Home » টপ খবর » গ্রেড উন্নীত হলেও শিক্ষকদের নেই উচ্ছ্বাস বরং ক্ষুব্ধ

গ্রেড উন্নীত হলেও শিক্ষকদের নেই উচ্ছ্বাস বরং ক্ষুব্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক,১১ফেব্রুয়ারীঃ
প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১৪ ও ১৫তম থেকে ১৩তম গ্রেডে উন্নীত করেছে সরকার। রবিবার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি হয়। কিন্তু গ্রেড উন্নীত হলেও শিক্ষকদের কোনো উচ্ছ্বাস নেই বরং ক্ষুব্ধ হয়েছেন তারা। এমনকি আন্দোলনের কথাও বলেছেন। তারা বলছেন, গ্রেড উন্নীত করে সহকারী শিক্ষকদের মধ্যেই একপ্রকার বৈষম্য তৈরি করা হয়েছে।

শিক্ষকরা বলছেন, আমরা বেতন বৃদ্ধি নয়, গ্রেড বৈষম্য নিরসনের দাবি জানিয়েছি। প্রধান শিক্ষকদের একধাপ নিচে সহকারী শিক্ষকদের গ্রেড নির্ধারণের জন্য আন্দোলন করেছি। প্রধান শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেড থেকে ১০তম গ্রেডে এবং সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১৫ ও ১৪তম গ্রেড থেকে ১১তম গ্রেডে উন্নীত করার দাবি করেছিলাম। কিন্তু সরকার আমাদের দাবি মানেনি। গ্রেড উন্নীত করায় নতুন নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের সুবিধা বাড়বে। কর্মরতদের নগণ্য পরিমাণ বাড়বে, কারো কমতেও পারে।

তথ্য অনুযায়ী, এতদিন সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা ১৪তম গ্রেডে (১০ হাজার ২০০ টাকা) এবং প্রশিক্ষণবিহীন ১৫তম গ্রেডে (৯ হাজার ৭০০ টাকা) বেতন পেতেন। তাদের দাবি ছিল ১১তম গ্রেড প্রদান। এই গ্রেডে বেতন স্কেল ১২ হাজার ৫০০ টাকা। শিক্ষকরা বলছেন, তাদের বেতন বৃদ্ধির পরিমাণ খুবই নগণ্য। যা মেনে নেওয়া যায় না। ১৩তম গ্রেডে উন্নীত হওয়ায় তারা ১১ হাজার টাকা স্কেলে বেতনভাতা পাবেন।

শিক্ষকদের অভিযোগ, পদমর্যাদা অনুযায়ী প্রধান শিক্ষকদের নিচের ধাপে সহকারী শিক্ষকদের অবস্থান হলেও বেতন তিন ধাপ নিচে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শামছুদ্দিন মাসুদ বলেন, একই যোগ্যতায় অন্য মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরের সরকারি চাকরিরত সবার বেতন গ্রেডই তাদের তুলনায় তিন থেকে চার ধাপ ওপরে। ক্ষেত্রবিশেষে শিক্ষকদের চেয়ে কম শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে অন্য মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরে সহকারী শিক্ষকদের তুলনায় বেশি বেতনে চাকরি করেন।

প্রধান শিক্ষকের গ্রেড উন্নীত সংক্রান্ত মামলা চলমান রয়েছে। প্রধান শিক্ষকরা ১১তম গ্রেড থেকে ১০তম গ্রেডে উন্নীত করার জন্য উচ্চ আদালতে মামলা করেন। আদালত শিক্ষকদের পক্ষে রায় প্রদান করেন। কিন্তু সরকার পক্ষ ঐ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে প্রক্রিয়াটি ঝুলে যায়। এ কারণে আদালতে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত প্রধান শিক্ষকরা ১১তম গ্রেডেই বেতন পাবেন।

শামছুদ্দিন মাসুদ বলেন, গ্রেড উন্নীত করায় শিক্ষকদের বেতন কমার আশঙ্কা আছে। তিনি বলেন, উচ্চ ধাপে বেতন পুনর্নির্ধারণ করলে দীর্ঘদিন ধরে কর্মরত শিক্ষকদের বেতন সামান্য বাড়বে। তা ২০০, ৫০০ টাকা হতে পারে। নিম্নধাপে বেতন পুনর্নির্ধারণ অনেকের বেতন কমবে।

শিক্ষক নেতারা জানিয়েছেন, এতদিন প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে বৈষম্য ছিল। এবার বৈষম্য নিরসনের কথা বলে তাতে নিয়োগ বিধি ২০১৯ এর তপশিল ২(গ) এর শর্ত জুড়ে দিয়ে খোদ সহকারী শিক্ষকদের মধ্যেই বৈষম্য সৃষ্টি করা হচ্ছে।

বর্তমানে প্রাথমিকে নিয়োগের জন্য সব শিক্ষকের (নারী ও পুরুষ) শিক্ষাগত যোগ্যতা ডিগ্রি পাশ নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু এর আগে নারীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ ছিল এসএসসি/এইচএসসি। ফলে আগের বিধিমালায় যারা নিয়োগ পেয়েছেন তাদের গ্রেড উন্নীত হবে না।

গ্রেড উন্নীতকরণে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে একইসঙ্গে তুলে দেওয়া হয়েছে প্রশিক্ষণ আর প্রশিক্ষণবিহীনদের গ্রেড পার্থক্য। এরও প্রতিবাদ জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে সারাদেশে ৬৫ হাজার ৯০২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এগুলোতে ৩ লাখ ৭৫ হাজার সহকারী শিক্ষক ও ৪২ হাজার প্রধান শিক্ষক রয়েছেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather
Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather
Advertisements

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

প্রাথমিকের টেলিভিশনে পাঠদান কার্যক্রম খুব শীঘ্রই।।

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতির বক্তব্যের প্রতিবাদ নিজস্ব প্রতিবেদক,৩ এপ্রিল: করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। অনাকাঙ্ক্ষিত এ ছুটিতে মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনে ...

সরকার বাড়ি ভাড়া মওকুফ, ব্যাংক লোন ও বিদ্যুৎ বিল স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ০৩ এপ্রিল, ২০২০ বাড়ি ভাড়া মওকুফ, ব্যাংক লোন ও বিদ্যুৎ বিল তিন মাসের জন্য স্থগিত করা, সব অফিসে এক মাসের ছুটির বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি সরকার। বিষয়গুলোকে ...

প্রাথমিকের ক্লাস শুরু ৫ এপ্রিল

নিজস্ব প্রতিবেদক,২এপ্রিলঃ করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে স্কুল বন্ধ থাকায় আগামী ৫ এপ্রিল থেকে টেলিভিশনে শুরু হবে প্রাথমিক স্তরের তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঠদান। সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশনের মাধ্যমে ওইদিন রেকর্ডিং ক্লাস সম্প্রচার ...

করোনা

বাম হাতে বিসিজি টিকার দাগ থাকলে পাচ্ছেন করোনার সুখবর

ডেস্ক,২এপ্রিলঃ আমাদের দেশে অধিকাংশ মানুষের শরীরে দেয়া হয়েছে বিসিজি বা ব্যাসিলাস ক্যালমেট-গুউরিন টিকা। এ মুহূর্তে নিজেকে খুব সৌভাগ্যবান ভাবতে পারেন যদি আপনার বাম হাতে থাকে বিসিজি টিকার দাগ। এটি যক্ষার ...

hit counter