহিদুল ইসলাম মামুন, আন্দুলবাড়ীয়া,প্রতিবেদক:  চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী আন্দুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক, কাশীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক বিএসসি শিক্ষক,আন্দুলবাড়ীয়া সাহিত্য পরিষদের সাবেক সভাপতি, অত্যান্ত নম্র,ভদ্র,সদাহাস্যজ্বল,কবি,নাট্যকার,সুরকার,গীতিকার, চিএ শিল্পী, অএ ...

যশোরে প্রাথমিকের ৬ ছাত্রীকে টানা ধর্ষণ

যশোর প্রতিনিধি,৫মে: যশোরের খড়কি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছয় শিক্ষার্থীকে দিনের পর দিন ধর্ষণের অভিযোগে আমিনুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার দুপুরে অবৈধপথে ভারতে পালানোর চেষ্টাকালে শার্শার গাতিপাড়া সীমান্ত এলাকা থেকে ...

মাদারীপুরে শিক্ষিকা ধর্ষন

এবার শিক্ষা অফিসার দ্বারা শিক্ষিকা ধর্ষন!

মাদারীপুর প্রতিনিধি,১ মে: মাদারীপুর সদর উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. তোফায়েল হোসেনের বিরুদ্ধে এক শিক্ষিকাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় মাদারীপুর সদর থানায় একটি মামলা  হলেও গ্রেফতার হয়নি সেই ...

hit counter