Home » ভর্তি ও পরীক্ষা » একাদশ শ্রেণীতে গ্রাম-শহরে ভর্তি ফি বৈষম্য

একাদশ শ্রেণীতে গ্রাম-শহরে ভর্তি ফি বৈষম্য

ঢাকা: একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির ক্ষেত্রে ফি নির্ধারণে গ্রাম-শহরের বৈষম্য স্পষ্ট। উপজেলা ও জেলা যেখানে ভর্তি ফি সর্বোচ্চ ২ হাজার টাকা, সেখানে ঢাকায় সর্বোচ্চ ৯ হাজার টাকা।

এছাড়া ভর্তি নীতিমালায় উন্নয়ন ফি নামে আরেকটি খাতে ৩ হাজার এবং বোর্ড ফি বাবদ ২শ’ টাকা ধার্য করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে ঢাকার একটি কলেজে একজন শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে অভিভাবকের কমপক্ষে ১২ হাজার ২শ’ টাকা লাগছে।

শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন জানান, ‘এটা ঠিক শহর-গ্রামে ফি নির্ধারণে পার্থক্য বেশি হয়ে গেছে। নীতিমালা আমার কাছে আসার পর বিষয়টি আমারও নজর কেড়েছিল। আমরা এবার নতুন কিছু করছি না। কয়েক বছর ধরেই এটা চলে আসছে। বিষয়টি ঢাকার মানুষের জন্য সহনীয় হয়ে গেছে।’

এদিকে দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদরা এই ফি নির্ধারণকে ‘স্পষ্ট বৈষম্য’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। পাশাপাশি এ বৈষম্য দূর করতে সরকারের প্রতি তাগিদ দিয়ে তারা বলেছেন, ঢাকায় কেবল উচ্চবিত্ত বা মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানরা লেখাপড়া করে না। শ্রমজীবী ও নিম্নআয়ের সন্তানরাও লেখাপড়া করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজির অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, কলেজ ভর্তি ফি এমনভাবে নির্ধারণ করতে হবে যাতে কম আয় এবং বেশি আয়ের মানুষের সন্তান একই প্রতিষ্ঠানে পড়তে পারে। অর্থাৎ বিদ্যমান ফি কমিয়ে সবার সীমার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে। সে ক্ষেত্রে ভর্তিতে টিআইএন (করদাতা) সনদ বাধ্যতামূলক করতে হবে। এই সনদ দেখে যিনি ৫-৬ লাখ টাকা কর দেন, তার কাছ থেকে বেশি উন্নয়ন ফি আদায় করতে হবে। আর যারা আয় কর দেয়ার সামর্থ্য রাখেন না, তাদের সন্তানকে উন্নয়ন ফি থেকে রেয়াত দিতে হবে। প্রয়োজনে ভর্তি ফি কমাতে হবে।

বরেণ্য শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, আমরা যে আদর্শ পোষণ করি তা হচ্ছে শিক্ষার ফি যত কম হবে তত জনগণের ভালো। কিন্তু কলেজ ভর্তিতে নির্ধারিত বৈষম্যমূলক ফি এই আদর্শের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এটা কিছুতেই জনগণের জন্য সহনীয় হতে পারে না। বরং এটা তাদের জন্য বহন করা কঠিন হচ্ছে। কেননা ঢাকায় এমন অনেক অভিভাবক আছেন যার সন্তানকে ভর্তি করতে মাসের গোটা আয় ব্যয় করতে হচ্ছে। আমি মনে করি ভর্তি ফি কমানো দরকার। কেবল কলেজে নয়, স্কুলের ক্ষেত্রেও এই নীতি প্রবর্তন করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, তবে গ্রামের ফি বাড়িয়ে বৈষম্য দূর করার উদ্যোগ নেয়া যাবে না। শহরেরটা কমাতে হবে।

নীতিমালা অনুযায়ী মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সেশন চার্জসহ সর্বসাকল্যে ১ হাজার টাকা ভর্তি ফি নেয়া যাবে। জেলা সদর পর্যায়ের কলেজে ২ হাজার টাকা এবং ঢাকা ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকায় ৩ হাজার টাকার বেশি নেয়া যাবে না।

ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৫ হাজার, আংশিক এমপিওভুক্ত বা এমপিওবহির্ভূত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও এমপিওবহির্ভূত শিক্ষকদেও বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য ভর্তির সময় ভর্তি ফি, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফি বাবদ বাংলা মাধ্যমে ৯ হাজার টাকা এবং ইংরেজি মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে অনুমোদিত ফির আওতায় রেজিস্ট্রেশন ফি একশ’ বিশ, ক্রীড়া ফি-৩০, রোভার/রেঞ্জার ফি-১৫, রেড ক্রিসেন্ট ফি-২০ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ফি হিসেবে ৭ টাকা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া কোনো শিক্ষার্থীর পাঠ বিরতি থাকলে পাঠ বিরতি ফি হিসেবে একশ’ টাকা, বিলম্ব ভর্তি ফি ৫০ টাকা এবং শাখা বা বিষয় পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ২৫ টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে।

নীতিমালার বিষয়ে শিক্ষা সচিব বলেন, যদিও নীতিমালায় শহর-গ্রামে একটি ফারাক দেখা যাচ্ছে, তবে দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে যতদূর সম্ভব ফি মওকুফের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এবার নীতিমালা হয়ে গেছে। আগামীতে নীতিমালা প্রণয়নের ক্ষেত্রে শহর-গ্রামের বৈষম্য বিষয়টি আমলে নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৬ মে থেকে একাদশ শ্রেণীতে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হবে। চলবে ৯ জুন পর্যন্ত।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinby feather
Facebooktwitterlinkedinrssyoutubemailby feather
Advertisements

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ স্বাস্থ্য অধিদফতরের অধীনে আগামী ৪ অক্টোবর (শুক্রবার) এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও ওইদিন ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। পরীক্ষা এক ...

কুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষনা

ডেস্ক,২২ আগষ্ট: খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ২০১৯-২০২০ শিক্ষা বর্ষের ১ম বর্ষ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং, বিইউআরপি ও বিআর্ক কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ১৮ অক্টোবর। সকাল সাড়ে ৯টা থেকে পরীক্ষা চলবে দুপুর ...

সাত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ ভর্তির আবেদন শুরু ১০ সেপ্টেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৯ আগস্ট , ২০১৯: সাতটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ৭টি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তির আবেদন শুরু ...

এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ৪ অক্টোবর

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৯ আগষ্ট: এমবিবিএস কোর্সে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৪ অক্টোবর। সোমবার (১৯ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদফতরের চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ডা. এ ...

hit counter